ক্রমশ শক্তিশালী হচ্ছে নিম্নচাপ,লাল সতর্কতা জারি

কলকাতাঃ উত্তর বঙ্গোপসাগরে ঘনীভূত হয়েছে নিম্নচাপ। তার জেরে রাত থেকেই শুরু হয়েছে বৃষ্টি। আগামী ২৯ জুলাই পর্যন্ত চলবে বৃষ্টি। 

আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, শুক্রবার পর্যন্ত দক্ষিণবঙ্গে ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টি হতে পারে। আজ কমলা সতর্কতা জারি করা হয়েছে কলকাতা, হাওড়া, হুগলি, বাঁকুড়া ও পুরুলিয়ায়। 

এছাড়া হলুদ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। তারফলে আজ অতিভারী বৃষ্টি হতে পারে উত্তর ২৪ পরগনা, নদিয়া, পূর্ব ও পশ্চিম বর্ধমান ও বীরভূম,দক্ষিণ ২৪ পরগনা, পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম ও মুর্শিদাবাদে। 

সমুদ্রে যাওয়ার ক্ষেত্রে আগামীকাল পর্যন্ত জারি করা হয়েছে লাল সতর্কতা। আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, ৭০ থেকে ১০০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে দক্ষিণবঙ্গে। 

ভারী বৃষ্টির পূর্ভাবাস

রবিবারেও তাই বৃষ্টি থেকে মুক্তি নেই কলকাতাবাসীর। এদিন সকাল থেকেই শহরের আকাশের মুখভার। দশটা থেকে প্রবল বৃষ্টিতে ভিজছে কলকাতা-সহ রাজ্যের বিভিন্ন জেলা। উত্তরবঙ্গের ছবিও একইরকম। রবিবার এবং সোমবার ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস আলিপুর আবহাওয়া দপ্তরের। দার্জিলিং, আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার-সহ পাঁচ জেলায় ভারী বৃষ্টি চলবে সোমবার পর্যন্ত। মূলত সক্রিয় মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে বাংলায় প্রবল বৃষ্টি।

রবিবার দিনভর চলবে বৃষ্টি।কোথাও কোথাও হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির সম্ভাবনা।আবার কোথাও ভারী বৃষ্টি হতে পারে। বর্ষার শুরুতেই ভালোই বৃষ্টি চলছে শহরজুড়ে। বৃষ্টি হলেও একরকম অস্বস্তিকর আবহাওয়া। তবে সকাল থেকেই বৃষ্টি হওয়ায় স্বস্তি মিলবে শহরবাসীর।

সপ্তাহান্তে বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টি

রাজ্যে ফের বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির সম্ভাবনা। আজ ও কাল বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টি চলবে। শনিবার ও রবিবার বজ্রবিদ্যুৎ সহ হালকা বৃষ্টি বিক্ষিপ্তভাবে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের জেলাতে। দক্ষিণবঙ্গের  দু-এক জেলায় বৃষ্টি বাড়বে সোমবার থেকে। সোমবার পশ্চিম মেদিনীপুর ঝাড়গ্রাম দু-এক পশলা ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা। মঙ্গলবার মুর্শিদাবাদ ও বীরভূম জেলায় অপেক্ষাকৃত বেশি বৃষ্টি। দু এক পশলা ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা।

এদিকে ঝাড়খণ্ডে ঘূর্নাবাতের জেরে আগামী ৪৮ ঘন্টা বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়া সোমবার থেকে  উত্তরবঙ্গে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা জানালো  হাওয়া অফিস।


আগামীকাল আবহাওয়ার উন্নতি

কলকাতা: রবিবার  অর্থাৎ আজও ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা,জানালো আলিপুর আবহাওয়া দফতর। আজও উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির সম্ভাবনা। তবে কাল থেকে পরিবর্তন হবে পরিস্থিতি,জানালো হাওয়া অফিস। এদিকে জোড়া ঘূর্ণাবর্ত এবং মৌসুমি বায়ু, এই দুইয়ের প্রভাবে চলছে প্রবল বৃষ্টিপাত।


