Breaking News
BJP: ইস্তেহার প্রকাশ বিজেপির, 'এক দেশ এবং এক ভোট' লাগু করার প্রতিশ্রুতি      Fire: দমদমে ঝুপড়িতে বিধ্বংসী অগ্নিকাণ্ড, ঘটনাস্থলে দমকলের একাধিক ইঞ্জিন      Bengaluru Blast: বেঙ্গালুরু ক্যাফে বিস্ফোরণকাণ্ডে কাঁথি থেকে দুই সন্দেহভাজনকে গ্রেফতার করল এনআইএ      Sheikh Shahjahan: 'সিবিআই হলে ভালই হবে', হঠাৎ ভোলবদল শেখ শাহজাহানের      CBI: সন্দেশখালিকাণ্ডে সিবিআই তদন্তের নির্দেশ কলকাতা হাইকোর্টের...      NIA: ভূপতিনগর বিস্ফোরণকাণ্ডে এবার কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ NIA      ED: অবশেষে ইডির স্ক্যানারে চন্দ্রনাথের 'মোবাইল-হিস্ট্রি', খুলতে পারে নিয়োগ দুর্নীতি রহস্যের জট      PM Modi: তৃণমূল মানেই দুর্নীতি-লুট! ভোট প্রচারে সন্দেশখালির পর ভূপতিনগর নিয়ে সরব মোদী      NIA: ভূপতিনগর বিস্ফোরণকাণ্ডে গ্রেফতার আরও ২ , কেন্দ্রীয় এজেন্সির উপর হামলার ঘটনায় উদ্বিগ্ন কমিশন      Sheikh Shahjahan: বিজেপির 'দালাল'রা তাঁর বিরুদ্ধে মিথ্যে বলছে, দাবি শেখ শাহজাহানের     

Contai

Accident: সজোরে গাড়িতে ধাক্কা মেরে ধাবায় ঢুকে পড়ল ট্রাক, মৃত অন্তত ১৫

ফের ভয়াবহ পথ দুর্ঘটনায় (Road Accident) মৃত্যু হল কমপক্ষে ১৫ জনের। মঙ্গলবার দুপুরের দিকে মহারাষ্ট্রের (Maharashtra) ধুলে জেলায় ঘটেছে এই দুর্ঘটনা। সূত্রের খবর, মুম্বই-আগ্রা হাইওয়েতে একটি কনটেইনার ট্রাক সজোরে একটি চার চাকার গাড়িকে ধাক্কা মেরে রাস্তার ধারে থাকা এক ধাবায় ঢুকে পড়ে। ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে কমপক্ষে ১৫ জনের। গুরুতর জখম হয়েছেন ১০ জন। মনে করা হচ্ছে, নিয়ন্ত্রণ হারিয়েই ট্রাকটি ধাক্কা মারে চার চাকার গাড়িটিকে, এরপর ঢুকে পড়ে ধাবায়।

সূত্রের খবর অনুযায়ী, মঙ্গলবার ১০ টা ৪৫ মিনিট নাগাদ ধুলের মুম্বই-আগ্রা হাইওয়েতে পলাসনার গ্রামের কাছে এই দুর্ঘটনাটি ঘটে। এই জায়গাটি মুম্বই থেকে ৩০০ কিমি দূরে অবস্থিত। এই দুর্ঘটনার পর এই হাইওয়ের ফুটেজটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়। সেই ভিডিওতেই দেখা যায়, হাইওয়েতে দ্রুত গতিতে একটি কনটেইনার ট্রাক ছুটে আসে ও একটি সাদা রংয়ের গাড়িকে সজোরে ধাক্কা মারে। এরপর পাশের এক ধাবায় ঢুকে পড়ে। এরপরই চারিদিক ধুলোতে ভরে যায় ও দেখা যায়, চারিদিকে ছড়িয়ে রয়েছে দেহ।

এই দুর্ঘটনার পরই আহতদের তড়িঘড়ি শিরপুর ও ধুলের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। প্রাথমিকভাবে জানা গিয়েছিল, মৃতের সংখ্যা ১০, তবে পরে জানা যায় এই দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে অন্তত ১৫ জনের। 

9 months ago
Teacher: চাকরির নামে লক্ষ-লক্ষ টাকা আত্মসাৎ! শ্বশুরবাড়ি থেকে গ্রেফতার স্কুল শিক্ষক

