Breaking News
Tapas Roy: তৃণমূল ছাড়লেন তাপস রায়, বরাহনগরের বিধায়ক পদ থেকে ইস্তফা বর্ষীয়ান নেতার      Resign: হঠাৎ অবসর বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের, 'রাজনীতি যোগ' জল্পনা তুঙ্গে      Sandeshkhali: সন্দেশখালিতে ফের ফ্য়াক্ট ফাইন্ডিং টিম, শুনবে মহিলা ও বাসিন্দাদের কষ্টের কথা      BJP: প্রথম দফায় ১৯৫ প্রার্থীর নাম ঘোষণা বিজেপির, বাংলার ২০ জনের নাম তালিকায়      Modi: 'রামমোহনের আত্মা সন্দেশখালির মহিলাদের দুর্দশায় কাঁদছে', আরামবাগ থেকে মমতাকে তোপ মোদীর      Suspend: গ্রেফতারির পরেই তৃণমূল থেকে ছয় বছরের জন্য সাসপেন্ড সন্দেশখালির 'বেতাজ বাদশা' শাহজাহান      Sandeshkhali: নিরাপদ সর্দারকে নিঃশর্তে জামিন দিয়ে রাজ্য পুলিসকে তিরস্কার বিচারপতির      Sheikh Shahjahan: ঘর ভাঙচুর, টাকা লুঠ! শেখ শাহজাহানের বিরুদ্ধে নতুন এফআইআর সন্দেশখালি থানায়      Sandeshkhali: অজিত মাইতিকে তাড়া গ্রামবাসীদের, সাড়ে ৪ ঘণ্টা পর অবশেষে আটক পুলিসের      Ajit Maity: উত্তপ্ত সন্দেশখালি! অজিত মাইতির গ্রেফতারির দাবিতে বিক্ষোভ মহিলাদের, বাঁচতে সিভিকের বাড়িতে আশ্রয়     

SH

Sandeshkhali: সন্দেশখালিতে বাধা! বিজেপির এসটি মোর্চার দলকে আটকে দিল পুলিস

বিজেপির এসটি মোর্চার প্রতিনিধি দলকে মালঞ্চে আটকে দিল পুলিস। সোমবার কলকাতা থেকে রাজ্য বিজেপির এসটি মোর্চার প্রেসিডেন্ট তথা বিধায়ক জুয়েল মুর্মু সহ ১৫ জনের একটি দল সন্দেশখালির উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। সন্দেশখালি এলাকার আদিবাসী সম্প্রদায়ের মানুষদের সঙ্গে কথা বলার জন্য গিয়েছিলেন বলে সূত্রের খবর। কিন্তু মিঁনাখার মালঞ্চ-এর কাছে কলকাতা বাসন্তী হাইওয়েতে বিশাল ব্যারিকেট দিয়ে পুলিস আটকে দেয় তাদের।

এরপর পুলিসের সঙ্গে বেশ কিছুক্ষণ ধরে প্রতিনিধির ওই দলটির চলে কথোপকথন। পুলিস তাদের যেতে না দেওয়ায় তারা কলকাতা বাসন্তী হাইওয়ের উপর রাস্তাতেই বসে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। বেশ কিছুক্ষণ ধরে বিক্ষোভ দেখানোর পর তারা আবার কলকাতায় ফিরে যায়। সন্দেশখালি এলাকায় আবার আসবে বলেও জানিয়ে গিয়েছে।

প্রসঙ্গত, আগামীকাল অর্থাৎ রবিবার সন্দেশখালির ধামাখালিতে প্রবেশ করেছেন ছয় সদস্য়ের ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং টিম। সন্দেশখালির অত্য়াচারিত মহিলাদের এবং স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়েছিলেন তারা। রবিবার সকালে সাড়ে আটটা নাগাদ কলকাতা বিমানবন্দর থেকে সরাসরি সন্দেশখালির উদ্দেশ্যে রওনা হন তাঁরা। তারপর ধামাখালিতে প্রবেশ করেছেন ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং টিম। কিন্তু ফ্য়াক্ট ফাইন্ডিং টিমকে সন্দেশখালি প্রবেশ করতে দেওয়া হলেও কেন বাধা দেওয়া হল বিজেপির এসটি মোর্চার প্রতিনিধি দলকে? যা নিয়ে উঠছে একাধিক প্রশ্ন।

8 hours ago
Sandeshkhali: সন্দেশখালিতে ফের ফ্য়াক্ট ফাইন্ডিং টিম, শুনবে মহিলা ও বাসিন্দাদের কষ্টের কথা

সন্দেশখালিতে এবার ছয় সদস্য়ের কেন্দ্রীয় ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং টিম। সন্দেশখালির অত্য়াচারিত মহিলাদের এবং স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলতে যাচ্ছে তাঁরা। রবিবার সকালে সাড়ে আটটা নাগাদ কলকাতা বিমানবন্দর থেকে সরাসরি সন্দেশখালির উদ্দেশ্যে রওনা হন তাঁরা। ইতিমধ্য়ে ধামাখালিতে প্রবেশ করেছেন ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং টিম। পুলিসের সঙ্গে কথা বললেন তাঁরা।

