Breaking News
ED: মিলে গেল কালীঘাটের কাকুর কণ্ঠস্বর, শ্রীঘই হাইকোর্টে রিপোর্ট পেশ ইডির      Ram Navami: রামনবমীর আনন্দে মেতেছে অযোধ্যা, রামলালার কপালে প্রথম সূর্যতিলক      Train: দমদমে ২১ দিনের ট্রাফিক ব্লক, বাতিল একগুচ্ছ ট্রেন, প্রভাবিত কোন কোন রুট?      Sarabjit Singh: ভারতীয় বন্দি সরবজিৎ সিং-এর হত্যাকারী সরফরাজকে গুলি করে খুন লাহোরে      BJP: ইস্তেহার প্রকাশ বিজেপির, 'এক দেশ এবং এক ভোট' লাগু করার প্রতিশ্রুতি      Fire: দমদমে ঝুপড়িতে বিধ্বংসী অগ্নিকাণ্ড, ঘটনাস্থলে দমকলের একাধিক ইঞ্জিন      Bengaluru Blast: বেঙ্গালুরু ক্যাফে বিস্ফোরণকাণ্ডে কাঁথি থেকে দুই সন্দেহভাজনকে গ্রেফতার করল এনআইএ      Sheikh Shahjahan: 'সিবিআই হলে ভালই হবে', হঠাৎ ভোলবদল শেখ শাহজাহানের      CBI: সন্দেশখালিকাণ্ডে সিবিআই তদন্তের নির্দেশ কলকাতা হাইকোর্টের...      NIA: ভূপতিনগর বিস্ফোরণকাণ্ডে এবার কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ NIA     

Fraud

Fraud: এটিএম থেকে টাকা তছরূপের অভিযোগ, ধৃত ২ অভিযুক্ত, উদ্ধার নগদ অর্থ

অভিনব কায়দায় এটিএম থেকে টাকা তছরূপের দায়ে ২ ব্যক্তিকে গ্রেফতার করল ঠাকুরপুকুর থানার পুলিস। জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার রাতে বেহালার শিলপাড়ার ডায়মন্ড হারবার রোডের পাশে একটি ব্যাঙ্কের এটিএম থেকে টাকা তোলার জন্য দুই ব্যক্তি সেখানে ঢুকেছিল। তবে বেশ কিছুক্ষণ ধরে তারা সেখানে থাকায় সিসি ক্যামেরায় বিষয়টি ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষের নজরে আসে।

ওই এটিএমে কোনও নিরাপত্তারক্ষী ছিল না। তড়িঘড়ি সেখানে অন্য ব্রাঞ্চ থেকে একজন নিরাপত্তারক্ষীকে পাঠানো হয়। নিরাপত্তারক্ষী পৌঁছে বাইরে থেকে এটিএম-এর শাটার নামিয়ে দেন। সেই সঙ্গে ঠাকুরপুকুর থানায় খবর দেওয়া হয়। পুলিস ঘটনাস্থলে এসে দুই ব্যক্তিকে হাতেনাতে পাকড়াও করে। পাশাপাশি, বেশকিছু নগদ অর্থও উদ্ধার করে পুলিস।

পুলিস সূত্রে খবর, ধৃতরা এটিএম-এর যে অংশ থেকে টাকা বের হয়, সেখানে একটি টেপ লাগিয়ে বাইরে অপেক্ষা করত। গ্রাহকরা সেখান থেকে টাকা তুলতে এলেই ওই টেপে টাকা আটকে যেত। পরে গ্রাহকরা বেরিয়ে যেতেই ওই টাকা হাতিয়ে নিত অভিযুক্তরা। পুলিসের অনুমান, এভাবেই বেশকিছু এটিএম থেকে টাকা হাতিয়েছে ধৃতরা। ধৃত দুজনই বিহারের বাসিন্দা বলে জানা গিয়েছে। বুধবার ধৃতদের আলিপুর আদালতে তোলা হয়। এই ঘটনার সঙ্গে আরও কয়েকজন যুক্ত থাকতে পারে বলে সন্দেহ পুলিসের। ঘটনার তদন্তে নেমেছে ঠাকুরপুকুর থানার পুলিস।

2 months ago
Arrest: আর্থিক তছরুপের অভিযোগ! গ্রেফতার সাউথ পয়েন্ট স্কুলের ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য কৃষ্ণা দামানি

আর্থিক তছরুপের অভিযোগে গ্রেফতার সাউথ পয়েন্ট স্কুলের ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য কৃষ্ণা দামানি। আরিফ মুখার্জি রোডের বাড়ি থেকে তাঁকে গ্রেফতার করে হেয়ার স্ট্রিট থানার পুলিস। আজ অর্থাৎ শুক্রবার তাঁকে ব্যাঙ্কশাল আদালতে পেশ করা হয়।

