Breaking News
Abhishek Banerjee: বিজেপি নেত্রীকে নিয়ে ‘আপত্তিকর’ মন্তব্যের অভিযোগ, প্রশাসনিক পদক্ষেপের দাবি জাতীয় মহিলা কমিশনের      Convocation: যাদবপুরের পর এবার রাষ্ট্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়, সমাবর্তনে স্থগিতাদেশ রাজভবনের      Sandeshkhali: স্ত্রীকে কাঁদতে দেখে কান্নায় ভেঙে পড়লেন 'সন্দেশখালির বাঘ'...      High Court: নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় প্রায় ২৬ হাজার চাকরি বাতিল, সুদ সহ বেতন ফেরতের নির্দেশ হাইকোর্টের      Sandeshkhali: সন্দেশখালিতে জমি দখল তদন্তে সক্রিয় সিবিআই, বয়ান রেকর্ড অভিযোগকারীদের      CBI: শাহজাহান বাহিনীর বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ! তদন্তে সিবিআই      Vote: জীবিত অথচ ভোটার তালিকায় মৃত! ভোটাধিকার থেকে বঞ্চিত ধূপগুড়ির ১২ জন ভোটার      ED: মিলে গেল কালীঘাটের কাকুর কণ্ঠস্বর, শ্রীঘই হাইকোর্টে রিপোর্ট পেশ ইডির      Ram Navami: রামনবমীর আনন্দে মেতেছে অযোধ্যা, রামলালার কপালে প্রথম সূর্যতিলক      Train: দমদমে ২১ দিনের ট্রাফিক ব্লক, বাতিল একগুচ্ছ ট্রেন, প্রভাবিত কোন কোন রুট?     

DC

High Court: অনুমোদনহীন অন্তত ১৫ টি বিএড কলেজ! মামলার পরবর্তী শুনানি ছয় সপ্তাহ পর

মেয়েকে বিএড কলেজে ভর্তি করতে গিয়ে অনিয়মের খোঁজ। মামলাকারী দেখেছিলেন, কলেজ যেখানে থাকার কথা সেখানে নেই। রয়েছে অন্যত্র। দেখে সন্দেহ হওয়ায় খোঁজ করতে গিয়ে এরকম আরও ছয়টি কলেজের সন্ধান পান মামলাকারী। অভিযোগ,  কলেজগুলি বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদন না নিয়েই ভর্তি নিচ্ছে।

মামলাকারীর আইনজীবী দেবযানী সেনগুপ্তর অভিযোগ, এনসিটিই গাইডলাইন অনুসরণে এইসব কলেজ স্থাপন করা যায়। নিজস্ব বাড়ি ও অন্যান্য সুযোগ সুবিধা থাকা সেখানে বাধ্যতামূলক। সেগুলি ঠিকঠাক থাকলে তবেই রাজ্য সরকার সেই প্রতিষ্ঠানকে নো অবজেকশন সার্টিফিকেট দেয়। তারপর সংশ্লিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অ্যাফিলিয়েশন বা অনুমোদন দিতে হয়। কিন্তু এই কলেজগুলির ক্ষেত্রে তা অনুসরণ করা হয়নি।

বিশ্ববিদ্যালয় জানায়, এমন অন্তত ১৫ টি কলেজ আছে, যেগুলির অনুমোদনের নবীকরণ পর্ব চলছে এখনও।

সবটা শোনার পর বিচারপতির মন্তব্য, বিষয়টি অত্যন্ত গুরুতর। সর্বাধিক প্রচারিত একটি বাংলা ও একটি ইংরেজি সংবাদপত্রে বিশ্ববিদ্যালয়কে দুই সপ্তাহের মধ্যে বিজ্ঞাপন দেওয়ার নির্দেশ দেন বিচারপতি। সেখানে বিশ্ববিদ্যালয়কে উল্লেখ করতে হবে, কোন কোন কলেজের অনুমোদন আছে। স্পষ্টত বিচারপতির নির্দেশ, অনুমোদনহীন কলেজে ছাত্র ভর্তি করা যাবে না। আদালতের নির্দেশে মামলার পরবর্তী শুনানি আগামী ছয় মাস পর।

4 months ago
Alipore: বিপাকে নুসরত! আবাসন প্রতারণা মামলার শুনানি, নুসরত জাহানের হাজিরা নিয়ে জল্পনা

আবাসন প্রতারণা মামলায় অভিযুক্তদের মধ্যে একজন সাংসদ অভিনেত্রী নুসরত জাহান। সেভেন সেন্সেস ইনফাস্ট্রাকচার প্রাইভেট লিমিটেড নামে একটি কোম্পানির ডিরেক্টর ছিলেন তিনি। সেই কোম্পানি থেকেই প্রবীণ নাগরিকদের কাছ থেকে ২০১৪-১৫ সালে প্রায় সাড়ে পাঁচ লক্ষ টাকা করে নেওয়া হয়েছিল বিনিময় ১০০০ বর্গফুটের ফ্ল্যাট দেওয়ার প্রতিশ্রুতিও দেওয়া হয়েছিল। তবে না তাঁরা পেয়েছেন ফ্ল্যাট। না ফেরত দেওয়া হয়েছে তাঁদের টাকা। তাই প্রতারিতরা আদালতে এই আবাসন প্রতারণা নিয়ে মামলা দায়ের করেন। এখান থেকেই এই মামলায় জড়িয়ে পড়েন নুসরত। তবে মামলায় আদালতে যাতে তাঁকে হাজিরা না দিতে হয় তাঁর আবেদন জানিয়েছিলেন সাংসদ। সোমবার আলিপুর জজ কোর্টে নুসরতের হাজিরা নিয়ে চলল দুই পক্ষের সওয়াল।

