Breaking News
Abhishek Banerjee: বিজেপি নেত্রীকে নিয়ে ‘আপত্তিকর’ মন্তব্যের অভিযোগ, প্রশাসনিক পদক্ষেপের দাবি জাতীয় মহিলা কমিশনের      Convocation: যাদবপুরের পর এবার রাষ্ট্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়, সমাবর্তনে স্থগিতাদেশ রাজভবনের      Sandeshkhali: স্ত্রীকে কাঁদতে দেখে কান্নায় ভেঙে পড়লেন 'সন্দেশখালির বাঘ'...      High Court: নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় প্রায় ২৬ হাজার চাকরি বাতিল, সুদ সহ বেতন ফেরতের নির্দেশ হাইকোর্টের      Sandeshkhali: সন্দেশখালিতে জমি দখল তদন্তে সক্রিয় সিবিআই, বয়ান রেকর্ড অভিযোগকারীদের      CBI: শাহজাহান বাহিনীর বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ! তদন্তে সিবিআই      Vote: জীবিত অথচ ভোটার তালিকায় মৃত! ভোটাধিকার থেকে বঞ্চিত ধূপগুড়ির ১২ জন ভোটার      ED: মিলে গেল কালীঘাটের কাকুর কণ্ঠস্বর, শ্রীঘই হাইকোর্টে রিপোর্ট পেশ ইডির      Ram Navami: রামনবমীর আনন্দে মেতেছে অযোধ্যা, রামলালার কপালে প্রথম সূর্যতিলক      Train: দমদমে ২১ দিনের ট্রাফিক ব্লক, বাতিল একগুচ্ছ ট্রেন, প্রভাবিত কোন কোন রুট?     

Australia

India: শেষ ওভারে রুদ্ধশ্বাস জয়, শেষ টি-টোয়েন্টিতে অস্ট্রেলিয়াকে ৬ রানে হারাল ভারত

শেষ টি টোয়েন্টি ম্যাচেও টানটান লড়াই। জ্বলে উঠলেন বাংলার পেসার মুকেশ কুমার ও আর্শদ্বীপ সিং। ১৮ ওভারে ১৪৪ রান তুলে নিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। মনে করা হয়েছিল, ওই ওভারেই ম্যাচ বেরিয়ে যাবে। ৭ রান দিলেও দুটি ডট বল দিয়ে আসেন মুকেশ। শেষ ওভারে বাকি ছিল ৯ রান। প্রথমেই দুটি ডট বল। তৃতীয় বলে উইকেট আর্শদ্বীপের। এরপর তিন বলে এল মাত্র ৩ রান। ৬ রানে হেরে ভারত ছাড়বে ওয়ানডে বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া।

এদিন টসে জিতে চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে প্রথমে ভারতকে ব্যাট করতে পাঠায় অস্ট্রেলিয়া। ব্যাটিং এমন কিছু আহামরি হয়নি ভারতের। নিয়মরক্ষার ম্যাচে ২০ ওভারে ১৬০ রান তোলে টিম ইন্ডিয়া। ৩৭ বলে ৫৩ রান করেন শ্রেয়স আইয়ার। ১৬ বলে ২৪ রান জিতেশ শর্মার। ২১ বলে ৩১ করেন অক্ষর প্যাটেল। এদিন ৬ রান করে ফেরেন রিঙ্কু সিং।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে ট্রেভিস হেডকে ফেরান রবি বিষ্ণোই। ১৮ বলে ২৮ রান করেন তিনি। জস ফিলিপসকে ফেরান মুকেশ কুমার। কিন্তু টিকে ছি লেন বেন ম্যাকডারমট। শেষ দিকে ম্যাথিউ শর্ট ও অধিনায়ক ওয়েড চেষ্টা করলেও ব্যর্থ অস্ট্রেলিয়া।

6 months ago
India: আফগানিস্তানের পর ভারত, ম্যাড-ম্যাক্স ঝড়ে তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতে হার ভারতের

পুঁজি ২২২ রান। তারমধ্যে প্রসিদ্ধ কৃষ্ণা একাই দিলেন চার ওভারে ৬৮ রান। নিট ফল, মঙ্গলের বর্ষাপাড়ায় অস্ট্রেলিয়ার কাছে হেরে মাঠ ছাড়ল ভারত। পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ ২-১ করে ফেলল অস্ট্রেলিয়া। ম্যাচ শেষে ভারত অধিনায়ক সূর্য কুমার যাদব জানালেন, পরিকল্পনায় ভুল ছিল না, কিন্তু সব ভেস্তে দিলেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল।

১২ বলে ৪২ রান। এই সমীকরণ থেকেই মঙ্গলবার ম্যাচ বার করেছে অস্ট্রেলিয়া। আসলে ভারতের মাঠে ২২২ যে কোনও রান নয়, তা প্রমাণ করেছেন ম্যাক্সওয়েল এবং অজি অধিনায়ক ম্যাথু ওয়েড। তাই সূর্যর মতে, সব হল কিন্তু ম্যাক্সওয়েলকে আউট করা গেল না।

গুয়াহাটির মাঠেও টোন সেট করে দিয়েছিলেন রুতু। তাঁর অপরাজিত ১২৩ রান অক্সিজেন দিয়েছিল সিরিজ জয়ের। কিন্তু কল্পতরু ভারতীয় বোলারদের সৌজন্যে আপাতত রায়পুর পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। তাতেও ছেলেদের প্রশংসা অধিনায়কের গলায়। স্কাইয়ের গলায় আলাদা অনুভূমি রুতুর ব্যাটিং নিয়েও।

