০৫ মার্চ, ২০২৪

ED: মুম্বইয়ে গ্রেফতার ভিরাজ সুভাষ পাতিল, চিকিৎসা সংক্রান্ত ইডির আবেদন মঞ্জুর করল আদালত
CN Webdesk      শেষ আপডেট: 2024-01-06 14:31:39   Share:   

অনলাইন প্রতারণা, আর্থিক বেনিয়মের অভিযোগে ভিরাজ সুভাষ পাতিল নামক এক ব্যক্তিকে ২৪ ডিসেম্বর মুম্বইতে গ্রেফতার করে ইডি। শনিবার সেই ভিরাজ সুভাষ পাতিলের শারীরিক বিষয় সংক্রান্ত শুনানি ছিল নগর দায়রা আদালতের ইডির বিশেষ আদালতে।

এদিন ইডির আইনজীবী আদালতে জানান, ধৃত ভিরাজ পাতিল হরমোন রিপ্লেসমেন্ট থেরাপির মধ্যে রয়েছেন। ভিটামিন সাপ্লিমেন্ট খান। পাশাপাশি, ধৃতের ফোন ইডি বাজেয়াপ্ত করেছে। ইডির আইনজীবী আদালতে আবেদন করেন হেফাজতে থাকাকালীন চিকিৎসকদের নির্দেশ মত যা যা ওষুধ দেওয়া হবে সেগুলি খাওয়ার অনুমতি দেওয়া হোক। আবেদন মঞ্জুর করে আদালত। মামলার পরবর্তী শুনানি ৮ই জানুয়ারি।

৩০ বছর বয়সী, ভিরাজ মুম্বইয়ের বাসিন্দা। ইতিপূর্বে দুবাইতে থাকতেন। সূত্রের খবর, রবিবার দুবাই থেকে মুম্বইতে আসার সময় গ্রেফতার হন ভিরাজ। ইডির তরফে অভিযোগ ছিল, হাওড়ার আর্থিক দুর্নীতিতে ধৃত ব্যবসায়ী শৈলেশ পাণ্ডের মামলার তদন্ত করতে গিয়ে ভিরাজ সুভাষ পাতিলের নাম জানতে পারে। অনলাইন প্রতারণার চক্রে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিজস্ব অনলাইন প্ল্যাটফর্মের  মাধ্যমে টাকা সাইফুন করার অভিযোগ ছিল তার বিরুদ্ধে। এছাড়াও ধৃতের প্রচুর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের হদিস পাওয়া গিয়েছিল। এই অ্যাকাউন্টগুলির মাধ্যমে আর্থিক লেনদেন হত এমনটাই ইডি সূত্রের খবর।

এক্ষেত্রে, ব্যবসায়ী শৈলেশ পাণ্ডের আর্থিক দুর্নীতির সঙ্গে ধৃতের যোগ ছিল এমনটাই অভিযোগ ইডির। বহু মানুষকে শৈলেশ পাণ্ডের কোম্পানিতে অর্থ বিনিয়োগ করার জন্য তিনি জোড় করেছিলেন। গতবছর হাওড়ার শিবপুরের মন্দিরতলায় প্রকাশ মুখোপাধ্যায় লেনে ব্যবসায়ী শৈলেশ পাণ্ডের ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হয়েছিল কোটি কোটি টাকা। সূত্রের খবর, অনলাইনে প্রায় ৭৭ কোটির রহস্যময় লেনদেন করেছিলেন এই শৈলেশ ও তাঁর ভাই অরবিন্দ পাণ্ডে। এরপর ইডির বিশেষ আদালতে দীর্ঘদিন ধরে ধৃত ব্যবসায়ী শৈলেশ পাণ্ডের মামলাটি চলছে। সেই মামলায় ভিরাজের গ্রেফতারির পরই ইডির তদন্ত নাটকীয় মোড় নেয়। এখন দেখার কত দ্রুত এই তদন্ত শেষ করতে পারে ইডি গোয়েন্দারা।


Follow us on :