Breaking News
Tapas Roy: তৃণমূল ছাড়লেন তাপস রায়, বরাহনগরের বিধায়ক পদ থেকে ইস্তফা বর্ষীয়ান নেতার      Resign: হঠাৎ অবসর বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের, 'রাজনীতি যোগ' জল্পনা তুঙ্গে      Sandeshkhali: সন্দেশখালিতে ফের ফ্য়াক্ট ফাইন্ডিং টিম, শুনবে মহিলা ও বাসিন্দাদের কষ্টের কথা      BJP: প্রথম দফায় ১৯৫ প্রার্থীর নাম ঘোষণা বিজেপির, বাংলার ২০ জনের নাম তালিকায়      Modi: 'রামমোহনের আত্মা সন্দেশখালির মহিলাদের দুর্দশায় কাঁদছে', আরামবাগ থেকে মমতাকে তোপ মোদীর      Suspend: গ্রেফতারির পরেই তৃণমূল থেকে ছয় বছরের জন্য সাসপেন্ড সন্দেশখালির 'বেতাজ বাদশা' শাহজাহান      Sandeshkhali: নিরাপদ সর্দারকে নিঃশর্তে জামিন দিয়ে রাজ্য পুলিসকে তিরস্কার বিচারপতির      Sheikh Shahjahan: ঘর ভাঙচুর, টাকা লুঠ! শেখ শাহজাহানের বিরুদ্ধে নতুন এফআইআর সন্দেশখালি থানায়      Sandeshkhali: অজিত মাইতিকে তাড়া গ্রামবাসীদের, সাড়ে ৪ ঘণ্টা পর অবশেষে আটক পুলিসের      Ajit Maity: উত্তপ্ত সন্দেশখালি! অজিত মাইতির গ্রেফতারির দাবিতে বিক্ষোভ মহিলাদের, বাঁচতে সিভিকের বাড়িতে আশ্রয়     

Bankura

Bankura: থানার পুরনো কোয়ার্টারে উদ্ধার পুলিস কর্মীর ঝুলন্ত মৃতদেহ, চাঞ্চল্য় বাঁকুড়ার ছাতনা থানা

থানা চত্বর থেকে উদ্ধার হল এক পুলিস কর্মীর ঝুলন্ত মৃতদেহ। ঘটনায় চাঞ্চল্য় ছড়িয়েছে বাঁকুড়ার ছাতনা থানায়। পুলিস জানিয়েছে, মৃত ওই পুলিস কর্মীর নাম হরেন্দ্র নাথ বাউরী। নিছক আত্মহত্যা নাকি এর পিছনে রয়েছে অন্য কোনো কারণ তা খতিয়ে দেখতে ইতিমধ্য়ে তদন্ত শুরু করেছে পুলিস। 

ছাতনা থানা সূত্রে জানা গিয়েছে, গতকাল অর্থাৎ শুক্রবার গভীর রাতে হরেন্দ্রনাথ বাউরী নামের ওই পুলিস কর্মীকে দেখতে না পেয়ে তাঁর সহকর্মীরা খোঁজ শুরু করেন। এরপর ছাতনা থানা চত্বরে একটি পরিত্যক্ত কোয়ার্টারের সিলিং থেকে হরেন্দ্রনাথ বাউরী-র ঝুলন্ত মৃতদেহ দেখতে পান তাঁর সহকর্মীরা। পুলিস কর্মীর মৃতদেহটি উদ্ধার করে দ্রুত নিয়ে যায় ছাতনা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে। তবে কী কারণে আত্মঘাতী হলেন ওই পুলিস কর্মী তা নিয়ে দ্বন্ধে রয়েছে গোটা পুলিস মহল। গোটা ঘটনার আসল কারণ জানতে তদন্তে নেমেছে পুলিস। 

a month ago
Bankura: হাতির হানায় মৃত্য়ু যুবতীর! পরপর দুজনের মৃত্যুর ঘটনায় আতঙ্কিত বাঁকুড়াবাসী

হাতির হানায় ফের মৃত্যু। ৪৮ ঘন্টার মধ্যে বাঁকুড়ায় হাতির হানায় মৃত্য়ু হল এক যুবতীর। গতকাল অর্থাৎ বুধবার মাঝরাতে বাঁকুড়ার বড়জোড়া ব্লকের হরিচরণডাঙ্গা এলাকায় হাতির হানায় প্রাণ যায় বছর চব্বিশের মামনি ঘোড়ুই-এর। গত মঙ্গলবার বড়জোড়া ব্লকের গোপবান্দী এলাকায় হাতির হানায় মৃত্যু হয় এক বৃদ্ধের। মঙ্গলবারের পর বৃহস্পতিবারের মধ্য়ে পরপর দু'জনের মৃত্যুর ঘটনায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। 