দুপক্ষের সওয়ালে প্রতারিতদের আইনজীবীর তরফে জানানো হয়, মামলায় অন্তত একবার নসরত জাহানকে আদালতে হাজিরা দিতে বলা হোক। নুসরত যেন অন্ততপক্ষে বন্ড জমা দেন, তারপরেই আদালতের নির্দেশে তাঁর হাজিরা দেওয়ার বিষয়টি আইনানুগ হবে। আদালতের প্রয়োজনে যেন তাঁকে পাওয়া যায়- এই আবেদন জানান প্রতারিতদের আইনজীবী।

পাল্টা সরকারি আইনজীবী জানান, নিম্ন আদালতের রায় ছিল, নুসরতকে প্রতিদিন আদালতে আসতে হবে না। শুধুমাত্র ৩১৩ সিআরপিসি, চার্জ ফ্রেম গঠনের দিন উপস্থিত থাকলেই হবে।

সোমবার আলিপুর জজ কোর্টে আবাসন প্রতারণা মামলা নিয়ে এভাবেই দুই পক্ষের সওয়াল-জবাব শোনেন বিচারক। নুসরত জাহানকে মামলায় হাজিরা দিতে হবে কিনা, এই নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে পরবর্তী শুনানির দিন, অর্থাৎ ২২ ডিসেম্বর। সেদিনই বোঝা যাবে আবাসন প্রতারণা মামলায় আরও বিপাকে পড়লেন কিনা নুসরত জাহান।

6 months ago
Maldah: কাটমানি না দেওয়ায় সরকারি সহায়তা থেকে বঞ্চিত চাঁচলের বৃদ্ধ দম্পতি!

দুরবস্থার মধ্যে আর্থিক অনাহারে দিন কাটছে বৃদ্ধ দম্পতি। অভিযোগ, কাটমানি না দেওয়ার কারণে মেলেনি কোনও সরকারি সাহায্য। কিন্তু বহু ক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে সেইসব প্রকল্পের সুবিধা প্রকৃত উপভোক্তারাই পাচ্ছেন না। প্রকল্পের সুবিধা পাওয়ার ক্ষেত্রে প্রধান অন্তরায় হয়ে দাঁড়াচ্ছে কাটমানি। এমনই এক দুর্দশাগ্রস্থ পরিবারের ছবি সামনে এসেছে মালদহের চাঁচল সদর এলাকায়। যারা সরকারের প্রায় সব প্রকল্প থেকেই বঞ্চিত। 

জানা গিয়েছে, চাঁচল মহকুমা আদালতের পিছনে আমলাপাড়ায় বাস করেন ষাটোর্ধ্ব দম্পতি আনিসুর রহমান এবং বুলো দাস। একমাত্র ছেলে থাকা সত্ত্বেও তাঁর পরিবার নিয়ে অন্যত্র থাকে সে। বাবা-মায়ের সঙ্গে সম্পর্ক নেই। একসময় জমিতে দিনমজুরি করে সংসার চালাতেন। কিন্তু বয়সের ভারে সেই কাজও করতে পারেন না এখন। 

জরাজীর্ণ ভগ্নপ্রায় মাটির বাড়ির এক পাশে রয়েছে ছোট্ট গোয়ালঘর। সেই গোয়াল ঘরে রয়েছে একটি গৃহপালিত গরু। গরুর দুধ বিক্রি করেই কোনওরকমে চলে সংসার। কিন্তু বর্তমানে ঠিক মত গরুর দুধটাও হয় না। কারণ গরুর খাদ্য যোগানো বা ঠিকভাবে পরিচর্যা  করতে পারছেন না তাঁরা। স্ত্রী বুলো দাস বিগত কয়েক মাস ধরে চোখের সমস্যার কারণে অসুস্থ। চাঁচল সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে অপারেশনের পরেও চোখের সমস্যা ঠিক হয়নি। উল্টে দৃষ্টি শক্তি আরও কমে গিয়েছে। ফলে তিনি সাংসারিক কাজ পর্যন্ত করতে পারছেন না। বার্ধক্য ভাতা, প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার ঘর কিছুই মেলেনি। 

অভিযোগ বারংবার আবেদন করেছেন ওই বৃদ্ধ দম্পতি। এমনকি এর আগেও পঞ্চায়েতের স্থানীয় জনপ্রতিনিধিকে বললেও তিনি ভাতার জন্য তিন হাজার টাকা কাটমানি চেয়েছিলেন বলে অভিযোগ ওই বৃদ্ধ দম্পতির।

6 months ago


WC: বিশ্বকাপে ভারতের পরাজয়ে উল্লাস! প্রতিবাদে বাংলাদেশি পর্যটকদের হোটেল বুকিং-এ নিষেধাজ্ঞা জারি রায়গঞ্জে

ভারতকে ছয় উইকেটে হারিয়ে ষষ্ঠবারের মতো বিশ্বকাপ ক্রিকেটের ট্রফি জিতে নিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। ভারতের পরাজয়ের পর থেকেই উল্লাসে ফেটে পড়েছিলেন প্রতিবেশী দেশ বাংলাদেশের অসংখ্য মানুষ। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের পাশাপাশি ক্রিকেটারদের বিরুদ্ধেও স্যোশাল মিডিয়ায় অকথ্য ভাষার প্রয়োগ করে ভিডিও বানিয়েছেন বাংলাদেশিরা। ইতিমধ্যেই সে ভিডিও ভাইরাল। আর এতেই ক্ষুব্ধ ভারতের সাধারণ মানুষ। এবারে এই ঘটনার প্রতিবাদে বাংলাদেশি নাগরিকদের হোটেল বুকিং-এ নিষেধাজ্ঞা জারি করল রায়গঞ্জের দুটি হোটেল। এই সিদ্ধান্তে অবশ্য মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।

