Durga Puja 2021: পুজোয় কি হবে বৃষ্টি ? এক নজরে দেখে নিন আবহাওয়ার গতিবিধি

কলকাতাঃ অষ্টমীর সকাল ।একদিকে মানুষ ভাসছে আনন্দের জোয়ারে আর অন্যদিকে আকাশের মুখ ভার। সকাল থেকেই আকাশ মেঘাচ্ছন্ন। বৃষ্টি হবে কি হবে না, ইতিমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর। পূর্ব-মধ্য আরব সাগরের একটি ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হয়েছে। আরেকটি ঘূর্ণাবর্ত রয়েছে তামিলনাড়ু উপকূলে। আরো একটি ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হয়েছে উত্তর আন্দামান সাগরে। এই ত্রিফলা ঘূর্ণাবর্তের জেরে, দেশের বিভিন্ন উপকূলবর্তী এলাকায় নিম্নচাপের সৃষ্টি হয়েছে। 

যদিও এই ঘূর্ণাবর্তের প্রভাব পশ্চিমবঙ্গ সহ গাঙ্গেয় উপকূলে খুব একটা পড়বে না বলেই মত আবহাওয়া দপ্তরের। তা সত্ত্বেও তিনটি ঘূর্ণাবর্তের জেরে সৃষ্টি হওয়া একাধিক নিম্নচাপ পশ্চিম ও উত্তর পশ্চিম দিকে সরে যাচ্ছে। তারফলে দক্ষিণ উড়িষ্যা ও অন্ধ্র প্রদেশ উপকূলে নিম্নচাপ সৃষ্টি করবে ,সে কথাও জানানো হয়েছে আবহাওয়া দপ্তর থেকে। নিম্নচাপের সম্পূর্ণ প্রভাব পশ্চিমবঙ্গ সহ গাঙ্গেয় উপকূলে না পড়লেও সামান্য প্রভাব পড়তে পারে।

কলকাতার আবহাওয়া 

অষ্টমীর সকালে কলকাতায় আংশিক মেঘলা আকাশ থাকবে। বেলার দিকে বজ্র -বিদ্যুৎ-সহ সামান্য বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৭.৪ ডিগ্রী। বাতাসে জলীয়বাষ্পের সর্বোচ্চ পরিমাণ ৯৭ শতাংশ। বাতাসের আপেক্ষিক আদ্রতা থাকায় তাপমাত্রা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে অস্বস্তিও বাড়তে পারে।

অষ্টমীর দিন বাংলার আবহাওয়া 

দক্ষিণবঙ্গের উপকূলের জেলাগুলিতে বৃষ্টিপাত হতে পারে। কলকাতা ,হাওড়া, হুগলি, নদীয়া ,পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলায় সামান্য বৃষ্টিপাত হতে পারে, কোথাও কোথাও বজ্রবিদ্যুৎ সহ দু-এক পশলা বৃষ্টির সম্ভাবনা, বাকি জেলাগুলিতে বৃষ্টিপাত না হওয়ার সম্ভাবনা বেশি।

আগামীকাল বৃহস্পতিবার নবমীর দিন বাংলার আবহাওয়া 

দক্ষিণবঙ্গের উপকূলবর্তী এলাকাগুলিতে বৃষ্টির  কিছুটা বৃদ্ধি পেতে পারে কলকাতা, হাওড়া, হুগলি পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুরে। এছাড়া উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষিপ্ত বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা। এই সকল জেলাগুলির বিভিন্ন জায়গায় বজ্রবিদ্যুৎ সহ  হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। অন্যান্য জেলাগুলির আবহাওয়া কিছুটা পরিষ্কার থাকবে। বৃষ্টিপাত হলেও তার পরিমাণ কম।

শুক্রবার অর্থাৎ দশমীতে বাংলার আবহাওয়া 

দক্ষিণবঙ্গ জুড়ে দিন পর দফায় দফায় হালকা মাঝারি বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে কলকাতা, হাওড়া, হুগলি ,পূর্ব পশ্চিম মেদিনীপুর, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার বেশিরভাগ এলাকায় হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। উত্তরবঙ্গের মালদা ও দিনাজপুরেও বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বিক্ষিপ্তভাবে হালকা বৃষ্টিপাত হতে পারে।

