Breaking News
Modi: লোকসভা ভোটের দামামা বাজিয়ে রাজ্য়ে প্রধানমন্ত্রী, বাংলায় প্রার্থী ঘোষণা বিজেপির? জল্পনা      Suspend: গ্রেফতারির পরেই তৃণমূল থেকে ছয় বছরের জন্য সাসপেন্ড সন্দেশখালির 'বেতাজ বাদশা' শাহজাহান      Sandeshkhali: নিরাপদ সর্দারকে নিঃশর্তে জামিন দিয়ে রাজ্য পুলিসকে তিরস্কার বিচারপতির      Sheikh Shahjahan: ঘর ভাঙচুর, টাকা লুঠ! শেখ শাহজাহানের বিরুদ্ধে নতুন এফআইআর সন্দেশখালি থানায়      Sandeshkhali: অজিত মাইতিকে তাড়া গ্রামবাসীদের, সাড়ে ৪ ঘণ্টা পর অবশেষে আটক পুলিসের      Ajit Maity: উত্তপ্ত সন্দেশখালি! অজিত মাইতির গ্রেফতারির দাবিতে বিক্ষোভ মহিলাদের, বাঁচতে সিভিকের বাড়িতে আশ্রয়      Sandeshkhali: সন্দেশখালি ঢুকতে বাধা, ভোজেরহাটেই দিল্লির ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং টিমকে আটকাল পুলিস      Sandeshkhali: একই যাত্রায় পৃথক ফল! ১৪৪ যুক্ত এলাকায় নির্বিঘ্নে ঘুরছেন পার্থ-সুজিত, বাধাপ্রাপ্ত মীনাক্ষী      Sandeshkhali: ভোটের আগে উত্তপ্ত সন্দেশখালি, বিশেষ নজর নির্বাচন কমিশনের      Sukanta Majumdar: সন্দেশখালি থানার সামনে অবস্থান, 'গ্রেফতার' সুকান্ত মজুমদার...     

দেশ

Dev: ৮ ঘণ্টা পর জিজ্ঞাসাবাদ শেষে দিল্লির ইডি দফতর থেকে বেরোলেন দেব...

প্রায় ৮ ঘণ্টা পর জিজ্ঞাসাবাদ শেষে দিল্লির ইডি দফতর থেকে বেরোলেন ঘাটালের তৃণমূল সাংসদ দীপক অধিকারী ওরফে দেব। বুধবার সকাল ১১টায় গরু পাচার মামলায় তলব করা হয়েছিল তাঁকে।

হাসিমুখেই রাজধানীর প্রবর্তন ভবন থেকে বেরোতে দেখা যায় দেবকে। সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি জানান, 'আমি হাসতে হাসতে গেছি, হাসতে হাসতে বেরোলাম। আমি একজন আইন মেনে চলা নাগরিক। যতবার ডাকবে ততবার আসবো। যত রকম ভাবে পারব সহযোগিতা করবো।' যদিও কোন মামলায় তিনি এদিন ইডির মুখোমুখি হলেন? সিএন-এর করা এই প্রশ্নের উত্তর তিনি এড়িয়ে গেলেন।

দিল্লিতে ইডির দফতরে ঢোকার আগেও তিনি বলেছিলেন, আমি কোনও চুরি করিনি, তাই ভয় পাইনা। ইডি যতবার তলব করবে ততবার আসব। তবে যদি শ্যুটিংয়ে বড় কিছু কাজ থাকে তাহলেই এই না আসার কথা জানাব। অর্থাৎ ইডির সঙ্গে সহযোগিতার বার্তা দিয়েছেন অভিনেতা দেব।

এর আগে ২০২২-এর ১৫ ফেব্রুয়ারি, গরুপাচার মামলায় দেবকে নিজাম প্যালেসে প্রায় পাঁচ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করে সিবিআই। কয়েক মাসের ব্যবধানে ২২ জুন এই মামলাতেই দেবকে দিল্লিতে জিজ্ঞাসাবাদ করে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। এর প্রায় দেড় বছর পর ফের দেবকে তলব করল তারা।

a week ago
International Mother Language Day: এক বাঙালির গপ্পো

প্রসূন গুপ্তঃ বুধবার আন্তর্জাতিক ভাষা দিবস। আন্তর্জাতিক বললেও আসলে এই দিবসের প্রণেতা ওপার বাংলার রক্তস্নাত বাঙালির আন্দোলনের ফলাফল। ২১ ফেব্রুয়ারী। লড়াই করে এই ভাষার লড়াইয়ে একটি দেশের জন্ম হয়েছিল কালেকালে 'বাংলাদেশ"। বাংলা ভাষা এবং বাঙালি নিয়ে লিখতে গেলে হয়তো দশ পাতা লেখা হয়ে যাবে। তাই প্রবাদপ্রতিম সমস্ত বাঙালিকে শ্রদ্ধা জানিয়ে আজ বহু পরিচিত প্রয়াত দুই বাঙালির কিছু কথা লিখতে বসেছি যা হয়তো অনেকেই জানে না। শচীন দেববর্মন ও পুত্র রাহুল দেববর্মন।

শচীন কর্তা ছিলেন অবিভক্ত ত্রিপুরার রাজ্ পরিবারের ছেলে। কুমিল্লায় মূল বাড়ি ছিল তাঁর। অবিশ্যি ত্রিপুরাতেও ছিল। এই বংশের ছেলে হলেও প্রশাসনের দিকে কোনও ঝোঁক ছিল না তাঁর। বিবাহ হয় আরেক পূর্ববঙ্গীয় মীরার সঙ্গে। তারপরেই বাড়ির অমতে গান বাজনা নিয়েই জীবন। চলে এলেন কলকাতায়। স্ত্রী এবং পুত্র টুবলু বা পঞ্চম অথবা রাহুলকে নিয়ে। এ বাংলায় বহু গান করে ছবিতে সুর দিয়ে চলে যান মুম্বই। রাহুল তখন কিশোর বয়সী।