সূত্রের খবর, এখনও পর্যন্ত ২০ কোটি টাকার দুর্নীতি সামনে এসেছে কৃষ্ণা দামানির বিরুদ্ধে। কৃষ্ণা দামানিকে সঙ্গে করে বৃহস্পতিবার বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশি চালিয়েছে হেয়ার স্ট্রিট থানার পুলিস। তল্লাশিতে প্রচুর নথি উদ্ধার হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। অভিযোগ, স্কুলে নির্মীয়মাণ দ্বিতীয় ক্যাম্পাস তৈরির টাকা নয় ছয় করেছে কৃষ্ণা দামানি। এছাড়াও আর্থিক দুর্নীতিতে কৃষ্ণা দামানির সঙ্গে যুক্ত আছেন স্কুলের প্রভাবশালী এক অংশের। এমনি অভিযোগ উঠে এসেছে তার বিরুদ্ধে।

2 months ago
Barasat: শিক্ষা দুর্নীতিতে নয়া প্রতারণার ফাঁদ! বিধানসভায় চাকরি দেওয়ার নামে লক্ষাধিক টাকার প্রতারণার অভিযোগ

শিক্ষা দুর্নীতিতে নতুন প্রতারণার ফাঁদ। শিক্ষা দফতর থেকে শুরু করে সরকারি দফতরে চাকরি দেওয়ার নামে উঠেছে লক্ষাধিক টাকার প্রতারণা। এবিষয়ে বারাসত থানায় অভিযোগ জানালেও মেলেনি কোনো সমাধান। যার ফলে বুধবার ইডি দফতরে বেশ কিছু প্রতারিতরা অভিযোগ করতে যায়। 

প্রতারিতদের অভিযোগ, মিতা মুখার্জি নামে বারাসতের এক বাসিন্দা যিনি বিভিন্ন প্রভাবশালী ব্যক্তিদের নাম করে প্রদীপ বিশ্বাস নামে এক ব্য়ক্তিকে দিয়ে টাকা তোলাতেন। জানা গিয়েছে, ওই প্রদীপ বিশ্বাস বিভিন্ন বেকার যুবকদের ফোন করে বলতো তার এক দিদি আছে মিতা মুখার্জি যিনি বিধানসভায় চাকরি করে। 

এরপর যারা চাকরি করতে চাইত তাদের থেকে টাকা নেওয়া হত। এমনকি টাকা নেওয়া পর ভুয়ো জয়েন্ট লেটার দেওয়া হয়েছিল। সেই ভুয়ো জয়েন্ট লেটার নিয়ে যখন যাওয়া হয় তখন সবাই বুঝতে পারে পুরোটাই পরিকল্পনামাফিক একটা প্রতারণার ছক। এরপর টাকা ফেরত চাইতেই মিতা মুখার্জি বলে টাকা চাইলেই মেরে দেবো। এই ঘটনায় বারাসত থানায় অভিযোগ জানাতে গেলে পুলিস প্রতারিতদের তাড়িয়ে দেয় বলে অভিযোগ।

3 months ago


Cyber crime: সাইবার ক্রাইমের নয়া ফাঁদ, প্রতারিত দুই ওষুধের দোকানের মালিক

কর্নেল পরিচয় দিয়ে প্রতারণার ফাঁদ। আর সেই প্রতারণার শিকার হলেন হুগলি শ্রীরামপুরের দুজন ওষুধের দোকানের মালিক। জানা গিয়েছে, এক হ্যাকার কর্নেল পরিচয় দিয়ে ওষুধের দোকানের মালিককে বলেন তাদের সংস্থার জন্য ওষুধ লাগবে। কথা মত সেই সংস্থায় ওষুধ পাঠিয়ে দেন ওই ওষুধের দোকানের মালিক। কিন্তু ওষুধের দাম দুই হাজার নয়শো টাকা হওয়া সত্ত্বেও কুড়ি হাজার নয়শো টাকা বিল পেমেন্টের একটা ভুয়ো স্ক্রিনশট পাঠায় হ্যাকাররা। 

এরপর ওই ওষুধের দোকানের মালিককে ফোন বাকি টাকা ফেরত দিতে বলে। তার পর ওষুধের দামটা রেখে বাকি টাকা ওই সংস্থাকে ফেরত দেন ওষুধের দোকানের মালিক। তারপর ওষুধ দোকানের মালিক ব্যাঙ্ক-এর সঙ্গে যোগাযোগ করে জানতে পারেন যে কোনও টাকাই তাঁর অ্যাকাউন্টে ঢোকেনি। অভিযোগ, বিল পেমেন্টের একটা ভুয়ো স্ক্রিনশট করে পাঠিয়েছিল প্রতারকরা। 

পাশাপাশি ওই এলাকার আরেকটা দোকানের মালিকের কুড়ি হাজার টাকা খোয়া যায়। অবশেষে ওই দুই ওষুধের দোকানের মালিক একত্র হয় শ্রীরামপুর থানায় অভিযোগ জানান। কিন্তু শ্রীরামপুর থানার সাইবার ক্রাইম দফতর থেকে তাঁদের জানানো হয় এরকম তো কতই ঘটে, এর  জন্য কী করা যেতে পারে? এখানে দশ-কুড়ি হাজার টাকার ব্যাপার, সাইবার প্রতারণার ফাঁদে পড়ে অনেকে দশ-বিশ লাখ টাকা হারিয়েছেন। এবার সাইবার প্রতারণার ফাঁদে পড়া অসহায় মানুষদের কাছে এর থেকে বড় পরিহাস কী হতে পারে?

