Breaking News
Abhishek Banerjee: বিজেপি নেত্রীকে নিয়ে ‘আপত্তিকর’ মন্তব্যের অভিযোগ, প্রশাসনিক পদক্ষেপের দাবি জাতীয় মহিলা কমিশনের      Convocation: যাদবপুরের পর এবার রাষ্ট্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়, সমাবর্তনে স্থগিতাদেশ রাজভবনের      Sandeshkhali: স্ত্রীকে কাঁদতে দেখে কান্নায় ভেঙে পড়লেন 'সন্দেশখালির বাঘ'...      High Court: নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় প্রায় ২৬ হাজার চাকরি বাতিল, সুদ সহ বেতন ফেরতের নির্দেশ হাইকোর্টের      Sandeshkhali: সন্দেশখালিতে জমি দখল তদন্তে সক্রিয় সিবিআই, বয়ান রেকর্ড অভিযোগকারীদের      CBI: শাহজাহান বাহিনীর বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ! তদন্তে সিবিআই      Vote: জীবিত অথচ ভোটার তালিকায় মৃত! ভোটাধিকার থেকে বঞ্চিত ধূপগুড়ির ১২ জন ভোটার      ED: মিলে গেল কালীঘাটের কাকুর কণ্ঠস্বর, শ্রীঘই হাইকোর্টে রিপোর্ট পেশ ইডির      Ram Navami: রামনবমীর আনন্দে মেতেছে অযোধ্যা, রামলালার কপালে প্রথম সূর্যতিলক      Train: দমদমে ২১ দিনের ট্রাফিক ব্লক, বাতিল একগুচ্ছ ট্রেন, প্রভাবিত কোন কোন রুট?     

ICS

Swasthya Sathi: স্বাস্থ্যসাথী কার্ডে আর করানো যাবে না হাড়ের চিকিৎসা, নয়া নির্দেশিকা রাজ্যের

রাজ্যের মানুষকে সঠিক ও কম খরচে চিকিৎসা প্রদানের জন্যই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্বাস্থ্য়সাথী প্রকল্পের শুরু করেছিলেন। এই স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্পের শুরু হওয়ার পর থেকেই পরিষেবা নিয়ে উঠেছে একাধিক প্রশ্ন। সামনে এসেছে  বহু অভিযোগ ,কখনও সঠিক সুবিধা দেওয়া হচ্ছে না , আবার কখনও কার্ড দেখালেও মিলছে না পরিষেবা। স্বাস্থ্যসাথী কার্ড নিয়ে তুঙ্গে চর্চা। এই পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্পে বড়সড় বদল আনল রাজ্য সরকার। স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের রেফারে এবার থেকে বেসরকারি হাসপাতালে  আর হাড়ের অস্ত্রোপচার করানো যাবে না, করাতে হবে সরকারি হাসপাতালেই। এই মর্মে রাজ্য় সরকারে তরফ থেকে একটি নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে। যেই নির্দেশিকায় উল্লেখ  করা হয়েছে রাজ্যের  হাসপাতালগুলিতে হাড়ের অস্ত্রোপচারের জন্য পরিষেবা ও পরিকাঠামো উন্নত করা হয়েছে। যা থেকে উন্নত চিকিৎসা পেতে পারেন রোগীরা। তাই হাড়ের অস্ত্রোপচারের  জন্য আর বাইরে রেফার না। তবে যদি জরুরী অবস্থার দেখা যায় ,যেখানে আরও উন্নত চিকিৎসার প্রয়োজন সেখানে,সরকারি রেফার এর প্রটোকল মেনে কাজ করতে হবে।

পাশাপাশি এই নির্দেশিকতাতে আরও বলা হয় যদি কোন ক্ষেত্রে দেখা যায়,কোনও ধরনের প্রয়োজন ছাড়াই হাড় এর চিকিৎসার ক্ষেত্রে রেফার করা হয়েছে।সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসার উপযোগী সেই রোগী তবে সেক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট চিকিৎসক এবং নার্সিং স্টাফ এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। রাজ্যের সমস্ত সরকারি হাসপাতালে অবিলম্বে এই নির্দেশিকা জারি করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে স্বাস্থ্য দফতরের পক্ষ থেকে।

প্রসঙ্গত , এর আগে মালদা ও মুর্শিদাবাদ জেলায় বেসরকারি হাসপাতালে স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্পে হাড়ের অস্ত্রোপচারে জারি হয়েছিল নিষেধাজ্ঞা। সেই সময় স্বাস্থ্য দফতরের নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে, মালদা ও মুর্শিদাবাদ জেলায় সরকারি হাসপাতালে অর্থোপেডিক বিভাগের পরিকাঠামো যথেষ্ট উন্নত। তাই এখানেই এবার থেকে করা হবে চিকিৎসা ।এবার থেকে সেই একই নিয়ম লাগু করা হল রাজ্যের সমস্ত সরকারি হাসপাতালের।এই নতুন নির্দেশিকায় আদৌও কোনও লাভ হবে কি না , নাকি উল্টে ভোগান্তির শিকার হতে হবে রোগীর পরিবারকে সেটাই এখন দেখার ।