চাকরি দেওয়ার নাম করে কয়েকজনের কাছ থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠল পূর্ব মেদিনীপুরের (Purba Medinipur) কাঁথির এক স্কুল শিক্ষকের (School Teacher) বিরুদ্ধে। ইতিমধ্যে তাঁকে গ্রেফতার (Arrested) করেছে পুলিস। শনিবার সন্ধ্যায় অভিযান চালিয়ে কাঁথি থানার পুলিস অভিযুক্ত শিক্ষককে শ্বশুরবাড়ি থেকে গ্রেফতার করে। পুলিস সূত্রে জানা গিয়েছে, অভিযুক্ত শিক্ষকের নাম দীপক জানা। তাঁর বাড়ি ভূপতিনগর থানার মূলদা গ্রামে। যদিও দীর্ঘদিন ধরে কাঁথি শহরের ১৭ নং ওয়ার্ডে করকুলি এলাকায় শ্বশুরবাড়িতে থাকতেন অভিযুক্ত। রবিবার অভিযুক্ত শিক্ষককে কাঁথি আদালতে পেশ করবে পুলিস বলে খবর। পুলিস হেফাজতে চেয়ে আবেদন জানানো হবে বলে খবর৷

উল্লেখ্য, নিয়োগ দুর্নীতিতে তোলপাড় রাজ্য রাজনীতি৷ তদন্ত যত এগোচ্ছে ততই উঠে আসছে নতুন নতুন নাম৷ গ্রেফতারির তালিকাও দীর্ঘতর হচ্ছে৷ ইতিমধ্যে হাজতবাস করছেন রাজ্য শিক্ষা দফতরের প্রাক্তন মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়-সহ বেশ কয়েকজন৷ এবার সেই তালিকায় ঢুকে গেল কাঁথির এক স্কুল শিক্ষকও৷ স্থানীয় সূত্রের খবর, ধৃত দীপক জানা কাঁথি দেশপ্রাণ ব্লকের বিচুনিয়া জগন্নাথ মন্দির বিদ্যাপীঠের ইংরেজির শিক্ষক। এলাকায় তৃণমূলের নেতা হিসেবেও পরিচিতি রয়েছে তাঁর। ২০১৭ সাল থেকে শুধু পূর্ব মেদিনীপুর নয়, বিভিন্ন জেলা থেকে চাকরি দেওয়ার নাম করে লক্ষ লক্ষ টাকা তোলার অভিযোগ রয়েছে দীপকের বিরুদ্ধে৷ ওই ঘটনায় সম্প্রতি কলকাতা হাইকোর্টের বিচারক রাজশেখর মান্থার এজলাসে চাকরি দুর্নীতির মামলা ওঠে৷ তারপরই সামনে আসে কাঁথির এই স্কুল শিক্ষকের প্রসঙ্গ৷

বিষয়টি প্রকাশ্যে আসার পর রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে কাঁথি শহরে। জানা গিয়েছে, গত মার্চ মাসের শেষ সপ্তাহে ও এপ্রিল মাসের প্রথম সপ্তাহে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার বেলদার বাসিন্দা অঞ্জলি গুচ্ছাইত ও কাঁথি কিশোরনগরের বাসিন্দা চিরঞ্জিত দাস কাঁথি থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। তাঁদের অভিযোগ, ফুড সাপ্লাই দফতরে চাকরি দেওয়ার নাম করে তাঁদের কাছ থেকে ৫ লক্ষ টাকা নিয়েছেন দীপক জানা৷

অন্যদিকে,অভিযোগ পেয়ে নড়েচড়ে বসে কাঁথি থানার পুলিস। এরপরই শনিবার সন্ধ্যায় গোপন সূত্রে খবর পেয়ে পুলিস শ্বশুরবাড়ি থেকে অভিযুক্ত শিক্ষক দীপক জানাকে গ্রেফতার করে। যদিও অভিযুক্ত এই অভিযোগ অস্বীকার করেছিলেন। তিনি বলেন, 'সবটাই মিথ্যা অভিযোগ। তাঁকে ফাঁসানোর জন্য এই অভিযোগ করা হচ্ছে। তদন্তে সবটা প্রমাণ হয়ে যাবে। এখন গোটা বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষ।'

12 months ago
Suvendu: শর্তসাপেক্ষে শুভেন্দুকে হাজরা-কাঁথিতে সভার অনুমতি হাইকোর্টের, আদালত কী জানিয়েছে

