Breaking News
Abhishek Banerjee: বিজেপি নেত্রীকে নিয়ে ‘আপত্তিকর’ মন্তব্যের অভিযোগ, প্রশাসনিক পদক্ষেপের দাবি জাতীয় মহিলা কমিশনের      Convocation: যাদবপুরের পর এবার রাষ্ট্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়, সমাবর্তনে স্থগিতাদেশ রাজভবনের      Sandeshkhali: স্ত্রীকে কাঁদতে দেখে কান্নায় ভেঙে পড়লেন 'সন্দেশখালির বাঘ'...      High Court: নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় প্রায় ২৬ হাজার চাকরি বাতিল, সুদ সহ বেতন ফেরতের নির্দেশ হাইকোর্টের      Sandeshkhali: সন্দেশখালিতে জমি দখল তদন্তে সক্রিয় সিবিআই, বয়ান রেকর্ড অভিযোগকারীদের      CBI: শাহজাহান বাহিনীর বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ! তদন্তে সিবিআই      Vote: জীবিত অথচ ভোটার তালিকায় মৃত! ভোটাধিকার থেকে বঞ্চিত ধূপগুড়ির ১২ জন ভোটার      ED: মিলে গেল কালীঘাটের কাকুর কণ্ঠস্বর, শ্রীঘই হাইকোর্টে রিপোর্ট পেশ ইডির      Ram Navami: রামনবমীর আনন্দে মেতেছে অযোধ্যা, রামলালার কপালে প্রথম সূর্যতিলক      Train: দমদমে ২১ দিনের ট্রাফিক ব্লক, বাতিল একগুচ্ছ ট্রেন, প্রভাবিত কোন কোন রুট?     

Nadia

CM: এবার খোদ মমতার মুখে 'ডিসেম্বর ধামাকা', পুলিস-প্রশাসনকে সতর্ক থাকার নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর

তিন দিনের নদিয়া সফরে গিয়ে বৃহস্পতিবার রানাঘাটে প্রশাসনিক বৈঠক করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। এদিন এই বিশেষ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন নদিয়ার (Nadia) জেলাশাসক, অতিরিক্ত জেলাশাসক, জেলা পুলিশের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা সহ পুর এবং ব্লকস্তরের সকল প্রশাসনিক আধিকারিকরা। এদিন বৈঠক থেকে দুর্নীতি এবং পূর্ত দফতরের উদ্দেশে কড়া বার্তা দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। মূলত কৃষ্ণনগরে কোটি টাকা ব্যয়ে যে সরকারি পান্থনিবাস পুনর্নির্মাণ করা হয়েছিল তার একাংশ এরই মধ্যে ভেঙে গিয়েছে বলে খবর। আর তাতেই তীব্র অসন্তোষ প্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী। এরই সঙ্গে ঠিকাদারেরা বাজে কাজ করলে ধরে ধরে ব্ল্যাক লিস্ট করে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। পাশপাশি কোথাও কোনও দুর্নীতি হলে কখনোই তা রেয়াত করা হবে না বলেও তীব্র ভাষায় জানান মুখ্যমন্ত্রী।

মূলত আগামী পঞ্চায়েত নির্বাচনকে টার্গেট করেই ঘুঁটি সাজাচ্ছে সব রাজনৈতিক দল। আর সেই মতোই প্রাক ভোট প্রচার সফরে সামিল হয়েছেন খোদ তৃণমূল সুপ্রিমো তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্যের শাসক দল হিসেবে তৃণমূলের সেই হারানো মানদণ্ড ফিরিয়ে আনতেই এবার উঠেপড়ে লেগেছেন মুখ্যমন্ত্রী। এদিন কৃষ্ণনগরে প্রশাসনিক সভায় মমতার মুখে ফের উঠে এল 'এনআরসি' (NRC) প্রসঙ্গ। 'রাজনৈতিক চক্রান্ত চলছে! প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের অনুরোধ সবার নাম যেন ভোটার লিস্টে থাকে। অন্য ধর্ম বলে তাঁদের দয়া করে বাদ দেবেন না। নির্বাচন এলেই ক্যা ক্যা করে। ভোটার লিস্ট যাঁরা তৈরী করছেন তাঁরা সবার নাম তুলবেন' এমনই নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর।

এরই সঙ্গে ডিসেম্বর নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সাবধান বাণী, 'ডিসেম্বরে ধামাকা করার জন্য বিরোধীরা তৈরী হচ্ছে। কর্ণাটকের মতো এখানেও কমিউনাল যুদ্ধ লাগানোর প্ল্যান করেছে। এটা বাঁচার পথ নয়, চৈতন্যদেবের জায়গায় দাঁড়িয়ে বলছি, শান্তির পথ খুঁজুন।' এদিন কার্যত ডিসেম্বর ধামাকা নিয়ে পুলিশ প্রশাসনকে সজাগ থাকার নির্দেশ দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে এদিন লক্ষ্মীর ভাণ্ডার নিয়ে সুখবর শোনালেন মুখ্যমন্ত্রী। 

