Breaking News
BJP: প্রথম দফায় ১৯৫ প্রার্থীর নাম ঘোষণা বিজেপির, বাংলার ২০ জনের নাম তালিকায়      Modi: 'রামমোহনের আত্মা সন্দেশখালির মহিলাদের দুর্দশায় কাঁদছে', আরামবাগ থেকে মমতাকে তোপ মোদীর      Suspend: গ্রেফতারির পরেই তৃণমূল থেকে ছয় বছরের জন্য সাসপেন্ড সন্দেশখালির 'বেতাজ বাদশা' শাহজাহান      Sandeshkhali: নিরাপদ সর্দারকে নিঃশর্তে জামিন দিয়ে রাজ্য পুলিসকে তিরস্কার বিচারপতির      Sheikh Shahjahan: ঘর ভাঙচুর, টাকা লুঠ! শেখ শাহজাহানের বিরুদ্ধে নতুন এফআইআর সন্দেশখালি থানায়      Sandeshkhali: অজিত মাইতিকে তাড়া গ্রামবাসীদের, সাড়ে ৪ ঘণ্টা পর অবশেষে আটক পুলিসের      Ajit Maity: উত্তপ্ত সন্দেশখালি! অজিত মাইতির গ্রেফতারির দাবিতে বিক্ষোভ মহিলাদের, বাঁচতে সিভিকের বাড়িতে আশ্রয়      Sandeshkhali: সন্দেশখালি ঢুকতে বাধা, ভোজেরহাটেই দিল্লির ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং টিমকে আটকাল পুলিস      Sandeshkhali: একই যাত্রায় পৃথক ফল! ১৪৪ যুক্ত এলাকায় নির্বিঘ্নে ঘুরছেন পার্থ-সুজিত, বাধাপ্রাপ্ত মীনাক্ষী      Sandeshkhali: ভোটের আগে উত্তপ্ত সন্দেশখালি, বিশেষ নজর নির্বাচন কমিশনের     

UP

ED: দুর্নীতির 'মাধ্যম' শাহজাহান ঘনিষ্ঠ ব্যবসায়ীর এক্সপোর্ট সংস্থা, সিজিওতে হাজিরা অরুণ সেনগুপ্তের

রেশন বন্টনে দুর্নীতির সূত্র ধরে একের পর এক রাঘব বোয়ালের নাম উঠে আসছে ইডির হাতে। সেই দুর্নীতির তদন্ত করতে গিয়ে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দাদের নজরে আসে সন্দেশখালির বেতাজ বাদশাহ শাহজাহান। সময় যত এগিয়েছে ততই তার একের পর এক অপকর্ম প্রকাশ্যে এসেছে। ইডির স্ক্যানারে এসেছে শাহজাহান ঘনিষ্ঠ একাধিক ব্যবসায়ীও। তল্লাশি হয়েছিল শাহজাহানের ঘনিষ্ঠ ব্যবসায়ীদের বাড়িতেও। ব্যবসায়ী অরুণ সেনগুপ্তের বিরাটির বাড়ি ও ফার্মেও হানা দেয় ইডি। খোঁজ মেলে ব্যবসায়ীর নিজস্ব এক্সপোর্ট সংস্থা ম্যাগনাম এক্সপোর্ট কোম্পানির। দুর্নীতির তদন্তের খাতিরে আজ, মঙ্গলবার ইডি দফতরে এলেন অরুণ সেনগুপ্ত। সূত্রের খবর, বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ নথি বিশেষ করে মাছ বিক্রির বিল সহ ব্যাঙ্কের একাধিক নথি নিয়ে হাজিরা দেন তিনি। সোমবার তলব করা হলেও এদিন অরুণ তনয়া ও ব্যবসায়ীর আইনজীবী উপস্থিত হন ইডি দফতরে।

তদন্তে জানা গিয়েছিল, ম্যাগনাম এক্সপোর্ট কোম্পানির কর্ণধার অরুণ সেনগুপ্ত। এই কোম্পানি মূলত চিংড়ি রপ্তানির সঙ্গে জড়িত। ম্যাগনাম এক্সপোর্ট কোম্পানি মারফত বাইরের দেশে ব্যাবসায়ীর মাছ ব্যবসার মাধ্যমেই টাকা পাচার করা হত বলে সূত্রের খবর।অরুণ সেনগুপ্তের বাড়িতে ইডির তল্লাশিতে বিদেশে মাছ চালানোর কিছু বিল হাতে এসে পৌঁছলেও সম্পূর্ণ তথ্য প্রমাণ এখনও হাতে পায়নি তদন্তকারী সংস্থার আধিকারিকরা।

আপাতত শেখ শাহজাহানের সঙ্গে ওই ব্যবসায়ীর কবে থেকে সম্পর্ক? রেশন দুর্নীতির কালো টাকা কোনওভাবে এই ব্যবসায় ব্যবহার করা হয়েছে কিনা? সে বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করবেন ইডি আধিকারিকরা, এমনটাই সূত্রের খবর। সপ্তাহের শুরুতেই এবার রেশন দুর্নীতির এই রহস্য কোন দিকে মোড় নেই সেটাই দেখার।

