Breaking News
Abhishek Banerjee: বিজেপি নেত্রীকে নিয়ে ‘আপত্তিকর’ মন্তব্যের অভিযোগ, প্রশাসনিক পদক্ষেপের দাবি জাতীয় মহিলা কমিশনের      Convocation: যাদবপুরের পর এবার রাষ্ট্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়, সমাবর্তনে স্থগিতাদেশ রাজভবনের      Sandeshkhali: স্ত্রীকে কাঁদতে দেখে কান্নায় ভেঙে পড়লেন 'সন্দেশখালির বাঘ'...      High Court: নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় প্রায় ২৬ হাজার চাকরি বাতিল, সুদ সহ বেতন ফেরতের নির্দেশ হাইকোর্টের      Sandeshkhali: সন্দেশখালিতে জমি দখল তদন্তে সক্রিয় সিবিআই, বয়ান রেকর্ড অভিযোগকারীদের      CBI: শাহজাহান বাহিনীর বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ! তদন্তে সিবিআই      Vote: জীবিত অথচ ভোটার তালিকায় মৃত! ভোটাধিকার থেকে বঞ্চিত ধূপগুড়ির ১২ জন ভোটার      ED: মিলে গেল কালীঘাটের কাকুর কণ্ঠস্বর, শ্রীঘই হাইকোর্টে রিপোর্ট পেশ ইডির      Ram Navami: রামনবমীর আনন্দে মেতেছে অযোধ্যা, রামলালার কপালে প্রথম সূর্যতিলক      Train: দমদমে ২১ দিনের ট্রাফিক ব্লক, বাতিল একগুচ্ছ ট্রেন, প্রভাবিত কোন কোন রুট?     

Bankura

Accident: ফুটবল খেলে বাড়ির ফেরার পথে বাইক দুর্ঘটনায় মৃত ২ ও আহত ১

ফুটবল খেলতে গিয়ে বাড়ি ফেরার পথে ঘটল মর্মান্তিক পথ দুর্ঘটনা। বাইক দুর্ঘটনায় মৃত্য়ু হল দুই জনের এবং আহত এক। মঙ্গলবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে বিষ্ণুপুরের ডাঙ্গরপাড়া এলাকায়। বর্তমানে আশঙ্কাজনক অবস্থায় আহত একজন বিষ্ণুপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। জানা গিয়েছে, মৃতদের নাম শুভজিৎ বাগদি (২৫) ও তারাপদ বাগদি (২৬)। তাঁদের দুজনের বাড়ি সোনামুখীর পাঁচাল এলাকার আড়লকোনা গ্রামে। জখম ওই যুবকের নাম মিলন বাগদি। বাড়ি বিষ্ণুপুরের কাঁকিলা গ্রামে। 

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার বিকেলে পাত্রসায়ের হাসিপুকুরে একটি ফুটবলের সেমি ফাইনাল খেলা ছিল। খেলা শেষ হবার পর শুভদীপ বাগদি, তারাপদ বাগদি ও মিলন বাগদি এই তিনজন একটি মোটর বাইকে করে বাড়ি ফিরছিলেন। এরপর রাত সাড়ে সাতটা নাগাদ পাত্রসায়ের বিষ্ণুপুরের রাস্তায় ডাঙ্গরপাড়া এলাকায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাইকটি দুর্ঘটনার কবলে পড়ে যায়। রাস্তায় ছিটকে পড়ে বাইকে থাকা ওই তিনজনেই। 

এরপর তাঁদের তিনজনকে উদ্ধার করে বিষ্ণুপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা শুভদীপ বাগদি ও তারাপদ বাগদিকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

6 months ago
Bankura: জমি সংক্রান্ত বিবাদ! ধারালো অস্ত্র দিয়ে খুনের অভিযোগ প্রতিবেশীর বিরুদ্ধে

প্রতিবেশীর হাতে খুনের অভিযোগ একই পরিবারে দুই জনের। জানা গিয়েছে, প্রতিবেশীর ধারালো অস্ত্রের আঘাতে মৃত্য়ু হয়েছে ওই দু'জনের। অভিযোগ ঘটনায় আহত আরও এক মহিলা। ঘটনার পর থেকে পলাতক অভিযুক্ত পিন্টু রুইদাস নামের ওই প্রতিবেশী। রবিবার রাতে এই ঘটনাটি ঘটেছে বাঁকুড়ার নতুনচটি এলাকায়। বর্তমানে গুরুতর জখম অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছে আহত ওই মহিলা। 

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছ, বাঁকুড়া নতুনচটি এলাকায় অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক মথুর মোহন দত্তের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে জায়গা সংক্রান্ত বিবাদ চলছিল প্রতিবেশী পিন্টু রুইদাসের। রবিবার সন্ধ্যায় সেই ঝামেলা বিশাল আকার নেয়। অভিযোগ, ঝামেলা চলাকালীন পিন্টু রুইদাস নামে ওই প্রতিবেশী ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে অবসরপ্রাপ্ত ওই শিক্ষকের পরিবারের সদস্য়ের উপর। এরপর খবর পেয়ে বাঁকুড়া সদর থানার পুলিস ঘটনাস্থলে গিয়ে রক্তাক্ত জখম অবস্থায় মথুর বাবু ও তাঁর স্ত্রী ও ছেলেকে উদ্ধার করে বাঁকুড়া মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি করে। 

