দেশে একধাক্কায় ৪৫ হাজারের কাছে দৈনিক সংক্রমণ

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ কিন্তু এখনও যায়নি। তবে প্রতিনিয়ত সংক্রমণ ওঠা-নামা করছে। এদিকে তৃতীয় ঢেউ আসতে চলেছে। আতঙ্ক তৈরী হচ্ছে। সরকার তথা বিশেষজ্ঞদের আশঙ্কাই কি এবার সত্যি হতে চলেছে? ভারত কি করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের দোরগোড়ায়? ফের উদ্বেগ বাড়তে শুরু করেছে চিকিৎসা মহলে। কারণ, মাঝখানে দু’একদিন বাদ দিলে গত কয়েক সপ্তাহ ধরে লাগাতার দেশের দৈনিক করোনা সংক্রমণের সংখ্যাটা ঘোরাফেরা করছে ৪০ হাজারের উপরে।

শুক্রবার তা আরও খানিকটা বেড়ে পৌঁছে গিয়েছে একেবারে ৪৫ হাজারের দোরগোড়ায়। যা কিনা রীতিমতো বিপদের সংকেত দিচ্ছে।  স্বাস্থ্যমন্ত্রকের বুলেটিন অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৪৪ হাজার ৬৪৮ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। যা কমবেশি আগের দিনের মতোই। ফলে দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে প্রায় ৩ কোটি ১৮ লাখ  ৫৭ হাজার। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ৪৬৪ জনের। ইতিমধ্যে দেশে টিকাকরণ চলছে। তবে পুজোর আগে তৃতীয় ঢেউ আসার সতর্কতা করছে বিশেষজ্ঞরা। শিশুদের ক্ষেত্রে খেয়াল রাখতে বলা হচ্ছে। সামনেই উৎসবের মরসুম।তবে কেন্দ্র ইতিমধ্যে রাজ্যকে চিঠি পাঠিয়েছে,যাতে মানুষের জমায়েত এই উৎসবে কোনোভাবেই না হয় তা নজর দিতে। তৃতীয় ঢেউ রুখতে একদিকে যেমন কেন্দ্র অন্যদিকে রাজ্যও তৎপর হয়ে উঠেছে।

CORONA: ফের কমল দৈনিক সংক্রমণ

তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়া সময়ের অপেক্ষামাত্র। আর কয়েকদিনের মধ্যেই তার আগমন বার্তা শুনিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। ডিসেম্বর পর্যন্ত থাকবে বলে আগাম সতর্কবার্তা দেওয়া হয়েছে। তারই মধ্যে অবশ্য সপ্তাহের প্রথম দিন করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুর হারে কিছুটা লাগাম পড়ল। সোমবার স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৪০ হাজার ১৩৪ জন। মৃত্যু হয়েছে ৪২২ জনের।

রবিবার এই সংখ্যা ছিল সাড়ে পাঁচশোর কাছাকাছি। সেই তুলনায় সোমবার তা অনেকটাই নামল। একদিনে করোনার কবলমুক্ত হয়েছেন ৩৬ হাজার ৯৪৬। করোনার বলি দেশের  ৪ লক্ষ ২৪ হাজার ৭৭৩ জন। আর সুস্থ হয়ে উঠেছেন মোট ৩ কোটি ৮ লক্ষ ৫৭ হাজার ৪৬৭। এদিকে দ্বিতীয় ঢেউয়ের প্রভাব কমলেও চিন্তায় তৃতীয় ঢেউ নিয়ে। ইতিমধ্যে তৃতীয় ঢেউ মোকাবিলা করতে প্রস্তুতি নিচ্ছে কেন্দ্র।

ফের উদ্বেগ বাড়াচ্ছে সংক্রমণ, কমল দৈনিক মৃত্যু

দেশে প্রতিনিয়ত ওঠানামা করছে সংক্রমণ। কিছুতেই স্বস্তি মিলছে না। সপ্তাহান্তেও সংক্রমণ কমার নাম নেই। ফের দৈনিক আক্রান্ত ৪০ হাজারের উপরে। উদ্বেগ বাড়িয়ে লাগাতার বেড়েই চলেছে অ্যাকটিভ কেস। রবিবারও তা বেড়েছে হাজারের উপরে। এদিকে তৃতীয় ঢেউ আসতে শুরু করেছে। তাই আগেভাগেই দেশের ১০ রাজ্যকে সতর্ক করে দিল কেন্দ্র। এর মধ্যে সবার আগে রয়েছে কেরল। এছাড়া তামিলনাড়ু, মহারাষ্ট্র, কর্ণাটক, ওড়িশা, বিহারের মতো রাজ্যকেও সতর্ক থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