বর্ষা কবে বিদায় নেবে 

ইতিমধ্যে দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে বর্ষা বিদায় নেওয়ার জন্য তোড়জোড় শুরু করেছে। অনেক জায়গাতেই বিদায় নেওয়ার আগে শেষ দফার বৃষ্টিপাত হচ্ছে। বর্ষার বিদায় রেখা নাগাল্যান্ডের কোহিমা থেকে আসামের শিলচর হয়ে বাংলার কৃষ্ণনগরের উপর দিয়ে উড়িষ্যার বারিপদা হয়ে ঔরঙ্গবাদ পর্যন্ত বিস্তৃত। আগামী চার দিনের মধ্যে তেলেঙ্গানা, মিজোরাম, ত্রিপুরা, কর্ণাটক ও মহারাষ্ট্রের বিভিন্ন অংশ থেকে বর্ষা বিদায় নেবে। 

ইতিমধ্যেই বর্ষা বিদায় নিয়েছে গুজরাট, মধ্যপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র ,ছত্রিশগড়, আসাম, সিকিম ,মেঘালয়, অরুণাচল প্রদেশ,নাগাল্যান্ড,মণিপুর থেকে। আগামী কিছুদিনের মধ্যেই পশ্চিমবঙ্গ থেকে বর্ষার বিদায় নেওয়ার সম্ভাবনা প্রবল।


Corona Update: পুজোয় রাজ্যে বেড়েই চলেছে করোনা সংক্রমণের হার

কলকাতাঃ পুজোয় সামান্য কমল দৈনিক সংক্রমণ। তবে চিন্তা বাড়াচ্ছে রাজ্যের পজিটিভিটি রেট বা করোনা সংক্রমণের হার।  

রবিবার সন্ধের স্বাস্থ্য দফতরের রিপোর্ট বলছে, রাজ্যে একদিনে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৭৬০ জন। গতকালের তুলনায় কম। গতকাল ছিল ৭৭৬ জন। সব মিলিয়ে রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১৫ লক্ষ ৭৬ হাজার ৩৩৭ জন। 

বাংলায় একদিনে মৃত্যু হয়েছে ১১ জনের। গতকাল এই সংখ্যাটা ছিল মাত্র ১২ জনে। সব মিলিয়ে রাজ্যে মোট মৃতের সংখ্যা ১৮ হাজার ৯০৫ জন। কিন্তু গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাকে হারিয়ে সুস্থ হয়েছেন ৭৩৪ জন। মোট সুস্থতার সংখ্যা ১৫ লক্ষ ৪৯ হাজার ৭৮৩ জন। সুস্থতার হার যা ছিল তাই অর্থাৎ ৯৮.৩২ শতাংশ। 

এছাড়া এদিন রাজ্যে ফের বেড়েছে করোনা অ্যাক্টিভ কেস। সংখ্যাটা ৭ হাজার ৬৪৯। একদিনে বেড়েছে ১৫ জন। 

গত ২৪ ঘন্টায় করোনা টেস্ট হয়েছে মাত্র ৩৫ হাজার ৩৯৮ টি। শনিবারের তুলনায় কম। রাজ্যের পজিটিভিটি রেট বা সংক্রমণের হার বেড়ে ২.১৫ শতাংশ। গতকাল ছিল ২.১৩ শতাংশ। 


Weather- পুজোয় সুখবর,কলকাতায় বৃষ্টির সম্ভাবনা কম~জানাল আবহাওয়া দফতর

কলকাতাঃ পুজোয় সুখবর দিল আবহাওয়া দফতর। পুজোর মধ্যে শহরে বৃষ্টির সম্ভাবনা কম। কারণ উত্তর আন্দামান সাগরে যে নিম্নচাপ তৈরির সম্ভাবনা,সেটি ওডিশা ও অন্ধ্র উপকূলের দিকে সরে যাবে। 

যদিও এর আগে আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানিয়েছিল, অষ্টমী থেকে দশমী পর্যন্ত টানা বৃষ্টি হতে পারে। তারফলে  মনখারাপ হয়ে গিয়েছিল উৎসবপ্রেমী বাঙালির। 

বিস্তারিত আসছে --


ByElection: রাজ্যের চার উপনির্বাচনে তিনটি-তে এগিয়ে তৃণমূল ! কেন ?

