Breaking News
Abhishek Banerjee: বিজেপি নেত্রীকে নিয়ে ‘আপত্তিকর’ মন্তব্যের অভিযোগ, প্রশাসনিক পদক্ষেপের দাবি জাতীয় মহিলা কমিশনের      Convocation: যাদবপুরের পর এবার রাষ্ট্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়, সমাবর্তনে স্থগিতাদেশ রাজভবনের      Sandeshkhali: স্ত্রীকে কাঁদতে দেখে কান্নায় ভেঙে পড়লেন 'সন্দেশখালির বাঘ'...      High Court: নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় প্রায় ২৬ হাজার চাকরি বাতিল, সুদ সহ বেতন ফেরতের নির্দেশ হাইকোর্টের      Sandeshkhali: সন্দেশখালিতে জমি দখল তদন্তে সক্রিয় সিবিআই, বয়ান রেকর্ড অভিযোগকারীদের      CBI: শাহজাহান বাহিনীর বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ! তদন্তে সিবিআই      Vote: জীবিত অথচ ভোটার তালিকায় মৃত! ভোটাধিকার থেকে বঞ্চিত ধূপগুড়ির ১২ জন ভোটার      ED: মিলে গেল কালীঘাটের কাকুর কণ্ঠস্বর, শ্রীঘই হাইকোর্টে রিপোর্ট পেশ ইডির      Ram Navami: রামনবমীর আনন্দে মেতেছে অযোধ্যা, রামলালার কপালে প্রথম সূর্যতিলক      Train: দমদমে ২১ দিনের ট্রাফিক ব্লক, বাতিল একগুচ্ছ ট্রেন, প্রভাবিত কোন কোন রুট?     

LSG

IPL: বিদায় ব্যাঙ্গালোরের, প্লে অফ খেলবে মুম্বই, জানুন প্লেঅফের সমীকরণ ও সময়সূচি

ঠিক হয়ে গেল আইপিএলের (IPL) প্লে-অফের লাইনআপ। নিয়ম অনুযায়ী, একের প্রতিপক্ষ দুই। তিনের প্রতিপক্ষ চার। সেইমতো, গুজরাত খেলবে চেন্নাইয়ের বিরুদ্ধে। লখনউ খেলবে মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার ২৩ মে মুখোমুখি হবে গুজরাত ও চেন্নাই। এই ম্যাচ যে জিতবে, তারাই সরাসরি চলে যাবে ফাইনালে। বুধবার ২৪ তারিখ চিপকেই মুখোমুখি হবে লখনউ এবং মুম্বই। এই ম্যাচে যারা হারবে, তারা সরাসরি ছিটকে যাবে টুর্নামেন্ট থেকে। শুক্রবার ২৬ তারিখ প্রথম ম্যাচের পরাজিত দল এবং দ্বিতীয় ম্যাচের জয়ী দল মুখোমুখি হবে। এই ম্যাচ থেকে যারা জিতবে, তারা ফাইনালে উঠবে। আক্ষরিক ভাবে রবিবার আইপিএল ফাইনালের আগে শুক্রবার হতে চলেছে আইপিএলের আসল সেমিফাইনাল। 

এই আইপিএলে ২০ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে থেকেই প্লে-অফে উঠেছে গতবারের চ্যাম্পিয়ন গুজরাত। ১৭ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় এবং তৃতীয় দল হিসাবে প্লে-অফ খেলবে চার বারের চ্যাম্পিয়ন চেন্নাই ও লখনউ সুপার জায়েন্টস। আরসিবির হারে বরাত খুলেছে গত পাঁচ বারের চ্যাম্পিয়ন মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের। ১৬ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থ দল হিসাবে তারা প্লে-অফ খেলার যোগ্যতা পেয়েছে। 

এখনও পর্যন্ত এই আইপিএলে ১৪ ম্যাচ খেলে অরেঞ্জ ক্যাপ নিজের মাথায় রেখেছেন আরসিবি অধিনায়ক ফাপ ডুপ্লেসি। তিনি রান করেছেন ৭৩০।  দু নম্বরে গুজরাতের শুভমন গিল এবং তিন নম্বরে আরসিবির বিরাট কোহলি। তাঁদের রান ৬৮০ এবং ৬৩৯।  ২৪ উইকেট নিয়ে পার্পেল ক্যাম্প গুজরাতের মহম্মদ সামির মাথায়। সমসংখ্যক উইকেট নিয়ে দ্বিতীয় গুজরাতের রশিদ খান। ২১ উইকেট নিয়ে তৃতীয় টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে যাওয়া গতবারের রানার্স রাজস্থানের যজুবেন্দ্র চাহাল।

one year ago
KKR: আইপিএলের মহারণ ইডেনে, আজ যেন কলকাতা বনাম কলকাতা

আইপিএলের (IPL) মহারণ আজ কলকাতায় (Kolkata)। কলকাতার ইডেনে যেন আজ মুখোমুখি হবে কলকাতা বনাম কলকাতা। একদিকে যখন ইডেনে খেলতে নামছে কলকাতা, তখন অন্যদিকে মোহনবাগানের জার্সি পড়ে খেলতে নামবে গোয়েঙ্কার দল লখনউ সুপার জায়ান্টস (LSG)। আজকের খেলার গুরুত্ব দুদলের কাছেই গুরুত্বপূর্ণ। আইপিএলের প্লে-অফের লড়াইয়ে এখনও খাতায় কলমে টিকে রয়েছে কলকাতা নাইট রাইডার্স।

কিন্তু সামনে অঙ্কটা খুব কঠিন। শুধু নিজেদের শেষ ম্যাচে লখনউ সুপার জায়ান্টসকে হারালেই চলবে না, তার পরেও তাকিয়ে থাকতে হবে বাকি ম্যাচের দিকে। আবার লখনউকে শুধু হারালে হবে না, বড় ব্যবধানে হারাতে হবে। তবে হার-জিত তো পরের কথা, টসের উপরই কলকাতার প্লে-অফ ভাগ্য নির্ভর করছে।