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, এদিন গভীর রাতে শৌচকর্ম করতে বাড়ির বাইরে যান মামনি ঘোড়ুই। সেই সময় আচমকা একটি হাতি মামনির উপর হামলা চালায়। হাতিটি শুঁড়ে তাঁকে পেঁচিয়ে তুলে আছাড় মেরে প্রায় ত্রিশ ফুট টেনে নিয়ে যায়। হাতির হামলায় গুরুতর আহত হন মামনি। চিৎকার চেঁচামেচি শুনে গ্রামবাসীরা ছুটে আসতেই ঘটনাস্থল ছেড়ে পালায় হাতিটি। 

এরপর আহত ওই যুবতীকে উদ্ধার করে বড়জোড়া সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। একের পর এক হাতির হানায় মৃত্যুতে আতঙ্ক ছড়িয়েছে গোটা এলাকায়। 

2 months ago
Bankura: পুকুরে যুবকের রক্তাক্ত মৃতদেহ উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য় বাঁকুড়ায়, খুনের অভিযোগ পরিবারের

পুকুর থেকে উদ্ধার হল এক যুবকের রক্তাক্ত মৃতদেহ। খুন করে জলে ভাসিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ মৃতের পরিবারের। ঘটনায় চাঞ্চল্য় ছড়িয়েছে বাঁকুড়ার ওন্দা থানা মিশ্র পাড়া এলাকায়। পুলিস সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত যুবকের নাম তরুন মিশ্র (৪৩)। বাড়ি মিশ্র পাড়ার এলাকায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ওন্দা থানার পুলিস গিয়ে মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য় বাঁকুড়া মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে নিয়ে যায়। 

মৃত ওই যুবকের ঘাড়ে ও পেটে গভীর আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলে পুলিস সূত্রে জানা গিয়েছে। মৃতের পরিবারের দাবি, সোমবার সকালে বাড়ি থেকে বের হয়েছিল ওই যুবক। তারপর থেকে আর তার খোঁজ পাওয়া যায়নি। এরপর সোমবার সন্ধ্যায় সানার পুকুরের পাড়ে রক্তাক্ত অবস্থায় পুকুরের জলে ওই যুবককে ভাসতে দেখেন স্থানীয়রা।

এরপর খবর দেওয়া হয় ওন্দা থানার পুলিসকে। ইতিমধ্য়ে মৃতের পরিবারের তরফ থেকে খুনের অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে থানায়। তবে কী কারণে এই খুনের ঘটনা তা নিয়ে ধোঁয়াশায় পুলিস।

2 months ago


Bankura: মকরে টুসু নিরঞ্জন, কাঁদে লালমাটির দেশ

বিদায়ের বাদ্যি বেজেছে। রক্ত, মাংসের মেয়েকে শ্বশুর বাড়ি পাঠাতে যতটা কষ্ট, বোধহয় তার চেয়েও বেশি বিষাদ জড়িয়ে টুসু বিসর্জনে। শরতে নয় মকরে দেবী নিরঞ্জনে কাঁদে বাঁকুড়া। মকর সংক্রান্তির আড়মোড়া ভাঙা কুয়াশা ঢাকা ভোরে মন ভাঙা গানে গমগম করে ওঠে লাল মাটির দেশ।

টুসু ওদের কাছে কোলের মেয়ে, ওদের খুকি। লক্ষ্মীরূপী টুসুই শোনে মনের কথা। গোটা পৌষমাস  মায়ায়, আদরে সেই মেয়েকে জড়িয়ে রাখার পর মকর সংক্রান্তির ভোরে চোখের জলে চৌদল নিয়ে কাছেপিঠের নদী কিংবা পুকুর ঘাটে রওনা দেয় গ্রামের ৮ থেকে আশি। গানে গানে ব্যক্ত করে কন্যা বিচ্ছেদের যন্ত্রণা। টুসু নিরঞ্জনে ফাটে বুক।

ঠুনকো সম্পর্কের যান্ত্রিক এই দুনিয়াতেও লালমাটির মানুষরা পারে কেবলমাত্র বিশ্বাস, ভালোবাসা, স্নেহ সম্বল করে আরাধ্যের সঙ্গে জুড়ে থাকতে। টুসু বিসর্জনের দুঃখ মোছে কনকনে ঠাণ্ডা জলের ঝাপটা। মকরের ওই বহ্নি শিখা শেখায় অপেক্ষা করতে। আবার গোটা একবছর ধরে মেয়ের জন্য চিড়া, মুড়ি জোগাড় করবে রাঢ় বাংলার মাটির মানুষরা। পৌষের জন্য আবার ৩৬৫ দিন সবুর করবে ওরা।

2 months ago
Accident: পিকনিক করে বাড়ি ফেরার পথে মর্মান্তিক দুর্ঘটনা বিষ্ণুপুরের জাতীয় সড়কে, মৃত ১ আহত ২