দক্ষিণ এশিয়ার জনপ্রিয় খেলাগুলির মধ্যে অন্যতম ক্রিকেট। এই খেলার সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে জাতির ভাবাবেগ। দক্ষিণ এশিয়ার দুটি দেশ, ভারত ও বাংলাদেশে ক্রিকেট ঘিরে উন্মাদনা সবসময়ই তুঙ্গে। দুই দেশের রাজনৈতিক ও কূটনৈতিক সম্পর্ক সুদৃঢ় হলেও ক্রিকেট খেলাকে ঘিরে সম্পর্কটা অনেকটা অহিনকুলের মতই। সম্প্রতি শেষ হওয়া বিশ্ব ক্রিকেটের ফাইনালে অষ্ট্রেলিয়ার কাছে পরাজিত হয়ে কাপ জেতার স্বপ্ন অধরাই থেকে যায় ভারতের। এই পরাজয়ে স্বাভাবিকভাবেই শোকের আবহ তৈরী হয়েছে দেশজুড়ে। আর এরই মধ্যে অনেকটা কাটা ঘায়ে নুনের ছিটার মতই বাংলাদেশের নাগরিকদের একাংশের বিজয় উল্লাসে ব্যাপক চটেছেন ভারতীয়রা। স্যোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা গিয়েছে, ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের পাশাপাশি ভারতীয় ক্রিকেটারদের বিরুদ্ধেও কটুক্তি করেন তাঁরা। যদিও এই ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ছেন বাংলাদেশের শুভবুদ্ধি সম্পন্ন নাগরিকদের একাংশ। তবে প্রতিবেশী রাষ্ট্র বাংলাদেশের নাগরিকদের একাংশের ভারত বিদ্বেষী মনোভাবের কারণে ক্ষুব্ধ ভারতীয় জনগণ। ঘটনার প্রতিবাদে রায়গঞ্জের দুটি হোটেলে বাংলাদেশি নাগরিকদের জন্য বুকিং বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিল কর্তৃপক্ষ।

যদিও হোটেল কর্তৃপক্ষের এই সিদ্ধান্তে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে শহরজুড়ে। অনেকেই বলেছেন বিশ্বকাপে হারের পর বাংলাদেশিদের একাংশের ভারত বিরোধী মনোভাব নিন্দনীয়। এটাকে কোনোভাবেই সমর্থন করা যায় না। তবে বাংলাদেশের অনেক মানুষ এই ভারত বিরোধী মনোভাবের পক্ষে নন। তাই সমস্ত বাংলাদেশির জন্য হোটেল বুকিং বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করা উচিত।

7 months ago
Hooghly: হাজার হাজার টাকার বিনিময়ে নকল সোনার কয়েন বিক্রির অভিযোগ, আটক তিন অভিযুক্ত

রাম সীতা খোদাই করা নকল সোনার কয়েন বিক্রি করতে গিয়ে পুলিসের জালে ধরা পড়ল তিন ব্যক্তি। বুধবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে তারকেশ্বরের মুক্তারপুর এলাকার। তল্লাশি চালিয়ে ওই তিন ব্যক্তির কাছ থেকে উদ্ধার হয় ত্রিশটির বেশি নকল সোনার কয়েন। জানা গিয়েছে, ওই তিন ব্যক্তির বাড়ি দক্ষিণ ২৪ পরগনার ক্যানিং এলাকায়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, এদিন দুপুরে তারকেশ্বরের বিভিন্ন এলাকায় কয়েন বিক্রি করছিল ওই তিন ব্যক্তি। সবাইকে এই বলে বিক্রি করছিল যে তারা মাঠে কাজ করতে গিয়ে এই কয়েন কুড়িয়ে পেয়েছে তাই যা দাম দেবেন সেটাই নেবো। এরপর স্থানীযদের নজরে আসতেই ওই তিন ব্যক্তিকে গিয়ে পাকড়াও করে। তারপর নকল সোনার কয়েন বিক্রি করতে আসা তিন ব্যক্তি স্বীকার করেছে যে, তারা এই কয়েন শিয়ালদহ থেকে কুড়ি পঁচিশ টাকায় কিনে  বিভিন্ন এলাকায় হাজার হাজার টাকায় বিক্রি করেন। এরপর স্থানীয়রা খবর দেয় পুলিসকে। তারপর ঘটনাস্থলে তারকেশ্বর থানার পুলিস গিয়ে ওই তিনজনকে আটক করে নিয়ে যায়।

জানা গিয়েছে, তারকেশ্বর এলাকায় পূর্বে এই ধরনের ঘটনা ঘটেছে বহুবার। যারফলে বহু মানুষ নকল সোনার কয়েন কিনে হাজার হাজার টাকা খুইয়েছেন। আর যাতে এই ধরনের ঘটনা না ঘটে সে বিষয়ে নজর রাখছে পুলিস।

7 months ago


Messi: মেসির বিরুদ্ধে কুমন্তব্য, বিশ্বকাপের যোগ্যতা অর্জন ম্যাচে হাতাহাতি সমর্থকদের মধ্যে

গ্যালারি থেকে মেসির বিরুদ্ধে কুমন্তব্য। তার জেরে প্রতিবাদ। আর তার থেকেই বিশ্বকাপের যোগ্যতার ম্যাচে ব্রাজিল বনাম আর্জেন্টিনা ম্যাচে উত্তেজনা ছড়াল মারাকানায়। দু দেশের সমর্থকদের হাতাহাতির জেরে ম্যাচ শুরু হল আধ ঘণ্টা পরে। সংবাদসংস্থার খবর, দু দেশের জাতীয় সঙ্গীতের পরেই উত্তেজনা তৈরি হয় গ্যালারিতে। এই ঘটনায় এক সমর্থককে আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এই প্রথম আর্জেন্টিনার কাছে ঘরের মাটিতে হারল ব্রাজিল।