এর আগে যাঁরা বিধবা ভাতা পেতেন তাঁদের লক্ষীর ভাণ্ডারের টাকা দেওয়া হতো না। তবে এখন থেকে এই নির্দেশিকা তুলে নেওয়া হল। ফলে এবার থেকে বিধবা ভাতা পেলেও তাঁরা লক্ষীর ভান্ডারের সুবিধা থেকে আর বঞ্চিত হবেন না বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।তবে এদিন ডিসেম্বর ধামাকা নিয়ে রাজ্য সরকারকে তুলোধোনা করেন রাজ্য বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য। 'সকল রাজ্য সরকারী কর্মচারী ও পেনশন ভোগীরা এই ডিসেম্বর ধামাকার জন্য অপেক্ষা করছেন। ডিএ নিয়ে কবে সুপ্রিম কোর্ট হাইকোর্টের নির্দেশ বহাল রাখবে। এই সরকার কেন্দ্রের হারে মোট ডিএ দিতে পারছে না, চাকরি দিতে পারছে না, বিনিয়োগ আনতে পারছে না, শুধু খেলা, মেলা, মোচ্ছবের রাজনীতি করে চরম ধ্বংসের দিকে পাঠিয়ে দিয়েছে পশ্চিমবঙ্গকে।' ঠিক এই ভাষাতেই রাজ্য সরকারকে  নিশানা করলেন তিনি।

এদিকে অবশ্য এই গোটা ঘটনায় রাজনৈতিক যোগসাজসের গন্ধ পাচ্ছেন বাম নেতা তন্ময় ভট্টাচার্য। 'বিজেপি, মমতা দুজনেই বলছেন ডিসেম্বরে ধামাকা হবে। আমরা চিরকাল বলেছি বিজেপি আর মমতা এক কথা বলে। আর কোথায় রাজ্যটাকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিয়ে যেতে চান! আজ থেকে টিটেনাসের দাম বেড়েছে, কাল মুখ্যমন্ত্রীর পুলিস এক যোগ্য চাকরি প্রার্থীকে কামড়ে দিয়েছেন।' এভাবে তীব্র কটাক্ষ করলেন সিপিএম নেতা।


2 years ago
TMC: দুর্নীতির গুচ্ছ অভিযোগ, জেলা প্রাইমারি শিক্ষা পর্ষদের চেয়ারম্যান পদ খোয়ালেন টিএমসি বিধায়ক

দলীয় এক কর্মীকে টাকার বিনিময়ে দলে পদ পাইয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতির অভিযোগে পদ খোয়ালেন করিমপুরের তৃণমুল বিধায়ক (Trinamool MLA) বিমেলেন্দু সিংহ রায়। ইতিমধ্যেই তাঁকে নোটিশ পাঠানো হয়েছে। একই সঙ্গে জানানো হয়েছে, তাঁর পরিবর্তে চেয়ারম্যান পদের দায়িত্ব সামলাবেন নদিয়ার (Nadia) জেলাশাসক শশাঙ্ক শেঠি।

জানা যায়, বিমলেন্দু সিংহ রায় (Bimalendu Singh Roy) একদিকে যেমন বিধায়কের দায়িত্বভার সামলাচ্ছেন, ঠিক তেমনই অন্যদিকে নদিয়া জেলা প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের চেয়ারম্যান পদেও ছিলেন। কিন্তু তাঁর বিরুদ্ধে বেশ কিছুদিন আগে ৭ লক্ষ টাকা প্রতারণার অভিযোগ ওঠে এক দলীয় কর্মীর তরফ থেকে। এরপর করা হয় মামলা। সেই মামলা বর্তমানে কলকাতা হাইকোর্টের বিচারাধীনে রয়েছে। এছাড়াও বিমলেন্দু সিংহ রায়ের বিরুদ্ধে বদলির নামে ঘুষ নেওয়া-সহ একাধিক অভিযোগ সামনে এসেছে। যার কারণে দিনে দিনে তৃণমূল কংগ্রেসের অন্দরে অস্বস্তি বাড়ছিল। অবশেষে পদ থেকেই সরিয়ে দেওয়া হল তাঁকে।

প্রসঙ্গত, এই বিধায়কের বিরুদ্ধে এর আগে অভিযোগ উঠেছিল তিনি তৃণমূল ব্লক সভাপতি করার জন্য টাকা নিয়েছিলেন এক স্থানীয় তৃণমুল নেতা হাসান আলি মণ্ডলের কাছে। পরবর্তীতে সেই কথা জানাজানি হতেই ওই হাসান আলি মণ্ডলের বাড়ির সামনে বোমাবাজি করারও অভিযোগ ওঠে। এই প্রসঙ্গে বিমলেন্দু সিংহ রায় জানান, এটা তো সরকারি সিদ্ধান্ত। এই নিয়ে আলোচনার কোনও মানে নেই।

2 years ago
Tiger: হেমন্তের সুন্দরবনে রয়্যাল বেঙ্গল দর্শন, নদীয়ার রাস্তায় কুমির দেখে আতঙ্কিত স্থানীয়রা