3 months ago
Fraud: টাকা আত্মসাতের অভিযোগ শেখ শাহজাহানের বিরুদ্ধে, ঘোষপুরে বিক্ষোভ মাছের এজেন্টদের

এবার প্রকাশ্যে সন্দেশখালির বেতাজ বাদশা শেখ শাহাজাহানের বিরুদ্ধে টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠে এল প্রকাশ্যে। অভিযোগ, রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তের বাগদা মাছের এজেন্টদের থেকে কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছে পলাতক তৃণমূল নেতা শেখ শাহজাহান। টাকা ফেরতের দাবিতে এবার ঘোষপুরে বিক্ষোভ মাছের এজেন্টদের। প্রকাশ্যে আসছে তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে ক্ষোভ। কারণ, টাকা চাইলে হুমকির অভিযোগ ফেরার তৃণমূল নেতা শেখ শাহজাহানের বিরুদ্ধে।

জানা গিয়েছে, কলকাতা বাসন্তী হাইওয়ের হাড়োয়ার ঘোষপুরের কাছে একটি বাগদা মাছের কোম্পানিতে মাছ সরবরাহ করতেন পূর্ব মেদিনীপুর, পশ্চিম মেদিনীপুর, দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা, উত্তর চব্বিশ পরগনা সহ বিভিন্ন জেলার বাগদা মাছের এজেন্টরা। বিভিন্ন জায়গার পাশাপাশি, এই মাছের কোম্পানিতে এজেন্ট হিসাবে মাছ সরবরাহ করতেন, সন্দেশখালির তৃণমূল নেতা শেখ শাহজাহান। গত ২০১৮ সালে আগস্ট নাগাদ ওই কোম্পানি,  মাছের এজেন্টদের প্রায় ১০ কোটি টাকা আটকে দেয়। সেই টাকা দিতে না পারায় ওই কোম্পানিতে তালা ঝুলিয়ে দিয়েছিলেন সন্দেশখালীর তৃণমূল নেতা শেখ শাহজাহান। তারপর সমস্ত এজেন্টদের নিয়ে কোম্পানির কর্মকর্তারা বসে সিদ্ধান্ত নেন , কোম্পানিতে মজুত রাখা সমস্ত বাগদা ও গলদা চিংড়ি বিক্রি করে এজেন্টদের টাকা দেওয়া হবে। এরপর  ওই কোম্পানিতে থাকা সমস্ত মাছ নিয়ে নেন সন্দেশখালির  তৃণমূল নেতা শেখ শাহজাহান। কিন্তু তিনি মাছ নেওয়ার সময় প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন যে, মাছ অন্য কোম্পানিতে বিক্রি করে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তের এজেন্টদের টাকা দিয়ে দেবেন। এরপরেই ভোল পাল্টে যায় শেখ শাহজাহানের। মাছ বিক্রির প্রায় ৯ লক্ষ টাকা পুরোটাই আত্মসাৎ করেন শাহজাহান। সেই টাকা তাঁর  কাছে চাইতে গেলেই এজেন্টদের সঙ্গে কখনও  দুর্ব্যবহার, কখনও বা প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি পেতেন এজেন্টরা।

টাকা ফেরত এর দাবিতে রবিবার ঘোষপুরের ওই মাছের কোম্পানির সামনে বিক্ষোভে সামিল হলেন বিভিন্ন জেলার মাছের এজেন্টরা। প্রায় আধ ঘন্টা ধরে বিক্ষোভ দেখানোর পর বিক্ষোভ তুলেনেন তাঁরা। তবে টাকা দিতে না পারায় পাওনাদারের ভয়ে বাড়িছাড়া হয়েছেন, বিপদের মধ্যে রয়েছেন বলেই জানালেন এজেন্টরা। এবং সমগ্র ঘটনায় অভিযোগের তীর যে শেখ শাহজাহানের দিকেই তা বলাই বাহুল্য।

প্রসঙ্গত, সন্দেশখালির এই বেতাজ বাদশা গত ৩ সপ্তাহ ধরে পলাতক। গত ৫ জানুয়ারি রেশন দুর্নীতি কাণ্ডে শাহজাহানের বাড়িতে তল্লাশি অভিযানে গিয়েছিল ইডি। কিন্তু শেখ  শাহজাহানের দেখা পাওয়া তো দূর, উল্টে তাঁর ডেরায় ঢুকতে গিয়ে বিক্ষোভের মুখে পড়ে কেন্দ্রীয় সংস্থা ইডির আধিকারিকরা।  হামলা হয় ইডি, সিআরপিএফ এবং সংবাদ মাধ্যমের কর্মীদের ওপরেও।  তারপর থেকেই টিকিটিও মিলছে না তৃণমূলের এই নেতার। ইতিমধ্যেই শাহজাহানের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগের পাশাপাশি এবার টাকা আত্মসাতের অভিযোগও উঠে এল প্রকাশ্যে। এবার তাঁর বিরুদ্ধে ক্ষোভে ফেটে পড়লেন বিভিন্ন জেলার মাছের এজেন্টরা।