এই ঘটনার জেরে মাঠ থেকে বেরিয়ে যায় লিও মেসির আর্জেন্টিনা। তাঁদের ট্যানেলে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। আর্জেন্টিনার ফুটবল দল জানিয়ে দেয় উত্তেজনা থাকলে তারা মাঠে ফিরবে না। এরপর ব্রাজিলের রায়ট পুলিশ মারাকানার গ্যালারির দায়িত্ব নেয়। প্রায় ৩০ মিনিট পর মাঠে ফেরেন মেসিরা।

তার আগে অবশ্য, সমর্থকদের ঠান্ডা করতে গ্যালারির দিকে এগিয়ে যায় আর্জেন্টিনার দল। মঙ্গলবার রাতের এই ম্যাচে ৬৯ হাজার দর্শক হয়েছিল মারাকানায়। ব্রাজিল পুলিশ জানিয়েছে, এই ঘটনায় বেশ কয়েকজন গ্রেফতার করা হয়েছে।

7 months ago
Dhoni: বিশ্বকাপ জেতার জন্য ভারতীয় দলকে ধোনির পরামর্শ নেওয়ার প্রস্তাব গাঙ্গুলির

বিশ্বকাপ জেতার জন্য ধোনির পরামর্শ নেওয়ার প্রস্তাব দিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। ষষ্ঠবারের জন্য বিশ্বকাপ জিতেছে অস্ট্রেলিয়া। আর শেষ মুহূর্তে কঠোর লড়াই করেও হারতে হয়েছে টিম ইন্ডিয়াকে। বিশ্বকাপ ফাইনালে ভারতের হার নিয়ে এবার মুখ খুললেন প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। কলকাতায় একটি অনুষ্ঠানে হাজির হয়ে এবিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানান তিনি।

প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে বিরাট ও রোহিতের প্রসঙ্গে টেনে আনেন তিনি। তাঁর বক্তব্য, একজনের ঝুলিতে ৫০টি ODI সেঞ্চুরি অন্যজনের ৩০টি সেঞ্চুরি। সুতরাং কী ভাবে খেললে বিশ্বকাপ আসবে সেই রাস্তা খুঁজে বের করুক বর্তমান প্লেয়াররা। একই সঙ্গে ধোনির পরামর্শ নেওয়ারও প্রস্তাব দিয়েছেন তিনি। তবে তাঁর বক্তব্য, হার-জিত খেলারই অঙ্গ। ভারতীয় টিম ভালো খেলেছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

7 months ago
Virat-Anushka: বিশ্বকাপ ফাইনালে হার, বিরাটকে বুকে জড়িয়ে ধরে সান্ত্বনা অনুষ্কার

বিশ্বকাপ ফাইনালে (World Cup Final 2023) ভারতের পরাজয়ের পর শোকের ছায়া পুরো দেশজুড়ে। প্রায় দু'দশক পর ইন্ডিয়া ও অস্ট্রেলিয়া ফের মুখোমুখি হয়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত একরাশ মনখারাপ নিয়ে ফিরতে হয় হল তাঁদের। বিরাট আউট হয়ে যাওয়ার পরই তাঁর চোখে-মুখে বিষণ্ণতার ছাপ দেখা যায়। এর পরই দেখা যায়, গ্যালারিতে ফিরতেই অনুষ্কাকে জড়িয়ে ধরেন বিরাট। সান্ত্বনা দেন অনুষ্কাও। সেই ছবি বর্তমানে ভাইরাল। ইতিমধ্যেই আরও এক ছবি ভাইরাল হয়েছে, যেখানে দেখা যাচ্ছে, অনুষ্কা পুরো ম্যাচ পর্যন্ত অপেক্ষা করেছিলেন স্বামী বিরাটের জন্য। সেই ছবি দেখে দেখেও মুগ্ধ অনুরাগীরা।

ব্যাটিং, বোলিং, ফিল্ডিং সব বিভাগেই ভারতকে টেক্কা দিয়ে ষষ্ঠবারের জন্য বিশ্বচ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া। ম্যাচ হারার পর বিধ্বস্ত বিরাট, রোহিতদের পাশে তাঁদের স্ত্রী-রা। টুপির আড়ালেই হারের ক্ষত ঢাকার আপ্রাণ চেষ্টা চালাতে দেখা যায় কোহলিকে। কিন্তু শেষপর্যন্ত অনুষ্কার কাঁধে মাথা রেখেই সেই ক্ষত ঢাকলেন বিরাট। বিরাটকে বাহুডোরে জাপটে ধরে সাহস জোগালেন অনুষ্কা। শুধুমাত্র সাফল্য নয়, বিরাটের ব্যর্থতার পাশেও আছেন অনুষ্কা। এই ছবি ভাইরাল হতে খুব বেশি সময় লাগেনি। তবে এর পাশাপাশি আরও এক ছবি ভাইরাল হয়েছে, যেটি দেখে নেটিজেনদের দাবি, অনুষ্কা ম্যাচের শেষ পর্যন্ত বিরাটের পাশে ছিলেন ও বিরাটের সঙ্গেই একেবারে ম্যাচের শেষে স্টেডিয়াম ছেড়ে বেরিয়েছেন তাঁরা।