তবে, বাংলা এই ধরনের কোনও নির্দেশ পায়নি।রবিবার সকালে স্বাস্থ্যমন্ত্রকের  বুলেটিন অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৪১ হাজার ৮৩১ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। যা কমবেশি আগের দিনের মতোই। ফলে দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে প্রায় ৩ কোটি ১৫ লাখ  ৫৫ হাজার।গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ৫৪১ জনের। এদিকে তৃতীয় ঢেউ আসতেই ইতিমধ্যে কেন্দ্র ১০ টি রাজ্যকে সতর্ক করেছে।

ফের গত ২৪ ঘন্টায় কমল সংক্রমণ

ফের স্বস্তি মিলল সংক্রমণে।গত ২৪ ঘণ্টা দেশে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৪৩ হাজার ৫০৯ জন। তবে সামান্য বেসামাল হলে করোনা পরিস্থিতি ফের ভয়াবহ রূপ নিতে পারে বলে বারবার সতর্ক করছেন বিশেষজ্ঞরা।গত ২৪ ঘণ্টায় কোভিডে মৃত্যু হয়েছে ৬৪০ জনের। বেশিরভাগ রাজ্যে সংক্রমণ কমলেও উদ্বেগ বাড়াচ্ছে কেরল। দক্ষিণের এই রাজ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তের সংখ্যা ২২ হাজার ১২৯, যা দেশের দৈনিক সংক্রমণের প্রায় ৫১ শতাংশ।

এদিকে ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩৮ হাজার ৪৬৫ জন। করোনার দ্বিতীয় ঢেউযে সংক্রমণ কিছুটা কমলেও সামনেই তৃতীয় ঢেউ আসার সম্ভাবনা।দেশে টিকাকরণ শুরু হয়ে গেছে। কেন্দ্রের তরফে জানানো হয়েছে এই বছরের মধ্যে টিকাকরণ সারতে হবে. তৃতীয় ঢেউ মোকাবিলা করতে প্রস্তুত নিচ্ছে কেন্দ্র।

করোনা আপডেট: দেশে সামান্য কমল দৈনিক সংক্রমণ

প্রতিনিয়ত সংক্রমণ ওঠা-নামা করছে। তবে দ্বিতীয় ঢেউয়ে সংক্রমণ কমলেও,তৃতীয় ঢেউ আসার আতঙ্ক বেড়েই চলেছে। এদিকে শপথের প্রথম দিনেও কিন্তু কোনরকম পরিবর্তন দেখা গেলোনা। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের সোমবার পরিসংখ্যান অনুযায়ী,  দৈনিক করোনা সংক্রমণে তেমন পরিবর্তন নেই। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করোনা ভাইরাসে  আক্রান্ত হয়েছেন ৩৯ হাজার ৩৬১ জন, রবিবারের তুলনায় কিছুটা কম।

তবে দৈনিক মৃত্যুর হারে খানিক স্বস্তি। রবিবার করোনায় মৃত্যু হয়েছিল ৪৩৫ জনের। আর সোমবার তা নেমে দাঁড়াল ৪১৬এ। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে ফিরেছেন ৩৫ হাজার ৯৬৮ জন। ইতিমধ্যে দেশে শুরু হয়েছে টিকাকরণ। এদিকেতৃতীয় ঢেউ আসার প্রবল সম্ভাবনা। তবে বেশকিছু জায়গায় কিন্তু তৃতীয় ঢেউ আসতে শুরু করেছে। মানুষের ওপর প্রভাব পড়ছে। করোনার নয়া প্রজাতি ডেল্টা আরও ভয়ঙ্কর রূপ ধারণ করছে।মানুষ কিন্তু এই নয়া সংক্রমণের কবলে পড়ছে। তবে সাধারণ মানুষের সামাজিক সচেতনতার অভাবে কারণ কিন্তু আরও বিপদ আনতে পারে,বিশেষজ্ঞমহল তাই মনে করছেন। ইতমধ্যে কেন্দ্রের তরফে তৃতীয় ঢেউয়ের  জন্য যাবতীয় প্রস্তুত নেওয়া হচ্ছে।

