Breaking News
Modi: 'রামমোহনের আত্মা সন্দেশখালির মহিলাদের দুর্দশায় কাঁদছে', আরামবাগ থেকে মমতাকে তোপ মোদীর      Suspend: গ্রেফতারির পরেই তৃণমূল থেকে ছয় বছরের জন্য সাসপেন্ড সন্দেশখালির 'বেতাজ বাদশা' শাহজাহান      Sandeshkhali: নিরাপদ সর্দারকে নিঃশর্তে জামিন দিয়ে রাজ্য পুলিসকে তিরস্কার বিচারপতির      Sheikh Shahjahan: ঘর ভাঙচুর, টাকা লুঠ! শেখ শাহজাহানের বিরুদ্ধে নতুন এফআইআর সন্দেশখালি থানায়      Sandeshkhali: অজিত মাইতিকে তাড়া গ্রামবাসীদের, সাড়ে ৪ ঘণ্টা পর অবশেষে আটক পুলিসের      Ajit Maity: উত্তপ্ত সন্দেশখালি! অজিত মাইতির গ্রেফতারির দাবিতে বিক্ষোভ মহিলাদের, বাঁচতে সিভিকের বাড়িতে আশ্রয়      Sandeshkhali: সন্দেশখালি ঢুকতে বাধা, ভোজেরহাটেই দিল্লির ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং টিমকে আটকাল পুলিস      Sandeshkhali: একই যাত্রায় পৃথক ফল! ১৪৪ যুক্ত এলাকায় নির্বিঘ্নে ঘুরছেন পার্থ-সুজিত, বাধাপ্রাপ্ত মীনাক্ষী      Sandeshkhali: ভোটের আগে উত্তপ্ত সন্দেশখালি, বিশেষ নজর নির্বাচন কমিশনের      Sukanta Majumdar: সন্দেশখালি থানার সামনে অবস্থান, 'গ্রেফতার' সুকান্ত মজুমদার...     

MarcedesBenz

Noida: বকেয়া নিয়ে বচসা, রাগে মালিকের মার্সিডিজ পুড়িয়ে দিলেন রাজমিস্ত্রি

রাগ! আর তার ফলাফল যে কোটি টাকার মার্সিডিজে আগুন তা হয়ত ভাবতেও পারেননি গাড়ির মালিক। আগুন (Fire) লাগানোর অভিযোগে গ্রেফতার (Arrested) করা হল রণবীর নামে এক রাজমিস্ত্রিকে। ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার, নয়ডার (Noida) সেক্টর ৪৫-এ। অভিযোগ, ওই এলাকায় এক বাংলোর বাইরে রাখা মার্সিডিজ গাড়িতে (mercedes car) আগুন ধরিয়ে দেন অভিযুক্ত রাজমিস্ত্রি। গোটা বিষয়টি ধরা পড়েছে বাংলোর বাইরে থাকা সিসি টিভিতে (CCTV)। জানা গিয়েছে পারিশ্রমিক সংক্রান্ত বিবাদের জেরে এই ঘটনা ঘটান রণবীর।

ভাইরাল এক ভিডিওতে দেখা গিয়েছে, অভিযুক্ত রণবীর মাথায় হেলমেট পরে একটি মোটরসাইকেলের পাশে দাঁড়িয়ে রয়েছেন। এরপর তিনি অপেক্ষা করতে থাকেন রাস্তাঘাটে লোক কমার। কিছুক্ষণ পর সুযোগ পেয়ে ওই গাড়িতে পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন। এর পরই বাইকে চেপে ঘটনাস্থল ছেড়ে পালান তিনি।

স্থানীয় মানুষরা আগুন দেখতে পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে গাড়ির মালিককে খবর দেন। মালিক বাড়ির বাইরে আসতে আসতে গাড়িটির যা ক্ষতি হওয়ার হয়ে গিয়েছে। লক্ষাধিক টাকা লোকসান হয় তাঁর। এরপর থানার দারস্থ হন মালিক। অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তে নেমে গ্রেফতার করে অভিযুক্ত রণবীরকে।

পুলিস সূত্রে জানা গিয়েছে অভিযুক্ত রাজমিস্ত্রি জিজ্ঞাসাবাদে বলেন, ওই মার্সিডিজ গাড়ির মালিক ২০১৯-২০ সালে তাঁকে দিয়ে বাড়িতে টাইলস্‌-এর কাজ করিয়েছিলেন। কিন্তু কাজ শেষ হওয়ার পর রণবীরকে বকেয়া ২ লক্ষ টাকা দিতে রাজি হয়নি। আর তাই তিনি রেগে গিয়ে ওই কাণ্ড ঘটান।

গাড়ির মালিক অবশ্য বকেয়া টাকা না মেটানোর অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। গাড়ির মালিকের দাবি, তিনি গত ১০ বছর ধরে অভিযুক্তকে রণবীরকে দিয়েই বাড়ির কাজ করাতেন। গত দু’বছর ধরে অন্য রাজমিস্ত্রিকে দিয়ে কাজ করানোর জন্যই রণবীর রেগে গিয়ে এই কাণ্ড ঘটিয়েছেন বলে তাঁর দাবি।

one year ago