Breaking News
BJP: ইস্তেহার প্রকাশ বিজেপির, 'এক দেশ এবং এক ভোট' লাগু করার প্রতিশ্রুতি      Fire: দমদমে ঝুপড়িতে বিধ্বংসী অগ্নিকাণ্ড, ঘটনাস্থলে দমকলের একাধিক ইঞ্জিন      Bengaluru Blast: বেঙ্গালুরু ক্যাফে বিস্ফোরণকাণ্ডে কাঁথি থেকে দুই সন্দেহভাজনকে গ্রেফতার করল এনআইএ      Sheikh Shahjahan: 'সিবিআই হলে ভালই হবে', হঠাৎ ভোলবদল শেখ শাহজাহানের      CBI: সন্দেশখালিকাণ্ডে সিবিআই তদন্তের নির্দেশ কলকাতা হাইকোর্টের...      NIA: ভূপতিনগর বিস্ফোরণকাণ্ডে এবার কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ NIA      ED: অবশেষে ইডির স্ক্যানারে চন্দ্রনাথের 'মোবাইল-হিস্ট্রি', খুলতে পারে নিয়োগ দুর্নীতি রহস্যের জট      PM Modi: তৃণমূল মানেই দুর্নীতি-লুট! ভোট প্রচারে সন্দেশখালির পর ভূপতিনগর নিয়ে সরব মোদী      NIA: ভূপতিনগর বিস্ফোরণকাণ্ডে গ্রেফতার আরও ২ , কেন্দ্রীয় এজেন্সির উপর হামলার ঘটনায় উদ্বিগ্ন কমিশন      Sheikh Shahjahan: বিজেপির 'দালাল'রা তাঁর বিরুদ্ধে মিথ্যে বলছে, দাবি শেখ শাহজাহানের     

UGC

Trafficking: ১০ মাস লড়াইয়ের পর মাদক মামলা থেকে মুক্তি বিজেপি নেত্রী পামেলার

মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে দেওয়াও চলছে এই রাজ্যে। এমন দাবি করলেন বিজেপি নেত্রী পামেলা গোস্বামী। ২০২১ সালে যাঁর নাম জড়িয়েছিল মাদক পাচার মামলায়। তারপর যদিও আইনি লড়াইয়ে নেমেছিলেন পামেলা। মামলার জল কলকাতা হাইকোর্ট থেকে সুপ্রিমকোর্ট- গড়িয়েছে সর্বত্রই। বহুবার তাঁকে ক্লিনচিট দেওয়া হলেও, রাজ্য সরকারের তরফ থেকে বারবার আদালতের নির্দেশ চ্যালেঞ্জ করে পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে, শুধুমাত্র তাঁকে ফাঁসানোর জন্য। এমনই দাবি করেন পামেলা।

বারবার মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে, দাবি পামেলার। তবে শেষ পর্যন্ত এই মামলা থেকে সম্পূর্ণরূপে মুক্তি পেলেন পামেলা। তাঁর নামে রইল না আর কোনও অভিযোগ। এদিন, সত্যের এই জয়ই ভাগ করে নেন বিজেপি কর্মী সমর্থকরা। পামেলাকে কেন্দ্রে রেখে, মালা পরিয়ে, হাতে সত্যেমেব জয়তে লেখা প্ল্যাকার্ড নিয়ে চলল মিছিল।

পামেলার আইনজীবীও জানান, এই মামলা বাকিদের বিরুদ্ধে এখনও চললেও, পামেলার বিরুদ্ধে সমস্ত অভিযোগের নিস্পত্তি ঘটেছে।

তবে বিরোধী মহল শুক্রবার খুশি, কারণ সত্যের জয় হয়েছে। মাদক সঙ্গে রাখা এবং পাচারের অভিযোগে যোগ হওয়া কালো দাগ মুছল পামেলার জীবন থেকে। পামেলা যদিও আগেও বলেছিলাম, তাঁকে ফাঁসানো হয়েছে। পুরোটাই রাকেশ সিং ও রাজ্য সরকারের মিলিত চাল। তবে এই পরিকল্পনাতে জড়িয়ে কে বা কারা, তা জানা যাবে মামলার সম্পূর্ণ নিষ্পত্তিতে।

2 months ago
UGC: উচ্চশিক্ষায় সংরক্ষিত শ্রেণির ছাত্র-ছাত্রীদের বাতিল অ্যাপ্লিকেশন ফি, গাইডলাইনে প্রস্তাব ইউজিসির

উচ্চশিক্ষায় সংরক্ষণের নয়া নীতি নির্ধারণের জন্য সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) একটি গাইডলাইনে প্রস্তাব দিয়েছে। ইউজিসির ওই প্রস্তাবিত গাইডলাইনে বলা হয়েছে, কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে চাকরির ক্ষেত্রে তফসিলি জাতি-উপজাতি (এসসি/এসটি), ওবিসি এবং আর্থিক ভাবে দুর্বল প্রার্থীদের থেকে কোনও অ্যাপ্লিকেশন ফি নেওয়া যাবে না। এও বলা হয়েছে, সংরক্ষিত আসনের চাকরিপ্রার্থীদের ইন্টারভিউ দিতে দূরবর্তী জায়গায় যেতে হলে, তাঁদের সেকেন্ড ক্লাস ট্রেনের টিকিট অথবা বাসের ভাড়াও চাইলে মিটিয়ে দিতে পারে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান অথবা নিয়োগ সংস্থাগুলি।