ডিসেম্বরের পরপর দুটি সভা করার অনুমতি কোর্ট (Calcutta high Court) থেকে আদায় করলেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা (LOP) শুভেন্দু অধিকারী। তবে সে ক্ষেত্রে বেশ কিছু শর্ত আরোপ করেছে কলকাতা হাইকোর্ট। সেই শর্ত মেনেই শুভেন্দুকে (Suvendu Adhikary) সভা করতে হবে কাঁথিতে। সংলিশ্ত জেলা প্রশাসনের থেকে অনুমতিসাপেক্ষে সভা করা যাবে। ২১ তারিখ কাঁথির রেল ময়দানে বিরোধী দলনেতার কর্মসূচি হওয়ার কথা। পাশাপাশি হাজরাতেও ১২ ডিসেম্বর সভা করতে পারবেন বিরোধী দলনেতা। তবে সেক্ষেত্রে আদালতের দেওয়া সময়ের মধ্যেই করতে হবে জনসভা। বিকেল ৩টে থেকে রাত ৮টার মধ্যে শেষ করতে হবে সভার কাজ। বড় জমায়েত করা যাবে না, শব্দবিধি মানতে হবে।

এদিকে, জনসভা করার অনুমতি চেয়ে ফের হাইকোর্টে দ্বারস্থ হয়েছিলেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। হাজরার সভার অনুমোদন বৃহস্পতিবার দিয়েছে কলকাতা হাইকোর্ট। কাঁথির সভার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে প্রশাসন, এমনটাই নির্দেশ বিচারপতি রাজাশেখর মান্থার। জানা গিয়েছে, হাজরায় ১২ ডিসেম্বর ও কাঁথিতে ২১ ডিসেম্বর সভার অনুমতি মেলেনি প্রশাসনের। প্রশাসনিক এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে হাইকোর্টে মামলা শুভেন্দু অধিকারীর। এদিনই ২ মামলার শুনানি হয়েছে রাজাশেখর মান্থার এজলাসে।


one year ago


Abhishek: 'লেজ গুটিয়ে ডায়মন্ডহারবারে পালিয়েছে', কাঁথিতে দাঁড়িয়ে কার উদ্দেশে তোপ অভিষেকের

১৫ দিনের মধ্যে যদি উল্লঙ্গ করতে না পারি তাহলে আমি রাজনীতির ময়দানে আসা ছেড়ে দেব। কাঁথির কলেজ মাঠের (Contai College Ground) জনসভা থেকে এভাবেই নাম না করে শুভেন্দু অধিকারীর (Suvendu Adhikary) উদ্দেশে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় (Abhishek Banerjee)। তিনি বলেন, 'আমাকে তোলাবাজ, দুর্নীতিগ্রস্ত বলে, আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ করে। আজ তিন তারিখ, ৫-৮ আমি কলকাতায় থাকবো না দিল্লি যাবো। আমি ১৫ দিন সময় দিয়ে গেলাম এই কলেজের মাঠে আবার সভা হবে। তুমি তোমার খাতা নিয়ে আসবে, আমি আমার খাতা নিয়ে আসব। মানুষের সামনে উলঙ্গ যদি না করতে পারি, আমি রাজনীতির ময়দানে পা রাখবো না।'

ডিসেম্বর মাসেই আরও একজন বিশ্বাসঘাতক দু'বছর আগে এই ডিসেম্বর মাসেই অমিত শাহের পদলেহন করে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিল। বিশ্বাসঘাতক বললে মানুষ যখন কথায় কথায় মীরজাফরের প্রসঙ্গ টানে, এই মেদিনীপুরের বিশ্বাসঘাতককে মানুষ আগামি ৫০০ বছর গদ্দার বলে মনে রাখবে। এভাবেও রাজ্যের বিরোধী দলনেতাকে পরোক্ষে আক্রমণ করেন তৃণমূল সাংসদ।

কাঁথির কলেজ মাঠে দাঁড়িয়ে তাঁর অভিযোগ, '২০১১-২০২০ কী কাজটা এই এলাকার জন্য করেছে আমি জিজ্ঞাসা করতে চাই। একটা ঠিকাদার এবং একটা ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের সঙ্গে নেক্সাস চালিয়েছে বছরের পর বছর।' পাশাপাশি শুভেন্দু অধিকারীর নাম না করে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের কটাক্ষ, 'আমি মা-মাটি-মানুষের ঘরে এসেছি, পূর্ব মেদিনীপুরের মানুষের গড়ে এসেছি। আমি ভেবেছিলাম বুক চিতিয়ে লড়াই হবে। আমার কথা শুনবে, সে এখানেই থাকবে কিন্তু সে তো লেজ গুটিয়ে ডায়মন্ডহারবার পালিয়েছে।'

one year ago
Court: শনিবার অভিষেক বনাম শুভেন্দু! ডায়মন্ড হারাবারে বিরোধী দলনেতাকে সভার অনুমতি হাইকোর্টের

