Breaking News
Modi: কৃষ্ণনগরে ভাষণ শুরু করেই ক্ষমা প্রার্থানা প্রধানমন্ত্রীর, তৃণমূলকে তীব্র তুলধনা...      Modi: 'রামমোহনের আত্মা সন্দেশখালির মহিলাদের দুর্দশায় কাঁদছে', আরামবাগ থেকে মমতাকে তোপ মোদীর      Suspend: গ্রেফতারির পরেই তৃণমূল থেকে ছয় বছরের জন্য সাসপেন্ড সন্দেশখালির 'বেতাজ বাদশা' শাহজাহান      Sandeshkhali: নিরাপদ সর্দারকে নিঃশর্তে জামিন দিয়ে রাজ্য পুলিসকে তিরস্কার বিচারপতির      Sheikh Shahjahan: ঘর ভাঙচুর, টাকা লুঠ! শেখ শাহজাহানের বিরুদ্ধে নতুন এফআইআর সন্দেশখালি থানায়      Sandeshkhali: অজিত মাইতিকে তাড়া গ্রামবাসীদের, সাড়ে ৪ ঘণ্টা পর অবশেষে আটক পুলিসের      Ajit Maity: উত্তপ্ত সন্দেশখালি! অজিত মাইতির গ্রেফতারির দাবিতে বিক্ষোভ মহিলাদের, বাঁচতে সিভিকের বাড়িতে আশ্রয়      Sandeshkhali: সন্দেশখালি ঢুকতে বাধা, ভোজেরহাটেই দিল্লির ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং টিমকে আটকাল পুলিস      Sandeshkhali: একই যাত্রায় পৃথক ফল! ১৪৪ যুক্ত এলাকায় নির্বিঘ্নে ঘুরছেন পার্থ-সুজিত, বাধাপ্রাপ্ত মীনাক্ষী      Sandeshkhali: ভোটের আগে উত্তপ্ত সন্দেশখালি, বিশেষ নজর নির্বাচন কমিশনের     

hall

ED: কখনও হৃদরোগ, কখনও বা মানসিক, কাকুর কণ্ঠস্বর নিয়ে ইডির সঙ্গে লুকোচুরি এসএসকেএমের

এ যেন লুকোচুরি খেলা। এসএসকেএম ও কালীঘাটের কাকু যেন ইডির সঙ্গে একপ্রকার লুকোচুরি খেলায় নেমেছে। একদিকে যখন কাকুর কণ্ঠস্বরের নমুনা সংগ্রহে তৎপর ইডির আধিকারিকরা। অন্যদিকে তখন যে কোনও উপায়ে ইডির চেষ্টাকে ব্যর্থ করার চেষ্টা এসএসকেমের। আপাত দৃষ্টিতে দেখলে এমনই মনে হবে সাধারণের। এসএসকেএম ও কাকুর এহেন খেলায় গেরোয় কাকুর কণ্ঠস্বরের নমুনা সংগ্রহ। এবার ফের ঠিক যেন কালীঘাটের কাকুকে আড়াল করতে ফের এসএসকেএমের জারিজুরি। জানা গিয়েছে, চলতি সপ্তাহেই কাকুর কণ্ঠস্বরের নমুনা সংগ্রহে যেতে পারে ইডি, এমটাই জানিয়ে এসএসকেএমকে চিঠি লিখেছিল ইডি। কিন্তু ইডির পাল্টা চিঠিতে এসএসকেএম জানিয়েছে, কালীঘাটের কাকুর  মানসিক অবস্থা ঠিক নেই। অর্থাৎ অসস্তি ভাবে এসএসকেএম বুঝিয়ে দিল ইডিকে এ মুহূর্তে তাঁর কণ্ঠস্বরের নমুনা সংগ্রহ সম্ভব নয়।