লরির সঙ্গে ছোটো গাড়ির সংঘর্ষ। দুর্ঘটনায় মৃত গাড়ির চালক ও আহত আরও দুইজন। ঘটনাটি ঘটেছে বিষ্ণুপুরের ৬০ নম্বর জাতীয় সড়কে। জানা গিয়েছে, মৃত ব্য়ক্তির দীপক কুমার জানা (৪০)। বাড়ি পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার সবং থানা এলাকায়। বর্তমানে আহত দুইজন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। 

জানা যায়, পশ্চিম মেদিনীপুর থেকে একটি ছোট গাড়ি করে চালকসহ মোট ছয় জনা বাঁকুড়া এসেছিল পিকনিক করতে। শুশুনিয়া পাহাড় থেকে মুকুটমনিপুর পিকনিক করে বিষ্ণুপুর হয়ে পশ্চিম মেদিনীপুরে ফিরছিলেন তাঁরা। ঠিক তখনই বাঁকাদহ চেকপোস্ট সংলগ্ন এলাকায় ৬০ নম্বর জাতীয় সড়কের সামনের দিক থেকে আসা একটি পণ্য বোঝাই লরির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। ঘটনায় দুমড়ে মুচড়ে যায় ছোট গাড়িটি। রাস্তার পাশে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে যায় পণ্য বোঝাই লরিটি। 

এরপর তড়িঘড়ি ঘটনাস্থলে স্থানীয় বাসিন্দারা এবং বিষ্ণুপুর থানার পুলিস আহতদের উদ্ধার করে নিয়ে যায় বিষ্ণুপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক ছোট গাড়িচালক ৪২ বছরের দীপক কুমার জানাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। আর আহত ২ ব্যক্তির অবস্থার অবনতি দেখে পাঠানো অন্যত্র। সমগ্র ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

2 months ago


Report: রাজ্য শিক্ষাব্যবস্থার পরিকাঠামো নিয়ে ফের কেন্দ্র-রাজ্য বিবাদ প্রকাশ্যে, বিস্ফোরক ব্রাত্য

স্কুলে রয়েছে কম্পিউটার। কিন্তু তা নিষ্ক্রিয়, হয় না ব্যবহার। আবার কোথাও কোথাও খোলা আকাশের নীচেই চলছে মিড-ডে মিলের রান্না। স্বাস্থ্যবিধি কার্যত শিকেয় উঠেছে। খালি পায়ে স্কুলে যাচ্ছে শিশুরা। রাজ্যের শিক্ষা পরিকাঠামোর এমনই উদ্বেগজনক চিত্র উঠে এসেছে কেন্দ্রীয় শিক্ষা মন্ত্রকের কাছে পাঠানো রিপোর্টে। সূত্রের খবর, চলতি মাসে ৮ ও ৯ই জানুয়ারি কেন্দ্রীয় শিক্ষমন্ত্রকের একটি প্রতিনিধি দল দক্ষিবঙ্গের আদিবাসী অধ্যুষিত এলাকা বাঁকুড়া, পুরুলিয়া জেলার সরকারি প্রাইমারি ও উচ্চ মাধ্যমিক স্কুল, সরকারি সাহায্যপ্রাপ্ত কলেজ গুলি ঘুরে রাজ্যে শিক্ষাব্যবস্থার পরিকাঠামো নিয়ে রিপোর্ট দিল কেন্দ্রীয় শিক্ষা মন্ত্রককে। যেখানে এরকম চাঞ্চল্যকর অভিযোগ প্রকাশ্যে এসেছে। এমনকি তা জানিয়ে একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তিও জারি করেছে কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রক।

এ প্রসঙ্গে স্কুলগুলির নাম উল্লেখ করে চূড়ান্ত বেহাল দশার অভিযোগ কেন্দ্রীয় শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী সুভাষ সরকারের।

এই রিপোর্টের বিষয়ে সুভাষ সরকার জানিয়েছেন, কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের রিপোর্টে উল্লেখ রয়েছে, কম্পিউটার সেট থাকলেও অনেক স্কুলে তা ব্যবহার করা হচ্ছে না। কম্পিউটার প্রশিক্ষণে ঢিলেমির বিষয়টিও উঠে এসেছে রিপোর্টে। স্মার্ট ক্লাসরুম না বানানোর বিষয়ও রিপোর্টে রয়েছে বলে সূত্রের খবর।