এরপর বাঁকুড়া মেডিক্যালে চিকিৎসারত অবস্থায় মৃত্যু হল মথুর মোহন দত্ত ও তাঁর ছেলে শ্রীধর দত্তের। গুরুতর জখম অবস্থায় এখনও চিকিৎসাধীন মৃত মথুর বাবুর স্ত্রী। জমি সংক্রান্ত বিবাদ নাকি অন্য় কোনও কারণ রয়েছে এর পিছনে তা নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে বাঁকুড়া সদর থানার পুলিস।

7 months ago
Bankura: শস্যবিমায় দুর্নীতির অভিযোগ, ভুয়ো কৃষক হয়েও পাচ্ছে মোটা অঙ্কের বিমার টাকা

শিক্ষা ও রেশন দুর্নীতির পর এবার অভিযোগ উঠেছে শস্যবিমা দুর্নীতির। গ্রামের প্রকৃত কৃষকদের জমির পরিমাণ কমিয়ে ভুয়ো কৃষক হিসেবে শস্যবিমা পাইয়ে দেওয়ার অভিযোগ। বাঁকুড়ার ছাতনা ব্লকের হাউসিবাদ গ্রামের এমন ঘটনা জানাজানি হতেই নড়েচড়ে বসেছে কৃষি দফতর। অভিযোগ, একটি গ্রামের ২২ জন ভুয়ো কৃষক হিসাবে মোটা অঙ্কের বিমার টাকা পেয়েছে।

জানা গিয়েছে, গত কয়েকবছর থেকেই এ রাজ্যের কৃষকরা খারিফ (বর্ষাকালীন ফসল) ও রবি (শীতকালীন ফসল) মরসুমে নিজেদের শস্যবিমা করার সুযোগ পাচ্ছেন। তাই দুটি মরসুমে পৃথকভাবে নিজেদের চাষযোগ্য জমির বিবরণ সহ শস্যবিমা করার জন্য ব্লক স্তরের কৃষি দফতরে আবেদন জানান কৃষকরা। সেই আবেদনের তথ্য যাচাই করে কৃষি দফতর তা পাঠিয়ে দেয় বিমা সংস্থার কাছে। আবহাওয়া বা অন্য কোনো কারনে ফসলহানী হলে সরাসরি বিমা সংস্থা কৃষকের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে বিমার টাকা জমা করে। 

চলতি বছরে আবহাওয়ার খামখেয়ালিপনায় বাঁকুড়ার ছাতনায় খারিফ মরসুমে ফসলের ক্ষতি হয়েছে। কারণ বৃষ্টির অভাবে বহু জমিতে ধান রোপণ করতে পারেননি ওই ব্লকের কৃষকরা।  সেই কারণে সম্প্রতি বিমা সংস্থার তরফে ছাতনা ব্লকের কৃষকদের শস্যবিমার টাকা পাঠানো শুরু হয়েছে। আর তাতেই উঠে এসেছে বড়সড় বেনিয়মের অভিযোগ। ছাতনা ব্লকের হাউসিবাদ গ্রামের কৃষকদের একাংশের দাবি, গ্রামের প্রকৃত কৃষকরা যে পরিমাণ জমির তথ্য আবেদনপত্র জমা দিয়েছিলেন তা ইচ্ছাকৃত ভাবে কমিয়ে দিয়েছে কৃষিদফতর। অভিযোগ, গ্রামের যে সমস্ত কৃষকদের নিজস্ব জমি নেই তাঁদের অ্যাকাউন্টে মোটা মোটা অঙ্কের বিমার টাকা ঢুকেছে।

ইতিমধ্যেই এই বিষয়ে স্থানীয় বিডিও, জেলা শাসক এমনকি মুখ্যমন্ত্রীর কাছে লিখিত অভিযোগ জানিয়েছেন গ্রামবাসীরা। অভিযোগ পেতেই তদন্ত শুরু করেছে কৃষি দফতর।

7 months ago


Bankura: বিশ্বকাপে দেশের হার, মানতে না পেরে আত্মঘাতী বাঁকুড়ার যুবক

বিশ্বকাপ ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার কাছে দেশের হার মেনে নিতে পারেননি আপাদমস্তক গোটা ভারতবাসী। স্টেডিয়ামেই কান্নায় ভেঙে পড়েছেন হাজার হাজার ক্রিকেটভক্ত। কিন্তু বাঁকুড়া জেলার বেলিড়াতোড়ের এক যুবক বিশ্বকাপ ফাইনালে ভারতের হার সহ্য করতে পারেননি। রবিবার রাতে নিজের বাড়িতেই গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছেন তিনি। আত্মঘাতী যুবকের নাম রাহুল লোহার (২৩)। পরিবারের দাবি, বিশ্বকাপ ফাইনালে ভারতের হারে মানসিক অবসাদে ভোগেন। যার জেরেই আত্মহত্যার মতো কঠিন পথ বেছে নিলেন।