কলকাতাঃ আগামী ৩০ অক্টোবর রাজ্যের চারটি বিধানসভার উপ-নির্বাচন। ওই নির্বাচনে কোন দল কোন আসন দখল করবে,তা নিয়ে শুরু হয়েছে চুলচেরা বিশ্লেষণ। 

আসন্ন উপনির্বাচনে রাজনৈতিক মহলের ধারনা,রাজ্যের চার উপনির্বাচনে তিনটি-তে এগিয়ে থাকছে তৃণমূল। এই কেন্দ্রগুলো হল কোচবিহারের দিনহাটা,উত্তর ২৪ পরগনার খড়দহ ও দক্ষিণ ২৪ পরগনার গোসাবা। 

বাকি থাকল নদিয়ার শান্তিপুর। এই কেন্দ্রে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে। কেন এমনটা মনে করছেন রাজনৈতিক মহল। শান্তিপুর এক সময় কংগ্রেস এর শক্ত ঘাটি ছিল। 

এখনও পর্যন্ত শান্তিপুরে কংগ্রেস কোনও প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেনি। যদিও এখনও সময় আছে। চার কেন্দ্রে মনোনয়ন জমা দেওয়ার শেষ দিন ৮ অক্টোবর। মনোনয়ন স্ক্রুটিনি করে দেখার শেষ দিন ১১ অক্টোবর। মনোনয়ন প্রত্যাহার করার শেষ দিন ১৬ অক্টোবর।

জানা গিয়েছে,শান্তিপুর বিধানসভায় মোট ভোটার ২ লক্ষ ৫৫ হাজারের বেশি। এদের মধ্যে প্রায় ৪৫ হাজার সংখ্যালঘু ভোটার রয়েছে। হিসেব বলছে,এই সংখ্যালঘু ভোটের সিংহভাগ যদি বামেদের ঝুলিতে যায়। অন্যদিকে হিন্দু ভোট যদি ভাগাভাগি হয়,তাহলে এই সম্প্রদায়ের একটা বড় অংশ বিজেপিকে ভোট দিতে পারে। সেই হিসেবে বিজেপি প্রার্থীকে কিছুটা এগিয়ে রাখছে রাজনৈতিক মহল। 

এছাড়া এই কেন্দ্রে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্ধ রয়েছে বলে অভিযোগ। তাছাড়া তৃণমূলের প্রার্থী ব্রজকিশোর গোস্বামীকে অপছন্দ দলের একটা অংশের।  

খড়দহে তৃণমূলের শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়ের প্রতিদ্বন্দ্বী জয় সাহা। দিনহাটায় পদ্ম-প্রতীকে লড়বেন অশোক মণ্ডল। শান্তিপুরের প্রার্থী নিরঞ্জন বিশ্বাস। গোসাবায় বিজেপির মুখ পলাশ রানা। দিনহাটায় তৃণমূলের প্রার্থী উদয়ন গুহ, বামেদের মুখ ফরওয়ার্ড ব্লকের আব্দুর রউফ। খড়দহে সিপিএম প্রার্থী দেবজ্যোতি দাস। শান্তিপুরে তৃণমূলের প্রার্থী ব্রজকিশোর গোস্বামী, গোসাবায় সুব্রত মণ্ডল। অন্যদিকে এই দুই কেন্দ্রে বামেদের হয়ে লড়বে সিপিএমের সৌমেন মাহাতো এবং আরএসপির অনিল চন্দ্র মণ্ডল।


Corona Update: রাজ্যে সামান্য কমল দৈনিক সংক্রমণ

কলকাতাঃ পুজোয় সামান্য কমল দৈনিক সংক্রমণ। তবে চিন্তা বাড়ছে কলকাতা ও উত্তর ২৪ পরগণা নিয়ে।  

বৃহস্পতিবার সন্ধের স্বাস্থ্য দফতরের রিপোর্ট বলছে, রাজ্যে একদিনে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৭৭১ জন। গতকালের তুলনায় সামান্য কমেছে। গতকাল ছিল ৭৮৬ জন। সব মিলিয়ে রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১৫ লক্ষ ৭৪ হাজার ১৭ জন। 

বাংলায় একদিনে মৃত্যু হয়েছে ১৩ জনের। গতকাল এই সংখ্যাটা ছিল ১৫ জনে। সব মিলিয়ে রাজ্যে মোট মৃতের সংখ্যা ১৮ হাজার ৮৭৬ জন। কিন্তু গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাকে হারিয়ে সুস্থ হয়েছেন ৭৫৬ জন। মোট সুস্থতার সংখ্যা ১৫ লক্ষ ৪৭ হাজার ৫৪৮ জন। সুস্থতার হার যা ছিল তাই অর্থাৎ ৯৮.৩২ শতাংশ। 