শীত (winter) শুরু হতে না হতেই সুন্দরবনের (Sundarbans) জঙ্গলে দেখা মিলল রয়েল বেঙ্গল টাইগারের (Royal Bengal Tiger)। শুক্রবার কলকাতা থেকে এক দল পর্যটক সুন্দরবন বেড়াতে আসেন। সেখানে যাদবপুর (Jadavpur) থেকে বেড়াতে আসেন ১৭ জনের দল। ভ্রমনে বেড়িয়েই দেখা মেলে জলজ্যান্ত দুটি রয়েল বেঙ্গলের। যেই দেখা সেই তার ছবি ক্যামেরাবন্দি করেন পর্যটকরা। গত বছর শীতের মরশুমে একাধিকবার জঙ্গলে দক্ষিণরায়ের দেখা মিলেছিল। শীতের আমেজ আসতে না আসতেই আবারও রয়েল বেঙ্গল দর্শনে পর্যটকরা খুশি। তবে এবার বাড়তি পাওনা জোড়া বাঘের। নদীর চড়ে দুই বাঘের লড়াই। প্রায় ২ মিনিটের সেই ছবিই ক্যামেরাবন্দি হয়।

অন্যদিকে, কুমিরাতঙ্ক গ্রাস করেছে নদিয়াবাসীদের। নদিয়ার নাকাশিপাড়া কাশিয়াডাঙায় রাস্তার উপর একটি প্রকাণ্ড কুমির দেখে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। প্রসঙ্গত, বলা যায় বেশ কয়েক মাস ধরেই একটি কুমিরকে দেখা যাচ্ছে এই এলাকায়। এর আগে ধুবুলিয়ায় তারপরে চরকুর্মীর ঘাটে। দিন ৫-৬ আগে একটি কুমির দেখা যায় আবার ভাগীরথীর তীরে। কিন্তু এরপর শনিবার ফের স্থানীয়রা কাশিয়াডাঙ্গা জল প্রকল্পের কাছে রাস্তার উপরে  কুমিরটিকে দেখতে পেয়ে আত্মরক্ষার জন‍্য সকলে মিলে বেঁধে ফেলে। খবর যায় বন দফতরের কাছে। এরপর বনদফতরের কর্মীরা গিয়ে কুমিরটিকে উদ্ধার করে।

2 years ago


Accident: নাকাশিপাড়ায় ভয়াবহ পথ দুর্ঘটনা, মৃত্যু ৫ জনের

জাতীয় সরকারের উপর ভয়াবহ পথ দুর্ঘটনা (Road Accident)। ঘটনাটি ঘটেছে নদীয়া (Nadia) নাকাশিপাড়া ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কের টোল প্লাজা ছাড়িয়ে। রাস্তার কারণেই এই দুর্ঘটনাটি ঘটেছে বলে জানা গিয়েছে। এখানে প্রতিদিনই এমন দুর্ঘটনা ঘটে বলে স্থানীয় মানুষের অভিযোগ।

কোনও সিভিক না থাকায় এবং সিঙ্গেল রোড হয়ে যাওয়ায় দুর্ঘটনাগুলি ঘটে। শুক্রবার সকালে একটি মারুতি সুজুকি বেথুয়াডহরি দিকে যাচ্ছিল। বহরমপুরগামী একটি লরির সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। ঘটনাস্থলে মৃত্যু হয় ওই মারুতিতে থাকা সকলের। তাঁদের মধ্যে একটি শিশুও ছিল। 

স্থানীয় মানুষের অভিযোগ, প্রায় প্রতিনিয়তই এখানে এরকম দুর্ঘটনা ঘটে। টোল থেকে ছাড়িয়ে রাস্তাটা সিঙ্গেল হয়ে যাওয়ায় অনেক সময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে গাড়িগুলি। এরপরে ক্রেনকে খবর দিলে এক দেড় ঘন্টার পরে ক্রেন আসে। এরফলে জনতা ক্ষুব্ধ হয়ে যায়। প্রত্যেকটি মৃতদেহ গ্রামীণ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। স্থানীয় মানুষের দাবি, এখানে সিভিক ভলেন্টিয়ার রাখা এবং অতি শীঘ্রই রাস্তাটি যাতে তৈরি করা হয়। তাহলে এই দুর্ঘটনা এড়ানো অনেকটা সম্ভব বলে তাঁরা জানান।

2 years ago
Nadia: শান্তিপুরে দুই পড়শি পাড়ায় কালী বিগ্রহের গয়না চুরি, সিসিটিভি না থাকায় সমস্যায় পুলিস

একই সময়ের মধ্যে ঘটে গেল দুটি অস্বাভাবিক চুরি (theft)। নদীয়ার (Nadia) শান্তিপুর ব্লকের বাবলা পঞ্চায়েতের অন্তর্গত কদমপুর পূর্ব পাড়া এবং নিমতলা পাড়ায় মঙ্গলবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে। কদমপুর পূর্ব পাড়া হুংকার কালীমাতা এ বছর ২২ বছরে পদার্পণ করেছিল। মঙ্গলবার পাহারায় পুজো কমিটির ২ সদস্য থাকলেও তাঁরা ভোর তিনটে নাগাদ ঘুমিয়ে পড়ে। আর তখনই মায়ের গা থেকে সমস্ত রুপোর গয়না আনুমানিক ৩৫ ভরির কাছাকাছি ছিনিয়ে নিয়ে পালায় দুষ্কৃতীরা।

