হট লুকে মিমি

এবার হট লুকিংনিয়ে হাজির মিমি চক্রবর্তী। একদম অন্য সাজে দর্শকদের সামনে টলি অভিনেত্রী । মঙ্গলবার সকালে তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় তার হট  লুকের ছবি দেন. দেখা যাচ্ছে একেবারে ভিন্নধরনের হেয়ারস্টাইল। যদিও এখন লকডাউন চলছে। এদিকে বন্ধ সমস্ত ছবির শুটিং। তাই নিজেকে একটু অন্যভাবে  সাজাতেই অভিনেত্রী লুক পরিবর্তন করে. সবসময় তাদের নিজেদের অভিনয়ের চরিত্র অনুযায়ী সাজতে হয়.তাই এখন একটু অবসর পেতেই  তার এই হেয়ার স্টাইল। নেটমাধ্যমে তার এই নিউ লুকের ছবি পোস্ট করে। সেখানে দেখা যাচ্ছে লাল টপ,সাথে শ্রাগ। সেই ছবি ইতিমধ্যে নেটদুনিয়ায় ঝড় তুলেছে।এদিকে নেটিজেনদের মধ্যে একাংশ বলছে,তবে কি মিমি  নতুন সিনেমার জন্য এই লুক পরিবর্তন করেছে। কৌতূহল বাড়ছে নেটিজেনদের মধ্যে।

হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে লড়েছেন মা, কঠিন পরিস্থিতির কথা জানালেন মনামী ঘোষ

করোনার বিরুদ্ধে ২২ দিনের লড়াই করেছি। শনিবার রাতে একথা ফেসবুকে জানালেন অভিনেত্রী মনামী ঘোষ।  এদিন রাত আটটা  নাগাদ ফেসবুকে পোস্ট করে তিনি জানান, তার মা করোনায় আক্রান্ত হয়েছিল।এরপর হাসপাতালে ভর্তি হয়.প্রায় ২২ দিনের মাথায় এই লড়াই চলে।

মা লড়ল বেডে শুয়ে আর আমি কখনও আইসিইউ বেডের সামনে দাঁড়িয়ে,  হাসপাতালের বাইরে বা কখনও বাড়িতে রাত জেগে। কিছু মানুষ ছাড়া এই লড়াই লড়তেই পারা  যেত না। শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় একদম ঠিক সময় তোমার ফোনটা না এলে বোধহয় ঠিক সময় লড়াইটা শুরুই করতে পারতাম না'। এখনও যে লড়াইটা বাকি আছে সেই কথা তিনি নিজের মুখেই জানালেন।



অজান্তে মহিলাকে সাহায্য করা, ক্ষোভ উগড়োলেন স্বস্তিকা

দ্বিতীয়বার  করোনার স্ট্রেন আছড়ে পড়তেই  গোটা দেশ বিধ্বংসী অবস্থায়।  অনেকেই হারিয়েছে কাজ. অর্থের অভাব। এদিকে করোনায়  আক্রান্ত হয়ে ও মানুষ বহু মানুষ প্রাণ হারিয়েছে। অন্যদিকে অক্সিজেনের আকাল। হাসপাতালে বেড নেই।  এইসময়ে টলিউডের অভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায় এগিয়ে এলেন সাহায্যার্থ্যে।

বেশকিছুদিন আগে আগে এক মহিলা সোশ্যাল মিডিয়ায় তার মায়ের করোনা হওয়ার জের সাহায্য চেয়েছিলেন। যদিও সেই খবর দেখা মাত্রই অভিনেত্রী নিজেই ওই মহিলাকে সাহায্য করে। তবে অভিনেত্রী নিজেই এবার ওই মহিলার বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ আনল । জানা যায় মহিলার নাম দেবযানী। মা সুস্থ হয়ে যাওয়ার  পরে ও ওই মহিলা সোশ্যাল মিডিয়ায় বারবার পোস্ট করে বেশকিছু মানুষের কাছে সাহায্য পেয়েছেন। এই ঘটনায় ক্ষোভ উগরে দিল স্বস্তিকা।

দেবযানী নাম ওই মহিলার করা পোস্টটি অভিনেত্রী  নিজেই তার ইনস্টাগ্রামে পোস্ট  করেই।  এরপর স্বস্তিকা জানায়, ওনার শাস্তি পাওয়া দরকার। এইসময় বহু অসাধু ব্যক্তি এভাবেই সাহায্য চেয়ে টাকা  নিয়ে নিচ্ছে। এছাড়া বেশকিছু স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাও এইভাবেই টাকা নিচে বলে ক্ষোভ উগরে দিলেন অভিনেত্রী নিজেই।

বাড়ি থেকে ধারাবাহিকের শ্যুট নয়, ফেডারেশনের চিঠি মমতাকে

লকডাউনের প্রভাব পড়ল এবার বাংলা সিরিয়ালের ওপর। যদিও বেশ কিছু সিরিয়ালের শুটিং হয়ে থাকায় সমস্যার মধ্যে পড়তে হয়নি টেলিকাস্টদের। লকডাউন শুরু হওয়ায় ১৬ মে থেকে বন্ধ হয়ে গিয়েছিল বাংলা সিরিয়ালের শুটিং। লকডাউন বেড়ে যাওয়ায় অভিনেতা-অভিনেত্রীরা মূলত বাড়ি থেকেই শুটিং করছে তাদের নিজের ইকুবমেন্ট দিয়ে। এই নিয়ে সমস্যার সূত্রপাত।
বাড়ি থেকে ধারাবাহিকের শুটিং হওয়ার জেরে  প্রতিবাদ জানায় ফেডারেশন অফ সিনে টেকনিশিয়ান অ্যান্ড ওয়ার্কার্স অফ ইস্টার্ন ইন্ডিয়া (FCTWEI)। সদস্যদের মতে, শুট ফ্রম হোম করায় এপিসোড চলছে কিন্তু টেকনিসিয়ানরা টাকা পাচ্ছেন না, তাদের কাজ নেই। সেই কারণে বাড়ি থেকে শ্যুটিংয়ের পক্ষে সায় দেয়নি ফেডারেশনের তরফে। এই নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চিঠি দেওয়া হয়।