Breaking News
Abhishek Banerjee: বিজেপি নেত্রীকে নিয়ে ‘আপত্তিকর’ মন্তব্যের অভিযোগ, প্রশাসনিক পদক্ষেপের দাবি জাতীয় মহিলা কমিশনের      Convocation: যাদবপুরের পর এবার রাষ্ট্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়, সমাবর্তনে স্থগিতাদেশ রাজভবনের      Sandeshkhali: স্ত্রীকে কাঁদতে দেখে কান্নায় ভেঙে পড়লেন 'সন্দেশখালির বাঘ'...      High Court: নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় প্রায় ২৬ হাজার চাকরি বাতিল, সুদ সহ বেতন ফেরতের নির্দেশ হাইকোর্টের      Sandeshkhali: সন্দেশখালিতে জমি দখল তদন্তে সক্রিয় সিবিআই, বয়ান রেকর্ড অভিযোগকারীদের      CBI: শাহজাহান বাহিনীর বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ! তদন্তে সিবিআই      Vote: জীবিত অথচ ভোটার তালিকায় মৃত! ভোটাধিকার থেকে বঞ্চিত ধূপগুড়ির ১২ জন ভোটার      ED: মিলে গেল কালীঘাটের কাকুর কণ্ঠস্বর, শ্রীঘই হাইকোর্টে রিপোর্ট পেশ ইডির      Ram Navami: রামনবমীর আনন্দে মেতেছে অযোধ্যা, রামলালার কপালে প্রথম সূর্যতিলক      Train: দমদমে ২১ দিনের ট্রাফিক ব্লক, বাতিল একগুচ্ছ ট্রেন, প্রভাবিত কোন কোন রুট?     

CeilingFan

School: সিলিং ফ্যান ভেঙে আহত ছাত্রী, ক্ষতের দায় কার?

মাথায় ভেঙে পড়ল সিলিং ফ্যান (Ceiling fan)। মুখে দগদগে ক্ষত। গোটা রাত যন্ত্রণায় কাতরেছে আহত ছাত্রী। যতবার মুখের ক্ষতটা চোখে পড়ছে তত যেন আতঙ্ক আরও বাড়ছে। বুধবার ঘটনাটি ঘটেছিল কোচবিহার (Cooch Behar) মেখলিগঞ্জের (Mekliganj) উচলপুকুরী কৃষক উদ্যোগ উচ্চ বিদ্যালয় এখন আতঙ্কের অপর নাম। জানা গিয়েছে, বুধবার ক্লাস চলাকালীনই আচমকা সিলিং ফ্যান ভেঙে পড়ে একাদশ শ্রেণির দুই ছাত্রীর মাথায় (Injured Students)। আহত দুই ছাত্রীর নাম কৃত্তিকা বর্মন ও বর্ণালি রায়।

আহত ছাত্রী বর্ণালি রায় বলে, বিদ্যালয়ের ভঙ্গুর পরিকাঠামো। ক্লাসরুমে দীর্ঘদিন ধরে খারাপ অবস্থায় রয়েছে ফ্যান গুলো। স্কুল কর্তৃপক্ষকে বলেও কোনও লাভ হয়নি। এই দুর্ঘটনা আবারও ঘটতে পারে, যদি পরিচর্যা সঠিকভাবে না হয়। বর্ণালির প্রশ্ন, তার মুখের ক্ষতের দায় নেবে কে?

চোর পালালে বুদ্ধি বাড়ার মতো স্কুল কর্তৃপক্ষের টনক নড়েছে। আগে তো লিখিত অভিযোগ পাননি। এখন খারাপ ফ্যানগুলি সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে। এ ঘটনায় সাফাই দিতেই ব্যস্ত স্কুল ইনচার্জ সুশান্ত কুমার দে।

উল্লেখ্য, ঘটনার পর আহত দুই ছাত্রীকে উদ্ধার করে সঙ্গে সঙ্গে জামলদাহা প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়। যেখানে বর্ণালিকে প্রাথমিক চিকিৎসার পর ছেড়ে দেওয়া হয়। বর্তমানে বাড়িতে রয়েছে বর্ণালি। তবে কৃত্তিকা বর্মন গুরুতর আহত হওয়ায় জলপাইগুড়ি সুপার স্পেশালিস্ট হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে।

কার গাফিলতির মাসুল গুনছে পড়ুয়ারা? একের পর এক দুর্ঘটনা, একের পর এক ক্ষত! আর কবে হুঁশ ফিরবে স্কুল কর্তৃপক্ষের?

