Breaking News
HC: জেলে ১ বছর ৭ মাস! পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বিচারপ্রক্রিয়া কবে শুরু হবে? ইডির কাছে রিপোর্ট তলব হাইকোর্টের      Sandeshkhali: ''দাদা আমাদের বাঁচান...'', সন্দেশখালির মহিলাদের আর্তি শুনলেন শুভেন্দু      Sandeshkhali: 'মুখ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ করা উচিত', ক্ষোভ প্রকাশ জাতীয় মহিলা কমিশনের চেয়ারপার্সনের      Weather: বিদায়ের পথে শীত! বাড়বে তাপমাত্রা, বৃষ্টির পূর্বাভাস দক্ষিণবঙ্গে      Sandeshkhali: শিবু হাজরার গ্রেফতারিতে মিষ্টি বিলি, আদালতে পেশ, কবে গ্রেফতার সন্দেশখালির 'মাস্টারমাইন্ড'?      Arrest: সন্দেশখালিকাণ্ডে ন্যাজট থেকে গ্রেফতার শিবু হাজরা      Trafficking: ১০ মাস লড়াইয়ের পর মাদক মামলা থেকে মুক্তি বিজেপি নেত্রী পামেলার      Mimi: রাজনীতি আমার জন্য় নয়, মুখ্যমন্ত্রীর কাছে গিয়ে সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা মিমির!      Dev: রাজনীতিতে ফিরতেই ফের দেবকে দিল্লিতে ডাক ইডির      Suvendu: সুকান্ত অসুস্থ থাকলেও, সন্দেশখালি কাণ্ডে আন্দোলনের ঝাঁঝ বাড়াতে মাঠে শুভেন্দু     

Commission

Sandeshkhali: 'মুখ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ করা উচিত', ক্ষোভ প্রকাশ জাতীয় মহিলা কমিশনের চেয়ারপার্সনের

সন্দেশখালির অভিযুক্ত শেখ শাহজাহানের গা ঘেঁষেই যেন কাঠগড়ায় উঠেছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পুলিস প্রশাসন। দিনের পর দিন চলা নির্যাতনের অভিযোগ। কীভাবে চোখ বন্ধ করে ছিল পুলিস? প্রশ্নের জবাব পেতে সন্দেশখালি পৌঁছয় জাতীয় মহিলা কমিশন। দু-জন নির্যাতিতাকে সঙ্গে নিয়ে রেখা শর্মা ও প্রতিনিধি দল পৌঁছয় সন্দেশখালি থানায়। কথা বলেন সন্দেশখালির মহিলাদের সঙ্গে। এরপরই তিনি বাংলায় রাষ্ট্রপতি শাসন ছাড়া উপায় নেই বলে দাবি করেন।

পুলিসেও ভয়। আতঙ্কে কথা বলতে চাইছেন না মহিলারা। সন্দেশখালিতে ধর্ষণের অভিযোগ তুললেন জাতীয় মহিলা কমিশনের চেয়ারপার্সন। বাংলার পরিস্থিতি ভয়াবহ। মুখ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ চাইলেন রেখা শর্মা। বিনা কারণে নির্যাতিতার পরিবারের সদস্যদেরও গ্রেফতার করা হয় বলেও অভিযোগ। সন্দেশখালিতে পুলিসের ভূমিকার তীব্র নিন্দা করেন রেখা শর্মা।

মহিলা মুখ্যমন্ত্রীর সাম্রাজ্যে দিল্লি থেকে ছুটে আসছে মহিলা কমিশন। মুখ্যমন্ত্রীর যাওয়ার সময় হল না? সন্দেশখালির মা-বোনেরা কি এতটাই তুচ্ছ? দিল্লির হস্তক্ষেপই যেন সমাধানের আশা। কিন্তু মা-মাটি-মানুষের সরকার বলে দাবি করা প্রশাসনের ঘড়িতে সন্দেশখালির জন্য সময় বরাদ্দ হবে? জবাব না হয় ভবিষ্যতের মুঠোই দিক।

2 days ago
Sandeshkhali: শিশুকে ছিনিয়ে নিয়ে ছুড়ে ফেলার অভিযোগ! সন্দেশখালিতে রাজ্য শিশু সুরক্ষা কমিশন

এবার সন্দেশখালিতে রাজ্য় শিশু সুরক্ষা কমিশন। শনিবার সকালে সন্দেশখালিতে প্রবেশ করেছেন শিশু সুরক্ষা কমিশনের চেয়ারপারসন তুলিকা দাস, উপদেষ্ঠা সুদেষ্ণা রায় সহ ছয় জনের একটি প্রতিনিধি দল। সন্দেশখালি থানার অন্তর্গত খুলনা দ্বীপের সিতুলিয়ায় যাচ্ছে শিশু সুরক্ষা কমিশন। জানা গিয়েছে, এদিন গোটা সন্দেশখালি গ্রাম খতিয়ে দেখবে শিশু সুরক্ষা কমিশন।