আইপিএলের পয়েন্ট তালিকায় নজর রাখলে দেখা যাবে আরসিবি, মুম্বই ইন্ডিয়ান্স ও রাজস্থান রয়্যালসের পয়েন্ট ১৪। আরসিবি ও মুম্বইয়ের একটি করে ম্যাচ বাকি। কলকাতা শনিবার জিতলে তাদেরও পয়েন্ট হবে ১৪। আরসিবি ও মুম্বই পয়েন্ট নষ্ট করলে তখন একটা সুযোগ আসবে কেকেআরের সামনে।

one year ago
LSG: মোহনবাগানের জার্সি গায়ে খেলবে লখনউ, উদ্বোধন হল জার্সির

বৃহস্পতিবার লখনউ সুপার জায়ান্টের (LSG) নতুন জার্সি (Jersey) উদ্বোধন করলেন লখনউ কতৃপক্ষ। এবার যেন একই মঞ্চে আইপিএল (IPL) ও আইএসএল (ISL)। এই প্রথম কোনও ভারতীয় ফুটবল ক্লাবের জার্সি পরে মাঠে নামবে কোনও আইপিএল দল। এবার আইএসএলে নতুন নামে আত্মপ্রকাশ করবে মোহনবাগান। বুধবার সবুজ-মেরুন ক্লাবের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ১ জুন থেকে আনুষ্ঠানিক ভাবে আত্মপ্রকাশ করবে মোহনবাগান সুপার জায়ান্টস। 

শনিবার ইডেন গার্ডেন্সে কেকেআরের বিরুদ্ধে মোহনবাগান সুপার জায়ান্টসের জার্সি পরে খেলতে নামছে লখনউ সুপার জায়ান্টস। বৃহস্পতিবার কলকাতায় সেই নতুন জার্সির উদ্বোধন করল লখনউ টিম ম্যানেজমেন্ট। আগেই ঠিক ছিল, ইডেনে কলকাতার বিরুদ্ধে এই জার্সি পরে মাঠে নামবে লখনউ। সেই জার্সিরই আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করল লখনউ টিম।

one year ago


MI: মুম্বইয়ের হারে ফিকে হচ্ছে কেকেআরের প্লে-অফ, লখনউয়ের কাছে নাটকীয় হার মুম্বইয়ের

আইপিএলের (IPL) শেষ লড়াই। মুহূর্তে পাল্টে যাচ্ছে পরিস্থিতি। মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের (MI) বিরুদ্ধে নাটকীয় জয় পেল লখনউ সুপার জায়ান্টস (LSG)। পয়েন্ট টেবিলে ৩ নম্বরে উঠে গেল তাঁরা। যার ফলে অনেকটাই ফিকে হয়ে গেল কেকেআরের প্লে-অফে ওঠার স্বপ্ন।

লখনউর বিরুদ্ধে হেরে ১৪ পয়েন্টেই আটকে মুম্বই। শেষ ম্যাচে প্রতিপক্ষ সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। শনিবার লখনউর বিরুদ্ধে শুধু জিতলেই হবে না, বড় ব্যবধানে জিততে হবে কলকাতাকে। পাশাপাশি মুম্বইয়ের হারের দিকেও নজর থাকবে কলকাতার। পঞ্জাব ও রাজস্থান ম্যাচের উপরেও নির্ভর করতে হবে কলকাতাকে। রাজস্থান অল্প ব্যবধানে জিতলে সুযোগ থাকবে কলকাতার।

সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে নামবে আরসিবি। সানরাইজার্স আগেই ছিটকে গিয়েছে। আরসিবি হারলে, সুবিধা পাবে কলকাতা। বেঙ্গালুরু সব ম্যাচ জিতলে কেকেআরের প্লে-অফে ওঠার কোনও সুযোগই থাকবে না।

one year ago
LSG: হায়দরাবাদকে হারিয়ে প্লেঅফের দৌড়ে এগিয়ে গেল লখনউ, আশাহত হায়দরাবাদ

লখনউয়ের (LSG) কাছে হেরে প্লে অফের দৌড় থেকে বিদায় সানরাইজার্স হায়দরাবাদ (SRH)। হায়দরাবাদের ৭ উইকেটে হারিয়ে প্লে অফের (Play Off) দিকে আরও একধাপ এগিয়ে গেল লখনউ সুপার জায়ান্টস। প্রথমে ব্যাট করে ২০ ওভারে ১৮২/‌৬ তুলেছিল হায়দরাবাদ। জবাবে ৪ বল বাকি থাকতে ১৮৫/‌৩ তু্লে ম্যাচ জিতে নেয় লখনউ।

প্লে অফের স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখার লক্ষ্যে এদিন ঘরের মাঠে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন সানরাইজার্স হায়দরাবাদ অধিনায়ক এইডেন মার্করাম। এদিনও হায়দরাবাদের ওপেনিং জুটি বড় রান করতে ব্যর্থ। তৃতীয় ওরেই অভিষেক শর্মাকে (‌৫ বলে ৭)‌ তুলে নেন যুধবীর সিং। যদিও রানের গতি কমেনি সানরাইজার্স হায়দরাবাদের। ষষ্ঠ ওভারে আবার ধাক্কা। রাহুল ত্রিপাঠিকে (‌১৩ বলে ২০)‌ ফেরান যশ ঠাকুর। এরপর আনমোলপ্রীতকে তুলে নেন অমিত মিশ্র। ২৭ বলে ৩৬ রান করে অমিতের হাতেই ক্যাচ দিয়ে আউট হন আনমোলপ্রীত।

এরপর হায়দরাবাদকে টানেন অধিনায়ক এইডেন মার্করাম ও হেনরিক ক্লাসেন। ১৩ তম ওভারের প্রথম বলেই লখনউ অধিনায়ক ক্রূণাল পান্ডিয়া মার্করামকে তুলে নেন। ২০ বলে ২৮ রান করে আউট হন মার্করাম। পরে বলেই গ্লেন ফিলিপসকে (‌০)‌ ফেরান। এরপর ক্রিজে নেমে ঝড় তোলেন আব্দুল সামাদ। অন্যপ্রান্তে, হেনকির ক্লাসেনও আক্রমণাত্মক মেজাজে ব্যাট করতে থাকেন। এই দুজনের সৌজন্যেই বড় রান তোলে হায়দরাবাদ। নির্ধারিত ২০ ওভারে তারা সংগ্রহ করে ১৮২/‌৬। ২৯ বলে ৪৭ রান করে আউট হন ক্লাসেন। ২৫ বলে ৩৭ রান করে অপরাজিত থাকেন আব্দুল সামাদ। ২৪ রানে ২ উইকেট নেন ক্রূণাল পান্ডিয়া।