7 months ago
Mahua: কার সঙ্গে, কোন হোটেলে! ব্যক্তিগত প্রশ্নে বৈঠক ছাড়লেন মহুয়া

ব্যক্তিগত প্রশ্নের অভিযোগ তুলে এথিক্স কমিটির বৈঠক ছাড়লেন মহুয়া মৈত্র সহ বিরোধী সংসদরা। সূত্রের খবর, আজ  অর্থাৎ বৃহস্পতিবার এথিক্স কমিটির ডাকে হাজির হয়েছিলেন সংসদ মহুয়া মৈত্র। ঘুষ নিয়ে সংসদে প্রশ্ন তোলার অভিযোগে তাঁদের বক্তব্য জানার জন্য ডেকে পাঠানো হয়েছিল। অভিযোগ আজ ওই বৈঠকে মহুয়া মৈত্রকে ব্যক্তিগত প্রশ্ন করা হয়। সেজন্যই হঠাৎ ওই বৈঠক থেকে ওয়াকআউট করেন সংসদ মহুয়া ও বিজেপি বিরোধী সাংসদরা।

বিরোধী সাংসদদের তরফে জানানো হয়েছে, বৈঠকে মহুয়াকে ‘ব্যক্তিগত এবং অনৈতিক’ প্রশ্ন করা হয়েছে। অভিযোগ মহুয়া কার সঙ্গে হোটেলে ছিলেন, কোন হোটেলে ছিলেন! এ ধরনের প্রশ্নের পরেই রীতিমত ওই বৈঠকে থেকে ওয়াকআউট করেন সাংসদরা।

7 months ago
Mahua: দুবাই থেকে ৪৭ বার লগইন, এথিক্স কমিটির হাজিরার আগেই বিপাকে মহুয়া

আজ, অর্থাৎ ২ নভেম্বরই এথিক্স কমিটির মুখোমুখি হবেন সাংসদ মহুয়া মৈত্র। তবে, তার আগে, ক্যাশ ফর কোয়ারি' বিতর্কে বড় তথ্য সামনে এল। সূত্রের খবর, মহুয়া মৈত্রর সংসদীয় অ্যাকাউন্টে প্রায়  ৪৭ বার দুবাই থেকে অ্যাকসেস করা হয়েছে। উল্লেখ্য, দুবাইতেই থাকেন ব্যবসায়ী হীরানন্দানি।

এছাড়া, মহুয়া মৈত্রের  বিদেশ সফর নিয়েও প্রশ্ন উঠছে। অভিযোগ, তিনি কতবার বিদেশ সফর করেছেন, কোথায় কোথায় গিয়েছেন, সেই তথ্য লোকসভার স্পিকারের কাছে জমা দেওয়া হয়নি। পিটিআই সূত্রে এমনটাই জানা গিয়েছে।

উল্লেখ্য, টাকার বিনিময়ে সংসদে দাঁড়িয়ে আদানি গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে প্রশ্ন করেছেন তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র। এমনই অভিযোগ তুলে লোকসভার স্পিকার ওম বিড়লাকে চিঠি দিয়েছিলেন বিজেপি সাংসদ নিশিকান্ত দুবে। তাঁরই অভিযোগের ভিত্তিতে মহুয়াকে তলব করেছে এথিক্স কমিটি।

7 months ago


Mahua: ২ নভেম্বরই হাজিরা দেবেন মহুয়া মৈত্র! এথিক্স কমিটির চেয়ারম্যানকে চিঠি দিয়ে কী জানালেন তিনি

২ নভেম্বরই লোকসভার এথিক্স কমিটির (Ethics Committee) সামনে হাজিরা দেবেন তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র (Mahua Moitra)। মঙ্গলবার লোকসভার (Lok Sabha) এথিক্স কমিটির চেয়ারম্যান বিনোদ সোনকরকে চিঠি দিয়ে জানিয়েছেন মহুয়া মৈত্র। তিনি জানিয়েছেন, ২ নভেম্বর সকাল ১১ টার মধ্যেই হাজিরা দেবেন তিনি। তবে সেই চিঠিতে এথিক্স কমিটির বিরুদ্ধে ক্ষোভপ্রকাশও করেছেন। চিঠিতে কমিটিকে উদ্দেশ্য করে কিছু 'আক্রমণাত্মক’ বক্তব্যও পেশ করেছেন তৃণমূল সাংসদ।

জানা গিয়েছে, মহুয়া মৈত্র এথিক্স কমিটির চেয়ারম্যানকে যে চিঠি দিয়েছেন, সেখানে তিনি তীব্র কটাক্ষ করে লিখেছেন, লোকসভার এথিক্স কমিটি গত দু’বছর ধরে একটিও বৈঠক করেনি। কিন্তু এই ক্ষেত্রে কমিটি এত দ্রুততা দেখাচ্ছে। তিনি বিশেষ কাজে ব্যস্ত থাকবেন জানানোর পরেও এথিক্স কমিটি যেভাবে ২ নভেম্বরেই তাঁর হাজিরার ক্ষেত্রে জোর করেন তাতে তিনি 'অবাক' হয়েছেন। চিঠিতে মহুয়া আরও জানিয়েছেন, তিনি ব্যবসায়ী হিরানন্দানি ও অ্যাডভোকেট জয় অনন্তকে এথিক্স কমিটির সামনে মুখোমুখি বসিয়ে প্রশ্ন করতে চান। এছাড়াও তিনি বলেছেন, এথিক্স কমিটি কোনও ফৌজদারি বিষয়ে তদন্ত করতে পারে না। তার জন্য আলাদা সংস্থা রয়েছে। অবশেষে মহুয়া মৈত্র জানিয়েছেন, ২ নভেম্বর সংসদের এথিক্স কমিটির সামনে হাজিরা দেবেন তিনি। কিন্তু এই বিষয়ের তিনি তীব্র প্রতিবাদও জানিয়েছেন।