3 months ago


Burdwan: সিইবি সেজে প্রতারণার অভিযোগ, গ্রেফতার ১ অভিযুক্ত

ভুয়ো সিইবি অফিসারের পরিচয় দিয়ে ব্যবসায়ীকে প্রতারণার অভিযোগ। গ্রেফতার এক। জানা গিয়েছে, ধৃতের নাম রঞ্জিত বোস (৬০)। বাড়ি টিটাগড় থানা এলাকায়। রবিবার ধৃতকে বর্ধমান আদালতে পেশ করা  হয়। ঘটনাটি বর্ধমানের জামালপুরের।

পুলিস ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, শনিবার জামালপুরের ১৯ নম্বর জাতীয় সড়কের আঝাপুর এলাকার একটি দোকানে চারচাকা গাড়ি নিয়ে আসে অভিযুক্ত সহ আরও একজন। এরপর অভিযুক্ত নিজেকে সিইবির অফিসার হিসাবে পরিচয় দেয় এবং দোকানের ম্যানেজারের কাছ থেকে নগদ ৬০০০০ টাকা দাবি করেন। টাকা দিতে না চাইলে ওই ব্যক্তিকে হেনস্থা করা হয় বলে অভিযোগ। এরপর খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিস গিয়ে ওই ভুয়ো অফিসারকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে এবং কাগজপত্র দেখতে চায়।  

কোনো বৈধ কাগজ দেখাতে না পারার অভিযুক্ত রঞ্জিত বোসকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায় জামালপুর থানার পুলিস। এছাড়াও অভিযুক্তের গাড়িটিও আটক করেছে পুলিস। যদিও এই ভুয়ো অফিসার সেজে প্রতারণার ঘটনায় চাঞ্চল্য় ছড়িয়েছে এলাকায়। 

3 months ago
Fraud: মিজোরামে বসে ২.৫ কোটির প্রতারণা, গ্রেফতার ১ অভিযুক্ত

মিজোরামে বসে কলকাতার ব্যবসায়ীর থেকে কোটি কোটি টাকা প্রতারণার অভিযোগ এবার প্রকাশ্যে। এর পেছনে কি কোনও বড় চক্রের সম্ভাবনা রয়েছে?

পুলিস সূত্রে খবর, ফুলবাগান এলাকার ব্যবসায়ী সুশীল আগরওয়াল অভিযোগ করেন, বিপুল টাকার পণ্যসামগ্রী অর্ডার করেন লালন পুঁইয়া নামের এক ব্যক্তি। তারপর প্রথমে কিছু টাকা দিলেও, পরবর্তীতে আর টাকাই দিচ্ছিলেন না লালন। টাকার জন্য চাপ দিতেই সুশীল আগরওয়ালকে ভুয়ো ব্যাংক নথি পাঠান ব্যবসায়ী লালন পুঁইয়া। এরপরেই সুশীল আগরওয়াল ফুলবাগান থানায় একটি প্রতারণার  অভিযোগ দায়ের করেন।

প্রায় ২ কোটি ৩৫ লক্ষ টাকার প্রতারণার শিকার হয়েছেন সুশীল আগরওয়াল নামের এই ব্যবসায়ী। সুশীলের তরফে করা অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু করেছে ফুলবাগান থানার পুলিস। কিছুদিন আগে ফুলবাগান থানার পুলিসের একটি টিম প্রথমে আইজল যায়। এরপর স্থানীয় থানার পুলিসের সহযোগিতা নিয়ে মিজোরামে পৌঁছে অভিযুক্ত ব্যবসায়ী লালন পুঁইয়ার অফিসে অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করা হয় তাঁকে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে ফুলবাগান থানার পুলিস।

3 months ago
Fraud: সরকারি চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে এক লক্ষ টাকার প্রতারণার শিকার তৃণমূলের যুব নেতা

স্বাস্থ্য দফতরে ভুয়ো নিয়োগপত্র দিয়ে এক লক্ষ টাকা প্রতারণার অভিযোগ। প্রতারণার শিকার খোদ তৃণমূলের যুব নেতা। অভিযোগ, ভুয়ো তৃণমূল কর্মীর পরিচয়ে প্রতারণা করা হয়। ঘটনার পর থেকে পলাতক অভিযুক্ত ওই ভুয়ো তৃণমূল কর্মী। অভিযুক্তের সঙ্গে বিধায়ক এবং মন্ত্রীর ছবি ঘিরে শুরু বিতর্ক। প্রতারিত যুব নেতা প্রতারক তৃণমূল কর্মীর বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

জানা গিয়েছে, দক্ষিণ ২৪ পরগনার রায়দিঘি বিধানসভার পাকুড়তলার বাসিন্দা পৃথ্বীরাজ তাঁতি প্রতারণার শিকার হন। দক্ষিণ ২৪ পরগনার রায়দিঘি কলেজের তৃণমূল ছাত্র পরিষদের নেতা ছিলেন তিনি। বর্তমানে কৌতলা অঞ্চল যুব তৃণমূলের সভাপতি। গত সেপ্টেম্বর মাসে দলের কর্মসূচিতে গিয়ে আলাপ হয় পাথরপ্রতিমা বিধানসভার লক্ষ্মীজনার্দনপুর পঞ্চায়েতের মহেশপুরের বাসিন্দা প্রীতম কলার সঙ্গে। 