মৃতের আত্মীয় জানান, রাহুল লোহার ক্রিকেটের অন্ধ ভক্ত। সারা দেশের পাশাপাশি তাঁরও আশা ছিল দেশ এবার বিশ্বকাপ জিতবে। পেশায় শাড়ির দোকানের কর্মচারী রাহুল একবুক আশা নিয়ে রবিবার কাজে না গিয়ে বন্ধু বান্ধবদের সঙ্গে বেলিয়াতোড় সিনেমা হলের সামনে প্রোজেক্টারে খেলা দেখতে বসেছিলেন। খেলা শেষ হওয়ার পর স্বপ্নভঙ্গের যন্ত্রণা নিয়ে রাহুল বাড়ি ফিরে আসেন। এরপরই  মানসিক অবসাদে নিজের বাড়িতে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেন রাহুল। রাত এগারোটা নাগাদ রাহুলের ভাই বাড়িতে ফিরে দাদার ঝুলন্ত দেহ দেখতে পান। তড়িঘড়ি তাঁকে উদ্ধার করে বেলিয়াতোড় হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

উল্লেখ্য, বেলিয়াতোড় থানার পুলিস মৃতদেহটি ময়না তদন্তের জন্য বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজে পাঠায়। খেলায় দেশের হারের কারণে মানসিক অবসাদ থেকে এই আত্মহত্যা নাকি এর পিছনে রয়েছে অন্য কোনো রহস্য, তা খতিয়ে দেখছে পুলিস।

7 months ago
Bankura: বন্ধ ঘর থেকে উদ্ধার ব্যবসায়ীর মৃতদেহ, চাঞ্চল্য বাঁকুড়ার বাগদীপাড়া এলাকায়

দোতলা বাড়ির বন্ধ ঘর থেকে উদ্ধার হল এক ব্যক্তির মৃতদেহ। বৃহস্পতিবার ঘটনাটি ঘটেছে বাঁকুড়ার বাগদীপাড়া এলাকায়। জানা গিয়েছে মৃত ব্যক্তির নাম মন্টু গুই (৬০)। পেশায় সবজি ব্যবসায়ী। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে বাঁকুড়া সদর থানার পুলিস গিয়ে মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজে পাঠায়। 

স্থানীয় সূত্রে খবর, লক্ষ্মী পুজোর সময় মন্টু গুইয়ের স্ত্রী ও তাঁর ছেলে মেয়েকে সঙ্গে নিয়ে বাপের বাড়ি যান। বাড়িতে একাই ছিলেন মন্টু গুই। তারপর হঠাৎ এদিন সকাল থেকে একটা পচা গন্ধ পান স্থানীয়রা। গন্ধর উৎস খুঁজে না পেয়ে স্থানীয়রা মন্টু গুইয়ের বাড়ির খোলা জানালা দিয়ে ভিতরে তাকাতেই দেখেন তিনি মৃত অবস্থায় খাটে পড়ে রয়েছেন।এরপর স্থানীয়রা খবর দেয় বাঁকুড়া সদর থানায়। তারপর পুলিস এসে দরজা ভেঙে ভিতরে ঢুকে মৃতদেহটি উদ্ধার করে।

প্রাথমিক তদন্তে পুলিসের অনুমান, দু-এক দিন আগে ঘুমের মধ্যে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েই মৃত্যু হয়েছে ওই ব্যক্তির। এই ঘটনার প্রকৃত কারণ জানতে পুলিস পুরো ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। 

7 months ago


Bankura: হাত বাঁধা অবস্থায় বিজেপি নেতার ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার, খুনের অভিযোগ পরিবারের

সক্রিয় বিজেপি (BJP) কর্মীর ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য বাঁকুড়ার গঙ্গাজলঘাটি থানার নিধিরামপুর গ্রামে। বুধবার সকালে বাড়ির অদূরে  শুভদীপ মিশ্র নামের এক বিজেপি নেতার ঝুলন্ত মৃতদেহ দেখতে পান স্থানীয় বাসিন্দারা। পরিবারের অভিযোগ, রাজনৈতিক কারণে বিজেপি কর্মীকে খুন করে গাছে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে। দোষীদের গ্রেফতারের দাবীতে পুলিসকে ঘিরে বিক্ষোভে ফেটে পড়েন এলাকার বাসিন্দারা। উত্তেজিত জনতাকে সঠিক তদন্তের আশ্বাস দেন পুলিস। দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে যেতে গেলে পরিস্থিতি আরও ঘোরালো হয়ে ওঠে।