শচীন দ্রুত দারুণ নাম করে ফেললেন মুম্বইয়ের চলচ্চিত্রে সুর দিয়ে। ধীরে ধীরে ষাটের দশকে রাহুলও সুর দিতে শুরু করেন। হিন্দি গানের সঙ্গে, সিনেমার সঙ্গে থাকলেও শচীন কর্তা নিয়মিত বাংলা গান করতেন। তাঁর দুটি অদ্ভুত বিষয় ছিল প্রথমত তিনি বাঙাল ভাষা ছাড়া অন্য কিছু ভাবতেই চাইতেন না। হয়তো কাজের খাতিরে হিন্দি বলতে হতো ঠিকই কিন্তু সে হৃদি ছিল বাংলা মিশ্রিত। শচীন কর্তার সুর মানেই বাংলার ভাটিয়ালি সংগীত থাকবেই হিন্দি গানে। তাঁর মহড়ার সময়ে তিনি নির্দ্বিধায় টিমের সঙ্গে বাংলাতে কথা বলতেন । তাঁর প্রধান সহযোগী ছিলেন মান্না দে। ঘটি বাড়ির মান্না বাধ্য হয়েই বাঙাল ভাষা রপ্ত করেছিলেন। লতা মঙ্গেশকরকে ডাকতেন লোতা বলে, কিশোর কুমারকে ডাকতেন কিশুর বলে। দেব আনন্দকে ডাকতেন দ্যাভ বলে ইত্যাদি। নড়ানো যায় নি। ধুতি পাঞ্জাবি ছাড়া পড়তেন না। ইস্টবেঙ্গলের খেলা থাকলে মান্না দেকে দিয়ে এক ডজন জর্দা পান কিনে স্টেডিয়ামে বসে খেলা দেখতেন। পুত্র রাহুল সর্বকালের সেরা সুরকার হওয়া সত্বেও ভালো করে হিন্দি বলতে বা লিখতে পারতেন না। গীতিকার হিন্দিতে গান লিখলে সেটিকে বাংলা হরফে লিখে সুর দিতেন বলে জানিয়েছিলেন বন্ধু গুলজার এবং জাভেদ আখতার।

আসলে পিতাপুত্র মনেপ্রাণে বাঙালি ছিলেন এবং প্রবাসে থেকেও নিজের ভাষার প্রতি এই অগাধ শ্রদ্ধা কজনেরই বা ছিল বা আছে?

a week ago
Delhi: সকাল ১১টা, দিল্লির ইডি দফতরে হাজিরা দেবের, তলব গরু পাচার মামলায়

ইডির তলবে সাড়া দিলেন অভিনেতা তথা তৃণমূল সাংসদ দেব। গরু পাচার মামলায় আজ, বুধবার দেবকে তলব করেছিল ইডি। এই নিয়ে তৃতীয় বারের জন্য হাজিরা দিলেন দেব। দিল্লির ইডি দফতর অর্থাৎ প্রবর্তন ভবনে সকাল ১১টায় প্রবেশ করেন তিনি।

এর আগে যতবার তাঁকে তলব করা হয়েছে তিনি তদন্তে সহযোগীতা করেছেন। দেব নিজেও জানিয়েছেন, তাঁকে যতবার ডাকা হবে ততবারই তিনি হাজির হবেন। এর আগে ২০২২-এর ১৫ ফেব্রুয়ারি, গরুপাচার মামলায় দেবকে নিজাম প্যালেসে প্রায় পাঁচ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করে সিবিআই। কয়েক মাসের ব্যবধানে ২২ জুন এই মামলাতেই দেবকে দিল্লিতে জিজ্ঞাসাবাদ করে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। এর প্রায় দেড় বছর পর ফের দেবকে তলব করল তারা।

দেব আগেই জানিয়েছিলেন, তিনি কোনও অন্যায় করেননি। তাঁর কোনও ভয় নেই। তদন্তের স্বার্থে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা যতবার তাঁকে ডাকবে ততবার তিনি যাবেন।

a week ago


BJP: দল ভেঙে বিজেপিতে

প্রসূন গুপ্তঃ লোকসভা নির্বাচনের আর মাস দুয়েকও নেই। কিন্তু ২০১৯-এর বিজেপি তথা এনডিএর বিশাল জয় এবং একই সাথে ইন্ডিয়া জোটের হতশ্রী অবস্থা দেখে বিভিন্ন দল থেকে সাংসদ-বিধায়ক এবং কাউন্সিলররা বিজেপিতে যেতে চাইছে। যাচ্ছেও বটে। একটা সময়ে এই বিজেপি দল ছিল ভারতীয় জনসঙ্ঘ। মূলত আরএসএস করা কর্মী এবং প্রচারকরা জনসঙ্ঘতে আসতো। এটিই দস্তুর ছিল। পরে ১৯৭৭-এ ইন্দিরা গান্ধীর জরুরি অবস্থার পরে গোটা দলটাই নব নির্মিত জনতা পার্টিতে যোগ দেয়। জনতা পার্টি ভেঙে যায় '৭৯ তেই। তৈরি হয় ভারতীয় জনতা পার্টি। তখন পুরাতন জনসঙ্ঘ ছাড়াও অনেকেই এই দলে যোগ দিয়েছিলেন, কিন্তু শেষ পর্যন্ত ওই সঙ্ঘ পরিবারের হাতেই অনেকটা নিয়মাবলী ছিল।