এছাড়া এদিন রাজ্যে ফের বেড়েছে করোনা অ্যাক্টিভ কেস। সংখ্যাটা ৭ হাজার ৫৯৩। একদিনে বেড়েছে মাত্র ২ জন। 

গত ২৪ ঘন্টায় করোনা টেস্ট হয়েছে মাত্র ৩৫ হাজার ১৩৮ টি। সোমবারের তুলনায় সামান্য কম। রাজ্যের পজিটিভিটি রেট বা সংক্রমণের হার বেড়ে ২.১৯ শতাংশ। গতকাল ছিল ২.১২ শতাংশ। 


Mamata Banerjee: বিধায়ক হিসেবে শপথ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়-সহ তিন বিধায়কের

কলকাতাঃ ভবানীপুর উপনির্বাচনে বিপুল ভোটে জয়ী হন মুখ্যমন্ত্রী  মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শপথবাক্য পাঠ কোথায় হবে,তা নিয়ে রাজ্য-রাজ্যপালের মধ্যে দড়ি টানাটানি। অবশেষে আজ বৃহস্পতিবার বিধানসভায় এসে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়-সহ তিন বিধায়কে শপথবাক্য পাঠ করান রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। 

শপথ গ্রহন অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার জন্য রাজ্যের সমস্ত বিধায়ক এবং সাংসদদের আমন্ত্রণ জানানো হয়। কিন্তু এই শপথে অংশ নেয়নি বিজেপি বিধায়করা। 

উল্লেখ্য, ভবানীপুরে প্রতিপক্ষকে হারিয়ে জয়ী হন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পেয়েছেন ৫৮,৮৩৫ ভোট। বিজেপি প্রার্থী প্রিয়াঙ্কা টিব্রেওয়ালের প্রাপ্ত ভোট ২৪ হাজার ৩৯৬টি ভোট।

পাশাপাশি ৯২ হাজার ৬১৩ ভোটে জয়ী হন জঙ্গিপুর বিধানসভার তৃণমূল প্রার্থী জাকির হোসেন। তাঁর প্রাপ্ত ভোট- ৯৬১২০, বিজেপি প্রার্থী মিলন ঘোষ পেয়েছেন ১০৭৭৭, কংগ্রেসের জইদুর রহমান ৭০০০৯, সিপিআইএমের মোদাসসর হোসেন পেয়েছেন ৬১৪৫।


Corona update: পুজোর মুখে রাজ্যে ফের বাড়ল দৈনিক সংক্রমণ ও মৃত্যু

কলকাতাঃ রাজ্যে ফের বাড়ল করোনায় দৈনিক সংক্রমণ। পাশাপাশি গত ২৪ ঘন্টায় বেড়েছে মৃতের সংখ্যা। 

বুধবার সন্ধের স্বাস্থ্য দফতরের রিপোর্ট বলছে, রাজ্যে একদিনে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৭৮৬ জন। গতকালের তুলনায় বেড়েছে। গতকাল ছিল ৬১৯ জন। সব মিলিয়ে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১৫ লক্ষ ৭৩ হাজার ২৪৬ জন। 

বাংলায় একদিনে মৃত্যু হয়েছে ১৫ জনের। গতকাল এই সংখ্যাটা ছিল ১১ জনে। সব মিলিয়ে রাজ্যে মোট মৃতের সংখ্যা ১৮ হাজার ৮৬৩ জন। কিন্তু গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাকে হারিয়ে সুস্থ হয়েছেন ৭৫৫ জন। মোট সংখ্যা ১৫ লক্ষ ৪৬ হাজার ৭৯২ জন। সুস্থতার হার যা ছিল তাই অর্থাৎ ৯৮.৩২ শতাংশ। 

এছাড়া এদিন রাজ্যে ফের বেড়েছে করোনা অ্যাক্টিভ কেস। সংখ্যাটা ৭ হাজার ৫৯১। একদিনে বেড়েছে ১৬ জন। 