স্থানীয় ও পুলিস সূত্রে খবর, শুভদীপ মিশ্র ওরফে দীপু (৩০) এলাকায় বিজেপির সক্রিয় কর্মী হিসেবেই পরিচিত। গত গ্রাম পঞ্চায়েত ভোটে গেরুয়া শিবিরের হয়ে নির্বাচনেও দাঁড়িয়েছিলেন তিনি। তবে দিন সাতেক আগে হঠাৎই বাড়ি ছেড়ে অন্যত্র থাকতে শুরু করেন শুভদীপ। মঙ্গলবারই তিনি বাড়িতে ফিরেছিলেন। আর আজ, বুধবার সকালে গঙ্গাজলঘাঁটি থানা এলাকার নিধিরামপুর গ্রামে একটি শিবমন্দিরের পাশের একটি গাছ থেকে তাঁর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়। হাত দুটি গামছা দিয়ে বাঁধা ছিল। তাতেই পরিবার ও স্থানীয় বাসিন্দাদের সন্দেহ তীব্র হয়। তাঁদের দাবি, প্রতিবেশী এক বিবাহিতা মহিলার সঙ্গে দীপুর ভালোবাসার সম্পর্ক ছিল। মহিলার পরিবারের তরফে দীপুকে খুনের হুমকিও দেওয়া হয়েছিল। মৃত বিজেপি কর্মীর পরিবারের দাবি, মহিলার পরিবারের তরফেই দীপুকে খুন করা হয়ে থাকতে পারে। তবে কে বা কারা, কী উদ্দেশ্যে এই ঘটনা ঘটিয়েছেন, তা এখনও স্পষ্ট নয়।

ঘটনার খবর পেতেই এলাকায় ছুটে যান শালতোড়ার বিজেপি বিধায়ক চন্দনা বাউরি। তাঁর দাবি, এর পিছনে রাজনৈতিক কারণও থেকে থাকতে পারে। তিনিও পুলিসের গাড়ি আটকে গাড়ির সামনে শুয়ে পরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। আর তাতে পুলিস তাঁকে হেনস্থা করেছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। যদিও তৃণমূল রাজনৈতিক কারণের অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে। তৃনমূলের দাবি, এই ঘটনা নিছকই আত্মহত্যা। গোটা ঘটনার প্রকৃত তদন্তের দাবিতে পুলিসকে ঘিরে বিক্ষোভে ফেটে পড়েন এলাকাবাসী। মৃতদেহ উদ্ধারেও বাধা দেওয়া হয়। পুলিস পরকিয়ায় যুক্ত মহিলাকে আটক করলে পুলিসের গাড়িতেও হামলা চালান স্থানীয়রা।

8 months ago
Bankura: দারকেশ্বর নদের পাড় থেকে বেআইনি বালি উত্তোলন! বন্যার আশঙ্কা গ্রামবাসীদের

মাটি কাটার সরকারি অনুমতি ছিল। আর সেই অনুমতি দেখিয়েই রীতিমত পে লোডার লাগিয়ে দারকেশ্বর নদের পাড় ও পাড় সংলগ্ন নদী বক্ষ থেকে দেদার তোলা হচ্ছে বালি। এমনই অভিযোগ জানিয়ে রীতিমতো ক্ষোভে ফুঁসছেন নদী তীরবর্তী বেশ কয়েকটি গ্রামের মানুষ। স্থানীয়দের আশঙ্কা এভাবে নদীর পাড় থেকে বালি সরিয়ে ফেলা হলে আগামী বর্ষাতেই বন্যায় ভেসে যাবে গ্রামগুলি। ঘটনাটি বাঁকুড়ার কোতুলপুর ব্লকের ঘোড়াঘাট এলাকায়। এই ঘটনায় স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্নের মুখে ভূমি দফতর ও প্রশাসনের ভূমিকা।

বর্ষার কারণে নদী বক্ষ থেকে আপাতত বালি উত্তোলন বন্ধ রেখেছে বাঁকুড়া জেলা প্রশাসন। সম্প্রতি কোতুলপুর আরামবাগ রাজ্য সড়কের ধারে টোল ট্যাক্স আদায়ের জন্য পূর্ত দফতরের তরফে একটি ভবন নির্মাণের বরাত পায় একটি বেসরকারি ঠিকাদার সংস্থা। সেই ভবনের জন্য প্রয়োজন হয় নীচু জমি ভরাটের। আর সেই ভরাটের কাজ করার জন্য স্থানীয় ভূমি সংস্কার দফতরের কাছে মাটি কাটার অনুমতি নেয় বরাতপ্রাপ্ত সংস্থাটি। অভিযোগ, সেই অনুমতিপত্রকে কাজে লাগিয়েই বরাত পাওয়া ঠিকা সংস্থাটি দারকেশ্বর নদের পাড় ও পাড় সংলগ্ন এলাকা থেকে দেদার বালি উত্তোলন করে তা চড়া দামে বিক্রি করে দিচ্ছে অন্যত্র। এভাবে যন্ত্রের সাহায্যে ট্রাক্টরের পর ট্রাক্টর বালি তুলে ফেলায় দারকেশ্বর নদের পাড়ে থাকা প্রাকৃতিক ভাবে সৃষ্ট বাঁধ লোপাট হওয়ার আশঙ্কা করছেন স্থানীয় মথুরাটপল,  গৌড়, রানাহাট সহ নদ তীরবর্তী গ্রামগুলির মানুষ।