9 months ago
Howrah: ক্লাস চলাকালীন আচমকাই খুলে পড়ে সিলিং ফ্যান, জখম প্রথম শ্রেণীর ২ পড়ুয়া

বিদ্যালয়ে ক্লাস চলাকালীন সিলিং ফ্যান খুলে বিপত্তি। হাওড়ার (Howrah) জগৎবল্লভপুর কালিতলা বাজার এলাকার গোপেন্দ্র স্মৃতি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ঘটনা। জানা গিয়েছে, স্কুলে ক্লাস চালকালীন একটি সিলিং ফ্যান (Ceiling Fan) হঠাৎ-ই খুলে পড়ে। ঘটনায় আহত হয় প্রথম শ্রেণীর ২ পড়ুয়া। একজনের মাথায় গুরুতর চোট লাগে, আর অপরজনের চোখে এবং মাথায় আঘাত লাগে। দু'জনকেই স্থানীয় জগৎবল্লভপুর হাসপাতালে নিয়ে গেলে সিটি স্ক্যানের পরামর্শ দেন চিকিৎসকরা। গোটা ঘটনায় আতঙ্ক ছড়িয়েছে স্কুলের বাকি পড়ুয়াদের মধ্যে।

আহত পড়ুয়ার পরিবারের সদস্যরা বলেন, স্কুলের পরিচর্যা সঠিকভাবে হচ্ছে না। সেকারণেই এই দুর্ঘটনা ঘটেছে। তাঁদের সন্তানকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর স্কুলের শিক্ষকেরা ঘটনাটি কাউকে না জানানোর কথা বলেন। এমনকি চিকিৎসার যাবতীয় খরচ দিয়ে দেবেনও বলেন। কিন্তু ভবিষ্যতে আরও বড় কোনও দুর্ঘটনাও ঘটতে পারে। সেকারণে এখনই স্কুল কর্তৃপক্ষকে সতর্ক হতে হবে বলে মনে করছেন আহত পড়ুয়ার অভিভাবকেরা।

স্কুলেও নিরাপদ নয় শিশুরা? স্কুলের ঠিকমতো পরিচর্যার অভাবে জখম হচ্ছে পড়ুয়া? যদিও সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। তিনি বলেন, বাচ্চারা দৌড়াদৌড়ি করতে গিয়ে বেঞ্চ থেকে পড়ে চোট পেয়েছে। ফ্যান খুলে গিয়ে আহত হওয়ার অভিযোগ মিথ্যে। 

একদিকে যখন বিদ্যালয়ের পরিকাঠামো নিয়ে উঠছে ভুরি ভুরি অভিযোগ। ঠিক তখনই প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এই ঘটনা আরও একবার প্রশ্ন তুলছে শিশুদের নিরাপত্তা নিয়ে।

10 months ago
School: মালদহের পর এবার মুর্শিদাবাদ! স্কুলের সিলিং ফ্যান ভেঙে আহত দুই ছাত্র

মালদহের পর এবার মুর্শিদাবাদ। এবার ক্লাস (class) শুরুর ঠিক আগেই ভেঙে পড়ল আস্ত সিলিং ফ্যান (Ceiling fan)। আহত (injured) দুই ছাত্র। ঘটনাটি হরিহরপাড়া (Hariharpara) গোবরগাড়া হাই মাদ্রাসা স্কুলের। আহত দুই ছাত্রের নাম সামিউল সেখ ও তোহমিদ বাসির। তারা দু'জনেই নবম শ্রেণীর ছাত্র। শুক্রবার এই ঘটনায় আতঙ্কের ছবি স্কুল (school) চত্বর জুড়ে।

ছাত্ররা জানায়, এদিন ১১ টার সময় স্কুলে ঢুকে ক্লাসরুমে বন্ধুদের সঙ্গে কথা বলছিল ছাত্ররা। সেই সময় হঠাৎই সিলিং ফ্যান ভেঙে পড়ে যায়। সিলিং ফ্যানের পাখায় একজনের মাথা ফেটে যায়, অপর এক ছাত্রের হাতে গুরুতর আঘাত। তাদের দুজনকেই শিক্ষকরা তড়িঘড়ি উদ্ধার করে হরিহরপাড়া ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে আসে। বর্তমানে সেখানেই চিকিৎসাধীন তারা।

আহত ছাত্র তোহমিদ বাসির জানায়, স্কুলের শিক্ষকদের বারবার বলার পরও ফ্যানটি ঠিক করায়নি। বহু পুরনো ফ্যান, সেই কারণেই ভেঙে পড়েছে। প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবারই মালদহের স্কুলে বাথরুমের দেওয়াল ভেঙে মৃত্যু হয় মালদহের একাদশ শ্রেণির এক ছাত্রের। গুরুতর জখম হয় এক ছাত্র। পুলিস সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত ছাত্রের নাম জিসান সেখ। সে মালদহের বাঙ্গিটোলা হাইস্কুলের একাদশ শ্রেণির পড়ুয়া। ঘটনার দিন দুপুরে টিফিনে সে বাথরুমে যায়। সেই সময় বাথরুমের জীর্ণ দেওয়াল হঠাৎই ভেঙে পড়ে।

অন্য ছাত্ররাই তাদের উদ্ধার করে চিকিৎসার ব্যবস্থা করে। হাসপাতাল একজনকে মৃত ঘোষণা করে, অন্যজনের চিকিৎসা চলছে। এই ঘটনা চাউর হতেই উন্মত্ত জনতা স্কুলে হামলা চালায়। ভাঙচুর করা হয় স্কুলের সম্পত্তি। বিশাল পুলিস বাহিনী এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। 

2 years ago