গত বুধবার শেখ শাহজাহান গ্রেফতারের পর আজ, রবিবার তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মী সভা। এই কর্মীসভাতে উপস্থিত থাকার কথা তৃণমূল কংগ্রেস-এর শীর্ষ নেতৃত্বের। বিগ্রেডের আগে সন্দেশখালিতে এই কর্মী সভার মধ্য দিয়ে কতটা শক্তি তা বুঝে নিতে চাইবে তৃণমূল কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্ব। ড্যামেজ কন্ট্রোলে বারংবার ছুটেছেন সন্দেশখালি তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব। 

কিন্তু শাহজাহানের গ্রেফতারের আগে সন্দেশখালির পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে রামপুরে গিয়েছিল বিজেপির ফ্য়ক্ট ফাইন্ডিং টিম। কিন্তু সন্দেশখালি প্রবেশের আগেই বাধা পায় বিজেপি ওই প্রতিনিধির দলটি। ব্য়ারিকেড করে বাধা দেওয়া হয়েছিল ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং টিমকে। প্রতিবাদে রামপুরের রাস্তায় বসে পড়েছিলেন ওই প্রতিনিধি দলটি। তারপরেই শুরু হয়েছিল বিজেপি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বচসা পুলিসের। 

yesterday
Kunal Ghosh: ফের সুদীপ প্রসঙ্গে বিস্ফোরক কুণাল, কুণালকে সমর্থন তাপসের

বৃহস্পতিবার থেকে উত্তর কলকাতার তৃণমূল সাংসদ সুদীপ বন্দোপাধ্যায়কে নিয়ে একের পর  বিস্ফোরক মন্তব্য করে চলেছেন কুণাল ঘোষ। শনিবার ফের সুদীপ প্রসঙ্গে বিস্ফোরক কুণাল। তিনি অভিযোগ করেছেন জেল হেফাজতে থাকাকালীন সুদীপ বন্দোপাধ্যায় বেশ কিছুটা সময় ছিলেন একটি ভুবনেশ্বরে বেসরকারি হাসপাতালে। কুণাল প্রশ্ন তুলেছেন সেই সময় সুদীপের হাসপাতালের বিল কে দিয়েছে? তিনি দিয়েছেন না কেউ তার হয়ে দিয়েছে বিশাল অঙ্কের টাকা? এই বিষয়টি নিয়ে তদন্তের প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন কুণাল। 

অবাক হওয়ার মত ঘটনা, এতদিন ধরে যে কুণাল ঘোষ ইডি ও সিবিআইয়ের তদন্ত নিয়ে নানা বিরূপ মন্তব্য ও কটাক্ষ করেছেন। খড়্গহস্ত হয়েছেন, সেই কুণালই এবার সুদীপ প্রসঙ্গে ইডি ও সিবিআই তদন্তের দাবি করেছেন। কুণালের মতে সুদীপের হাসপাতালের বিল নিয়ে ইডি ও সিবিআই তদন্ত করে দেখে যদি কোনও গরমিল পায় তাহলে সুদীপের ফের গ্রেফতার হওয়া উচিত। যদি কেন্দ্রীয় এজেন্সি নিজে থেকে না এগোয়, তাহলে তিনি নিজে আদালতের দ্বারস্থ হবেন এবং এই বিষয়ে তদন্তের আবেদন করবেন, এক্স হ্যান্ডেলে জানিয়েছেন কুণাল। তবে তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য সাধারণ সম্পাদকের পদের পাশাপাশি দলীয় মুখপাত্রের পদ ছাড়লেও তিনি যে দলের জন্য পথে নেমে লড়াই জারি রাখবেন তার বার্তাও শনিবার দিয়েছেন কুণাল।

শুধু কুণালই নন, এবার কুণালের সমর্থনে তৃণমূলের আর এক বিধায়ক, তাপস রায়। ঠিক কি বললেন তিনি। তিনিও সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ নিয়ে এলেন জনসমক্ষে। কুণাল ঘোষ একজন সাংবাদিক তার যুক্তি তো ফেলে দেওয়া যায়না। কয়লার টাকা নিয়ে খুব ভয়ঙ্কর অভিযোগ করেছেন কুণাল।

কুণালের মতই তাপসের গলাতেও অভিমানের সুর। লোকসভা নির্বাচনের আগে তৃণমূলের দুই দুঁদে নেতার মন্তব্যেই হাওয়া গরম হয়ে উঠেছে রাজ্য রাজনীতিতে। ঘাসফুলের অন্দরের কোন্দলের যে গুঞ্জন ছিল রাজনীতির বাতাসে তাই এই দুই নেতার মন্তব্যে প্রতিধ্বনিত হল।  লোকসভা নির্বাচনের আগে যা কিছুটা হলেও ব্যাকফুটে নিয়ে গেল তৃণমূল কংগ্রেসকে বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। 

2 days ago


PM Modi: বাংলাকে আত্মনির্ভর করে তোলার অঙ্গীকার প্রধানমন্ত্রীর, কৃষ্ণনগরে সরকারি প্রকল্পের উদ্বোধন-শিলান্যাসে মোদী