ইতিমধ্যে বেশ কিছু জায়গায় জারি করা হয়েছে হলুদ সতর্কতা। তবে রবিবার থেকে আগামী বৃহস্পতিবার পর্যন্ত উত্তরবঙ্গে চলবে ভারী বৃষ্টি। মূলত, দার্জিলিং,আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার, উত্তর দিনাজপুর এই জায়গাগুলিতে ভারী বৃষ্টির সম্ভবনা।


ইত্যিমধ্যে কলকাতায় বর্ষা শুরু। তবে নিম্নচাপের জের চলবে বৃষ্টি।

রবিবাসরীয় বিকেলে কলকাতা সহ কয়েকটি জেলায় ঝড়বৃষ্টির পূর্বাভাস

বঙ্গোপসাগরে তৈরি হয়ে গিয়েছে নিম্নচাপ, যা ক্রমাগত শক্তি সঞ্চয় করছে। আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই যা পরিনত হবে প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘ইয়াস’ নামে। এরমধ্যেই আলিপুর হাওয়া অফিস জানাল রবিবার বিকেলেই কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের কয়েকটি জেলায় ঝড়বৃষ্টি হতে পারে। আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, নদিয়া ও পূর্ব বর্ধমান জেলায় হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। সেই সঙ্গে ৩০ থেকে ৪০ কিলোমিটার গতিবেগে হওয়া বইবে। সেই সঙ্গে দুই ২৪ পরগনা এবং কলকাতাতেও হালকা বৃষ্টি হতে পারে। কারণ দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জায়গায় তৈরি হয়েছে নিম্নচাপ। তার ফলেই এই বৃষ্টির সম্ভাবনা। আর বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া গভীর নিম্নচাপের জেরে আগামী মঙ্গলবার থেকে প্রথমে বাংলার উপকূলীয় এলাকা এবং পরবর্তী সময়ে গোটা দক্ষিণবঙ্গেই ঝড়বৃষ্টি শুরু হবে।

নির্ধারিত সময়ের আগেই দেশে ঢুকবে বর্ষা

সুখবর দিল আবহাওয়া দফতর। গরমের হাঁসফাঁস করার দিন এবার শেষ হতে চলেছে শীঘ্রই। কারণ সময়ের আগেই দেশে ঢুকে পড়ছে বর্ষারানী। হাওয়া অফিস জানাচ্ছে চলতি বছরের ৩১ মে কেরলে ঢুকে পড়ছে বর্ষা। অর্থাৎ নির্ধারিত দিনের একদিন আগেই দক্ষিণ পশ্চিম মৌসুমি বায়ু ঢুকছে দেশে। এখন দেখার বিষয় বঙ্গে কবে ঢোকে বর্ষা। কারণ এই রাজ্যে বর্ষার প্রবেশের স্বাভাবিক সময় মোটামুটি ৮ জুন। তবে কেরলে আগে ঢুকলেও যে বাংলায় আগে ঢুকবে তার কোনও মানে নেই বলেই জানিয়েছেন আবহবিদরা। তবে ইন্ডিয়া মেটেরোলজিক্যাল ডিপার্টমেন্টের (IMD) তরফে জানানো হয়েছে, এবছর স্বাভাবিক বর্ষাই হবে দেশে। সাধারণত জুন থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত স্থায়ী হয় বর্ষা। কেন্দ্রীয় মন্ত্রকের সচিব আশ্বাস দিচ্ছেন এবছর মুলত ৯৮ শতাংশ বর্ষা হতে চলেছে দেশে, যা স্বাভাবিক বলেই ধরে নেওয়া হয়। ফলে কৃষকদের জন্য সুখবরই বলা চলে। কারণ অতিবৃষ্টি বা কম বৃষ্টি হলে চাষের কাজে সমস্যা হয়।