সুদেষ্ণা রায় জানিয়েছেন, 'আমরা শুনেছি একটি শিশুকে তাঁর মায়ের কোল থেকে ছিনিয়ে নিয়ে ছুড়ে ফেলা হয়েছে। এখন সেই শিশুটা কেমন আছে এবং গ্রামের অন্যান্য শিশুরা কেমন আছে, সেই সমস্ত খোঁজ খবর নিচ্ছি আমরা। উচ্চমাধ্য়মিক পরীক্ষা চলছে। পরাক্ষার্থীদের পরীক্ষাকেন্দ্রে কোনওরকম অসুবিধা হচ্ছে কিনা? সেই বিষয়েও খতিয়ে দেখতে চাই।'  

সন্দেশখালি ঘটনা ১০ দিন পার। পরিস্থিতি আপাতত নিয়ন্ত্রণে। এখনও পর্যন্ত এই ঘটনায় ১৫ টা মামলা রুজু আছে সন্দেশখালি থানায়। সন্দেশখালিতে রাজ্য় মহিলা কমিশনের প্রতিনিধি দল যাওয়ার পর উঠেছিল মহিলাদের উপর অত্য়াচারের অভিযোগ। তারপরেই শাহজাহান এবং শিবু হাজারার গ্রেফতারির দাবিতে বিক্ষোভে সামিল হয়েছিল গ্রামের মহিলা সদস্য়রা। 

অন্য়দিকে চার দিনের পুলিসি হেফাজত শেষ হওয়ার পর শনিবার ফের আদালতে পেশ করা হবে বিকাশ সিংহ ও উত্তম সর্দারকে। গত কয়েকদিনের ঘটনার কথা মাথায় রেখে, এদিন এই দুই নেতার জামিনের বিরোধিতা করার জন্য প্রস্তুত পুলিস।

4 days ago
Sandeshkhali: সন্দেশখালিতে রাজ্য মহিলা কমিশন, রিপোর্ট নিলেন লীনা গঙ্গোপাধ্যায়

অশান্ত সন্দেশাখালি, উত্তপ্তের আঁচ খুজতে উঠে এসেছে মহিলাদের বিরুদ্ধে অকথ্য অত্যাচার, সম্ভ্রমহানির হাজারো অভিযোগ। শেখ শাহজাহান, শিবু হাজরা, উত্তম সর্দারদের নামে কান পাতা দায় সন্দেশখালিতে। এমন পরিস্থিতিতে অশান্তির প্রায় ৭ দিনের মাথায় সোমবার সকালে সন্দেশখালিতে গেলেন রাজ্য মহিলা কমিশনের চেয়ারপার্সন লীনা গঙ্গোপাধ্যায়।

১৪৪ ধারার মধ্যেও প্রত্যন্ত গ্রামীণ এলাকায় পৌঁছন লীনা গঙ্গোপাধ্যায়। ঘুরে দেখেন এবং স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলেন, অভিযোগ শোনেন।

মহিলাদের অভিযোগ, রাত ১২ টায় তুলে নিয়ে যাওয়া হতো পার্টি অফিসে। কখনও ছাড়া হতো রাত পেরলো, কখনও ছাড়া হতো ৩-৪ দিন পর। সুন্দরী মেয়ে হোক বা বউ, টার্গেট হতো শাহজাহান ঘনিষ্ঠদের। লীনা গঙ্গোপাধ্যায় জানিয়েছেন,'মহিলাদের ওপর অত্যাচারের অভিযোগ ওঠায় কথা বলার জন্য আসা'। এদিন মহিলা কমিশনের প্রতিনিধিদের সঙ্গে কথা বললেন স্থানীয় মহিলারা।

a week ago


EC: লোকসভা নির্বাচনে প্রতি বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী, ঘোষণা জাতীয় নির্বাচন কমিশনের

আসন্ন ২০২৪-এর লোকসভা নির্বাচন। আর এই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যেই বেশ কিছু নজরকাড়া পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে জাতীয় নির্বাচন কমিশন। আসন্ন লোকসভার নির্বাচনী নির্ঘণ্ট প্রকাশ হওয়ার আগেই নির্বাচন কমিশন জানিয়ে দিয়েছে প্রত্যেক বুথেই থাকবে কেন্দ্রীয় বাহিনী। যদিও ২০১৯ এবং ২০২১ সালে এই কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করা হলেও তা সম্পূর্ণভাবে মনিটর করেছে বিএসএফ। কিন্তু ২০২৪-এর লোকসভা নির্বাচনে কেন্দ্রীয় বাহিনীর সবকিছুই মনিটর করবে সিআরপিএফ। পাশাপাশি কেন্দ্রীয় বাহিনী সংক্রান্ত সব বিষয়ে কমিশন এবং মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিকের সঙ্গে লিয়াঁজোর কাজ করবে সিআরপিএফ।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ এবং ২০২১ সালে এই কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করা হলেও তাকে সম্পূর্ণভাবে মনিটর করেছিল বিএসএফ। শাসক থেকে বিরোধী প্রত্যেকেই বিভিন্ন সময়ে আঙ্গুল তুলেছে বিএসএফের দিকে। এছাড়াও ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনে কেন্দ্রীয় বাহিনীর গতিবিধি এবং অতি সক্রিয়তা নিয়ে বারবার প্রশ্ন করেছিল রাজ্যের শাসক দল। আর তাই এবার সবকিছু পর্যালোচনা করেই জাতীয় নির্বাচন কমিশন এবার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্যের মুখ্য-নির্বাচনী আধিকারিকের দফতর, জেলা নির্বাচনী আধিকারিক বা রিটার্নিং অফিসার থেকে শুরু করে কেন্দ্রীয় বাহিনী, যেখানে যেখানে মোতায়েন হবে তার সবকিছুই মনিটার করবে একমাত্র সিআরপিএফ। ২৪-এর লোকসভার নির্বাচনী নির্ঘণ্ট প্রকাশ হওয়ার আগে থেকেই সব দিকের সবকাজ আগে থাকতেই শেষ করে রাখতে চাইছে জাতীয় নির্বাচন কমিশন।