একই এলাকায় পার্শ্ববর্তী পাড়ায় কদমপুর নিমতলা আদি ভয়ংকরী মাতা এবছর ৩৪ বছরে পদার্পণ করেছিল। সেখানে নির্দিষ্ট কোনও পাহারাদারের ব্যবস্থা না থাকলেও রাত প্রায় আড়াইটা পর্যন্ত সদস্যরা লক্ষ্য রেখেছিলেন। এরপর উচ্চ মায়ের মুকুট এবং দু-একটি গহনা হাতে না পাওয়ার কারণেই হয়তো চুরি করতে পারেনি। বাকি, ঝোলানো লম্বা হার এবং অন্য গয়না ছিনিয়ে নিয়ে যায় দুষ্কৃতীরা। উদ্যোক্তাদের অনুমান আনুমানিক ৭০০ থেকে ৮০০ গ্রাম ওজনের বিভিন্ন গয়না চুরি যায়।

দুটি পুজোর ক্ষেত্রেই আজ, বুধবার শোভাযাত্রায় অংশগ্রহণ করার কথা ছিল। সেই কারণেই মঙ্গলবার বিসর্জন হয়নি। ঘটনাস্থল খতিয়ে দেখতে শান্তিপুর থানার পুলিস পৌঁছয় দুটি পুজো মন্ডপেই। তবে আশেপাশে বেশি সিসি ক্যামেরা না থাকার কারণে রহস্য উদঘাটন খুব একটা সহজসাধ্য নয়। তবুও পুলিস প্রশাসন খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন। এলাকার দুটি দুঃসাহসের চুরির কারণে আলোর পুজোয় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

2 years ago


Murder: পারিবারিক বিবাদ, আমবাগানে জ্যাঠাকে কুপিয়ে খুনে অভিযুক্ত 'মাদকাসক্ত' ভাইপো

পুরনো বিবাদকে কেন্দ্র করে ভাইপোর এলোপাথাড়ি ধারালো অস্ত্রের কোপে নৃশংসভাবে খুন (murder) জ্যাঠা। নির্মম এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উত্তেজনা নদিয়ার (Nadia) শান্তিপুর ফুলিয়ার দিব্যডাঙায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে শান্তিপুর থানার পুলিস (police)।

সূত্রের খবর, মঙ্গলবার ওই এলাকার একটি আমবাগানে নিরঞ্জন সরকার নামে ওই ব্যক্তি বসে ছিলেন। এরপর আচমকাই তাঁর ভাইপো ২৭ বছরের বিজয় সরকার একটি ধারালো অস্ত্র নিয়ে তাঁর উপর চড়াও হন। নিরঞ্জন বাবুর গলায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপ মারতে থাকে। ঘটনাস্থলেই রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকেন নিরঞ্জন বাবু। স্থানীয়রা ছুটে এসে দেখতে পেয়ে পুলিসকে খবর দেয়। ততক্ষণে ভাইপো বিজয় সরকার ঘটনাস্থল ছেড়ে চম্পট দেন বলেই অভিযোগ। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় জ্যাঠা নিরঞ্জন সরকারের।

যদিও অভিযুক্ত বিজয় সরকারের পরিবারের দাবি, ছেলে কিছুটা মানসিক ভারসাম্যহীন ছিল। পারিবারিক কোনওরকম বিবাদ ছিল না তাঁদের। অন্যদিকে, নিহত নিরঞ্জন সরকারের পরিবারের দাবি, বিজয় সরকার বিভিন্ন নেশায় আসক্ত ছিলেন। প্রতিদিনই নেশা করে বাড়িতে আসতেন। আর জমি জায়গা সংক্রান্ত বিষয়ে জ্যাঠার সঙ্গে কথা কাটাকাটি করতেন। তবে অভিযুক্ত ভাইপো বিজয় সরকারের খোঁজ চালাচ্ছে শান্তিপুর থানার পুলিস। এই ঘটনায় এলাকায় এখনও ব্যাপক উত্তেজনা।

2 years ago
Shootout: নদিয়ায় তৃণমূল নেতাকে লক্ষ্য করে চলল গুলি, অভিযোগ গোষ্ঠীকোন্দলের

ফের শুটআউটের (shootout) ঘটনায় চাঞ্চল্য। এবার ঘটনাস্থল নদিয়ার (Nadia) পিয়ারপুর গ্রাম। ঘটনায় গুলিবিদ্ধ গ্রামের এক তৃণমূল নেতা। গুলিবিদ্ধ তৃণমূল নেতার নাম হাসিবুল মণ্ডল। ঘটনায় উঠে আসছে তৃণমূলের গোষ্ঠীকোন্দলের প্রসঙ্গ।

স্থানীয় সূত্রে খবর, ঘটনার সূত্রপাত পিয়ারপুর গ্রামে থানার ওসি'র বিরুদ্ধে থানারপাড়া থানায় গণস্বাক্ষর (mass signature) কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে। সেখানে সই কারচুপির অভিযোগ ওঠে। এরপরই শুরু হয় বচসা। অভিযোগ, অনেকের অজান্তেই নাম জাল সই (signature) করে দাখিল করার বিরোধিতা করায় গুলিবিদ্ধ হতে হয় ওই তৃণমূল নেতা হাসিবুলকে। ঘটনাটি শনিবার সন্ধ্যার।