4 days ago
ED: দুর্নীতির 'মাধ্যম' শাহজাহান ঘনিষ্ঠ ব্যবসায়ীর এক্সপোর্ট সংস্থা, সিজিওতে তলব অরুণ ও তাঁর কন্যা

রেশন বন্টনে দুর্নীতির সূত্র ধরে একের পর এক রাঘব বোয়ালের নাম উঠে আসছে ইডির হাতে। সেই দুর্নীতির তদন্ত করতে গিয়ে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দাদের নজরে আসে সন্দেশখালির বেতাজ বাদশাহ শাহজাহান। সময় যত এগিয়েছে ততই তার একের পর এক অপকর্ম প্রকাশ্যে এসেছে। ইডির স্ক্যানারে এসেছে শাহজাহান ঘনিষ্ঠ একাধিক ব্যবসায়ীও। তল্লাশি হয়েছিল শাহজাহানের ঘনিষ্ঠ ব্যবসায়ীদের বাড়িতেও। ব্যবসায়ী অরুণ সেনগুপ্তের বিরাটির বাড়ি ও ফার্মেও হানা দেয় ইডি। খোঁজ মেলে ব্যবসায়ীর নিজস্ব এক্সপোর্ট সংস্থা ম্যাগনাম এক্সপোর্ট কোম্পানির। দুর্নীতির তদন্তের খাতিরে সোমবার ব্যবসায়ী অরুণ সেনগুপ্তের সঙ্গে তার মেয়েকেও সিজিওতে তলব ইডির। কেন্দ্রীয় এজেন্সির নির্দেশ মোতাবেক সোমবার ইডির দফতরে হাজির অরুণ তনয়া ও ব্যবসায়ীর আইনজীবী। 

তদন্তে জানা গিয়েছিল, ম্যাগনাম এক্সপোর্ট কোম্পানির কর্ণধার অরুণ সেনগুপ্ত। এই কোম্পানি মূলত চিংড়ি রপ্তানির সঙ্গে জড়িত। ম্যাগনাম এক্সপোর্ট কোম্পানি মারফত বাইরের দেশে ব্যাবসায়ীর মাছ ব্যবসার মাধ্যমেই টাকা পাচার করা হত বলে সূত্রের খবর।অরুণ সেনগুপ্তের বাড়িতে ইডির তল্লাশিতে বিদেশে মাছ চালানোর কিছু বিল হাতে এসে পৌঁছলেও সম্পূর্ণ তথ্য প্রমাণ এখনও হাতে পায়নি তদন্তকারী সংস্থার আধিকারিকরা।

আপাতত শেখ শাহাজাহানের সঙ্গে ওই ব্যবসায়ীর কবে থেকে সম্পর্ক? রেশন দুর্নীতির কালো টাকা কোনওভাবে এই ব্যবসায় ব্যবহার করা হয়েছে কিনা? সে বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেন ইডি আধিকারিকরা। সপ্তাহের শুরুতেই এবার রেশন দুর্নীতির এই রহস্য কোন দিকে মোড় নেই এখন সেটাই দেখার। 

5 days ago
Cough Syrup: পাচারের আগেই বিপুল পরিমাণ নিষিদ্ধ কাফ সিরাপ উদ্ধার, আটক ১

পাচারের আগেই উদ্ধার বিপুল পরিমাণ টাকা সহ নিষিদ্ধ কাফ সিরাপ। ঘটনায় আটক দুই অভিযুক্ত। শনিবার ঘটনাটি ঘটেছে কলকাতা পুলিসের এসটিএফ এবং নারকটিক্স বিভাগের কাছে। জানা গিয়েছে, অভিযুক্তরা হল আশরাফুল এবং প্রজাপতি নামে দুই ব্যক্তি। যদিও পরে আশরাফুলকে ছেড়ে দেওয়া হয়। 

পুলিস সূত্রে খবর, গতকাল অর্থাৎ শনিবার সকাল ১০ টা নাগাদ এসটিএফ এবং নারকটিক্স বিভাগের যৌথ বাহিনীর কাছে নির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে ৭৬ এ এপিসি রোডে অভিযান চালায়। তারপর সেখানের একটি ঘর থেকে ১০০ ইমেল করে ৩৬০০ বোতল নিষিদ্ধ কাফ সিরাপ উদ্ধার হয়। সকালে-সন্ধ্য়া প্রচুর পরিমাণে বাক্স বাইরে থেকে আসত বলে জানিয়েছেন এলাকার বাসিন্দারা। 

এরপর পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার পর ৩৬০০ টি নিষিদ্ধ কাফ সিরাপের বোতল উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হয়। পাশের আরও একটি ঘরে তল্লাশি চালিয়ে সেখান থেকে ৪২ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা উদ্ধার করে পুলিস। সম্পূর্ণ ঘটনার তদন্ত চালাচ্ছে এসটিএফ এবং লালবাজারের নারকটিক্স বিভাগ