স্থানীয়দের দাবি, নদের পাড় ও পাড় সংলগ্ন এলাকা থেকে অবৈধ ও অবৈজ্ঞানিক ভাবে যেভাবে বালি উত্তোলন করে পাচার করা হচ্ছে তাতে আগামী বর্ষায় দারকেশ্বরের বন্যায় গ্রামগুলি নিশ্চিহ্ন হয়ে পড়তে পারে। ভূমি সংস্কার দফতরের নাকের ডগায় কীভাবে দিনের পর দিন এমন অবৈধ কাজ চলছে তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন এলাকার বাসিন্দারা। কোতুলপুর ব্লকের ভূমি ও ভূমি সংস্কার দফতরের আধিকারিক জানিয়েছেন, মাটি তোলার অনুমতি নেওয়া থাকলেও নদী বক্ষ থেকে বালি তোলার কোনো অনুমতি ওই ঠিকা সংস্থাকে দেওয়া হয়নি। বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছে প্রশাসন।

8 months ago
Bankura: বাড়তি টাকার দাবিতে মাঝপথে অপারেশন বন্ধ করার অভিযোগ বেসরকারি নার্সিংহোমের বিরুদ্ধে

স্বাস্থ্যসাথী কার্ড থাকা সত্ত্বেও, বাড়তি টাকা নেওয়ার অভিযোগ নার্সিংহোমের বিরুদ্ধে। অভিযোগ, নার্সিংহোমের দাবি অনুযায়ী বাড়তি টাকা দিতে না পারায় মাঝপথে অপারেশন থামিয়ে দেওয়া হয়। এই অমানবিক ঘটনাটি ঘটেছে বাঁকুড়ার গোবিন্দনগর এলাকার একটি বেসরকারি নার্সিংহোমে। ঘটনার অভিযোগে বাঁকুড়া সদর থানায় দ্বারস্থ হয় রোগীর পরিজনেরা। 

সূত্রের খবর, পুরুলিয়ার রঘুনাথপুর এলাকার বাসিন্দা শেখ আলমগির বেশ কিছুদিন ধরে শারীরিক সমস্যায় ভুগছিলেন। সম্প্রতি পরীক্ষানিরীক্ষা করে জানতে পারেন তাঁর গলব্লাডারে স্টোন রয়েছে। চিকিৎসকরা গলব্লাডারের স্টোন অস্ত্রোপচার করে বের করার পরামর্শ দেন রোগীর পরিজনদের। এরপর সোমবার বাঁকুড়ার গোবিন্দনগর এলাকার ওই বেসরকারি নার্সিংহোমে রোগীকে অস্ত্রোপচারের জন্য ভর্তি করেন তাঁর পরিবারের লোকজন। 

মঙ্গলবার অস্ত্রোপচার করার কথা ছিল। স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের দ্বারাই রোগী ভর্তি হয়েছিল ওই নার্সিংহোমে। এমনকি ওই রোগীর স্বাস্থ্য়সাথী কার্ডে অস্ত্রোপচারের কথা উল্লেখ ছিল। কিন্তু অপারেশন টেবিলে যাওয়ার পর নার্সিংহোমের কর্তৃপক্ষ জানায় রোগীর পরিজনদের ২০ হাজার টাকা জমা দিতে হবে। আর সেই টাকা জমা না করা পর্যন্ত অপারেশন করা সম্ভব হবে না বলে জানায়। সেই জন্য় রোগীকে অজ্ঞান করার পরেও মাঝপথে বন্ধ করে দেওয়া হয় অপারেশান। 

রোগীর পরিজনদের অভিযোগ, রোগীকে অপারেশন টেবিলে তুলে অজ্ঞান করে ল্যাপারোস্কোপি পদ্ধতিতে অস্ত্রোপচার শুরু করার পর পরিবারের লোকজনের কাছে ২০ হাজার টাকা দাবি করে নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষ। রোগীর পরিজনদের দাবি, যদি টাকা নেওয়ার হত তাহলে অপারেশান টেবিলে নিয়ে যাওয়ার আগে কেন জানানো হল না..? টাকা দিতে না পারায় অস্ত্রোপচার চলাকালীন মাঝপথে থামিয়ে রোগীকে অপারেশন টেবিল থেকে নামিয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। 

যদিও নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষ রোগীর পরিজনদের তরফে তোলা বাড়তি টাকা চাওয়ার অভিযোগ অস্বীকার করেছে। নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষের দাবি, ল্যাপারোস্কোপি পদ্ধতিতে অস্ত্রোপচার করতে গিয়ে চিকিৎসক দেখেন ওই অস্ত্রোপচারে জটিলতা রয়েছে। এই অবস্থায় অস্ত্রোপচার করতে গেলে রোগীর জীবনে বড় ঝুঁকি হয়ে যাবে। সেকারণেই মাঝপথে অস্ত্রোপচার বন্ধ করা হয়েছে। এর সঙ্গে টাকা লেনদেনের কোনও সম্পর্ক না কি নেই। 