7 months ago


Bankura: বিশ্বকাপে দেশের হার, মানতে না পেরে আত্মঘাতী বাঁকুড়ার যুবক

বিশ্বকাপ ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার কাছে দেশের হার মেনে নিতে পারেননি আপাদমস্তক গোটা ভারতবাসী। স্টেডিয়ামেই কান্নায় ভেঙে পড়েছেন হাজার হাজার ক্রিকেটভক্ত। কিন্তু বাঁকুড়া জেলার বেলিড়াতোড়ের এক যুবক বিশ্বকাপ ফাইনালে ভারতের হার সহ্য করতে পারেননি। রবিবার রাতে নিজের বাড়িতেই গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছেন তিনি। আত্মঘাতী যুবকের নাম রাহুল লোহার (২৩)। পরিবারের দাবি, বিশ্বকাপ ফাইনালে ভারতের হারে মানসিক অবসাদে ভোগেন। যার জেরেই আত্মহত্যার মতো কঠিন পথ বেছে নিলেন।

মৃতের আত্মীয় জানান, রাহুল লোহার ক্রিকেটের অন্ধ ভক্ত। সারা দেশের পাশাপাশি তাঁরও আশা ছিল দেশ এবার বিশ্বকাপ জিতবে। পেশায় শাড়ির দোকানের কর্মচারী রাহুল একবুক আশা নিয়ে রবিবার কাজে না গিয়ে বন্ধু বান্ধবদের সঙ্গে বেলিয়াতোড় সিনেমা হলের সামনে প্রোজেক্টারে খেলা দেখতে বসেছিলেন। খেলা শেষ হওয়ার পর স্বপ্নভঙ্গের যন্ত্রণা নিয়ে রাহুল বাড়ি ফিরে আসেন। এরপরই  মানসিক অবসাদে নিজের বাড়িতে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেন রাহুল। রাত এগারোটা নাগাদ রাহুলের ভাই বাড়িতে ফিরে দাদার ঝুলন্ত দেহ দেখতে পান। তড়িঘড়ি তাঁকে উদ্ধার করে বেলিয়াতোড় হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

উল্লেখ্য, বেলিয়াতোড় থানার পুলিস মৃতদেহটি ময়না তদন্তের জন্য বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজে পাঠায়। খেলায় দেশের হারের কারণে মানসিক অবসাদ থেকে এই আত্মহত্যা নাকি এর পিছনে রয়েছে অন্য কোনো রহস্য, তা খতিয়ে দেখছে পুলিস।

7 months ago
WC2023: ক্রিকেট দেয় আবার নিয়েও নেয়

প্রসূন গুপ্ত: রবিবার রাত থেকে সোমবার সকালের খবরের কাগজ অথবা বৈদ্যুতিন মাধ্যম কাঁটাছেড়া করছে, কেন ভারত হারলো? জিতলে অবিশ্যি সোমবারও সারাদিন ক্রিকেটই থাকতো প্রধান খবর। হয়তো লেখা থাকতো 'এখন কি করছে অমুক খেলোয়াড়, ইত্যাদি।' বাস্তব সত্যি হচ্ছে, ক্রিকেট এমন একটি খেলা যা নিয়ে ভবিষ্যৎবাণী করা বোকামি। এবারেই তো এমন অসংখ্য ম্যাচে মিরাকেল হয়েছে। আফগানিস্তানের মতো দল উঠে এসেছে আবার পাকিস্তানের মতো দল ডুবেছে। অথচ পেশাদারিত্বের অভাবে আফগানরা সেদিন যেমন ম্যাক্সওয়েলের অস্ট্রেলিয়ার কাছে হেরেছে তেমনই ভারতকে হারতে হলো এই অস্ট্রেলিয়ার কাছেই। কাপ নিয়ে গেলো তারা দেশে।

কি জানেন, যে কোনও খেলায় দেশের সম্মান বড় কথা কিন্তু প্রধান কথা নয়। মূল দুই দলের মধ্যে এই একটি জায়গায় মার খেয়ে গেলো ভারত। বিশ্বের প্রধান খেলাধুলার দেশে খেলাটাকেই প্রাধান্য দেওয়া হয়ে থাকে। তৃতীয় বিশ্ব তা নয়। আমরা তৃতীয় বিশ্বের অন্যতম দেশ ব্রাজিলকেও নির্মমভাবে পরাস্ত হতে দেখেছিলাম ২০১৫-র বিশ্বকাপ ফুটবলে। তাদের দেশেই খেলা হয়েছিল। সেমিফাইনালের আগে ভয়ঙ্কর রকম দেশাত্ববোধের 'নাড়া' লাগানো হয়েছিল। বলা হয়েছিল, উন্নতগামী দেশের খেলোয়াড়রা ট্রফিটা রেখে দাও দেশে। আমরা আবার বিশ্ব বাণিজ্য ও গণতন্ত্রের প্রতীক হতে পারি। অন্যদিকে আর পাঁচটা ম্যাচের মতো হালকা মেজাজে প্রথম বিশ্বের দেশ জার্মানি খেলতে নেমে ব্রাজিলকে ৭ গোল মেরেছিলো। বিশ্বের কেউই আজও বিশ্বাস করে উঠতে পারে না। প্রথম বিশ্বের দেশগুলি খেলাকে খেলা হিসাবেই দেখে। চ্যাম্পিয়ন হলে একদিন আনন্দ করো তারপর লেগে যাও নিজের পেশায়।