যদিও এই রিপোর্টের বিরুদ্ধে এক্স হ্যান্ডেলে পাল্টা জবাব দিয়েছেন রাজ্যের শিক্ষা মন্ত্রী ব্রাত্য বসু। ব্রাত্য বসুর দাবি, এই রিপোর্টে গেরুয়া প্রভাব রয়েছে। পুরুলিয়া এবং বাঁকুড়ায় কেন্দ্রীয় দলের পর্যবেক্ষণের উপর একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে কেন্দ্রীয় শিক্ষা মন্ত্রক। আমাদের মনে হয়েছে, সেই পর্যবেক্ষণের অধিকাংশই গেরুয়া প্রভাবিত। তাঁরা খালিয়ে পায়ের ছাত্র-ছাত্রীদের কথা বলেছে। কিন্তু জানে না পশ্চিমবঙ্গ সরকার সকল ছাত্র-ছাত্রীদের জামা ও জুতো দেয়। খোলা আকাশের নীচে মিড ডে মিল রান্নার কথা বলেছে। কিন্তু মিড ডে মিলের শেড তৈরির জন্য ফান্ড আটকে রেখেছে। কিন্তু চিন্তার কিছু নেই। পশ্চিমবঙ্গ সরকার সীমিত ক্ষমতা দিয়েই স্কুলে রান্নার জন্য শেড তৈরি করবে।”

কেন্দ্রীয় শিক্ষা প্রতিমন্ত্রীর অবশ্য বক্তব্য, 'যিনি বলেছেন, তিনি না জেনে বলেছেন। কারণ শিক্ষা হচ্ছে, রাজ্য ও কেন্দ্রের যৌথ বিষয়। সেখানে রাজ্য আগে মেমোরেন্ডাম অফ আন্ডারস্ট্যান্ডিং-এ সই করবে, করে যাদবপুর ইউনিভার্সিটির নাম রেকমেন্ড করবে, কী প্রয়োজন সেটা বলবে, তখন পাবে। কাজে এটা কোনও প্রশ্নই আসছে না। এটা একটা ভুল ব্যাখ্যা।'

কেন্দ্রীয় শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী সুভাষ সরকারের দাবি, রাজ্য সরকারের জন্যই আটকে রয়েছে পিএম ঊষা প্রকল্পের কোটি কোটি টাকা।

2 months ago
Bankura: পুকুর থেকে উদ্ধার বাইক সহ যুবকের মৃতদেহ, মৃত্য়ুর কারণ নিয়ে ধোঁয়াশায় পুলিস

সাতসকালে পুকুরের ধার থেকে উদ্ধার বাইক সহ এক যুবকের মৃতদেহ। মৃত্য়ুর কারণ নিয়ে তৈরী হয়েছে ধোঁয়াশা। বুধবার সকালে ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়াল বাঁকুড়ার গঙ্গাজলঘাটি ব্লকের দেশুড়িয়া মোড়ের কাছে। পুলিস সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত ওই যুবকের নাম করুনাময় সিংহ। বাঁকুড়ার দেশুড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গঙ্গাজলঘাটি থানার পুলিস এসে মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য় বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজে পাঠায়। 

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, গতকাল অর্থাৎ মঙ্গলবার সন্ধ্য়ায় করুনাময় সিংহ স্থানীয় দেশুড়িয়া মোড়ে গিয়েছিলেন। রাতে আর বাড়ি ফেরেননি তিনি। এরপর এদিন সকালে দেশুড়িয়া মোড় ও গ্রামের মাঝখানে রাস্তার ধারে থাকা লায়েকবাঁধ নামের একটি পুকুরে তাঁকে মৃত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন স্থানীয়রা। মৃতদেহের পাশেই পড়েছিল তাঁর বাইকটি। এরপর স্থানীয়রা খবর দেন গঙ্গাজলঘাটি থানার পুলিসকে। দুর্ঘটনার জেরে জেরে মৃত্যু নাকি এর পিছনে রয়েছে অন্য কোনও কারণ তা খতিয়ে দেখছে পুলিস। 

2 months ago
Bankura: সদ্য়োজাত অসুস্থ হওয়ায় হাসপাতালেই আত্মহত্যা প্রসূতির, প্রশ্নের মুখে বাঁকুড়া হাসপাতাল

সদ্যোজাত কন্য়াসন্তান জন্মের পর থেকেই গুরুতর অসুস্থ। মানসিক অবসাদে হাসপাতালেই গলায় শাড়ির ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা প্রসূতির। ঘটনায় চাঞ্চল্য় ছড়িয়েছে বাঁকুড়ার সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজের প্রসূতি বিভাগে। পুলিস সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত প্রসূতির নাম পায়েল সিং। এরপর হাসপাতাল সূত্রে খবর পেয়ে বাঁকুড়া সদর থানার পুলিস ঘটনাস্থলে গিয়ে মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজের মর্গে পাঠায়।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, গত ২০ ডিসেম্বর প্রসব যন্ত্রণা নিয়ে বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজের প্রসূতি বিভাগে ভর্তি হন পুরুলিয়ার আদ্রা শহর লাগোয়া বেঁকো গ্রামের পায়েল সিং। সেদিন রাতে একটি কন্যা সন্তানের জন্ম দেন তিনি। জন্মের পর সদ্যোজাতের শারীরিক সমস্যা দেখা দেওয়ায় তাকে ওই হাসপাতালেই ভেন্টিলেশানে রাখা হয়। সন্তানের অসুস্থতায় রীতিমত ভেঙে পড়েন মা পায়েল। বারংবার সেই কথা নিজের মা কেও জানিয়েছিলেন পায়েল। 