জয়ের জন্য ১৮৩ রানের লক্ষ্য নিয়ে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভাল হয়নি লখনউ সুপার জায়ান্টসের। চতুর্থ ওভারের দ্বিতীয় বলে ১২ রান ওঠার ফাঁকেই হারাতে হয় কাইল মেয়ার্সের (‌২)‌ উইকেট। প্রাথমিক ধাক্কা সামলে হলকে এগিয়ে নিয়ে যান কুইন্টন ডিকক ও প্রেরক মানকড়। ১৯ বলে ২৯ রান করে মায়াঙ্ক মারকান্ডের বলে আউট হল ডিকক। এরপর লখনউকে টানেন প্রেরক ও মার্কাস স্টয়নিস। দুজনের জুটিতে ওঠে ৭৩ রান। ১৬ ওভারের তৃতীয় বলে স্টয়নিসকে তুলে নিয়ে জুটি ভাঙেন অভিষেক শর্মা। ২৫ বলে ৪০ রান করে আউট হন স্টয়নিস।

স্টয়নিস যখন আউট হন জয়ের জন্য লখনউর ২৭ বলে দরকার ছিল ৫৬ রান। ক্রিজে নেমে ঝড় তুলে দলকে জয় এনে দেন নিকোলাস পুরান। ৪ বল বাকি থাকতে ১৮৫/‌৩ রান তুলে প্লে অফের লড়াইয়ে দারুণভাবে ঢুকে পড়ল লখনউ সুপার জায়ান্টস। ১৩ বলে ৪৪ রান করে অপরাজিত থাকেন নিকোলাস পুরান। মারেন ৩টি ৪ ও ৪টি ৬। অন্যদিকে ৪৫ বলে ৬৪ রান করে অপরাজিত থাকেন প্রেরক মানকড়।

one year ago


SRH: ঘরের মাঠে বড় রান করতে ব্যর্থ হায়দরাবাদ, লখনউয়ের সামনে টার্গেট ১৮৩ রানের

ঘরের মাঠে আইপিএলের (IPL) ম্যাচে বড় রান করতে ব্যর্থ হায়দরাবাদ (SRH)। শনিবার টস জিতে ব্যাট করতে নেমে লখনউয়ের (LSG) বিরুদ্ধে খুব দ্রুত উইকেট হারায় হায়দরাবাদ দল। আনমোলপ্রীতের সঙ্গে জমল না অভিষেক শর্মার ওপেনিং জুটি। মাঝের সময়ে টানলেন রাহুল ত্রিপাঠি এবং ক্লাসেন। ২৯ বলে ৪৭ রান করে আউট হন ক্লাসেন। ম্যাচে দুটি উইকেট লখনউয়ের অধিনায়ক ক্রুণাল পাণ্ডিয়ার। 

রাজীব গান্ধী স্টেডিয়ামে মনে করা হয়েছিল প্রথম ব্যাট করার সুযোগ তুলবেন হায়দরাবাদের ব্যাটাররা। কিন্তু ১৯ রানে প্রথম উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় দক্ষিণের এই দল। আনমোলপ্রীত এবং রাহুল মিলে দলের ভিত মজবুতের কাজ শুরু করেন। কিন্তু ১১৫ রানের মধ্যে পাঁচ উইকেট হারিয়ে ছন্দ হারায় হায়দরাবাদ। 

শেষ পর্যন্ত ক্লাসেনের ব্যাটে ৬ উইকেটে ১৮২ রান করে হায়দরাবাদ। ২৪ রান দিয়ে দুই উইকেট নেন লখনউয়ের অধিনায়ক ক্রুণাল পান্ডিয়া।

one year ago
CSK: ঘূর্ণির দাপট জলে গেল চেন্নাইয়ের, বৃষ্টির জলে পয়েন্ট ভাই চেন্নাই-লখনউয়ের

চেন্নাইয়ের (CSK) স্পিনের (Spin) দাপট দেখল গম্ভীরের লখনউ (LSG)। জাদেজার বলে চমকে গিয়েছিল মার্কাস স্টোইনিস। হিসেবে করলে ওইটি আইপিএলের সেরা বল। লেগ স্টাম্পের বাইরে পড়ে স্টোইনিসের ব্যাটের পাশ দিয়ে অফ স্টাম্পে গিয়ে বল লাগল। সঙ্গে সঙ্গে চমকে যায় মার্কাস স্টোইনিস। উইকেটে ঘূর্ণি রয়েছে বুঝতে পেরে পাওয়ার প্লে-তেই স্পিনারদের বলে আনেন ধোনি। চেন্নাইয়ের তিন স্পিনার মইন আলি, মাহেশ থিকশানা ও রবীন্দ্র জাডেজা নিজেদের কাজটা করলেন। কাইল মেয়ার্সকে ফেরালেন মইন। এক ওভারে মনন ভোরা ও অধিনায়ক ক্রুণাল পাণ্ড্যকে আউট করলেন থিকশানা। যদিও সমস্ত দাপট হজলে গেল চেন্নাইয়ের। বরুণদেবের হাতে পয়েন্ট খোয়াতে হল মহেন্দ্র সিংহ ধোনির চেন্নাই সুপার কিংসকে।

সুযোগ ছিল লখনউ সুপার জায়ান্টসকে তাদের ঘরের মাঠে হারিয়ে ২ পয়েন্ট পেয়ে পয়েন্ট তালিকায় সবার উপরে যাওয়ার। বৃষ্টির কারণে একটি ইনিংসই পুরো হল না। তার ফলে ১ পয়েন্ট নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হল ধোনিদের। ১ পয়েন্ট পেল লখনউ সুপার জায়ান্টসও। অ্যাওয়ে ম্যাচে টসে জিতে প্রথমে বল করার সিদ্ধান্ত নেন মহেন্দ্র সিংহ ধোনি। তাঁর সিদ্ধান্তকে সঠিক প্রমাণিত করেন দলের বোলাররা। প্রথম থেকেই নিয়ন্ত্রিত বোলিং চেন্নাইয়ের পেসারদের। ফলে হাত খুলে খেলতে পারছিলেন না লখনউয়ের ব্যাটাররা।

