করোনার জের, বাতিল সিবিএসই-র দশম পরীক্ষা, স্থগিত দ্বাদশ

দেশজুড়ে ক্রমাগত বেড়ে চলা করোনা সংক্রমণের জেরে এবার বাতিল হল কেন্দ্রীয় বোর্ড সিবিএসই-র দশম শ্রেণীর পরীক্ষা। সেইসঙ্গে স্থগিত করা হয়েছে দ্বাদশ শ্রেণীর পরীক্ষাও। বুধবারই এই বিষয়ে বৈঠকে বসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সেখানে উপস্থিত ছিলেন, কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী রমেশ পোখরিওয়াল-সহ সংশ্লিষ্ট বোর্ডের শীর্ষ আধিকারিকরাও। উল্লেখ্য, আগামী মে মাসেই হওয়ার কথা ছিল সিবিএসই বোর্ডের দশম ও দ্বাদশ শ্রেণীর পরীক্ষা। কিন্তু দেশজুড়ে করোনা সংক্রমণ দ্রুততার সঙ্গে বেড়ে চলেছে। বর্তমানে পরিস্থিতি লাগামছাড়া পর্যায়ে চলে গিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে পড়ুয়াদের স্বাস্থ্যের কথা ভেবে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল, কংগ্রেস নেতা রাহুল এবং প্রিয়ঙ্কা গাঁধী কেন্দ্রকে অনুরোধ করেছিলেন পরীক্ষা বাতিলের জন্য। পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিংহও একই আবেদন করেছেন বুধবার। ফলে নড়েচড়ে বসে কেন্দ্রীয় সরকার। বুধবারই বৈঠকে বসেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সেখানেই ঠিক হয় আপাতত বাতিল হচ্ছে সিবিএসই দশম শ্রেনীর ফাইনাল পরীক্ষা। তবে স্থগিত করা হয়েছে দ্বাদশের পরীক্ষা, সেটা জুন মাসের পর পরিস্থিতি যাচাই করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলেই জানা যাচ্ছে। উল্লেখ্য, ৪ মে থেকে সিবিএসই বোর্ডের দশম এবং দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা শুরু হওয়ার কথা ছিল।

মমতার উস্কানিতেই শীতলকুচিতে গুলি ও মৃত্যু, দাবি নরেন্দ্র মোদির

চতুর্থ দফার ভোটের দিনও বাংলায় প্রচারে এলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। শনিবার তিনি জনসভা করলেন শিলিগুড়িতে। আর সেখান থেকেই তৃণমূলনেত্রীকে তোপ দাগলেন। সেইসঙ্গে কোচবিহারে কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে চারজনের মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ করলেন। আর এই ঘটনার জন্য ঘুরিয়ে তৃণমূলনেত্রীকেই দায়ি করলেন নরেন্দ্র মোদি। উল্লেখ্য, চতুর্থ দফার ভোটের দিন কোচবিহারে মোট ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে।