বুড্ডা মিল গয়া

হৃষিকেশ মুখোপাধ্যায় বলিউডের ভিন্নধর্মী ছবি করিয়েদের মধ্যে অন্যতম। বিমল রায় হিন্দি ছবির জগতের এক আইকন পরিচালক ছিলেন। বিমলবাবুকে সমীহ করে চলতেন মুম্বইয়ের তাবড় শিল্পীমহল। বিমলবাবুর সহযোগী হিসাবে পরবর্তী অধ্যায় যাঁরা পরিচালক হন তাদের মধ্যে অন্যতম হৃষিকেশ এবং গুলজার। হৃষিকেশ একের পর এক বাস্তবধর্মী ছবি বানাতে থাকেন। বিমল রায়ের দলটি ছিল বামপন্থী এবং এরা গণনাট্য সংঘের সক্রিয় সদস্য ছিলেন। একটা সময়ে হৃষিকেশবাবুকে তাঁর সহযোগীরা বলেন যে, দাদা একটা অন্য ধরনের ছবি করুন না যেখানে চালু হিন্দি ছবির মতো ফর্মুলা থাকবে। ঋষিকেশ পরিষ্কার জানান, ঠিক আছে একটা ছবি করব যেখানে সাসপেন্স থাকবে অল্প ভায়োলেন্স থাকবে কিন্তু তথাকথিত হিন্দি ছবি বানাতে পারবো না। ঠিক হল তাই হবে, তাই ঠিক ৫০ বছর আগে তৈরি হলো 'বুড্ডা মিল গয়া।"
ছবিতে এক বৃদ্ধ ব্যবসায়ীকে তাঁর পার্টনাররা বিপাকে ফেলে জেলে পাঠাবে। বৃদ্ধ জেল থেকে বেরিয়ে তার প্রতিশোধ নেবে ঠিক করে পার্টনারদের একেক জনের বাড়ি গিয়ে দেখেন সে খুন হয়ে গিয়েছে। শেষপর্যন্ত নানা মজায় খুনি ধরা পড়ে। এই ছবিতে সুর করিয়েছিলেন রাহুল দেববর্মনকে দিয়ে। গানগুলি খুবই হিট করেছিল কিন্তু আজ এই ছবির যে গান মঞ্চে মঞ্চে শিল্পীরা গেয়ে থাকেন তা হলো "রাতকলি এক খোয়াব মে আয়ি।"