বাংলার উন্নতি মানে দেশের উন্নতি। আর বাংলাকে আত্মনির্ভর করতেই প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে সরকার। শনিবার কৃষ্ণনগর থেকে এমনটাই মন্তব্য করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। শুক্রবার সাত হাজার কোটি টাকার প্রকল্পের উদ্বোধন ও শিলান্যাসের পরে এদিনও ১৫ হাজার কোটি টাকার প্রকল্পের উদ্বোধন ও শিলান্যাসের কথা জানান। বাংলার উন্নয়নের জন্য প্রধানমন্ত্রী সর্বদা রয়েছেন। এমনটাই কৃষ্ণনগরের সভা থেকে আশ্বাস দিলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ফারাক্কা থেকে রায়গঞ্জ পর্যন্ত হাইওয়ে তৈরি করা হয়েছে। মোদী জমানায় পশ্চিমবঙ্গে উন্নয়নের দরজা খুলে গিয়েছে বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি। রাজ্যের একাধিক সরকারি প্রকল্পের উদ্বোধন ও শিলান্যাস করেন। এর মধ্যে পুরুলিয়ার রঘুনাথপুরের তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের দ্বিতীয় ইউনিটের উদ্বোধন করেন। ফরাকা থেকে রায়গঞ্জ পর্যন্ত চার লেনের জাতীয় সড়কের উদ্বোধনও করেন। আজিমগঞ্জ-মুর্শিদাবাদ রেল প্রকল্পের উদ্বোধনও করেন তিনি। তিনি বলেছেন, রঘুনাথপুরে তাপবিদ্যুৎ প্রকল্পে এগারো হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ হবে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী শুক্রবার ও শনিবার মিলিয়ে রাজ্যের জন্য বাইশ হাজার কোটি টাকার সরকারি প্রকল্পের উদ্বোধন ও শিলান্যাস করেন। শুক্রবার বিভিন্ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও শিলান্যাসের পরে প্রধানমন্ত্রী মোদী বলেছিলেন, বাংলায় রেলের উন্নয়ন এমন হওয়া দরকার যেমনটা অন্য রাজ্যে রয়েছে। তিনি বলেছিলেন, বিকশিত ভারত গড়ার যে পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে, সেখানে গরিব, মহিলা ও যুবদের সব থেকে বড় ভূমিকা থাকবে।

কৃষ্ণনগরের সভায় জনগণের ঢল দেখা যায় এদিন। তিনি বলেন, বাংলার বিকাশ হলেই দেশের বিকাশ। এই রাজ্য থেকে বিজেপিকে ৪২ টি আসনের সবকটিই দখল করতে হবে। প্রসঙ্গত, ২০১৯-এর নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসও ৪২ টির মধ্যে ৪২টি দখলের স্লোগান রেখেছিল। তারপর তারা গিয়ে থামে ২২ টিতে।


2 days ago
Modi: কৃষ্ণনগরে ভাষণ শুরু করেই ক্ষমা প্রার্থানা প্রধানমন্ত্রীর, তৃণমূলকে তীব্র তুলধনা...

লোকসভা ভোটের প্রচারের দ্বিতীয় দিনে কৃষ্ণনগরে জনসমুদ্র প্রধানমন্ত্রীর সভায়। যা দেখে উচ্ছ্বসিত নরেন্দ্র মোদী সহ বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা। ভাষণের শুরুতেই মোদী সভায় উপস্থিত সকলের কাছে ক্ষমা চেয়ে নেন। কারণ, শনিবার কৃষ্ণনগরের যে গভর্নমেন্ট কলেজের ময়দানে মোদীর সভার আয়োজন করা হয়েছিল, তা ছোটো হয়ে গিয়েছে। তিনি সবাইকে যে যেখানে রয়েছেন, সেখানেই উপস্থিত থেকে ভাষণ শুনতে অনুরোধ করেন। 

এরপর প্রধানমন্ত্রী কৃষ্ণ নাম নিয়ে শুরু করেন বক্তৃতা। তৃণমূলকে তীব্র কটাক্ষ করেন তিনি। নরেন্দ্র মোদী বলেন, 'তৃণমূল মানে দুর্নীতিবাজ, পরিবারতন্ত্র, বিশ্বাসঘাতক'। বাংলাকে গরিব করে রাখতে চায়। সেই কারণেই তৃণমূল সরকার দরিদ্রদের জন্য় প্রকল্প চালু করতে দিচ্ছে না। এই তৃণমূলকে ভোটের মাধ্য়মে শিক্ষা দিতে হবে। এমনকি তৃণমূল বাংলার মানুষকে নিরাশ করছে। এতদিন রাজ্য় সরকার চায়নি সন্দেশখালির দোষী গ্রেফতার হোক। তৃণমূল সন্দেশখালির মায়েদের আর্তি শোনেনি। কিন্তু সন্দেশখালির পাশে দাঁড়িয়েছে বিজেপি। তাই তৃণমূল অপরাধীকে ধরতে বাধ্য় হয়েছে। সন্দেশখালি প্রসঙ্গে তৃণমূলের বিরুদ্ধে এমনটাই বললেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। 