7 months ago
India: অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে দাপুটে জয় ভারতের, ম্যাচের সেরা জয়সওয়াল

কেরলের তিরুঅনন্তপুরমে দাপুটে জয় টিম ইন্ডিয়ার। অস্ট্রেলিয়াকে ৪৪ রানে হারিয়ে রানে ৫ ম্যাচের সিরিজে ২-০ ব্যবধানে লিড নিল টিম ইন্ডিয়া। এদিন প্রথমে ব্যাট করে ২৩৫ রান তোলে ভারত। হাফসেঞ্চুরি করেন ওপেনার যশস্বী জয়সওয়াল। হাফসেঞ্চুরি রুতুরাজ ও ইশান কিষাণেরও। রিঙ্কুর ঝোড়ো ব্যাটিংয়ে স্লগ ওভারে বড় রান তুলে নেয় ভারত। সেই বাড়তি রানই বাঁচিয়ে দেয় ভারতকে। ১৯১ রানে শেষ হয় অস্ট্রেলিয়ার ইনিংস।

২৩৬ রান তাড়়া করতে নেমে শুরুতেই ঝটকা খায় অস্ট্রেলিয়া। ৭ ওভারেই চার উইকেট হারিয়ে ফেলেন তাঁরা। ম্যাথিউ শর্ট ও ইঙ্গলিশকে ফেরান রবি বিষ্ণোই। ম্যাক্সওয়েল ফেরেন অক্ষর প্যাটেলের ডেলিভারিতে। স্মিথকে ফেরান প্রাসিদ কৃষ্ণা। ২৫ বলে ৪৫ রান করেন মার্ক স্টয়নিস। ২২ বলে ৩৭ ডেভিডের। ম্যাথিউ ওয়েড টিকে থাকলেও পরপর উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় অস্ট্রেলিয়া।

একই ওভারে পরপর দুই উইকেট তুলে অস্ট্রেলিয়াকে আটকে দেন প্রাসিদ কৃষ্ণা। ২০ ওভার ব্যাট করলেও ভারতের রান তাড়া করা সম্ভব হয়নি ব্যাগি গ্রিনদের।

7 months ago


Rinku: আইপিএলের পর ইন্টারন্যাশনালে, শেষ ওভারে ছয় মেরে রিঙ্কুর রংবাজিতে কুপোকাত অসিরা

রোমহর্ষক ম্যাচের শেষ ওভারে প্রতিপদে উত্তেজনা। বাকি ছিল ৭ রান। রিঙ্কু সিংয়ের ব্যাট থেকে প্রথম বলেই এল বাউন্ডারি। পরপর তিন বলে তিনটি উইকেট তুলে নিল অস্ট্রেলিয়া। যার মধ্যে ২টি রানআউট। শেষ বলে বাকি ছিল ১ রান। রিঙ্কুর ব্যাটে এল লম্বা ছয়। বিশাখপত্তনমে অস্ট্রেলিয়াকে ২ উইকেটে  হারিয়ে সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল টিম ইন্ডিয়া।

এদিন টসে জিতে অস্ট্রেলিয়াকে ব্যাট করতে পাঠায় টিম ইন্ডিয়া। ২০ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে ২০৮ রান তোলে অস্ট্রেলিয়া। ৫০ বলে ১১০ রানের ইনিংস আসে জোশ ইঙ্গলিসের ব্যাটে। ৪১ বলে ৫২ রান করেন স্টিভ স্মিথ।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে ০ রানে রানআউট হয়ে ফেরেন রুতুরাজ গাইকোয়াড়। ৮ বলে ২১ রান করেন যশস্বী জয়সওয়াল। কিন্তু ইশান কিষাণের সঙ্গে অবিশ্বাস্য ইনিংস খেলেন অধিনায়ক সূর্যকুমার যাদব। ৩৯ বলে ৫৮ ররান করেন ইশান। ৪২ বলে ৮০ রান সূর্যের। খেলা শেষ করে ফিরলেন রিঙ্কু সিং।

7 months ago
Series: বিশ্বকাপের পরেই অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টি সিরিজ, দলে সুযোগ পাচ্ছেন কারা!

সম্প্রতি শেষ হয়েছে এক দিনের বিশ্বকাপ। এরপর আগামী বছর টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলতে মাঠে নামবে ভারত। তার আগে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে পাঁচ ম্যাচের সিরিজ খেলবে টিম ইন্ডিয়া। ওই ম্যাচে প্রথম একাদশে কারা জায়গা পেতে পারেন?

অস্ট্রেলিয়া সিরিজের প্রথম ম্যাচ রয়েছে বিশাখাপটনমে। ওই সিরিজের প্রথম একাদশে ওপেনার হিসেবে দেখা যেতে পারে যশস্বী জয়সওয়ালকে। এছাড়াও অধিনায়ক হিসেবে থাকছেন সূর্যকুমার যাদব এবং সহ অধিনায়ক হিসেবে থাকছেন রুতুরাজ গায়কোয়াড়। মিডিল অর্ডারে থাকতে পারেন ঈশান কিশন। এছাড়াও যাঁদের থাকার সম্ভাবনা প্রবল তাঁরা হলেন রিঙ্কু সিং, শিবম দুবে, ওয়াশিংটন সুন্দর, অক্ষর প্যাটেল, আরশদীর সিং, প্রশিদ্ধ কৃষ্ণ এবং মুকেশ কুমার।

সূর্যকুমার যাদবকে এই সিরিজের অধিনায়ক করা হয়েছে। বিশ্বকাপে খুব একটা ভালো পারফরম্যান্স না হলেও T20 তাঁর পছন্দের ফরম্যাট। অন্যদিকে রিঙ্কু সিংকে ফিনিসার হিসেবে দেখা যেতে পারে।

7 months ago


Coach: বিশ্বকাপের ব্যর্থতার পর বদল হল ভারতীয় দলের কোচ, কে পেলেন নতুন জায়গা!

