১৮ জুন, ২০২৪

Special: অসীম সাহসী বীরাঙ্গনা ঝলকারি বাঈ (প্রথম পর্ব)
CN Webdesk      শেষ আপডেট: 2022-12-06 10:09:12   Share:   

সৌমেন বসু: ঝলকারি বাঈ ছোট থেকেই অসীম সাহসী ও দৃঢ় চরিত্রের মেয়ে ছিলেন। ঝাঁসির রানী লক্ষ্মীবাঈয়ের যোগ্য সহচরী ছিলেন। দরিদ্র দলিত পরিবারের সন্তান হলেও, ঝলকারির বাবা নেয়েকে ঘোড়ায় চড়া ও অস্ত্র চালনা শিক্ষায় পারদর্শী করেছিলেন। ঝাঁসির কাছে ভোজনা গ্রামে ঝলকারি জন্মগ্রহন করেন। সামাজিক ও অর্থনৈতিক কারণে ঝলকারির কৃষক বাবা মেয়েকে বেশি দূর পড়াশোনা করাতে পারেনি। শোনা যায়, ঝলকারি ঘরের কাজকর্ম সেরে জঙ্গলে কাঠ কাটতে যেতেন। একদিন তিনি এই কাজ করতে গিয়ে বাঘে খপ্পরে পড়লেন। একদম ভয় না পেয়ে বাঘের সঙ্গে লড়াই করে কুড়ুলের আঘাতে সেই বাঘকে মেরে ফেললেন। এমন সাহসী ছিলেন তিনি।

একসময় গৌরী পুজোর সময় ঝলকারি অন্য মহিলার সঙ্গে ঝাঁসির রানীকে সম্মান জানাতে রাজ মহলে আসেন। এখানে রানী ঝলকারিকে দর্শন করতেই অবাক হয়ে যান। লক্ষ্মীবাঈ দেখেন, ঠিক তাঁর মতো হুবহু দেখতে ঝলকারি বাঈ। এরপর রানী যখন ঝলকারির সাহস এবং অস্ত্র চালনার ব্যাপারে জানলেন, তখন রানীর দুর্গা দল বাহিনীতে ঝলকারিকে যোগ দিতে প্রস্তাব দেন রানী। ঝলকারি যেন এই অপেক্ষার প্রহর গুনছিলেন, রানীর নির্দেশে তিনি দুর্গাদল বাহিনীতে যোগ দেন। ১৮৫৭ সালে যখন ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির ভারতীয় সিপাইরা বিদ্রোহ ঘোষণা করলেন, তখন রানী ঠিক করলেন ব্রিটিশদের হাত থেকে তাঁর ঝাঁসিকে উদ্ধার করতে হবে। (চলবে)


Follow us on :