6 days ago


Prasanna Roy: নিয়োগ দুর্নীতি মামলার ‘মিডলম্যান’ ধৃত প্রসন্ন রায়-এর আজ মেডিক্যাল চেক আপ

নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় ইডির হাতে ফের গ্রেফতার ‘মিডলম্যান’ প্রসন্ন রায়। সোমবার রাতে জিজ্ঞাসাবাদের পর গ্রেফতার করা হয়ে তাঁকে। এরপর আজ, বৃহস্পতিবার সকালে প্রসন্ন কুমার রায়কে মেডিক্যাল চেকআপ করাতে নিয়ে যান ইডি আধিকারিকেরা। মেডিক্যাল চেকআপ করানোর পর তাঁকে সিজিও কমপ্লেক্সে নিয়ে আসা হয়। 

জানা গিয়েছে, এর আগে এই একই মামলায় সিবিআই প্রসন্ন রায়কে গ্রেফতার করেছিল। কিন্তু সুপ্রিম কোর্ট থেকে জামিনে মুক্তি পান ‘নিয়োগ দুর্নীতির অন্য়তম মিডলম্যান’। এরপর চলতি সপ্তাহের সোমবার প্রসন্ন রায়কে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য় ডাকা হয়েছিল ইডি দফতরে। সেখানে তাঁকে দিন-রাত জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। তারপর সোমবার রাতে তাঁকে গ্রেফতার করে ইডি। 

গত জানুয়ারি মাসে প্রসন্ন রায়ের বাড়ি ও অফিসে তল্লাশি চালিয়েছিলেন ইডি আধিকারিকেরা। প্রসন্ন রায়ের নিউটাউনের অফিস থেকে একাধিক নথি উদ্ধার হয়েছিল বলে ইডি সূত্রে খবর। সেই নথিপত্রের ভিত্তিতেই প্রসন্ন রায়কে ইডি দফতরে তলব করা হয়েছিল। 

a week ago
Asansol: চিকিৎসা ব্য়বস্থাতেও দুর্নীতি! অপারেশন না করিয়ে রোগীকে ছুটি দেওয়ার অভিযোগ

এবার সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ। দীর্ঘদিন ধরে হাসপাতালে ভর্তি থাকা সত্ত্বেও হয়নি অপারেশন। এমনই অভিযোগ নিয়ে হাসপাতালে সরব হন দীপালি দত্ত ও তাঁর ছেলে। অভিযোগ, বারংবার অপারেশনের কথা বলার পরেও সৌরভ দাস নামে এক ফিজিওথেরাপিস্ট করেননি সেই অপারেশন। 

ওই ফিজিওথেরাপিস্ট জানান, উক্ত হাসপাতালে অপারেশন দেরি করে হবে। তাই সুশান্ত বাবু তাঁর মায়ের অপারেশন বাইরের এক প্রাইভেট নার্সিংহোমে করিয়ে নিতে পারেন। অপর দিকে কাল্লা হাসপাতালে ভর্তি দীপালি দত্ত জানান, ডাক্তারবাবু তাঁকে দেখে যাচ্ছেন। আর বলছেন অপারেশনের লাইন অনেক আছে। তাই দেরি হবে। ছুটি নিয়ে বাড়ি চলে যান। পরে আবার আসবেন। 

এখন প্রশ্ন উঠছে, ইস্টার্ন কোলফিল্ড লিমিটেডের সোনপুর প্রজেক্টের কর্মী সুশান্ত বাবু তাঁর মাকে কাল্লা হাসপাতালে ভর্তি করেছেন। কয়লা খনি শ্রমিকদের চিকিৎসার জন্য কেন্দ্র সরকারের এই সেন্ট্রাল হাসপাতাল। সেখানে অপারেশনের দেরি হওয়ার নাম করে বাইরের নার্সিংহোমে অপারেশন করানোর কথা কীভাবে বলেন হাসপাতাল কর্মী?

যদিও সুশান্ত বাবু জানান, তিনি তাঁর মায়ের অপারেশন এখানে করাবেন না আর। তবে এই দুর্নীতির শেষ দেখে ছাড়বেন। বিষয়টি জানানো হয়েছে ইসিএল-এর কাল্লা সেন্ট্রাল হাসপাতালের সিএমও প্রণব মুখোপাধ্যায়কে। ক্যামেরার সামনে মুখ না খুললেও সিএমও জানান, তাঁর হাসপাতালের ডাক্তারদের বাইরে চিকিৎসা করার অনুমতি নেই। তাঁর কর্মী ফোনে কি অফার দিচ্ছেন সেটা সেই কর্মীর ব্যাপার। তবে ইসিএল-এর হাসপাতালের কর্মীরা কোনরকম চক্র তৈরি করে ব্যবসা করছে কিনা তা খতিয়ে দেখবেন।  

