Breaking News
Tapas Roy: তৃণমূল ছাড়লেন তাপস রায়, বরাহনগরের বিধায়ক পদ থেকে ইস্তফা বর্ষীয়ান নেতার      Resign: হঠাৎ অবসর বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের, 'রাজনীতি যোগ' জল্পনা তুঙ্গে      Sandeshkhali: সন্দেশখালিতে ফের ফ্য়াক্ট ফাইন্ডিং টিম, শুনবে মহিলা ও বাসিন্দাদের কষ্টের কথা      BJP: প্রথম দফায় ১৯৫ প্রার্থীর নাম ঘোষণা বিজেপির, বাংলার ২০ জনের নাম তালিকায়      Modi: 'রামমোহনের আত্মা সন্দেশখালির মহিলাদের দুর্দশায় কাঁদছে', আরামবাগ থেকে মমতাকে তোপ মোদীর      Suspend: গ্রেফতারির পরেই তৃণমূল থেকে ছয় বছরের জন্য সাসপেন্ড সন্দেশখালির 'বেতাজ বাদশা' শাহজাহান      Sandeshkhali: নিরাপদ সর্দারকে নিঃশর্তে জামিন দিয়ে রাজ্য পুলিসকে তিরস্কার বিচারপতির      Sheikh Shahjahan: ঘর ভাঙচুর, টাকা লুঠ! শেখ শাহজাহানের বিরুদ্ধে নতুন এফআইআর সন্দেশখালি থানায়      Sandeshkhali: অজিত মাইতিকে তাড়া গ্রামবাসীদের, সাড়ে ৪ ঘণ্টা পর অবশেষে আটক পুলিসের      Ajit Maity: উত্তপ্ত সন্দেশখালি! অজিত মাইতির গ্রেফতারির দাবিতে বিক্ষোভ মহিলাদের, বাঁচতে সিভিকের বাড়িতে আশ্রয়     

Mirzapur

Mirzapur: মুক্তি পেতে চলেছে 'মির্জাপুর থ্রি', 'রব উঠবে চারপাশে' বললেন শ্বেতা ত্রিপাঠি

ওটিটি'তে বহু আগেই মুক্তি পেয়েছে ওয়েব সিরিজ মির্জাপুরের (Mirzapur) দুটি পার্ট। দর্শক যে শুধু ওই দুটি সিজেন পছন্দ করেছে তাই-ই নয়, গোগ্রাসে গিলেছে। তাবড় অভিনেতারা অভিনয় করেছেন সিরিজে। ক্ষমতার লড়াই, রাজনীতি, বিশ্বাসঘাতকতা, পেরিয়ে মির্জাপুরের মুকুট কার মাথায় বসবে, তা দেখা যেতে পারে সিজেন-থ্রি তে। প্রথম দুটি সিরিজে দর্শকেরা টানটান ড্রামা দেখতে পেয়েছিলেন। এবারের সিজেনও কি সেই গতিধারা অব্যাহত থাকবে? তা বোঝা যাবে সিরিজ মুক্তি পেলেই। যদিও মির্জাপুর সিজেন-থ্রি (Mirzapur Season 3) মুক্তি পাওয়ার আগেই এই বিষয়ে কথা বললেন সিজের অভিনেত্রী শ্বেতা ত্রিপাঠি (Shweta Tripathi)।

এর আগের দুটি সিজনে অভিনয়ের জন্য প্রশংসা পেয়েছিলেন শ্বেতা ত্রিপাঠি। 'মাসান'র মতো সিনেমা ও একাধিক সিরিজ করেছেন, তবে মির্জাপুর তাঁর কেরিয়ার জীবনের মাইলফলক হয়ে গিয়েছে। পরের সিজনেও রয়েছেন অভিনেত্রী, 'গোলু' অর্থাৎ গজগমিনী গুপ্ত চরিত্রে। তাঁকে এইবার দেখা যাবে রণরঙ্গিনী রূপে। কাছের মানুষকে হারিয়ে কতটা বদলেছে গোলুর জীবন? মির্জাপুরের মসনদের তাজ কি তাঁর মাথাতেও উঠবে? বিগত সিজনের চরিত্রওগুলির সঙ্গে তাঁর চরিত্রের রসায়ন কতটা বদলাবে? জানা যাবে পরের সিজনে।