পূর্বেই কালীঘাটের কাকু ও এসএসকেএমের উপর সন্দিহান প্রকাশ করে ব্যাঙ্কশাল আদালতের দ্বারস্থ হয় ইডি। ইডির আবেদনে সাড়া দিয়ে ব্যাঙ্কশাল আদালত কাকুর স্বাস্থ্যপরীক্ষার জন্য ইএসআই হাসপাতালকে একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করার নির্দেশ দেয়। এবার এসএসকেমেমকে পাল্টা চাপ ইডির, সূত্রের খবর অনুযায়ী, ইডির তরফে চিঠি দেওয়া হলো এসএসকেএম হাসপাতাল, ই এস আই হাসপাতাল ও সিএফএসএল-কে। যদিও পাল্টা চিঠিতে এসএসকেএম জানিয়েছে কালীঘাটের কাকু অর্থাৎ সুজয় কৃষ্ণের মানসিক অবস্থা ভালো নয়। সে জন্যই তাকে মানসিক চিকিৎসার বিভাগ অর্থাৎ সাইক্রিয়াটিক বিভাগে স্থানান্তরিত করা হচ্ছে। এ ঘটনায় অবশ্য ইডির আধিকারিকরা মনে করছেন নমুনা সংগ্রহে বিলম্বের চেষ্টাতেই এই রিপোর্ট এবং চিঠি এসএসকেএম হাসপাতালের। এঅবস্থায় কাকুর কণ্ঠস্বরের নমুনা সংগ্রহে ইডি কোন পথে হাটবে সেটাই এখন দেখার।

3 months ago
Kiara: বনসালির ছবিতে কিয়ারার সঙ্গে কিং খান! খবরকে 'গুঞ্জন' বলছে নেট দুনিয়া

বড় পর্দায় এবারে দেখা যাবে বলিউডের (Bollywood) এক নতুন জুটি! সূত্রের খবর, সঞ্জয় লীলা বনসালির ছবিতে শাহরুখ খানের (Shah Rukh Khan) সঙ্গে দেখা যাবে কিয়ারা আদবানীকে (Kiara Advani)। এই খবর ছড়িয়ে পড়তেই শুরু হয়েছে জল্পনা। জানা গিয়েছে, সঞ্জয় লীলা বনসালির আসন্ন ছবি 'ইনশাল্লাহ' ছবিতে এই তারকদের প্রথমবার বড়পর্দায় একসঙ্গে দেখা যাবে। তবে নেট দুনিয়া কিছুতেই মানতে রাজি নয় এই খবর।  প্রত্যেকেরই এক কথা, এই খবর নিশ্চয় ভুয়ো। ফলে এই খবর সত্যিই গুঞ্জন নাকি সত্যি, তা নিয়ে বিতর্ক তুঙ্গে।

সূত্রের খবর, বনসালির ইনশাল্লাহ ছবিতে অভিনেতা হিসাবে প্রথমে সলমন খানকে নেওয়ার পরিকল্পনা ছিল। কিন্তু পরে পরিচালকের সঙ্গে সলমনের কিছু মতবিরোধ হওয়ায় তাঁকে সরিয়ে কিং খানকে নেওয়ার পরিকল্পনা করা হয়েছে। আরও জানা গিয়েছে, এই ছবির শ্যুটিং নাকি গাঙ্গুবাই কাথিয়াওয়াড়ির আগেই শুরু করার কথা ছিল। কিন্তু সলমনের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হওয়ার পরেই তাঁকে ছবি থেকে বাতিল করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

অন্যদিকে দীর্ঘদিন বিরতির পর 'পাঠান' ছবির মাধ্যমে ফিরে এসেছেন কিং খান। ছবির মুক্তির পরই বক্স অফিসে রেকর্ড তৈরি করেছে 'পাঠান'। এরপরে তাঁর দুটো ছবি 'জওয়ান' ও 'ডাঙ্কি'  মুক্তি পেতে চলেছে। এই ছবিগুলোতে নতুন জুটি বাঁধতে দেখা যাবে। জওয়ান-এ নয়নতারা ও ডাঙ্কি-তে তাপসী পান্নুর সঙ্গে দেখা যাবে। এরই মধ্যে কিয়ারা আদবানীর সঙ্গে ছবি করার খবর দ্রুত গতিতে ছড়িয়ে পড়ছে। তবে কিছুতেই এই খবর মানতে রাজি নয় নেটিজেনারা। উল্লেখ্য, বনসালির ছবি ইনশাল্লাহ ২০২৫ সালে মুক্তি পেতে পারে বলে খবর।