অভিযোগকারী যুব তৃণমূল নেতার দাবি, প্রীতম তৃণমূলের অঞ্চল সম্পাদকের পদে ছিলেন। এরপর তাঁকে স্বাস্থ্য দফতরে চাকরির টোপ দেন প্রীতম। এমনকি চার লক্ষ টাকায় গ্রুপ-‌ডি পদে চাকরি দেওয়ার জন্য স্ট্যাম্প পেপারে চুক্তি হয়। অগ্রিম ১ লক্ষ টাকা নেয় প্রীতম। এরপর কলকাতার নীলরতন সরকার হাসপাতালে গ্রুপ-‌ডি পদে চাকরির একটি নিয়োগপত্র হাতে পান পৃথ্বীরাজ। সেই নিয়োগপত্র নিয়ে নীলরতন সরকার হাসপাতালে কাজে যোগ দিতে গেলে সুপার জানিয়ে দেন এটি ভুয়ো নিয়োগপত্র। তারপরেই ফাঁস হয়ে যায় প্রতারণার জাল। 

এরপর ওই প্রতারিত নেতা কলকাতা পুলিস ও সুন্দরবন পুলিসের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযুক্ত প্রীতমের পরিবার তৃণমূল সমর্থক বলে জানান তাঁর মা রীণা কলা। তবে প্রতারণার সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করে অভিযুক্ত। 

4 months ago


Fraud: ১০০ দিনের কাজে দুর্নীতির অভিযোগ, আদালতে সরব প্রতারিত ব্য়ক্তি...

শিক্ষা, রেশনের পর এবার একশো দিনের কাজে দুর্নীতির অভিযোগ। গোটা বিষয় এফআইআর করে তদন্ত শুরু করেছে পুলিস। সূত্রের খবর, একশো দিনের বকেয়া টাকার দাবিতে চলতি মাসে দিল্লি যাবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অন্যদিকে বিজেপির পক্ষ থেকে একশো দিনের কাজে ব্যাপক দুর্নীতির অভিযোগ তুলে সরব হয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী থেকে রাজ্যের নেতারা। দক্ষিণ ২৪ পরগনার মন্দিরবাজার ব্লকের কৃষ্ণপুর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় একশো দিনের কাজে ব্যাপক দুর্নীতির ছবি প্রকাশ্যে এসেছে। ওই পঞ্চায়েত এলাকার বাসিন্দা তথা বিজেপি নেতা রণজিৎ হালদার আরটিআই করেন। সেই তথ্য হাতে আসার পর ব্যাপক বেনিয়ম প্রকাশ্যে এসেছে বলে অভিযোগ। 

যেমন মাধবপুরের বাসিন্দা মন্টু ঘোষ। তাঁর দাবি, তাঁর জবকার্ড থাকা সত্ত্বেও তিনি জানতেন না। এমনকি সেই জবকার্ডে কয়েক দফায় টাকাও তোলা হয়েছে। অভিযোগ, সেই টাকা তুলেছেন মন্টু ঘোষ নামে গ্রামেরই এক বাসিন্দা। তিনি আবার পঞ্চায়েতের অস্থায়ী কর্মী ছিলেন। এই তথ্য প্রকাশ্যে আসার পর আদালতে যান বঞ্চিত মন্টু ঘোষ। তারপর আদালত মন্দিরবাজার থানাকে এফআইআরের নির্দেশ দেন। 

অভিযুক্ত মন্টু ঘোষ জানিয়েছেন, ‘‌আমি পঞ্চায়েতে ভ্যাকসিনের কাজ করে টাকা পেয়েছি। আমার কাছে কোনো জবকার্ড নেই। আমি কাজ করেছি তাই টাকা পেয়েছি।’‌ এই বিষয়ে মন্দিরবাজারের বিডিও মাসুদ রহমান জানান, এখনও পর্যন্ত ব্লক প্রশাসনের কাছে এই ধরনের লিখিত অভিযোগ জমা পড়েনি। তবে অভিযোগ পেলে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে। ইতিমধ্যে একাধিক জামিন অযোগ্য ধারায় মামলা করে তদন্ত শুরু করেছে মন্দিরবাজার থানা।

4 months ago
Alipore: বিপাকে নুসরত! আবাসন প্রতারণা মামলার শুনানি, নুসরত জাহানের হাজিরা নিয়ে জল্পনা

আবাসন প্রতারণা মামলায় অভিযুক্তদের মধ্যে একজন সাংসদ অভিনেত্রী নুসরত জাহান। সেভেন সেন্সেস ইনফাস্ট্রাকচার প্রাইভেট লিমিটেড নামে একটি কোম্পানির ডিরেক্টর ছিলেন তিনি। সেই কোম্পানি থেকেই প্রবীণ নাগরিকদের কাছ থেকে ২০১৪-১৫ সালে প্রায় সাড়ে পাঁচ লক্ষ টাকা করে নেওয়া হয়েছিল বিনিময় ১০০০ বর্গফুটের ফ্ল্যাট দেওয়ার প্রতিশ্রুতিও দেওয়া হয়েছিল। তবে না তাঁরা পেয়েছেন ফ্ল্যাট। না ফেরত দেওয়া হয়েছে তাঁদের টাকা। তাই প্রতারিতরা আদালতে এই আবাসন প্রতারণা নিয়ে মামলা দায়ের করেন। এখান থেকেই এই মামলায় জড়িয়ে পড়েন নুসরত। তবে মামলায় আদালতে যাতে তাঁকে হাজিরা না দিতে হয় তাঁর আবেদন জানিয়েছিলেন সাংসদ। সোমবার আলিপুর জজ কোর্টে নুসরতের হাজিরা নিয়ে চলল দুই পক্ষের সওয়াল।