তবে এখন দেখার বিষয় একটাই, সম্প্রতি রাজ্যের শেষ হওয়া পঞ্চায়েত ভোটে মানুষের মাথায় যে ছবি এখনও রয়ে গেছে সেই আতঙ্ককে দূর করতে সিআরপিএফ কতটা সক্রিয় ভূমিকা পালন করতে পারে এবং আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে, জাতীয় নির্বাচন কমিশনের গরিমাকে ধরে রাখতে কতটা তৎপর হতে পারে। তবে জাতীয় নির্বাচন কমিশনের যে ভূমিকা এখন থেকেই সাধারণ মানুষ দেখছে তাতে আশায় বুক বাঁধছে সাধারণ মানুষ। তাঁদের আশা হয়তো এবার রাজ্যে অবাধ শান্তিপূর্ণ এবং রক্তপাতহীন লোকসভা নির্বাচন সম্পন্ন হবে।

3 weeks ago
Rajya Sabha Election: লোকসভার মুখে রাজ্যসভার ৫৬ আসনের নির্বাচন, দিনক্ষণ ঘোষণা নির্বাচন কমিশনের

চলতি বছরই লোকসভা নির্বাচন, সম্ভবত এপ্রিলেই। তার আগেই দেশের ১৫টি রাজ্যের ৫৬টি রাজ্যসভা আসনের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে চলেছে। সোমবার ওই ৫৬ আসনের নির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষণা করল নির্বাচন কমিশন। যার মধ্যে পশ্চিমবঙ্গ থেকে রয়েছেন ৫ সদস্য। তাঁরা হলেন, অভিষেক মনু সিংভি, শান্তনু সেন, নাদিমুল হক, শুভাশিস চক্রবর্তী, আবির রঞ্জন বিশ্বাস।

নির্বাচন কমিশনের তরফে জানানো হয়েছে, আগামী ২৭ ফেব্রয়ারি রাজ্যসভার নির্বাচন হবে। ১৫টি রাজ্যের ৫৬টি আসনে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে স্থির হয়েছে। সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৪টের মধ্যে নির্বাচন প্রক্রিয়া অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনের দিন ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গেই রাজ্যসভার নির্বাচনের প্রার্থী হিসাবে মনোনয়ন জমা দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়ে যাচ্ছে। মনোনয়ন জমা দেওয়ার শেষ দিন ১৫ ফেব্রুয়ারি।

উল্লেখ্য, ১৩টি রাজ্যের ৫০টি আসনের সদস্যদের মেয়াদ শেষ হচ্ছে আগামী ২ এপ্রিল। আর দুই রাজ্যের ৬টি আসনের সদস্যদের মেয়াদ শেষ হবে ৩ এপ্রিল। পশ্চিমবঙ্গ ছাড়াও যে সব রাজ্যে ২৭ ফেব্রুয়ারি রাজ্যসভা নির্বাচন হবে, সেগুলি হল উত্তরপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র, বিহার, মধ্যপ্রদেশ, গুজরাট, অন্ধ্রপ্রদেশ, তেলেঙ্গানা, রাজস্থান, কর্ণাটক, উত্তরাখণ্ড, ছত্তিশগড়, ওড়িশা, হরিয়ানা এবং হিমাচল প্রদেশ।

3 weeks ago


High Court: রাজ্যে জব কার্ড দুর্নীতির তদন্তে চার সদস্যের কমিটি গঠনের নির্দেশ হাইকোর্টের

রাজ্যে জব কার্ড দুর্নীতির তদন্তে বৃহস্পতিবার তিন সদস্যের কমিটি গঠন হাইকোর্টের। কেন্দ্র, রাজ্য ও সিএজির তরফে ১ জন করে প্রতিনিধি এবং অ্যাকাউনটেন্ট জেনারেলের তরফে ১ জন করে প্রতিনিধি নিয়ে চার সদস্যের কমিটি গঠন করার নির্দেশ দিযেছে প্রধান বিচারপতি টি এস শিবজ্ঞানমের ডিভিশন বেঞ্চ। 