11 months ago
Kapil: লন্ডন বিমানবন্দরে কোন ঘটনায় কষ্ট পান কপিলের মা, শুনুন কাহিনী

কপিল শর্মার (Kapil Sharma) ভক্তরা চিনতে পারলেন না তাঁর মা'কে, কী হল তারপর! বলি দুনিয়ায় কপিল শর্মা জনপ্রিয় একটি নাম। দশকের পর দশক ধরে তিনি হাস্যরসে ভরিয়ে দিয়েছেন বিনোদন জগতকে। 'দ্য গ্রেট ইন্ডিয়ান লাফটার শো'-এর মাধ্যমে জনপ্রিয়তা পান কপিল। এরপর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। বর্তমানে তাঁর 'কপিল শর্মা শো' তুমুল জনপ্রিয়তা পেয়েছে। তবে শুধুমাত্র যে কপিল জনপ্রিয় তা নয়। কপিলের স্ত্রী ও মা সমান জনপ্রিয় কপিল ভক্তদের কাছে।

কপিলের পাশাপাশি তাঁর স্ত্রীয়ের কমেডি টাইমিং ভালো সেই প্রমাণ দর্শকরা আগেই পেয়েছে। এবার কপিল শোনালেন তাঁর মায়ের কথা। তবে টেলিভিশনের পর্দায় নয়, বাস্তবেই কপিলের ভক্তদের সঙ্গে তাঁর মা কী মজা করলেন, তা জানলে অবাক হবেন। স্ট্যান্ডআপ কমেডিয়ান জাকির খানের সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে এই স্মৃতি ভাগ করে নেন কপিল।

কপিল জানান, একবার কপিলের সঙ্গে লন্ডন গিয়েছিলেন তাঁর মা। সেখানে কপিলকে দেখে তাঁর কিছু ভক্তরা ছবি তুলতে আসেন। কপিল শর্মার মা'কে নাকি সেই ভক্তরা দেখেননি। এই ঘটনায় কষ্ট পান কপিলের মা। কেন তাঁর সঙ্গে ছবি তুললেন না ভক্তরা তা জানতে কপিলের মা নাকি সটান ডাক দেন সেই ভক্তদের। ভক্তরা এবার কপিলের মা'কে দেখে অবাক হন।

ইন্টারভিউতে কপিল বলেন, তাঁর বিভিন্ন অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকেন তাঁর মা। অনেকেই এখন তাঁকে চেনে। এই বয়সে এত স্টারডম বেশ উপভোগ করেন কপিলের মা।

11 months ago


Accident: বেপরোয়া গতির বলি বিশেষ ভাবে সক্ষম এক শিল্পী, আহত আরও এক শিল্পী

এবার বেপরোয়া গতির শিকার বিশেষভাবে সক্ষম এক শিল্পী। গুরুতর আহত হয়েছেন  আরেক শিল্পী। জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার ভোরে দ্রুতগতিতে আসছিল বালিবোঝাই ট্রাক। আর সেই ট্রাকের ধাক্কায় (Accident) প্রাণ হারিয়েছেন বছর ২৭-এর দীনেশ মাহাতো। ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব মেদিনীপুরের (East Midnapore) তমলুক থানা এলাকায় ১১৬ নম্বর জাতীয় সড়কের উপর নিমতৌড়িতে।

