Social Media: বিশ্বজুড়ে হঠাৎ থমকে গেল হোয়াটস্যাপ, সমস্যায় লক্ষ -লক্ষ গ্রাহক

বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে হঠাৎই অকেজো ফেসবুক , হোয়াটসঅ্যাপ  এবং ইনস্টাগ্রাম । কাজ করছে না মেসেঞ্জারও। আচমকা চার সোস্যাল মিডিয়াই  কাজ করা বন্ধ করে দেয়। যার জেরে বিপাকে পড়েছেন লক্ষ-লক্ষ গ্রাহক। গত ২০ মিনিট যাবৎ একই পরিস্থিতি বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে। একইসঙ্গে চারটি সোশ্যাল মিডিয়ার এভাবে বিকল হওয়ার ঘটনা সাম্প্রতিক অতীতে ঘটেনি বলেই দাবি ওয়াকিবহাল মহলের। সোমবার রাত সোয়া ন’টা নাগাদ হঠাৎ ফেসবুক কাজ করা বন্ধ করে দেয়। কোনও কাজ করতে গেলেই দেখা যায় স্ক্রিনে ফুটে ওঠে, “সামথিং ওয়েন্টস রং।” একইভাবে বিকল হয় মেসেঞ্জার, হোয়াটসঅ্যাপ এবং ইনস্টাগ্রামও। কিন্তু কী কারণে এই সমস্যা তা এখনও স্পষ্ট হয়নি। ফেসবুকের তরফে এ সম্পর্কে জানানো হয়নি।

টুইটারের মাধ্যমে নিজেদের সমস্যার কথা জানিয়েছেন একাধিক ইউজার। এদিকে ফেসবুক তাঁদের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে জানিয়েছে, কিছু একটা সমস্যা হয়েছে। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব সমস্যা মেটানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। তবে কতক্ষণে এই সমস্যা মিটবে তা এখনও স্পষ্ট নয়। এদিকে কয়েক ঘণ্টার মধ্যে বিপুল সম্পদ খোয়ালেন ফেসবুক-কর্তা মার্ক জাকারবার্গ।

যদিও প্রায় ৭ ঘন্টা পর স্বাভাবিক হয়েছে। এগত কয়েক ঘণ্টায় তাঁর সম্পত্তির পরিমাণ কমেছে ৬০০ কোটি ডলার। ভারতীয় মুদ্রায় যা প্রায় ৪৪ হাজার ৭৩৪ কোটি টাকা। সোমবার রাত থেকে বিশ্ব জুড়ে ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপে বিভ্রাট এবং সম্প্রতি এক কর্মী (হুইসলব্লোয়ার) ফেসবুকের নীতি নিয়ে সমালোচনা করার পর এই অর্থ কমেছে জাকারবার্গের।

Mahasweta Devi:মহাশ্বেতা দেবীর দ্রৌপদী বাদ পড়ল দিল্লির পাঠ্যক্রম থেকে

এবার দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি পাঠ্যক্রম থেকে হঠাৎই  বাদ পড়ল মহাশ্বেতা দেবীর ছোটগল্প ‘দ্রৌপদী’। ১৯৯৯ সাল থেকে পাঠ্যক্রমের অন্তর্ভুক্ত ছিল গল্পটি। ‘দ্রৌপদী’র বদলে মহাশ্বেতার অন্য কোনও গল্পও নেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ। বাদ পড়েছেন দু’জন দলিত লেখকও। বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলের বৈঠকে এ নিয়ে প্রতিবাদ জানান শিক্ষকদের একাংশ।

যদিও আজকের বৈঠকে কাউন্সিলের ১৫ জন সদস্য ওভারসাইট কমিটির বিরুদ্ধে তাঁদের প্রতিবাদপত্র জমা দেন। তাঁদের অভিযোগ এলওসিএফ (লার্নিং‌ আউটকামস বেসড কারিকুলাম ফ্রেমওয়র্ক)-এর পঞ্চম সেমেস্টারের ইংরেজি পাঠ্যক্রমে ‘বর্বর আক্রমণ’ চালানো হয়েছে।

প্রথমে বাদ দেওয়া হয়েছে দুই দলিত লেখক বামা আর সুকর্তারিণীর লেখা। তার বদলে আনা হয়েছে ‘উচ্চবর্ণীয়’ রমাবাইকে। তার পরেই ‘‘কমিটি আচমকা কোনও কারণ না দেখিয়ে ইংরেজি বিভাগকে  মহাশ্বেতার দ্রৌপদী গল্পটি বাদ দিতে বলা হয়েছে..