১৫ এপ্রিল, ২০২৪

DumDum: নজরে দমদম...
CN Webdesk      শেষ আপডেট: 2024-03-30 12:42:32   Share:   

প্রসূন গুপ্তঃ লোকসভা বটে দমদম। স্বাধীনতা উত্তর যুগে এই দমদম যে কত ঘটনার সাক্ষী তা আর বলে দিতে হয় না। ড.বিধান রায়ের আমলে দমদম ছিল একেবারে কংগ্রেসের নিজের জমি। দমদম লোকসভায় যারা তখন ভোটার ছিল তাদের সিংহভাগই ছিল ওপার বাংলা থেকে আসা উদ্বাস্তু। ড.রায় তাদের পুনর্বাসন দিয়েছিলেন। নামমাত্র টাকায় জমি দিয়েছিলেন বসবাসের জন্য এবং চাকরি ও কন্ট্রাক্টারি করার সুযোগ করেও দিয়েছিলেন। কিন্তু ড.রায়ের মৃত্যুর পরে ধীরে ধীরে এই দমদম হয়ে উঠলো কমিউনিস্টদের চারণ ভূমি। ৭০ দশকের মধ্যভাগ থেকে সিপিএম একেবারে দখলদারি নিয়ে নিলো দমদমের। এই লোকসভার অন্তর্গত বিধানসভাগুলি ও পুরসভা দখলে এলো মার্কসবাদীদের। বলা হতো লালদুর্গ। ১৯৮৫-তে ইন্দিরা নিধনের পরে একবার দমদমে যেতে কংগ্রেসের আশুতোষ লাহা। ব্যাস ফের দমদম হাতছাড়া হয় সেই ১৯৯৯ তে, যে বার বিজেপির তপন শিকদার এখন থেকে জেতেন। তারপর ২০০৯-এ পরিবর্তনের হাত ধরে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী সৌগত রায় পরপর তিন বার জিতেছেন এই আসন থেকে। অর্থাৎ লালদুর্গের পতন হয়।

এবারে লোকসভা নির্বাচন এসে গিয়েছে। প্রার্থী ওই প্রবীণ সৌগতবাবুই। ২০১৪ এবং ২০১৯ এর মোদী হাওয়াতে পরিবর্তিত হয় নি দমদমের মুড। প্রশ্ন এবারে কি হবে?

বৃদ্ধ হলেও সৌগতবাবু এখনও দৌড়ে বেড়ান এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে। বিভিন্ন এলাকার মানুষকে তিনি যেমন সময় দেন তেমনই মানুষও তাঁকে কাছে পায়। কাজেই প্রাথমিক ভাবে জয় নিয়ে যে খুব একটা টেনশনে তিনি এমনটি বলা যাবে না কিন্তু ১৩ বছর ক্ষমতায় আছে তৃণমূল অতএব বিপরীত হাওয়া যে বইবে না এমন গ্যারান্টি কোথায়? এবারে এখানে সিপিএমের জাঁদরেল প্রার্থী সুজন চক্রবর্তী এবং বিজেপির প্রার্থী প্রাক্তন তৃণমূলের শীলভদ্র দত্ত। শীলভদ্র এলাকার বাসিন্দা। প্রথম রাজনীতি কংগ্রেসের হাত ধরে পরে মুকুল রায়ের হাত ধরে তৃণমূলে। পরে মুকুল দল ছাড়লে শীলভদ্রও দল ছাড়েন। বিজেপির হয়ে ২০২১ এর ভোটে পরাজিত হন।

অন্যদিকে সুজন চক্রবর্তীর দল আজ শূন্যে পরিণত হলেও ওজনদার প্রার্থী তিনি। তিনি যে এই ভোটের অন্যতম ফ্যাক্টর তা আর বলে দিতে হয় না। কাজেই সুজনের প্রাপ্তি ভোট, হয় বিজেপিকে অথবা তৃণমূলকে জেতাবে তা বলাই বাহুল্য। সুজন ভোট নিদারুন কম পেলে শীলভদ্রের লাভ এবং বেশি পেলে ফের সৌগত।


Follow us on :