Breaking News
BJP: ইস্তেহার প্রকাশ বিজেপির, 'এক দেশ এবং এক ভোট' লাগু করার প্রতিশ্রুতি      Fire: দমদমে ঝুপড়িতে বিধ্বংসী অগ্নিকাণ্ড, ঘটনাস্থলে দমকলের একাধিক ইঞ্জিন      Bengaluru Blast: বেঙ্গালুরু ক্যাফে বিস্ফোরণকাণ্ডে কাঁথি থেকে দুই সন্দেহভাজনকে গ্রেফতার করল এনআইএ      Sheikh Shahjahan: 'সিবিআই হলে ভালই হবে', হঠাৎ ভোলবদল শেখ শাহজাহানের      CBI: সন্দেশখালিকাণ্ডে সিবিআই তদন্তের নির্দেশ কলকাতা হাইকোর্টের...      NIA: ভূপতিনগর বিস্ফোরণকাণ্ডে এবার কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ NIA      ED: অবশেষে ইডির স্ক্যানারে চন্দ্রনাথের 'মোবাইল-হিস্ট্রি', খুলতে পারে নিয়োগ দুর্নীতি রহস্যের জট      PM Modi: তৃণমূল মানেই দুর্নীতি-লুট! ভোট প্রচারে সন্দেশখালির পর ভূপতিনগর নিয়ে সরব মোদী      NIA: ভূপতিনগর বিস্ফোরণকাণ্ডে গ্রেফতার আরও ২ , কেন্দ্রীয় এজেন্সির উপর হামলার ঘটনায় উদ্বিগ্ন কমিশন      Sheikh Shahjahan: বিজেপির 'দালাল'রা তাঁর বিরুদ্ধে মিথ্যে বলছে, দাবি শেখ শাহজাহানের     

FactFindingTeam

Sandeshkhali: সন্দেশখালিতে ফের ফ্য়াক্ট ফাইন্ডিং টিম, শুনবে মহিলা ও বাসিন্দাদের কষ্টের কথা

সন্দেশখালিতে এবার ছয় সদস্য়ের কেন্দ্রীয় ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং টিম। সন্দেশখালির অত্য়াচারিত মহিলাদের এবং স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলতে যাচ্ছে তাঁরা। রবিবার সকালে সাড়ে আটটা নাগাদ কলকাতা বিমানবন্দর থেকে সরাসরি সন্দেশখালির উদ্দেশ্যে রওনা হন তাঁরা। ইতিমধ্য়ে ধামাখালিতে প্রবেশ করেছেন ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং টিম। পুলিসের সঙ্গে কথা বললেন তাঁরা।

গত বুধবার শেখ শাহজাহান গ্রেফতারের পর আজ, রবিবার তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মী সভা। এই কর্মীসভাতে উপস্থিত থাকার কথা তৃণমূল কংগ্রেস-এর শীর্ষ নেতৃত্বের। বিগ্রেডের আগে সন্দেশখালিতে এই কর্মী সভার মধ্য দিয়ে কতটা শক্তি তা বুঝে নিতে চাইবে তৃণমূল কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্ব। ড্যামেজ কন্ট্রোলে বারংবার ছুটেছেন সন্দেশখালি তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব। 

কিন্তু শাহজাহানের গ্রেফতারের আগে সন্দেশখালির পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে রামপুরে গিয়েছিল বিজেপির ফ্য়ক্ট ফাইন্ডিং টিম। কিন্তু সন্দেশখালি প্রবেশের আগেই বাধা পায় বিজেপি ওই প্রতিনিধির দলটি। ব্য়ারিকেড করে বাধা দেওয়া হয়েছিল ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং টিমকে। প্রতিবাদে রামপুরের রাস্তায় বসে পড়েছিলেন ওই প্রতিনিধি দলটি। তারপরেই শুরু হয়েছিল বিজেপি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বচসা পুলিসের। 

a month ago
Sandeshkhali: সন্দেশখালি ঢুকতে বাধা, ভোজেরহাটেই দিল্লির ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং টিমকে আটকাল পুলিস