এরপর এদিন সকালে মা কে বাইরে পাঠিয়ে হাসপাতালে বেড থেকে উঠে প্রসূতি বিভাগের তিনতলায় চলে যান পায়েল। সেখানে রেলিংয়ের সঙ্গে গলায় নিজের শাড়ির ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেন পায়েল সিং সর্দার। হাসপাতালের ভিতরে রোগীর আত্মহত্যার ঘটনায় স্বাভাবিকভাবেই হাসপাতালের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

2 months ago


Bankura: জমি সংক্রান্ত বিবাদে খুন বাবা ও ছেলে, ঘটনায় গ্রেফতার অভিযুক্ত প্রতিবেশী

জমি সংক্রান্ত বিবাদের জেরে একসঙ্গে খুন হল বাবা ও ছেলে। খুনের অভিযোগ উঠেছে পাড়ার এক প্রতিবেশীর বিরুদ্ধে। ঘটনায় গ্রেফতার অভিযুক্ত প্রতিবেশী পিন্টু রুইদাস। ঘটনায় চাঞ্চল্য় ছড়িয়েছে বাঁকুড়ার নতুনচটি এলাকায়। পুলিস সূত্রে জানা যায়, মৃত ব্য়ক্তির নাম মথুরা মোহন দত্ত ও তাঁর ছেলের নাম শ্রীধর দত্ত। 

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, দীর্ঘদিন ধরে প্রতিবেশী পিন্টু রুইদাসের সঙ্গে জমি সংক্রান্ত বিবাদ চলছিল মথুরা মোহন দত্তের। অভিযোগ মথুরা মোহন দত্তের জমির উপর বাড়ি নির্মান করে পিন্টু রুইদাস। এরপর নিজের জমি ফিরে পেতে আদালতের দ্বারস্থ হয় মথুরা মোহন দত্ত। সম্প্রতি কলকাতা হাইকোর্ট মথুরা মোহন দত্তের জায়গার উপর নির্মাণ করা বাড়ি ভেঙ্গে ফেলার নির্দেশ দেওয়া হয় পিন্টু রুইদাস কে। 

বাড়ি ভেঙ্গে ফেলার নির্দেশ পেতেই প্রতিবেশী মথুরা মোহন দত্তের উপর চড়াও হয় পিন্টু রুইদাস ও তাঁর পরিবার। গত ৩ ডিসেম্বর রাতে মথুরা মোহন দত্ত তাঁর স্ত্রী ও ছেলের উপর চড়াও হয় পিন্টু রুইদাস তার দুই ছেলে ও স্ত্রী। অভিযোগ, ধারালো অস্ত্র ও লাঠিসটা নিয়ে মারধর করা হয় মথুরামোহন দত্ত ও তাঁর ছেলে শ্রীধর দত্ত ও তাঁর স্ত্রীকে। 

ঘটনার খবর পেয়ে বাঁকুড়া সদর থানার পুলিস তিনজনকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে বাঁকুড়া মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেদিন গভীর রাতেই মৃত্যু হয় মথুরা মোহন দত্ত ও ছেলে শ্রীধর দত্তের। এই ঘটনার পরেই পালিয়ে যায় পিন্টু রুইদাস ও তার পরিবার। ৫ ডিসেম্বর দুর্গাপুর থেকে গ্রেফতার হয় পিন্টু রুইদাস সহ অভিযুক্ত চারজন। ধৃতদের নিয়ে ঘটনার পুনর্নিমান করে পুলিস। এদিকে শনিবার সকাল থেকে কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে অভিযুক্ত পিন্টু রুইদাসের বাড়ি ভেঙ্গে ফেলার কাজ শুরু হয়।

2 months ago
Accident: ফুটবল খেলে বাড়ির ফেরার পথে বাইক দুর্ঘটনায় মৃত ২ ও আহত ১

ফুটবল খেলতে গিয়ে বাড়ি ফেরার পথে ঘটল মর্মান্তিক পথ দুর্ঘটনা। বাইক দুর্ঘটনায় মৃত্য়ু হল দুই জনের এবং আহত এক। মঙ্গলবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে বিষ্ণুপুরের ডাঙ্গরপাড়া এলাকায়। বর্তমানে আশঙ্কাজনক অবস্থায় আহত একজন বিষ্ণুপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। জানা গিয়েছে, মৃতদের নাম শুভজিৎ বাগদি (২৫) ও তারাপদ বাগদি (২৬)। তাঁদের দুজনের বাড়ি সোনামুখীর পাঁচাল এলাকার আড়লকোনা গ্রামে। জখম ওই যুবকের নাম মিলন বাগদি। বাড়ি বিষ্ণুপুরের কাঁকিলা গ্রামে। 