কেন্দ্র ও রাজ্যকে যত দ্রুত সম্ভব এই আধিকারিকদের নাম জানাতে হবে আদালতে। তারা গোটা রাজ্যে ভুয়ো জব কার্ড নিয়ে তদন্ত করে রিপোর্ট দেবে আদালতে। আগামী বৃহস্পতিবার এই মমলার ফের শুনানি। এই মামলায় এদিন প্রধান বিচারপতি মন্তব্য করেন- ২০২৩-২৪ অর্থবর্ষে যাতে নতুন করে কাজ চালু হয় তার জন্য কেন্দ্র ও রাজ্যকে সজাগ থাকতে হবে।

খেত মজদুর সংগঠনের আইনজীবী বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য বলেন, আমরা শ্রমিক। আমাদের পারিশ্রমিক নিয়ে কথা। আমরা কাজের আবেদন জানিয়েছি। কিন্তু কাজ পাইনি। কেন্দ্র বা রাজ্য কারা দায়িত্ব নেবে সেটা তারাই ভাবুক। কিন্তু তাদের দায়িত্ব শ্রমিকদের জন্য কাজ ও উপযুক্ত পারিশ্রমিকের ব্যবস্থা করা। 

প্রধান বিচারপতি বলেন, বর্তমান পরিস্থিতি কী? যতই দুর্নীতি বা যা কিছু থাক। যারা প্রকৃত অভাবী তাদের জন্য কি করা হয়েছে? কাউকে তো দায়িত্ব নিতে হবে?

২০২১ সালে কেন্দ্রের একটি টিম এসেছিল মালদা এবং পাহাড়ে। তখন তারা জানিয়েছিল, জব কার্ড নিয়ে তারা সন্তুষ্ট নয়। ২০২৩ সালে কলকাতায় ১৫ টি টিম আসে। তারা ফিরে যাওয়ার পর রাজ্যের কাছে কিছু তথ্য চেয়ে পাঠায়। রাজ্যের তরফে সেগুলো পাঠানো হয়। তারপরে নতুন আর টাকা দেয়নি কেন্দ্র। একাধিক বার কেন্দ্রের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে যাতে নতুন করে এই প্রকল্প চালু করা হয়। নথি দেওয়া হয়েছে কেন্দ্রকে।

বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য আদালতের কাছে আবেদন করেন, জব কার্ড দুর্নীতির জন্য তিন সদস্যের একটা কমিটি গঠন করে এই পুরো বিষয়ের তদন্ত করার জন্য। সমস্ত সওয়াল জবাব শোনার পর প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চও তিন সদস্যের কমিটি গঠন করার জন্য নির্দেশ দেন। এখন দেখার আদালতের এই নির্দেশের পর জব কার্ড দুর্নীতির মামলা কোন দিকে মোড় নেয়।

a month ago
Rajiva Sinha: আদালত অবমাননা মামলায় হাজিরা রাজীব সিনহার, উত্তর দিতে আরও সময় দিল হাইকোর্ট

আদালত অবমাননা মামলায় রাজ্য নির্বাচন কমিশনার রাজীব সিনহাকে উত্তর দেওয়ার আরও সময় দিল কলকাতা হাইকোর্ট (Calcutta High Court)। পঞ্চায়েত নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিরোধীদের করা মামলায় আদালত অবমাননার অভিযোগ ওঠে রাজীব সিনহার (Rajiv Sinha) বিরুদ্ধে। আদালতের নির্দেশ না মেনে অবমাননা করা হয়েছে বলেই পর্যবেক্ষণ ছিল প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চের। সেই কারণেই তাঁর বিরুদ্ধে রুল জারি হয় ও আদালতে হাজিরার নির্দেশ দেওয়া হয়। আজ অর্থাৎ শুক্রবার এই মামলার শুনানিতে হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির টি এস শিবজ্ঞানম ও বিচারপতি উদয় কুমারের ডিভিশন বেঞ্চ আদালত অবমাননার রুলের উত্তর দিতে ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত সময় দিল রাজীবকে।

আজ অর্থাৎ শুক্রবার সকাল ১০টা নাগাদ আদালতে সশরীরে হাজিরা দেন রাজ্য নির্বাচন কমিশনার রাজীব সিনহা। রাজ্য নির্বাচন কমিশনারকে ২৪শে নভেম্বর সশরীরে হাজিরা দিয়ে আদালত অবমাননার বিষয়টি ব্যাখ্যা করার নির্দেশ দিয়েছিল প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ। কিন্তু এদিন অর্থাৎ শুনানির দিন রুলের উত্তর দেওয়ার জন্য সময়ের আর্জি জানালে প্রধান বিচারপতির বেঞ্চ তাঁকে সময় দেয়। এছাড়াও জানানো হয়েছে, হলফনামার মাধ্যমে তাঁকে দিতে হবে উত্তর।