9 months ago


Bankura: বাঁকুড়ায় এবার দেওয়াল চাপা পড়ে মৃত্য়ু চার গবাদি পশুর, আহত তিনটি গবাদি

গত কয়েকদিন ধরে দেওয়াল চাপা পড়ে মৃত্যুর ঘটনায় শোরগোল পড়েছে গোটা রাজ্যে। বাঁকুড়ায় ফের মাটির দেওয়াল চাপা পড়ে মৃত্য়ু হল চারটি গবাদি পশুর। আহত আরও তিনটি গবাদি পশু। ঘটনাটি ঘটেছে বাঁকুড়া জেলার পাত্রসায়ের ব্লকের বেন্দা এলাকায়। 

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, রবিবার রাত দুটো নাগাদ আচমকা গোয়াল ঘরের মাটির দেওয়াল গবাদি পশুর উপর ভেঙে পড়ে। তড়িঘড়ি তিনটি গবাদি পশুকে উদ্ধার করা গেলেও চারটি গবাদি পশুর মৃত্যু হয় ঘটনাস্থলে। নিম্নচাপের বৃষ্টিতে মাটির দেওয়াল দুর্বল হয়ে পড়াতেই এই দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে মনে করা হচ্ছে।

বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুরের বাঁকাদহ এলাকায় দেওয়াল চাপা পড়ে তিন শিশুর মৃত্য়ুর ঘটনা ও রবিবার ছাতনায় দেওয়াল চাপা পড়ে এক বৃদ্ধার মৃত্যুর ঘটনা এখনও দগদগে। সেই রেশ কাটতে না কাটতে আবারও দেওয়াল চাপা পড়ে মৃত্যু হল চারটি গবাদি পশুর। 

9 months ago
Collapsed: বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, বীরভূমের পর এবার ঝাড়গ্রাম, দেওয়াল চাপা পড়ে ফের মৃত্যু

বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, বীরভূম এরপর ঝাড়গ্রাম। ফের মাটির বাড়ি ভেঙে মৃত্যু এক বৃদ্ধের। অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচেছেন দু’জন। সূত্রের খবর, মাটির বাড়ি ভেঙে মৃত্যু হয়েছে আরও দুটি গবাদি পশুর। সোমবার ঘটনাটি ঘটেছে ঝাড়গ্রামের জামবনিতে। পুলিস জানিয়েছে, মৃতের নাম শ্যামাপদ নায়েক (৬০)।

স্থানীয় সূত্রে খবর, দক্ষিণবঙ্গের বেশ কয়েকটি জেলায় কয়েক দিন ধরে প্রবল বৃষ্টিতে স্তব্ধ হয়েছে জনজীবন। রবিবার রাতেই বেলপাহাড়িতে ভেঙে পড়ে তিনটি মাটির বাড়ি। ঝাড়গ্রাম জেলার জামবনি ব্লকের কাপগাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের হাতিয়াশুলি গ্রামে দেওয়াল চাপা পড়ে শ্যামপদ নামে ওই বৃদ্ধের। অপরদিকে ঝাড়গ্রাম জেলার বিনপুর ২ ব্লকের বেলপাহাড়ি থানার সন্দাপাড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের চেকুয়াপাল গ্রামে তিনটি মাটির বাড়ি ভেঙে পড়ে। অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে গিয়েছেন দুই ব্যক্তি। তবে তাঁদের পোষ্য দুটি গরুর মৃত্যু হয়েছে।

ওদিকে শনিবার বাঁকুড়ায় দেওয়াল চাপা পড়ে মৃত্যু হয়েছে তিনজনের। এরপর রবিবারও সকালে মাটির দেওয়াল চাপা পড়ে মৃত্যু হয়েছে দুই শিশুর এবং বীরভূমে দেওয়াল চাপা পড়ে মৃত্যু হয়েছে এক বৃদ্ধের। ঝাড়গ্রামে এই মৃত্যুর ঘটনার পর, মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ৭।

9 months ago


Awas: বাঁকুড়ার পর পুরুলিয়া ও বীরভূম, দেওয়াল চাপা পড়ে মৃত আরও ৩

টানা বৃষ্টির জেরে শনিবার বাঁকুড়ায় দেওয়াল চাপা পড়ে মৃত্যু হয়েছিল ৩ শিশুর। এবার দেওয়াল চাপা পড়ে মৃত্যু হল পুরুলিয়া ও বীরভূমেও। সূত্রের খবর, রবিবার ভোর রাতে পুরুলিয়ার পুঞ্চা ব্লকের কেন্দা থানার দরোডিতে দেওয়াল চাপা পড়ে জখম হয় এই দুই শিশু। সঙ্গে সঙ্গে তাদেরকে দেবেন মাহাতো গভর্নমেন্ট মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে চিকিৎসক জখম ৫ বছরের শিশুকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। এই ঘটনায় জখম হয় ওই শিশুরই তিন বছরের ভাই। রবিবার চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসপাতালেই মৃত্যু হয় তাঁর।