সম্প্রতি প্রস্তাবিত এই গাইডলাইনে নাগরিকদের মতামতও চেয়েছে ইউজিসি। সেখানেই সংরক্ষিত প্রার্থীদের জন্য এমন একগুচ্ছ নিয়ম কার্যকর করতে চাইছে কেন্দ্র। আরও বলা হয়েছে, প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়ে অন্তত ডেপুটি রেজিস্ট্রার পদমর্যাদার একজনকে এসটি, এসসি, ওবিসিদের বিষয়গুলি মনিটার করার জন্য লিয়াজ়ঁ অফিসার হিসেবে দায়িত্ব দিতে হবে। এছাড়া পিএইচডি অথবা শিক্ষক-শিক্ষাকর্মী নিয়োগের সিলেকশন কমিটিগুলিতে এসটি, এসসি, ওবিসি প্রতিনিধি যথাযথ মাত্রায় রাখতে হবে।

উল্লেখ্য, প্রস্তাবিত গাইডলাইন অনুযায়ী তফসিলি জাতি-উপজাতি (এসসি/এসটি), ওবিসি এবং আর্থিক ভাবে দুর্বল প্রার্থীদের অধিকার রক্ষার জন্য এই নিয়ামাবলী তৈরি করা হয়েছে।

3 months ago
Selfie Points: কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে সেলফি পয়েন্ট তৈরি! ইউজিসির নির্দেশ ঘিরে জোর বিতর্ক

কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে এবার সেলফি পয়েন্ট তৈরি করার নির্দেশ দিল বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন বা ইউজিসি। ইউজিসির নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে কেন্দ্রের থ্রিডি নকশা মেনে তৈরি করতে হবে সেলফি পয়েন্ট। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এবং কলেজ ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রিন্সিপালদের এই নির্দেশিকা দিয়েছেন ইউজিসি সচিব মণীশ জোশী। শুক্রবার এই নির্দেশিকা জারি করেছে। এর পিছনে ইউজিসির যুক্তি, সেলফি পয়েন্ট ক্যাম্পাসে ভেদাভেদ বন্ধ করতে সাহায্য় করবে। পাশাপাশি, আন্তর্জাতিক স্তরে ভারতীয় প্রতিষ্ঠানগুলির মাহাত্ম্য তুলে ধরতে সাহায্য় করবে।

কিন্তু প্রশ্ন, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্যাম্পাসের কোথায় হবে সেলফি পয়েন্ট? যদিও নির্দেশিকায় থ্রিডি নকশার মাধ্যমে তা বলে দেওয়া হয়েছে। সেই মতোই সেলফি পয়েন্ট তৈরি করতে হবে কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে। কোনও কোনও সূত্র মারফত খবর, সেলফি জোনের পটভূমিকায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ছবি রাখতে বলা হয়েছে। তবে তার উল্লেখ নির্দেশিকায় কোথাও নেই।

আর ইউজিসির এই নির্দেশ সামনে আসার পরেই শুরু হয়েছে জোর বিতর্ক। শিক্ষাঙ্গনকে রাজনীতি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনের। এমনকি মোদীর প্রচারের ক্ষেত্রে কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে ব্যবহার করা হচ্ছে। কেন্দ্রীয় সরকার এক্ষেত্রে ইউজিসির মতো সংস্থাকে ব্যবহার করছে বলেও অভিযোগ বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলির।

শুধু তাই নয়, দেশের তরুণ সমাজকে নিশানা করতেও এহেন কর্মসূচি নেওয়া হচ্ছে বলেও অভিযোগ রাজনৈতিকমহলের একাংশ। যদিও এই বিষয়ে ইউনির্ভাসিটি গ্রান্ট কমিশন অর্থাৎ ইউজিসির তরফে কোনও বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে যেভাবে বিতর্ক যেভাবে মাথা চাড়া দিচ্ছে তাতে এহেন নির্দেশ নিয়ে কি সিদ্ধান্ত সরকার নেয় সেদিকেই নজর সবার।

4 months ago


Congress MLA: মাদক মামলায় গ্রেফতার কংগ্রেস বিধায়ক সুখপাল সিং খইরা

মাদক মামলায় (Drug Case) গ্রেফতার কংগ্রেস বিধায়ক (Congress MLA) সুখপাল সিং খইরা (Sukhpal Singh Khaira)। বৃহস্পতিবার সকালে চণ্ডিগড়ের সেক্টর ৫-এর বাংলোতে তল্লাশি অভিযান চালানোর পর তাঁকে আজ গ্রেফতার করে পঞ্জাব পুলিস। জানা গিয়েছে, পুরনো এক মাদক মামলায় তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

সূত্রের খবর, কংগ্রেস বিধায়কের বিরুদ্ধে আগেই নারকোটিক্স অ্যান্ড সাইকোট্রপিক সাবস্ট্যান্স আইনে মামলা ছিল। ওই পুরনো মামলার সূত্র ধরেই এ দিন সকালে জালালাবাদ পুলিস তাঁর বাংলোতে তল্লাশি অভিযান চালায়। তল্লাশির পর তাঁকে গ্রেফতার করা হয়।