শনিবারের বারবেলায় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বনাম শুভেন্দু অধিকারী (Abhsihek-Suvendu। না খেলার ময়দানে নয়, রাজনীতির ময়দানে। ৩ ডিসেম্বর অর্থাৎ শনিবার রাজ্যের শাসক এবং বিরোধী দলের (TMC-BJP) দুই নেতার জনসভায় তপ্ত হবে বাংলা রাজনীতি (Bengal Politics)। ইতিমধ্যে কাঁথিতে শুভেন্দু অধিকারীর বাড়ির সামনে সভা করার অনুমতি তৃণমূলকে দিয়েছে হাইকোর্ট। একইভাবে ডায়মন্ডহারবার (Diamond Harbour) অর্থাৎ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ে সংসদক্ষেত্রে শনিবার শুভেন্দু অধিকারীর সভার অনুমতিও আদালত দিল বিজেপিকে।

শান্তিপূর্ণভাবে, শব্দবিধি মেনে ডায়মন্ড হারবার লাইট হাউসের মাঠে শুভেন্দু অধিকারীর সভার অনুমতি দিল কলকাতা হাইকোর্ট। শনিবার তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় যখন শান্তিকুঞ্জ অর্থাৎ শুভেন্দু অধিকারীর বাড়ির সামনে কলেজ মাঠে সভা করবেন, তখন তাঁরই লোকসভা এলাকাযর লাইট হাউসের মাঠে সভা করবেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা। এদিকে, ফলতায় শুভেন্দু অধিকারীর সভার অনুমতি নিয়ে আপত্তি তোলে পুলিস। তখন ডায়মন্ড হারবারে কেন্দ্রীয় সরকারের অধীনস্থ লাইট হাউস মাঠের আগাম অনুমতি নিয়ে নেয় বিজেপি।

বৃহস্পতিবার সেই মামলা শুনানির জন্য উঠলে বিচারপতি রাজশেখর মান্থা পুলিসের অনুমতি না দেওয়ার কারণ জানতে চান। রাজ্য জানিয়ে দেয় শুক্রবারই সকলেই অনুমতি দেওয়া হবে। এদিন সেই অনুমতি দেওয়ার কথা আদালতে জানায় সব পক্ষ।

one year ago


Murder: মেয়েকে স্কুলে দিতে এসে পুলিস স্বামীর ছুরির ঘায়ে খুন মহিলা, কাঁথিতে দিনেদুপুরে চাঞ্চল্য

দিনেদুপুরে কাঁথির গার্লস স্কুলের সামনে রোমহর্ষক হত্যাকাণ্ড (Contai Murder)। মেয়েকে স্কুলে দিতে এসে পুলিস স্বামীর (Husband Kills Wife) ছুড়িকাঘাতে নিহত মহিলা। এসডিপিও অফিসের (SDPO Office) ঢিল ছোড়া দূরত্বে হওয়া এই হত্যাকাণ্ডে স্পষ্টতই ছড়িয়েছে আতঙ্ক। যদিও অভিযুক্ত বাপ্পাদিত্য রায়কে গ্রেফতার করেছে পুলিস। তিনি হোমগার্ডের চাকরি করতেন বলে খবর।

জানা গিয়েছে, কাঁথি কাঁথি ৬ নম্বর ওয়ার্ডের মনোহরচকের বাসিন্দার বাপ্পাদিত্যর সঙ্গে তাঁর স্ত্রী বর্ণালী রায়ের দীর্ঘদিন ধরে পারিবারিক বিবাদ চলছে। এলাকার প্রাক্তন কাউন্সিলর এই দম্পতির সঙ্গে বহুবার বসে বিবাদ মেটানোর চেষ্টা করেছেন। কিন্তু বিবাদ চরমে থাকায় স্বামীর ঘর ছাড়েন বর্ণালী দেবী।  

এদিন মেয়েকে স্কুলে দিতে এসে গেটের বাইরে দাঁড়িয়ে ছিলেন বর্ণালী দেবী। তাঁর সঙ্গে ছিলেন অন্য পড়ুয়াদের অভিভাবক। তাদের সামনেই বাপ্পদিত্য আসলে ফের বর্ণালী দেবীর সঙ্গে বিতণ্ডা শুরু হয়। বিতণ্ডা চলাকালীন স্ত্রীয়ের শরীরে ছুরির কোপ বসায় অভিযুক্ত। একাধিকবার কোপ বসিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে এসডিপিও অফিস থেকে পুলিস এসে তাঁকে ধরে ফেলেন। পরে গ্রেফতার করা হয় অভিযুক্তকে।

এদিকে রক্তাক্ত অবস্থায় বর্ণালী দেবীকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন। অকস্মাৎ ঘটে যাওয়া এই হত্যাকাণ্ডে স্পষ্টতই চাঞ্চল্য এসডিপিও অফিস এলাকায়।

one year ago
Suvendu: শুভেন্দুর বাড়ির সামনে জমায়েত নিষিদ্ধ হাইকোর্টের, 'বেশি ভালবাসবেন না', মন্তব্য বিচারপতির

রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর (Suvendu Adhikary) বাড়ির সামনে জমায়েত নিষিদ্ধ করল কলকাতা হাইকোর্ট (Calcutta High Court)। বুধবার বিচারপতি রাজাশেখর মান্থার বেঞ্চ এই নির্দেশ দিয়েছে। সম্প্রতি বিরোধী দলনেতার কাঁথির (contai House) বাড়ি শান্তিকুঞ্জের সামনে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের (TMCP Gatherings) জমায়েত ঘিরে উত্তেজনার আবহ তৈরি হয়। শুভেন্দু অধিকারির 'সুস্থতা' কামনা করে হাতে গ্রিটিংস কার্ড এবং গোলাপ ফুল নিয়ে বিরোধী দলনেতার বাড়ির সামনে জমায়েত করেন ছাত্র নেতারা। শান্তিকুঞ্জে গিয়ে সেই কার্ড এবং গোলাপ ফুল দেওয়ার চেষ্টা করলেই পুলিসি বাধার মুখে পড়েন তাঁরা। তৃণমূল ছাত্র পরিষদের এই কর্মসূচির বিরোধিতা করে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন।

সেই মামলার শুনানিতে এই নির্দেশ বিচারপতি মান্থার। এদিন শুভেন্দুর আইনজীবী আদালতকে জানায়, 'গেট ওয়েল সুন' অনুষ্ঠানের নাম জমায়েত হয়েছে। এই দাবির প্রেক্ষিতে ভিডিও ফুটেজ আছে। খোদ আইসি রয়েছেন এই জমায়েতের সামনে।' এরপরেই বিচারপতি বলেন, 'হয়তো আপনার মক্কেলকে তাঁরা ভালবাসতে পারেন।' শুভেন্দুর আইনজীবীর পাল্টা, 'ক্রমাগত অশ্লীল ভাষা ব্যবহার হয়েছে।' এরপরেই বিচারপতির মন্তব্য, 'বেশি ভালবাসবেন না। মধুমেহ হয়ে যেতে পারে।'

পাশাপাশি হাইকোর্টের এই নির্দেশ কার্যকর করতে পূর্ব মেদিনীপুরের পুলিস সুপারকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। কাঁথি থানা নিশ্চিত করবে কোনও রকম জমায়েত যাতে না হয়। যদিও রাজ্য জানিয়েছে, তারা হলফনামা দিয়ে জানাবে ক্রমাগত শুভেন্দু অধিকারীর বাড়ির সামনে জমায়েত করা হয় না। এই মামলার পরবর্তী শুনানি শুক্রবার।

one year ago
Suvendu: মধ্যরাতে কাঁথিতে শুভেন্দুর কনভয় 'অনুসরণ' দুই সন্দেহভাজনের, আটক পুলিসের হাতে

রাজ্যর বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর (Suvendu Adhikary) কনভয় অনুসরণ করার অভিযোগে কাঁথিতে (Contai) আটক ২ যুবক। শান্তিকুঞ্জের সামনে সন্দেহজজনক ওই দু'জনকে আটকায় সিআরপিএফ (CRPF)। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে কনো সদুত্তর দিতে না পাড়ায় খবর দেওয়া হয় কাঁথি থানায়। পুলিস এসে ওই দু'জনকে আটক করে। পাশাপাশি ওই দুই যুবকের সঙ্গে থাকা একটি চার চাকার গাড়ি এবং মোটর বাইক আটক করে পুলিস।

এখনও পর্যন্ত আটক ওই দুই যুবককে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। জানা গিয়েছে, মধ্যরাতে প্রায় ২০-২৫ কিমি বিরোধী দলনেতার কনভয় অনুসরণ করে আসার পর শান্তিকুঞ্জ থেকে কিছু দূরে এসে ওই দুই যুবক এসে দাঁড়ায়। এরপরেই তাঁদের এসে আটক করে সিআরপিএফ জওয়ানেরা। এই ঘটনায় স্বাভাবিক ভাবে কাঁথি শহরে চাঞ্চল্য।  রাজ্যের বিরোধী দলনেতা হাই সিকিওরিটি প্রাপ্ত এবং একটা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর সমগোত্রীয় পদ। তাঁর কনভয় এভাবে অনুসরণ করে প্রায় শান্তিকুঞ্জ পর্যন্ত চলে আসা ঘিরে স্পষ্টতই রাজনৈতিক চাপানউতোর তুঙ্গে।