বিশ্বকাপের পর অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে টি টোয়েন্টি সিরিজ শুরু হচ্ছে বৃহস্পতিবার। আর এই সিরিজের জন্য দায়িত্ব পাচ্ছে নতুন কোচিং দল। সরিয়ে দেওয়া হয়েছে রাহুল দ্রাবিড়কে। বদলে প্রধান কোচের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে ভিভিএস লক্ষ্মণকে। গোটা বিশ্বকাপে ভারতের কোচ ছিলেন দ্রাবিড়। যদিও মাঝে মধ্যে দায়িত্ব সামলেছেন লক্ষ্মণ। বর্তমানে বেঙ্গালুরুর জাতীয় ক্রিকেট অ্য়াকাডেমির প্রধান তিনি। তবে শুধু দ্রাবিড় নয়, অস্ট্রেলিয়া সিরিজের জন্য গোটা কোচিং টিমকেই বদল করা হয়েছে।

এতদিন পর্যন্ত ভারতের ব্যাটিং কোচের দায়িত্ব সামলেছেন বিক্রম রাঠোর। তাঁর জায়গায় আনা হয়েছে সীতাংশু কোটককে। পাশাপাশি নতুন বোলিং কোচ করা হয়েছে সাইরাজ বাহুতুলেকে। এবং ফিল্ডিং কোচ হয়েছেন মুনীশ বালি।যদিও জানা গিয়েছে, ২০২৩ বিশ্বকাপ পর্যন্তই রাহুল দ্রাবিড়ের সঙ্গে চুক্তি ছিল ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের। সেই চুক্তি শেষ হয়ে গিয়েছে। সেকারণে আপাতত তাঁর বদলে অন্য কোচ নিয়োগ করা হয়েছে।

7 months ago
Modi:'আমরা সবসময় সঙ্গে রয়েছি', রোহিত বাহিনীর পাশে থাকার বার্তা প্রধানমন্ত্রী মোদির

দেশকে গর্বিত করেছে টিম ইন্ডিয়া। দেশবাসী সবসময় তাঁদের পাশে রয়েছে। রোহিতদের বিশেষ বার্তা দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। উল্লেখ্য, বিশ্বকাপ ফাইনাল জিতেছে অস্ট্রেলিয়া। ফের একবার স্বপ্নভঙ্গ হয়েছে টিম ইন্ডিয়ার।

এদিন, প্রধানমন্ত্রী এক্স হ্যান্ডেলে লেখেন, 'গোটা টুর্নামেন্টে আপনাদের প্রতিভা এবং সংকল্প ছিল প্রশংসনীয়। দারুণ উদ্যমের সঙ্গে খেলেছেন ও ভারতকে গর্বিত করেছেন । আমরা সবসময় সঙ্গে রয়েছি।' রবিবাসরীয় ফাইনাল ম্যাচ দেখতে স্টেডিয়ামে পৌঁছন মোদী। সঙ্গে ছিলেন অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী। স্টেডিয়ামে বসে খেলা দেখেন। ম্যাচ উপভোগ করেন। ম্যাচ শেষে অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়কের হাতে ওয়ার্ল্ড কাপ তুলে দেন তিনি।

7 months ago
Cummins: একই বছরে বিশ্বকাপ জিতে ত্রিমুকুট জিতলেন অজি অধিনায়ক প্যাট কামিন্স

বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ, অ্যাসেজ ও বিশ্বকাপ। একই বছরে তিন সাফল্য। ত্রিমুকুট জিতলেন অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক প্যাট কামিন্স। এবার আইপিএল খেলেননি। কারণ হিসেবে জানিয়েছিলেন, দেশের জার্সির গুরুত্ব তাঁর কাছে সবথেকে আগে। আর ফাইনালের আগের দিন কামিন্স জানিয়েছিলেন, ১ লক্ষ ৩০ হাজার সমর্থককে নিস্তব্ধ করে দিলে, তাঁর থেকে বেশি আনন্দ অন্য কিছুতে নেই। এদিন সেটাই যেন বাস্তবে পরিণত হল। ৬বার বিশ্বজয় অস্ট্রেলিয়ার।

প্যাট কামিন্সের মতো ক্রিকেটার যে কোনও দলের জন্যই সম্পদ। আর এই চাপের মধ্যে সেঞ্চুরি করে টিমকে জেতালেন ট্র্যাভিস হেড। বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালেও এই ট্র্যাভিস হেডের ব্যাটেই স্বপ্নভঙ্গ হয়েছিল ভারতের। এবার ঘরের মাঠে ফেভারিট হয়েও বিশ্বজয় সম্ভব হল না ভারতের।

7 months ago


Marsh: এতটা ঔদ্ধত্য! বিশ্বকাপ জিতে ট্রফির উপরে পা রাখলেন অস্ট্রেলীয় তারকা

এতটা ঔদ্ধত্য! বিশ্বকাপ জিতে ট্রফির উপরে পা রাখলেন অস্ট্রেলীয় তারকা। এর জেরেই বিতর্ক ছড়িয়ে পড়ল গোটা বিশ্বে। ৪৬ দিনের লড়াই শেষে ভারতকে হারিয়ে ট্রফি ঘরে তোলেন অসিরা। আর সেই বহু প্রতীক্ষিত ট্রফির উপরে পা তুলে ছবি তুলল অস্ট্রেলীয় তারকা মিচেল মার্শ। আর সেই ছবি নিজের ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে দিলেন প্যাট কামিন্স। এরপরই প্রশ্ন উঠতে শুরু হয়েছে এতটা ঔদ্ধত্য অস্টেলিয়াদের!