ওদিকে বাঁকুড়ার পর বীরভূমেও মাটির বাড়ির দেওয়াল চাপা পড়েমৃত্যু হল এক বৃদ্ধের। স্থানীয় সূত্রে খবর, মৃতের নাম তমালকৃষ্ণ মন্ডল ( ৭৮)। সূত্রের খবর, বীরভূমের লাভপুর থানার অন্তর্গত ডাঙ্গাল গ্রামের বাসিন্দা তমাল। রবিবার সকালে আচমকাই বাড়ির মাটির দেওয়াল ভেঙে পড়ে ওই বৃদ্ধের গায়ের উপর। এই অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে পরিবারের লোকজন। পাঠানো হয় স্থানীয় প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে। সেখানেই তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে।

সূত্রের খবর, পুরুলিয়ায় দেওয়াল চাপা পড়ে ২ শিশুর মৃত্যুর ঘটনায় ওই পরিবারও মাটির বাড়িতে দিন কাটাচ্ছিলেন, অভিযোগ, কেন্দ্রের আবাস প্লাস তালিকায় নাম থাকা সত্ত্বেও বাড়ির টাকা পাননি তারা। ফলত বেশ কয়েক বছর ধরে ভাঙা বাড়িতেই দিন কাটছিল তাদের। ওদিকে বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুর ব্লকের বোড়ামারা গ্রামে আবাস যোজনার বাড়ি না পেয়ে মাটির বাড়িতে দিন কাটাচ্ছিলেন সেখানকার বাসিন্দারা। শনিবার প্রচন্ড বৃষ্টিতে দেওয়াল চাপা পড়ে মৃত্যু হয় ৩ শিশুর। এ ঘটনায় কেন্দ্রের গাফিলতি ও বঞ্চনার বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছে তৃণমূল নেতৃত্ব।

9 months ago
Bankura: বাঁকুড়ায় মাটির দেওয়াল চাপা পড়ে মৃত্য়ু তিন শিশুর, ঘটনায় শোকের ছায়া নেমেছে এলাকায়

মাটির দেওয়ালে চাপা পড়ে মৃত্যু হল তিন শিশুর। ঘটনাটি ঘটেছে বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুর থানার বাকাদহের বোড়ামারা গ্রামে। মর্মান্তিক এই দুর্ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে গোটা এলাকায়। 

জানা গিয়েছে, শনিবার সকালে একটি বাড়ির পাশে বসে খেলা করছিল মৃত ওই তিন শিশু। বৃষ্টির কারণে মাটির দেওয়াল ভিজে যাওয়ায় আচমকা সেই বাড়ির মাটির দেওয়াল হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে শিশুদের উপর। এরপরেই এলাকায় মানুষজন ও শিশুর পরিবারের লোকজন ওই তিন শিশুকে মাটির বাড়ির দেওয়াল সরিয়ে উদ্ধার করে। তারপর তড়িঘড়ি তাঁদের বিষ্ণুপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে তিন শিশুকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসক। ঘটনার জেরে শোকাহত হয়ে পড়েছে ওই তিন শিশুর পরিবারের লোকজন। 

বৃষ্টির কারণে দেওয়াল জলে ভিজে যায়। আর তার জেরেই এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা বলে মনে করা হচ্ছে।

9 months ago
Bankura: একটানা ভারী বৃষ্টিতে জলের তলায় ব্রিজ, বাঁকুড়ায় ১৫ টি গ্রাম যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

নিম্নচাপের জেরে একটানা বৃষ্টি ভারী বৃষ্টির জেরে বাঁকুড়ার গন্ধেশ্বরী নদীর জলস্তর বাড়তেই বিপদে গ্রামবাসী। প্রবল বৃষ্টিতে জলের তলায় চলে গেল বাঁকুড়া-মানকানালি সড়কের উপর থাকা সেতু। বন্ধ যাতায়াত। বিছিন্ন হয়ে পড়েছে মানকানালি গ্রাম পঞ্চায়েতের ১৪ থেকে ১৫ টি গ্রাম।

ভারী বৃষ্টিতে শনিবার সকাল থেকেই মানকানালির কাছে বাঁকুড়া-মানকানালি সড়কের উপরের থাকা সেতুর উপর দিয়ে প্রবল বেগে জল বইছে। বিপদ এড়াতে এদিন সকাল থেকেই ওই সেতুর উপর দিয়ে যান চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে প্রশাসন। 