2 weeks ago


Arrest: নিয়োগ দুর্নীতিকাণ্ডে ফের গ্রেফতার ‘মিডলম্যান’ প্রসন্ন রায়

শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় ইডির হাতে ফের গ্রেফতার ‘মিডলম্যান’ প্রসন্ন রায়। সোমবার রাতে জিজ্ঞাসাবাদের পর গ্রেফতার করা হয়ে তাঁকে। এর আগে এই একই মামলায় সিবিআই তাঁকে গ্রেফতার করেছিল। কিন্তু সুপ্রিম কোর্ট থেকে জামিনে মুক্তি পান ‘নিয়োগ দুর্নীতির অন্য়তম মিডলম্যান’।

জানা গিয়েছে, সোমবার প্রসন্ন রায়কে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য় ইডি দফতরে ডাকা হয়েছিল। সেখানে তাঁকে দিন-রাত জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। তারপর সোমবার রাতে তাঁকে গ্রেফতার করে ইডি। ইডি সূত্রে খবর, এই প্রসন্ন রায়ের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ছিল। গত জানুয়ারি মাসে প্রসন্ন রায়ের বাড়ি ও অফিসে তল্লাশি চালিয়েছিলেন ইডি আধিকারিকেরা। প্রসন্ন রায়ের নিউটাউনের অফিস থেকে একাধিক নথি উদ্ধার হয়েছিল বলে ইডি সূত্রে খবর। সেই নথিপত্রের ভিত্তিতে প্রসন্ন রায়কে ইডি দফতরে তলব করা হয়েছিল। সেই মত সোমবার ইডি দফতর যান তিনি। দীর্ঘ সময় ধরে প্রসন্ন রায়কে জিজ্ঞাসাবাদের পর তাঁকে গ্রেফতার করে ইডি। মঙ্গলবার স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর তাঁকে ইডির স্পেশাল কোর্টে পেশ করা হবে বলে সূত্রের খবর।

2 weeks ago
High Court: পাড়ায় সমাধানে দুর্নীতি স্পষ্ট! আদালতের প্রশ্নের উত্তরে সময় চাইল রাজ্য

পাড়ায় সমাধানে দুর্নীতির গন্ধ পাওয়া গিয়েছিল আগেই। সমাধানের নামে দুর্নীতি হয়েছিল, উঠেছিল এমনই অভিযোগ। জানা গিয়েছিল, পাড়ায় সমাধানের রেকমেন্ডেশনে একাধিক শিক্ষক বদলি করা হয়েছিল। তবে প্রশ্ন জেগেছিল, এই 'পাড়ায় সমাধান'-এর আইনি বৈধতা কী? কাদের সিদ্ধান্তে ওই শিক্ষকদের বদলি? আগেও জানতে চেয়েছিল আদালত।

সম্প্রতি এই মামলায় বোর্ডের কাছে আদালত হলফনামা চাইলে, সেই হলফনামায় বোর্ডের উল্লেখ, কমিশনের নির্দেশেই ওই সকল বদলি করা হয়েছিল। শুধু তাই না, সেখানে সই ছিল তৎকালীন শিক্ষামন্ত্রীরও। এরপরেই সোমবার এই মামলার শুনানিতে বিচারপতি বিশ্বজিৎ বসু ২১৬ জন শিক্ষকের বদলিতে মন্ত্রীর এবং কমিশনের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন।

বিচারপতির মন্তব্য, বোর্ডের হলফনামায় প্রকাশ, পাড়ায় সমাধান থেকে আসা রেকমেন্ডেশনের আবেদন গৃহীত হয়ে বদলি হয়েছে কমিশনের নির্দেশে। এরপরেই বিচারপতি প্রশ্ন তোলেন, কমিশনকে এই নির্দেশ কে দিল? মিনিস্টার ইন চার্জই বা কীভাবে সই করলেন? সেই রেকর্ড আদালতের কাছে পেশ করতে হবে বলেই মন্তব্য করেন বিচারপতি। শুধু তাই না, মামলায় রাজ্যের আইনজীবীর উদ্দেশ্যে বিচারপতি বলেন,  দুর্নীতি হয়েছে সামনে এসেছে। এরপর রাজ্য ঠিক করুক, এই মামলার তদন্ত রাজ্য তার হাতে রাখবে, নাকি কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাকে তদন্তের নির্দেশ দেবে আদালত।

যদিও সমস্ত প্রশ্নের উত্তরেই রাজ্যের তরফ থেকে আইনজীবী কিশোর দত্ত জানান, আদালতের প্রশ্নের উত্তর দিতে আমার কিছু সময় লাগবে। তাঁকে বেশ কিছু তথ্য জোগাড় করতে হবে, আর তার জন্যই সময় চাওয়া বলে জানান আইনজীবী কিশোর দত্ত। সোমবার পাড়ায় সমাধান মামলার শুনানির শেষে বিচারপতির নির্দেশ, আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারি রাজ্যকে এই মর্মে তাদের সব বক্তব্য পেশ করতে হবে আদালতে।  এখন দেখার পরবর্তী শুনানিতে কোন দিকে মোড় নেয় পাড়ায় সমাধানে দুর্নীতির মামলা।

