১৩ এপ্রিল, ২০২৪

KMC: বৈধ নির্মাণের উপর কোপ পুরসভার! প্রশ্নচিহ্নের সম্মুখীন
CN Webdesk      শেষ আপডেট: 2024-03-23 13:10:14   Share:   

গার্ডেনরিচের বহুতল বিপর্যয়ের পরেই নড়েচড়ে বসেছে প্রশাসন। এলাকার অন্যান্য অবৈধ নির্মাণ নিয়ে অতি সক্রিয় কলকাতা পুরসভা। ভেঙে পড়া বাড়ির আশেপাশের অবৈধ নির্মাণ নিয়ে পুরসভার তৎপরতা রীতিমতো চোখে পড়ার মতো। আগামী ২৮ তারিখেই ধ্বংসস্তূপের ২০০ মিটারের মধ্যে একটি পাঁচতলা বাড়ির একাংশ ভেঙে ফেলার নোটিশ দিয়েছে কলকাতা পুরসভা। সম্প্রতি গার্ডেনরিচকাণ্ডের পরেই সিএন-এর ক্যামেরায় ধরা পড়েছিল কীভাবে একটি বাড়ি আরেকটি বাড়ির উপর বিপজন্নকভাবে হেলে পড়েছিল। খবর সম্প্রচার হতেই তড়িঘড়ি সেই হেলে পড়া বাড়ির জন্য বিপর্যস্ত বহুতলটির একাংশ ভাঙার নির্দেশ পুরসভার। কিন্তু এই বহুতলের মালিকের দাবি, তার বাড়ি সম্পূর্ণ বৈধ। আইন-নিময়কানুন মেনে পুরসভার অনুমতি নিয়েই তৈরি বহুতলটি। বরং যে বাড়িটি হেলে পড়েছে, সেই বাড়িটিই অবৈধ নির্মাণ। এখন তাঁর বাড়ি ভাঙলে বিপজন্নক অবস্থায় থাকা বাড়িটি আরও হেলে পড়বে, আশঙ্কা বহুতলের মালিকের।

সূত্র্রের খবর, ২০২৩ সালের ৭ জুলাই দুটি বাড়ির মালিককেই ডেকে পাঠানো হয়েছিল কলকাতা পুরসভায়। উভয়ের পক্ষকেই বেআইনি নির্মাণ সংক্রান্ত সমস্যা মেটানোর নির্দেশ দেয় পুরসভা। কিন্তু অবৈধ বহুতলের মালিক কোনও সহযোগিতা করেনি। পুরসভাকে বিষয়টি জানানোর পরও অবৈধ বহুতলের মালিকের বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ গৃহীত হয়নি পুরসভার তরফে। বরং খবর প্রকাশ্যে আসতেই নতুন করে কোনও হিয়ারিং-এর ডেট না দিয়ে, সরাসরি আইন অনুযায়ী তৈরি হওয়া বাড়িটির একাংশ ভেঙে ফেলার নির্দেশ দেয় পুরসভা। দাবি নোটিশ পাওয়া বাড়ির মালিকের।

কিন্তু গার্ডেনরিচ বিপর্যয়ের পরেই কেন প্রশাসনের এই অতি সক্রিয়তা? কেন বিপর্যয়ের আগেই হুঁশ ফেরে না সরকারের? এই প্রশ্নের নেই কোনও উত্তর। বরং এখনও সেই অসাধুভাবে নির্মাণের ঘটনাই আড়ালের চেষ্টা চলছে গার্ডেনরিচে। আর কোপ পড়ছে বৈধ নির্মাণের উপর। প্রশ্নের সম্মুখীন পুরসভার কর্ম দক্ষতা তা বলাই বাহুল্য।


Follow us on :