এদিন সুখপাল সিং খইরার বাড়িতে অভিযান চালানোর সময় ফেসবুকে লাইভ করেন তিনি। সেই ভিডিও-তে দেখা যায়, তিনি পুলিস আধিকারিকদের সঙ্গে বিতর্কে জড়িয়ে পড়েন। তিনি ও তাঁর পরিবারের সদস্যরা গ্রেফতারির কারণ জিজ্ঞাসা করেন। তখন জালালাবাদের ডিএসপিকে বলতে শোনা যায়, মাদক মামলায় তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছে। কিন্তু সুখপাল দাবি করেন, এই মামলা অনেকদিন আগেই সুপ্রিম কোর্ট খারিজ করে দিয়েছে। তাহলে গ্রেফতারি কীভাবে সম্ভব? এর পর তাঁকে প্রিজন ভ্যানে তোলার সময় তিনি আরও জানান, তাঁর এই গ্রেফতারির পিছনে 'রাজনৈতিক স্বার্থ' জড়িয়ে রয়েছে।

7 months ago
Jadavpur: ব়্যাগিং বিরোধী নিয়মাবলী মানা হয়নি কেন? প্রশ্ন তুলে যাদবপুরকে কড়া চিঠি ইউজিসির

যাদবপুর হস্টেলে পড়ুয়ার রহস্যমৃত্যুর ঘটনায় ব়্যাগিংয়ের অভিযোগ উঠেছিল। এরপরই বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের প্রতিনিধি দল ক্যাম্পাস পরিদর্শন করে। এবার যাদবপুরকে কড়া চিঠি দিল ইউজিসি। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় কেন ব়্যাগিং বিরোধী নিয়মাবলী মানেনি, তা নিয়ে জবাব তলব করা হয়েছে। কৈফিয়েত দেওয়ার জন্য কর্তৃপক্ষকে ১৫ দিন সময়ও দিয়েছে ইউজিসি।

যাদবপুরের পাশাপাশি একাধিক বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষেরই কৈফিয়েত চেয়েছে ইউজিসি। যাদবপুরে পড়ুয়াদের উপর কেন হস্টেল সুপারদের নিয়ন্ত্রণ ছিল না, চিঠিতে তাও জানতে চেয়েছে ইউজিসি। প্রাক্তনীদের হোস্টেলে থাকা নিয়েও জবাব চাওয়া হয়েছে।

গত ৯ অগাস্ট যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় হস্টেলে পড়ুয়ার রহস্যমৃত্যু নিয়ে তোলপাড় হয় গোটা রাজ্য। ইউজিসি-এর নিয়ম মেনে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে কেন সিসি ক্যামেরা বসানো ছিল না, তা নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। গত শনিবার ক্যাম্পাসের মোট ২৬ জায়গায় ক্যামেরা বসানো হয়।ব়্যাগিং বিরোধী নিয়মাবলী মানা হয়নি কেন? প্রশ্ন তুলে যাদবপুরকে কড়া চিঠি ইউজিসির।

যাদবপুর হস্টেলে পড়ুয়ার রহস্যমৃত্যুর ঘটনায় ব়্যাগিংয়ের অভিযোগ উঠেছিল। এরপরই বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের প্রতিনিধি দল ক্যাম্পাস পরিদর্শন করে। এবার যাদবপুরকে কড়া চিঠি দিল ইউজিসি। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় কেন ব়্যাগিং বিরোধী নিয়মাবলী মানেনি, তা নিয়ে জবাব তলব করা হয়েছে। কৈফিয়েত দেওয়ার জন্য কর্তৃপক্ষকে ১৫ দিন সময়ও দিয়েছে ইউজিসি। যাদবপুরের পাশাপাশি একাধিক বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষেরই কৈফিয়েত চেয়েছে ইউজিসি। যাদবপুরে পড়ুয়াদের উপর কেন হস্টেল সুপারদের নিয়ন্ত্রণ ছিল না, চিঠিতে তাও জানতে চেয়েছে ইউজিসি। প্রাক্তনীদের হোস্টেলে থাকা নিয়েও জবাব চাওয়া হয়েছে।

গত ৯ অগাস্ট যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় হস্টেলে পড়ুয়ার রহস্যমৃত্যু নিয়ে তোলপাড় হয় গোটা রাজ্য। ইউজিসি-এর নিয়ম মেনে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে কেন সিসি ক্যামেরা বসানো ছিল না, তা নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। গত শনিবার ক্যাম্পাসের মোট ২৬ জায়গায় ক্যামেরা বসানো হয়।

7 months ago


Commitee: 'এটা অহংয়ের জায়গা নয়,' রাজ্যপালকে হুঁশিয়ারি দিয়ে সার্চ কমিটি গঠন সুপ্রিম কোর্টের