2 weeks ago
CBI: ভোট পরবর্তী মামলায় তৎপর সিবিআই, মামলার শুনানিতে সুপ্রিম স্থগিতাদেশ

২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচনের পর ভোট পরবর্তী হিংসা মামলায় মূলত, রাজ্যের তরফ থেকে সুপ্রিম কোর্টে মামলা সরানোর আবেদন জানানো হয়েছিল। অপরদিকে, সিবিআইয়ের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছিল এই মামলার শুনানি যাতে ভিন রাজ্যে করা হয়। কেন? কারণ, এ রাজ্যে মামলার সাক্ষীদের এবং বিপক্ষের আইনজীবীদের নানান হুমকির মুখে পড়তে হচ্ছে বলে খবর। তাই সিবিআই ভিন রাজ্যে মামলা সরানোর দাবি করে।

তবে সিবিআইয়ের দাবি, মামলা এ রাজ্যে থাকলে সমস্যা আরও বাড়তে পারে। তাই, এবার মামলার শুনানি হবে ভিন রাজ্যেই। এই মর্মে আপাতত মামলার শুনানিতে রাজ্যের বিশেষ আদালতগুলিকে স্থগিতাদেশ দিয়েছে সুপ্রিমকোর্ট। তারপরেই তৎপর সিবিআই।

উল্লেখযোগ্যভাবে খবর, ২০২১ এর বিধানসভা নির্বাচনে একাধিক ব্যক্তির সঙ্গেই খুন হয়েছিলেন মহম্মদ আলি নামে এক যুবক। ওই ব্যক্তি খুনের ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিকেও রবিবার বারাসতে নোটিস দেয় সিবিআই। যিনি, ঘটনায় সিবিআইয়ের হাতে গ্রেফতারির পর জামিনে মুক্তি পেয়েছিলেন। তবে, সাংবাদিকদের যেকোনও প্রশ্নের উত্তর এড়িয়ে চলে যান তিনি।

রাজ্যের একাধিক বিশৃঙ্খল ঘটনার মধ্যেই শোনা গেল, এখনও ভোট পরবর্তী হিংসার মামলার সাক্ষীরা হুমকি পাচ্ছেন। তদন্তকারী সংস্থা বাধ্য হচ্ছে ভিন রাজ্যে মামলার শুনানি হস্তান্তরিত করার আবেদন জানাতে। এ রাজ্যে তবে মামলার বিচারের জন্যও উপযুক্ত পরিস্থিতি নেই? শাসকের ওপর ক্ষোভ বাড়ছে সাধারণ মানুষের। দাবি বঙ্গের ওয়াকিবহাল মহলের।

2 weeks ago


ED: ইডি স্ক্যানারে WBCS আধিকারিক, তলব পঞ্চায়েত সহায়ক রথীন্দ্রনাথ দে'কে

১০০ দিনের কাজের দুর্নীতি নিয়ে ফের অ্য়াকশনে ইডি। শুক্রবার WBCS আধিকারিক শুভ্রাংশু মন্ডলকে হাজিরার নির্দেশ কেন্দ্রীয় এজেন্সির। শুক্রবার ফের তলব করা হয়েছে মুর্শিদাবাদ নওদা পঞ্চায়েত এর সহায়ক রথীন্দ্র কুমার দেকেও। জানা গিয়েছে, মুর্শিদাবাদের জেলা পরিষদে কর্মরত ছিলেন শুভ্রাংশু। এদিন সিজিওতে একসঙ্গে শুভ্রাংশু ও রথীন্দ্রকে তলব করা হয়েছে। সূত্রের খবর, দুই সন্দেহজনকে মুখোমুখি বসিয়ে জেরার সিদ্ধান্ত এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের।

প্রসঙ্গত, চার জেলার ছটি জায়গায় তল্লাশি অভিযানে নেমে ১০০ দিনের কাজে দুর্নীতিতে মুর্শিদাবাদের জেলা প্রকল্প আধিকারিক সঞ্চয়ন পানের দুটি ফ্ল্যাটে তল্লাশি অভিযান চালিয়েছে ইডি। তাঁর বাড়ি থেকে বাজেয়াপ্ত হয়েছিল, বেশকিছু নথি সহ পুরোনো একটি ল্যাপটপ, মোবাইল ফোন। ইডি সূত্রে খবর, ভুয়ো ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট বা জব কার্ড তৈরী করে ১০০ দিনের কাজের টাকা তছরূপ করা হয়েছে। এরপরেই ইডির স্ক্যানারে পড়ে যায় একের পর এক সরকারি আমলাদের নাম। পাশাপাশি মনরেগা প্রকল্পের দুর্নীতিতে মুর্শিদাবাদের পঞ্চায়েতের একসময়ের নির্মাণ সহায়ক রথীন্দ্রনাথ দের নামও। 