এদিন প্রধান বিচারপতি টি এস শিবজ্ঞানম ও বিচারপতি উদয় কুমারের ডিভিশন বেঞ্চ জানিয়েছে, রুলের উত্তর দিতে আরও সময় দেওয়া হল নির্বাচন কমিশনারকে। ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত সময় দেওয়া হল কমিশনারকে। তার মধ্যে তাঁকে উত্তর দিতে হবে। ৮ জানুয়ারির মধ্যে শুনানি শেষ করতে হবে। ওই দিন এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানাতে পারে ডিভিশন বেঞ্চ। তবে প্রয়োজনে ফের তাঁকে হাইকোর্টে ডাকা হতে পারে এমনটাই জানিয়েছে হাইকোর্ট।

উল্লেখ্য, পঞ্চায়েত নির্বাচনে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন থেকে আদালতের একাধিক নির্দেশ অবমাননা করেছেন, রাজ্য নির্বাচন কমিশনার রাজীব সিনহা বিরুদ্ধে এমনটা দাবি করেই আদালতে অভিযোগ করেছিলেন রাজ্যের বিরোধী নেতারা আদালত অবমাননা করা হয়েছে বলেই পর্যবেক্ষণ ছিল প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চের।

3 months ago
Kamduni: কামদুনির পাশে এবারে নির্ভয়ার মা, জাতীয় মহিলা কমিশনের বৈঠকে মৌসুমী-টুম্পারা

কামদুনি কাণ্ডে (Kamduni Case) 'সুবিচার' পেতে দিল্লি এসেছেন মৌসুমী-টুম্পা সহ প্রতিবাদীরা, সঙ্গে রয়েছেন বিজেপি নেতা শঙ্কুদেব পণ্ডা। বুধবার দিল্লি (Delhi) পৌঁছনোর পরই আজ অর্থাৎ বৃহস্পতিবার দিল্লিতে জাতীয় মহিলা কমিশনের কাছে স্মারকলিপি জমা দিলেন তাঁরা। সূত্রের খবর, বৃহস্পতিবার বেলা ১২ টায় জাতীয় মহিলা কমিশনের অফিস যান তাঁরা। সেখানে গিয়ে জাতীয় মহিলা কমিশনারের চেয়ারপার্সন রেখা শর্মার সঙ্গে দেখা করেন তাঁরা। জানা গিয়েছে, রেখা শর্মা তাঁদের আশ্বস্ত করেছেন যে, পুজোর পর তিনি কামদুনি যাবেন ও জাতীয় মহিলা কমিশনের তরফেও প্রতিনিধি দল পাঠানো হবে সেখানে। এছাড়াও সেখানকার মহিলাদের নিরাপত্তা খতিয়ে দেখা হবে বলে জানা গিয়েছে। এদিন জাতীয় মহিলা কমিশনারের সঙ্গে বৈঠকের পরই নির্ভয়ার মায়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন তাঁরা। এর পরই আজ যন্তর মন্তরে ধরনায় বসেছেন নির্যাতিতার পরিবার।

বৃহস্পতিবার দিল্লি গিয়ে জাতীয় মহিলা কমিশনের চেয়ারপার্সন রেখা শর্মার সঙ্গে দেখা করেন মৌসুমী, টুম্পারা। সঙ্গে ছিলেন রাজ্য বিজেপি নেতা শঙ্কুদেব পণ্ডা। জাতীয় মহিলা কমিশনে স্মারকলিপি জমা করেন প্রতিবাদীরা। তাতে জানানো হয়, কীভাবে ২০১৩ সালে নৃশংসভাবে ধর্ষণ করে খুন করা হয়। এর পর দোষীদের কলকাতা হাইকোর্টে খালাস করে দেওয়া হয়। এসব সমস্ত কিছু লেখা রয়েছে স্মারকলিপিতে। এর পরই সাক্ষাৎ হয় নির্ভয়ার মায়ের সঙ্গেও। 'কামদুনি যাতে বিচার পায়, সেজন্য কেন্দ্রের কাছে আবেদন করব। জাতীয় মহিলা কমিশনের কাছেও অনুরোধ করব', আশ্বাস নির্ভয়ার মায়ের।

ইতিমধ্যেই কলকাতা হাইকোর্টের রায়ের প্রেক্ষিতে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করেছে রাজ্য সরকার। কিন্তু এদিন রাজ্য সরকার এবং সিআইডি-এর বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে মামলা করেন কামদুনির নির্যাতিতার পরিবার। দ্রুত শুনানির জন্য আজ প্রধান বিচারপতির বেঞ্চে মামলাটি মেনশন করা হবে বলে সূত্রের খবর।

4 months ago


Election: নভেম্বরেই হবে ৫ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন, ঘোষণা নির্বাচন কমিশনের

রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, ছত্তীসগঢ়, তেলঙ্গানা এবং মিজ়োরাম‌ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের দিনক্ষণ চূড়ান্ত করল জাতীয় নির্বাচন কমিশন। দিল্লির নির্বাচন সদনে সাংবাঠিক বৈঠক করে ভোটের দিনক্ষণ ঘোষণা করলেন দেশের মুখ্য নির্বাচন কমিশনার রাজীব কুমার। রাজ্যগুলির মধ্যে মিজ়োরাম বিধানসভার মেয়াদ শেষ হবে ১৭ ডিসেম্বর। বাকি রাজ্যগুলিতে বিধানসভার মেয়াদ শেষ হবে জানুয়ারিতে।

১৭ নভেম্বর এক দফায় ভোট গ্রহণ মধ্যপ্রদেশে। রাজস্থানেও এক দফায় ২৩ নভেম্বর ভোট গ্রহণ। তেলঙ্গানায় ভোট হবে ৩০ নভেম্বর। মিজ়োরামেও এক দফায় ভোটগ্রহণ হবে ৭ নভেম্বর। ভোটমুখী পাঁচ রাজ্যের মধ্যে কেবল ছত্রিশগড়ে হবে দু’দফায় ভোট। ৭ নভেম্বর এবং ১৭ নভেম্বর। সব রাজ্যের ভোটের ফলঘোষণা হবে ৩ ডিসেম্বর। ৫ ডিসেম্বরের মধ্যে শেষ হবে ভোটপ্রক্রিয়া।

নির্বাচন কমিশনের তরফে জানানো হয়েছে, পাঁচ রাজ্যের মোট ৬৭৯টি বিধানসভা কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ হবে। এ বার নতুন ভোটারের সংখ্যা ৬০ লক্ষ। মোট ভোটারের সংখ্যা ১৬.১ কোটি। কমিশনার জানিয়েছেন, পাঁচ রাজ্যেই নারী-পুরুষ লিঙ্গ অনুপাত ক্রমশ উন্নত হচ্ছে। পাঁচ রাজ্যের প্রতিটিতে ক’জন মহিলা প্রার্থী রয়েছেন, তা-ও উল্লেখ করা হয়েছে সাংবাদিক বৈঠকে। নির্বাচনী প্রস্তুতির অঙ্গ হিসাবে পাঁচটি রাজ্যে গিয়েই ভোট প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণকারী সব পক্ষের সঙ্গে আলোচনা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে কমিশন। বেড়েছে ভোটকেন্দ্রের সংখ্যাও। মিজ়োরামে থাকছে ১,২৭৬টি ভোটকেন্দ্র। ছত্রিশগড়, মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান এবং তেলঙ্গানায় ভোটকেন্দ্রের সংখ্যা যথাক্রমে ২৪,১০৯, ৬৪,৫২৩, ৫১,৭৫৬, ৩৫,৩৫৬।

4 months ago
United Kingdom: খালিস্তানি সন্ত্রাসবাদী খুনের প্রভাব, গুরুদ্বারে প্রবেশের মুখে বাধা ভারতীয় হাইকমিশনারকে

খালিস্তানি সন্ত্রাসবাদী হরদীপ সিং নিজ্জার খুনের ঘটনার পর ক্রমেই বাড়ছে বিতর্ক। যার জেরে বাড়ছে ভারতের বিরুদ্ধে কানাডার অভিযোগ। এবার তার আঁচ ব্রিটেনেও।

স্কটল্যান্ডের গুরুদ্বারে প্রবেশের মুখে খালিস্তানিদের বাধার মুখে পড়লেন গ্রেট ব্রিটেনের ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী। যা নিয়ে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। এমনকি নিরাপত্তা ব্যবস্থা খতিয়ে দেখতে স্থগিত করে দেওয়া হয় ভারতীয় হাইকমিশনারের অনুষ্ঠানও।

জানা গিয়েছে, ব্রিটেনের স্কটল্যান্ডের একটি গুরুদ্বারে আমন্ত্রিত ছিলেন ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী। কিন্তু সেখানে পৌঁছতেই উপস্থিত কয়েকজন খালিস্তানি সমর্থকরা তাঁকে থামিয়ে দেয়। দেওয়া হয় স্লোগানও। ইতিমধ্যেই এই ঘটনার একটি ভিডিও প্রকাশ্যে এসেছে।

5 months ago


Meeting: লোকসভা ভোটের প্রস্তুতিতে জেলা শাসক ও নির্বাচনী আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠকে কেন্দ্রীয় কমিশন

লোকসভা ভোটের প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে জাতীয় নির্বাচন কমিশন। লোকসভা ভোটের প্রস্তুতিতে সোমবার ১১ সেপ্টেম্বর জেলাশাসক এবং রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক (সিইও) ও তাঁর দফতরের আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক করার কথা কমিশনের প্রতিনিধিদলের। রবিবার থেকেই কমিশনের সদস্যরা আসতে শুরু করেছেন। ইতিমধ্যেই শহরে এসে পৌঁছেছেন সিনিয়র ডেপুটি ইলেকশন কমিশনার বা উপনির্বাচন কমিশনার ধর্মেন্দ্র শর্মা। তিনিই এই প্রতিনিধি দলকে নেতৃত্ব দেবেন। সঙ্গে থাকার কথা আরও তিন উপনির্বাচন কমিশনারের। তার মধ্যে থাকবেন এ রাজ্যের দায়িত্বপ্রাপ্ত উপনির্বাচন কমিশনার নীতিন ব্যাসও।