গত ২৪ ঘন্টায় করোনা টেস্ট হয়েছে মাত্র ৩৭ হাজার ১১৩ টি। সোমবারের তুলনায় বেশি। রাজ্যের পজিটিভিটি রেট বা সংক্রমণের হার বেড়ে ২.১২ শতাংশ। গতকাল ছিল ১.৭৫ শতাংশ। 


LPG price: মহালয়াতে আরও মহার্ঘ রান্নার গ্যাস, ফের বাড়ল দাম

কলকাতাঃ পুজোর মুখে ফের বাড়ল রান্নার গ্যাসের দাম। ১৫ টাকা বেড়ে কলকাতায় আজ থেকে ১৪.২ কেজি এলপিজি-র দাম হল ৯২৬ টাকা। তবে সামান্য কমেছে বাণিজ্যিক সিলিন্ডারের দাম। 

মাত্র আড়াই টাকা কমে কলকাতায় ১৯ কেজির বাণিজ্যিক রান্নার গ্যাসের সিলিন্ডারের দাম হল ১ হাজার ৮০৩ টাকা। 

বিস্তারিত আসছে -


Corona update: রাজ্যে কমেছে দৈনিক সংক্রমণ ও মৃত্যু

কলকাতাঃ রাজ্যে কমল করোনায় দৈনিক সংক্রমণ। পাশাপাশি গত ২৪ ঘন্টায় কমেছে দৈনিক মৃতের সংখ্যা। 

মঙ্গলবার সন্ধের স্বাস্থ্য দফতরের রিপোর্ট বলছে, রাজ্যে একদিনে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৬১৯ জন। গতকালের তুলনায় সামান্য বেড়েছে। গতকাল ছিল ৬০১ জন। সব মিলিয়ে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১৫ লক্ষ ৭২ হাজার ৪৬০ জন। 

বাংলায় একদিনে মৃত্যু হয়েছে ১১ জনের। গতকাল এই সংখ্যাটা ছিল ১২ জন। মোট মৃতের সংখ্যা ১৮ হাজার ৮৪৮ জন। কিন্তু গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাকে হারিয়ে সুস্থ হয়েছেন ৬৩৭ জন। মোট সংখ্যা ১৫ লক্ষ ৪৬ হাজার ৩৭ জন। সুস্থতার হার ৯৮.৩২ শতাংশ। 

তবে এদিন রাজ্যে ফের কমল করোনা অ্যাক্টিভ কেস। সংখ্যাটা ৭ হাজার ৫৭৫। একদিনে কমেছে ২৯ জন। 

গত ২৪ ঘন্টায় করোনা টেস্ট হয়েছে মাত্র ৩৫ হাজার ৩৩৬ টি। সোমবারের তুলনায় বেশি। রাজ্যের পজিটিভিটি রেট বা সংক্রমণের হার কমে ১.৭৫ শতাংশ। সোমবার ছিল ২.২৭ শতাংশ। 


Exclusive: বৃহস্পতিবার আদালতে হাজিরা দেবো,জানালেন সুব্রত মুখোপাধ্যায়

কলকাতাঃ রাজ্যের পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়। তার বিরুদ্ধে জারি হয়েছে গ্রেফতারি পরোয়ানা। আগামী ১৬ অক্টোবর এর মধ্যে আদালতে আত্মসমর্পণ করতে নির্দেশ দিয়েছে আদালত। 

এই বিষয় সিএন পোর্টাল টেলিফোনে সুব্রত বাবুর সঙ্গে যোগাযোগ করলে, তিনি জানালেন, এখনও অর্ডার কপি হাতে পাইনি। হাতে পেলে আগামী বৃহস্পতিবার আদালতে হাজিরা দিয়ে জামিনের আবেদন করবো। 

বিস্তারিত আসছে --


By-election: রাজ্যের ৪ আসনে প্রার্থী ঘোষণা করল বামফ্রন্ট

কলকাতাঃ পশ্চিমবঙ্গে আগামী ৩০ অক্টোবর ৪ কেন্দ্রে উপনির্বাচন হবে। ওই সব কেন্দ্রে প্রার্থী ঘোষণা করল বামফ্রন্ট। 

কোচবিহারের দিনহাটায় ফরওয়ার্ড ব্লক প্রার্থী আব্দুর রউফ। উত্তর ২৪ পরগনার খড়দায় দেবজ্যোতি দাস। দক্ষিণ ২৪ পরগনার গোসাবায় আরএসপি-র প্রার্থী অনিলচন্দ্র মণ্ডল। নদিয়ার শান্তিপুরে সিপিএম প্রার্থী সৌমেন মাহাত। 