7 months ago
Mahua: মহুয়াকে ডাকাডাকিতে এত তাড়া কীসের এথিক্স কমিটির, প্রশ্ন কুণালের

এথিক্স কমিটি। কিন্তু, তৃণমূল সাংসদকে ডাকাডাকিতে এত তাড়া কীসের কমিটির। এবার সেই প্রশ্ন তুললেন কুণাল ঘোষ। তৃণমূলের মুখপাত্রের কথায়, মহুয়া তো বলেননি যে যাবেন না, কিন্তু তারপরেও ফের চিঠি দিয়ে তড়ঘড়ি ডেকে পাঠানোর কারণ কী তা খুঁজে পাচ্ছেন না কুণাল ঘোষ। পাশাপাশি তিনি এও জানান, মহুয়াকে নিয়ে দলের অবস্থান একই আছে।

উল্লেখ্য, মহুয়া মৈত্র আগেই চিঠি দিয়ে জানিয়েছিলেন যে ৪ নভেম্বর পর্যন্ত তিনি ব্যস্ত থাকবেন। তারপর যে কোনওদিন তাঁকে ডাকা হলে, উপস্থিত থাকবেন। কিন্তু তারপরেও ২ নভেম্বর ডেকে পাঠানো হয়েছে মহুয়াকে। কুণাল ঘোষ বলেন, " মহুয়া এক জন সাংসদ। সবে পুজো মিটেছে। তাঁর কেন্দ্রে ১০ খানা কর্মসূচি থাকতে পারে। এক বার চিঠি দিয়ে জানানোর পর ফের তাঁকে চিঠি দেওয়া হয়েছে।"

শুভেন্দুকেও আক্রমণ করেন এদিন। কুণাল বলেন, "এথিক্স কমিটির যদি এতই তাড়া তা হলে শুভেন্দুর ঘুষকাণ্ডের পর তাঁকে ডাকেননি কেন? মহুয়ার বেলায় ছ’দিন তর সইছে না আর শুভেন্দুর বেলায় কেন ছ’বছর ধরে ঘুমিয়ে ছিলেন?"

8 months ago


Mahua: ধোপে টিকল না মহুয়ার মৈত্রর আবেদন! ২ নভেম্বর ফের তলব করল এথিক্স কমিটি

সংসদের (Parliament) এথিক্স কমিটির (Ethics Committee) কাছে আর্জি ছিল ৫ নভেম্বরের পর যেন মহুয়া মৈত্রকে (Mahua Moitra) ডাকা হয়। কিন্তু সেই আবেদন পুরোপুরি শুনল না এথিক্স কমিটি। কারণ তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্রকে ফের তলব করল সংসদের এথিক্স কমিটি। টাকার বিনিময়ে প্রশ্ন করার ইস্যুতে তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদকে ৩১ অক্টোবর এথিক্স কমিটি তলব করেছিল। কিন্তু সেসময় যেতে পারবেন না বলে জানিয়েছিলেন মহুয়া মৈত্র। এবারে তাঁর আবেদনের পরও ৫ নভেম্বরের আগেই ফের হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হল।

লোকসভার এথিক্স কমিটির চিঠিতে জানানো হয়েছে, আগামী ২ নভেম্বর সকাল ১১টায় মহুয়াকে সংসদের এথিক্স কমিটির ঘরে হাজিরা দিতে হবে। এর আগে মহুয়া মৈত্রকে ৩১ অক্টোবর তলব করেছিল লোকসভার এথিক্স কমিটি। সেসম মহুয়াও চিঠি দিয়ে জানিয়ে দেন যে, তাঁর পূর্ব নির্ধারিত সরকারি ও রাজনৈতিক কর্মসূচী রয়েছে। আগামী ৫ নভেম্বরের পরে যেদিন সময় দেবেন সেদিন যাবেন। ফলে হাজিরা দেওয়ার জন্য বেশ কিছুটা সময় চেয়ে নেন তিনি। তবে মহুয়ার চাওয়া সেই সময়ের আগেই তাঁকে আবার তলব করা হল। কিন্তু সময় কিছুটা বাড়িয়ে দিলেও ২ নভেম্বরই তাঁকে তলব করল এথিক্স কমিটি।

8 months ago
Mahua: হাজিরার আগেই মহুয়ার বিদেশ যাত্রার তথ্য চাইল এথিক্স কমিটি

লোকসভার প্রশ্ন করার জন্য অর্থ ও উপহার নিয়েছেন। এই অভিযোগে তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্রের বিরুদ্ধে ফের পদক্ষেপ করল লোকসভার এথিক্স কমিটি। মহুয়া মৈত্রের বিদেশযাত্রা সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য কেন্দ্রীয় বিদেশমন্ত্রকের কাছে চেয়েছে কমিটি। মহুয়াকে ঘুষ দেওয়ায় অভিযুক্ত দুবাইবাসী শিল্পপতি দর্শন হীরানন্দানির বিভিন্ন দেশে যাত্রার তথ্যও চাওয়া হয়েছে।