সাধারণত বিশ্বকাপ জেতার পরে ট্রফিতে চুমু খেতে দেখা যায় খেলোয়াড়দের। সেটা যে খেলাই হোক না কেন, ট্রফির প্রতি একটা আলাদা আবেগ, আলাদা মর্যাদা থাকে। ২০২২ সালের ফুটবল বিশ্বকাপ জেতার পরে ট্রফিকে বুকে জড়িয়ে ঘুমিয়েছিলেন লিয়োনেল মেসি। কাছ ছাড়া করতে চাননি। সেই ট্রফির উপর দু’পা তুলে কি মার্শ বোঝাতে চাইলেন, বিশ্বকাপ জেতাটা জলভাত হয়ে গিয়েছে। তাই আর আলাদা কোনও আবেগ কাজ করে না তাঁর। মার্শের এই কাজের পরে সমাজমাধ্যমে তাঁর সমালোচনা শুরু হয়েছে।

7 months ago
India: এই ম্যাচটাই হারতে হল ভারতকে! আক্ষেপ গোটা দেশবাসীর

এই ম্যাচটাই হারতে হল ভারতকে! ৪৬ দিনের সংগ্রাম, ১০ ম্যাচে টানা জয়...কোনও কিছুই কাজে আসল না শেষপর্যন্ত। কোটি কোটি ভারতবাসীর স্বপ্নভঙ্গ হল আবার। ভারতের মাটিতে শেষ হাসি হাসল অস্ট্রেলিয়া। নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামে যখন একদিকে উচ্ছ্বাস, আনন্দে মেতেছেন অজিরা। তখন বিরাট, সিরাজদের চোখে জল। তিল তিল করে এতদিন যে স্বপ্ন দেখেছিলেন, তা এইভাবে ভেঙে যাবে ভাবতে পারেননি কেউই। ম্যাচ শেষে অজিদের শুভেচ্ছা জানানোর পর মাথা নীচু করে মাঠ ছাড়লেন রোহিত শর্মা। গ্যালারিতে বসে তখন চোখ মুছছেন স্ত্রী রিতিকাও।

বিরাট কোহলি। বিশ্বকাপে তাঁর পারফরম্যান্স ছিল চ্যাম্পিয়নদের মতোই।  কিন্তু, শেষে যেন তিনি হেরে যাওয়া হিরো। ম্যাচ শেষে দেখা গেল, বারবার টুপি দিয়ে মুখ ঢাকার চেষ্টা করছেন। বুক ফেঠে যাচ্ছে কষ্টে, কান্না আটকানোর চেষ্টা করছেন। অন্যদিকে, চোখে জল সিরাজেরও। বারবার চোখ মুছতে দেখা যায় তাঁকে। ২০ বছর আগেও একই ছবি দেখেছিল ভারতবাসী। একইভাবে স্বপ্নভঙ্গ হয়েছিল। গোটা টুর্নামেন্ট জুড়ে দারুণ ফর্মে থাকলেও, শেষ ম্যাচে কিছুটা ব্যাকফুটেই দেখা যায় ব্যাটার, বোলারদের।

চেন্নাই থেকে আমেদাবাদ। বদলে গিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু বুঝতে পারলেন না ভারত অধিনায়ক রোহিত শর্মা। তাঁরা ১০ ম্যাচ অপরাজিত হয়ে ফাইনাল খেলতে নেমেছিলেন। কিন্তু ভুলে গিয়েছিলেন প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়া ফাইনালে উঠেছিল আট ম্যাচ অপরাজিত থেকে। বিশেষ করে, দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে সবচেয়ে কঠিন ম্যাচ খেলে ফাইনালে উঠেছিল অজিরা।

তাই ম্যাচ শেষে রোহিত জানালেন, বোর্ডে যদি আর কুড়ি থেকে তিরিশ রান বেশি থাকত, তাহলে অস্ট্রেলিয়াকে রুখে দেওয়া যেত। যদিও বিরাট-রাহুলের পাটনারশিপটা আর একটু বেশি হত, তাহলেও অস্ট্রেলিয়াকে রুখে দেওয়া যেত। এই সবই হল ম্যাচ শেষের উপলব্ধি। তবুও এই বিশ্বকাপে লড়াইয়ের জন্য দলের সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন রোহিত। তিনি জানিয়েছেন, দুপুরের বদলে সন্ধ্যায় এই পিচে ব্যাট করা অনেক সহজ হয়ে গিয়েছিল। তাতে অবশ্য হেড এবং লাবুশেনের পারফরম্যান্সকে ছোট করছেন না ভারত অধিনায়ক। আবার চার বছরের অপেক্ষা। গুডবাই ভারত। প্রতীক্ষা শুরু আফ্রিকার। ২০২৭ সালের বিশ্বকাপের মঞ্চ বাঁধা হবে দক্ষিণ আফ্রিকা, জিম্বাবোয়ে এবং কেনিয়ার মাটিতে। 