৫ উইকেট পড়ার পরে নিকোলাস পুরান ও আয়ুষ বাদোনি কিছুটা জুটি বাঁধেন। এই দুই ব্যাটার না থাকলে আরও সমস্যায় পড়ত লখনউ। শেষ দিকে কয়েকটি বড় শট খেললেন তাঁরা। দলের রান ১০০ পার হওয়ার পরে আউট হন পুরান। বাদোনি তখনও উইকেটে ছিলেন। গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস খেললেন তিনি। মাত্র ৩০ বলে অর্ধশতরান করেন তিনি। লখনউয়ের যখন ১৯.২ ওভারে ৭ উইকেটে ১২৫ রান তখনই বৃষ্টি নামে। তার পরে অনেক চেষ্টা করেও আর খেলা শুরু করা যায়নি। অনেক ক্ষণ অপেক্ষার পরে খেলা পরিত্যক্ত ঘোষণা করে দেন আম্পায়াররা।

one year ago
RCB:চোট পেয়ে বাইরেই থাকতে হলো রাহুলকে, বিরাটদের বিরুদ্ধে লজ্জার হার লখনউয়ের

মহেন্দ্র সিং ধোনির জন্য বদলে গিয়েছিল ইডেনের রং। কেকেআরের সোনালি-বেগুনি নয়, ক্রিকেটের নন্দনকানন মুড়ে গিয়েছিল হলুদে। সোম-সন্ধেয় খানিকটা তেমনই ছবি ধরা পড়ে লখনউয়ে। কেএল রাহুলদের (KL Rahul) ঘরের মাঠে থেকে থেকেই ‘কোহলি… কোহলি’ চিৎকার। গ্যালারির অনেকটা অংশ দখল করেছিলেন আরসিবি (RCB) সমর্থকরা। আর তাঁদের সামনেই ২২ গজের দখল নেন আরসিবি বোলাররা। সিরাজ, কর্ণ শর্মাদের দাপুটে বোলিংয়েই জয়ে ফিরলেন বিরাট কোহলিরা (Virat Kohli)। কিন্তু শুধু হার নয়, উলটো দিকের শিবিরে চিন্তা বাড়ল অধিনায়ক রাহুলকে নিয়েও।

ম্যাচের শুরুর দিকেই চোট পেয়ে ফিজিওদের কাঁধে ভর দিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় রাহুলের। আরসিবির ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে ফিল্ডিংয়ের সময় ডু প্লেসির বাউন্ডারি আটকাতে গিয়েই চোট পান রাহুল। থাই মাসলে চোট পেয়ে একেবারে মাঠে শুয়েই পড়েন তিনি। মাঠ ছাড়ার সময়ও তাঁর চোখে-মুখে স্পষ্ট যন্ত্রণার ছাপ। গ্যালারিতে উদ্বিগ্ন দেখায় স্ত্রী আথিয়া শেট্টিকেও। চিন্তার ভাঁজ পড়ে ফ্র্যাঞ্চাইজির কর্ণধার সঞ্জীব গোয়েঙ্কার কপালেও। রাহুল মাঠ ছাড়ায় ক্রুণাল পাণ্ডিয়ার নেতৃত্বে খেলে দল। যদিও প্রবল ইচ্ছাশক্তিতে ভর করে শেষ উইকেটে ব্যাট হাতে মাঠেও নামেন রাহুল। যদিও তিন বল খেলে খাতা খোলার আগেই শেষ হয় ম্যাচ। তাঁর চোট কতখানি গুরুতর, তা এখনও স্পষ্ট করে জানানো হয়নি

লখনউয়ের আউটফিল্ড এমনিতেই তুলনামূলক স্লো। তার উপর আরসিবি ইনিংসের মাঝে এক পশলা বৃষ্টিও হয়। আবার ওপেনিংয়ে নেই রাহুলও। ফলে ব্য়াঙ্গালোর স্কোরবোর্ডে বিরাট রান তুলতে না পারলেও লখনউর কাছে সব মিলিয়ে টার্গেটে পৌঁছনোর কাজটা কঠিন হয়ে পড়ে। হ্যাজলউড, ম্যাক্সওয়েলদের সুইংয়ে ক্রিজে দাঁড়াতে পারেননি ক্রুণাল, দীপক হুডা, স্টয়নিসরা।

লখনউ হারলেও রবি বিষ্ণোইয়ের দুরন্ত বোলিংয়ের প্রশংসা করতেই হয়। কোহলি এবং ম্যাক্সওয়েলের (৪) মূল্যবান উইকেট তুলে নিয়ে আরসিবিকে জোর ধাক্কা দেন তিনি। কার্যত একাই লড়াই চালান অধিনায়ক ডু প্লেসি। তবে মিডল অর্ডারের লাগাতার ব্যর্থতার দুশ্চিন্তা এই জয়ের পরও কাটল না আরসিবির।

one year ago


Fight: ম্যাচ শেষে রক্তচক্ষু দেখিয়ে বাড়ল ক্ষত, আচরণের জন্য শাস্তি গম্ভীর-বিরাট জুটির

ঔদ্ধত্য,লড়াই, আর শক্তি প্রদর্শন এগুলো অবশ্য ক্রিকেটের (Cricket) অঙ্গ নয়। কিন্তু কখনও কোনো আগ্রাসন যে কখন দুপক্ষের লড়াইয়ের উৎপত্তি ঘটিয়ে দেয় সেটা সময়ও বলতে পারে না। লড়াই যেন রয়েই গেল। বরং যার মাত্রা বেড়ে গেল বহুগুণ। সোমবার আইপিএলে (IPL) যা ঘটল ব্যাঙ্গালোর (RCB) আর লখনউয়ের (LSG) ম্যাচে তা মনে থাকবে ক্রিকেট বিশ্বের।

কী ঘটেছিল সোমবার? ম্যাচ শেষে দু’দলের ক্রিকেটারদের হাত মেলানোর সময়। ম্যাচ চলাকালীন লখনউয়ের একটা করে উইকেট পড়ার পরে নিজের স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে উল্লাস করছিলেন কোহলি। লখনউয়ের ডাগআউটের দিকে তাকিয়ে মুখে আঙুল দিয়ে চুপ করে থাকার ভঙ্গি দেখান। স্ত্রী অনুষ্কা শর্মার দিকে চুমুও ছুড়তে দেখা যায় তাঁকে। আফগানিস্তানের ক্রিকেটার নবীন উল হক আউট হওয়ার সময়ও উত্তেজিত হয়ে উল্লাস করেন কোহলি। টুপি খুলে মাটিতে ছুড়ে ফেলেন। সেটা হয়তো ভাল ভাবে নেননি নবীন। তাই হাত মেলানোর সময় কোহলিকে কিছু একটা বলেন লখনউয়ের বিদেশি ক্রিকেটার। পাল্টা কিছু বলেন কোহলিও। তার পরেই সেখানে আসেন গম্ভীর। তিনি কোহলিকে কিছু একটা বলেন। তার পরেই বিবাদ বেড়ে যায়।

