২৫ জুন, ২০২৪

Bose: ব্যক্তিগত কাজে দিল্লি সফর বাংলার রাজ্যপালের, ট্যুইটে কী জানালেন তিনি
CN Webdesk      শেষ আপডেট: 2023-01-28 12:54:04   Share:   

প্রসূন গুপ্ত: মাঝে মধ্যে জল্পনা কল্পনাকেও হার মানিয়ে দেয়। কল্পনা কি ইচ্ছাকৃত থাকে? থাকতেই পারে তবে ক্ষণিকের এবং যদি থেকেও থাকে তা নিজের সঙ্গে এবং পারিপার্শ্বিক স্থানে যে অর্থহীন হয় দ্রুত! ইদানিং কোনও বিতর্কে না থেকেও পশ্চিমবঙ্গের নতুন রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোস, শাসক-বিরোধীদের এক আলোচনার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছেন। যদিও বোসের মতো উচ্চ শিক্ষিত আদর্শবান প্রাক্তন আমলা সেসব গায়ে মাখেন না। বাস্তবে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং এবং বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর অত্যন্ত পছন্দের মানুষ আনন্দ বোস।

পশ্চিমবঙ্গের দায়িত্বে আসার আগে শোনা যায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর সঙ্গে বোসের দীর্ঘ আলোচনা হয়েছে। শোনা যাচ্ছে 'হাতেখড়ি' থেকে বর্তমান শাসকের সঙ্গে সুসম্পর্ক নাকি কেন্দ্র অনুমোদন দিচ্ছে, এমনটাই দাবি রাজ ভবন ঘনিষ্ঠদের। সরস্বতী পুজোর রাতেই আনন্দ বোস উড়ে যান দিল্লিতে। জল্পনা হয়েছিল তাঁকে নাকি ডেকে পাঠানো হয়েছিল 'অতিরিক্ত শাসক সখ্যতা'র কারণে।

হাতেখড়ি অনুষ্ঠানে অনুপস্থিত শুভেন্দু অধিকারী জানিয়েছিলেন যে, উনি রাতেই দিল্লি যাচ্ছেন এবং শুক্রবার বহু বিশিষ্ট মানুষের সঙ্গে দেখা ও কথাবার্তা হবে। কারা সেই 'বিশিষ্ট' ব্যক্তি, শুরু হয়েছিল জল্পনা। উঠেছিল প্রশ্ন যে, শাসক দলের সঙ্গে সখ্যতার কারণে অমিত শাহ তাঁকে ডেকে পাঠান। বাস্তবে একেবারেই তা নয়। রাজ্যপাল নিজেই টুইট করে শুক্রবার তাঁর অবস্থান প্রকাশ করেছেন।

রাজ্যপাল বৃহস্পতিবার রাতে দিল্লিতে প্রথমে যান একসময়ের প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ও বিজেপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হর্ষবর্ধনের পুত্রর বিয়েতে। পরদিন তাঁর বেশ কয়েকটি কাজের মধ্যে অন্যতম ছিল প্রধানমন্ত্রীর 'পরীক্ষা পে চর্চা'র একটি অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণ করা। তিনি দিল্লির এক বাংলা মিডিয়াম স্কুলে যান এবং ছাত্রদের সাথে এক আসনে বসে দীর্ঘ আলোচনা করেন। তাঁর আগামী বই "ইফ বার্ডস ক্যান ফ্লাই, সো ক্যান বি" নিয়েও পড়ুয়াদের সঙ্গে আলোচনা করেন। সেই ছবিই তিনি টুইট করেন।

এ ছাড়াও অন্য দু-চারটি কাজ ছিল তাঁর। কিন্তু কোনও ভাবেই মোদী বা অমিত শাহর সঙ্গে কোনও 'বিশেষ' বৈঠক ছিল না। খুশি মনেই দিল্লি সফর সেরে ফিরছেন রাজ্যপাল, তিনি জেনেছেন তাঁর কাজে খুশি কেন্দ্র।



Follow us on :