'শিক্ষা ব্যাবস্থা ব্যক্তিগত অহংয়ের জায়গা নয়,' রাজ্যপালকে হুঁশিয়ারি দিয়ে সার্চ কমিটি গঠনের নির্দেশ শীর্ষ আদালতের। বাংলার উপাচার্য নিয়োগ বিতর্কে এবার নয়া মোড়। এবার নিয়োগ জট মেটাতে সার্চ কমিটি গঠন করবে সুপ্রিম কোর্ট। রাজ্য সরকার, রাজ্যপাল, ইউজিসি-কে নাম জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে শীর্ষ আদালত। এক সপ্তাহের মধ্যে সেই নামের প্রস্তাব জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। শুক্রবারের শুনানিতে বিচারপতিরা রাজ্য সরকার ও রাজ্যপালের আইনজীবীর কাছে জানতে চান, যদি আদালত একটি সার্চ কমিটি গঠন করতে চায়, তাহলে তাঁদের কী বক্তব্য। রাজ্য সরকারের তরফে একটি আবেদন করা হয়, তাহলে কমিটিতে কে কে থাকবেন, সেই দায়িত্বও আদালত যেন নেয়। আদালতই দায়িত্ব নিয়ে সার্চ কমিটি গঠন করে দিক।

রাজ্যপাল ও UGC-র তরফ থেকেও আইনজীবীরা জানিয়ে দেন, তাঁদের কোনও আপত্তি নেই। এরপরই সুপ্রিম কোর্ট তিন পক্ষকেই বলে, আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে কমিটি তৈরির জন্য তিন থেকে পাঁচ জন বিশেষজ্ঞের প্রস্তাবিত নামের তালিকা তৈরি করতে। সেই প্যানেল থেকেই বিশেষজ্ঞদের কমিটি তৈরি করবে শীর্ষ আদালত। তার ভিত্তিতে আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর পরবর্তী শুনানি হবে। একটি সার্চ কমিটি গঠন করবে সুপ্রিম কোর্ট।

মূলত রাজ্যের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্য নিয়োগের ক্ষেত্রে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে এই সার্চ কমিটি। অর্থাৎ উপাচার্য নিয়োগে পুরো রাশ নিজের হাতে নিল শীর্ষ আদালত। উল্লেখ্য, এর আগের শুনানিতে আদালত স্পষ্ট করে বলে দিয়েছিল, রাজ্যপাল অর্থাৎ চ্যান্সেলর, রাজ্য সরকারের তরফ থেকে শিক্ষামন্ত্রীকে আলোচনায় বসতে হবে। রাজ্যের শিক্ষাক্ষেত্রে উপাচার্য নিয়োগ নিয়ে যে জটিলতা তৈরি হয়েছে, তা নিয়ে আলোচনার মাধ্যমে একটি সমাধানসূত্র খুঁজে বার করতে হবে। শুক্রবারের শুনানিতে সেই বিষয়টি আবার উত্থাপিত হয়। আদালত এদিনও জানতে চায়, আদৌ রাজ্য সরকার ও রাজ্যপাল এই ধরনের কোনও আলোচনায় বসেছিল কিনা।

7 months ago
UGC: র‍্যাগিং বিতর্কের পর সোমবার যাদবপুরে আসবেন ইউজিসির একটি বিশেষ দল

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র মৃত্যুর পর থেকেই নড়েচড়ে বসেছে কর্তৃপক্ষ থেকে শুরু করে ইউজিসিও। বারংবার প্রশ্নের মুখে পড়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা ব্যবস্থা। রাজ্যের এক নম্বর তথা দেশের ৪ নম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রমৃত্যুর ঘটনায় তোলপাড় গোটা বাংলা। অভিযোগ উঠছে, ব়্য়াগিংয়ের জেরেই মৃত্যু হয়েছে প্রথম বর্ষের পড়ুয়ার। এই ঘটনা নিয়ে রিপোর্ট পাঠালেও, বিশ্ববিদ্যালয়ের দেওয়া উত্তরে খুশি নয় ইউজিসি। সোমবার ক্যাম্পাস পরিদর্শনে আসছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন বা ইউজিসির এর একটি টিম।

ঘটনার পরে বিশ্ববিদ্যালয়ে দফায় দফায় চিঠি দিয়েছে ইউজিসি। অভিযোগ ইউজিসি এর একাধিক গাইডলাইন মানেনি যাদবপুর। সূত্রের খবর, ৪ সদস্যের ইউজিসির এর প্রতিনিধি দল ক্যাম্পাসে থেকে বেশ কয়েকদিন পরিবেশ বুঝবে। কথা বলা হবে ছাত্রছাত্রীদের সঙ্গেও।

7 months ago
Anti Ragging:যাদবপুরের পড়ুয়া মৃত্যুর ঘটনায় এবার সক্রিয় ইউজিসি, তদন্তে ইউজিসির অ্যান্টি র‌্যাগিং দল

যাদবপুরের (Jadavpur) ছাত্র মৃত্যুর (Student Death) ঘটনায় এবার নড়েচড়ে বসল ইউজিসি (UGC), এবার ইউজিসির হস্তক্ষেপে রাজ্যের সমস্ত কলেজগুলো আরও কড়া হবে বলে মনে করছেন সকলেই। সোমবারের মধ্যে প্রাথমিক রিপোর্ট তলব করা হয়েছে বলে সূত্রের খবর। সূত্রের খবর, ইউজিসির অ্যান্টি র‌্যাগিং দল ক্যাম্পাসে ঢুকে তদন্ত চালাবে, পাশাপাশি বৈঠকে বসছে যাদবপুরের তদন্ত কমিটি। সেই রিপোর্টও দেওয়া হবে ইউজিসি -কে। 