লখনউ সুপার জায়ান্টস বনাম রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের ম্যাচ মানেই বিরাট কোহলি বনাম গৌতম গম্ভীর। সোমবার ম্যাচ শেষে বচসায় জড়িয়ে পড়েন তাঁরা। শাস্তিও পেতে হল তাঁদের। বিরাট এবং গম্ভীরের পুরো ম্যাচ ফি কেটে নেওয়া হল। বাদ গেলেন না নবীন উল হকও।

পরিস্থিতি উত্তপ্ত হচ্ছে দেখে সেখানে এসে উপস্থিত হন দু’দলের বাকি ক্রিকেটার ও সাপোর্ট স্টাফরা। কোহলি ও গম্ভীর দু’জনেই দিল্লির। লখনউয়ের স্পিনার অমিত মিশ্র ও সহকারী কোচ বিজয় দাহিয়াও দিল্লির হয়ে খেলেছেন। সেই কারণে তাঁরা কোহলি, গম্ভীরকে ভাল ভাবে চেনেন। তাঁরাই বেশি উদ্যোগী হয়ে দু’জনকে আলাদা করেন। লখনউয়ের অধিনায়ক লোকেশ রাহুলও ছিলেন সেখানে। কোহলিকে সরিয়ে নিয়ে যান আরসিবির অধিনায়ক ফ্যাফ ডুপ্লেসি

one year ago
LSG:রেকর্ড হাতছাড়া লখনউয়ের, বড় রানের জবাবে লড়াই করেও হার পঞ্জাবের

শুরুটা করেছিলেন কাইল মেয়ার্স, শেষ করলেন নিকোলাস পুরান (Pooran)। মাঝে ঝড় তুললেন মার্কাস স্টোইনিস (Stoinis)। এই তিন ব্যাটারের দাপটে আইপিএলে (IPL) প্রথমে ব্যাট করে সব থেকে বেশি রান করার রেকর্ড থেকে মাত্র ৬ রান দূরে থেমে গেল লখনউ সুপার জায়ান্টস। আইপিএলের ইতিহাসে লখনউ দ্বিতীয় সর্বাধিক রান তুলল।

২০১৩ সালের স্মৃতি ফিরিয়ে এনেছিলেন মেয়ার্সরা। সে বার ক্যারিবিয়ান ওপেনার ক্রিস গেল ১৭৫ রান করেছিলেন। সেই ইনিংসের দাপটেই ২৬৩ রান তোলে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর। পুণে ওয়ারির্সের বোলারদের দিশেহারা করে দিয়েছিলেন ক্রিস গেল। শুক্রবার মেয়ার্স ২৪ বলে ৫৪ রান করেন। তিন নম্বরে নেমে আয়ুষ বাদোনি ২৪ বলে ৪৩ রান করেন। স্টোইনিস করেন ৭২ রান। পুরান অপরাজিত ১৯ বলে ৪৫ রান করেন। এই চার ব্যাটার মিলেই ২৫৭ রান তুলে দেয় মোহালির মাঠে।

পঞ্জাবের ঘরের মাঠে লখনউয়ের ব্যাটাররা ১৪টি ছক্কা মারে। রাহুল চাহার ছাড়া পঞ্জাবের কোনও বোলার ওভার প্রতি ১০ রানের কম রান দিতে পারেননি। আরশদীপ সিংহ ৪ ওভারে ৫৪ রান দিয়ে একটি উইকেট নেন। কাগিসো রাবাডা ৪ ওভারে ৫২ রান দিয়ে দু’টি উইকেট নেন। স্যাম কাড়েন তিন ওভারে ৩৮ রান দিয়ে একটি উইকেট নেন। একটি উইকেট নেন লিয়াম লিভিংস্টোন। কিন্তু তিনিও এক ওভার বলে করে ১৯ রান দিয়ে যান।

বিরাট লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে লড়াই করতে নেমে লড়াই করেছে পঞ্জাব। যদিও তাঁরা ৫৬ রানে এই ম্যাচটি হেরে গেছে।

one year ago


ipl: লখনউয়ের বিরুদ্ধে ব্যর্থ গুজরাতের ব্যাটিং, কম পুঁজিতে লড়ছেন হার্দিকরা

লখনউয়ের বিরুদ্ধে আবার ব্যাটিং ব্যর্থতার শিকার গুজরাত টাইটান্স। লখনউয়ে খেলতে নেমে বড় রান করতে পারল না তারা। হার্দিক পাণ্ড্যর অর্ধশতরান না থাকলে তাদের স্কোর একশোও পেরোত কিনা সন্দেহ। ঋদ্ধিমান সাহা এবং হার্দিক বাদে কোনও ব্যাটারই দাঁড়াতে পারলেন না। শেষ পর্যন্ত লখনউয়ের বিরুদ্ধে আগে ব্যাট করে ১৩৫-৬ তুলেছে গুজরাত।

লখনউয়ের বিরুদ্ধে শুরুতেই ধাক্কা খায় গুজরাত। দ্বিতীয় ওভারেই ফিরে যান দলের সবচেয়ে ছন্দে থাকা ক্রিকেটার শুভমন গিল। তাঁকে শূন্য রানে ফেরান ক্রুণাল পাণ্ড্য। সেখান থেকে দলের হাল ধরেন অধিনায়ক হার্দিক পাণ্ড্য এবং ঋদ্ধিমান সাহা। দু’জনে মিলে গুজরাতের রান তুলতে থাকেন।