পুলিস সূত্রে খবর, গুরুতর আহত অবস্থায় অন্য এক বিশেষভাবে সক্ষম শিল্পীকে ভর্তি করা হয়েছে তাম্রলিপ্ত সরকারি মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে। স্থানীয়রা জানিয়েছেন, এদিন ভোরবেলা ভগবানপুর এলাকায় একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান থেকে নিমতৌড়িতে ফিরছিলেন ওই দুই শিল্পী। বাস থেকে নেমে রাস্তার ধার ধরে হেঁটে যাচ্ছিলেন তাঁরা। আচমকা মেচেদা থেকে নন্দকুমারগামী একটি বালি বোঝাই ট্রাক তাঁদের ধাক্কা মেরে বেরিয়ে যান। ট্রাকের চাকায় পিষে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় দীনেশের।

স্থানীয়রা দেখতে পান অন্য আরেকজন শিল্পী রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছে। সঙ্গে সঙ্গে খবর দেওয়া হয় থানায়। ঘটনাস্থলে পুলিস এসে তাঁদের উদ্ধার করে নিয়ে গিয়েছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিস।

one year ago
Halloween: অভিশপ্ত! দক্ষিণ কোরিয়ায় হ্যালোউইন উৎসবে পদপিষ্ট হয়ে মৃত্যু ১৫১ জনের, আহত বহু

করোনা মহামারীর জন্য গত দু'বছর হ্যালোউইন পার্টি করতে পারেননি। তাই এবারে মহামারীর দাপট কমতেই সকলেই মেতে উঠেছিলেন আনন্দ উৎসবে। কিন্তু কেউ এক মুহূর্তের জন্য ভাবতে পারেননি, সেই আনন্দ শোকে পরিণত হবে। কাছের মানুষকে হারিয়ে এখন কেবল হাহাকারের শব্দ দক্ষিণ কোরিয়ার (South Korea) রাজধানী সিওলে (Seoul)। শনিবার গভীর রাতে সেখানে হ্যালোউইন উৎসব চলাকালীন পদপিষ্ট (Halloween stampede) হয়ে মৃত্যু হল কমপক্ষে ১৫১ জনের। আহত হয়েছেন ১৫০ জন। মৃতদের মধ্যে অধিকাংশই কিশোর-কিশোরী ও যুবক-যুবতী। এমনকি ১৯ জন বিদেশী নাগরিকও রয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। আহতদের অনেকের অবস্থাই সংকটজনক। ফলে মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। কিন্তু আশ্চর্যের বিষয়, এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা কীভাবে ঘটল, তা বুঝে উঠতেই পারছে না সিওল প্রশাসন।

সিউলের ইয়ংসান ফায়ার ডিপার্টমেন্টের প্রধান চোই সিওং-বিওম বলেছেন, শনিবার সিওলের হ্যামিলটন হোটেলের কাছে একটি ছোটো গলিতে প্রচুর মানুষ ভিড় জমাতে শুরু করেন। সিওলের সে এলাকা পার্টির জন্য বিখ্যাত। সেই পরিস্থিতিতে ভিড়ের মধ্যেই ঠেলাঠেলি শুরু হয়। সামনের দিকে ধাক্কা দেওয়া হতে থাকে। তার জেরে পদপিষ্ট হয়ে প্রচুর মানুষের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া জানা গিয়েছে ভিড়ের মধ্যে অনেকের শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। যার জেরে তাঁরা মাটিতে লুটিয়ে পড়েন।

ঘটনাস্থল থেকে সিসিটিভি ফুটেজ এবং ফটোতে দেখা গিয়েছে যে, অ্যাম্বুলেন্স গাড়িগুলো রাস্তায় সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে আছে। পুলিস এবং জরুরিভিত্তিক কর্মীরা আহতদের স্ট্রেচারে করে নিয়ে যাচ্ছেন। উদ্ধারকাজে হাত লাগায় স্থানীয় মানুষ জনও। রাস্তায় পড়ে থাকা আহতদের সিপিআর করতে দেখা গিয়েছে।