ইতিমধ্যে ৯ নভেম্বর পূর্ব মেদিনীপুরের পটাশপুরের সভায় তৃণমূল কংগ্রেসের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ অভিযোগ করেছিলেন, শুভেন্দু অধিকারীর গাড়ি ও তাঁর কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে নন্দীগ্রামে অস্ত্র ও টাকা ঢুকছে পঞ্চায়েত ভোটের আগে। এমনকী নদীয়া সভা থেকে রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধান মুখ্যমন্ত্রী বিভিন্ন জায়গায় নাকা চেকিং জোরদার করতে তৎপর হয়েছিলেন। তার ১২ ঘন্টা কাটতে না কাটতেই শুভেন্দুর গাড়িকে অনুসরণ করার খবর সামনে চলে এলো!

one year ago


Marine Drive: মুখ্যমন্ত্রীর হাতে উদ্বোধনের একমাসের মাথায় বন্ধ কাঁথি-দিঘা মেরিন ড্রাইভ

উদ্বোধনের এক মাসের মাথায় বন্ধ হয়ে গেল কাঁথি-দিঘা মেরিন ড্রাইভ (Contai-Digha Marine Drive)। মেরামতির কারণে প্রশাসনিক নির্দেশে এই সিদ্ধান্ত। পূর্ব মেদিনীপুর (East Midnapur) পর্যটনে নতুন পালক জুড়েছিল এই মেরিন ড্রাইভ। সমুদ্রের তীর ধরে কাঁথি-দিঘা পৌছনোর এই রাস্তা ১৪ সেপ্টেম্বর উদ্বোধন করেন মুখ্যমন্ত্রী (CM Mamata)। ওই পথে থাকা সবক'টি পর্যটনস্থল ছুঁয়ে গিয়েছে এই মেরিন ড্রাইভ। খুব অল্প সময়ের মধ্যে কাঁথি-দিঘা পৌছনোর এই রাস্তা জলোচ্ছ্বাসের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত। মূলত মন্দারমনি এবং শঙ্করপুরের মাঝের রাস্তা মেরামত করছে সেচ দফতর।

পাশাপাশি চলছে ক্ষতিগ্রস্ত সমুদ্র বাঁধ সারাইয়ের কাজ। ফলে রাস্তাটি চলাচলের অনুপযুক্ত হয়েছে। পর্যটকদের অসুবিধার মুখে পড়তে হয়েছে। প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, বঙ্গোপসাগরে প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণেই মেরিন ড্রাইভের রাস্তা সম্পূর্ণভাবে তৈরি করা সম্ভব হয়ে ওঠেনি। তবে তা শীতকালের মধ্যেই সম্ভব হয়ে যাবে। এবিষয়ে পূর্ব মেদিনীপুরের জেলাশাসক পূর্ণেন্দু মাজি বলেন, 'ওখানে কাজ চলছে। রাস্তা বন্ধের জন্য বোর্ড লাগানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। কেন লাগানো হয়নি, জানতে চেয়েছি। এখন ওই রাস্তা বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। রাস্তার কাজ সম্পন্ন হলেই রাস্তা খুলে দেওয়া হবে।'

2 years ago
Soumendu: জিজ্ঞাসাবাদের সময় বাড়ির খাবার খেতে দেয়নি পুলিস, অনাহারে ছিলেন সৌমেন্দু: আইনজীবী

কাঁথি পুরসভার (Contai Municipality) ফাইল মিসিং মামলায় (File Missing Case) সোমবার প্রায় ৭ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ সৌমেন্দু অধিকারীকে (Soumendu Adhikary)। শুক্রবারও তাঁকে তলব করে দীর্ঘক্ষণ জিজ্ঞাসাবাদ করেন তদন্তকারীরা (Bengal Police)। তিনি জানান, শুক্রবার কাঁথির এক কলেজের মামলায় তাঁকে তলব করেছে পুলিস। এদিন শুভেন্দুর ভাই সৌমেন্দু অধিকারীর আইনজীবী সংবাদ মাধ্যমের সামনে বিস্ফোরক অভিযোগ করেন। তিনি জানান, তাঁর মক্কেলকে বাড়ির খাবার খেতে দেওয়া হয়নি। দীর্ঘক্ষণ বসিয়ে রাখা হয়েছিল। যে সময় তদন্তকারীরা উপস্থিত ছিলেন না, সে সময় বই বা খবরের কাগজও পড়তে দেওয়া হয়নি সৌমেন্দু অধিকারীকে। উল্লেখ্য, কাঁথি পুরসভায় সারদা মামলা সংক্রান্ত একটি ফাইল মিসিংয়ের অভিযোগ দায়ের করেন বর্তমান পুরপ্রধান সুবল মান্না। কাঁথি পুরসভার প্রাক্তন চেয়ারম্যান হিসেবে তাই শুভেন্দুর অধিকারীর ভাইকে তলব করে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিস।