আমাদের ভারতের ক্ষেত্রেও তাই হলো। অস্ট্রেলিয়া যদি রবিবার হারতো তবেও তাদের দেশের অর্থনীতি, রাজনীতি বা দেশাত্ববোধের ধাক্কা আসত না ক্রিকেটারদের উপর কিন্তু ভারতে জাতীয়বাদ ইত্যাদির চাপটাই নিতে পারলো না রোহিতের দল। লীগ ম্যাচে বা সেমিফাইনাল অবধি কোনও চাপ ছিল না ভারতীয় দলের উপর। দুর্দান্ত ক্রিকেট উপহার দিয়েছেন রোহিতরা কিন্তু ফাইনালের আগে টেনশন চেপে বসলো ওই এগারোটি চ্যালেঞ্জারের মধ্যে। জিতেই হবে। প্রধানমন্ত্রী নামে স্টেডিয়াম , তিনি নিজে উপস্থিত হবেন। জিতলে মোদীজির সঙ্গে আনন্দ ভাগ করে নেওয়া যাবে, না জিতলে প্রধানমন্ত্রী সহ বিভিন্ন ভিআইপির কাছে সম্মান যাবে ইত্যাদি। এই প্রথম ফাইনালে মাঠে বা প্যাভিলিয়নে খেলোয়াড়দের মধ্যে 'মেরে বেরিয়ে যাবো' ভাবটাই ছিল না। কেমন যেন আগেই টেনশনে মৃত হয়ে রয়েছেন তাঁরা। বিশেষজ্ঞরা এই কথা বারবার বলেওছেন। ফল পরাজয়। টেনশন ফ্রি অস্ট্রেলিয়া আরামসে ট্রফি নিয়ে সোমবার পৌঁছে গেলেন সিডনি বা মেলবোর্নে। নতুন করে হৈচৈ করার ব্যাপারটাই সে দেশে নেই কারণ তাদের অনেক কাজ, আর ট্রফি জয়/এতো নতুন কথা নয়।

7 months ago


Amitabh: 'ভাল কিছু হবেই', বিশ্বকাপ ফাইনালে ভারতের পরাজয়ে বিশেষ বার্তা 'বিগ বি'-র

তিনি নাকি ম্যাচ দেখলে ইন্ডিয়া জেতে না! কথা বলা হচ্ছে 'বিগ বি'-এর বিষয়ে। বিশ্বকাপ ফাইনালের (World Cup Final 2023) আগেই তিনি সে কথা জানিয়েছিলেন সমাজমাধ্যমে। এবারে অস্ট্রেলিয়ার কাছে ভারতের হারের পরই ভারতীয় ক্রিকেটারের পাশে দাঁড়ালেন অমিতাভ বচ্চন (Amitabh Bachchan)। তিনি টুইটে লিখলেন, 'এর চেয়ে আরও ভাল কিছু হবেই।'

২০০৩,২০২৩। এ যেন ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি। বিশ্বকাপ ফাইনালে মুখোমুখি ভারত-অস্ট্রেলিয়া, এবং ভারতের হার। টানা দশ ম্যাচে ধারাবাহিক ভাবে জেতা টিম ইন্ডিয়ার হার মানতে পারছে না গোটা দেশ। এরই মধ্যে আবেগঘন হয়ে অমিতাভ বচ্চন টুইটে লিখলেন, 'গত রাতের পারফরম্যান্স-এ তোমাদের প্রতিভার প্রতিফলন হয়নি। ওই রাতটা তোমাদের ক্ষমতা, তোমাদের শক্তির পরিচয় হতে পারে না কোনওভাবেই। কিন্তু তোমাদের জন্য গর্বিত, এর চেয়ে আরও ভাল কিছু হবেই, সেই দিনটার জন্য অপেক্ষায় থেকো।'

7 months ago
Toss: টসে জিতে প্রথম বল অস্ট্রেলিয়ার, প্রথম একাদশে কারা?

বিশ্বকাপ ফাইনাল, মুখোমুখি ভারত ও অস্ট্রেলিয়া। মোতেরায় নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামে টসে জিতে প্রথমে বল করার সিদ্ধান্ত অস্ট্রেলিয়ার। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষেও টসে জিতে ভালো শুরু করেছিল ভারত। ওদিকে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে  টসে জিতে বল করার সিধান্ত নিয়ে ছিল অস্ট্রেলিয়া। অস্টেলিয়ার বিরুদ্ধে কি প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ভালো শুরু করতে পারবে ভারত? অস্ট্রেলিয়ার পেস বোলিং কতটা নির্বিগ্নে সামলাতে পারবে ভারত? সেটাই এখন দেখার।

ভারত-পাকিস্তানের পিচে এদিন খেলতে নামছে ভারত ও অজিরা। এ দিন মাঠে ১ লক্ষ ৩০ হাজার দর্শকের সামনে, যেখানে সিংহভাগ দর্শকই ভারতের। সেখানে কিভাবে বড় টুর্নামেন্টে নিজেদের নার্ভ কন্ট্রোল করে খেলা ধরে রাখবে অসিরা, সেটাই দেখার। ওদিকে যদিও রিকি পন্টিংকে দেখা গিয়েছে প্যাট কামিন্সকে বুদ্ধি দিতে, পন্টিং যেহেতু ওয়ার্ল্ড কাপ উইনিং ক্যাপ্টেন সেহেতু পন্টিংয়ের বুদ্ধি কিভাবে কাজে লাগবে অসিরা সেটাই দেখার। ওদিকে ভারতের সঙ্গে রয়েছে দ্রাবিড়, ধোনির মত অভিজ্ঞতা। সেহেতু দেখার এটাই প্রথমে ব্যাট পেয়েকতটা ভালো শুরু করতে পারে ভারত।

ভারতের প্রথম একাদশ: রোহিত শর্মা, শুভমান গিল, বিরাট কোহলি, শ্রেয়াস আইয়ার, কেএল রাহুল, সূর্যকুমার যাদব, রবীন্দ্র জাদেজা, মহম্মদ শামি, জাসপ্রিত বুমরাহ, কুলদীপ যাদব, মহম্মদ সিরাজ।

অস্ট্রেলিয়ার প্রথম একাদশ:ট্র্যাভিস হেড, ডেভিড ওয়ার্নার, মিচেল মার্শ, স্টিভেন স্মিথ, মারনাস লাবুসচেন, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, জশ ইঙ্গলিস, মিচেল স্টার্ক, প্যাট কামিন্স (সি), অ্যাডাম জাম্পা, জোশ হ্যাজেলউড।

7 months ago
WC: রোহিতকে নিয়ে বাড়ছে প্রত্যাশা, মোতেরায় কি পুনর্জন্ম হবে ধোনির!