আগামী মঙ্গলবার মহুয়া মৈত্রকে হাজিরার নির্দেশ দিয়েছে এথিক্স কমিটি। বেলা ১১টায় কমিটির কাছে হাজির হতে হবে তৃণমূল সাংসদকে। তার আগেই বিদেশমন্ত্রকের কাছে মহুয়ার বিদেশযাত্রার তথ্য চেয়ে পাঠিয়েছে এথিক্স কমিটি। পাশাপাশি কেন্দ্রীয় তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রকের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছে, কোন কোন তারিখে কোন কোন জায়গা থেকে সংসদের অ্যাকাউন্টে লগ-ইন করেছেন সাংসদ।

এদিকে হাজিরায় তিনি থাকতে পারবেন না, শুক্রবারই জানিয়ে দিলেন মহুয়া মৈত্র। সাংসদ জানান, তাঁর বিজয়া সম্মিলনী আছে। তাই যেতে পারবেন না ওই নির্দিষ্ট দিনে।

8 months ago
Mahua Moitra: এথিক্স কমিটির সমনে সাড়া দেবেন না মহুয়া মৈত্র! চিঠি দিয়ে কী জানালেন সাংসদ

টাকা নিয়ে প্রশ্ন কাণ্ডে এল নয়া মোড়। বড় ফ্যাঁসাদে তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র (Mahua Moitra)। লোকসভার (Loksabha) এথিক্স কমিটি (Ethics Committee) তলব করে তাঁকে। আগামী ৩১ অক্টোবর তাঁকে হাজিরা দিতে বলা হয়। কিন্তু এথিক্স কমিটির সামনে ৩১ অক্টোবর হাজির হতে পারবেন না তিনি। এমনটাই জানালেন তিনি।

লোকসভার এথিক্স কমিটির তলবে সাড়া দেবেন না মহুয়া মৈত্র। টাকার বিনিময়ে সংসদে প্রশ্ন করার যে মারাত্মক অভিযোগ উঠেছিল, সে বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য লোকসভার এথিক্স কমিটি তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্রকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৩১ অক্টোবর সশরীরে হাজিরা দিতে নির্দেশ দিয়েছিল। কিন্তু শুক্রবার মহুয়া মৈত্র জানিয়ে দিলেন, তিনি ওই দিনে হাজিরা দিতে পারবেন না। তিনি জানিয়েছেন, তাঁর পূর্ব নির্ধারিত সরকারি ও রাজনৈতিক কর্মসূচী আছে। আগামী ৫ নভেম্বরের পরে যেদিন সময় দেবেন সেদিন যাবেন।  

সংসদের এথিক্স কমিটির চেয়ারম্যানকে চিঠি দিয়ে মহুয়া মৈত্র জানিয়েছেন, 'আমাকে গতকাল সন্ধে ৭.২০-এ ইমেল করে সমনের কথা জানানো হয়। তার আগে সংবাদমাধ্যমে সমনের কথা ঘোষণা করে দেন এথিক্স কমিটির চেয়ারম্যান। ৪ নভেম্বর পর্যন্ত আমার সংসদীয় এলাকায় পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচি থাকায় দিল্লিতে থাকা সম্ভব নয়।'

8 months ago


Mahua Moitra: এবারে এথিক্স কমিটির তলব মহুয়াকে, কবে হাজিরা তৃণমূল সাংসদের

'টাকা নিয়ে প্রশ্ন' কাণ্ডে এবারে তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্রকে (Mahua Moitra) তলব করল এথিক্স কমিটি। আগামী ৩১ অক্টোবর মহুয়া মৈত্রকে ডেকে পাঠালো সংসদের এথিক্স কমিটি। সেদিনই আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ পাবেন মহুয়া।

২৬ অক্টোবর, বৃহস্পতিবার লোকসভার এথিক্স কমিটির শুনানি শুরু হয়। দুপুর ১২ টায় সংসদ ভবনে শুরু হয় এথিক্স কমিটির প্রথম বৈঠক। প্রথম দিনই ডাকা হয় প্রধান দুই অভিযোগকারী বিজেপি সাংসদ নিশিকান্ত দুবে এবং আইনজীবী জয় অনন্তকে। দুজনকেই নিজেদের অভিযোগের স্বপক্ষে সাক্ষ্যপ্রমাণ নিয়ে উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছিল এথিক্স কমিটির সামনে। এদিন নিশিকান্ত এবং জয় অনন্ত হাজিরা দিলে তাঁদের বয়ান রেকর্ড করা হয় ও এদিনই অভিযুক্ত তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্রকেও তলব করা হয়। ৩১ অক্টোবর, মঙ্গলবার দুপুর ১২ টার মধ্যে সংসদের এথিক্স কমিটির সামনে হাজির হয়ে নিজের সমর্থনে বক্তব্য রাখবেন কৃষ্ণনগরের সাংসদ মহুয়া মৈত্র।

8 months ago
Drug: পুজোর মধ্যেই বেঙ্গল এসটিএফ-র মাদক বিরোধী অভিযানে মিলল ব্যাপক সাফল্য

