সাত সকালেই তরুণীর বস্তাবন্দি দেহ একবালপুরে

0

বৃহস্পতিবার সাত সকালেই এক তরুণীর বস্তাবন্দি দেহ উদ্ধার খাস কলকাতায়। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে একবালপুল থানা এলাকার এমএম আলি রোডে। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, সকালে কাগজ কুড়োতে গিয়ে একজন খেয়াল করেন একটি ভারী সিমেন্টের বস্তা। সন্দেহ হওয়ায় তিনি কয়েকজনকে সেটি দেখান।

বস্তার মুখ খুলতেই সকলে হকচকিয়ে যান। এক তরুণীর মৃতদেহ দেখতে পেয়েই এলাকার মানুষজন খবর দেন একবালপুর থানায়। পুলিশ এসে দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠায়। পুলিশ সূত্রে জানা যাচ্ছে, ওই তরুণীর নাম সাবা খাতুন ওয়াটগঞ্জে দিদিমার কাছে থাকত সে। যদিও বেশ কিছুদিন ধরে রেশমা নামে এক বান্ধবীর সঙ্গে থাকতে শুরু করেছিলেন সাবা। জানা গিয়েছে রেশমা মাদক্তাসক্ত। মৃতার গলায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। সাবার পরিবারের দাবি, বুধবার রাতে তাঁর মোবাইলে একটি কল আসতেই বেরিয়ে যায় সে। এরপর আর তাঁর খোঁজ পাওয়া যায়নি, মোবাইল ফোনও বন্ধ ছিল। বৃহস্পতিবার সকালেই মিলল বস্তাবন্দি দেহ।

সাবার মোবাইল ফোনের হদিশ এখনও পায়নি পুলিশ। তবে পুলিশের চিন্তায় ঘুরপাক খাচ্ছে কে বা কারা এই ব্যস্ত রাস্তায় বস্তাবন্দি দেহটি ফেলে গেল? পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, প্রণয়ঘটিত কারণ বা ব্যক্তিগত শত্রুতার কারণেই খুন হতে পারেন সাবা খাতুন। দেহটি ময়নাতদন্তে পাঠিয়ে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। এলাকার সিসিটিভি ফুটেজও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।