সূত্রের খবর, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের হোস্টেলে ইউজিসির নিয়ম অনুযায়ী সঠিকভাবে ছাত্রদের রাখা হয়েছিল কিনা সেদিক থেকেই উঠছে প্রশ্ন। প্রশ্ন উঠছে, কিভাবে দিনের পর দিন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন পড়ুয়ারা হোস্টেল দখল করে ছিলেন? এ ছাড়া যাদবপুরের পড়ুয়া স্বপ্নদ্বীপের রহস্য মৃত্যুতে আরও কিছু স্পষ্ট হয়েছে যে শুধু হোস্টেল গুলিতে প্রাক্তন ছাত্ররা থাকতেনই না রীতিমতো জঙ্গলরাজ অর্থাৎ র‌্যাগিং চালাতেন বলেই অভিযোগ উঠেছে। এবার এসব ঘটনা তদন্তেই ইউজিসের অ্যান্টি র‌্যাগিং দল।

মেধার ভিত্তিতে দেশ তথা রাজ্যের অন্যতম সেরা বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন একের পর এক অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটছে তা নিয়েও উদ্বিগ্ন ইউজিইসি। একাধিক অভিযোগ দায়ের হয়েছে ইউজিসিতে, তা খতিয়ে দেখতেই বিশ্ববিদ্যালয়ে আসবে একটি বিশেষ দল। রবিবার সকালেই যাদবপুরের ছাত্রের মৃত্যুতে গ্রেফতার করা হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়েরই আরও দুই ছাত্রকে। ইতিমধ্যেই তাঁদের ২২ তারিখ অবধি জেল হেফাজতের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

8 months ago


Siliguri: উর্দির আড়ালে মাদকের কারবার! মাদককাণ্ডে গ্রেফতার এক কারাগার কর্মী

উর্দির আড়ালে মাদকের (Drug Case) কারবার! এমনই চাঞ্চল্যকর অভিযোগ প্রকাশ্যে আসতেই পুলিসের জালে ধরা পড়ল এক কারাগার কর্মী। ঘটনাটি ঘটেছে শিলিগুড়িতে (Siliguri)। মাদককাণ্ডের তদন্তে নেমে গত সপ্তাহের শুক্রবার অভিযুক্তকে গ্রেফতার (Arrest) করে এনজেপি থানার পুলিস (Police)। শনিবার ধৃতকে আদালতে পেশ করে তদন্তের স্বার্থে ৯ দিনের রিমান্ডে নেয় পুলিস। এমনকি এই ঘটনায় আর কে কে জড়িত আছে তা জানতে তৎপর পুলিস। 

পুলিস সূত্রে খবর, ধৃতের নাম মোবারক আলি। বাড়ি শিলিগুড়ি মহকুমার ফাঁসিদেওয়ায়। অভিযুক্ত মোবারক আলি শিলিগুড়ি বিশেষ সংশোধনাগারের অধীনস্থ উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের প্রিজন সেলের দায়িত্ব সামলাচ্ছিলেন।

পুলিস সূত্রে আরও জানা গিয়েছে, চলতি মাসে ধরা পড়ে এক মাদক কারবারি। বিপুল পরিমাণ মাদক বাজেয়াপ্ত করার পাশাপাশি ধৃতের কাছ থেকে আনুমানিক নগদ ৫ লক্ষ টাকা উদ্ধার করেছিল পুলিস। সেই ঘটনার তদন্ত শুরু করতেই পুলিসের নজরে আসে কারাগার কর্মী মোবারক আলি। যদিও এবিষয়ে শিলিগুড়ি মেট্রোপলিটন পুলিসের এডিসিপি শুভেন্দ্র জানিয়েছেন, ঘটনার তদন্ত চলছে। এই ঘটনায় আর কে বা কারা জড়িত আছে তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

8 months ago
SRK: আরিয়ান মাদক মামলায় ২৫ কোটি টাকা দাবি সমীরের! এনসিবির বিরুদ্ধে অভিযোগ সিবিআইয়ের

শাহরুখের (Shah Rukh Khan) থেকে ২৫ কোটি টাকা দাবি করেছিলেন সমীর ওয়াংখেড়ে (Sameer Wankhede)। নয়তো আরিয়ানের কেরিয়ার ধ্বংস করে দেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়েছিল। এমনটাই দাবি করা হয়েছে সিবিআইয়ের এফআইআর-এ। ২০২১ সালের অক্টোবরে প্রমোদতরী থেকে শাহরুখ পুত্র আরিয়ানকে মাদক কাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে গ্রেফতার করেছিল নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো (NCB)। এরপর আরিয়ানকে গ্রেফতার করা হলেও পরে তিনি জামিন পেয়ে যান। কিন্তু সেখানেই শেষ নয় এই ঘটনা। এই মামলায় এখন নতুন মোড় এসেছে।