রবিবার বিশ্বকাপ ফাইনাল। বিশ্বজয়ের প্রার্থনায় গোটা দেশ। মন্দিরে, বাড়িতে যজ্ঞ-প্রার্থনা। কোথাও আলোয় সেজেছে, কোথাও পোস্টার, কোথাও আবার অর্ডার দেওয়া হচ্ছে কেক। বিজয়ের আগাম আনন্দে ভাসছেন ক্রিকেট অনুরাগীরা। মোতেরায় কি নতুন কোনও মহেন্দ্র সিং ধোনির পুনর্জন্ম হবে। নাকি মুখের গ্রাস ছিনিয়ে নেবে অস্ট্রেলিয়া। বিশ্বের সবথেকে বড় স্টেডিয়াম, মাঠে আসবেন ১ লক্ষ ৩০ হাজার দর্শক। এই ক্রিকেট মহাযঞ্জের আসরে, কতটা চাপে দুই দল।

এত যজ্ঞ, প্রার্থনা সব বৃথা। এই একটি ম্যাচ হারলেই সব দোষ তাঁর কাঁধেই থাকবে। ভারত অধিনায়ক রোহিত শর্মা ভাল করেই জানেন। দু মিনিটে এই চেনা দৃশ্যকল্প পাল্টে যাবে। ২০০৩ বিশ্বকাপ ফাইনালে বিদেশের মাটিতে হেরেছিল ভারত। ঘরের মাঠে জয়ের প্রবল চাপ কাঁধে বয়ে রবিবার মাঠে নামবেন হিটম্যান। বিরাট, শ্রেয়স, শামি, সিরাজরা পারফর্ম করতে না পারেন, সব দায় পড়বে অধিনায়কের ঘাড়েই।

ভারতের মাটিতে অস্ট্রেলিয়া। বিশ্বকাপ শুরুর আগেও দ্বিপাক্ষিক সিরিজ হয় দুই দেশের। তখনও স্মিথদের হেলায় হারাত ভারত। সেবার সম্পূর্ণ দল ছিল না। ঘরের মাটিতে এই অস্ট্রেলিয়াকে হারানো কঠিন নয়। কঠিন অস্ট্রেলিয়া নামটির গুরুভার। পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন। ফাইনালের মতো ম্যাচে তাঁদের সেই আত্মবিশ্বাসই চাগিয়ে দিতে পারে।

7 months ago


WC: বিশ্বকাপ ফাইনালে নিজেদের সেরাটা দিতে চলেছে, ইঙ্গিত অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়কের

বিশ্ব ক্রিকেটের ইতিহাসে হলুদ জার্সিদের দাপট গোটা বিশ্ব জানে। দাপট শব্দটি যেন অস্ট্রেলিয়া দলটির সঙ্গেই জড়িয়ে আছে। বড় কোন প্রতিদ্বন্দ্বিতা ছাড়া সব ম্যাচ জিতে ফাইনালে পা রেখেছে রোহিত শর্মার দল। প্রতিপক্ষ অধিনায়ক প্যাট কামিন্সও ভারতের দাপটের কথা অকপটে স্বীকার করছেন। কিন্তু কামিন্সের অস্ট্রেলিয়াও তো ফাইনালে পা রেখেছে টানা আট জয় নিয়ে। যদিও কামিন্স বলছেন, এখনও নিজেদের সেরাটা দিতে পারেননি তারা।

সেরা ক্রিকেট না খেলেও ফাইনালে চলে আসা কামিন্সের কাছে ইতিবাচক। ম্যাচের আগে সংবাদ সম্মেলনে অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক বলেন, 'আমাদের জন্য একটি আন্দদদায়ক ব্যাপার হচ্ছে যে, আমি এখনও মনে করি না আমরা পরিপূর্ণ খেলাটা খেলতে পেরেছি। যে কারণে বড় জয়ও নেই। আমাদের সব জয় পেতেই লড়াই করতে হয়েছে এবং আমরা জয়ের একটা পথ খুঁজে পেয়েছি। আর ভিন্ন সময়ে ভিন্ন খেলোয়াড়ও অবদান রেখেছে।'

প্রথম দুই ম্যাচে ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে হেরে বিশ্বকাপ যাত্রা শুরু করে অজিরা। টানা সাত জয়ে এরপর জায়গা করে নেয় সেমিফাইনালে। হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে আফগানিস্তানের বিপক্ষে অজিদের ঐতিহাসিক জয় এসেছে ৩ উইকেটে। নিউজিল্যান্ডকে তারা হারিয়েছে মাত্র ৫ রানে। অবশ্য নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ৩০৯ রানের জয়ের বাইরেও তারা জিতেছে বড় জয়। বাংলাদেশের বিপক্ষে ৮ উইকেটে, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৮৮ বল হাতে রেখে ৫ উইকেটে, পাকিস্তানের বিপক্ষে ৬২ রানে। ইংল্যান্ডের বিপক্ষেও মিলেছে ৩৩ রানের জয়।