বৈঠকে আরও চারজন কমিশনের কর্তারও হাজির থাকার কথা। জোনাল সেক্রেটারি রাকেশ কুমার, ভোটার তালিকার দায়িত্বপ্রাপ্ত বটুলিয়া-সহ আরও দুই শীর্ষস্তরের আধিকারিকের থাকার কথা।

ভোটার তালিকার কাজের কেমন অগ্রগতি, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি, কীভাবে হবে ‘অশান্ত’ এলাকার ম্যাপিং, ইভিএম-ভিভিপ্যাটগুলির পরীক্ষানিরীক্ষা কেমন এগোচ্ছে সবকিছুই এই বৈঠকে আলোচনা হতে পারে বলে নির্বাচন কমিশন সূত্রে খবর। আগামী বছর অর্থাৎ ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের প্রস্তুতির খুঁটিনাটি বিষয় নিয়ে সোমবার দীর্ঘ সময় ধরে এই বৈঠক হবে, তেমনই স্থির রয়েছে। সেখান থেকে প্রয়োজনীয় নির্দেশ দেবেন কমিশনের কর্তারা।

5 months ago
Election: লোকসভা নির্বাচনের প্রস্তুতি খতিয়ে দেখতে রাজ্যে আসছে কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশনের প্রতিনিধি দল

লোকসভা নির্বাচনের প্রস্তুতি খতিয়ে দেখতে ফের রাজ্যে আসছে কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশনের একটি প্রতিনিধি দল। রবিবারই তারা রাজ্যে আসবে বলে নির্বাচন কমিশন সূত্রে খবর পাওয়া গিয়েছে। ওই দলে থাকবেন ডেপুটি নির্বাচন কমিশনার নীতেশ ভ্যাস এবং ধর্মেন্দ্র শর্মা। আগামী সোমবার মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক সহ কমিশনের অন্য অফিসারদের সঙ্গে বৈঠকে বসবেন তাঁরা।

এর আগেও ২২ জুলাই রাজ্যে এসেছিলেন কেন্দ্রীয় নির্বাচনী আধিকারিক আরিজ আফতাব। কলকাতার একটি হোটেলে সব জেলার জেলাশাসকদের সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি। আগামী সোমবারের বৈঠকে ভোটার তালিকায় নাম সংযুক্তিকরণ এবং বাদ দেওয়ার বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হবে বলে জানা গিয়েছে।

লোকসভা নির্বাচন এগিয়ে আনতে পারে বলে আগেই আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এমনকী নীতিশ কুমারের গলাতেও একই সুর শোনা গিয়েছিল। কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশনের তৎপরতা দেখে রাজনৈতিক মহলের ধারণা অন্য বারের তুলনায় আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের সময় পরিবর্তন করতে পারে কেন্দ্রীয় সরকার। আর সেকাণেই এত দ্রুত তৎপরতা শুরু হয়েছে।

যদিও কমিশনের অন্য একটি সূত্রের দাবি, নির্বাচন কমিশনের এই সফর সম্পূর্ণ রুটিন মাফিক হচ্ছে। এর সঙ্গে লোকসভা নির্বাচন এগিয়ে আনার যে জল্পনা উঠেছে তার কোনও সম্পর্ক নেই।

5 months ago
Mamata: নির্বাচন কমিশনার সংক্রান্ত বিলের বিরুদ্ধে টুইট করে বিচারব্যবস্থার কাছে কাতর আর্জি মমতার

দেশকে বাঁচানোর জন্য বিচার ব্যবস্থার কাছে কাতর আর্জি জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই সংক্রান্ত একটি টুইট করেন তিনি। সেখানে প্রধান নির্বাচন কমিশনার এবং অন্য নির্বাচন কমিশনার সংক্রান্ত বিলের কড়া সমালোচনা করেন।

সম্প্রতি রাজ্যসভায় পেশ হয়েছে নির্বাচন কমিশনার সংক্রান্ত বিল। ওই বিল অনুযায়ী, মুখ্য নির্বাচন কমিশনার এবং অন্য নির্বাচন কমিশনার নিয়োগের ক্ষেত্রে প্রধান বিচারপতির কোনও ভূমিকা থাকবে না। প্রধানমন্ত্রী নেতৃত্বাধীন গঠিত প্যানেলের সুপারিশ সরাসরি রাষ্ট্রপতির কাছে অনুমোদনের জন্য পাঠানো হবে। টুইটারে এই বিষয়টির তীব্র বিরোধিতা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