সিবিআইয়ের এফআইআর-এ দাবি করা হয়েছে, আরিয়ানকে এই মামলা থেকে বাঁচানোর জন্য খান পরিবারকে ধমকিয়ে ২৫ কোটি টাকা দাবি করা হয়েছিল। নয়তো তাঁকে ফাঁসিয়ে দেওয়ার পরিকল্পনা ছিল এনসিবির। এমনটাই অভিযোগ সিবিআইয়ের। আরিয়ানের মাদক মামলার সময় এনসিবি জোনাল ডিরেক্টর ছিলেন সমীর ওয়াংখেড়ে। তাঁর অধীনস্থ আধিকারিক ও কেপি গোসাবি এই ঘুষ নেওয়ার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এই নিয়ে তদন্তও করছে সিবিআই।

সিবিআই আরও দাবি করেছে, ২৫ কোটি টাকা চাওয়া হলেও প্রথমে ১৮ কোটি টাকা দেওয়া হয়। এই ১৫ কোটির ৫০ লক্ষ টাকা আগাম দেওয়া হয়েছিল কেপি গোসাভিকে। তারপরেও বাকি টাকা তুলতে ফাঁসানো হয় আরিয়ানকে। খান পরিবারের বিরুদ্ধেও নেতিবাচকতা ছড়ানো হয়। তবে আদৌ খান পরিবার তাঁদের টাকা দিয়েছে কিনা তা নিয়ে ধোঁয়াশায় প্রত্যেকেই।

11 months ago


UGC: ইউজিসি-র নয়া নির্দেশিকা জারি, বিশ্ববিদ্যালয়, কলেজে বৈদিক গণিত, যোগের পাঠ্যক্রম চালু

রাজ্যে জাতীয় শিক্ষানীতি নিয়ে পশ্চিমবঙ্গ (West Bengal) ছাড়াও অনেক রাজ্যের অভিযোগ রয়েছে। এর মধ্যে কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ে বৈদিক গণিত, যোগ, আয়ুর্বেদ-সহ বিভিন্ন বিষয়ের পাঠ্যক্রম চালু করার জন্য ‘নির্দেশিকা’ প্রকাশ করল বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন বা ইউজিসি (UGC)। জাতীয় শিক্ষানীতিতে ভারতীয় ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিকে তুলে ধরার বিষয়টিকে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। 

বিদেশি পড়ুয়াদের আকৃষ্ট করার জন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভারতীয় ঐতিহ্য-সংস্কৃতির ভিত্তিতে সর্বজনীন মানবিক মূল্যবোধ, বৈদিক অঙ্ক, যোগ, সংস্কৃত, ভারতীয় ভাষা, শাস্ত্রীয় নৃত্যের মতো বিভিন্ন বিষয়ে পাঠ্যক্রম চালু করা হোক। সঙ্গীত, নৃত্য শিল্পীদের পাশাপাশি টেরাকোটা, মধুবনি, মৃৎশিল্পী, বাঁশ-বেতের কারুশিল্পীদের চিহ্নিত করে উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ক্যাম্পাসেই তাঁদের থাকার ব্যবস্থা করার কথা বলা হয়েছে। ‘কলাগুরুরা’ সেখানে থেকে শিল্পকর্ম, কর্মশালা করবেন, পড়ুয়াদের তালিম দেবেন, গবেষণায় সহায়তা করবেন। 

11 months ago
Shoot: মেক্সিকোর পানশালায় অজ্ঞাতপরিচয় বন্দুকবাজদের গুলিতে ৪ মহিলা-সহ নিহত ৯

ফের রক্তাক্ত মেক্সিকো। অজ্ঞাত পরিচয় বন্দুকবাজদের এলোপাথাড়ি গুলিতে মৃত্যু হয়েছে ৯ জনের। জখম হয়েছেন ২ জন। মধ্য মেক্সিকোর (central Mexican) গুয়ানাজুয়াতোর (Guanajuato) এক পানশালায় বন্দুকধারীরা এই হামলা (Attack) চালায়। স্থানীয় কর্তৃপক্ষ বৃহস্পতিবার জানিয়েছে, এই ক্রমবর্ধমান হিংসার কথা

কর্তৃপক্ষ এক বিবৃতিতে জানায়, একটি সশস্ত্র দল বুধবার (স্থানীয় সময়) রাত ৯টার দিকে সেলায়ার বাইরের অ্যাপাসিও এল আল্টো শহরের বারে আসে এবং ভিতরে থাকা সকলের উপর গুলি চালায়। এই হামলায় পাঁচজন পুরুষ ও চারজন মহিলা নিহত হয়েছেন এবং আরও দু'জন আহত হয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। আহত নারীদের অবস্থা স্থিতিশীল।

প্রশাসন জানিয়েছে, আততায়ীদের এখনও শনাক্ত করা যায়নি। রাজ্য এবং ফেডারেল কর্তৃপক্ষের ইউনিট এবং সেই সঙ্গে ন্যাশনাল গার্ডকে এলাকায় পাঠানো হয়েছে। গুয়ানাজুয়াতো, একটি শিল্পকেন্দ্র। সাম্প্রতিক বছরগুলিতে মাদক সিন্ডিকেটের কলহে বিধ্বস্ত হয়েছে এই শহর। গত মাসে, ইরাপুয়াতো শহরের একটি বারে ১২ জন নিহত হয়েছিল এবং সেপ্টেম্বরে কাছাকাছি সময়ে একটি বন্দুকধারীর হামলায় ১০ জন নিহত হয়েছিল।

one year ago
Bollywood: মাদক-কাণ্ডে এনসিবি চার্জশিটে কমেডিয়ান ভারতীর নাম, ২০২০-তে গ্রেফতারও হয়েছিলেন