কিছুদিন আগেই রথীন্দ্রনাথ দের বাড়িতে ইডির তল্লাশিতে উঠে আসে একাধিক তথ্য সহ গুরুত্বপূর্ণ নথি। উদ্ধার হওয়া ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট ডিটেইলস দেখে কার্যত চক্ষু চড়কগাছ হয়েছিল ইডি আধিকারিকদের। তদন্তে জানা গিয়েছে, রথীন্দ্রনাথ দের বোন ইতি চট্টোপাধ্যায়ের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ট্রান্সফার হয়েছিল ১৭ লক্ষ টাকা। কেন এই বিপুল অর্থের লেনদেন? তা খতিয়ে দেখতে সিজিওতে আবার তলব করা হয় রথীন্দ্রনাথ দে ও তাঁর বোন ইতি চট্টোপাধ্যায়কেও। সেই জেরা-তল্লাশিতেই এবার নাম উঠে এসেছে WBCS আধিকারিক শুভ্রাংশু মণ্ডলের। 

2 weeks ago
Ed raid: ফের নিয়োগ দুর্নীতিকাণ্ডে তৎপর ইডি, পার্থ ঘনিষ্ট ব্য়বসায়ীর বাড়ি ও অফিসে হানা...

শিক্ষা নিয়োগ দুর্নীতিকাণ্ডে ফের অ্যাকশনে নামল ইডি। শুক্রবার সকাল থেকে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরের পক্ষ থেকে শহরের পাঁচ জায়গায় শুরু হয়েছে তল্লাশি অভিযান। প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী ঘনিষ্ঠ ব্যবসায়ীর বাড়িতে হানা দেয় ইডি। পার্থ চট্টোপাধ্যায় ঘনিষ্ঠ এই ব্য়বসায়ীর নাম রাজিব দে। 

জানা গিয়েছে, নাকতলায় পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়ির ঠিক উল্টোদিকেই পাঁচতলা বাড়ি রাজীব দে-র। সেখানে তল্লাশি অভিযান ইডি-র। পাশাপাশি, রাজীব দে-র শ্রীরাম কনস্ট্রাকশনের অফিসেও তল্লাশিতে নামেন ইডি আধিকারিকরা। তারপর রাজীব দের দাদা সঞ্জীব দে-কে নিয়ে বাড়ি থেকে বেরোন ইডি আধিকারিকেরা। বাড়ির পাশেই রয়েছে আরও এক প্রপার্টি। সেখানে গিয়ে খতিয়ে দেখলেন ইডির আধিকারিকরা। 


2 weeks ago


Ed: রেশন দুর্নীতি মামলায় গ্রেফতার শঙ্কর আঢ্য়ের ম্য়ানেজার বিশ্বজিৎ দাস

রেশ দুর্নীতি মামলায় ইডির হাতে গ্রেফতার শঙ্কর আঢ্যর ঘনিষ্ঠ বিশ্বজিৎ দাস। মঙ্গলবার সকাল থেকে ব্যবসায়ী বিশ্বজিৎ দাসের সল্টলেকের বাড়িতে তল্লাশি চালায় ইডি আধিকারিকেরা। ২৪ ঘন্টা অতিক্রান্ত হওয়ার পর বুধবার সকালে তাকে গ্রেফতার করে ইডি। 

ইডি সূত্রে খবর, এই বিশ্বজিৎ দাসের ইম্পোর্ট ও এক্সপোর্ট এর ব্যবসা রয়েছে। সেখানে এই রেশন দুর্নীতির টাকা খাটানো হয়েছে। এর পাশাপাশি বাড়ির সামনে রাখা বিলাস বহুল গাড়িতে তল্লাশি চালানো হয়। সেখানে প্লাস্টিক উদ্ধার করে বাড়ির ভিতরে নিয়ে যাওয়া হয়। ইডি আধিকারিকদের অনুমান, বেশ কিছু নথি থাকতে পারে। রেশন বন্টন দুর্নীতি মামলায় ইতিমধ্যেই ১০ হাজার কোটি টাকার হদিশ পেয়েছে ইডি। 

ইডি আধিকারিকরা মনে করছেন আরও ১০ হাজার কোটি টাকার এখনও রয়েছে অর্থাৎ কুড়ি হাজার কোটি টাকার দুর্নীতি হয়েছে। আরও দশ হাজার কোটি টাকা কোথায় আছে তারই খোঁজে রয়েছে কেন্দ্রীয় সংস্থা ইডি।

2 weeks ago
BJP: পারিবারিক বিবাদের জেরে হামলা! গুরুতর জখম বিজেপি নেতা, তদন্তে বিষ্ণুপুর থানার পুলিস