কিন্তু লখনউয়ের পিচ খুবই ধীর গতির ছিল। যে কারণে বল ব্যাটে আসছিল দেরিতে। ফলে দ্রুত গতিতে রান তুলতে সমস্যা হচ্ছিল ঋদ্ধি এবং হার্দিকের। ঋদ্ধি তবু একটু বোলারদের উপর আক্রমণ করার চেষ্টা করছিলেন। তবু খুব বেশি আগ্রাসী ব্যাটিং দেখা যায়নি। মরসুমের প্রথম অর্ধশতরান হয়ে যেতে পারত ঋদ্ধির। অল্পের জন্য তা হয়নি। ৩৭ বলে ৪৭ রান করে ফেরেন। অফস্টাম্পের বাইরে লোপ্পা বল ফেলেছিলেন ক্রুণাল। ঋদ্ধি ছয় মারতে গিয়েছিলেন। কিন্তু শটে জোর ছিল না। লং অনে সহজ ক্যাচ নেন দীপক হুডা।

ঋদ্ধি যাওয়ার পরের ওভারেই অভিনব মনোহরকে হারায় গুজরাত। বড় রান করতে পারেননি বিজয় শঙ্করও (১০)। এই অবস্থায় দলের রান তোলার ভার নিজের কাঁধেই তুলে নেন হার্দিক। শেষের দিকের ওভারগুলিতে মারতে দেখা যায় তাঁকে। রবি বিষ্ণোইয়ের ১৮তম ওভারে ওঠে ১৯ রান। শেষ ওভারের প্রথম বলেই মার্কাস স্টোয়নিসকে ছয় মারেন হার্দিক। তবে দ্বিতীয় বলেই আউট হয়ে যান।


one year ago
Hardik: গোটা দল ব্যর্থ হলেও লখনউয়ের বিরুদ্ধে হার্দিক একাই রানমুখী

লখনউয়ের (LSG) বিরুদ্ধে আবার ব্যাটিং ব্যর্থতার শিকার গুজরাত টাইটান্স (GT)। লখনউয়ে খেলতে নেমে বড় রান করতে পারল না তারা। হার্দিক পাণ্ড্যের (Hardik Pandya) অর্ধশতরান না থাকলে তাদের স্কোর একশোও পেরোত কি না সন্দেহ। ঋদ্ধিমান সাহা এবং হার্দিক বাদে কোনও ব্যাটারই দাঁড়াতে পারলেন না। শেষ পর্যন্ত লখনউয়ের বিরুদ্ধে আগে ব্যাট করে ১৩৫-৬ তুলল গুজরাত।

লখনউয়ের বিরুদ্ধে শুরুতেই ধাক্কা খায় গুজরাত। দ্বিতীয় ওভারেই ফিরে যান দলের সবচেয়ে ছন্দে থাকা ক্রিকেটার শুভমন গিল। তাঁকে শূন্য রানে ফেরান ক্রুণাল পাণ্ড্য। সেখান থেকে দলের হাল ধরেন অধিনায়ক হার্দিক পাণ্ড্য এবং ঋদ্ধিমান সাহা। দু’জনে মিলে গুজরাতের রান তুলতে থাকেন।

কিন্তু লখনউয়ের পিচ খুবই ধীর গতির ছিল। যে কারণে বল ব্যাটে আসছিল দেরিতে। ফলে দ্রুত গতিতে রান তুলতে সমস্যা হচ্ছিল ঋদ্ধি এবং হার্দিকের। ঋদ্ধি তবু একটু বোলারদের উপর আক্রমণ করার চেষ্টা করছিলেন। তবু খুব বেশি আগ্রাসী ব্যাটিং দেখা যায়নি। মরসুমের প্রথম অর্ধশতরান হয়ে যেতে পারত ঋদ্ধির। অল্পের জন্য তা হয়নি। ৩৭ বলে ৪৭ রান করে ফেরেন। অফস্টাম্পের বাইরে লোপ্পা বল ফেলেছিলেন ক্রুণাল। ঋদ্ধি ছয় মারতে গিয়েছিলেন। কিন্তু শটে জোর ছিল না। লং অনে সহজ ক্যাচ নেন দীপক হুডা।

ঋদ্ধি যাওয়ার পরের ওভারেই অভিনব মনোহরকে হারায় গুজরাত। বড় রান করতে পারেননি বিজয় শঙ্করও (১০)। এই অবস্থায় দলের রান তোলার ভার নিজের কাঁধেই তুলে নেন হার্দিক। শেষের দিকের ওভারগুলিতে মারতে দেখা যায় তাঁকে। রবি বিষ্ণোইয়ের ১৮তম ওভারে ওঠে ১৯ রান। শেষ ওভারের প্রথম বলেই মার্কাস স্টোয়নিসকে ছয় মারেন হার্দিক। তবে দ্বিতীয় বলেই আউট হয়ে যান।


one year ago
LSG: রাজস্থানের বিজয়রথ থামিয়ে দিলো রাহুলদের লখনউ সুপার জায়ান্টস

আইপিএলের (IPL) লিগ তালিকায় শীর্ষে থাকা রাজস্থান রয়্যালসের (RR) বিরুদ্ধে জয় তুলে নিল লখনউ সুপার জায়ান্টস (LSG)। ম্যাচ ছিল এক বনাম দুইয়ের। সেই ম্যাচে শেষ পর্যন্ত জিতলেন দ্বিতীয় স্থানে থাকা লোকেশ রাহুলরাই। প্রথমে ব্যাট করে ১৫৪ রান করেছিল লখনউ। সেই রান তাড়া করতে নেমে রাজস্থান শেষ হয়ে গেল ১৪৪ রানে। লখনউয়ের ব্যাটারদের ব্যর্থতা ঢেকে দিলেন বোলাররা। অল্প রানের পুঁজি নিয়েও ম্যাচ নিল লখনউ।

টি-টোয়েন্টি ম্যাচের প্রথম ওভার মেডেন। বুধবার ট্রেন্ট বোল্ট এই ভাবেই শুরু করেন ম্যাচটি। সেই ধাক্কা পাওয়ার প্লে পর্যন্ত চলল। ৬ ওভারে মাত্র ৩৭ রান তুলল লখনউ সুপার জায়ান্টস। কোনও উইকেট না হারানোয় মনে করা হয়েছিল শেষ দিকে হয়তো বড় রান তুলবেন লোকেশ রাহুলরা। কিন্তু ৩২ বলে ৩৯ রান করা লখনউ অধিনায়ক নিজে তো পারলেনই না, তাঁর দলের কোনও ব্যাটারই সে ভাবে রান পেলেন না। ব্যতিক্রম কাইল মেয়ার্স।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ়ের ওপেনার ৪২ বলে ৫১ রান করেন। শেষ বেলায় তাঁর দেশের নিকোলাস পুরান ২০ বলে ২৯ রান করে দলের রান ১৫০ পার করেন। ১৯তম ওভারে ওয়েস্ট ইন্ডিজ়ের হোল্ডারের বিরুদ্ধে হাত খোলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ়েরই পুরান। সেই ওভারে ১৭ রান আসে। অল্প রানে লখনউকে আটকে রাখার পিছনে বড় কারণ অবশ্যই রাজস্থানের উইকেট লক্ষ্য করে বল করে যাওয়া। ফলে হাত খুলে মারতে পারছিলেন না লখনউয়ের ব্যাটাররা।