১৯৯৮-তে প্রথম বিজেপির নেতৃত্বে ভারতের ক্ষমতায় আসে এক নতুন জোট নাম এনডিএ। ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক এলায়েন্স। এই জোটে বহু দলের সমন্বয় ছিল। এখানে যেমন সোশ্যালিস্ট পার্টির একটি অংশ ছিল তেমনিই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের গান্ধীবাদী কংগ্রেস মনোভাবাপন্ন দলও ছিল। সময় পাল্টেছে ফের গত ১০ বছর ক্ষমতায় সেই এনডিএ। তবে তা নামমাত্র। আসলে বিজেপি একাই একক শক্তি নিয়ে ক্ষমতায়। একটু ভুল হলো, আসলে এটি মোদী সরকার। এখানে প্রবল প্রতাপান্বিত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সঙ্গে অমিত শাহ। প্রশাসন মোদীর হাতে সংগঠন শাহের কব্জায়। ইতিমধ্যে রাজ্যে রাজ্যে ভোট হয়েছে বহুবার। সব জায়গাতেই বিজেপি জিতেছে এমন নয় কিন্তু যেখানেই যে দল জিতুক না কেন লোকসভা ভোট এলেই ফের মোদী।

ব্যতিক্রম নয় এবারেও। কিন্তু ভোট যত এগিয়ে আসছে তত বিভিন্ন দল ভেঙে ঝাঁকে ঝাঁকে নেতারা বিজেপিতে যোগ দিচ্ছে। বিরোধীরা বলছে যে, কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা এজেন্সির চাপে নাকি এই বদল কিন্তু অন্য বিষয়ও আছে। কংগ্রেস বা অন্য বিরোধীরা বুঝেছে বিজেপিকে হারিয়ে ক্ষমতায় আসা অসম্ভব না হলেও কঠিন কাজেই ক্ষমতার অলিন্দে থাকতে গেলে বিজেপিতে যাওয়া দরকার।

বিজেপি তাদের দলে নিচ্ছেও কিন্তু এই ভাবে বিভিন্ন মতবাদের মানুষ নিয়ে বৃহৎ দল তৈরি করলে বিপদও আছে। একটা সময় আসবে যখন নানা মুনির নানা মতে দলে ভাঙন লাগতে পারে। যা হয়েছিল ১৯৭৭ বা ১৯৮৯ এ। এতো দলের মধ্যেই উপদল হয়ে যাবে। শাহের মাথায় আছে কি তা?

2 weeks ago
Sonia: রাজ্যসভায় সনিয়া

প্রসূন গুপ্ত: ইন্দিরা গান্ধী ১৯৬৪ থেকে ১৯৬৭ অবধি পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ অর্থাৎ রাজ্যসভার সদস্য ছিলেন। অবিশ্যি এর মধ্যে লালবাহাদুর শাস্ত্রীর প্রয়ানে তিনিই প্রথম রাজ্যসভা থেকে যাওয়া প্রথম প্রধানমন্ত্রী হন। এরপর থেকে নেহেরু/গান্ধী পরিবার থেকে আর কেউ রাজ্যসভায় দাঁড়ান নি। এবারে ইন্দিরার পুত্রবধূ সনিয়া রাজ্যসভায় যাচ্ছেন। প্রশ্ন হচ্ছে সনিয়া হঠাৎ রাজ্যসভায় কেন? দাঁড়ালে কোথা থেকে এবং তাঁদের পারিবারিক কেন্দ্র রায়বেরিলিতে কে দাঁড়াবে?

আপাতত ঠিক হয়েছে সনিয়া গান্ধী রাজস্থান থেকে দাঁড়াচ্ছেন। সেখানকার সদ্য বিদায়ী মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলত, সনিয়ার নির্বাচনী এজেন্ট। এই রাজস্থান থেকেই সাংসদ ছিলেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং। তিনি আর সরাসরি রাজনীতিতে থাকছেন না বলেই খবর। অন্যদিকে পরে থাকে রায়বেরিলি।

সূত্রের খবর এবার প্রথম এই কেন্দ্র থেকে লোকসভা নির্বাচনে দাঁড়াচ্ছেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। এতদিন খোদ সনিয়ার আপত্তিতে প্রিয়াঙ্কা ভোটে আসেন নি। তিনি কিন্তু প্রচারে ছিলেন বহুদিন। প্রশ্ন উঠেছে, তবে কি রাহুলের উপর আস্থা নেই তাঁর মায়ের?

বিষয়টি ভিন্ন। একসময় ভোট যাদুগর প্রশান্ত কিশোর গান্ধী পরিবারকে জানিয়েছিলেন যে, প্রিয়াঙ্কাকে প্রোজেক্ট করতে। তাঁর মধ্যে নাকি ঠাকুমা ইন্দিরার লক্ষন ইতিবাচক রয়েছে। কিন্তু সনিয়া বা রাহুল বিষয়টিকে আমল দেন নি। এখন শেষ মুহূর্তে বদল কি পিকের টোটকা?