7 months ago


Target: বিরাট-রাহুলের জোড়া হাফ সেঞ্চুরি, অস্ট্রেলিয়ার সামনে ২৪১ রানের লক্ষ্যমাত্রা ভারতের

আজ অর্থাৎ রবিবার বিশ্বকাপ ফাইনালে ভারতের মুখোমুখি হয় অস্ট্রেলিয়া। কুড়ি বছর পর বিশ্বকাপ ফাইনাল ফের মুখোমুখি হয় ভারত অস্ট্রেলিয়া। মোতেরায় টসে জিতে প্রথমে বল করার সিদ্ধান্ত নেয় কামিন্স বাহিনী। টসে হেরে প্রথম ব্যাট করতে নেমে ৫০ ওভারে সবকটি উইকেট হারিয়ে মাত্র ২৪০ রান করে ভারত। অর্থাৎ বিশ্বকাপ জিততে অস্ট্রেলিয়ার সমানে  মাত্র ২৪১ রানের লক্ষ্যমাত্রা দিল ভারত।

টসে হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো হলেও ধাক্কা খায়  গিলের উইকেটে। স্টার্কের বলে জাম্পাকে ক্যাচ দিয়ে ঘরে ফেরে রাহুল। এরপরেই প্রথম পাওয়ারপ্লেতে রোহিতের দুর্দান্ত ক্যাচ ধরে রোহিতকে ঘরে ফেরায় ডেভিস। ওদিকে কামিন্সের বলে উইকেট রক্ষকের কাছে ক্যাচ দিয়ে ঘরে ফেরে শ্রেয়স। এরপর রাহুল ও বিরাট ভালো পার্টনারশিপের চেষ্টা করলেও পুরোটা সফল হয় নি। বিরাট ৫৪ রানে কামিন্সের বলে প্লেডাউন হয়ে আউট হলে ছন্দ হারায় ভারতের ইনিংস। এরপর জাদেজা ও সিরাজও তেমন কিছু করতে পারে নি। ওদিকে ৬৬ রানে একটি যোগ্য ইনিংস খেলে রাহুল। একদিকে বলা চলে যে ভারতের টপ অর্ডার মোটামুটি খেললেও মিডল অর্ডার একেবারে ব্যর্থ।

ওদিকে স্টার্ক ৫৫ রানে ৩ উইকেট নেয়। দুটি করে উইকেট পায় হেজেলউড, কামিন্সও, পাশাপাশি ১ টি করে উইকেট পায় ম্যাক্সওয়েল ও জাম্পা। খেলার শুরু থেকেই দুর্দান্ত লাইন ও লেন্থের বোলিং। এবং কড়া ফিল্ডিং ভারতকে প্রথম থেকেই চাপে রেখেছিল। রোহিতের ব্যাটে বাউন্ডারি এলেও, এরপরে বাউন্ডারি মারতে যথেষ্ট বেগ পেতে হয় ভারতকে। বলা চলে প্রথম পাওয়ারপ্লের পর আর ওভার বাউন্ডারি হয় নি। মোটের উপর বিশ্বকাপ ফাইনালের মত একটি গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে  ভারতের ব্যাটিং যথেষ্ট হতাশাজনক সেটা বলা চলে। এখন দেখার মাত্র ২৪১ রান টার্গেট দিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে রুখতে ভারতের বোলিং আক্রমণ কতটা গুরুতর হয়!

7 months ago
Fact: বিশ্বকাপ ফাইনালে ৫টি ফ্যাক্ট, যারা মুহূর্তে জিতে নিতে পারে বাজি

ভারত বনাম অস্ট্রেলিয়া বিশ্বকাপ ক্রিকেট ফাইনাল। রাত পোহালেই ফাইনালের মঞ্চ কাঁপাতে নামবে চির প্রতিপক্ষ দুই দল ভারত ও অস্ট্রেলিয়া। আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামটি ইতিমধ্যেই রঙিন হয়ে সেজে উঠেছে। বিগত বছর গুলিতে ক্রিকেট বিশ্বে রাজত্ব করেছে হলুদ জার্সির অস্ট্রেলিয়া। ৫ বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া যে কতটা ভয়ানক সেটা ভারত টের পেয়েছিল ২০০৩ সালে। ২০০৩ বিশ্বকাপ ফাইনাল, যেখানে অসিরা সৌরভ গাঙ্গুলীর নেতৃত্বাধীন ভারতকে একেবারে ধ্বংস করে দিয়েছিল। যদিও এখন পরিস্থিতি অনেক বদলেছে। ২০২৩ সালে বিশ্বকাপ প্রতিযোগিতায় একমাত্র অপরাজিত দল ভারত। ওদিকে অস্ট্রেলিয়ার বিশ্বকাপ অভিযান শুরু হয়েছিল ভারতের কাছে হেরে। যদিও বিশ্বকাপে যত দিন এগিয়েছে, দু'দলেরই খেলায় বেশ বদল এসেছে। সমসাময়িক পরিস্থিতিতে ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার যে খেলোয়াড়দের লড়াই ম্যাচটিকে উভয় পক্ষের পক্ষে সুইং করতে পারে, সেটা যাচাই করল সিএন।