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার বিকেলে পাত্রসায়ের হাসিপুকুরে একটি ফুটবলের সেমি ফাইনাল খেলা ছিল। খেলা শেষ হবার পর শুভদীপ বাগদি, তারাপদ বাগদি ও মিলন বাগদি এই তিনজন একটি মোটর বাইকে করে বাড়ি ফিরছিলেন। এরপর রাত সাড়ে সাতটা নাগাদ পাত্রসায়ের বিষ্ণুপুরের রাস্তায় ডাঙ্গরপাড়া এলাকায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাইকটি দুর্ঘটনার কবলে পড়ে যায়। রাস্তায় ছিটকে পড়ে বাইকে থাকা ওই তিনজনেই। 

এরপর তাঁদের তিনজনকে উদ্ধার করে বিষ্ণুপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা শুভদীপ বাগদি ও তারাপদ বাগদিকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

3 months ago


Bankura: জমি সংক্রান্ত বিবাদ! ধারালো অস্ত্র দিয়ে খুনের অভিযোগ প্রতিবেশীর বিরুদ্ধে

প্রতিবেশীর হাতে খুনের অভিযোগ একই পরিবারে দুই জনের। জানা গিয়েছে, প্রতিবেশীর ধারালো অস্ত্রের আঘাতে মৃত্য়ু হয়েছে ওই দু'জনের। অভিযোগ ঘটনায় আহত আরও এক মহিলা। ঘটনার পর থেকে পলাতক অভিযুক্ত পিন্টু রুইদাস নামের ওই প্রতিবেশী। রবিবার রাতে এই ঘটনাটি ঘটেছে বাঁকুড়ার নতুনচটি এলাকায়। বর্তমানে গুরুতর জখম অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছে আহত ওই মহিলা। 

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছ, বাঁকুড়া নতুনচটি এলাকায় অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক মথুর মোহন দত্তের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে জায়গা সংক্রান্ত বিবাদ চলছিল প্রতিবেশী পিন্টু রুইদাসের। রবিবার সন্ধ্যায় সেই ঝামেলা বিশাল আকার নেয়। অভিযোগ, ঝামেলা চলাকালীন পিন্টু রুইদাস নামে ওই প্রতিবেশী ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে অবসরপ্রাপ্ত ওই শিক্ষকের পরিবারের সদস্য়ের উপর। এরপর খবর পেয়ে বাঁকুড়া সদর থানার পুলিস ঘটনাস্থলে গিয়ে রক্তাক্ত জখম অবস্থায় মথুর বাবু ও তাঁর স্ত্রী ও ছেলেকে উদ্ধার করে বাঁকুড়া মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি করে। 

এরপর বাঁকুড়া মেডিক্যালে চিকিৎসারত অবস্থায় মৃত্যু হল মথুর মোহন দত্ত ও তাঁর ছেলে শ্রীধর দত্তের। গুরুতর জখম অবস্থায় এখনও চিকিৎসাধীন মৃত মথুর বাবুর স্ত্রী। জমি সংক্রান্ত বিবাদ নাকি অন্য় কোনও কারণ রয়েছে এর পিছনে তা নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে বাঁকুড়া সদর থানার পুলিস।

3 months ago
Bankura: শস্যবিমায় দুর্নীতির অভিযোগ, ভুয়ো কৃষক হয়েও পাচ্ছে মোটা অঙ্কের বিমার টাকা

শিক্ষা ও রেশন দুর্নীতির পর এবার অভিযোগ উঠেছে শস্যবিমা দুর্নীতির। গ্রামের প্রকৃত কৃষকদের জমির পরিমাণ কমিয়ে ভুয়ো কৃষক হিসেবে শস্যবিমা পাইয়ে দেওয়ার অভিযোগ। বাঁকুড়ার ছাতনা ব্লকের হাউসিবাদ গ্রামের এমন ঘটনা জানাজানি হতেই নড়েচড়ে বসেছে কৃষি দফতর। অভিযোগ, একটি গ্রামের ২২ জন ভুয়ো কৃষক হিসাবে মোটা অঙ্কের বিমার টাকা পেয়েছে।

জানা গিয়েছে, গত কয়েকবছর থেকেই এ রাজ্যের কৃষকরা খারিফ (বর্ষাকালীন ফসল) ও রবি (শীতকালীন ফসল) মরসুমে নিজেদের শস্যবিমা করার সুযোগ পাচ্ছেন। তাই দুটি মরসুমে পৃথকভাবে নিজেদের চাষযোগ্য জমির বিবরণ সহ শস্যবিমা করার জন্য ব্লক স্তরের কৃষি দফতরে আবেদন জানান কৃষকরা। সেই আবেদনের তথ্য যাচাই করে কৃষি দফতর তা পাঠিয়ে দেয় বিমা সংস্থার কাছে। আবহাওয়া বা অন্য কোনো কারনে ফসলহানী হলে সরাসরি বিমা সংস্থা কৃষকের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে বিমার টাকা জমা করে। 