প্রসঙ্গত নরেন্দ্র মোদী কিন্তু সময়ে সময়ে এই পরিবারকে কটাক্ষ করেছেন পরিবারতন্ত্র নিয়ে। কংগ্রেসের বক্তব্য ঐ কারনেই আরও বেশি করে বিরোধীতা করবে তারা। তাই কি প্রিয়াঙ্কাকে ভোটে নিয়ে আসা? সময় জবাব দেবে।

2 weeks ago


Suvendu: অমিতের ডাকে দিল্লিতে শুভেন্দু

প্রসূন গুপ্তঃ সোমবার পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য বাজেট অধিবেশন শুরু। যদিও সামনেই লোকসভা নির্বাচন কাজেই এই বাজেট নেহাতই অন্তর্বর্তীকালীন হিসাবেই থাকবে। এদিকে বাজেট যাই হোক না কেন, সোমবার রাজ্যপাল আনন্দ বোস বাজেটের আগে তাঁর সরকারের এক বছরের কাজের খতিয়ান দেবেন এবং সেই সময়ে উপস্থিত থাকবেন না বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। এমন ঘটনা এর আগে ঘটেনি, কিন্তু প্রশ্ন উঠেছে ঠিক এই সময়ে এমন কি জরুরি তলব দিল্লি থেকে তাঁর কাছে এলো যে , শুভেন্দু তড়িঘড়ি দিল্লিতে রবিবার রাতেই রওনা হয়ে গেলেন! শোনা গিয়েছে যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের ডাকেই তাঁর দিল্লি গমন। সোমবার বৈঠক হবে অমিতের সাথে।

সূত্র মারফত যতটুকু জানা যাচ্ছে, আসন্ন নির্বাচন নিয়েই নাকি আলোচনা। লোকসভা তো পরের বিষয়, কিন্তু আগামী মার্চে বাংলার রাজ্যসভার ৫টি আসন খালি হচ্ছে। নিঃসন্দেহে ৪টি আসন জিততে চলেছে ক্ষমতাসীন তৃণমূল কংগ্রেস এবং একটি আসন পাবে বিজেপি। এবারে এই একটি আসনের জন্য অনেক নাম ঘোরাফেরা করছে বাজারে। শোনা যাচ্ছে মিঠুন চক্রবর্তীর নাম, রঙিন দুনিয়ার আরও কিছু নামও শোনা যাচ্ছে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ঠিক করবেন ওই অমিত শাহই। এমন কোনও নাম আসতে পারে, যাকে আসন্ন নির্বাচনে ব্যবহার করা যেতে পারে। কাজেই শুভেন্দুর সঙ্গে এই বিষয় প্রাথমিক আলোচনা করতে চাইছেন শাহ। 

যদিও তিনি একই বিষয় রাজ্যের অন্য নেতাদের সঙ্গেও আলোচনা করবেন। রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার সোমবার সকালের বিমানেই দিল্লি চলে গিয়েছেন। জানা নেই যে, শুভেন্দুর সঙ্গে বৈঠকে সুকান্ত থাকবেন কি না। এমনিতেই রাজ্য বিজেপিতে প্রবল গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব। শাহ বারবার সে বিষয় সাবধান করার পরেও সংযত হওয়ার তেমন কোনও বার্তা নেই। তবুও অমিত চাইছেন, যে ভাবেই হোক ভোটের আগে বাংলায় সকলে একসাথে কাজ করুক। এই কারণে নতুন একটি কমিটি হয়েছে যেখানে ফিরিয়ে আনা হয়েছে দিলীপ ঘোষ ও রাহুল সিনহাকে। শুভেন্দু, সুকান্ত না ফেরা অবধি জানা যাবে না এই জরুরি তলব কেন! 

4 weeks ago
Champai Soren: জল্পনার অবসান, ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রীর পদে শপথ চম্পাই সোরেনের

জমি দুর্নীতি মামলায় বুধবার ইডির হাতে গ্রেফতার হন ঝাড়খণ্ডের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেন। তার ঠিক দু'দিনের মাথায় মুখ্যমন্ত্রীর আসনে বসেন চম্পাই সোরেন। শুক্রবার দুপুর ১২ টা নাগাদ রাঁচির রাজভবনে রাজ্যপাল সিপি রাধাকৃষ্ণাণ চম্পাইকে শপথবাক্য পাঠ করান।

৬৭ বছর বয়সে চম্পাই সোরেন মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন। রাজ্যপাল সিপি রাধাকৃষ্ণাণ বৃহস্পতিবার চম্পাইকে সরকার গঠনের জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। কিন্তু বৃহস্পতিবার তাঁর শপথ নেওয়া হয়নি। তারপরই মুখ্য়মন্ত্রীর পদ গড়া নিয়ে শুরু হয় জল্পনা। এরপর রাজ্যের পরিবহণমন্ত্রী তথা চম্পাই সোরেন, জেএমএম প্রধান শিবু সোরেনের অনুগত হিসাবে বিবেচিত হন। নয়া মুখ্য়মন্ত্রীর আসন পান তিনি। জেএমএম আইনসভা দলের নেতা নির্বাচিত হওয়ার পর, চম্পাই সোরেন বলেন, আমি আমার বাবার সঙ্গে মাঠে কাজ করতাম। এখন ভাগ্য আমাকে একটি ভিন্ন ভূমিকা পালন করার সুযোগ দিয়েছে।

হেমন্তের জায়গায় চম্পাইকে বেছে নেন জেএনএম। বুধাবার রাতে হেমন্ত সোরেন গ্রেফতার হওয়ার পর চম্পাই রাজভবনে গিয়ে নতুন সরকার নিয়োগ দাবি জানিয়ে এসেছেন। রাজভবনের সামনে প্রচুর পরিমাণে পুলিস মোতায়েন করা হয়েছে।

4 weeks ago
Budget: সার্ভাইক্যাল ক্যান্সারের টিকা মেয়েদের, বাজেটে ঘোষণা নির্মলার

বৃহস্পতিবার সংসদে অন্তর্বর্তীকালীন বাজেট পেশের সময় সার্ভাইক্যাল ক্যান্সারের বিরুদ্ধে টিকাকরণের ঘোষণা কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণের। অল্প বয়সি মেয়েদের মধ্যে বৃদ্ধি পাচ্ছে সার্ভাইক্যাল ক্যানসার। আর সেই কারণেই ৯ থেকে ১৪ বছর বয়সি মেয়েদের টিকা গ্রহণে উৎসাহিত করা হবে। সার্ভাইক্যাল ক্যান্সারের বিরুদ্ধে সার্বিক প্রতিরোধ গড়ে তুলতেই এই সিদ্ধান্ত।