বিরাট কোহলি বনাম অ্যাডাম জাম্পা

একদিবসীয় বিশ্বকাপের ২০২৩ সংস্করণে বিরাট কোহলির বিস্ময়কর পারফরম্যান্স নজর কেড়েছে। বিরাট এই বিশ্বকাপে ভারতের কাছে ব্রহ্মাস্ত্র।   ক্রিজে তার উচ্চাকাঙ্ক্ষা, দক্ষতা এবং স্ট্যামিনা বিরাটকে সবার থেকে আলাদা করেছে। ১০টি  ইনিংস খেলে ৭১১ রান করে কোহলি এই  টুর্নামেন্টে অন্য সমস্ত ব্যাটারদের থেকে অনেক উঁচুতে দাঁড়িয়ে আছেন। ফাইনাল জেতাতে গেলে বিরাটকে অ্যাডাম জাম্পার কৌশলী লেগ-স্পিনকে বুদ্ধিমানের সঙ্গেমোকাবিলা করতে হবে। জাম্পা এখনও পর্যন্ত ২২টি উইকেট নিয়ে প্রতিপক্ষের ব্যাটারদের আউট করেছেন। জাম্পা ভারতীয় কন্ডিশন উপভোগ করেছেন এবং রবিবার কোহলির উইকেট নেওয়ার জন্য মুখিয়ে থাকবেন। বিশ্বকাপ ইতিহাসে বিরাট কোহলি জাম্পার ৩১ বল খেলে ২৯ রান করেছেন, যেখানে ছিল কেবল ১টি বাউন্ডারি।


রোহিত শর্মা বনাম জোশ হ্যাজেলউড

রোহিত শর্মা এই বিশ্বকাপে দারুন সাফল্য অর্জন করেছেন এবং শান্ত ও ক্ষুরধার মস্তিষ্কে ভারতকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। রোহিত দায়িত্ব নিয়ে পাওয়ারপ্লেতে স্কোরিং রেট বাড়ানোর দিকে নজর দিয়েছেন। কখনও কখনও সহজেই বিপক্ষকে নিজের উইকেট দিলেও গত কয়েকটি ম্যাচে ধারাবাহিকতা খুঁজে পেতে সক্ষম হয়েছেন। এবং প্রথম পায়ারপ্লেতে ভারতকে ভালো শুরু দিয়ে দারুন স্কোরে পৌঁছাতে সাহায্য করেছেন। এই বিশ্বকাপে তিনি ৫৫০ রান করেছেন। ৪০০০-এর বেশি রান করা ব্যক্তিদের মধ্যে সর্বোচ্চ স্ট্রাইক-রেট (১২৪.২৫) নিয়ে ফাইনালে নামবেন। কিন্তু জোশ হ্যাজলউডের সুশৃঙ্খল সীম বোলিংয়ের বিপক্ষে রোহিতকে লড়াই করতে হবে। যা সহজ হবে না। বিশ্বকাপ ইতিহাসে রোহিত শর্মা হ্যাজেলউডের ২৩ বল খেলে মাত্র ৮ রান করেছেন এবং ১ বার আউট হয়েছেন।


মহম্মদ শামি বনাম ডেভিড ওয়ার্নার

হার্দিক পান্ডিয়ার ইনজুরি প্রথম দিকে ভারতের জন্য একটি বড় ধাক্কা বলে মনে হয়েছিল, কিন্তু মহম্মদ শামি প্রথম ম্যাচেই বিশ্বকাপের  মঞ্চে আগুন লাগিয়ে দিয়েছিলেন। এখনও পর্যন্ত মাত্র ছয়টি ম্যাচ খেলে, শামি এই বছরের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী (২৩)। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে শামির সেভেন স্টার পারফরম্যান্স অসি শিবিরে বিপদের ঘণ্টা বাজিয়ে দিতে পারে। কিন্তু ডেভিড ওয়ার্নারকে শিকার করা কঠিন হবে। ওয়ার্নার অভিজ্ঞ ওপেনার। যিনি অস্ট্রেলীয় ইনিংসকে খুব সহজেই গড়ে তুলতে পারে একটি পাহাড় সমান ইনিংসে। একদিবসীয় ক্রিকেট ইতিহাসে শামি ১০ বার ওয়ার্নারের বিপক্ষে খেলেছেন, যেখানে ওয়ার্নার ৩ বার শামির বলে আউট হয়েছেন। এছাড়া শামির ১১৭ বল খেলে তিনি ১০৩ রান করেছেন।


জসপ্রিত বুমরা বনাম মিচেল মার্শ

ভারতের পেস স্পিয়ারহেড জসপ্রিত বুমরাহ এখন পর্যন্ত ১৮টি উইকেট নিয়েছেন। টুর্নামেন্টে প্রদর্শিত বোলারদের মধ্যে তার সর্বনিম্ন ইকোনমি রেট রয়েছে। ব্যাটাররা তার শক্তিশালী ইয়র্কার সামলাতে হিমশিম খেয়ে থাকেন। এ ছাড়া পাওয়ারপ্লেতে বুমরার সঠিক লাইন, গতি ভারতকে অনেকটা এগিয়ে রাখবে নিঃসন্দেহে। যদিও মিচেল মার্শ অলরাউন্ডার হিসেবে, টপ অর্ডারে বিস্ফোরক ব্যাটিং করছেন। এবং গ্রুপ পর্বে বাংলাদেশের বিপক্ষে অপরাজিত ১৭৭ রান করে নিজেকে ভয়ানক প্রমান করেছেন। যদিও বিশ্বকাপ ইতিহাসে বুমরার ৬ বল খেলে মার্শ একটিও রান করতে পারেননি। বরং মার্শ একবার আউট হয়েছেন বুমরার বলে।