দুপক্ষের সওয়ালে প্রতারিতদের আইনজীবীর তরফে জানানো হয়, মামলায় অন্তত একবার নসরত জাহানকে আদালতে হাজিরা দিতে বলা হোক। নুসরত যেন অন্ততপক্ষে বন্ড জমা দেন, তারপরেই আদালতের নির্দেশে তাঁর হাজিরা দেওয়ার বিষয়টি আইনানুগ হবে। আদালতের প্রয়োজনে যেন তাঁকে পাওয়া যায়- এই আবেদন জানান প্রতারিতদের আইনজীবী।

পাল্টা সরকারি আইনজীবী জানান, নিম্ন আদালতের রায় ছিল, নুসরতকে প্রতিদিন আদালতে আসতে হবে না। শুধুমাত্র ৩১৩ সিআরপিসি, চার্জ ফ্রেম গঠনের দিন উপস্থিত থাকলেই হবে।

সোমবার আলিপুর জজ কোর্টে আবাসন প্রতারণা মামলা নিয়ে এভাবেই দুই পক্ষের সওয়াল-জবাব শোনেন বিচারক। নুসরত জাহানকে মামলায় হাজিরা দিতে হবে কিনা, এই নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে পরবর্তী শুনানির দিন, অর্থাৎ ২২ ডিসেম্বর। সেদিনই বোঝা যাবে আবাসন প্রতারণা মামলায় আরও বিপাকে পড়লেন কিনা নুসরত জাহান।

4 months ago


Fraud: কিউআর স্ক্যান করে পেমেন্ট! ওটিপি ছাড়াই ব্যবসায়ীর ব্যাঙ্ক থেকে উধাও লক্ষাধিক টাকা

কিউআর স্ক্যান করে টাকা পেমেন্ট করার কয়েক মিনিটের মধ্যেই অ্যাকাউন্ট থেকে গায়েব লক্ষাধিক টাকা। কলকাতার বেসরকারি হাসপাতালে কিউআর হ্যাকিং-এর অভিযোগ। এবার নতুন প্রতারণার শিকার হলেন পূর্ব মেদিনীপুর জেলার ময়নার এক ব্যবসায়ী।

জানা গিয়েছে, কোনও ওটিপি, কোনও ফোন বা ম্যাসেজ, কোনও লেনদেন ছাড়াই দশ মিনিটে দুটো ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে দফায় দফায় লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিল হ্যাকাররা। শশাঙ্ক সামন্ত কলকাতার ফুলবাগানের বেসরকারি হাসপাতালে নিজের চেকআপ করার জন্য অনলাইনে কিউআর কোড স্ক্যান করে টাকা পেমেন্ট করেন। তার পরেই দশ মিনিটের মধ্যেই মেছেদা স্টেট ব্যাঙ্ক ও কোলাঘাটের ইউকো ব্যাঙ্ক-এর অ্যাকাউন্ট থেকে প্রায় এক লক্ষ ছয় হাজার টাকা গায়েব হয়ে যায়। তবে টাকা লেনদেনের কোনও ওটিপি ফোনে আসেনি। শুধু তাঁর দুটি অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা তুলে নেওয়ার এসএমএস আসে ফোনে।

ব্যবসায়ী জানিয়েছেন, যে অ্যাকাউন্টে টাকা ক্রেডিট হয়েছে, সেই অ্যাকাউন্ট গুলি দিল্লি, মুম্বই রাজস্থানের। এই নিয়ে ব্যবসায়ী শশাঙ্ক সামন্ত সাইবার ক্রাইম থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। দুটি ব্যাঙ্কের ম্যানেজার কেও লিখিত জানিয়েছেন। এই নিয়ে ব্যাবসায়ী মহলে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। পুলিস তদন্ত শুরু করেছে।

প্রশ্ন উঠছে, বেসরকারি হাসাতালের নিজস্ব কিউআর স্ক্যানারে টাকা পেমেন্ট করার পরে কিভাবে হ্যাকাররা সেই কিউআর হ্যাক করে টাকা গায়েব করছে। অনলাইন পেমেন্ট কতটা সুরক্ষিত তা নিয়েও প্রশ্ন উঠছে।

4 months ago
Fraud: ডিজি রেঙ্ক-এর অফিসারদের নামে ভুয়ো ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খুলে আর্থিক প্রতারণা, গ্রেফতার ১

সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে রয়েছে প্রতারণার ফাঁদ। ডিজি রেঙ্ক-এর অফিসারদের নামে ভুয়ো ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খুলে তাদের নিচু তলার অফিসারদের ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠিয়ে সমস্যার কথা জানিয়ে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ সামনে এসেছে। আর এই প্রতারণা চক্রের তদন্তে নেমে এক পাণ্ডাকে গ্রেফতার করেছে বিধাননগর সাইবার ক্রাইম থানার পুলিস। সূত্রের খবর, রাজস্থান থেকে তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অভিযুক্তের নাম, রাহিস। তিনদিনের ট্রানজিট রিমান্ডে তাঁকে নিয়ে আসা হয়েছে। আজ, শনিবার তাঁকে বিধাননগর মহকুমা আদালতে তোলা হয়।