দক্ষিণ কোরিয়ার রাষ্ট্রপতি ইউন সুক ইওল একটি বিবৃতি জারি করে বলেছেন,  আহতদের যেন দ্রুত চিকিৎসা শুরু করা হয়, সে বিষয়ে নির্দেশ দিয়েছেন।   তিনি স্বাস্থ্য মন্ত্রককে দ্রুত বিপর্যয়কালীন চিকিৎসা সহায়তা দল মোতায়েন করার এবং আহতদের চিকিৎসার জন্য নিকটবর্তী হাসপাতালে বেড সুরক্ষিত করার নির্দেশও দিয়েছেন।

উল্লেখ্য,  দক্ষিণ কোরিয়ার স্থানীয় মিডিয়া সূত্রে খবর, হ্যালোউইন উৎসবের জন্য প্রায় ১ লক্ষ লোক ইটাওনের রাস্তায় ভিড় করেছিল। যা এখনও অবধি সর্বাধিক ভিড় হ্যালোউইন পার্টিতে।

one year ago


Jalpaiguri: এককালের জমজমাট কমিউনিটি হল এখন আগাছার জঙ্গল, পিছনে কি সরকারি উদাসীনতা

বেহাল দশা কমিউনিটি হলের (Community Hall)। হলের সামনে থেকে ওপরের দিকে তাকালে মনে হতেই পারে যেন সযত্নে করা হয়েছে আগাছার লালনপালন! কত দূর উদাসীনতা আর উপেক্ষার মনোভাব থাকলে দেওয়ালের গায়ে এভাবে গজিয়ে উঠতে পারে বড় বড় গাছ। গাছের শিকড়গুলিই বলে দেবে বিন্দুমাত্র পরিচর্যা এখানে করা হয় না। হলের ভিতরের পরিস্থিতি আরও করুণ। যেকোনও সময় ভেঙে পরতে পারে সিলিং অভিযোগ শিল্পীদের। জলপাইগুড়ি (Jalpaiguri) জেলা পরিষদের অধীনে থাকা ধূপগুড়ি কমিউনিটি হলের এমনই দশা। পরিচর্যার অভাবে ধুঁকছে ধূপগুড়ির একমাত্র এই কমিউনিটি হল। 

শিল্পীদের কাছে এই কমিউনিটি হল মন্দির। আর সেই মন্দিরের করুণ দশায় ক্ষুব্ধ শিল্পী মহল। ধূপগুড়ি ব্লকের বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় এই হলেই। শুধু তাই নয়, প্রশাসনিক কর্তা-ব্যক্তিরা অহরহ এখানে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে আসেন। এই হল সাক্ষী হয়েছে বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান থেকে শুরু করে রাজনৈতিক সভার। বাম আমলে ২০১২ সালে উদ্বোধন হয়েছিল এই হলের। হল উদ্বোধনের পর দু-দুবার ম্যাজিক শো করে গিয়েছেন জাদুসম্রাট পিসি সরকার জুনিয়রও। সেই সময় ধূপগুড়ি ব্লকে এই অত্যাধুনিক কমিউনিটি হল হওয়ায় বেশ প্রশংসাও করেছিলেন তিনি।

কিন্তু এখন এই হলের যা দৈন্য দশা সে কথা শুনে তিনিও দুঃখ প্রকাশ করেন। তবে বিরোধীরা বলছেন, যদি এখনও টনক না নড়ে তবে এই হল পোড়ো বাড়িতে পরিণত হতে আর সময় লাগবে না।

one year ago
Maldaha: ছেলের পায়ে শিকল বাঁধা, সেই অবস্থায় ৮ বছর ধরে চিকিৎসার জন্য ঘুরছেন বাবা-মা