রবীন্দ্র জাদেজা বনাম গ্লেন ম্যাক্সওয়েল

জাদেজা ও ম্যাক্সওয়েল, উভয়েরই ব্যাট এবং বলের মাধ্যমে খেলা পরিবর্তন করার ক্ষমতা রয়েছে এবং উভয়ই ফাইনালে একে  অন্যের থেকে আরও ভালো করার চেষ্টা করবে। বোলিংয়ের ক্ষেত্রে জাদেজা ম্যাক্সওয়েলের থেকে শক্তিশালী হলেও, ব্যাট হাতে ম্যাক্সওয়েল কতটা ধ্বংসাত্মক হতে পারে তা সবাই জানে, কারণ আফগানদের বিরুদ্ধে তার অতিমানবীয় ডাবল সেঞ্চুরি এখনও সবার মনে তাজা। আর তাই ম্যাক্সওয়েলের অপ্রতিরোধ্য বল-স্ট্রাইকিংয়ের বিরুদ্ধে জাদেজার বাঁহাতি স্পিন ম্যাচের অন্যতম সংজ্ঞায়িত মুহূর্ত হতে পারে। ক্রিকেট বিশ্বকাপের ইতিহাসে ম্যাক্সওয়েল, জাদেজার ৯ বল খেলে মাত্র ৮ রান করেছেন, এবং একবার আউটও হয়েছেন।


7 months ago
WC: বিশ্বকাপ ফাইনালে নিজেদের সেরাটা দিতে চলেছে, ইঙ্গিত অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়কের

বিশ্ব ক্রিকেটের ইতিহাসে হলুদ জার্সিদের দাপট গোটা বিশ্ব জানে। দাপট শব্দটি যেন অস্ট্রেলিয়া দলটির সঙ্গেই জড়িয়ে আছে। বড় কোন প্রতিদ্বন্দ্বিতা ছাড়া সব ম্যাচ জিতে ফাইনালে পা রেখেছে রোহিত শর্মার দল। প্রতিপক্ষ অধিনায়ক প্যাট কামিন্সও ভারতের দাপটের কথা অকপটে স্বীকার করছেন। কিন্তু কামিন্সের অস্ট্রেলিয়াও তো ফাইনালে পা রেখেছে টানা আট জয় নিয়ে। যদিও কামিন্স বলছেন, এখনও নিজেদের সেরাটা দিতে পারেননি তারা।

সেরা ক্রিকেট না খেলেও ফাইনালে চলে আসা কামিন্সের কাছে ইতিবাচক। ম্যাচের আগে সংবাদ সম্মেলনে অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক বলেন, 'আমাদের জন্য একটি আন্দদদায়ক ব্যাপার হচ্ছে যে, আমি এখনও মনে করি না আমরা পরিপূর্ণ খেলাটা খেলতে পেরেছি। যে কারণে বড় জয়ও নেই। আমাদের সব জয় পেতেই লড়াই করতে হয়েছে এবং আমরা জয়ের একটা পথ খুঁজে পেয়েছি। আর ভিন্ন সময়ে ভিন্ন খেলোয়াড়ও অবদান রেখেছে।'

প্রথম দুই ম্যাচে ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে হেরে বিশ্বকাপ যাত্রা শুরু করে অজিরা। টানা সাত জয়ে এরপর জায়গা করে নেয় সেমিফাইনালে। হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে আফগানিস্তানের বিপক্ষে অজিদের ঐতিহাসিক জয় এসেছে ৩ উইকেটে। নিউজিল্যান্ডকে তারা হারিয়েছে মাত্র ৫ রানে। অবশ্য নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ৩০৯ রানের জয়ের বাইরেও তারা জিতেছে বড় জয়। বাংলাদেশের বিপক্ষে ৮ উইকেটে, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৮৮ বল হাতে রেখে ৫ উইকেটে, পাকিস্তানের বিপক্ষে ৬২ রানে। ইংল্যান্ডের বিপক্ষেও মিলেছে ৩৩ রানের জয়।

ভারত যেমন টানা ১০ ম্যাচ জিতে ফাইনাল খেলতে নামবে, তেমন অসিরাও টানা ৮ ম্যাচে জয় নিয়ে নামবে ভারতের বিরুদ্ধে। কিন্তু প্রত্যেক ম্যাচেই ম্যাচের কোনও না কোন অংশে প্রতিপক্ষ দলই ছিল ফ্রন্টফুটে। ম্যাচের পুরোটা জুড়েই দাপট রেখে জিততে পারেনি অস্ট্রেলিয়া। তবুও অস্ট্রেলিয়া বিশ্বকাপের ফাইনালে। ভারতের বিরুদ্ধে নামার আগে অস্ট্রেলিয়ার বড় টুর্নামেন্ট জেতার অভিজ্ঞতা যেমন থাকবে, তেমন থাকবে আত্মবিশ্বাস। সব মিলিয়ে অসিরাযে ভারতকে সহজে এক ইঞ্চিও জমি ছাড়বে সেটা বলা চলে। অন্যদিকে ২০ বছর বাদে ভারতের সামনে প্রতিশোধের হাতছানি, ২০০৩-এর আক্ষেপকে ভুলিয়ে দেওয়ার সুবর্ন সুযোগ। অপরাজিত রোহিত ব্রিগেড কি পারবে সমস্ত আক্ষেপ ঘুচিয়ে দিতে। সেটাই এখন দেখার।