সন্দেশখালির পরিস্থিতির উপর টানা নজর রেখে চলেছে জাতীয় নির্বাচন কমিশন। রবিবার  সন্দেশখালি যাওয়ার পথে পুলিসি বাধার মুখে পড়ে দিল্লির স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং টিম। ভোজেরহাটে আটকে দেওয়া হল তাদের। রাস্তায় বসে বিক্ষোভ ওই প্রতিনিধি দলের সদস্যদের। টেনেহিঁচড়ে প্রিজন ভ্যানে তোলা হয়। গ্রেফতার করে নিয়ে যাওয়া হয় ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং টিমের সদস্যদের বলে সূত্রের খবর। কেন সন্দেশখালি যেতে বাধা দেওয়া হচ্ছে, প্রশ্ন তাদের।

এদিকে, দিল্লি থেকে চেয়ে পাঠানো হলো সন্দেশখালির প্রতিদিনকার রিপোর্ট। প্রধান নির্বাচন কমিশনার সহ কমিশনের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চ আগামী ৪ মার্চ রাজ্যে আসার কথা রয়েছে। ৫ই মার্চ তারা বৈঠক করবে সমস্ত রাজনৈতিক দল ও জেলা প্রশাসনের সঙ্গে।

প্রতিদিনই উত্তপ্ত হচ্ছে সন্দেশখালি। আইন শৃঙ্খলার পরিস্থিতি অবনতি হওয়ায় জারি করতে হয়েছে ১৪৪ ধারা। রাজ্য মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক অফিস সূত্রে খবর, প্রতিদিনই সন্দেশখালি নিয়ে রিপোর্ট পাঠানো হচ্ছে জাতীয় নির্বাচন কমিশনে। একই সঙ্গে সূত্র মারফত জানা গিয়েছে, চিফ ইলেকশন কমিশনার বৃহস্পতিবারই সিআরপিএফের নোডাল অফিসারের সাথে দীর্ঘ বৈঠক সেরেছেন নির্বাচনের কথা মাথায় রেখে।

গত জানুয়ারি মাসে রেশন দুর্নীতিকাণ্ডে তল্লাশি করতে গিয়ে ইডির আধিকারিকদের কার্যত রক্তাক্ত হয়ে খালি হাতে ফিরতে হয়েছিল কলকাতায়। তারপর থেকে দফায় দফায় উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে সন্দেশখালি। স্থানীয়দের তরফে একাধিক অভিযোগ জমা করা হয়েছে পুলিস প্রশাসনের হাতে। শেখ শাহজাহানের গ্রেফতারির দাবিতে পথে নেমেছেন সন্দেশখালির মহিলারাও। নির্যাতনের কথা জানিয়েছেন প্রকাশ্যে। থানায় অভিযোগও দায়ের করেছেন। এখন অপেক্ষার কবে শান্ত হয় সন্দেশখালি।

2 months ago
Rishra: রিষড়ার পথে কেন্দ্রীয় দলকে আটকালো পুলিস, কেন্দ্র-রাজ্য সংঘাত চরমে

কেন্দ্র-রাজ্য সংঘাত কিন্তু চরমেই, রিষড়ায় (Rishra Violence) হিংসার ঘটনায় একটি ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং (Fact Finding) কমিটি গঠন করা হয়। সেই কমিটির একটি টিমকে বাংলায় পাঠানো হয়। রিষড়ার হিংসার কারণ এবং ওই হিংসার পিছনে লুকিয়ে থাকা সমস্ত তথ্য সংগ্রহ করতে, তাদের পাঠানো হয়েছে বলে সূত্রের খবর। কিন্তু ওই টিমকে আটকে দিল রাজ্যের পুলিস। অভিযোগ শনিবার ওই দলটি রিষড়ার যাওয়ার পথে, কোন্নগরে তাদের আটকে দিল পুলিস। ওই দলের তরফে অভিযোগ, তাঁরা সমস্ত অনুমতি নিয়েই রিষড়ার ঘটনাস্থলে যাচ্ছিলেন, কিন্তু পথে তাদের বাধা দেয় পুলিস।