এমনকি মোদীর গলায় শোনা যায় বাংলাও। তিনি বাংলায় বলেন, মোদীর গ্যারান্টি মানে, সেই গ্যারান্টি পূর্ণ হওয়ার গ্যারান্টি। তিনি বলেন, পশ্চিমবঙ্গকে প্রথম এইমসের গ্যারান্টি দিয়েছিলাম। তা হয়েছে। কল্যাণীতে এইমস তৈরি হওয়ায় তৃণমূল সরকার মুশকিলে পড়েছে। তৃণমূল সরকার এই বড় হাসপাতাল পরিবেশগত অনুমতি দিতে বাধা দিচ্ছে। তিনি আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্প পশ্চিমবঙ্গে চালু করতে বাধা দেওয়ার অভিযোগ করেছেন তৃণমূলের বিরুদ্ধে।


2 days ago


Ration Scam: রেশন দুর্নীতির দ্বিতীয় চার্জশিটে শঙ্কর আঢ্য ও তাঁর পরিবারের নাম

শিয়রে লোকসভা নির্বাচন। তাই নির্বাচনের পূর্বে একের পর দুর্নীতির জাল গোটাতে তৎপর কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা মহল। ইডির রেশন দুর্নীতির তদন্তে ইতিমধ্যেই গ্রেফতার হয়েছে একাধিক রাঘববোয়াল। ধৃত মন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক ও বাকিবুর রহমানের বিরুদ্ধে চার্জশিটও জমা দিয়েছিল ইডি। সেই দুর্নীতির সূত্র ধরে সম্প্রতি পুলিসের জালে ধরা পড়েছে সন্দেশখালির প্রভাবশালী তৃণমূল নেতা শেখ শাহজাহান। আগামী সপ্তাহে রেশন দুর্নীতি মামলায় দ্বিতীয়বার চার্জশিট জমা দেওয়ার সিদ্ধান্ত ইনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের। বনগাঁর প্রাক্তন চেয়ারম্যান তথা ধৃত তৃণমূল নেতা শঙ্কর আঢ্য ও তাঁর বিভিন্ন ফরেক্স সংস্থার বিরুদ্ধেও একাধিক তথ্যের উল্লেখ চার্জশিটে রয়েছে বলে সূত্রের খবর। তবে শুধু শঙ্কর আঢ্য নয় তার পরিবারের আরও কয়েকজন এই দুর্নীতির নেপথ্যে রয়েছে বলে দাবি কেন্দ্রীয় গোয়েন্দামহলের। ফরেক্স ছাড়াও শঙ্করের পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের একাধিক কোম্পানির নামও থাকার সম্ভাবনা রয়েছে চার্জশিটে।

কিন্তু তদন্ত এখানেই শেষ নয়। দুর্নীতির রহস্যের পর্দাফাঁস করতে ইডির দ্বিতীয় চার্জশিটেও রেশন বন্টনে কারচুপিতে ধৃত মন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের ভূমিকা সংক্রান্ত তথ্য থাকছে। মূলত রেশন দুর্নীতির টাকা বালু ওরফে জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের হাত ঘুরে কিভাবে শঙ্কর আঢ্যের মাধ্যমে বিদেশে পাচার হয়েছে? এমনকি দুবাইতে যে সংস্থায় রেশন দুর্নীতির টাকা লগ্নি হয়েছে তারও স্পষ্ট উল্লেখ রয়েছে চার্জশিটে। সূত্রের খবর এর আগে শঙ্কর ও তার কোম্পানির মাধ্যমে লক্ষ লক্ষ টাকা দুবাইতে পাঠানোর তথ্য হাতে এসেছিল ইডির।  ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৬৬ লক্ষেরও বেশি টাকা পাঠানো হয়েছিল শঙ্কর ওরফে ডাকু মারফত। এখন ইডির পেশ করা দ্বিতীয় চার্জশিটে রেশন বন্টন দুর্নীতির আর কোন কোন সত্য প্রকাশ পায় সেটাই দেখার।

3 days ago
Narendra Modi: ভোটপ্রচারে কৃষ্ণনগরে প্রধানমন্ত্রী, সভাস্থল ঘিরে কড়া নিরাপত্তা

আরামবাগের পর কৃষ্ণনগরে প্রধাুনমন্ত্রী। শনিবার সকাল ১০ টা নাগাদ নদিয়ার কৃষ্ণনগর গভর্নমেন্ট কলেজ ময়দানে পৌঁছলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সিসিটিভি ক্য়ামেরায় মোড়া রয়েছে গোটা সভা। এদিন সভার পাশাপাশি পাশের মাঠে একটি প্রশাসনিক সভার আয়োজন রয়েছে সেখান থেকে বেশ কিছু প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী। মোদীর সভা ঘিরে উদ্দীপনা তুঙ্গে কর্মী-সমর্থকদের। সভাস্থল ঘিরে কড়া নিরাপত্তা। 