নির্মলা বলেন, "সার্ভাইক্যাল ক্যান্সারের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে ৯ থেকে ১৪ বছর বয়সি মেয়েদের টিকা গ্রহণে উৎসাহিত করবে আমাদের সরকার।" তবে কোন পদ্ধতিতে হবে টিকাকরণ, কোথায় গিয়ে টিকা নিতে হবে, এখনও পর্যন্ত বিশদ তথ্য খোলসা করা হয়নি কেন্দ্রের তরফে।

এদিকে স্বাস্থ্য পরিকাঠামোয় উন্নয়নের জন্যও বিশেষ উদ্যোগের কথা জানানো হয়। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী বলেন, “বর্তমান প্রজন্মের অনেকেই চিকিৎসক হিসেবে সাধারণ মানুষকে পরিষেবা দিতে চান। সেই লক্ষ্যপূরণ করতেই বিভিন্ন হাসপাতালের পরিকাঠামোকে কাজে লাগিয়ে আরও মেডিক্যাল কলেজ তৈরির পরিকল্পনা রয়েছে।” শিশুদের স্বাস্থ্য খাতেও বিশেষ প্রকল্পের ভাবনা রয়েছে।

4 weeks ago


Hemant Soren: ইডির গ্রেফতারিকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে হেমন্ত সোরেন

প্রথমে রাঁচি হাইকোর্ট, তারপর সুপ্রিম কোর্ট। জমি কেলেঙ্কারি মামলায় ইডি গ্রেফতারিকে চ্যালেঞ্জ করে শীর্ষ আদালতে হেমন্ত সোরেনে। তাঁর হয়ে সওয়াল করবেন প্রবীণ আইনজীবী কপিল সিব্বল। জানা গিয়েছে, সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতির বেঞ্চ দোসরা ফেব্রুয়ারি অর্থাৎ শুক্রবার ঝাড়খণ্ডের সদ্যপ্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর আবেদন তালিকাভুক্ত করতে সম্মতি দিয়েছে। এদিকে, প্রাথমিক ভাবে রাঁচি হাইকোর্টে হেমন্ত সোরেন আবেদন করলেও পরে প্রত্যাহার করেন আইনজীবী কপিল সিব্বাল।

সূত্রের খবর, বুধবার সন্ধ্যায় গ্রেফতারির আগে হেমন্ত সোরেন ঘনিষ্ঠ মহলে বলেছিলেন, সম্ভবত ইডি আজ আমাকে গ্রেফতার করবে। তবে আমি চিন্তিত নই, কারণ আমি শিবু সোরেনের ছেলে। দিনভর জিজ্ঞাসাবাদের পরে তারা আমাকে গ্রেফতার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যে মামলার সঙ্গে আমার কোনও যোগসূত্র নেই। এখনও কোন প্রমাণ তারা হাতে পায়নি। আমার দিল্লির বাসভবনে অভিযান চালিয়ে আমার ভাবমূর্তি নষ্ট করার চেষ্টা হয়েছে। আমাদের এখন নতুন করে লড়াই করতে হবে যারা দরিদ্র, আদিবাসীদের উপর অত্যাচার করে তাদের বিরুদ্ধে। এমনকী, সামাজিক মাধ্যমে তাঁর তাৎপর্যপূর্ণ পোস্ট হার মানবো না।

এদিকে জেএমএম সূত্রে খবর, ঘোড়া কেনাবেচা আটকাতে শাসক জোটের বিধায়কদের হায়দরাবাদে স্থানান্তরের পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবারের মধ্যেই বিশেষ চার্টার্ড বিমানে তাঁদের হায়দরাবাদে পাঠানো হবে। বুধবার জেএমএম দাবি করে তাদের সঙ্গে ৪৭ জন বিধায়কের সমর্থন রয়েছে। সূত্রের খবর, মোট ৩৫ জন শাসক জোটের বিধায়ককে পাঠানো হবে নিজামের শহরে। হেমন্ত সোরেন ঘনিষ্ঠ কিছু বিধায়ক কেবল রাঁচিতে থাকতে পারেন বলেই খবর। বৃহস্পতিবার সকালেই আদালতে পেশ করা হয় ধৃত হেমন্ত সোরেনকে। ১০-১২ দিনের ইডি হেফাজতের আবেদন করতে পারে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা।

4 weeks ago
Budget 2024: বাজেটে হতাশ মধ্যবিত্তরা! অপরিবর্তিত আয়কর, কেন? ব্যাখ্যা দিলেন নির্মলা

লোকসভার আগে এটাই দ্বিতীয় মোদী সরকারের শেষ বাজেট। কিন্তু এই বাজেটে হতাশ মধ্যবিত্তরা। অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ বাজেটে পরোক্ষ বা প্রত্যক্ষ করের ক্ষেত্রে বড় কোনও ছাড় দিলেন না করদাতাদের। অর্থমন্ত্রী জানিয়ে দিলেন, আপাতত করকাঠামো অপরিবর্তিত থাকছে। তবে প্রত্যক্ষ কর ব্যবস্থায় সংস্কারে জোর দিয়ে একাধিক ঘোষণা করেন তিনি।

