ব্রেকিং নিউজ
  বিধ্বংসী আগুনে পুড়ে ছাই মোটর যন্ত্রাংশের দোকান, ক্ষতি কয়েক লক্ষ টাকার জিনিস, চাঞ্চল্য বসিরহাটে     মহেশতলায় ভোররাতে কাপড়ের গোডাউনে আগুন, চাঞ্চল্য  
cm-on-december-dhamaka-in-administration-meeting-at-ranaghat
CM: এবার খোদ মমতার মুখে 'ডিসেম্বর ধামাকা', পুলিস-প্রশাসনকে সতর্ক থাকার নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর

Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2022-11-10 17:42:40


তিন দিনের নদিয়া সফরে গিয়ে বৃহস্পতিবার রানাঘাটে প্রশাসনিক বৈঠক করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। এদিন এই বিশেষ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন নদিয়ার (Nadia) জেলাশাসক, অতিরিক্ত জেলাশাসক, জেলা পুলিশের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা সহ পুর এবং ব্লকস্তরের সকল প্রশাসনিক আধিকারিকরা। এদিন বৈঠক থেকে দুর্নীতি এবং পূর্ত দফতরের উদ্দেশে কড়া বার্তা দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। মূলত কৃষ্ণনগরে কোটি টাকা ব্যয়ে যে সরকারি পান্থনিবাস পুনর্নির্মাণ করা হয়েছিল তার একাংশ এরই মধ্যে ভেঙে গিয়েছে বলে খবর। আর তাতেই তীব্র অসন্তোষ প্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী। এরই সঙ্গে ঠিকাদারেরা বাজে কাজ করলে ধরে ধরে ব্ল্যাক লিস্ট করে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। পাশপাশি কোথাও কোনও দুর্নীতি হলে কখনোই তা রেয়াত করা হবে না বলেও তীব্র ভাষায় জানান মুখ্যমন্ত্রী।

মূলত আগামী পঞ্চায়েত নির্বাচনকে টার্গেট করেই ঘুঁটি সাজাচ্ছে সব রাজনৈতিক দল। আর সেই মতোই প্রাক ভোট প্রচার সফরে সামিল হয়েছেন খোদ তৃণমূল সুপ্রিমো তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্যের শাসক দল হিসেবে তৃণমূলের সেই হারানো মানদণ্ড ফিরিয়ে আনতেই এবার উঠেপড়ে লেগেছেন মুখ্যমন্ত্রী। এদিন কৃষ্ণনগরে প্রশাসনিক সভায় মমতার মুখে ফের উঠে এল 'এনআরসি' (NRC) প্রসঙ্গ। 'রাজনৈতিক চক্রান্ত চলছে! প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের অনুরোধ সবার নাম যেন ভোটার লিস্টে থাকে। অন্য ধর্ম বলে তাঁদের দয়া করে বাদ দেবেন না। নির্বাচন এলেই ক্যা ক্যা করে। ভোটার লিস্ট যাঁরা তৈরী করছেন তাঁরা সবার নাম তুলবেন' এমনই নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর।

এরই সঙ্গে ডিসেম্বর নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সাবধান বাণী, 'ডিসেম্বরে ধামাকা করার জন্য বিরোধীরা তৈরী হচ্ছে। কর্ণাটকের মতো এখানেও কমিউনাল যুদ্ধ লাগানোর প্ল্যান করেছে। এটা বাঁচার পথ নয়, চৈতন্যদেবের জায়গায় দাঁড়িয়ে বলছি, শান্তির পথ খুঁজুন।' এদিন কার্যত ডিসেম্বর ধামাকা নিয়ে পুলিশ প্রশাসনকে সজাগ থাকার নির্দেশ দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে এদিন লক্ষ্মীর ভাণ্ডার নিয়ে সুখবর শোনালেন মুখ্যমন্ত্রী। 

এর আগে যাঁরা বিধবা ভাতা পেতেন তাঁদের লক্ষীর ভাণ্ডারের টাকা দেওয়া হতো না। তবে এখন থেকে এই নির্দেশিকা তুলে নেওয়া হল। ফলে এবার থেকে বিধবা ভাতা পেলেও তাঁরা লক্ষীর ভান্ডারের সুবিধা থেকে আর বঞ্চিত হবেন না বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।তবে এদিন ডিসেম্বর ধামাকা নিয়ে রাজ্য সরকারকে তুলোধোনা করেন রাজ্য বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য। 'সকল রাজ্য সরকারী কর্মচারী ও পেনশন ভোগীরা এই ডিসেম্বর ধামাকার জন্য অপেক্ষা করছেন। ডিএ নিয়ে কবে সুপ্রিম কোর্ট হাইকোর্টের নির্দেশ বহাল রাখবে। এই সরকার কেন্দ্রের হারে মোট ডিএ দিতে পারছে না, চাকরি দিতে পারছে না, বিনিয়োগ আনতে পারছে না, শুধু খেলা, মেলা, মোচ্ছবের রাজনীতি করে চরম ধ্বংসের দিকে পাঠিয়ে দিয়েছে পশ্চিমবঙ্গকে।' ঠিক এই ভাষাতেই রাজ্য সরকারকে  নিশানা করলেন তিনি।

এদিকে অবশ্য এই গোটা ঘটনায় রাজনৈতিক যোগসাজসের গন্ধ পাচ্ছেন বাম নেতা তন্ময় ভট্টাচার্য। 'বিজেপি, মমতা দুজনেই বলছেন ডিসেম্বরে ধামাকা হবে। আমরা চিরকাল বলেছি বিজেপি আর মমতা এক কথা বলে। আর কোথায় রাজ্যটাকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিয়ে যেতে চান! আজ থেকে টিটেনাসের দাম বেড়েছে, কাল মুখ্যমন্ত্রীর পুলিস এক যোগ্য চাকরি প্রার্থীকে কামড়ে দিয়েছেন।' এভাবে তীব্র কটাক্ষ করলেন সিপিএম নেতা।







All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us

এই সংক্রান্ত আরও পড়ুন