3 days ago
Kunal Ghosh: শনিবার ব্রিগেড নিয়ে পথে কুণাল

প্রসূন গুপ্ত: শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী কলকাতায় এলেন এবং একটি প্রকল্প উদ্বোধন করে রাজনৈতিক জনসভা করলেন আরামবাগে। তুলোধোনা করলেন রাজ্যসরকারকে। সব শেষে কলকাতায় ফিরে রাজভবনে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে প্রায় এক ঘন্টা বৈঠক করলেন। যদিও বিরোধী নেতা শুভেন্দু অধিকারী তাঁর চিরায়ত ভঙ্গিতে অসংসদীয় ভঙ্গিতে মমতাকে আক্রমণ করলেন কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী বৈঠক থেকে বেরিয়ে জানালেন যে, নিছকই গল্প করে এলেন তিনি। এ নিয়ে মিডিয়া মহল দিনভর খবরে রাখতেই পারত মোদী সফরকে কিন্তু সকালেই তাতে বিতর্কিত মন্তব্য করে খবরের নির্যাস অনেকটাই গিলে ফেললেন তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক তথা মুখপাত্র কুণাল ঘোষ।  

ইতিমধ্যেই সে সংবাদ জনসমক্ষে এসেছে কিন্তু শনিবার সকালেই বেশ কিছুক্ষন কথা হলো কুণাল ঘোষের সঙ্গে। জানা গেলো নতুন তথ্য।কুণাল এই প্রতিবেদককে জানালেন যে, ভুল কী বলেছি ? ভেবেই বলেছি সব। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অনেক লড়াই করে আজ বাংলার দায়িত্বে। দিদির এই কাজকে সর্বদা আমাদের সৈনিকদের মেনে চলতে হবে। কিন্তু কি জানেন যখন বেনিয়ম দেখি তখন এই নেত্রীর জন্য খারাপ লাগে। 

কুণাল আরও বললেন, যে কোনও নেতার দলের সচ্ছতা মেনে চলা উচিত। মুখপাত্র হিসাবে যখন বিরোধীদের সমালোচনা করছি, তখন দেখছি দলের বড় নেতা কেন্দ্রের নেতা মন্ত্রীদের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলছেন। এটা তো দলনেত্রীর সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা। এই নেতা রাজ্যে এসে দলের কোন স্ট্রাটেজি মানছেন ? একটা স্কুলের মধ্যে রাজনৈতিক অফিস হবে কেন ? কেন দলের টিকিট নিয়ে রাজ্যসভায় যাওয়ার পরে এক বিখ্যাত অভিনেতা বিজেপিতে চলে যায় এবং তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কুবাক্য বলার পরেও দলের এক শ্রেণীর অভিনেতা/পরিচালক তাঁকে নিজেদের ছবিতে নিয়ে তাঁর সঙ্গে পাবলিসিটিতে নামেন ? 

এ গুলো কি নেত্রীকে খাটো করা নয়। 'অনেক কারণে আমি দায়িত্ব ছাড়তে চলেছি, জানালেন কুণাল'। তিনি বললেন যে , দল ছাড়ার প্রশ্নই নেই। শনিবার বেলা একটায় আমি আমাদের সাথীদের নিয়ে মিছিল করছি আসন্ন ব্রিগেড অভিযানকে নিয়ে। কুণাল আজকেও প্রধানমন্ত্রীর প্রচারে ঢুকে পড়লেন যে, নতুন ঘটনা নিয়ে। খবর কেটে দেওয়ার বিষয়ে ওস্তাদ কুণাল ঘোষ।

3 days ago


Kunal Ghosh: তৃণমূলের একাধিক পদ থেকে ইস্তফা অভিমানী কুণালের

এক্স হ্যান্ডেলে জল্পনার সূত্রপাত। তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য সাধারণ সম্পাদকের পদের পাশাপাশি দলীয় মুখপাত্রের পদ ছাড়া নিয়ে জল্পনা যখন তুঙ্গে। তখনই নিরবতা ভাঙলেন অভিমানি কুণাল। দলের উচ্চ নেতৃত্বের কাছে পদ ছাড়ার কথা শুত্রবার কুণাল ঘোষের তরফে অফিসিয়াল বিবৃতির মাধ্যমে সামনে এসে যায়। তিনি লিখলেন, ‘আমি তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক ও মুখপাত্র পদে থাকতে চাইছি না। সিস্টেমে আমি মিসফিট। আমার পক্ষে কাজ চালানো সম্ভব হচ্ছে না। আমি দলের সৈনিক হিসেবেই থাকব। দয়া করে দলবদলের রটনা বরদাস্ত করবেন না। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আমার নেত্রী, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় আমার সেনাপতি। তৃণমূল কংগ্রেস আমার দল।’সরকারি নিরাপত্তার পাশাপাশি তৃণমূল কংগ্রেসের মুখপত্রের whats app গ্রুপও ছাড়লেন কুণাল। 

কুণাল ঘোষের এক্স হ্যান্ডেল থেকে বৃহস্পতিবার রাতে বিস্ফোরক পোস্ট করা হয়। তখন থেকেই সকলের মনে দানা বাধছিল তৃণমূলের অন্দরে একটা কিছু চলছে। শুক্রবার সকালে আচমকাই  দেখা গেল সেই পোস্টটি উধাও। এমনকী এক্স হ্যান্ডলের বায়ো থেকে রাজনীতিবিদ ও তৃণমূল কংগ্রেসের মুখপাত্রের পরিচয়ও মুছে দিয়েছেন কুণাল ঘোষ। এখন তাঁর পরিচয় শুধুই সাংবাদিক ও সমাজকর্মী। প্রশ্ন উঠতে শুরু করে কেন এমন করলেন কুণাল ? 