কেন আয়করে ছাড় দেওয়া হল না? নির্মলার ব্যাখ্যা, ‘‘ভোটের বছর বলেই এ বিষয়ে আমরা কোনও সিদ্ধান্ত ঘোষণা করলাম না।’’ তবে কর আদায়ের পদ্ধতিতে বেশ কিছু সংস্কার ঘোষণা করেছেন নির্মলা। তিনি জানিয়েছেন, করদাতাদের পরিষেবা সহজ করতে ডিসপিউটেড ট্যাক্স বা ট্যাক্স বিবাদের ছাড়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। ২০১০ পর্যন্ত যাঁদের এই ডিসপিউটেড ট্যাক্সের সমস্যা রয়েছে, তাঁদের ২৫ হাজার টাকা পর্যন্ত করে ছাড় দেওয়া হবে। ২০১০ সালের পরে ট্যাক্স বিবাদ থাকলে সেক্ষেত্রেও ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত ছাড় দেওয়া হবে। যা ১ কোটি করদাতাকে উপকৃত করবে।

প্রশাসনের প্রতি মানুষের আস্থার কথা তুলে ধরতে গিয়ে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ বলেছেন যে, ‘আমরা এমন প্রশাসন চাই যার উপরে মানুষের বিশ্বাস থাকবে। মানুষ আগের তুলনায় বেশি রোজগার করছেন। প্রকৃত আয় ৫০ শতাংশ বেড়েছে। মানুষ আগের তুলনায় ভাল রয়েছেন। গত ১০ বছরে মানুষ নিজেদের আশা আকাঙ্খা বেশি করে মেটাতে পারছেন।’'

যোগাযোগের উন্নতিতে সীতারমণ বাজেটে ঘোষণা করেছেন- তিনটি রেলওয়ে করিডর তৈরি হবে। শক্তি, খনিজ এবং সিমেন্ট করিডর হবে। এছাড়া বন্দরের সঙ্গে যোগাযোগের করিডর এবং ট্রাফিক ডেনসিটি করিডরও তৈরি হবে। এখন আমাদের ১৪৯টি বিমানবন্দর রয়েছে। ভারতীয় সংস্থারা এক হাজারেরও বেশি বিমানের অর্ডার দিয়েছে। আগামী দিনে আরও সস্তা হবে বিমান সফর। রেলের ৪০ হাজার সাধারণ বগি বন্দেভারত এক্সপ্রেসের মতো হবে। ট্রেনের গতি বাড়বে। মেট্রো রেলকে সব রকম সাহায্য করবে কেন্দ্রীয় সরকার। গোটা দেশের মেট্রো রেলের উন্নয়ন হবে।

দেশের ১ কোটি পরিবার প্রতি মাসে ৩০০ ইউনিট করে সৌর বিদ্যুৎ বিনামূল্যে পাবে বলেও বাজেটে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী।

4 weeks ago


Budget 2024: আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পে চিকিৎসা পাবেন অঙ্গনওয়াড়ি ও আশাকর্মীরা, বাজেটে বড় ঘোষণা নির্মলার

বৃহস্পতিবার সংসদে অন্তর্বর্তীকালীন বাজেট পেশের সময় বড়সড় ঘোষণা অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণের। এবার আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পের আওতায় চিকিৎসা পরিষেবা পাবেন অঙ্গনওয়াড়ি এবং আশাকর্মীরা। তার ফলে বিপুল সংখ্যক মানুষ উপকৃত হবেন বলেই আশা করা হচ্ছে।

অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ এদিন ঘোষণা করলেন, মধ্যবিত্তদের জন্য এবার নতুন আবাস যোজনা চালু করা হবে। সেই সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা গ্রামীণ প্রকল্পের সাফল্যও তুলে ধরেন তিনি। অর্থমন্ত্রী বলেন, "করোনাকালে কঠিন চ্যালেঞ্জের মোকাবিলা করতে হলেও পিএম আবাস যোজনার কাজ চলেছে। আমরা প্রায় ৩ কোটি বাড়ি তৈরির লক্ষ্যমাত্রায় পৌঁছে গিয়েছি। আগামী পাঁচ বছরে ওই প্রকল্পে আরও ২ কোটি বাড়ি বানানোর টার্গেট নিয়েছি আমরা। একই সঙ্গে নির্মলার ঘোষণা, দেশের এক কোটি বাড়ির ছাদে সৌরশক্তি প্রকল্প বসানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। অযোধ্যার রামমন্দির উদ্বোধনের পবিত্র দিনে এই ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী। এমনকী ৩০০ ইউনিট পর্যন্ত বিদ্যুৎ বিনামূল্যে দেওয়া হবে।"

গরীব, মহিলা, যুব সমাজ ও অন্নদাতা (কৃষক), সমাজের এই চার স্তরের মানুষের উন্নতিতে বদ্ধপরিকর সরকার। কারণ, এদের উন্নতি না হলে কোনও সরকার এগোতে পারে না। অন্তর্বর্তীকালীন বাজেটে বললেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। নির্মলার দাবি, গত ১০ বছরে সাধারণ নাগরিকদের আয় বেড়েছে প্রায় ৫০ শতাংশ।

নতুন কর কাঠামো অনুযায়ী, ৭ লাখ টাকা পর্যন্ত দিতে হবে না কোনও কর। গত ১০ বছরে প্রত্যক্ষ কর আদায়ের পরিমাণ বেড়েছে। বাজেট ভাষণে বললেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। অর্থাৎ কর কাঠামো অপরিবর্তিত রেখেছেন তিনি।

4 weeks ago
Interim Budget: মোদীর মহাবাজেট! নতুন সংসদে বাজেট পেশ নির্মলার, সম্প্রসারণের বার্তা বাজেটে

