বিরাটিতে তৃণমূল কর্মী খুনে ধৃত ১

বিরাটিতে তৃণমূল কর্মী শুভ্রজিৎ দত্ত খুনের ঘটনায় একজনকে গ্রেফতার করল পুলিশ। ধৃতের নাম দিবাকর। সিসিটিভি ফুটেজের সূত্র ধরে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। প্রথমে পুলিশ তাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করে। জেরায় সে ভেঙ্গে পড়ে। তার কথা-বার্তায় অসঙ্গতি দেখা দিলে,পুলিশ দিবাকরকে গ্রেফতার করে। 

প্রসঙ্গত, একুশে জুলাইয়ের রাতেই খুন হন তৃণমূল কর্মী শুভ্রজিৎ দত্ত (৩৯)। ঘটনাটি ঘটেছে বিরাটির বণিক মোড়ে। 

স্থানীয় সূত্রে খবর, বুধবার সন্ধেয় বিরাটির বণিক মোড়ে দলীয় কার্যালয়েই ছিলেন শুভ্রজিৎ। রাত সাড়ে দশটা নাগাদ বাড়ি ফিরছিলেন তিনি। অভিযোগ, সেই সময় বাইকে চড়ে বেশ কয়েকজন দুস্কৃতি এসে হঠাত্ গুলি চালাতে থাকে শুভ্রজিৎকে লক্ষ্য করে। তার মাথায় গুলি লাগে। ঘটনাস্থলেই লুটিয়ে পড়েন শুভ্রজিৎ। 

গুলির শব্দ পেয়ে ছুটে আসেন স্থানীয়রা। শুভ্রজিৎকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে,চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করে। 


বিরাটিতে শুটআউট, ২১ জুলাইয়ের রাতেই খুন তৃণমূল কর্মী

একুশে জুলাইয়ের রাতেই খুন হলেন তৃণমূল কর্মী শুভ্রজিৎ দত্ত (৩৯)। ঘটনাটি ঘটেছে বিরাটির বণিক মোড়ে। অভিযোগের তীর বিজেপির দিকে। অস্বীকার করেছে গেরুয়া শিবির। এদিকে এখনও থমথমে গোটা এলাকা। অভিযুক্তদের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিস।

স্থানীয় সূত্রে খবর, বুধবার সন্ধেয় বিরাটির বণিক মোড়ে দলীয় কার্যালয়েই ছিলেন শুভ্রজিৎ। রাত সাড়ে দশটা নাগাদ বাড়ি ফিরছিলেন তিনি। অভিযোগ, সেই সময় বাইকে চড়ে বেশ কয়েকজন দুস্কৃতি এসে হঠাত্ গুলি চালাতে থাকে শুভ্রজিৎকে লক্ষ্য করে। তার মাথায় গুলি লাগে। ঘটনাস্থলেই লুটিয়ে পড়েন শুভ্রজিৎ। 

গুলির শব্দ পেয়ে ছুটে আসেন স্থানীয়রা। শুভ্রজিৎকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে,চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করে। 

এই ঘটনার বিজেপি আশ্রিত দুস্কৃতিদের যোগসাজশ রয়েছে বলে অভিযোগ স্থানীয় তৃণমূলের। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছে পদ্মশিবির। অন্যদিকে খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থলে আসে নিমতা থানার পুলিস। ততক্ষনে দুস্কৃতিরা পালিয়ে যায়। তাদের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিস। পাশাপাশি কেন এমন ঘটনা ঘটল,তা খতিয়ে দেখছে নিমতা থানার পুলিস।

দালাল চক্র ঠিক করে ভাড়াটে

বিধাননগরঃ নিউটাউন কাণ্ডে নানান তদন্ত করে পুলিশ জানতে পারছে সন্ত্রাসবাদীরা বাড়ি ভাড়া নিয়েছিল | জানা গিয়েছে দালালের মাধ্যমে নাকি বাড়ি ভাড়া নেওয়া হয়ে থাকে | জয়পালদের আজ ধরা বা মারার পর চিত্র পরিষ্কার হচ্ছে |

কিন্তু কেন দালাল চক্র? গত ৩০ বছর ধরে ইট, বালি থেকে বাড়ি বিক্রি বা বাড়ি ভাড়া ঠিক করে দালালরাই | কিন্তু কারা করে ? উত্তর আমার আপনার বাড়ির ছেলেরাই | করবেটাই বা কি ? চাকরি নেই, ব্যবসা করার পয়সা নেই | কিন্তু এই ট্রেডে খুব খরচ না করেই ব্যবসায়ে নাম যায় | এদেরই বলা হয় সিন্ডিকেট | আজ সারা দেশে বহু কোম্পানি রয়েছে যারা এই কাজটিই কর্পোরেট ধাঁচে করে থাকে তাদের দালাল বলা হয় না বলা হয় রিয়েল এস্টেট  ব্যবসা |

অতএব ক্ষুদ্র দালালদের দোষ দিয়ে লাভ কোথায়? কিন্তু দোষ আছে | বাণিজ্যিক সংস্থা যখন এই কাজ করে তখন আদ্যোপান্ত জেনে, খবর নিয়ে, প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে করে | অতএব ওই দালালদের সেই শিক্ষাই নিতে হবে | 

নিউটাউনে শাপুরজী আবাসনে শুটআউট ,নিহত দুই

বিধাননগরঃ নিউটাউনে শাপুরজী আবাসনে শুটআউট। STF কে লক্ষ্য গুলি। পাল্টা গুলি চালায় STF । এই ঘটনায় দুইজন দুস্কৃতির মৃত্যু হয়েছে বলে খবর। ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে বিশাল পুলিশ বাহিনী।

বিস্তারিত আসছে --