চলতি বছরে আবহাওয়ার খামখেয়ালিপনায় বাঁকুড়ার ছাতনায় খারিফ মরসুমে ফসলের ক্ষতি হয়েছে। কারণ বৃষ্টির অভাবে বহু জমিতে ধান রোপণ করতে পারেননি ওই ব্লকের কৃষকরা।  সেই কারণে সম্প্রতি বিমা সংস্থার তরফে ছাতনা ব্লকের কৃষকদের শস্যবিমার টাকা পাঠানো শুরু হয়েছে। আর তাতেই উঠে এসেছে বড়সড় বেনিয়মের অভিযোগ। ছাতনা ব্লকের হাউসিবাদ গ্রামের কৃষকদের একাংশের দাবি, গ্রামের প্রকৃত কৃষকরা যে পরিমাণ জমির তথ্য আবেদনপত্র জমা দিয়েছিলেন তা ইচ্ছাকৃত ভাবে কমিয়ে দিয়েছে কৃষিদফতর। অভিযোগ, গ্রামের যে সমস্ত কৃষকদের নিজস্ব জমি নেই তাঁদের অ্যাকাউন্টে মোটা মোটা অঙ্কের বিমার টাকা ঢুকেছে।

ইতিমধ্যেই এই বিষয়ে স্থানীয় বিডিও, জেলা শাসক এমনকি মুখ্যমন্ত্রীর কাছে লিখিত অভিযোগ জানিয়েছেন গ্রামবাসীরা। অভিযোগ পেতেই তদন্ত শুরু করেছে কৃষি দফতর।

3 months ago
Bankura: বিশ্বকাপে দেশের হার, মানতে না পেরে আত্মঘাতী বাঁকুড়ার যুবক

বিশ্বকাপ ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার কাছে দেশের হার মেনে নিতে পারেননি আপাদমস্তক গোটা ভারতবাসী। স্টেডিয়ামেই কান্নায় ভেঙে পড়েছেন হাজার হাজার ক্রিকেটভক্ত। কিন্তু বাঁকুড়া জেলার বেলিড়াতোড়ের এক যুবক বিশ্বকাপ ফাইনালে ভারতের হার সহ্য করতে পারেননি। রবিবার রাতে নিজের বাড়িতেই গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছেন তিনি। আত্মঘাতী যুবকের নাম রাহুল লোহার (২৩)। পরিবারের দাবি, বিশ্বকাপ ফাইনালে ভারতের হারে মানসিক অবসাদে ভোগেন। যার জেরেই আত্মহত্যার মতো কঠিন পথ বেছে নিলেন।

মৃতের আত্মীয় জানান, রাহুল লোহার ক্রিকেটের অন্ধ ভক্ত। সারা দেশের পাশাপাশি তাঁরও আশা ছিল দেশ এবার বিশ্বকাপ জিতবে। পেশায় শাড়ির দোকানের কর্মচারী রাহুল একবুক আশা নিয়ে রবিবার কাজে না গিয়ে বন্ধু বান্ধবদের সঙ্গে বেলিয়াতোড় সিনেমা হলের সামনে প্রোজেক্টারে খেলা দেখতে বসেছিলেন। খেলা শেষ হওয়ার পর স্বপ্নভঙ্গের যন্ত্রণা নিয়ে রাহুল বাড়ি ফিরে আসেন। এরপরই  মানসিক অবসাদে নিজের বাড়িতে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেন রাহুল। রাত এগারোটা নাগাদ রাহুলের ভাই বাড়িতে ফিরে দাদার ঝুলন্ত দেহ দেখতে পান। তড়িঘড়ি তাঁকে উদ্ধার করে বেলিয়াতোড় হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

উল্লেখ্য, বেলিয়াতোড় থানার পুলিস মৃতদেহটি ময়না তদন্তের জন্য বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজে পাঠায়। খেলায় দেশের হারের কারণে মানসিক অবসাদ থেকে এই আত্মহত্যা নাকি এর পিছনে রয়েছে অন্য কোনো রহস্য, তা খতিয়ে দেখছে পুলিস।

4 months ago


Bankura: বন্ধ ঘর থেকে উদ্ধার ব্যবসায়ীর মৃতদেহ, চাঞ্চল্য বাঁকুড়ার বাগদীপাড়া এলাকায়

দোতলা বাড়ির বন্ধ ঘর থেকে উদ্ধার হল এক ব্যক্তির মৃতদেহ। বৃহস্পতিবার ঘটনাটি ঘটেছে বাঁকুড়ার বাগদীপাড়া এলাকায়। জানা গিয়েছে মৃত ব্যক্তির নাম মন্টু গুই (৬০)। পেশায় সবজি ব্যবসায়ী। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে বাঁকুড়া সদর থানার পুলিস গিয়ে মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজে পাঠায়। 