বৃহস্পতিবার রাতে নিজের এক্স হ্যান্ডেলে কুণাল ঘোষ পোস্ট করেছিলেন, ‘নেতা অযোগ্য গ্রুপবাজ স্বার্থপর। সারা বছর ছ্যাঁচড়ামি করবে আর ভোটের মুখে দিদি, অভিষেক, তৃণমূল দলের প্রতি কর্মীদের আবেগের উপর ভর করে জিতে যাবে, ব্যক্তিগত স্বার্থসিদ্ধি করবে, সেটা বারবার হতে পারে না।’ এই পোস্টে কারুর নাম উল্লেখ না করলেও কলকাতা উত্তর লোকসভার সাংসদ সুদীপ বন্দোপাধ্যায়কেই কটাক্ষ করে যে কুণালের এই পোস্ট তা বুঝতে অসুবিধা হয়নি কারুর। পোষ্ট করে তিনি লেখেন নরেন্দ্র মোদীর কুৎসার বিরোধিতা যুক্তিতে ধুয়ে দেওয়া যায়।নাম না করে সুদীপকে কটাক্ষ করে লিখেছেন রোজভ্যালি থেকে বাঁচিয়ে গলায় বকলেস পড়িয়ে রেখেছেন মোদী। শুক্রবার সিএনকে দেওয়া এক্সক্লুসিভ সাক্ষাত্কারে সুদীপকে নিয়ে বিস্ফোরক কুণাল। 

অন্যদিকে সূত্রের খবর গত দু বছর ধরে পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় কাজ করছেন কুণাল ঘোষ।কাজে যাতে কোনও সমস্যা না হয় তাই হলদিয়ায় অস্থায়ী বাড়িও নিয়েছেন তিনি। নন্দীগ্রামে সংগঠনকে চাঙ্গা করতে কোমর বেঁধে নেমেছেন কুণাল।পঞ্চায়েত ভোটের আগে চাটাই বৈঠক থেকে শুরু করে গ্রাম সভা সবটা করেছেন গোটা জেলা জুড়ে।দুই সাংগঠনিক জেলা কাঁথি এবং তমলুক ছুটে গিয়েছেন দলের প্রয়োজনে।আগামী ১০ মার্চ তৃণমূল কংগ্রেসের ব্রিগেড সমাবেশের প্রস্তুতি নিয়ে বৃহস্পতিবার রাতে উত্তর কলকাতার নেতাদের সঙ্গে একটি বৈঠক করেন সুদীপ। সেখানে ডাক পাননি কুণাল ঘোষ । শুক্রবার পূর্ব মেদিনীপুরের বৈঠকেও ডাক পাননি তিনি।যান তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য সভাপতি সুব্রত বকশি। আর এরপরই ক্ষোভে বিস্ফোরক পোস্ট। অভিমানে রাজ্য সাধারণ সম্পাদক ও মুখপাত্র পদ থেকে নিজেকে সরিয়ে নিলেন কুণাল। লোকসভা নির্বাচনের প্রাক্কালে এমন ঘাসফুলের অন্দরে এই অশান্ত বাতাবরণ তৈরি হওয়ায় দলের অস্বস্তি যে আরও বাড়লো তা বলাইবাহুল্য।

3 days ago
Sandeshkhali: শাহজাহানের 'রাজপাটে' নয়া নাম, সন্দেশখালির নিশানায় দিলীপ মল্লিক

নির্বিচারে জমি লুঠ। জবকার্ডে ফাঁকি। গ্রামবাসীদের উপর অত্যাচার। একের পর এক অভিযোগ, সন্দেশখালিকাণ্ডের মাস্টারমাইন্ড শাহজাহানের তথাকথিত রাজপাটে নয়া নাম দিলীপ মল্লিক। প্রতিবাদে এবার প্ল্যাকার্ড হাতে স্থানীয় তৃণমূল নেতা দিল্লীপ মল্লিকের বাড়ির সামনে বিক্ষোভ গ্রামবাসীর।

পুলিসের জালে শেখ শাহজাহান থেকে শাগরেদ শিবু হাজরা, উত্তম সর্দার, অজিত মাইতিও। কিন্তু, অত্যাচারের ছড়ি তো শুধু ঘোরাতেন না এনারাই। সন্দেশখালির অত্যাচারের পাতা ওল্টাতেই এবার নিশানায় সন্দেশখালি দুই নম্বর ব্লকের বৌঠাকুরানি এলাকার তৃণমূল নেতা দিলীপ মল্লিক। দলীয় পদের পাশাপাশি সন্দেশখালির প্রাক্তন অঞ্চল প্রধানও তিনি। তাঁর বিরুদ্ধেই উপচে পড়ছে অভিযোগের পাহাড়।

জমি কেড়ে নেওয়ার পাশাপাশি জব কার্ডের টাকাও গ্রামবাসীদের পকেটে ঢোকার আগেই হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ এই তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে। 


3 days ago


Modi: 'রামমোহনের আত্মা সন্দেশখালির মহিলাদের দুর্দশায় কাঁদছে', আরামবাগ থেকে মমতাকে তোপ মোদীর