অসহায় ছেলের চিকিৎসার জন্য পায়ে শিকল বেঁধে ঘুরছেন বাবা-মা। ছেলেকে কখনও সরকারি হাসপাতাল (Government Hospital) আবার কখনও বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাচ্ছেন গত আট বছর ধরে। কিন্তু হয়নি চিকিৎসা (treatment)। মঙ্গলবার সকালে মালদহ (Maldah) মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ছেলেকে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসেন বাবা-মা। সেখানেই জানা যায়, ছেলের এই অবস্থাতে নাজেহাল হয়ে পড়েছেন বাবা-মা। তাঁরা মালদহ জেলা হরিশ্চন্দ্রপুর থানার ভালুকা রোডের বৈরনাহি গ্রামের বাসিন্দা। ছেলে সেলিম আত্মার বয়স ১৮ বছর। বাবা জাকির হোসেন ও মা সেহেরা বিবি। জাকির বাবুর তিন ছেলে। সেলিম পরিবারে বড়।

পরিবার সূত্রে আরও জানা যায়, বিগত আট বছর ধরে ছেলে মানসিক রোগে আক্রান্ত। তারপর থেকেই পায়ে শিকল বেঁধে বাবা-মা ছেলেকে বেঁধে রেখেছেন। ছেলের চিকিৎসার জন্য কখনও মালদহ আবার মুর্শিদাবাদের মানসিক হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে নিয়ে গিয়েছেন। কিন্তু কোথাও ছেলেকে ভর্তি নিচ্ছে না। স্থানীয় প্রশাসন কেউ জানিয়ে কোনও লাভ হয়নি। তাই পুনরায় ছেলেকে পায়ে শিকল বেঁধে বাবা-মা মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে এসেছেন ভর্তি করানোর জন্য। কিন্তু এখনও পর্যন্ত তাঁর ভর্তির কোনও সুরাহা হয়নি। আর অসহায় ছেলেকে নিয়ে বাবা-মা ঘুরে বেড়াচ্ছেন কখনও সরকারি হাসপাতাল আবার কখনও বেসরকারি হাসপাতাল। ছেলেকে কোথায় রাখবেন বাবা-মা বুঝতে পারছেন না। থাকার জন্য নেই কোনও পাকা বাড়ি।

বাবা মায়ের কাতর আর্জি সরকারের কাছে, ছেলেকে এখন সরকারি কোনও হাসপাতালে ভর্তি করানো হোক। কখন ছেলেকে ভর্তি করাতে পারবেন সেই অপেক্ষায় বসে রয়েছেন মেডিক্যাল কলেজের সামনে। বাবা মায়ের দাবি, ছেলেকে হাসপাতালের মানসিক বিভাগে ভর্তি করলে অনেকটাই শান্তি পাবেন। বিষয়টি নজরে আসার পর তাকে মানসিক বিভাগে ভর্তি করেছে মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

one year ago
Ticket: মাত্র ৭৫ টাকায় মাল্টিপ্লেক্সে সিনেমা দেখার সুযোগ, জানুন কবে

জাতীয় চলচ্চিত্র(National cultural day) দিবস উপলক্ষে ঘোষণা করা হয়েছিল, মাত্র ৭৫ টাকায় টিকিট বিক্রি করবে দেশের বহু সিনেমা হল।জলের দামে মিলবে টিকিট এই দিনে।১৬ই সেপ্টেম্বর পালিত হবে ভারতীয় জাতীয় চলচ্চিত্র দিবস।

মাল্টিপ্লেক্স অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্ডিয়া ওই দিনেই সস্তায় টিকিট অর্থাৎ মাত্র ৭৫ টাকায় দর্শকদের আমন্ত্রন জানাচ্ছেন।এই ওটিটির যুগে যারা হলে এসে সিনেমা দেখতে পছন্দ করেন, কোভিড পরবর্তী সময়ে যদি তারা হলে এসে সিনেমা দেখেন তাই এই ব্যবস্থা।

সেই ক্ষেত্রে দর্শকদের কাছে হল কর্তাদের অনুরোধ এই দিনটিকে সাফল্ করলে তারা উৎসাহিত হবেন।

2 years ago