স্থানীয় সূত্রে খবর, প্রথমে হাসিবুলের পরিবারের লোকজনকে বেধড়ক মারধর করা হয়। এরপর ইট বৃষ্টিও করা হয় তাঁদের ওপর। সঙ্গেই চলে ১৫ থেকে ২০ রাউন্ড গুলি। তার মধ্যে একটি গুলি হাসিবুলের পায়ে লাগে বলে অভিযোগ। পরিবার সূত্রে খবর, আহত অবস্থায় প্রথমে তাঁকে স্থানীয় প্রাথমিক চিকিৎসা কেন্দ্র নিয়ে যাওয়া হয়। তবে সেখান থেকে বহরমপুরে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। বর্তমানে শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল হলেও দোষীদের কঠোর শাস্তির দাবি করেছেন হাসিবুল ও তাঁর পরিবারের লোকজন।

পরিবারের অবিযোগ, দুষ্কৃতীকারী আগে সিপিএম, কংগ্রেস দলকে সমর্থন করলেও বর্তমানে তৃণমূল কংগ্রেসের একজন প্রভাবশালী ব্যক্তি। তবে আগেই তৃণমূলের পদ থেকে তাঁকে বরখাস্ত করা হয়েছে, কিন্তু তবুও তিনি নিজেকে তৃণমূল কংগ্রেসের একজন নেতৃত্ব বলে দাবি করেন।

2 years ago
Nadia: ফের হাঁসখালিতে ধর্ষণ, এবার পড়শি বৃদ্ধের লালসার শিকার এক নাবালিকা

ফের নদিয়ার (Nadia) হাঁসখালিতে (Hanskhali) নাবালিকাকে ধর্ষণ (Rape)। অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেফতার (Arrested) পড়শি এক বৃদ্ধ। ধৃতের নাম নবকুমার বিশ্বাস। জানা গিয়েছে, অভিযুক্ত শাসকদলের একজন সক্রিয় কর্মী। ওই নাবালিকার পরিবারের আরও অভিযোগ, টাকার টোপ দিয়ে ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেন শাসকদলের কর্মীরা।

ঘটনাটি ৭ অক্টোবর রাতের। জানা গিয়েছে, ওই  নাবালিকার বাড়ির কেউ একজন অভিযুক্তর বাড়িতে টিভি দেখতে গিয়েছিলেন। সেই সময় নাবালিকা তাঁকে ডাকতে যায়। নবকুমার অন্ধকারের সুযোগ নিয়ে ওই নাবালিকাকে বাড়ির পিছনে অন্ধকার গলিতে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করেন। এমনটাই অভিযোগ নির্যাতিতার পরিবারের। এমনকি কাউকে এ কথা জানালে গলা টিপে মেরে ফেলবেন বলেও হুমকি দেন। সে ভয়ে এতদিন চুপ ছিল নাবালিকা। কিন্তু নাবালিকার শারীরিক ব্যথা অনুভব হতেই জানাজানি হয় বিষয়টি।

এরপরই পাড়ার অন্যরা ও নাবালিকার মা, গোটা পরিবার থানার দ্বারস্থ হন। নাবালিকার পরিবারের তরফে প্রতিবেশী ওই বৃদ্ধের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে।  অভিযোগের ভিত্তিতে হাঁসখালি থানার পুলিস নবকুমারকে গ্রেফতার করে। এদিকে এই ঘটনায় ফের একবার রাজনৈতিক চাপানউতোর শুরু হয়েছে।

ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে বৃহস্পতিবার ওই নাবালিকার বাড়িতে যান রানাঘাটের বিজেপি সাংসদ জগন্নাথ সরকার। বিজেপির নাদিয়া দক্ষিণ সাংগঠনিক জেলার মহিলা মোর্চার প্রতিনিধি দলও এদিন নাবালিকার বাড়িতে যায়।

কিশোরীর পরিবার অভিযুক্তের কঠোর শাস্তির দাবিতে অনড়। অর্থের প্রলোভনের কাছে মাথা নত করেননি। সূত্রের খবর, কিশোরীর পরিবার বিজেপি দলের সঙ্গে যুক্ত।

2 years ago


Suicide: নিজের বন্দুকের গুলিতেই আত্মঘাতী এক বিএসএফ জওয়ান

ফের মর্মান্তিক মৃত্যু (death)। সার্ভিস রিভলভারের গুলিতেই আত্মঘাতী (suicide) এক বিএসএফ জওয়ান। জানা যায়, রবিবার সকালে কর্মরত অবস্থায় সার্ভিস রিভলবার (Service revolver) থেকে গুলি চালিয়ে আত্মঘাতী হন ওই জওয়ান (soldier)। মৃত ওই বিএসএফ কর্মীর নাম কৌশিক বিশ্বাস। বাড়ি নদিয়ার (Nadia) চাকদহ থানার চাদুরিয়া ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের বিশ্বাসপাড়া এলাকায়। সম্প্রতি তিনি বিহার থেকে অসমে পোস্টিং পান। এদিন সকালে চাকদায় কৌশিকের পাশের বাড়িতে টেলিফোন মারফত তাঁর মৃত্যুর খবর জানতে পারে পরিবার। তারপরেই শোকে ভেঙে পড়ে পরিবারের সকলে।

জানা গিয়েছে, দেড় বছর আগে অমৃতা বিশ্বাসের সঙ্গে তাঁর বিয়ে হয়। তাঁদের একটি পুত্র সন্তানও রয়েছে। মৃত কৌশিকের বাবা কৃত্তিবাস বিশ্বাস, পেশায় তিনি কৃষিজীবী। পরিবারে রোজগেরে বলতে ছিলেন একমাত্র কৌশিক। অন্যদিকে তাঁর একটি বোনও রয়েছে।