সৌমেন্দু অধিকারীকে অভুক্ত রাখা হয়েছিল। বাড়ির খাবার খেতে দেওয়া হয়নি। এই বিষয়ে সৌমেন্দু অধিকারী জানান, এ বিষয়ে তিনি সংবাদমাধ্যমে কিছু বলতে চান না। আইনের মধ্যে থেকে যা করার তদন্তকারীরা করেছেন। তবে একটা দীর্ঘ সময় তাঁকে থানায় বসিয়ে রাখা হলেও বই বা খবরের কাগজ পড়তে দেওয়া হয়নি। এই অভিযোগ করেছেন সৌমেন্দুও।

তিনি বলেন, 'পুলিসের এই পদক্ষেপের কথা কোর্টকে অবগত করা হবে।' ফাইল মিসিং সংক্রান্ত অভিযোগ প্রসঙ্গে সৌমেন্দু জানান, ২০২০-র ডিসেম্বরে আমাকে পুরসভার পুর প্রশাসকমণ্ডলীর (বিওএ) প্রধান পদ থেকে অপসারণ করা হয়েছিল। আর ফাইল মিসিং সংক্রান্ত অভিযোগ জমা পড়েছে চলতি বছর জুনে। অর্থাৎ এক বছর ছয় মাস ধরে অভিযোগ হয়েছে। যিনি অভিযোগ করেছেন, আমার পর তিনিও বিওএ-র প্রধান ছিলেন। গত এক বছর ছয় মাসে (পড়ুন জুন, ২০২৩ পর্যন্ত) আরও অনেকে প্রশাসক মণ্ডলীর প্রধান হয়েছেন। তাই আদালত বিচার করবে, মানুষ বিচার করবে।'

2 years ago


Sisir: সাংসদপদ খারিজ শুনানি, শিশিরকে তলব সংসদের প্রিভিলেজ কমিটির, অর্জুনের ভবিষ্যৎ কী?

প্রসূন গুপ্ত: দল বিরোধী কাজের জন্য বারবার তৃণমূল কংগ্রেস, কাঁথির সাংসদ শিশির অধিকারীর বিরুদ্ধে লোকসভার স্পিকার ওম বিড়লার কাছে অভিযোগ জমা করছে। তাদের নেতা সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় বিড়লার কাছে দাবি করেছেন, দলবিরোধী কাজের জন্য শিশিরবাবুর সাংসদপদ খারিজ করা হোক। প্রসঙ্গত গত বিধানসভা ভোটের আগে ২০২০-তে শিশিরপুত্র শুভেন্দু অধিকারী আনুষ্ঠানিক ভাবে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন। একুশের ভোটে বিজেপির নন্দীগ্রামের প্রার্থী হিসেবে ভোটে লড়েছেন শুভেন্দু। হেভিওয়েট এই আসনের লড়াইয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে পরাজিত করেন রাজ্যের বর্তমান বিরোধী দলনেতা।

এরপর শুভেন্দুকে বিরোধী দলনেতা করা হয়। গত প্রায় দেড় বছর ধরে তৃণমূলের আক্রমণের লক্ষ্য কমবেশি শুভেন্দু অধিকারী। ২০২১-র ভোটে শিশিরবাবুকে তৃণমূলের কোনও প্রচারে পাওয়া যায়নি। বরং অমিত শাহের একটি সভায় শিশিরবাবু বিজেপির মঞ্চে ছিলেন এবং তাঁকে উত্তরীয় পরিয়ে সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছিল। তবে শিশির অধিকারীর তৃণমূল ত্যাগ এবং বিজেপিতে যোগ সংক্রান্ত কোনও সরকারি ঘোষণা নেই।

কিন্তু শিশির অধিকারীর সাংসদপদ খারিজের দরবার গত এক বছর ধরেই করে আসছে তৃণমূল কংগ্রেস। সেই দরবারকে প্রাধান্য দিয়ে লোকসভার অধ্যক্ষ ওম বিড়লা শিশিরবাবুকে কয়েকবার ডেকে পাঠান। যদিও শারীরিক কারণ দেখিয়ে তিনি অনুপস্থিত ছিলেন। যদিও উপরাষ্ট্রপতি ভোটে তৃণমূলের হুইপ অমান্য করে তিনি দিল্লি গিয়ে ভোট দেন। এরপর ফের আবার ওম বিড়লা তাঁকে ডেকে পাঠান। আগামী ১২ অক্টোবর তাঁকে দিল্লি আসতে বলেছে সংসদের এথিক্স কমিটি। যদিও শিশিরবাবু জানিয়েছেন যে তিনি অসুস্থ, কাজেই ডাক্তার অনুমতি দিলে তিনি দিল্লি যাবেন। 