মহাপঞ্চমীর উৎসবের মধ্যেই বেঙ্গল এসটিএফ-র মাদক বিরোধী অভিযানে মিলল ব্যাপক সাফল্য। বনগাঁর গাইঘাটাতে হেরোইন তৈরীর কারখানায় বৃহস্পতিবার তল্লাশি চালিয়ে মিলল প্রায় ১৬ কোটি টাকা মূল্যের নিষিদ্ধ মাদক। গ্রেফতার দুই মহিলাসহ মোট চারজন। কোটি কোটি টাকার ক্রুড হেরোইন এনে এই কারখানায় চলতো মিশ্রণ ও পরিশোধন। কলকাতা, হাওড়া ও উত্তর-দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিভিন্ন জায়গায় পাঠানো হতো এখানকার মাদক।

গোপন খবরের ভিত্তিতে বেঙ্গল এসটিএফ-এর একটি টিম বৃহস্পতিবার সকালে পৌঁছয় গাইঘাটা থানার বিষ্ণুপুর গ্রামের উদ্দেশ্যে। সেখানে পৌঁছে থানাগামী পাকা রাস্তার থেকে বাঁদিকে দেড় মিনিট পায়ে হেঁটে গেলে একটি ছোটখাটো খামারবাড়ি। মালকিন চল্লিশোর্ধ্বা কাকলি রায়। ছয়ফুট উঁচু পাঁচিল দিয়ে ঘেরা দোতলা বাড়ির মধ্যে পোলট্রি, ছাগল ও গরুর থাকার ছাউনি।

বাড়িতে মালকিন কাকলি ছাড়াও অভিজিৎ বিশ্বাস, তপন মণ্ডল ও ডলি সর্দার নামের এক মহিলা ছিল। যাঁদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করে। একতলায় মাদক-সংক্রান্ত কিছু না পেয়ে এসটিএফ টিমের সদস্যরা মার্বেল বাঁধানো সিঁড়ি বেয়ে উঠে যায় দোতলায় এবং সেখানেই তাঁদের চক্ষু চড়কগাছ। দোতলার বেডরুম, বাথরুম এবং রান্নাঘরকে রীতিমতো একটি হেরোইন তৈরী করার কারখানায় রূপান্তরিত করা হয়েছে। থরে থরে সাজানো রয়েছে হেরোইনের প্যাকেট, কোনও ঘরে হাই-ভোল্টেজ আলোর নীচেই আলাদা আলাদা পাত্রে রাখা আছে বিশেষ প্রকার লিকুইড মিশ্রিত হেরোইন, শুষ্ক করার জন্য। কোনো ঘরে চলছে ফিল্টারিং, কোনো ঘরে প্যাকেজিং।

 তল্লাশিতে উদ্ধারকৃত দ্রব্যের মধ্যে পাওয়া গিয়েছে, প্রায় আট কিলোগ্রাম হেরোইন, পাঁচ কিলোগ্রাম মোট ওজনের একপ্রকার বিশেষ গুঁড়ো যা মিশিয়ে নেশার মাত্রা বৃদ্ধি করা হয়,দশ কিলোগ্রাম ওজনের এসিটিক এনহাইড্রেট তরল যার সাহায্যে ক্রুড হেরোইন পরিশোধন করা হয়, চল্লিশ কিলোগ্রাম সোডিয়াম কারবোনেট, দুইটি ইলেকট্রনিক ওজন যন্ত্র, একটি মিক্সার গ্রাইন্ডার, প্রচুর সংখ্যক প্লাস্টিক প্যাকেট, একটি সিলিং মেশিন, দুইটি আই-ফোন, তিনটি স্মার্টফোন ইত্যাদি।

এরপরই গ্রেফতার করা হয় দুই মহিলা ও দুই ব্যক্তিকে। তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদ করে উঠে আসে চাঞ্চল্যকর তথ্য। জানা গিয়েছে, প্রায় বছরখানেক ধরে চলছে এই কারখানা। মালকিন কাকলি তাঁর ব্যবসায়ী-পার্টনারদের থেকে ক্রুড হেরোইন এনে এই কারখানাতে পরিশোধন ইত্যাদি করে বিভিন্ন পাচারকারীদের মাধ্যমে কলকাতা, হাওড়া, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিভিন্ন ক্লায়েন্টদের কাছে দিত পৌঁছে। বিনিময়ে পেত বিপুল পরিমাণ মুনাফা। এই ঘটনায় গাইঘাটা থানাতে একটি অভিযোগ দায়ের করেছে বেঙ্গল এসটিএফ। অভিযোগের উপর মাদক আইনে মামলা রুজু করা হয়েছে। এই নিষিদ্ধ মাদকচক্রে অন্যান্য জড়িতদের বিরুদ্ধেও চলবে তদন্ত।

8 months ago


Election: ৫ রাজ্যে নির্বাচন, কতটা প্রস্তুত বিজেপি?

প্রসূন গুপ্ত: পুজো, দীপাবলি আর বিশ্বকাপ ক্রিকেট শেষ হলেই ভারতের ৫ রাজ্যের বিধানসভার ভোট (Election)। ছত্রিশগড় , মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান, তেলেঙ্গানা এবং মিজোরাম। এই ৫ রাজ্যের ভোটকে অনেকেই লোকসভা ভোটের সেমিফাইনাল হিসাবে দেখছে। এই ৫ রাজ্যে সরাসরি ক্ষমতায় বিজেপি আছে শুধুমাত্র মধ্যপ্রদেশে। কাজেই তাদের লক্ষ থাকবে বাকি রাজ্যগুলির মধ্যে অন্তত ৪টি রাজ্য দখল করা।  প্রশ্ন হচ্ছে, কাজটি কতটা সোজা বা কঠিন?