ভারত যেমন টানা ১০ ম্যাচ জিতে ফাইনাল খেলতে নামবে, তেমন অসিরাও টানা ৮ ম্যাচে জয় নিয়ে নামবে ভারতের বিরুদ্ধে। কিন্তু প্রত্যেক ম্যাচেই ম্যাচের কোনও না কোন অংশে প্রতিপক্ষ দলই ছিল ফ্রন্টফুটে। ম্যাচের পুরোটা জুড়েই দাপট রেখে জিততে পারেনি অস্ট্রেলিয়া। তবুও অস্ট্রেলিয়া বিশ্বকাপের ফাইনালে। ভারতের বিরুদ্ধে নামার আগে অস্ট্রেলিয়ার বড় টুর্নামেন্ট জেতার অভিজ্ঞতা যেমন থাকবে, তেমন থাকবে আত্মবিশ্বাস। সব মিলিয়ে অসিরাযে ভারতকে সহজে এক ইঞ্চিও জমি ছাড়বে সেটা বলা চলে। অন্যদিকে ২০ বছর বাদে ভারতের সামনে প্রতিশোধের হাতছানি, ২০০৩-এর আক্ষেপকে ভুলিয়ে দেওয়ার সুবর্ন সুযোগ। অপরাজিত রোহিত ব্রিগেড কি পারবে সমস্ত আক্ষেপ ঘুচিয়ে দিতে। সেটাই এখন দেখার।

7 months ago
WC: 'বিশ' সাল বাদ ইন্ডিয়া-অস্ট্রেলিয়া, ব্যাটে বলে কোন দল এগিয়ে

রাত গড়ালে ক্রিকেট বিশ্বকাপ ফাইনাল। আর সেই ফাইনালকে নিয়েই গোটা ভারতের চোখে মোহমাখা স্বপ্নের ভিড়। ভারত কি পারবে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হতে? রোহিত ব্রিগেড কি পারবে বিশ সাল আগের বদলা নিতে? যদিও বিশেষজ্ঞদের মত এখনও অবধি ভারতের পাল্লা ভারী। গোটা বিশ্বকাপে ভারতের যে পারফম্যান্স, সেই ফর্মই যদি ফাইনালে ধরে রাখতে পারে ভারত তবে ভারতকে আটকানো মুশকিল হবে, এমনি মত প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলির। এখনও লীগ টেবিলে ৯টি ম্যাচ খেলে ভারত একটিতেও হারেনি। বরং সেমিতে রীতিমত নিউজিল্যান্ডকে ৭০ রানে হারিয়ে রোহিত ব্রিগেডের আত্মবিশ্বাস তুঙ্গে। ফলে এখনও অবধি অপরাজিত, একার্থে অপ্রতিরোধ্য দল হিসেবে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ফাইনালে নামছে ভারত।

রবিবার আহমেদাবাদে ক্যাঙ্গারু বাহিনীর বিরুদ্ধে ফাইনালে নামার আগে অনেকটা এগিয়ে থাকবে ভারত। যেমন ব্যাটিং ও বোলিং। ব্যাটিংয়ের দিক থেকে খানিকটা শক্ত মেরুদণ্ডের সঙ্গেই শুরু করবে ভারত। এই বিশ্বকাপে প্রথম থেকেই নজরে রয়েছেন রোহিত ও গিলের জুটি। রোহিত ও গিল বর্তমানে অসাধারণ ফর্মেই রয়েছেন। এমনকি নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে শেষ ম্যাচেও জবরদস্ত শুরু করেছিলেন এই দুই ওপেনারই। এরপরেই রয়েছেন বিরাট কোহলি। এখনও অবধি সচিনকে পার করে, একদিবসীয় ক্রিকেটে সর্বাধিক সেঞ্চুরির রেকর্ড গড়েছেন তিনি। শেষ ম্যাচে কিউইদের বিরুদ্ধেও সেঞ্চুরি করেন বিরাট। পাশাপাশি চলতি বিশ্বকাপে দুটি সেঞ্চুরি নিয়ে, বিরাট এখনও সর্বাধিক রান সংগ্রহকারী। সেদিক থেকে অসিরা বিরাটকে থামানোর চেষ্টা করলেও, বিরাটযে অপ্রতিরোধ্য থাকবে সেটা বলাই বাহুল্য। গোটা বিশ্বকাপে বিরাটের যোগ্য সঙ্গ দিয়েছে শ্রেয়স আইয়ার ও কে এল রাহুল। শ্রেয়স ও রাহুল দুজনই বর্তমানে দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছেন। ফলে মিডিল অর্ডারেও অনেকটা শক্ত সামর্থ ভারত। পাশাপাশি রাহুল উইকেটের পিছনেও ভালো ভূমিকা পালন করছে।

ফিল্ডিংয়ের সঙ্গে থাকছে বোলিং। বলাচলে ভারতের মূল অস্ত্র বোলিংই। একদিকে শামি, অন্যদিকে সিরাজ-বুমরা জুটি। এই বিশ্বকাপে এই তিন পেসার ভারতকে অন্যদল গুলির থেকে আলাদা করে চিনিয়েছে সেটা বলাই বাহুল্য। অস্ট্রেলীয় স্পিনার জাম্পাকে টপকে বর্তমানে সর্বাধিক উইকেট সংগ্রহকরী বোলার ভারতের শামি। শেষ ম্যাচে ৭ উইকেট নিয়ে রেকর্ড গড়েছেন তিনি। গোটা প্রতিযোগিতায় যোগ্য ভূমিকা রয়েছে সিরাজ ও বুমরাও। ক্ষুরধার স্পিন সামলাবে জাদেজা ও কুলদীপ। ফলে সব মিলিয়ে আত্মবিশ্বাসে ভরপুর এই দলটি, রোহিতের নেতৃত্বে যে ভারতকে বিশ্বসেরা করতে পারবে,  এই স্বপ্ন দেখা যায়।

7 months ago