রাজস্থানের হয়ে দু’টি উইকেট নেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন। একটি করে উইকেট নেন বোল্ট, সন্দীপ শর্মা এবং জেসন হোল্ডার। কোনও উইকেট পাননি যুজবেন্দ্র চহাল। সব থেকে বেশি রানও দিয়েছেন তিনিই। লখনউয়ের হয়ে ব্যাট হাতে ব্যর্থ আয়ুশ বাদোনি (১), দীপক হুডা (২), ক্রুণাল পাণ্ড্যরা (৪)। মার্কাস স্টোইনিস ১৬ বলে ২১ রান করেন।

১৫৫ রান তাড়া করতে নেমে শুরুটা ভালই করেছিল রাজস্থান। দুই ওপেনার জস বাটলার এবং যশস্বী জয়সওয়াল ৮৭ রানের জুটি গড়েন। ৩৫ বলে ৪৪ রান করে আউট হন যশস্বী। স্টোইনিসের বলে আবেশ খানের হাতে ক্যাচ দেন তিনি। রান উঠলেও গতি খুব বেশি ছিল না। যশস্বী আউট হওয়ার পরের ওভারেই আউট হন সঞ্জু স্যামসন। মাত্র ২ রান করেন তিনি। রান আউট হয়ে যান রাজস্থানের অধিনায়ক। তার পরের ওভারে ৪১ বলে ৪০ রান করে আউট হন জস বাটলার। তাঁর উইকেটটিও নেন স্টোইনিস। আগের ম্যাচটি জেতানো শিমরন হেটমেয়ার এই ম্যাচে মাত্র ২ রান করে আউট হয়ে যান। ১০৪ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে একটু চাপে পড়ে গিয়েছিল রাজস্থান। যদিও জয়ের রাস্তা থাকা খুব দূরে সরে যায়নি তারা। দেবদত্ত পাড়িক্কল তখনও ক্রিজে থাকায় আশা ছিল সমর্থকদের।

one year ago


IPL: আইপিএলে বুধবার লখনউয়ের সামনে খেলতে নামবে রাজস্থান

একদিকে রাজস্থান রয়্যালস (Rajasthan Royals), যারা আইপিএলে (IPL) গত তিনটি ম্যাচ জিতে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে রয়েছে। আরেকদিকে লখনউ সুপার জায়ান্টস (Lucknow Super Giants), চলতি মরসুমে যাদের মধ্যে ধারাবাহিকতার অভাব রয়েছে। বুধবার এই দুই দল মুখোমুখি হওয়ার আগে তাই একটাই প্রশ্ন, রাজস্থানের জয়রথ কি থামাতে পারবে লখনউ? নাকি জিতে বাকিদের থেকে ব্যবধান আরও বাড়িয়ে নেবেন সঞ্জু স্যামসনরা?

চলতি মরসুমে তিনটি জয় এবং দু’টি হার রয়েছে লখনউয়ের। যে দু’টি ম্যাচে হারতে হয়েছে, সেখানে ছোটখাটো ভুলই পার্থক্য গড়ে দিয়েছে। আগের ম্যাচে পঞ্জাব কিংসের বিরুদ্ধে হারের পর লখনউ নেতা কেএল রাহুল জানিয়েছিলেন, ১৫-২০ রান কম তুলেছিলেন তাঁরা।

রাহুলের ছন্দে ফেরা লখনউয়ের বাড়তি শক্তি। এমনিতে তাদের ব্যাটিং বিভাগে কোনও সমস্যা নেই। কাইল মেয়ার্স ছন্দের মধ্যে রয়েছেন। দুর্দান্ত খেলছেন নিকোলাস পুরান এবং মার্কাস স্টোয়নিসও। পাওয়ার প্লে-তে মেয়ার্সের আক্রমণাত্মক ব্যাটিং নজর কেড়েছে একাধিক ম্যাচে। তবে চিন্তা রয়েছে দীপক হুডাকে। গত বারের সফল ব্যাটারের এবার রানই নেই।


পঞ্জাবের বিরুদ্ধে রবি বিষ্ণোইকে দেরিতে বল করতে এনে ভুল করেছিল লখনউ। গুগলির সাহায্যে যে কোনও ব্যাটারের ছন্দ নষ্ট করে দিতে পারেন তরুণ রবি। মাঝের ওভারে তাঁকে আনবেন ভেবেছিলেন রাহুল। কিন্তু সেই পন্থা কাজে লাগেনি। অন্য দিকে, রাজস্থানকে শক্তি জোগাচ্ছে তাদের অধিনায়ক সঞ্জুর ছন্দ। জস বাটলার, যশস্বী জয়সওয়ালও ভাল খেলছেন। আগের ম্যাচে গুজরাতকে তাদেরই মাঠে হারিয়ে এসেছে রাজস্থান। লখনউয়ের বিরুদ্ধে তারা খেলবে ঘরের মাঠে। জনসমর্থনও রয়েছে তাদের পাশে। লখনউয়ের কাছে তাই সব দিক থেকে রাজস্থানকে থামানো একটা চ্যালেঞ্জ।

one year ago
LSG: শেষ ওভারে ২ উইকেটে রুদ্ধশ্বাস জয় পঞ্জাবের

শিখর ধাওয়ানের (Sikhar Dhawan) অনুপস্থিতিতে রুদ্ধশ্বাস জয় পাঞ্জাবের (PBKS)। শনিবারের টান টান উত্তেজনার ম্যাচে প্রীতি জিন্টার পঞ্জাব কিংসকে ২ উইকেটে জয় এনে দিলেন শাহরুখ খান। শেষ পর্যন্ত লড়াই করেও হেরে গেল লোকেশ রাহুলের লখনউ সুপার জায়ান্টস (LSG)। রাহুলদের ৮ উইকেটে ১৫৯ রানের জবাবে ৩ বল বাকি থাকতে পঞ্জাব করল ৮ উইকেটে ১৬১।