এদিকে রাজ্যে সদ্য সমাপ্ত নির্বাচনে গো হারা হেরেছে বাম প্রার্থীরা। অন্যদিকে উপনির্বাচনে প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শান্তিপুরে তৃণমূলের হয়ে লড়বেন ব্রজকিশোর গোস্বামী। উদয়ন গুহ লড়বেন দিনহাটা থেকে। খড়দা থেকে লড়বেন শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়। গোসাবা উপনির্বাচনে তৃণমূলের প্রার্থী সুব্রত মণ্ডল। 

দুর্গাপুজোর পর, রাজ্যের ৪ আসনে হতে চলেছে উপনির্বাচন। ৩০ অক্টোবর দিনহাটা, শান্তিপুর, খড়দা ও গোসাবায় হবে ভোট। ২ নভেম্বর ভোট গণনা। 

উপনির্বাচনে বিজেপির প্রার্থী কারা ?

ভবানীপুরে ভরাডুবির পর বিজেপি অফিস যেন ভাঙা হাট । কারুর দেখা পাওয়া যায় নি সকালে ।  একটি উপনির্বাচন ও দুটি বিধানসভার সাধারণ নির্বাচন হয়ে তার ফল বেরিয়ে গিয়েছে এবং জয়লাভ করেই তৃণমূল সুপ্রিমো বাকি ৪ উপনির্বাচনের প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করে দিয়েছেন ।  কিন্তু ৩ কেন্দ্রে পরাজয়ের পর কি করবে, কাকে প্রার্থী করবে তাই নিয়ে দোদুল্যমান রাজ্য বিজেপি । যে ৪টি কেন্দ্রে উপনির্বাচন তার মধ্যে শান্তিপুর এবং দিনহাটা কেন্দ্রে জয়ী হয়েছিল বিজেপির দুই সাংসদ ।

কিন্তু ভোট উত্তর কালে তাঁরা বিধায়কের পদ ছেড়ে দেন । লক্ষণীয় বিষয়, এই দুই কেন্দ্রে মুকুল রায়ের আধিপত্য বিপুল এবং মুকুল এখন তৃণমূলে । ফলে বিজেপির ভাবনা বাড়ছে । ৫ মাস বিধানসভার নির্বাচন হয়ে গিয়েছে । এই ৫ মাসে বিজেপির জয়ী প্রার্থীদের মধ্যে ৫ জন দল ছেড়েছেন । বর্তমানে তাদের ৭০ জন বিধায়ক, কাজেই কাকে কোথায় প্রার্থী করা যাবে এবং যদি যেতে তারপর দল ছেড়ে দেবে না এমন গ্যারান্টি কোথায় ?

গোসাবাতে জেতা একপ্রকার অসম্ভব ধরেই নিয়েছে বিজেপি । পাশাপাশি খড়দহ আসনটিও কঠিন তাদের পক্ষে । তাছাড়া পরাজিত প্রাক্তন তৃণমূল এবং দলবদলু শীলভদ্র দত্ত ফের দাঁড়াতে নারাজ । অন্যদিকে জেতা আসন দিনহাটাতে কোনওক্রমে জিতেছিলেন বিজেপি নিশীথ প্রামানিক । এবারের ট্রেন্ড উল্টো কথা বলছে । সবশেষে শান্তিপুর । এখানে ধর্মীয় ব্যক্তিত্ব ব্রজকিশোর গোস্বামীকে প্রার্থী করে চাপে বিজেপি । এখন দেখার পরাজয়ের সংকট কতো দিনে ঝেড়ে ফেলে বিজেপি প্রার্থী দিতে পারে ।


Corona update: পুজোর মুখে রাজ্যে দৈনিক মৃত্যু কমে ৯, বাড়ল সংক্রমণ

কলকাতাঃ রাজ্যে করোনায় দৈনিক সংক্রমণ সামান্য বাড়লেও কমেছে দৈনিক মৃত্যু। তারফলে পুজোর মুখে কিছুটা স্বস্তি। 

শনিবার সন্ধের স্বাস্থ্য দফতরের রিপোর্ট বলছে, রাজ্যে একদিনে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৭৬১ জন। গতকাল যে সংখ্যাটা ছিল ৭০৮ জনে। সব মিলিয়ে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১৫ লক্ষ ৭০ হাজার ৫৩৯ জন। 