রাজ্য়ে লোকসভা ভোটের আগেই প্রচারে এসেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। শুক্রবার আরামবাগের সভাস্থল থেকে একাধিক সরকারি প্রকল্পের উদ্বোধনের পাশাপাশি সভায় বক্তব্য় রাখলেন প্রধানমন্ত্রী। বিপুল মানুষের উপস্থিতি দেখে কার্যত উচ্ছ্বসিত হয়ে হাত জোড় করে ধন্য়বাদ জানান মোদী। সন্দেশখালি প্রসঙ্গে তৃণমূলের বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন প্রধানমন্ত্রী। রাজ্যের দুর্নীতি থেকে নারী নির্যাতন এমনই একাধিক অভিযোগের বিরুদ্ধে সুর চড়াতে দেখা গেল প্রধানমন্ত্রীকে। 

ভাষণের শুরুতেই প্রধানমন্ত্রী যেমন রামমোহনকে স্মরণ করলেন, তেমনি কুর্নিশ জানালেন নারীশক্তিকে। আরামবাগের সভাস্থল থেকে এদিন প্রধানমন্ত্রী রাজ্য়বাসীর উদ্দেশ্য়ে বলেন, সন্দেশখালির ঘটনা দেখে দুঃখিত গোটা দেশ। “রামমোহন রায়ের মতো মহান সমাজ সংস্কারক মহিলাদের উন্নতির জন্য জীবন উৎসর্গ করেন। নারীমুক্তির মূর্ত প্রতীক রামমোহন। তাঁর রাজ্যেরই সন্দেশখালির মহিলাদের সঙ্গে যা হয়েছে, তা দেখে গোটা দেশ কষ্ট পাচ্ছে, ক্ষুব্ধ। রামমোহনের আত্মা যেখানেই থাক, সন্দেশখালির মহিলাদের দুর্দশায় কাঁদছে।”

এদিন আরামবাগে সভা শেষ করে রাজভবনে পৌঁছন প্রধানমন্ত্রী। আজ সেখানেই তিনি রাত্রিযাপন করবেন। সূত্রের খবর, আজ, শুক্রবার বিকেল সাড়ে পাঁচটা নাগাদ রাজভবনে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ হতে পারে প্রধানমন্ত্রীর। সেখানেই প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক হতে পারে মুখ্যমন্ত্রীর।

3 days ago
Sandeshkhali: সন্দেশখালিকাণ্ডে গ্রেফতার আরও এক আইএসএফ নেত্রী...

সন্দেশখালিকাণ্ডে আয়েশা বিবির পর গ্রেফতার আইএসএফ নেত্রী জুবি সাহা। তিনি আইএসএফ রাজ্য কমিটির সদস্য। সন্দেশখালিতে অশান্তিমূলক ঘটনায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে তাঁর বিরুদ্ধে। শুক্রবার সকাল ছ'টায় নিউটাউনে নাতাশা খানের ফ্ল্যাট থেকে জুবিকে গ্রেফতার করে সন্দেশখালি থানার পুলিস। গ্রেফতারের পর তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে সন্দেশখালি থানায়। 

জানা গিয়েছে, নাতাশা খান এবং জুবি খান দু'জনেই বন্ধু। গতকাল অর্থাৎ বৃহস্পতিবার নাতাশার ফ্ল্যাটেই ছিলেন জুবি। তাই দুপুর থেকে আইএসএফ নেত্রী নাতাশা খানের ফ্ল্যাট ঘিরে রেখছিল পুলিস। রাতভর চলে পুলিসি টহলদারি। তারপরেই এদিন সকালে গ্রেফতার করা হয় জুবি সাহাকে। 

অন্য়দিকে বুধবার রাতেই মিঁনাখা থানার বামনপুকুর থেকে গ্রেফতার করা হয় শেখ শাহজাহানকে। ইডি হামলার ৫৬ দিন পর পুলিসের জালে ধরা পড়ে সন্দেশখালির 'মাস্টারমাইন্ড' গ্রেফতারির পর ১০ দিনের পুলিসি হেফাজত চেয়ে বসিরহাট আদালতে তোলা হয় তাঁকে। তারপর সেখান থেকে পুলিসি নিরাপত্তা দিয়ে শাহজাহান নিয়ে যাওয়া হয় ভবানী ভবনে। ইডির উপর যে আক্রমণ করা হয়েছিল সেই নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হবে সিআইডি আধিকারিকরা।  

3 days ago
Suspend: গ্রেফতারির পরেই তৃণমূল থেকে ছয় বছরের জন্য সাসপেন্ড সন্দেশখালির 'বেতাজ বাদশা' শাহজাহান

গ্রেফতার হতেই ছয় বছরের জন্য় শেখ শাহজাহানকে সাসপেন্ড করল শাসকদল তৃণমূল। রাজ্য পুলিসের গ্রেফতারের পর ইডি দফতরে শুরু হয় বৈঠক। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে দফায় দফায় বৈঠক করছেন ইডির উচ্চপদস্থ আধিকারিকরা।