পঞ্জাবের ইনিংসে বোঝা গেল অধিনায়ক শিখর ধাওয়ানের অনুপস্থিতি। চোটের জন্য তিনি শনিবারের ম্যাচ খেলতে পারেননি। পঞ্জাবকে নেতৃত্ব দিলেন স্যাম কারেন। তাতে অবশ্য জয় আটকাল না। জয়ের জন্য ১৬০ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভাল হয়নি পঞ্জাবের। ১৭ রানেই ২ উইকেট হারায় তারা। ব্যর্থ দুই ওপেনার অথর্ব তাইডে (শূন্য) এবং প্রভশিমরন সিংহ (৪)। আইপিএলে প্রথম ম্যাচ খেলতে নামা যুধবীর সিংহ দুই ওপেনারকেই আউট করে পঞ্জাবকে ধাক্কা দিলেন শুরুতেই। এর পর দলের হাল ধরেন তিন নম্বরে নামা ম্যাথু শর্ট। তিনি করলেন ২২ বলে ৩৪ রান। মারলেন ৫টি চার এবং ১টি ছক্কা। চার নম্বরে নেমে হরপ্রীত সিংহ করলেন ২২ বলে ২১। বল হাতে ৩ উইকেট নিলেও ব্যাট হাতে ব্যর্থ কারেন। ৬ বলে ৬ রান করে সাজঘরে ফিরলেন এ দিনের পঞ্জাব অধিনায়ক। পঞ্জাবকে লড়াইয়ে রাখল সিকান্দার রাজার ইনিংস। যদিও সতীর্থদের থেকে তেমন সাহায্য পেলেন না জ়িম্বাবোয়ের অলরাউন্ডার। দায়িত্ব নিয়ে ব্যাট করলেন তিনি। তাঁর ব্যাট থেকে এল ৪১ বলে ৫৭ রান। ৪টি বাউন্ডারি এবং ৩টি ছক্কা মারলেন রাজা। শেষ পর্যন্ত পঞ্জাবকে জয় এনে দিলেন শাহরুখ খান। তিনি আট নম্বরে নেমে করলেন ১০ বলে অপরাজিত ২৩ রান। মারলেন ১টি চার এবং ২টি ছয়। রাজা আউট হওয়ার পর তিনিই ছিলেন প্রীতির দলের ভরসা। দলকে হতাশ করলেন না তিনি। লখনউয়ের সফলতম বোলার রবি বিষ্ণোই ১৮ রানে ২ উইকেট নিলেন। ১৯ রানে ২ উইকেট যুধবীরের। মার্ক উড ৩৫ রান খরচ করে নিলেন ২ উইকেট। ১টি করে উইকেট পেয়েছেন কৃষ্ণাপ্পা গৌতম এবং ক্রণাল পাণ্ড্য।

শনিবার আবার চেনা ছন্দে রাহুল। তাঁর দাপুটে ব্যাটিংয়ের সুবাদে পঞ্জাব কিংসের বিরুদ্ধে আগ্রাসী মেজাজে ইনিংস শুরু করে লখনউ। অন্য ওপেনার কাইল মেয়ার্স এবং তিন নম্বরে নামা দীপক হুডা আউট হওয়ার পরেও দায়িত্ব নিয়ে খেললেন লখনউ অধিনায়ক। এ বারের আইপিএলে প্রথম অর্ধশতরান করলেন রাহুল। মূলত তাঁর ইনিংসের উপর ভর করেই পঞ্জাবের বিরুদ্ধে লখনউ লড়াই করার মতো জায়গায় পৌঁছয়। রাহুলের ব্যাট থেকে এল ৫৬ বলে ৭৪ রান। মারলেন ৮টি চার এবং ১টি ছক্কা। প্রায় শেষ পর্যন্ত দলের ইনিংসকে টানলেন তিনি।

মেয়ার্স ভাল শুরু করলেও বড় রান পেলেন না। ২৩ বলে ২৯ রান করে আউট হয়ে গেলেন হরপ্রীত ব্রার বলে। মারলেন ১টি চার এবং ৩টি ছয়। তিন নম্বরে নামা দীপক (৩ বলে ২ রান) দলকে ভরসা দিতে পারলেন না। ৬২ রানে ২ উইকেট পড়ার পর অধিনায়কের সঙ্গে দলের ইনিংস গড়ার কাজ করলেন ক্রুণাল পাণ্ড্য। তিনি মূলত উইকেটের এক দিক আগলে রাখার দায়িত্ব পালন করলেন। যদিও বড় রান করতে পারলেন না তিনি। ১৭ বলে ১৮ রান করে আউট হলেন কাগিসো রাবাডার বলে। পাঁচ নম্বরে নামা নিকোলাস পুরানকে (শূন্য) প্রথম বলেই সাজঘরে ফেরালেন রাবাডা। পর পর ২ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় লখনউ। কমে যায় রান তোলার গতি। ১১১ রানে ৪ উইকেট হারানোর পর রাহুলের সঙ্গে জুটি বাধেন অস্ট্রেলীয় অলরাউন্ডার মার্কাস স্টোইনিস। তিনিও সাফল্য পেলেন না পঞ্জাবের বিরুদ্ধে। ১১ বলে ১৫ রান করলেন তিনি। ধারাবাহিক ভাবে উইকেট হারানোয় লখনউ রান তোলার গতি কোনও সময়ই তেমন বাড়াতে পারেনি।

কারেন টস জিতে প্রথম ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেন। সাত জন বোলারকে ব্যবহার করলেন তিনি। কোনও বোলারের বিরুদ্ধে থিতু হওয়ার সুযোগ দিলেন না লখনউয়ের ব্যাটারদের। পঞ্জাবের সফলতম বোলার কারেন ৩১ রান দিয়ে ৩ উইকেট নিলেন। ৩৪ রানে ২ উইকেট রাবাডার। বাউন্ডারি লাইনে দুরন্ত ফিল্ডিং করলেন শাহরুখ। দু’টি ভাল ক্যাচ নেন তিনি।

one year ago