১০ বছর প্রায় নরেন্দ্র মোদী কেন্দ্রের ক্ষমতায়। এবারেও তিনি পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছেন যে তিনিই আগামীতে প্রধানমন্ত্রীর মুখ। একটি বিষয় কিন্তু বিজেপির কেন্দ্রীয় কমিটিকে ভাবাচ্ছে, তৃতীয়বারের জন্য পরপর প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন একমাত্র জহরলাল নেহেরু এবং তখন কংগ্রেসের বিকল্প দল বলতে কিছু ছিল না।  আজকের পরিস্থিতি কিন্তু একেবারেই আলাদা।  কাজেই মোদী নিজেও চাইছেন এই ৫ রাজ্যের ফল যেন ভালো হয়।  ইদানিং 'ইন্ডিয়া' নামক জোট হয়েছে এবং যতটুকু খবর তারা এই রাজ্যগুলিতে একের বিরুদ্ধে এক প্রার্থী দেবে কাজেই হিসাব করে চলতে চাইছে বিজেপি।

নানান সূত্র মারফত যা জানা যাচ্ছে, যে প্রতিটি রাজ্যেই অনেকটাই চাপে বিজেপি।  প্রথমত ছত্রিশগড়ের মানুষ বর্তমান কংগ্রেস মুখ্যমন্ত্রী ভুপেশ বাঘেলের কাজে খুবই সন্তুষ্ট। ৯০ আসনের মধ্যে কংগ্রেস আশা করছে ৭৫ আসন। অন্যদিকে বিজেপির মুখ্যমন্ত্রীর মুখ নেই। মধ্যপ্রদেশেও কংগ্রেস কমলনাথের নেতৃত্বে পোক্ত জায়গায় রয়েছে বলেই খবর। গতবারই কংগ্রেস এখানে জিতেছিল কিন্তু দল ভাঙিয়ে শেষ পর্যন্ত ক্ষমতা দখল করে বিজেপি, ফলে এলাকার মানুষের একটা ক্ষোভ আছেই।  এমনটিই দেখা গিয়েছিল সম্প্রতি কর্নাটকে, বিজেপি পর্যদস্তু হয়েছিল। রাজস্থানে প্রতি ৫ বছর বাদে বাদে নতুন ঘুরিয়ে ফিরিয়ে কংগ্রেস এবং বিজেপি ক্ষমতায় আসে। এতদিন ক্ষমতায় ছিল কংগ্রেস কাজেই এবারে হিসাব মতো বিজেপির আসার পালা কিন্তু এখানেও সংকট। মোদীর অপছন্দের নেত্রী বসুন্ধরা রাজে সিন্ধিয়া, তাই পরিষ্কার জানিয়ে দেওয়া হয়েছে যে দল তাঁকে নিয়ে ভাবছে না।

বসুন্ধরা শোনা যাচ্ছে তাঁর নিজের ঘনিষ্টদের নির্দল করে সিংহভাগ কেন্দ্রে প্রার্থী দিচ্ছে। এরা ভোট কাটুয়া। ফলে ভোট ভাগাভাগি হলে আখেরে লাভ কংগ্রেসের।  এছাড়া অশোক গেহেলথ যথেষ্ট জনপ্রিয় তিনি গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব বন্ধ করতে পেরেছেন।  মিজোরাম কোনও দিনও বিজেপির জমি ছিল না এবারেও হওয়ার সম্ভাবনা কম।  অন্যদিকে তেলেঙ্গানায় মূল লড়াই তেলেঙ্গানা রাষ্ট্রীয়র সঙ্গে কংগ্রেসের।  বিজেপি এখানে বড়োজোর কিছু আসন পেতে পারে।  জনপ্রিয় প্রার্থীর অভাবে বিজেপি ১৮ সাংসদদের ফের বিধানসভার প্রার্থী করছে বিভিন্ন রাজ্যে।  কাজেই কঠিন সেমিফাইনালে, দেশের ক্ষমতায় থাকা বিজেপি।

8 months ago
Nadia: চিকিৎসার গাফিলতিতে প্রসূতি মৃত্যুর অভিযোগ, উত্তেজনা ছড়িয়েছে নদিয়ায় নবদ্বীপে

চিকিৎসার গাফিলতিতে প্রসূতি মৃত্যুর অভিযোগ তুলে উত্তপ্ত নবদ্বীপ। অভিযোগ নদিয়ার নবদ্বীপের এক বেসরকারী নার্সিংহোমের বিরুদ্ধে। বুধবার রাতে নবদ্বীপ থানার অন্তর্গত ওই বেসরকারী নার্সিংহোমে মৃতদেহ নিয়ে বিক্ষোভ মৃতার পরিজনেরা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় নবদ্বীপ থানার পুলিস। পুলিস সূত্রে খবর, মৃত মহিলার নাম দীপা মিশ্র (২৩)। 

পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, ১ অক্টোবর নবদ্বীপের একটি বেসরকারি নার্সিংহোমে ভর্তি করা হয়েছিল ওই প্রসূতি মহিলাকে। সেখানে একটি পুত্র সন্তানের জন্ম দেয় তিনি। পুত্র সন্তান জন্ম দেওয়ার পর শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাঁকে নদিয়ার রানাঘাটের একটি বেসরকারি নাসিংহোমে ভর্তি করা হয়। তারপর ৩ অক্টোবর আনুমানিক ভোর ৪ টে নাগাদ মৃত্যু হয় ওই প্রসূতি মহিলার। ওই মৃত মহিলার পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ, অপারেশানের সময় শরীরের কোনও অংশ কাটা পড়েছে। যার কারণেই মৃত্য়ু হয়েছে ওই মহিলার। মৃতার পরিবারের আরও অভিযোগ, নবদ্বীপের ওই বেসরকারি নার্সিংহোমের চিকিৎসকের ভুল চিকিৎসার জন্য়ই মৃত্যু হয়েছে ওই প্রসূতির। 

মৃতার পরিবারের দাবি অবিলম্বে নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষ এবং অভিযুক্ত ওই চিকিৎসককে সামনে এসে জবাব দিতে হবে কেন ভুল চিকিৎসা করা হল। এছাড়াও মৃতের পরিবারের আরও দাবি, সঠিক তদন্ত করে অভিযুক্তদের যথাযথ শাস্তি দিক প্রশাসন। 

8 months ago
Special: অধ্যাত্মিকতাহীন রাজনীতি মানুষকে বিকৃত করে; অসাধু তৈরী করে

সৌমেন সুর: শ্রী রবিশঙ্কর বলেছেন, 'ভালোবাসাই পৃথিবীর চালক। বসুধৈব কুটুম্বকম। কৃষ্ণের ছলনায় ভুলো না। রাধার মতো চালক হও। কৃষ্ণ রাধা থেকে পালিয়ে যেতে পারতেন না। কারণ রাধার সমস্ত জগৎই ছিল কৃষ্ণময়।' কৃষ্ণ হলেন দিব্যশক্তি। আমাদের মধ্যে রয়েছে সেই কৃষ্ণ, সেই দিব্যশক্তি। তাঁকে খুঁজতে হবে, তাঁকে ধরে থাকতে হবে। তাঁর জন্য আমাদের সংকল্প করতে হবে। পৃথিবীতে সার্বিক সংকল্প হল সেবা। যদি আমাদের জীবনে কোনও ভয় থাকে, তাহলে তা এসেছে সংকল্পের অভাব থেকে।

আধ্যাত্মিকতা ও রাজনীতি, দুটোই মানুষকে নিয়ে কাজ করে। অধ্যাত্মিকতাহীন রাজনীতি মানুষকে বিকৃত করে। অসাধু তৈরী করে এবং আবওহাওয়ায় কৃত্রিম পরিবেশ সৃষ্টি করে রাজনীতি ও মানবতাহীন রাজনীতি নৈরাজ্য সৃষ্টি করে, অপরাধ প্রবণতা ও অসাধুতা সৃষ্টি করে। কথা হল, রাজনীতি ও আধ্যাত্মিকতা একসঙ্গে চলার প্রয়োজন আছে। একমাত্র আধ্যাত্মিকতাই পারে আত্মবিশ্বাস ও দায়বদ্ধতা তৈরী করতে। প্রশাসনে যারা থাকেন, তাদের জন্য মানবিকতা ও এই মূল্যবোধগুলি বিশেষ প্রয়োজন। যিনি সকলকে সমানভাবে দেখতে পারেন। অর্থাৎ একজন নেতার সমদর্শী হওয়া প্রয়োজন। সত্যাদর্শী সত্য দ্বারা চালিত হন। পারদর্শী তাঁর কাজে স্বচ্ছ হন। দূরদর্শী উদার মনের হন। প্রিয়দর্শিনীর মধ্যে প্রেম করুনার মৈত্রী থাকে। এইসব গুণগুলো প্রশাসনের জন্য জরুরি।

যদি সমাজে বিশৃঙ্খলা থাকে, আধ্যাত্মিকতার মূল্য না থাকে, তাহলে সেই সমাজকে পরিচালনা করা কঠিন। আধ্যাত্মিকতা মানুষকে সৎ ও দায়বদ্ধ করে। অপরাধ মুক্ত সমাজ তৈরির জন্য এটা প্রয়োজন। যখন ধর্মের নাম অনেক যুদ্ধ হয়, তখন আধ্যাত্মিকতা সাহস দেয়, আত্মবিশ্বাস তৈরী করে। এবং কঠিন সময়েও প্রতিজ্ঞাবদ্ধ করে মানুষকে। আজ ধর্ম ও রাজনীতির সংস্করণ দরকার। ধর্মকে অনেক বেশি আধ্যাত্মিক হতে হবে। কলার খোলসটা হল ধর্ম, আর ভিতরের শাঁসটা হল আধ্যাত্মিকতা। স্বাধীনতা দিতে হবে, প্রত্যেকের নিজের ধর্মকে, প্রার্থনাকে। তাহলে পৃথিবীর সমস্ত জ্ঞান ভান্ডারকে এক করা যাবে।  সমস্ত রাজনীতিবিদদের মধ্যে সহাবস্থান হয় না, তখনই আমরা পাই ছদ্মধর্মীয় নেতাদের। সবশেষে বলি, আধ্যাত্মিকতা জীবন সম্বন্ধে উদার দৃষ্টিভঙ্গি এনে দেয়। যাতে করে সকলের সঙ্গে সবকিছু ভাগ করে নেওয়া যায়। তথ্যঋণ- কোন বসু মিত্র।