পরিবারের অভিযোগ, কৌশিকের বন্ধু জয়ন্ত মণ্ডল ওরফে পচা তাঁর কাছ থেকে কয়েক লক্ষ টাকা বিভিন্ন সময়ে হাতিয়ে নেয়। এই নিয়ে মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন কৌশিক। তবে মৃত্যুর কারণ নিয়ে যথেষ্ট ধোঁয়াশা রয়েছ বলেই সূত্রের খবর। তদন্তে নেমেছে পুলিস। 

2 years ago
Durga puja: মায়ের বোধনের আগেই দেবীর গয়না চুরি, চাঞ্চল্য শান্তিপুরে রায় বাড়ির পুজোয়

আজ মহাষষ্ঠী। শহর ও শহরতলির রাস্তায় ইতিমধ্যেই জমজমাটি ভাব। তবে এরই মধ্যে ঘটে গেল দুঃসাহসিক চুরির (theft) ঘটনা। দুর্গা প্রতিমার গা থেকে গয়না চুরি হয়ে যায় পুজোর আগেই। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়ায় নদিয়া (Nadia) শান্তিপুর ৮ নম্বর ওয়ার্ডে দত্তপাড়ায়।

জানা যায়, দত্তপাড়ার রায় বাড়ির এই পুজো বহু প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী। আজ মহাষষ্ঠীর দিনই বাড়ির প্রতিমার গায়ের থেকে গয়না চুরি ঘটনায় রীতিমতো চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছে। খবর দেওয়া হয় শান্তিপুর থানায়। খবর পেয়ে পুলিস (police) ঘটনাস্থলে গিয়ে তদন্ত শুরু করেছে।

পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ভোর রাতে ঘুম থেকে উঠে দেখা যায় প্রতিমার গায়ে কোনও সোনা বা রূপোর গহনা নেই। সোনার টিপ, ত্রিনয়ন, নথ সহ একাধিক জিনিস খোয়া গিয়েছে। তবে আজ সকালে এমন ঘটনার সম্মুখীন হতে হবে তাঁদের, তার জন্য প্রস্তুত ছিলেন না পরিবারের কেউ।  

2 years ago


Nadia: দুর্গাপুজোয় হারিয়েছিলেন স্বামী, বাড়ি ফিরে আসার প্রহর গুনছেন স্ত্রী

বাঙালিদের সব থেকে বড় উত্সব দুর্গা পুজো (durga pujo)। যা ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে। তবে এই পুজো ঘিরেই রয়েছে এক স্ত্রীর স্বামীর খোঁজ পাবার আশা। প্রতিবছর পুজোতে একটাই কামনা তাঁর স্বামী যেন সুস্থ শরীরে ঘরে ফিরে আসেন। নদিয়ার (Nadia) হাঁসখালীর গোবিন্দপুর সর্দার পাড়ার বাসিন্দা বছর ৪৫ এর শুক্লা সর্দার। তাঁর এই আশা কবে মা দুর্গা পুরণ করবে তার ভরসাতেই প্রহর গুনছেন।

জানা যায়, ২৫ বছর আগে পাশের গ্রামে ঘটা করে বিয়ে হয়েছিল রঞ্জিত সর্দারের সঙ্গে। বিয়ের বছর না ঘুরতেই স্বামী নিখোঁজ হয়ে যান দুর্গাপুজোর সময়। শত চেষ্টা করেও স্বামীর সন্ধান করতে পারেননি তিনি। শেষ পর্যন্ত স্বামীর ঘর ত্যাগ করে ফিরে আসতে হয় বাপের বাড়িতে। তবে বাপের বাড়ির অবস্থাও খুব একটা ভালো নয়। বৃদ্ধ বাবা-মার সংসার চালানোই এক প্রকার দায়। যেখানে মেয়েকে বহন করা একেবারেই অসাধ্য। কিন্তু পরিণতি একই ঠেলায় শুক্লা দেবী এখন বোঝা। তবে শুক্লা দেবী বাবা-মার কাছে বোঝা হয়ে থাকতে চাননি। তাঁর বাবা-মা বারবার তাঁকে অন্যত্র বিবাহ দেওয়ার চিন্তা করেন। কিন্তু শুক্লা দেবীর জেদের কাছে হার মানেন শেষমেশ। শেষ পর্যন্ত নিজের সংসারের হাল নিজে ধরতে লোকের বাড়ি পরিচারিকার কাজ শুরু করেন শুক্লাদেবী। বর্তমানে দুটি বাড়িতে সামান্য পয়সা পেলেও এখনও তাঁর মনের আশা তাঁর স্বামী নিশ্চয়ই ফিরে আসবেন কোনও একদিন ঠিক।

এখন কোনওরকম কষ্ট করে সংসার চালান দাঁতে দাঁত চেপে। দুর্গাপুজো আসলেই মনে পড়ে তাঁর স্বামী এই বুঝি আসছেন। এখনও স্বামীর পথ চেয়ে বসে আছেন তিনি। স্বামীর মঙ্গল কামনায় আজও হাতে শাখা কপালে সিঁদুর পরেন। এই পরিস্থিতিতে শুক্লা সর্দার গ্রামের মানুষের কাছে দেবী দুর্গা। দুর্গা যেমন শিব যতই শ্মশানচারী হোক তাঁকে ত্যাগ করতে পারেননি, তেমনই শুক্লা দেবী আজও স্বামীর আশায় দিন গুনছেন। তাঁর আশা পূর্ণ হবে কিনা জানেননা, তবে তিনি এযুগেও একজন আদর্শ নারী হিসেবে নিজের নাম তুলে ধরেছেন।