স্থানীয় সূত্রে খবর, লক্ষ্মী পুজোর সময় মন্টু গুইয়ের স্ত্রী ও তাঁর ছেলে মেয়েকে সঙ্গে নিয়ে বাপের বাড়ি যান। বাড়িতে একাই ছিলেন মন্টু গুই। তারপর হঠাৎ এদিন সকাল থেকে একটা পচা গন্ধ পান স্থানীয়রা। গন্ধর উৎস খুঁজে না পেয়ে স্থানীয়রা মন্টু গুইয়ের বাড়ির খোলা জানালা দিয়ে ভিতরে তাকাতেই দেখেন তিনি মৃত অবস্থায় খাটে পড়ে রয়েছেন।এরপর স্থানীয়রা খবর দেয় বাঁকুড়া সদর থানায়। তারপর পুলিস এসে দরজা ভেঙে ভিতরে ঢুকে মৃতদেহটি উদ্ধার করে।

প্রাথমিক তদন্তে পুলিসের অনুমান, দু-এক দিন আগে ঘুমের মধ্যে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েই মৃত্যু হয়েছে ওই ব্যক্তির। এই ঘটনার প্রকৃত কারণ জানতে পুলিস পুরো ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। 

4 months ago
Bankura: হাত বাঁধা অবস্থায় বিজেপি নেতার ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার, খুনের অভিযোগ পরিবারের

সক্রিয় বিজেপি (BJP) কর্মীর ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য বাঁকুড়ার গঙ্গাজলঘাটি থানার নিধিরামপুর গ্রামে। বুধবার সকালে বাড়ির অদূরে  শুভদীপ মিশ্র নামের এক বিজেপি নেতার ঝুলন্ত মৃতদেহ দেখতে পান স্থানীয় বাসিন্দারা। পরিবারের অভিযোগ, রাজনৈতিক কারণে বিজেপি কর্মীকে খুন করে গাছে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে। দোষীদের গ্রেফতারের দাবীতে পুলিসকে ঘিরে বিক্ষোভে ফেটে পড়েন এলাকার বাসিন্দারা। উত্তেজিত জনতাকে সঠিক তদন্তের আশ্বাস দেন পুলিস। দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে যেতে গেলে পরিস্থিতি আরও ঘোরালো হয়ে ওঠে।

স্থানীয় ও পুলিস সূত্রে খবর, শুভদীপ মিশ্র ওরফে দীপু (৩০) এলাকায় বিজেপির সক্রিয় কর্মী হিসেবেই পরিচিত। গত গ্রাম পঞ্চায়েত ভোটে গেরুয়া শিবিরের হয়ে নির্বাচনেও দাঁড়িয়েছিলেন তিনি। তবে দিন সাতেক আগে হঠাৎই বাড়ি ছেড়ে অন্যত্র থাকতে শুরু করেন শুভদীপ। মঙ্গলবারই তিনি বাড়িতে ফিরেছিলেন। আর আজ, বুধবার সকালে গঙ্গাজলঘাঁটি থানা এলাকার নিধিরামপুর গ্রামে একটি শিবমন্দিরের পাশের একটি গাছ থেকে তাঁর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়। হাত দুটি গামছা দিয়ে বাঁধা ছিল। তাতেই পরিবার ও স্থানীয় বাসিন্দাদের সন্দেহ তীব্র হয়। তাঁদের দাবি, প্রতিবেশী এক বিবাহিতা মহিলার সঙ্গে দীপুর ভালোবাসার সম্পর্ক ছিল। মহিলার পরিবারের তরফে দীপুকে খুনের হুমকিও দেওয়া হয়েছিল। মৃত বিজেপি কর্মীর পরিবারের দাবি, মহিলার পরিবারের তরফেই দীপুকে খুন করা হয়ে থাকতে পারে। তবে কে বা কারা, কী উদ্দেশ্যে এই ঘটনা ঘটিয়েছেন, তা এখনও স্পষ্ট নয়।

ঘটনার খবর পেতেই এলাকায় ছুটে যান শালতোড়ার বিজেপি বিধায়ক চন্দনা বাউরি। তাঁর দাবি, এর পিছনে রাজনৈতিক কারণও থেকে থাকতে পারে। তিনিও পুলিসের গাড়ি আটকে গাড়ির সামনে শুয়ে পরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। আর তাতে পুলিস তাঁকে হেনস্থা করেছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। যদিও তৃণমূল রাজনৈতিক কারণের অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে। তৃনমূলের দাবি, এই ঘটনা নিছকই আত্মহত্যা। গোটা ঘটনার প্রকৃত তদন্তের দাবিতে পুলিসকে ঘিরে বিক্ষোভে ফেটে পড়েন এলাকাবাসী। মৃতদেহ উদ্ধারেও বাধা দেওয়া হয়। পুলিস পরকিয়ায় যুক্ত মহিলাকে আটক করলে পুলিসের গাড়িতেও হামলা চালান স্থানীয়রা।

4 months ago