বাংলায় একদিনে মৃত্যু হয়েছে ৯ জনের। গতকাল এই সংখ্যাটা ছিল ১৩ জন। মোট মৃতের সংখ্যা ১৮ হাজার ৮১৫ জন। কিন্তু গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাকে হারিয়ে সুস্থ হয়েছেন ৭৪৩ জন। মোট সংখ্যা ১৫ লক্ষ ৪৪ হাজার ১৪৪ জন। সুস্থতার হার ৯৮.৩২ শতাংশ। 

তবে এদিন রাজ্যে ফের সামান্য বাড়ল করোনা অ্যাক্টিভ কেস। সংখ্যাটা ৭ হাজার ৫৮০। একদিনে বেড়েছে মাত্র ৯ জন। ২৪ ঘন্টায় করোনা টেস্ট হয়েছে ৪২ হাজার ২৭ টি। রাজ্যের পজিটিভিটি রেট বা সংক্রমণের হার ১.৮১ শতাংশ। 

Laxmi Bhandar: চার জেলায় এখনই নয় লক্ষ্মীর ভান্ডার,জানালেন মমতা বন্দ্যোপাধায়


কলকাতাঃ বাংলায় লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্প চালু করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধায়। তবে কয়েকটি জেলায় এখনই তা কার্যকর করা যাচ্ছে না। শনিবার নবান্ন থেকে এমনটাই জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধায়। 

প্রসঙ্গত, বাংলায় কয়েকটি জেলায় উপ-নির্বাচন ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। আগামী ৩০ অক্টোবর হবে ভোট গ্রহন। ফলে নির্বাচন বিধির কারণে পুজোর আগে চারটি জেলায় লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্প এর টাকা দেওয়া যাচ্ছে না।   

যে সব জেলায় আপাতত লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্প কার্যকর করা যাচ্ছে না, সেগুলো হল কোচবিহার,দক্ষিণ ২৪ পরগণা,উত্তর ২৪ পরগণা ও নদিয়া। তবে এই সব জেলায় আগামী নভেম্বর এ প্রকল্পের টাকা পাবেন আবেদনকারীরা। 


Cyclone : ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় 'শাহিন', বাংলাসহ ৭ রাজ্যে সতর্কতা জারি

কলকাতাঃ শুক্রবার সকালে রোদ ঝলমলে আকাশ দেখে অনেকেই খুশি হয়েছেন। ভেবেছেন কেটে গিয়েছে দুর্যোগ। এমনকি নিম্নচাপের ঘন কালো মেঘ সরিয়ে উঁকি দিয়েছে শরতের আকাশ। কিন্তু আরও একটি ঘূর্ণাবর্তের জেরে নিম্নচাপের অশনি সংকেত দিল আবহাওয়া দফতর। 

দিল্লির মৌসম ভবন (IMD) জানিয়েছে, গুলাবের লেজ থেকেই উত্তর আরব সাগরে উৎপত্তি হয়েছে শাহিন নামে আরও এক ঘূর্ণিঝড়ের। এটি আগামী ১২ ঘণ্টার মধ্যেই আরও শক্তিশালী হবে শাহিন। আর এর প্রভাবে আগামী ৩দিন বাংলাসহ ৭ রাজ্যে ভারি থেকে অতি ভারি বৃষ্টি হতে পারে। 

বাংলা ছাড়া যে সব রাজ্যে ঘূর্ণিঝড় শাহিনের সতর্কতা জারি করা হয়েছে সেগুলো হল  কেরল, কর্ণাটক, গুজরাট, তামিলনাড়ু, সিকিম ও বিহার।  শাহিনের প্রভাবে ব্যাপক বৃষ্টিপাত হবে ঐ রাজ্যগুলিতে। ঘূর্ণিঝড়ের গতিবেগ ঘণ্টায় ৯০ থেকে ১০০ কিলোমিটার পর্যন্ত হতে পারে। 

শুক্রবার গভীর রাতেই বা শনিবার সকালবেলা অতি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে শাহিন। তারপর ক্রমশ উত্তর আরব সাগর থেকে পাকিস্তান হয়ে ইরানের উপকূলের দিকে সরবে এই ঘূর্ণিঝড়।