যদিও ঘুরপথ ৩০ কিলোমিটারের বেশি হওয়ায়, জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ওই পথ দিয়েই যাতায়াত করছেন স্থানীয়রা। তাঁদের অভিযোগ, লক্ষ টাকা দিয়ে সেতু সংস্কার করা হলেও। এলাকার মানুষের দাবি মেনে উঁচু সেতু নির্মাণ করা হয়নি। যার জেরে বৃষ্টি হলেই বিপদে পড়েন স্থানীয়রা।

9 months ago


Jaundice: ডেঙ্গির পাশাপাশি জাঁকিয়ে বসেছে জন্ডিস সংক্রমণ, আতঙ্ক ছড়িয়েছে বাঁকুড়ায়

বর্ষায় শুরুতেই জেলা জুড়ে বেড়ে চলেছে ডেঙ্গির সংক্রমণ। ডেঙ্গির বাড়বাড়ন্তের পাশাপাশি এবার বাঁকুড়ার তালডাংরা ব্লকের সাতমৌলি গ্রামে ব্যাপক আকার নিচ্ছে জন্ডিস। জানা গিয়েছে, ইতিমধ্য়ে ওই গ্রামে গত আড়াই মাসে আক্রান্তের সংখ্যা ২৫০ ছাড়িয়েছে। বেশ কিছু গ্রাম বাসিন্দা জন্ডিসে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। যার ফলে জন্ডিসের আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ছে মানুষের মধ্য়ে। 

প্রথমে জ্বর পরে বমি ও পেটে ব্যাথার উপসর্গ দেখা দিচ্ছে। পরীক্ষা করলেই ধরা পড়ছে জন্ডিস। বিষয়টি জানার পরই নড়েচড়ে বসেছে স্বাস্থ্য দফতর ও প্রশাসন। স্বাস্থ্য দফতরের তরফে এলাকার নলকূপগুলি থেকে পানীয় জলের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করা হয়েছে। এর মধ্যে বেশ কয়েকটি নলকূপের জলে জন্ডিসের জীবানুর নমুনা মিলেছে। আপাতত ওই নলকূপগুলির জল শোধন করার জন্য ব্লিচিং দেওয়া হয়েছে। 

অপরদিকে গ্রামবাসীদের জল ভালো করে ফুটিয়ে পান করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। গ্রামবাসীদের দাবি, স্বাস্থ্য দফতরের সমস্ত পরামর্শ মেনে চললেও কিছুতেই নিয়ন্ত্রণে আসছে না জন্ডিস। এই বিষয়ে স্বাস্থ্য দফতরের দাবি আক্রান্তদের একটা বড় অংশ সুস্থ হয়ে গিয়েছে। আপাতত ২৯ জন আক্রান্ত রয়েছে। যার মধ্যে শারিরীক অবস্থা তুলনায় খারাপ থাকায় তাদের হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রাখা হয়েছে। স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েতের তরফেও সমস্তরকম ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। 

9 months ago
Bankura: গ্রামীণ হাসপাতাল এখন স্বাস্থ্যকেন্দ্র, ওষুধ লেখেন নার্স ও কম্পাউন্ডার!

স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়মিত দেখা মেলে না চিকিৎসকের। ওষুধ দিচ্ছেন নার্স ও কম্পাউণ্ডার। স্বাস্থ্য দফতরের নির্দেশিকা অনুযায়ী, এই কাজ কি করতে পারেন একজন গ্রুপ সি কর্মী ও নার্স? উঠছে প্রশ্ন। ঘটনাটি বাঁকুড়ার (Bankura) নিকুঞ্জপুর প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রের।

আছে সরকারি ডাক্তার, কিন্তু ওষুধ দিচ্ছেন নার্স ও কম্পাউণ্ডার। সিএন এর ক্যামেরায় ওই স্বাস্থ্যকেন্দ্রের এমনই ছবি ধরা পড়ল। জানা গিয়েছে, ১৯৯৪ সালে বাম আমলে গ্রামীণ হাসপাতালের আদলে গোড়াপত্তন হয়েছিল এই স্বাস্থ্যকেন্দ্রের। শুরুর দিকে শিশুর জন্ম থেকে অরপারেশন সবই হত। কিন্তু বর্তমানে গ্রামীণ হাসপাতালে পরিণত হয়েছে প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্র। অভিযোগ, স্বাস্থ্যকেন্দ্রে খাতায়-কলমে আছেন চিকিৎসক, কিন্তু নিয়মিত তাঁর দেখা মেলে না। রোগীদের ওষুধ প্রদান করেন স্বাস্থ্যকেন্দ্রের কর্তব্যরত নার্স ও গ্রুপ সি কর্মীরা।

দীর্ঘদিন ধরে একই ঘটনা চলতে থাকায় ধৈর্যের বাঁধ ভেঙেছে গ্রামবাসীদের। প্রতিবাদে স্বাস্থ্যকেন্দ্রে গিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন তাঁরা। খবর পেয়ে তড়িঘড়ি স্বাস্থ্যকেন্দ্রে পৌঁছন চিকিৎসক। তাঁকে ঘিরেও বিক্ষোভ দেখান গ্রামবাসীরা।

9 months ago