যদিও সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে শ্বেতা সিজন-থ্রি এর খানিকটা আভাস দিয়েছেন। অভিনেত্রী বলেছেন, মির্জাপুরের তৃতীয় সিজন চারদিকে শোরগোল ফেলে দেবে। বাস্তবে মির্জাপুরের সহ-অভিনেতাদের কেমন সম্পর্ক? অভিনেত্রী জানিয়েছেন, সিজনের প্রত্যেক সহকর্মীর সঙ্গে তাঁর নিবিড় সম্পর্ক গড়ে উঠেছে। তাঁরা প্রত্যেকেই শ্বেতার জীবনে মণিমাণিক্য হয়ে উঠেছে। তাবড় অভিনেতারা রয়েছেন সিজনে, গল্পও জমাটি, তাই মির্জাপুর সিজন-থ্রি নিয়ে আশাবাদী শ্বেতা।

11 months ago
Farhan Akhtar: দীর্ঘ সময় কাজ করিয়ে বেতন না দেওয়ার গুরুতর অভিযোগে বিদ্ধ ফারহান আখতার

বিতর্কের মুখে ফারহান আখতার (Farhan Akhtar) এবং রিতেশ সিধওয়ানির (Ritesh Sidhwani) প্রযোজনা সংস্থা এক্সেল এন্টারটেইনমেন্ট। তাঁদের প্রযোজনা সংস্থার বিরুদ্ধে বকেয়া টাকা পরিশোধ না করার অভিযোগ উঠেছে। বিষয়টা কী? তাঁদের জনপ্রিয় শো ‘মির্জাপুর ৩’(Mirzapur 3)-এ কাজ চলছে। সেখানে যাঁরা দৈনিক মজুরি কর্মী হিসেবে কাজ করছেন, তাঁদের ২০-২৫ লক্ষ টাকা পরিশোধ না করার অভিযোগ রয়েছে এই দুজনের বিরুদ্ধে।

ফিল্ম স্টুডিও সেটিং অ্যান্ড অ্যালাইড মজদুর ইউনিয়ন (FSSAMU) দাবি করেছে যে প্রোডাকশন হাউস শ্রমিকদের ক্রমাগত নিয়োগ অব্যাহত রেখেছে। কিন্তু চলতি বছর মে মাস থেকে কোনও মজুরি দেওয়া হয়নি।

ফারহান এবং রিতেশের প্রযোজনা সংস্থাকে অভিযুক্ত করে এফএসএসএএমইউ-এর চিঠিতে বলা হয়েছে, 'শ্রমিকদের শ্রম আইনের বিধান অনুসারে অনুমোদিত সীমার বাইরে বর্ধিত ঘন্টার জন্য কাজ করতে বাধ্য করা হয়েছিল।' এফএসএসএএমইউ-এর সাধারণ সম্পাদক গঙ্গেশ্বরলাল শ্রীবাস্তব দাবি করেছেন যে, তাঁরা এই চিঠিটি প্রকাশ্যে আনার পরে, প্রোডাকশন হাউস ৪৮ ঘন্টার মধ্যে বকেয়া নিষ্পত্তি করার কথা জানিয়েছে।

এছাড়াও ওই চিঠিতে অভিযোগ করা হয়েছে যে, কর্মীদের ভাল মানের খাবার বা বসার জায়গা কিছুই দেওয়া হয়নি। ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদকের দাবি, 'এই অভিযোগের কথা জানিয়ে তাঁরা ইতিমধ্যেই এক্সেল এন্টারটেনমেন্টকে তিনটি চিঠি পাঠিয়েছেন।' তিনি আরও বলেন, 'মে মাস থেকে 'মির্জাপুর ৩' সেটে ৩০০ মজুরি শ্রমিক কাজ করছেন এবং তিন মাসের বেশি সময় হয়ে গেলেও কোনও বেতন পাননি।' অভিযোগ, 'সংস্থার তরফে চিঠির কোনও উত্তর দেওয়া হয়নি। তবে মিডিয়ায় খবর ছড়িয়ে পড়তেই সংস্থার তরফে যোগাযোগ করা হয় ও আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে সমস্ত বাকি বেতন মেটানোর প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে।'

অন্যদিকে 'এক্সেল এন্টারটেনমেন্ট'-এর তরফে বলা হয়েছে যে, 'ইউনিয়নের পক্ষ থেকে উত্থাপিত এমন অভিযোগের বিষয়ে এই প্রথম আমাদের সচেতন করা হচ্ছে। তবে বলে রাখি যে FSSAMU-র তরফে কোনও চিঠি, ই-মেল বা ফোন কল পায়নি। এক্সেলের বর্তমানে সাত থেকে আটটি প্রজেক্ট রয়েছে এবং এইগুলির কোনওটিতেই বেতন সংক্রান্ত কোনও সমস্যা নেই। বিগত ২২ বছর ধরে আমরা ব্যবসায় আছি, আমরা কখনও এমন অভিযোগ পাইনি।'

2 years ago