শনিবার করা টুইটে তিনি লেখেন, 'নৈরাজ্যের কাছে মাথা নত করেছে কেন্দ্রের বিজেপি সরকার।' জাতীয় নির্বাচন কমিশনার এবং অন্য নির্বাচন কমিশনার নিয়োগের ক্ষেত্রে বিচারপতির ভূমিকা যথেষ্ঠ গুরুত্বপূর্ণ বলেও টুইটারে লেখেন তিনি। তাঁর অভিযোগ, ভোটে কারচুপি করতে যাতে না সমস্যা হয় তার জন্যই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

এর পরেই কাতর আর্জি জানান বিচার ব্যবস্থার কাছে। তিনি লেখেন, বিচার ব্যবস্থার কাছে কাতর আর্জি জানাচ্ছি, মাই লর্ড, আমাদের দেশকে বাঁচান।"

6 months ago


RajyaSabha: নির্বাচন কমিশনার নিয়োগের প্রক্রিয়ায় থাকবেন না প্রধান বিচারপতি, নয়া আইন কেন্দ্রে!

রাজ্যসভায় (RajyaSabha) পেশ করা হল আরও এক বিল। এবার থেকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (Election Commissioner) ও নির্বাচন কমিশনারের নিয়োগের ক্ষেত্রে তিন সদস্যের প্যানেলে থাকবে না সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি (Chief Justice)। এবারে এই বিষয়েই লোকসভায় পেশ করা হল বিল। অর্থাৎ আজ সংসদের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায় পেশ করা হল 'নির্বাশন কমিশনার বিল ২০২৩'। এই বিল পাশ হয়ে গেলেই এটি আইনে পরিণত হবে।

গত মার্চ মাসেই সুপ্রিম কোর্ট থেকে রায় দেওয়া হয়েছিল যে, মুখ্য নির্বাচন কমিশনার ও অন্যান্য নির্বাচন কমিশনার বাছাই করার ক্ষেত্রে একটি প্যানেল গঠন করা হবে। আর সেই প্যানেলে থাকবে প্রধানমন্ত্রী, বিরোধী দলনেতা ও প্রধান বিচারপতি। কিন্তু এবারে সেটিই পরিবর্তিত হয়ে গেল। রাজ্য়সভায় এই বিলের প্রস্তাবিত খসড়ায় বলা হয়েছে, প্রধান নির্বাচন কমিশনার এবং নির্বাচন কমিশনের অন্যান্য কমিশনারদের নাম সুপারিশ করবে প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে গঠিত একটি প্যানেল। সেই সুপারিশ মেনে রাষ্ট্রপতি তাঁদের নিয়োগ করবেন।

বিলে বলা হয়েছে, প্রধানমন্ত্রীর পাশাপাশি থাকবে প্রধানমন্ত্রীর মনোনীত মন্ত্রী ও লোকসভার বিরোধী দলনেতা। মোট তিনজন সদস্যের প্যানেল হবে এটি। তবে এই প্রস্তাবে বিরোধীরা এই প্রতিবাদ করেছে। এছাড়াও এই বিল পাশ হয়ে আইন হলে পরবর্তীতে বিচারব্যবস্থা ও দেশের সরকারের মধ্যে সংঘাতের আশঙ্কা বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা।

6 months ago
Election: পঞ্চায়েত নির্বাচন মিটতেই লোকসভার প্রস্তুতি, জেলা শাসকদের নিয়ে বৈঠক নির্বাচন কমিশনের

পঞ্চায়েত ভোটের রেশ কাটতে না কাটতেই এবার লোকসভা নির্বাচনের প্রস্তুতি শুরু করে দিল কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশন। ইতিমধ্যে কলকাতায় এসেছেন মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক আরিজ আফতাব। শনিবার শহরের একটি অভিজাত হোটেলে রাজ্যের সব জেলাশাসকদের সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি। প্রাথমিক পর্যায়ের একাধিক বিষয়ে আলোচনা হয়।

সূত্রের খবর এরপর ১৯ অগাস্ট রাজ্যে আসবে নির্বাচন কমিশনের ৩ সদস্যের এক প্রতিনিধি দল। যার নেতৃত্বে থাকবেন ডেপুটি নির্বাচন কমিশনার নীতীশ ব্যাস। তবে শুধু এরাজ্য নয়, সব রাজ্যেই প্রতিনিধি দল যাবে বলে জানা গিয়েছে।

নির্বাচনের প্রস্তুতি পর্ব খতিয়ে দেখবে কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশনের প্রতিনিধি দলের সদস্যরা। তারপর বিভিন্ন জেলায় জেলায় সমীক্ষা এবং ভোটার তালিকা সংশোধনের কাজ শুরু হবে।

কেন্দ্রে নরেন্দ্র মোদী সরকারের মেয়াদ শেষ হচ্ছে ২০২৪ সালের ১৬ মে। তার আগেই নির্বাচন প্রক্রিয়া শেষ করতে হবে। বিভিন্ন সূত্রের খবর সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী বছর এপ্রিল মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহের মধ্যে নির্বাচন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে।

7 months ago