বুধবার মিঁনাখা থানার বামনপুকুর এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয় শাহজাহানকে। গ্রেফতারির পর ১০ দিনের পুলিসি হেফাজত চেয়ে বসিরহাট আদালতে তোলা হয় তাঁকে। তারপর সেখান থেকে পুলিসি নিরাপত্তা দিয়ে শাহজাহান নিয়ে যাওয়া হয় ভবানী ভবনে। ইডির ওপর যে আক্রমণ করা হয়েছিল সেই নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করবে সিআইডি আধিকারিকরা।  

ইতিমধ্যে রাজ্য পুলিসের তরফ থেকে চাওয়া দশ দিনের পুলিসি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে বিচারক। কিন্তু কোন পথে হাঁটবেন ইডির আধিকারিকরা সেই বিষয়ে চলছে বৈঠক। অ্যাডিশনাল ডিরেক্টর পদমর্যাদা অফিসার ডেপুটি ডিরেক্টর পদমর্যাদা অফিসার সহ রেশনবন্টন দুর্নীতি মামলার ইনভেস্টিগেশন অফিসার এবং অন্যান্য অফিসারদের নিয়ে চলছে সেই বৈঠক। 

4 days ago


Sheikh Shahjahan: শাহজাহানকে আনা হল ভবানী ভবনে, ইডির উপর আক্রমনের তদন্তে সিআইডি

শেখ শাহজাহানকে বসিরহাট আদালত থেকে সোজাসুজি আনা হল ভবানী ভবনে। পুলিসের কড়া নিরাপত্তায় আনা হয় তাঁকে। এবার ইডির উপর আক্রমনের মামলায় তদন্তভার গেল সিআইডি-র হাতে। আগামী ১০ দিন রাখা হবে সেখানে। গত ৫ই জানুয়ারি সন্দেশখালিতে ইডির ওপর যে আক্রমণ করা হয়েছিল সেই নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করবে সিআইডি আধিকারিকরা। 

সূত্রের খবর, গ্রেফতারের পর শেখ শাহজাহান পুলিসকে দেওয়া জবানবন্দিতে বলেন,  'ইডি আমাকে গ্রেফতার করতে পারে, সেই আশঙ্কায় ইডি হানার দিন লোকজন ডেকে ইডি এবং সিআরপিএফ জওয়ানদের ওপর হামলার নির্দেশ দিয়েছি'।

শেখ শাহজাহান তাঁর নিজের এলাকায় বেশ প্রভাবশালী। আদালতে দেওয়া নথিতে দাবি রাজ্য পুলিসের। শাহজাহান জামিন পেলে সাক্ষীদের ভয় দেখাবে, তথ্য লোপাটে চেষ্টা করবে। শুধু তাই নয়, এই তৃণমূল নেতাকে হেফাজতে রাখা দরকার বাকি অভিযুক্তদের গ্রেফতার করার জন্য়। এছাড়াও ইডি আধিকারিকদের কাছ থেকে লুট হওয়া সমস্ত জিনিস এবং নথিপত্র উদ্ধার করতে শাহজাহানকে হেফাজতে রাখা অবশ্য়ই দরকার।

4 days ago
Sandeshkhali: শাহজাহানের গ্রেফতারিতে আনন্দোৎসব সন্দেশখলিতে, মিষ্টিমুখ বিজেপির

শেখ শাহজাহানের গ্রেফতারিতে আনন্দে মেতে উঠেছে গোটা সন্দেশখালিবাসী। ৫৫ দিন নিখোঁজ থাকার পর অবশেষে পুলিসের জালে ধরা পড়ল শাহজাহান। বুধবার মিঁনাখা থানার বামনপুকুর এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয় তাঁকে। গ্রেফতারির পর ১৪ দিনের পুলিসি হেফাজত চেয়ে বসিরহাট আদালতে তোলা হয় শাহজাহানকে। 

শেখ শাহজাহানের গ্রেফতারির খবর শোনা মাত্রই আনন্দে মজেছে  সন্দেশখালি। উল্লাসিত সন্দেশখালির মহিলারা। চলল বিজেপির পক্ষ থেকে মিষ্টিমুখ। দঙ্গলপাড়ায় পায়েস রান্না হচ্ছে গ্রামবাসীর বাড়িতে বাড়িতে। আজ অর্থাৎ বৃহস্পতিবার কার্যত উৎসবে মেতে থাকবে গ্রামবাসীরা। এতদিন পর শাহজাহান গ্রেফতার হওয়ায় সন্দেশখালির মহিলারা এক অপরের মধ্যে লাল আবির মাখলেন, রাস্তার মানুষদের মিষ্টি খাওয়ালেন, বাজি ফাটিয়ে উৎসবের মেজাজে ফিরে এলো সন্দেশখালি। 

কিন্তু আনন্দের মাঝে আতঙ্ক এখনও কাটেনি সন্দেশখালির মহিলাদের মন থেকে। এবার শাহজাহানের ফাঁসির দাবি জানিয়েছেন মহিলারা। কারণ শেখ শাহজাহান ফিরে এলে আবার সন্দেশখালির মা-বোনদের ওপর অত্যাচার শুরু হবে, এমনটাই আশঙ্কাও করছে এই মহিলারাই।

5 days ago