2 years ago
Nadia: তৃণমূলের গোষ্ঠী সংঘর্ষে ভরসন্ধ্যায় হরিণঘাটায় গুলি, চাঞ্চল্য

ভরসন্ধ্যায় গুলি চালনোর ঘটনা। নদিয়ার হরিণঘাটা (Nadia) পুরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডে এমন ঘটনায় স্বাভাবিকভাবেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। মহালয়ার (mahalaya) আগের দিন, অর্থাৎ ২৪ শে সেপ্টেম্বর সন্ধ্যে ৭ টা নাগাদ ঘটে। অভিযোগের তীর স্থানীয় তৃণমূল কংগ্রেসের চেয়ারপার্সন মোশারফ মণ্ডল ও তাঁর সাগরেদ ফারুক মণ্ডলের বিরুদ্ধে। এই বিষয়ে হরিণঘাটার (Haringhata) মোহনপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন আক্রান্ত মিজানুর তরফদার।

মিজানুর ও তাঁর পরিবারের অভিযোগ, এদিন তিনি যখন সন্ধ্যায় বাজার করে ফিরছিলেন তখন ফারুক তাঁকে উদ্দেশ্য করে গালিগালাজ করে। তখনকার মতো তিনি চুপচাপ বাড়ি ফিরে আসেন। তাঁর কথা শুনে পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা গিয়ে সেই ঘটনার প্রতিবাদ করায় মোশারফ ও ফারুক তাঁদের মারধর শুরু করে। চলে দুপক্ষের মধ্যে হাতাহাতি। এরই মধ্যে আচমকাই মোশারফ রিভলভার বের করে গুলি চালায়। যদিও গুলিতে কেউ আহত হয়নি। তবে এই মারামারির ঘটনায় দুপক্ষেরই কয়েকজন আহত হন বলে জানা গিয়েছে।

তবে অন্যদিকে এই ঘটনার কথা স্বীকার করে নিয়ে ওই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সীমা কাঞ্জিলাল ভট্টাচার্য বলেন, এই ধরনের ঘটনা অনভিপ্রেত। দলেরই দুই গোষ্ঠীর মধ্যে বিবাদ। যা কোনওভাবেই মেনে নেওয়া হবে না। দলের উচ্চপদাধিকারীদের জানানো হয়েছে। দল যা সিদ্ধান্ত নেবে তা পালন করা হবে। পাশাপাশি তিনি আরও বলেন, হরিণঘাটা পুলিস প্রশাসন তদন্ত শুরু করেছে। তাঁরা যা করার আইনানুগ সিদ্ধান্ত নেবে।

পাল্টা হরিণঘাটার বিজেপি বিধায়ক অসীম সরকার বলেন, "আসল কথা এটা তৃণমূলের গোষ্ঠী কলহ। এক কথায় কাটমানির ভাগাভাগির লড়াই।"

2 years ago
Nadia: ভরসন্ধ্যায় বৃদ্ধার মাথায় রিভলভার ঠেকিয়ে ডাকাতির ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়াল চাকদহে

ভরসন্ধ্যায় বৃদ্ধার মাথায় রিভলভার ঠেকিয়ে ডাকাতির (Robbery) ঘটনায় চাঞ্চল্য। ঘটনাটি ঘটেছে নদিয়ার (Nadia) চাকদহ (Chakdaha) পুরসভার তিন নম্বর ওয়ার্ডের রবীন্দ্রনগর এলাকায়।

জানা গিয়েছে, এই এলাকার বাসিন্দা বৃদ্ধা মিতা ঘোষ। দীর্ঘদিন ধরে  অসুস্থ অবস্থায় বাড়িতে একাই ছিলেন তিনি। ঘটনার সময় তিনি খাটে বসে মোবাইল দেখছিলেন। ছেলে শুভঙ্কর ঘোষ স্ত্রী ও মেয়েকে নিয়ে পুজোর বাজার করতে গিয়েছিলেন। রাত সাড়ে আটটা নাগাদ শুভঙ্করের ডাকনাম বাবাই-বাবাই বলে কেউ দরজায় ডাকতে থাকেন। ওই বৃদ্ধা দরজা খুলতেই মুখ চেপে ধরে এক যুবক। অন্যজন কপালে রিভলভার ঠেকিয়ে আলমারির চাবি চায়। প্রাণভয়ে মিতাদেবী তাদের হাতে চাবি তুলে দিতে বাধ্য হন।