9 months ago


Haridebpur: সিভিক ও ট্রাফিক সার্জনকে মেরে মুখ ফাটিয়ে দেওয়ার অভিযোগ, গ্রেফতার অভিযুক্ত

ট্রাফিক সার্জনকেও ঘুষি মেরে নাক ফাটিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠল মুরগি ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে। বুধবার হরিদেবপুর এলাকার ঘটনা। অভিযোগ উঠেছে কর্তব্যরত পুলিশ কর্মী সহ সিভিক ভলান্টিয়ারকে মারধর করার। সূত্রের খবর, অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে হরিদেবপুর থানার পুলিস। আহত পুলিস আধিকারিককে প্রাথমিক চিকিৎসার পর হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

পুলিস জানিয়েছে, অভিযুক্তের নাম ভিকি চক্রবর্তী। জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার সকালে ভিকি স্কুটিতে চড়ে মুরগি নিয়ে দোকানে যাচ্ছিল। অভিযোগ, সেই সময় এক সিভিক ভলান্টিয়র এসে তার পথ আটকায়। যার জেরে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে স্কুটি নিয়ে পড়ে যায় সে। এরপর মাটি থেকে উঠে কোনও কথা না বলেই সোজা মারধর করতে থাকে সিভিক ভলান্টিয়রকে এমনটাই অভিযোগ। ভিকি থামাতে এগিয়ে আসেন কর্তব্যরত ট্রাফিক সার্জেন্ট অনিরুদ্ধ বিশ্বাস।

অভিযোগ, তাঁকেও মারধর করে অভিযুক্ত। ঘুষি মেরে ওই পুলিশ আধিকারিকের নাক ফাটিয়ে সে। এই ঘটনার খবর পেয়ে পরবর্তীকালে এলাকায় আসে হরিদেবপুর থানার পুলিশ ফোর্স। তারা ভিকি চক্রবর্তীকে গ্রেফতার করে।

9 months ago
Neeraj: বিশ্ব অ্যাথলেটিক্স চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে প্রথম ভারতীয় হিসেবে সোনা অর্জন নীরজের

সোনার ছেলের গলায় আরও এক সোনার মেডেল, হাতে তেরঙ্গা। এই ছবি দেখবে বলেই রবিবার মাঝরাতে জেগে ছিল গোটা দেশ, স্বপ্ন সত্যি হল। বিশ্ব অ্যাথলেটিক্স চ্যাম্পিয়নশিপে প্রথম ভারতীয় হিসাবে জ্যাভলিনে সোনা জিতলেন নীরজ চোপড়া। ৮৮.১৭ মিটার দূরে জ্যাভলিন ছুড়ে স্বর্ণপদক ছিনিয়ে নেন নীরজ।

নিজের দ্বিতীয় থ্রোতেই সর্বোচ্চ দূরত্ব জ্যাভলিনটি ছোড়েন নীরজ, প্রথম থ্রোটি ফাউল হয়। রুপো জিতলেন পাকিস্তানের নাদিম। পড়শি দেশের দুই বন্ধুর একই সঙ্গে সোনা-রুপো জয়ে বিশ্ব অ্যাথলেটিক্সের মঞ্চে তৈরি হল এক অন্য ছবি। ২০২১ সালের ৭ অগাস্ট অলিম্পিক্সে প্রথমবার দেশকে জ্যাভলিনে সোনা এনে দিয়েছিলেন নীরজ। এবার এনে দিলেন বিশ্ব অ্যাথলেটিক্স-এর মঞ্চে।

তাঁর বর্শায় বিশ্ব অ্যাথলেটিক্সের মঞ্চে মঙ্গলকাব্য তৈরি করেছে ভারত। সোনার ছেলে নীরজ চোপড়া জানিয়েছেন, তিনি অভিভূত। টোকিও তাঁকে প্রথম সোনা দিয়েছিল। পুশকাসের দেশ হাঙ্গেরি তাঁকে খালি হাতে ফেরালো না। তবুও নিজের থ্রো নিয়ে খুশি নন নীরজ।

তিনি জানিয়েছেন, এই জয় ভারতের জয়। তিনি দেশের জন্য গর্বিত। খুব খারাপ ছুঁড়েও সোনা পেয়েছেন। সোনা সবসময় সোনা বলেই মনে করেন ভারতের সেরা জ্যাভলার। নীরজ জানিয়েছেন, আবার নিজের সেরা নিয়ে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে ফিরবেন। টার্গেট থাকবে ৯০ মিটার।

বুদাপেস্টে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে প্রথম ভারতীয় হিসাবে সোনা জিতেছেন নীরজ চোপড়া। রবিবার মধ্যরাতে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে ৮৮.১৭ মিটার ছুঁড়ে সোনা পেয়েছেন নীরজ। এরআগে জিতেছিলেন ডায়মন্ড লিগ।

10 months ago