বঙ্গে শুরু বর্ষা

কলকাতা: শুক্রবার থেকে বঙ্গে আসছে বর্ষা। সকাল থেকেই কলকাতার একাধিক জেলায় বৃষ্টি শুরু হয়েছে। আজ থেকে কলকাতাসহ দক্ষিণবঙ্গের ৫ জেলায় বৃষ্টির পূর্ভাবাস,জানালো আলিপুর আবহাওয়া দফতর। এদিকে দুপুর থেকেই বৃষ্টি শুরু কলকাতা ,পূর্ব -বর্ধমান,হাওড়া,হুগলি ও দক্ষিণ ২৪ পরগনার সুন্দরবন এলাকায়  বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির সম্ভাবনা।

এছাড়া জেলাগুলিতে বজ্র-বিদ্যুৎ সহ বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। এদিকে দক্ষিণের পাশাপাশি উত্তর দিনাজপুর, দাজিলিং, কালিম্পঙসহ বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। যদিও আজ থেকে দক্ষিণবঙ্গে বর্ষা আগমন। তার জেরে সকাল  থেকে শুরু দফায় দফায় বৃষ্টি।

রাজ্যে শীঘ্রই বর্ষার আগমন

কলকাতাঃ রাজ্যে খুব শীঘ্রই বর্ষা আসছে। আগামী শুক্রবারই বাংলায় বর্ষা প্রবেশ করছে। এমনটাই পূর্বাভাস আবহাওয়া দফতরের।
আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, উত্তরে একটি নিম্নচাপের সৃষ্টি হবে,তার জেরেই বাংলায় আসবে বর্ষা। আগামী ১১ জুন দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমী বায়ু বাংলার বিস্তৃত এলাকার দখল নেবে। একইসঙ্গে ওড়িশা, ঝাড়খণ্ড, সিকিম এবং বিহার, ছত্তীসগঢ়ের একাংশে ঢুকবে বর্ষা। এদিকে বেশকিছুদিন ধরেই রাজ্যে দিনে গরম বাড়ছে। যার জেরে সাধারণ মানুষ নাস্তানাবুদ হয়ে পড়ছেন। সাধারণত রাজ্যে বর্ষা ঢুকতে একটু দেরি হয়,কিন্তু বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপের  জেরেই এবছর রাজ্যে বর্ষার আগাম আগমন। ইতিমধ্যেই কেরলে বর্ষা ঢুকে পড়েছে।  আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, এরপর মালদ্বীপ, লাক্ষাদ্বীপ ও বঙ্গোপসাগরের দক্ষিণ পশ্চিমে প্রবেশ করবে। যা স্বস্তির খবর।

তুমুল বৃষ্টিতে কলকাতায় জমল জল, মুর্শিদাবাদে বজ্রপাতে মৃত ১

কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের অধিকাংশ জেলায় মঙ্গলবার দুপুর থেকে তুমুল বৃষ্টিপাত শুরু হল। বেলা সাড়ে ১২টা থেকে তুমুল বৃষ্টির সঙ্গে চলে বজ্রপাত, সেই সঙ্গে ঝোড়ো হাওয়া। কলকাতা সহ বৃষ্টি হয়েছে হাওড়া, হুগলি, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা, মালদহ, মুর্শিদাবাদ, পূর্ব বর্ধমান, পশ্চিম বর্ধমানে। দুপুরের মধ্যে সন্ধ্যার আঁধার নেমে যায় শহর কলকাতায়। বেলা ১টা থেকে তুমুল বৃষ্টির জেরে শহরের অধিকাংশ এলাকা জলমগ্ন হয়ে পড়ে। মানিকতলা, সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউ, ঠনঠনিয়া, পার্ক স্ট্রিটে হাঁটুর ওপর পর্যন্ত জল জমে যায়। জল জমে সুখিয়া স্ট্রিট, বিধান সরণী, বেহালা, লেক গার্ডেন্সেও। ফলে যান চলাচল ধীর গতিতে চলছে ওই সমস্ত এলাকায়। এমনিতেই করোনা পরিস্থিতির জন্য আংশিক লকডাউনে কলকাতায় জনসমাগম অনেকটাই কম। রাস্তাঘাটে গণপরিহণ কম। এই পরিস্থিতিতে আচমকা বৃষ্টির জেরে সমস্যায় পড়েন নিত্যযাত্রীরা। অপরদিকে মুর্শিদাবাদের সামশেরগঞ্জ থানার পুঠিমারী মাঠে বাজ পড়ে মৃত্যু হল এক ব্যক্তির। মৃতের নাম নাজির হোসেন (৩৫)। জেলায় জেলায় চলছে কালবৈশাখীর তাণ্ডব। প্রচুর চাষজমির ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যাচ্ছে।
 

দক্ষিণবঙ্গের কয়েকটি জেলায় ঝড়-বৃষ্টির পূর্বাভাস

মঙ্গলবার দুপুরের মধ্যেই ব্যপক ঝড়-বৃষ্টির পূর্বাভাস দিল আলিপুর হাওয়া অফিস। কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলায় নামবে বৃষ্টি, সেইসঙ্গে ঝোড়ো হাওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। আবহাওয়া দফতর থেকে জানানো হয়েছে, মঙ্গলবার দুপুরের পর থেকে পরিবর্তন হবে আবহাওয়ার। দক্ষিণবঙ্গে কলকাতা সহ দুই ২৪ পরগনা, হাওড়া, হুগলি, নদিয়া এবং উত্তরবঙ্গের মালদা ও দুই দিনাজপুরে ঝড়-বৃষ্টি হবে। ঝড়ের গতিবেগ ৪০-৫০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টা থাকতে পারে। আলিপুর হাওয়া অফিসের বক্তব্য, দক্ষিণবঙ্গের উপর একটি নিম্নচাপ অক্ষরেখা তৈরি হয়েছে। ফলে স্থানীয়ভাবে তৈরি হচ্ছে বজ্রগর্ভ মেঘের। দুইয়ে মিলেই ঝড়-বষ্টির সম্ভাবনা তৈরি হল। যদিও রাজ্যে প্যাচপ্যাচে গরম কমেনি। কিন্তু বৃষ্টির পূর্বাভাস স্বস্তির খবর দিল আম জনতাকে।