আলমারি থেকে ওই দুই দুষ্কৃতী কমবেশি ৫-৬ লক্ষ টাকার সোনার গয়না নিয়ে ঘরের আলো নিভিয়ে চম্পট দেয়। যাওয়ার সময় মিতাদেবীকে ধাক্কা দিয়ে মেঝেতে ফেলে দেন বলেও তিনি জানান। তারা চলে গেছে বুঝতে পেরে মিতাদেবী বাঁচাও বাঁচাও বলে চিৎকার করতে থাকেন। তাঁর চিৎকার শুনে ছুটে আসেন প্রতিবেশীরা। খবর দেওয়া হয় চাকদহ থানায়। ঘটনাস্থলে চাকদহ থানার পুলিস আসে এবং তদন্ত শুরু করে।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন ছেলে শুভঙ্কর, মেয়ে শ্রীপর্ণা সাহা ও স্থানীয় কাউন্সিলর তিথি দেবনাথ-সহ অন্যান্য বহু মানুষ। স্থানীয়রা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলে অভিযোগ করেন। পাশাপাশি দাবি করেন, পুলিসি টহলদারি জোরদার করার।

2 years ago


Murder: আচমকাই বাড়িতে ঢুকে ধারালো অস্ত্রের কোপ, রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার গৃহবধু

এক গৃহবধূকে কুপিয়ে খুনের (murder) ঘটনায় চাঞ্চল্য নদিয়ার (Nadia) হরিণঘাটায়। এই খুনের ঘটনার নেপথ্যে রয়েছে কারা, তদন্তে পুলিস (police)। শুক্রবার রাতে এমন ঘটনায় শোকের ছায়া নেমেছে পরিবারে। ঘটনার পরই উত্তেজনা ছড়িয়ে এলাকায়। আতঙ্কে এলাকাবাসী।

জানা যায়, বিরহী ১ নম্বর পঞ্চায়েতের পাঁচপোতা পশ্চিম পাড়ার বাসিন্দা বছর ২৫ এর সাহানারা খাতুন। মৃত গৃহবধূর স্বামী জাবেদ বিশ্বাস। তিনি পেশায় একজন ড্রাইভার। তাঁদের একটি দেড় বছরের পুত্র সন্তানও রয়েছে। কর্মসূত্রে মৃত গৃহবধুর স্বামী গত তিনদিন যাবত বাড়ির বাইরেই রয়েছেন।

স্থানীয় সূত্রে খবর, শুক্রবার রাত ১১ টা নাগাদ কে বা কারা ওই গৃহবধুর ঘরে ঢুকে কুপিয়ে খুন করে চম্পট দেয়। গৃহবধূর চিৎকারে ছুটে আসেন পরিবারের অন্যান্য সদস্য সহ  প্রতিবেশীরা। এরপরই ঘরে গৃহবধূকে রক্তাক্ত অবস্থায় দেখতে পান তাঁরা। গুরুতর আহত অবস্থায় তড়িঘড়ি তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় কল্যাণী জহরলাল নেহরু মেমোরিয়াল হাসপাতালে।  তবে সেইখানেই ওই গৃহবধূকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা।

এখন প্রশ্ন একটাই, গৃহবধূকে কে বা কারা কুপিয়ে খুন করল? এই ঘটনার পেছনে কারণ কী? তার তদন্তে নেমেছে হরিণঘাটা মোহনপুর থানার পুলিস।

2 years ago
Police: 'ঘুষখোর' সাব-ইনস্পেক্টরকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করতে ডিজিকে নির্দেশ হাইকোর্টের

লক্ষ টাকা ঘুষ (Bribe) না দিলে মাদক মামলায় (False Case) ফাঁসিয়ে দেওয়ার হুমকি। নদিয়ার (Nadia) চাপড়া থানার এসআইয়ের (SI) বিরুদ্ধে এই অভিযোগ তুলে হাইকোর্টে মামলা। সেই মামলায় অভিযুক্ত এসআই চন্দন সাহাকে বরখাস্তের নির্দেশ দিল আদালত। পাশাপাশি দুর্নীতি দমনে আইনে অভিযুক্তর বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ রাজ্য পুলিসের ডিজিকে দিয়েছে হাইকোর্টের (Calcutta High Court) ডিভিশন বেঞ্চ। এই বেঞ্চের সদস্য বিচারপতি জয়মাল্য বাগচি এবং বিচারপতি অনন্যা বন্দ্যোপাধ্যায়। 

জানা গিয়েছে, সাব ইন্সপেক্টর চন্দন সাহার বিরুদ্ধে ঘুষ চেয়ে হুমকির অভিযোগে মামলা দায়ের করেন চাপড়ার এক বাসিন্দা। তাঁর অভিযোগ, ওই পুলিস অফিসার তাঁর থেকে এক লক্ষ টাকা ঘুষ চেয়েছেন। সেই টাকা দিতে অস্বীকার করলে তাঁকে মিথ্যে মাদক মামলায় ফাঁসিয়ে দেওয়ার হুমকিও দিয়েছেন। আদালতে দায়ের মামলার স্বপক্ষে অভিযোগকারী ফোনের কথোপকথন সংক্রান্ত একটি রেকর্ডিং জমা দেন।

এরপর ওই ফোন রেকর্ডিংয়ের ফরেন্সিক সত্যতা যাচাই করতে দেখতে সিআইডিকে নির্দেশ দেয় ডিভিশন বেঞ্চ। প্রাথমিক অনুসন্ধানের পর সিআইডির এডিজি আদালতকে জানান, মামলাকারীর দাবি সত্যি। এরপরই বৃহস্পতিবার শুনানিতে ওই সাব ইন্সপেক্টরকে বরখাস্ত করে তাঁর বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন আইনে বিভাগীয় তদন্ত করার নির্দেশ ডিজিকে দেয় বেঞ্চ।

2 years ago