রাজনৈতিক উত্তাপে উত্তাল বঙ্গ। ইতিমধ্যেই, লোকসভা নির্বাচনের প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে রাজনৈতিক দলগুলি। এরইমাঝে পারিবারিক বিবাদের জেরে রক্ত ঝরল বাঁকুড়া বিষ্ণুপুর ব্লকের মড়ার গ্রাম পঞ্চায়েতের বিজেপি পঞ্চায়েত সদস্যের। সোমবার রাতে ছুরি দিয়ে বিজেপির পঞ্চায়েত সদস্য দেবাশিস রায়ের উপর হামলার অভিযোগ। পারিবারিক বিবাদের জেরে পাশের বাড়ির এক মহিলা কয়েকজন স্থানীয়দের সঙ্গে নিয়ে অতর্কিত হামলা চালায় বলেই দাবি বিজেপি নেতার। চড়, থাপ্পড় মারার পাশাপাশি ছুরি দিয়েও আঘাত করার অভিযোগ তুলেছেন আহত বিজেপি নেতা।

ঘটনার পরই আহত বিজেপি নেতাকে উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হয় বিষ্ণুপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে। অন্যদিকে লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তে নেমেছে বিষ্ণুপুর থানার পুলিস। এদিকে, রাজ্যজুড়ে বিরোধীদের নিরাপত্তা ঘিরে উঠেছে প্রশ্ন। আর কত হিংস্রতার পরিচয় দেবে বঙ্গ, এখন সেটাই দেখার।

3 weeks ago
ED Raid: সাতসকালে রেশন দুর্নীতি মামলায় অভিযান ইডির, সল্টলেক সহ একাধিক জায়গায় তল্লাশি

রেশন দুর্নীতি মামলায় মঙ্গলবার সকাল থেকে ফের তেড়ে ফুঁড়ে উঠেছে ইডি। কলকাতার বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশি অভিযান চালাচ্ছেন ইডি আধিকারিকরা। গত কয়েকদিনের তদন্তে বেশ কিছু নতুন তথ্য হাতে আসে ইডির হাতে। তারপরেই এই তল্লাশি অভিযান বলে জানা গিয়েছে। কীভাবে টাকা পাচার করা হয়েছে, কোন কোন ফরেন এক্সচেঞ্জ সংস্থা যুক্ত রয়েছে তা নিয়ে খোঁজ খবর করছে ইডি।

এদিন বিধাননগর আইবি ব্লকে বিশ্বজিৎ দাসের বাড়িতে হানা দেয় ইডি। সকাল সাতটা কুড়ি মিনিট নাগাদ ইডি আধিকারিকের ৫ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল এসে পৌঁছয় মেট্রোপলিটনে বিশ্বজিৎ দাসের ফ্ল্যাটে। বিশ্বজিৎ দাসের যে ফ্ল্যাটে প্রথমে সকালবেলা আধিকারিকরা গিয়েছিলেন ওই ফ্ল্যাটটি মূলত ভাড়া দেওয়া। মেট্রোপলিটনের সেই ফ্ল্যাট থেকে বেরিয়ে পাশেই আরও একটি ফ্ল্যাটে এলেন আধিকারিকরা। সেই ফ্ল্যাটে বিশ্বজিৎ না থাকলেও তাঁর বাড়ির কর্মীরা রয়েছে, ফলে তাঁদের সঙ্গে গিয়ে কথা বলেন আধিকারিকরা। ইডি আধিকারিকদের অনুমান, যেহেতু শঙ্কর আঢ্য এবং বিশ্বজিৎ অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ ছিল, ফলে রেশন বন্টন দুর্নীতির ক্ষেত্রে যে ১০ হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার হয়েছে, তার মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে এই বিশ্বজিৎ-এর ফরেক্স কোম্পানির।

এদিন ইডির আধিকারিকরা বিধাননগর ছাড়াও মেট্রোপলিটন, মধ্য কলকাতা, পোর্ট, বাগুইআটি এলাকায় তল্লাশি চালায়। উল্লেখ করা যেতে পারে, ইডির আধিকারিকরা এর মধ্যে জেল হেফাজতে থাকা জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক এবং শঙ্কর আঢ্যকেও জেরা করেন এবং তাদের হাতে পাওয়া তথ্য মিলিয়ে দেখার চেষ্টা করেন।

3 weeks ago


ED: ১০০ দিনের কাজে দুর্নীতির অভিযোগে তলব, ইডি দফতরে হাজির রথীন্দ্র দে ও তাঁর বোন

১০০ দিনের কাজে দুর্নীতির অভিযোগে মুর্শিদাবাদ জেলার প্রাক্তন নির্বাহী সহায়ক রথীন্দ্র কুমার দে-এর বাড়িতে তল্লাশি চালায় ইডি। তারপরেই তাঁকে তলব করা হয়। সেইমতো শুক্রবার সকাল ১০টা নাগাদ রথীন্দ্র কুমার দে ও তাঁর বোন ইতি চট্টোপাধ্যায় আইনজীবীকে সঙ্গে নিয়ে ইডি দফতরে আসেন। সূত্র মারফত খবর, আজ, শুক্রবার তাঁরা ইডি অধিকারিককে একটি চিঠি দেবেন। যদিও কী বিষয়ে চিঠি তা জানা যায়নি।