পুলিস সূত্রে খবর, বিধাননগর সাইবার ক্রাইম থানার পুলিসের নজরে আসে রাজ্য পুলিসের ডিজি মনোজ মালব্যের নামে একটি ভুয়ো ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খোলা হয়েছে। সেখান থেকে তাঁর নিচু তলার কর্মীদেরকে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠানো হচ্ছে। যারা এই ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট একসেপ্ট করছেন তাঁদেরকে মেসেঞ্জারে এসএমএস করা হচ্ছে যে, তিনি একটি মিটিংয়ে রয়েছেন ফোন করতে পারছেন না। সমস্যার মধ্যে পড়েছেন, তাঁর টাকার প্রয়োজন। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব সেই টাকা পাঠিয়ে দেওয়ার জন্য। এই বিষয়টি নজরে আসতেই বিধাননগর সাইবার ক্রাইম থানার পুলিস ২৮ অগাস্ট একটি সুয়ো মোটো কেস করেন। তদন্ত শুরু করে বিধাননগর সাইবার ক্রাইম থানার পুলিস। 

তদন্তে নেমে জানতে পারে, এই চক্রটি রাজস্থান থেকে চালানো হচ্ছে। এরপরেই বিধাননগর সাইবার ক্রাইম থানার পুলিসের একটি টিম রাজস্থান গিয়ে অভিযুক্ত যুবক রাহিসকে গ্রেফতার করে। তিন দিনের ট্রানজিট রিমান্ডে তাঁকে বিধাননগর সাইবার ক্রাইম থানার পুলিস নিয়ে আসে। জিজ্ঞাসাবাদে পুলিস জানতে পারে শুধু এই রাজ্যে নয়, বিভিন্ন রাজ্যের ডিজি র‍্যাঙ্কের অফিসারদের ফেক ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খুলে নিচু তলার কর্মীদেরকে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠানো হত। যারা ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট একসেপ্ট করতো তাদের কাছে বিভিন্ন অজুহাতে টাকা নেওয়া হত। এইভাবে বিভিন্ন মানুষের কাছ থেকে এই যুবক প্রতারণা করেছে। পুলিস মনে করছে এই চক্রের সঙ্গে একটি বড় গ্যাং রয়েছে। সেই বিষয়ে জানতে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। বিধান নগর মহাকুমা আদালতে তুলে আজ তাকে পুলিস হেফাজতে নেওয়ার আবেদন জানিয়েছে পুলিস।

5 months ago
Fraud: ভুয়ো সিবিআইয়ের পরিচয়ে এক লক্ষ টাকা ছিনতাইয়ের অভিযোগ

শহরে নতুন প্রতারণার ফাঁদ। সিবিআই পরিচয় দিয়ে এবার সক্রিয় প্রতারকের গ্য়াং। বুধবার এমনই এক প্রতরণার শিকার হলেন টেগোর স্ট্রিট এলাকার এক ব্যবসায়ী। অভিযোগ, ভুয়ো সিবিআইয়ের পরিচয়ে এক লক্ষ টাকা লুঠ করা হয়েছে। যদিও এখনও পর্যন্ত অভিযুক্তদের কোনও খোঁজ পাওয়া যায়নি। তবে ইতিমধ্য়ে অভিযুক্তদের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিস। 

জানা গিয়েছে, এদিন সকালে ওই ব্য়বসায়ী তাঁর কর্মচারীর হাতে টাকার ব্য়াগ দিয়ে পাঠায় গন্ত্যব্যে পৌছে দেওয়ার জন্যে। এরপর যাওয়ার পথে টেগোর স্ট্রিটের কাছে কয়েকজন সিবিআই পরিচয় দিয়ে সেই কর্মীকে ঘিরে ধরে। এরপর ওই কর্মীর কাছ থেকে তাঁর ব্য়াগ ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে ওই ভুয়ো সিবিআইয়ের দল। অভিযোগ, এরপর ওই কর্মী ব্য়াগ দিতে অস্বীকার করলে তাঁর কাছ থেকে জোরপূর্বক ব্য়াগ ছিনিয়ে নিয়ে চম্পট দেয় ওই ভুয়ো সিবিআইয়ের দল। জানা গিয়েছে, ছিনতাই যাওয়া ব্য়াগের ভিতরে এক লক্ষ টাকা ছিল। 

এরপর ছিনতাইয়ের অভিযোগে পোস্তা থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়। অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিস এই গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। তবে এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ব্য়াপক আতঙ্ক ছড়িয়েছে এলাকায়। 

5 months ago


Fraud: সেনা কর্মীর পরিচয় দিয়ে প্রতারণার অভিযোগে গ্রেফতার, বৃদ্ধের ব্যাংক থেকে উধাও দেড় লক্ষ টাকা

সেনা কর্মীর পরিচয় দিয়ে সল্টলেক ডিএল ব্লকের বৃদ্ধের সঙ্গে প্রতারণা। মধ্যপ্রদেশের উজ্জয়ন থেকে গ্রেফতার অভিযুক্ত অভিষেক মাকওয়ানা। গ্রেফতার করল বিধাননগর সাইবার ক্রাইম থানার পুলিস।