অন্যদিকে গুঞ্জন, শিশিরবাবু যেমন বেসুরো হয়েছেন তেমনই বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংও বিজেপি ছেড়ে সম্প্রতি তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন। অর্জুন কিন্তু সরকারিভাবে বিজেপির সাংসদ, অর্জুনের এই দলবদল নিয়ে ছেড়ে কথা বলবে না গেরুয়া শিবির। তারা নিশ্চই দাবি তুলছে যে অর্জুনেরও লোকসভার সাংসদ পদ খারিজ করা হোক। শিশির অধিকারীর বিষয়ে লোকসভার এথিক্স কমিটির আগামি সিদ্ধান্তে ঝুলে অর্জুনের ভবিষ্যৎ। শিশিরবাবুকে বহিষ্কার না করলে, আইনত অর্জুনকেও বহিষ্কার করা যাবে না। এমনটাই মনে করছে তৃণমূল শিবির।

2 years ago
murder: লক্ষাধিক টাকা নিয়ে লোনের কিস্তি পরিশোধে বেড়িয়ে নিখোঁজ ব্যবসায়ী, তিনদিন পর উদ্ধার দেহ

এক ব্যবসায়ীর অস্বাভাবিক মৃত্যু (death) ঘিরে চাঞ্চল্য কাঁথিতে (Kanthi)। পরিবারের অভিযোগ খুন (murder) করা হয়েছে তাঁকে। জানা যায়, মৃত ব্যবসায়ী পূর্ব মেদিনীপুর জেলার ভগবানপুর (Bhagabanpur) থানার কুরালবাড় গ্রামের চুল ব্যবসায়ী সেখ রফিউল। ১৬ তারিখ সকালে এক লক্ষ তিরিশ হাজার টাকা নিয়ে হলদিয়াতে (Haldia) একটি বেসরকারি লোন সংস্থার অফিসে টাকা জমা দিতে বেরোন। পরিবারকে অন্তত এমনটাই জানিয়েছিলেন রফিউল। 

নিজের বাইকে করেই তিনি বেরিয়ে ছিলেন বলে পরিবার সূত্রে খবর। এরপর নরঘাটে বাইক রাখার গ্যারাজে বাইক রাখেন। তারপর থেকে আর তাঁর কোনও হদিস পাওয়া যায়নি। ১৬ তারিখ ওই ব্যবসায়ী বাড়িতে না ফেরায় পরিবারের সদস্যরা চিন্তিত হয়ে পড়েন। বিভিন্ন জায়গায় খোঁজ খবরও নেওয়া শুরু হয়। কোথাও খোঁজ না পেয়ে পরিবারের লোকজন ১৭ তারিখ ভগবানপুর থানায় মিসিং ডায়রি করেন। 

এরপর ওই চুল ব্যবসায়ীর দেহ আজকে অর্থাৎ ১৮ তারিখ সন্ধ্যা নাগাদ কাঁথি হাসপাতালে পাওয়া যায়। মৃতের শরীরে ও মাথার পিছন দিকে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলেই পরিবারের দাবি। পরিবারের অভিযোগ, ওই চুল ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ওই বেসরকারি লোন সংস্থার লোকজন নগদ এক লক্ষ তিরিশ হাজার টাকা নিয়ে, পরিকল্পনামাফিক খুন করেছে। 

পরিবারের সদস্যদের আরও দাবি, মৃত শেখ রফিউল চুল ব্যবসার জন্য সেই কোম্পানি থেকে পাঁচ লক্ষ টাকা লোন নিয়েছিলেন। ব্যবসা চুল সময়মতো বিক্রি না হওয়ায় লোনের কয়েকটা কিস্তি বাকিও পড়ে গিয়েছিল। সেইজন্য লোন কোম্পানি থেকে বেশ কয়েকবার হুমকিও দিয়েছিল তাঁকে। তাইয শেখ রফিউল পরিচিত কয়েকজনের থেকে এক লক্ষ তিরিশ হাজার টাকা জোগাড় করে হলদিয়া লোন অফিসে গিয়ে কিস্তি পরিশোধ করতে বাড়ি থেকে বেরিয়ে ছিলেন। তারপর আর ওই চুল ব্যবসায়ী বাড়ি ফেরেননি। তিন দিন পর উদ্ধার হয়েছে তাঁর মৃতদেহ। এই ঘটনার প্রকৃত তদন্ত চেয়ে দোষীদের শাস্তির দাবিও জানিয়েছে পরিবার।

2 years ago