দু'বছর আগে বলিউডের (Bollywood) একাংশের বিরুদ্ধে মাদক (Drug Case) সেবন নিয়ে সরব হয়েছিল নাগরিক সমাজ। সময়টা অভিনেতা সুশান্ত সিংহ রাজপুতের (SSR Death) মৃত্যুর পরপর। সেই সময় মাদক মামলায় তদন্তের মুখোমুখি হয়েছিলেন একাধিক নামজাদা। দীপিকা পাড়ুকোন, অনন্যা পান্ডে,রিয়া চক্রবর্তী প্রমুখরা। এই মামলায় গ্রেফতার হয়েছিলেন ডান্স রিয়ালিটি শোয়ের সঞ্চালক তথা ‘কমেডি ক্যুইন’ ভারতী সিংহ ও তাঁর স্বামী হর্ষ লিম্বাচিয়াকে। পরে তাঁরা জামিন পান। এই ঘটনার প্রায় দু’বছর পর ভারতী ও তাঁর স্বামীর নামে চার্জশিট জমা দিল এনসিবি (NCB)।

মুম্বইয়ের এক আদালতে চার্জশিট জমা দেওয়া হয়েছে। এক সংবাদ সংস্থা সূত্রে এই খবর নিশ্চিত করা হয়েছে। ২০২০-র ২১ নভেম্বর অন্ধেরির লোখেন্ডওয়ালায় ভারতীর বাড়িতে হানা দিয়েছিল এনসিবি। সেই তল্লাশি অভিযানে এই তারকা দম্পতির বাড়ি থেকে ৮৬.৫ গ্রাম মাদক বাজেয়াপ্ত করা হয়েছিল। এমনটাই আদালতে বলে দাবি করেছিলেন তদন্তকারীরা। এই ঘটনায় তাঁদের গ্রেফতারও করা হয়েছিল।

২০২০-র নভেম্বর পর্যন্ত জেলে ছিলেন ভারতী এবং হর্ষ। পরে তাঁরা আদালতে জামিনের আবেদন করেন। জামিনের আবেদনে তাঁরা জানিয়েছিলেন, বাড়ি থেকে খুব সামান্য মাদক পাওয়া গিয়েছে।

জানা গিয়েছে, এনডিপিএস আইনের একাধিক ধারা উল্লেখ করা হয়েছে চার্জশিটে। বর্তমানে আবার কাজ শুরু করেছেন ভারতী। দম্পতির এক পুত্রসন্তানও রয়েছে। ভারতীর সঙ্গে টেলি দুনিয়ায় কাজ করেন হর্ষও। বিভিন্ন রিয়্যালিটি শো সঞ্চালনার পাশাপাশি চিত্রনাট্যকার হিসাবেও কাজ করেন ভারতীর স্বামী। দু’বছর পর এই মামলায় চার্জশিট জমা পড়ায় ভারতীদের নতুন করে বিড়ম্বনায় পড়তে হল বলেই মনে করছেন তাঁর ভক্তরা।

one year ago


Aryan Khan: ফের চর্চায় আরিয়ান খানের মাদক মামলা! তদন্তে ফাঁক থাকার অভিযোগ

দীর্ঘ আট মাস মন্নতে নেমে এসেছিল অন্ধকার। সেই খারাপ সময় কাটিয়ে অবশেষে মাদক মামলায় (drug case) ক্লিনচিট পেয়েছেন শাহরুখ-পুত্র (Shahrukh Khan) আরিয়ান খান (Aryan Khan)। মাদক-কাণ্ডে জেল হেফাজতেও ছিলেন বেশ কয়েকদিন। নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো বা এনসিবি (NCB) জানিয়েছিল, মাদকচক্র বা মাদক মামলার সঙ্গে আরিয়ানের যুক্ত থাকার কোনও প্রমাণ মেলেনি। মামলার রায় বেরোনোর পর ধীরে ধীরে ছন্দে ফিরছিল শাহরুখ পরিবার। কিন্তু ফের চর্চায় আরিয়ানের মাদক-কাণ্ড। এত মাস পর আবার কেন শুরু হল আলোচনা? তবে কি আরিয়ান নির্দোষ নয়?