7 months ago


WC: 'বিশ' সাল বাদ ইন্ডিয়া-অস্ট্রেলিয়া, ব্যাটে বলে কোন দল এগিয়ে

রাত গড়ালে ক্রিকেট বিশ্বকাপ ফাইনাল। আর সেই ফাইনালকে নিয়েই গোটা ভারতের চোখে মোহমাখা স্বপ্নের ভিড়। ভারত কি পারবে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হতে? রোহিত ব্রিগেড কি পারবে বিশ সাল আগের বদলা নিতে? যদিও বিশেষজ্ঞদের মত এখনও অবধি ভারতের পাল্লা ভারী। গোটা বিশ্বকাপে ভারতের যে পারফম্যান্স, সেই ফর্মই যদি ফাইনালে ধরে রাখতে পারে ভারত তবে ভারতকে আটকানো মুশকিল হবে, এমনি মত প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলির। এখনও লীগ টেবিলে ৯টি ম্যাচ খেলে ভারত একটিতেও হারেনি। বরং সেমিতে রীতিমত নিউজিল্যান্ডকে ৭০ রানে হারিয়ে রোহিত ব্রিগেডের আত্মবিশ্বাস তুঙ্গে। ফলে এখনও অবধি অপরাজিত, একার্থে অপ্রতিরোধ্য দল হিসেবে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ফাইনালে নামছে ভারত।

রবিবার আহমেদাবাদে ক্যাঙ্গারু বাহিনীর বিরুদ্ধে ফাইনালে নামার আগে অনেকটা এগিয়ে থাকবে ভারত। যেমন ব্যাটিং ও বোলিং। ব্যাটিংয়ের দিক থেকে খানিকটা শক্ত মেরুদণ্ডের সঙ্গেই শুরু করবে ভারত। এই বিশ্বকাপে প্রথম থেকেই নজরে রয়েছেন রোহিত ও গিলের জুটি। রোহিত ও গিল বর্তমানে অসাধারণ ফর্মেই রয়েছেন। এমনকি নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে শেষ ম্যাচেও জবরদস্ত শুরু করেছিলেন এই দুই ওপেনারই। এরপরেই রয়েছেন বিরাট কোহলি। এখনও অবধি সচিনকে পার করে, একদিবসীয় ক্রিকেটে সর্বাধিক সেঞ্চুরির রেকর্ড গড়েছেন তিনি। শেষ ম্যাচে কিউইদের বিরুদ্ধেও সেঞ্চুরি করেন বিরাট। পাশাপাশি চলতি বিশ্বকাপে দুটি সেঞ্চুরি নিয়ে, বিরাট এখনও সর্বাধিক রান সংগ্রহকারী। সেদিক থেকে অসিরা বিরাটকে থামানোর চেষ্টা করলেও, বিরাটযে অপ্রতিরোধ্য থাকবে সেটা বলাই বাহুল্য। গোটা বিশ্বকাপে বিরাটের যোগ্য সঙ্গ দিয়েছে শ্রেয়স আইয়ার ও কে এল রাহুল। শ্রেয়স ও রাহুল দুজনই বর্তমানে দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছেন। ফলে মিডিল অর্ডারেও অনেকটা শক্ত সামর্থ ভারত। পাশাপাশি রাহুল উইকেটের পিছনেও ভালো ভূমিকা পালন করছে।

ফিল্ডিংয়ের সঙ্গে থাকছে বোলিং। বলাচলে ভারতের মূল অস্ত্র বোলিংই। একদিকে শামি, অন্যদিকে সিরাজ-বুমরা জুটি। এই বিশ্বকাপে এই তিন পেসার ভারতকে অন্যদল গুলির থেকে আলাদা করে চিনিয়েছে সেটা বলাই বাহুল্য। অস্ট্রেলীয় স্পিনার জাম্পাকে টপকে বর্তমানে সর্বাধিক উইকেট সংগ্রহকরী বোলার ভারতের শামি। শেষ ম্যাচে ৭ উইকেট নিয়ে রেকর্ড গড়েছেন তিনি। গোটা প্রতিযোগিতায় যোগ্য ভূমিকা রয়েছে সিরাজ ও বুমরাও। ক্ষুরধার স্পিন সামলাবে জাদেজা ও কুলদীপ। ফলে সব মিলিয়ে আত্মবিশ্বাসে ভরপুর এই দলটি, রোহিতের নেতৃত্বে যে ভারতকে বিশ্বসেরা করতে পারবে,  এই স্বপ্ন দেখা যায়।

7 months ago
WC: ২০ বছর পর ফের বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি ভারত, কি মত প্রাক্তন অধিনায়কের

২০ বছর আগে জোহানেসবার্গ। ২০০৩ বিশ্বকাপের ফাইনাল। সেই ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে হেরেছিল সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের টিম ইন্ডিয়া। এবার আহমেদাবাদে সেই ২০০৩ বিশ্বকাপ ফাইনালের প্রতিশোধ নেওয়ার পালা রোহিতদের। তৎকালীন অধিনায়ক ও প্রাক্তন বোর্ড সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় জানালেন, এই ভারতকে রোখা খুবই কঠিন।

ইডেন গার্ডেন্সে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে থ্রিলার ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়ে ফাইনালে ওঠে অস্ট্রেলিয়া। সেই ম্যাচের পরই টিম ইন্ডিয়াকে শুভেচ্ছা জানান মহারাজ। জানান, ভারত গ্রুপ লিগে ও সেমিফাইনালে দাপট দেখিয়েছে। আর মাত্র একটা ম্যাচ। মাঝখানে অস্ট্রেলিয়া। এই ফর্ম ধরে রাখতে পারলে, ভারতকে আটকানো কঠিন। ম্যাচটাও খুবই ভাল হবে।

7 months ago