আজ প্রথমবার নতুন সংসদ ভবনে বাজেট পেশ করছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। আসন্ন লোকসভা ভোটের আগে এবার কেন্দ্রীয় সরকারের অন্তর্বর্তী বাজেট। সূত্রের খবর, এবারের বাজেট তৈরি হয়েছে মূলত দেশের গরীব ও প্রান্তিক মানুষের কথা ভেবে। বাজেটে মহিলাদের এবং কৃষক সমাজের উন্নয়নের জন্য রয়েছে একাধিক পরিকল্পনা।

বিগত ১০ বছরে প্রায় ২৫ কোটি দেশবাসীকে বিভিন্ন রকম সুবিধা প্রদান করেছে মোদী সরকার। প্রায় চার কোটি কৃষককে কৃষাণ বীমা যোজনা আওতায় সুবিধা দেওয়া হয়েছে। এদিন বাজেট পেশের সময় সীতারমণ বলেন, ১১.৮ কোটি কৃষককে প্রধানমন্ত্রী কৃষক যোজনার সুবিধা দেওয়া হয়েছে। ৩০ কোটি মুদ্রা লোন মহিলা স্বনির্ভরতার জন্য দেওয়া হয়েছে। মহিলাদের অভূতপূর্ব উত্থান ঘটেছে। সংসদ থেকে বিধানসভায় মহিলাদের উপস্থিতি বেড়েছে। ২৫ কোটি মানুষ দারিদ্র সীমার উপরে উঠে এসেছে। ৩৯০টি বিশ্ববিধ্যালয় তৈরি হয়েছে। মোদী সরকারের মূল মন্ত্র, 'রিফর্ম,পারফর্ম এবং ট্রান্সফর্ম।' একাধিক শহরে মেট্রোরেল সম্প্রসারণ। ৫ বছরে আরও ২ কোটি বাড়ির ভাবনা। ৮০ কোটি মানুষকে বিনামূল্যে রেশন প্রদান করা হয়েছে।

4 weeks ago
Hemant Soren: জমি দুর্নীতি মামলায় ইডির হাতে গ্রেফতার ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেন

জমি কেলেঙ্কারিতে অর্থ তছরূপের মামলায় ইডির হাতে গ্রেফতার ঝাড়খণ্ডের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেন। ইন্ডিয়া জোট গঠনের পর এই প্রথম বিরোধী দলের কোনও মুখ্যমন্ত্রী দুর্নীতির দায়ে গ্রেফতার হলেন। হেমন্তের গ্রেফতারি নিয়ে শুরু রাজনৈতিক তরজা। বৃহস্পতিবার সকালে তাঁকে আদালতে তোলার সম্ভাবনা রয়েছে। 

বুধবার এই মামলায় টানা সাত ঘন্টা ধরে হেমন্তকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন ইডির আধিকারিকরা। তারপর বুধবার রাত সাড়ে ন'টার পর জমি দুর্নীতি মামলায় গ্রেফতার হন ঝাড়খণ্ডের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেন। তাঁকে গ্রেফতার করে ইডি দফতরে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপরেই প্রাথমিকভাবে তাঁকে হেফাজতে নেওয়া হয় বলে এএনআই সূ্ত্রে খবর। 

প্রসঙ্গত চলতি সপ্তাহেই জমি কেলেঙ্কারিতে অর্থ তছরূপের মামলায় হেমন্তকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে তাঁর দিল্লির বাড়িতে গিয়েছিলেন ইডির আধিকারিকরা। সেখানে ১৩ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে তল্লাশি চালান ইডি আধিকারিকেরা। কিন্তু হেমন্ত সোরেনের দেখা পাননি তাঁরা। সেখান থেকে তাঁর দুটি গাড়ি বাজেয়াপ্ত করা হয়। এর মধ্যে একটি বিএমডব্লিউ (BMW) গাড়িও ছিল। সেই গাড়িটি একটি বেসরকারি কোম্পানির নামে। জানা গিয়েছে, ওই কোম্পানির মালিক অনীশ আগরওয়াল নামে এক ব্যক্তি। 

অনীশ আগরওয়ালের সঙ্গে তাঁর সম্পর্কও নিয়ে বুধাবার হেমন্ত সোরেনকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন ইডির আধিকারিকরা বলে সূত্রের খবর।  একদিকে, ইডির আধিকারিকরা যখন হেমন্ত সোরেনকে জিজ্ঞাসাবাদ করছিলেন, তখন অন্যদিকে পাল্টা ইডির আধিকারিকদের বিরুদ্ধে এসসি/এসটি ধারায় মামলা দায়ের করেন ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী। বিষয়টি নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক তরজা। 

4 weeks ago


Nitish Kumar: ৫ বছরের মেয়াদে তৃতীয়বার মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নীতীশ কুমারের, শপথ ২ উপমুখ্যমন্ত্রীরও

৫ বছরের মেয়াদে তৃতীয়বার মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নিলেন নীতীশ কুমার। রবিবার বিকেল ৫টায় হবে শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান। এবার তাঁর সঙ্গে শপথ নিলেন দুই উপমুখ্যমন্ত্রীও। ২ জনেই বিজেপির বিধায়ক। সম্রাট চৌধুরী এবং বিজয় সিনহা এবার উপমুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নিলেন। শপথ অনুষ্ঠানে উপস্থিত জেপি নাড্ডা।

লোকসভা নির্বাচনের আগে বড় ধাক্কা ইন্ডিয়া ব্লকে। নীতীশ কুমারের শিবির ত্যাগে শুধু ইন্ডিয়া ব্লক নয়, বিহারে মহাজোট ভেঙে দিয়েছে। রবিবার সকালে পটনায় রাজভবনে রাজ্যপাল রাজেন্দ্র আরলেকারের কাছে পদত্যাগ পত্র জমা দেন জেডিইউ সুপ্রিমো। নীতীশ কুমারের এই শিবির ত্যাগে কংগ্রেসও কার্যত দিশেহারা।