উল্লেখ্য, শাহরুখ-পুত্র আরিয়ান খানের বিরুদ্ধে তদন্ত প্রক্রিয়ায় ‘ফাঁক’ রয়েছে বলে শুরু হয়েছিল অন্তর্তদন্ত।সম্প্রতি গৌরী খান তাঁর টক শো-এ তা নিয়ে মুখ খোলেন। গত বছর অক্টোবর মাসে মুম্বই বন্দরে দাঁড়িয়ে থাকা এক প্রমোদতরী থেকে প্রথমে আটক এবং পরে গ্রেফতার করা হয়েছিল আরিয়ান খানকে। আদালতে একাধিক শুনানি হয়। নাটকীয়তার মধ্যে দিয়েই গত ২৮ অক্টোবর জামিন পান শাহরুখ পুত্র। বম্বে হাইকোর্টের নির্দেশে ৩০ অক্টোবর ছাড়া পান আরিয়ান। তদন্ত সংস্থা মে মাসে দায়ের করা একটি চার্জশিটে বলে, আরিয়ান খানের বিরুদ্ধে এমন কোনও তথ্যপ্রমাণ নেই যার থেকে প্রমাণ হতে পারে যে কোনও মাদক চক্রের সঙ্গে যোগ রয়েছে তাঁর।

এছাড়াও এই মামলায় মোট ১৯ জনের বিরুদ্ধে মাদক ধারায় মামলা দায়ের করেছিল এনসিবি। মাদক সেবন, সংরক্ষণ, বিক্রি, ষড়যন্ত্র-সহ একাধিক ধারায় আরিয়ানদের বিরুদ্ধে দায়ের হয়েছিল মামলা। প্রত্যেককেই গ্রেফতার করেছিল। এবং তাঁদের মধ্যে প্রথমে আরিয়ান-সহ ১৭ জনকে জামিনে মুক্তি দেওয়া হয়েছিল। ২ জন বিচারবিভাগীয় হেফাজতে ছিলেন। পরে তাঁদেরও এই মামলায় ক্লিনচিট দেওয়া হয়।

2 years ago
Gauri Khan: ছেলের মাদক-কাণ্ড নিয়ে কী বললেন গৌরী খান?

নেটফ্লিক্সে আসতে চলেছেন শাহরুখ পত্নী গৌরী। স্ট্রিমিং হচ্ছে ‘বলিউড ওয়াইভস’। এই ওয়েব সিরিজে বলিউড তারকাদের স্ত্রীদের জীবন তুলে ধরা হয়েছে। তাঁদের মধ্যে অবশ্যই রয়েছেন গৌরী খান (Gauri Khan)। গত বছর সেপ্টেম্বর মাস থেকেই নানা প্রতিকূলতার সম্মুখীন হতে হয়েছে গোটা কিং খান পরিবারকে। কর্ডেলিয়া মামলায় পুত্র আরিয়ান খান (Aryan Khan)-এর গ্রেফতারিতে একেবারে ভেঙে পড়েছিলেন মা গৌরী। তবে বর্তমানে আরিয়ান ক্লিনচিট পেয়েছেন মাদক মামলা থেকে। এরপর স্বাভাবিক জীবনে দেখা যায় সকলকে। সম্প্রতি গৌরী এসেছিলেন ‘কফি উইথ করণ-৭’ শোয়ের অতিথি হিসাবে। তাঁর সঙ্গী ছিলেন মহীপ কাপুর (Maheep Kapoor) ও ভাবনা পান্ডে (Bhabna Pandey)।

সেখানেই করণ জোহর (Karan Johar)  গৌরীকে  এ প্রসঙ্গে জিজ্ঞাসা করেন, তাঁর জীবনের অন্ধকার দিক কাটিয়ে এখন তিনি কেমন আছেন? মা-বাবা হিসেবে যাঁরা এমন কঠিন পরিস্থিতির সম্মুখীন হচ্ছেন, তাঁদের কী উপদেশ দেবেন?

জবাবে শাহরুখ-পত্নী বললেন “ যে পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে গিয়েছি, তার চেয়ে খারাপ কিছু হতে পারে না। মা হিসাবে, অভিভাবক হিসাবে জীবনের অতীব খারাপতম দিন দেখেছি। কিন্তু আজ, যেখানে দাঁড়িয়ে আছি, পরিবার হিসাবে আমাদের বন্ধন অনেক দৃঢ়। প্রত্যেকে প্রত্যেককে খুব ভালবাসি। পরিবার-পরিজনের ভালবাসাও পেয়েছি অনেক, যা আগে উপলদ্ধি করিনি। তাঁরাই আমাদের এই ঝড় সামলে উঠতে সাহায্য করেছেন।”

প্রসঙ্গত, গত বছর অক্টোবর মাসে মুম্বই বন্দরে দাঁড়িয়ে থাকা এক প্রমোদতরী থেকে প্রথমে আটক এবং পরে গ্রেফতার করা হয়েছিল আরিয়ান খানকে। আদালতে একাধিক শুনানি হয়। নাটকীয়তার মধ্যে দিয়েই গত ২৮ অক্টোবর জামিন পান শাহরুখ পুত্র। বম্বে হাইকোর্টের নির্দেশে ৩০ অক্টোবর ছাড়া পান আরিয়ান। তদন্ত সংস্থা মে মাসে দায়ের করা একটি চার্জশিটে বলে, আরিয়ান খানের বিরুদ্ধে এমন কোনও তথ্যপ্রমাণ নেই যার থেকে প্রমাণ হতে পারে যে কোনও মাদক চক্রের সঙ্গে যোগ রয়েছে তাঁর। এরপর দীর্ঘ আট মাস ধরে চলা মামলায় ক্লিনচিট পেয়েছিলেন শাহরুখ-পুত্র আরিয়ান খান।

2 years ago