শনিবার ওই ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং টিম, রিষড়ার ঘটনাস্থল ছাড়াও কথা বলবেন ওই ঘটনায় আহত ব্যক্তিদের সঙ্গে। সূত্রের খবর, আহতরা এখনও এসএসকেএমে ভর্তি আসে, ফলে সেখানেও যাওয়ার কথা তাদের। কিন্তু পুলিসের বাধার মুখে পড়ে তারা রিষড়াতেই পৌঁছতে পারলো না শনিবার। এ ঘটনায় যদিও রাজ্য পুলিসের তরফে দাবি করা হয়েছে, ১৪৪ ধারা জারি আছে বলে ওখানে তাদের যেতে দেওয়া হয়নি। যদিও এ ঘটনায় রাজ্যের চাল দেখছে বিজেপির নেতৃত্বরা, তাদের দাবি, আসল দোষীদের আড়াল করার জন্যই এই সব বলছে পুলিস।

প্রসঙ্গত, শনিবার হাইকোর্টে রিষড়ার ঘটনায় প্রাথমিক রিপোর্ট দিল পুলিস, ওই রিপোর্টে বলা রয়েছে সেদিন রামনবমীর যে মিছিল বের হয়েছিল সেই মিছিলের যারা অংশগ্রহণকারী ছিলেন এবং স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে গণ্ডগোলের জেরে অগ্নিগর্ভ হয়েছিল পরিস্থিতি। পুলিসের রিপোর্টে দাবি, মিছিল থেকে গালিগালাজ করা হয় স্থানীয়দের দিকে। অস্ত্র দেখানো হয়, এমনকি ডিজে বাজিয়ে নাচ করা হয় মিছিল থেকে।

12 months ago


SSKM: রাতের অগ্নিকাণ্ডের পর স্বাভাবিক ছন্দে এসএসকেএম, কারণ খুঁজতে ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি

বৃহস্পতিবার রাতে আচমকাই ভয়াবহ আগুন লাগে এসএসকেএমে (SSKM)। জানা যায়, বুধবার রাতে সিটি স্ক্যান বিভাগের একাংশে আগুন লাগে। আগুনের লেলিহান শিখা দেখতে পেয়েই আতঙ্ক (panic) ছড়ায় হাসপাতালে থাকা রোগীদের মধ্যে। এমনকি জরুরি বিভাগের (emergency department) কাছেও আগুন লেগে যায়। ঘটনার পরই উত্তেজনা ছড়িয়েছিল হাসপাতালে (hospital)। দমকলের চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়েছে। তবে এর দায় কার, রোগী সুরক্ষা কোথায়? এই একাধিক প্রশ্ন এখন উঠতে শুরু করেছে।

হাসপাতাল সূত্রে খবর, ইতিমধ্যেই সুপার পীযুষ কুমার রায়-এর নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। প্রশাসনিক আধিকারিক এবং রেডিওলজি বিভাগের চিকিৎসক মিলিয়ে মোট ৫ সদস্যের কমিটি। কেন হল এমন পরিস্থিতি তা মূলত খতিয়ে দেখা হবে। তবে প্রাথমিকভাবে যান্ত্রিক ত্রুটি বলে মনে হচ্ছে না হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের। পাশাপাশি বৃহস্পতিবারই ৬ সদস্যের একটি ফরেন্সিক টিম হাসপাতালে এসে হাজির হয়। ঘটনাস্থলে কলকাতা গোয়েন্দা বিভাগের ২ জনের একটি টিমও উপস্থিত রয়েছে। একইসঙ্গে এমার্জেন্সি বিভাগের বিভিন্ন সিসিটিভি ক্যামেরা খতিয়ে দেখা হয়।

প্রসঙ্গত, বুধবার রাতে আগুনকাণ্ডের জেরে খানিকটা হলেও ব্যাহত হয়েছিল পরিষেবা। রাতভর চেষ্টার পর আগুন এখন নিয়ন্ত্রণে। অন্যদিকে, যে অংশে ইউএসজি রক্ত পরীক্ষা সহ অন্যান্য পরীক্ষার জন্য রোগী পরিবারের লোকজন দাঁড়ায় তাঁদেরকে নির্দিষ্ট সময় নির্দিষ্ট জায়গায় দাঁড়াতে বলেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। রোজকার মতো শুক্রবারও নমুনা সংগ্রহ করা হচ্ছে রোগীদের কাছ থেকে। ধীরে ধীরে স্বাভাবিক ছন্দে ফিরছে এসএসকেএম। 

one year ago