পুলিস সূত্রে খবর,  ২০২৩ সালের জানুয়ারি মাসে সোশ্যাল মিডিয়ায় বাড়ি ভাড়া দেওয়ার বিজ্ঞাপন দেন সল্টলেক ডিএল ব্লকের বাসিন্দা সুশীল কুমার। অভিযোগ,  বিজ্ঞাপন দেখে নিজেকে সেনা কর্মীর পরিচয় দিয়ে সুশীল বাবুর সঙ্গে ফোন মারফত যোগাযোগ করেন অভিযুক্ত ব্যক্তি। ওই ব্যক্তি বাড়ি ভাড়া নিতে আগ্রহ প্রকাশ করেন।

তিনি জানান, চাকরির ট্রান্সফারের কারণে তাঁর সল্টলেকেই বাড়ি ভাড়া খুঁজছেন।এরপরই কথোপকথনের মাধ্যমে বাড়ি ভাড়া দিতে সম্মতি জানান বৃদ্ধ। ওই ব্যক্তি অগ্রিম ভাড়া অনলাইন ট্রানজেকশনের মাধ্যমে দেবেন বলে জানান। সেইমতো বৃদ্ধকে কিউ আর কোড পাঠাতে বলেন। সেই মত বৃদ্ধ থাকে নিজের ব্যাংক একাউন্টের কিউআর কোড পাঠান।এরপরই বৃদ্ধের ব্যাংক একাউন্ট থেকে দেড় লক্ষ টাকা উধাও হয়ে যায়। প্রতারিত হয়েছেন বুঝতে পেরে বৃদ্ধ বিধাননগর সাইবার থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন ফেব্রুয়ারি মাসে। অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু করে সাইবার ক্রাইম থানার পুলিস।

তদন্তে নেমে মধ্যপ্রদেশের উজ্জয়ন থেকে গ্রেফতার করা হয় অভিযুক্ত অভিষেক মাকওয়ানাকে। তাঁকে চার দিনের ট্রানজিট রিমান্ডে নিয়ে আসা হয় বিধাননগর সাইবার ক্রাইম থানায়।আজ, সোমবার অভিযুক্তকে বিধান নগর মহকুমা আদালতে তোলা হয়। পুলিস খতিয়ে দেখবে এই ঘটনার সঙ্গে অন্য কোনও চক্র জড়িত রয়েছে কিনা।

5 months ago
Fraud: প্রশাসনের ওপর 'বাটপারি', প্রতারণা চক্রের 'শিখণ্ডী' ভুয়ো আইডি

চোরের ওপর বাটপারি তো শুনেইছেন, কিন্তু এবার খোদ প্রশাসনের ওপর বাটপারি। বাংলায় মাকড়সার জালের মতো ছড়াচ্ছে সাইবার প্রতারণার ছক। প্রতি মুহূর্তে নিত্য নতুন কৌশল। এবার খোদ মহকুমা শাসকের নামে সমাজমাধ্যমে ফেক আইডি খুলে আর্থিক প্রতারণার জাল। প্রতারকদের কাণ্ডে হতবাক, আতঙ্কিত পশ্চিম মেদিনীপুরের ঘাটাল। 

দেখতে হুবহু ঘাটাল মহকুমা শাসকের আসল আইডির মতো। ফেসবুক ছেড়ে প্রতারকরা ঢুকে পড়েছে হোয়াটস্অ্যাপের অন্দরমহলেও। অভিযোগ, মহকুমা শাসকের ফেক আইডি থেকেই অত্যন্ত কম দামে বিভিন্ন দ্রব্য বিক্রির মেসেজ যাচ্ছে। ফাঁদে পা দিলেই আগাম পেমেন্টের শর্ত রাখা হচ্ছে। মহকুমা শাসক ভেবে অনেকেই প্রতারকদের জালে জড়াচ্ছেন। 

শুধু ঘাটালের মহকুমা শাসকই নয়, চলতি মাসেই একই অভিযোগ উঠে এসেছিল পুরুলিয়া থেকে। একই ধাঁচে পুরুলিয়া পুলিস সুপারের নামে ফেক অ্যাকাউন্ট খুলে প্রতারণা জাল ছড়ানোর অভিযোগে গ্রেফতার হয় ২ প্রতারক। প্রাথমিক তদন্তে অনুমান ছিল, রাজ্য ছাড়িয়ে প্রতারণার জাল ছড়াতে পারে মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থানেও। শুধু প্রশাসনিক ব্যবস্থাই নয়, মানুষ সজাগ হোক, সাইবার সচেতন হোক। বার্তা অধিকর্তাদের। 

কাজের ফাঁকে, আনমনে আঙুলটা চলেই যায় ফোনের স্ক্রিনে। সমাজমাধ্যমের হরেক রকম ডালা থেকে নজর ঘোরাতে পারে না ৮ থেকে ৮০। যন্ত্র নির্ভর, ভার্চুয়াল এই জীবনযাপনের সুযোগই নিচ্ছে প্রতারকের দল। ২ পা এগোনোর আগে সাইবার স্বাক্ষরতা প্রয়োজন। 

5 months ago