ফের স্বস্তি মিলল দৈনিক সংক্রমণে

করোনার দ্বিতীয় সংক্রমণে কিছুটা স্বস্তি হলেও তৃতীয় ঢেউ আস্তে আর বেশি দেরি নেই । স্কিন্তু প্রতিনিয়ত কমছে ও বাড়ছে দৈনিক সংক্রমণ। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের করোনা সংক্রমণের গ্রাফ কমবেশি একই থাকল। আগের দিনের মতোই দৈনিক করোনা আক্রান্তের সংখ্যাটা থাকল ৪০ হাজারের সামান্য নিচে। তবে আগের দিনের তুলনায় বেশ খানিকটা বাড়ল করোনাজয়ীর সংখ্যা। যা স্বস্তি দেবে স্বাস্থ্যমন্ত্রককে। মৃতের সংখ্যাটা কমবেশি আগের দিনের মতোই।

তবে, এদিন টিকাকরণ নিয়ে বড়সড় দাবি করেছে কেন্দ্র। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দাবি, ইতিমধ্যেই রাজ্যগুলিকে ৪৫ কোটি ৩৭ লাখের বেশি টিকা সরবরাহ করা হয়েছে। যার মধ্যে প্রায় ৩ কোটি ৮০ লাখ টিকা এখনও ব্যবহার হয়নি। আরও ১১ লাখের বেশি ভ্যাকসিন রাজ্যগুলির কাছে পাঠানো হচ্ছে।রবিবার সকালে স্বাস্থ্যমন্ত্রকের  পরিসংখ্যান বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৩৯ হাজার ৭৪২ জন করোনা  আক্রান্ত হয়েছেন। যা আগের দিনের থেকে সামান্য হলেও বেশি। ফলে দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ কোটি ১৩ লাখ ৭৩ হাজারের বেশি। স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, আপাতত মৃতের সংখ্যা ৪ লাখ ২০ হাজার ৫৫১ জন। যদিও সংক্রমণের ওঠানামা হলেও, তৃতীয় ঢেউ মোকাবিলা করতে ইতিমধ্যে প্রস্তুত নিচ্ছে কেন্দ্র। 

করোনা আপডেট : ফের চিন্তা বাড়াল দৈনিক সংক্রমণ

করোনার দ্বিতীয় ঢেউতে সংক্রমণ কমলেও তৃতীয় ঢেউ কি একেবারে দোরগোড়ায় দাঁড়িয়ে? কয়েকদিন আগেই দেশের দৈনিক করোনা আক্রান্তের সংখ্যাটা ৪০ হাজারের বেশ নিচেই ঘোরাফেরা করছিল। গতকাল তা একলাফে অনেকটা বাড়ে। আজও দেশের দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যাটা ৪১ হাজারের উপরেই। উপরন্তু, পরপর দ্বিতীয় দিন বাড়ল করোনার অ্যাকটিভ কেস। যা বেশ চিন্তায় ফেলছে স্বাস্থ্যমন্ত্রককে।

বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্যদফতরের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৪১ হাজার ৩৮৩ জন করোনায়  আক্রান্ত হয়েছেন। যা আগের দিনের থেকে সামান্য কম হলেও গত কয়েকদিনের তুলনায় বেশি। ফলে দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ কোটি ১২ লাখ  ৫৭ হাজার ৭২০ জন । এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ৫০৭ জনের। তবে সামনেই তৃতীয় ঢেউ আসার প্রবল সম্ভাবনা। চিন্তিত গোটা দেশ।

ফের বাড়ল দেশে দৈনিক সংক্রমণ

নয়াদিল্লি: দেশে ফের বাড়ল দৈনিক সংক্রমণ। গত ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমণ বেড়ে ৬৭ হাজার ২০৮ জন. এদিকে বৃহস্পতিবার দৈনিক মৃত্যু কিছুটা কমেছে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুসারে, ২হাজার ৩৩০ জনের। দৈনিক সংক্রমণ সামান্য বাড়লেও দেশে কমছে সংক্রমণের হার । গত ৩ দিন ধরেই দেশের সংক্রমণের হার ৪ শতাংশের নীচে রয়েছে। সক্রিয় রোগীর সংখ্যা  কমতে কমতে সাড়ে ৮ লাখের  নীচে নেমেছে।

এখন দেশে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৮ লাখ ২৬ হাজার ৭৪০ জন। দেশে করোনার দ্বিতীয় ওয়েভে সংক্রমণ বাড়ছে। তার পাশাপাশি দেশে লকডাউন থাকার  জের কিছুটা হলেও কমছে সংক্রমণ। এরইমাঝে আবার তৃতীয় ওয়েভের আশঙ্কা। চিন্তার বিষয় হয়ে দাঁড়াচ্ছে খানিকটা বলা যায়।