একশো দিনের কাজে দুর্নীতির অভিযোগ অনেক দিন আগেই তুলেছিল বিরোধীরা। এরপর কেন্দ্রের পক্ষ থেকে একশো দিনের কাজের টাকা বন্ধ করে দেওয়া হয়। বস্তুত, ২০১৯, ২০২০, ২০২১ সালে বেলডাঙায় দু’টি, ধনিয়াখালিতে ১টি, এছড়াও অন্যান্য ২ টি থানায় মামলা দায়ের হয়। মোট ৫ টি মামলার পরিপ্রেক্ষিতে ইসিআইআর দায়ের করে ইডি। তারপরই মঙ্গলবার সকাল হতে না হতেই রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশিতে নামেন গোয়েন্দারা।

কেন্দ্রীয় এজেন্সি সূত্রের খবর, পঞ্চায়েতের প্রাক্তন এক্সিকিউটিভ অ্য়াসিস্ট্য়ান্ট রথীন্দ্র দে ও তাঁর বোন ইতি চট্টোপাধ্যায়কে তলব করা হয়েছে মঙ্গলবার। দু'জনকেই শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টায় সল্টলেকের সিজিও কমপ্লেক্সে হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়েছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। বেলডাঙা ১ নম্বর ব্লকের সুজাপুর-কুমারপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রাক্তন এক্সিকিউটিভ অ্যাসিস্ট্যান্ট রথীন্দ্র দে। ১০০ দিনের কাজে ভুয়ো জবকার্ড তৈরি এবং সেই নামেই ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট তৈরি করে কোটি কোটি টাকার দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে আগেই। তার তদন্তে গতকাল রথীন্দ্র দে-র বহরমপুরের বাড়িতে অভিযান চালান ইডির আধিকারিকরা। ইডি সূত্রে খবর, রথীন্দ্র দে-র বোন ইতি চট্টোপাধ্যায় ১০০ দিনের কাজের টেন্ডার পেয়েছিলেন। তাঁর নামে কিছু জিনিসপত্রও কেনা হয়েছে। মঙ্গলবার রথীন্দ্র দে-র বাড়িতে অভিযানে দুটি মোবাইল ফোন বাজেয়াপ্ত করা হয়েছিল।

3 weeks ago
Summon: প্রাথমিক নিয়োগ দুর্নীতিতে তৎপর ইডি, ইডি দফতরে হাজিরা বাপ্পাদিত্যের, জমা দিলেন একাধিক নথি

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় ফের তলব করা হল কলকাতা পুরসভার ১০১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর বাপ্পাদিত্য দাশগুপ্তকে। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১টা নাগাদ ইডি দফতরে দফতরে আসেন বাপ্পাদিত্য। ইডি সূত্রে খবর, এই তৃণমূল কাউন্সিলরকে তাঁর ব্যাংকের পাসবুক, সমস্ত লেনদেন এবং আয়কর রিটার্নের সমস্ত কাগজপত্র সহ বেশ কয়েকটি নথি আনতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। যা বৃহস্পতিবারই ইডি দফতরে জমা দেন বাপ্পাদিত্য দাশগুপ্ত। টানা ৬ ঘণ্টা ধরে চলছে জিজ্ঞাসাবাস।

প্রসঙ্গত, একসময় পার্থ চট্টোপাধ্যায়-এর সঙ্গে নিয়মিত ওঠাবসা ছিল বাপ্পাদিত্যের। সেই কারণে প্রাথমিক নিয়োগ মামলায় পার্থের ভূমিকা সম্পর্কে বাপ্পাদিত্য অনেকটাই জানেন বলে মনে করছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা ইডি। তবে পার্থর সঙ্গে ঘনিষ্ঠতার কারণেই তাঁকে তলব, এমনটাই দাবি এদিন ইডির দফতরে হাজিরা দিতে আসা বাপ্পাদিত্যের। পাশাপাশি তাঁর সাফ দাবি প্রাথমিক নিয়োগ দুর্নীতি মামলার সঙ্গে তাঁর কোনও সম্পর্ক নেই।

তবে গত বছর প্রাথমিক নিয়োগ দুর্নীতি মামলার তদন্তে নেমে কাউন্সিলর বাপ্পাদিত্য দাশগুপ্তের বাড়িতে উদ্ধার হয় প্রাথমিক নিয়োগ সংক্রান্ত এবং এসএসসি নিয়োগ সংক্রান্ত একাধিক নথি। প্রায় ১০০ পাতার নিয়োগ সংক্রান্ত নথি উদ্ধার হয়েছিল বলে সিবিআই সূত্রে খবর। এরপর বৃহস্পতিবার বাপ্পাদিত্যকে আবার তলব ইডির। এই বিষয়ে জল কতদূর গড়ায় এখন সেটাই দেখার।

3 weeks ago