এদিন কংগ্রেসের নেতারা এতটাই ক্ষুব্ধ যে, তারা নীতীশ কুমারকে গিরগিটির সঙ্গে তুলনা করে বলেছেন, জনগণ তাঁকে কখনই ক্ষমা করবে না। কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক জয়রাম রমেশ নিজের এক্স হ্যান্ডেলে নীতীশ কুমারকে বিশ্বাসঘাতকদের বিশেষজ্ঞ বলে বর্ণনা করেছেন। তিনি বলেছেন, এই বিশেষজ্ঞ এবং যারা তাদের নাচিয়েছে, তাদেরকে জনগণ ক্ষমা করবে না। কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক আরও বলেছেন, এটা স্পষ্ট যে প্রধানমন্ত্রকী ও বিজেপি ভারত জোড়ো ন্যায় যাত্রাকে বয় পাচ্ছেন। সেখান থেকে দৃষ্টি সরাতে এই রাজনৈতিক নাটক বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি।

সর্বসাকুল্যে এই নিয়ে নবমবার বিহারের মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ েনবেন নীতীশ কুমার। প্রতিবারই কোনও না কোনও কৌশলে পাল্টি খেয়ে নিজের মুখ্যমন্ত্রীর পদটি ঠিক বাঁচিয়ে গিয়েছেন নীতীশ। কখনও বিজেপির হাত ধরে তো কখনও আরজেডির হাত ধরে। দাবার চালের মতো চাল চেলেই নিজে গদি রক্ষা করেছেন জেডিইউ সুপ্রিমো।

২০০০ সাল থেকে বিহারের মুখ্যমন্ত্রী পদে রয়েছেন নীতীশ কুমার। কখনও বিজেপির সমর্থনে তো কখনও আরজেডির সমর্থনে। ২০১০ সাল পর্যন্ত বিজেপির সমর্থন নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী পদে থেকেছেন নীতীশ কুমার। ২০১৫ সালে ২ বার মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নেন আরজেডির সমর্থনে। ২০১৭ এবং ২০২০ তে আবার বিজেপির সমর্থন নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী পদে বসেন তিনি। ২০২২ সালে আবার আরজেডির সমর্থনে মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ। তারপরে আবার ২০২৪ সালে বিজেপির সমর্থন নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নিতে চলেছেন তিনি। যদিও ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোর দাবি করেছেন বিজেপির সঙ্গে নীতীশের এই জোট স্থায়ী হবে না। ২০২৪-র লোকসভা ভোট আসতে আসতে তিনি আবার বিজেপির সঙ্গ ছেড়ে আরজেডিতে যোগ দেবেন। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য একটা সময়ে জেডিইউতে যোগ দিয়েছিলেন প্রশান্ত কিশোর। কিন্তু নীতীশের সঙ্গে মনোমালিন্যার জেরে তিনি জেডিইউ ছেড়ে বেরিয়ে আসেন।

a month ago
PM Modi: 'রামরাজ্য থেকেই অনুপ্রাণিত ভারতের সংবিধান!', বছরের প্রথম 'মন কি বাত' অনুষ্ঠানে বার্তা মোদীর

এ বছরের প্রথম মন কি বাত অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। মন কি বাতের ১০৯তম পর্বে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে উঠে এসেছে একাধিক প্রসঙ্গ। অযোধ্যার রাম মন্দির, প্রজাতন্ত্র দিবস থেকে শুরু করে বোর্ড পরীক্ষা বা আসন্ন লোকসভা নির্বাচন এবং  শ্রীরামের প্রসঙ্গ তুললেন প্রধানমন্ত্রী মোদী।

তিনি বলেছেন, ভারতীয় সংবিধান রচিত হয়েছে শ্রীরামের অনুপ্রেরণাতেই। অর্থাৎ রাম রাজ্যই অনুপ্রেরণা দিয়েছে দেশের সংবিধান তৈরি করতে। ভারতীয় সংবিধানের তৃতীয় পরিচ্ছদে রয়েছে দেশের নাগরিকদের মৌলিক অধিকারের কথা। আর সেখানেই সংবিধান রচয়িতারা শ্রীরাম, মাতা সীতা এবং লক্ষ্মণজীকে সংযুক্ত করেছেন। কাজেই ভারতীয় সংবিধানের আধারই শ্রীরাম। এমনই মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী মোদী।

প্রসঙ্গত, কয়েকদিন আগেই অযোধ্যার রাম মন্দিরে রামলালার প্রাণ প্রতিষ্ঠা করেছেন তিনি। ৫৫০ বছর পর রামলালার প্রাণ প্রতিষ্ঠা হল অযোধ্যায়। সেই ঐতিহাসিক দিনে প্রায় ৭০০০ অতিথি সমাগম হয়েছিল অযোধ্যায়। তার পরের দিন সাধারণের জন্য মন্দিরের দরজা খুলে দেওয়া হয় তাতে রেকর্ড সংখ্যক ভিড় দেখা গিয়েছিল রাম মন্দিরে। এক দিনে প্রায় ৫ লক্ষ ভক্ত সমাগম ঘটেছিল সেখানে। যা ভ্যাটিকান সিিট থেকে মক্কা শরিফ সব তীর্থস্থানের বার্ষিক পুণ্যার্থী সমাগমকে ছাপিয়ে গিয়েছিল। রাম লালার দর্শনে এখনও দিনে তিন থেকে সাড়ে তিন লক্ষ পুণ্যার্থীর সমাগম হয়েছে।

a month ago