Durga Puja 2021: ষষ্ঠী থেকে দশমী ১২ লক্ষে বেশি মানুষ মেট্রো যাত্রা করেছেন

কলকাতাঃ ষষ্ঠী থেকে দশমী ১২ লক্ষ ৬৮ হাজার ৫৮৩ জন মানুষ  মেট্রোর যাত্রা করেছেন। 

রেল সূত্রে খবর, দুর্গাপুজোয় মহাসপ্তমীর দিন ২ লক্ষ ৮৯ হাজার ৫১ জন  যাত্রী মেট্রো রেল ব্যবহার করেছেন। ওই দিন ১২ টি অতিরিক্ত রেল চালিয়েছিল মেট্রো কর্তৃপক্ষ। অষ্টমীর দিন ২ লক্ষ ৪৫ হাজার ১৩ জন যাত্রী উঠেছেন মেট্রো রেলে। অষ্টমীতে মোট ২০৪ টি মেট্রো চালানো হয়।

নবমী দিন মেট্রোতে যাত্রী সংখ্যা ছিল ২ লক্ষ ৩৯ হাজার ৪৮০ জন যাত্রী যাত্রা করেছেন মেট্রোতে। ওইদিন যাত্রী পরিষেবায় ২১৬ টি মেট্রো চলেছিল। 

পুজোর পাঁচ দিন মেট্রো যাত্রীদের নিরাপত্তার উপরে বিশেষ জোর দেওয়া হয়েছে। কুইক রেসপন্স টিম, রেলওয়ে প্রোটেকশন ফোর্স এবং কলকাতা পুলিশের সাহায্যে মানুষকে সঠিক ভাবে পরিষেবা দিয়ে সফল হয়েছে মেট্রো কর্তৃপক্ষ। পাশাপাশি মহিলা আর পি এফ মোতায়েন করা হয় পুজোর পাঁচ দিন। এছাড়া চারটি স্টেশনে মেডিক্যাল বুথ করা হয়েছিল।  

Weather Update: পুজো শেষে ধেয়ে আসছে জোড়া নিম্নচাপ

 অষ্টমী-নবমী রাজ্যের বেশ কয়েকটি জেলায় বৃষ্টি হয়েছে। তবে দশমীতে ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস নেই। আজ উমা বিদায়ের পালা। সকাল থেকেই মণ্ডপে মণ্ডপে চলছে বিদায়পর্বের শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি। আলিপুর আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, কলকাতায় আংশিক মেঘলা থাকবে আকাশ। দুপুরের পর বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। এদিন সকালে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা থাকতে পারে ২৬ ডিগ্রির আশেপাশে। বাতাসে জলীয়বাষ্পের পরিমাণ  থাকবে সর্বাধিক ৯৭ শতাংশ।

পুজোয় বৃষ্টি হওয়ার কথা থাকলেও শেষপর্যন্ত নিম্নচাপ যে সরে গেছে তা জানিয়ে দিয়েছিল আলিপুর হাওয়া অফিস। তবে হাওয়া অফিসের তরফে জানানো হয়েছে, আগামী  ১৭ ও ১৮ অক্টোবর ঝোড়ো হাওয়ার সঙ্গে বৃষ্টির দাপট চলতে পারে দক্ষিণবঙ্গে।

মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে যেতে নিষেধ করা হয়েছে।দক্ষিণবঙ্গে দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার আগাম সতর্কবার্তাও জারি হয়েছে। বর্ষা বিদায় নিয়েছে দেশের অধিকাংশ এলাকা থেকে। তবে, বঙ্গোপসাগর ও আরব সাগরে দু'টি নিম্নচাপ অক্ষরেখা রয়েছে। পুজো শেষ হলেই ফের বৃষ্টির আশঙ্কা তা স্পষ্টত বোঝাই যাচ্ছে। 


Weather: নিম্নচাপের ভ্রুকুটি। নবমী-দশমীতে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির পূর্বাভাস

কলকাতাঃ আজও কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির সম্ভাবনা। এমনটাই জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। 

অষ্টমীর সকালেই একাধিক এলাকায় বৃষ্টি হয়েছে। কিন্তু বেলার দিকে কলকাতার আকাশ ছিল ঝলমলে। তাই বাড়ি থেকে বেরিয়ে পড়েন উৎসবমুখর মানুষ। যদিও নিম্নচাপের চোখ রাঙানিতে অনেকেরই শঙ্কা ছিল,রাতে বৃষ্টি হতে পারে। আশঙ্কা সত্যি করেই অষ্টমীর রাতে কলকাতা সহ একাধিক জেলায় ঝেপে বৃষ্টি নেমেছিল। 

বিস্তারিত আসছে --


Coronavirus: ফের ঊর্ধ্বমুখী কলকাতা সহ দেশের করোনা গ্রাফ, বাড়ছে উদ্বেগ

নয়াদিল্লিঃ এখনও দুর্গাপুজো,নবরাত্রি শেষ হয়নি। সামনেই ছটপুজো। এরই মধ্যে ফের ঊর্ধ্বমুখী কলকাতা সহ দেশের করোনা গ্রাফ। তারফলে উৎসবের মরশুম বাড়ছে উদ্বেগ। 

বৃহস্পতিবার সকালে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা আক্রান্ত ১৮ হাজার ৯৮৭ জন। যা বুধবারের তুলনায় বেশ খানিকটা বেশি। সব মিলিয়ে দেশের মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৩ কোটি ৪০ লক্ষ ২০ হাজার ৭৩০ জন। 

দেশে একদিনে করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ২৪৬ জনের। গতকাল এই সংখ্যাটা কিছুটা কম ছিল। দেশে এখনও পর্যন্ত করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৪ লক্ষ ৫১ হাজার ৪৩৫ জনের।

তবে স্বস্তি দিয়েছে করোনার অ্যাকটিভ কেস। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের রিপোর্ট বলছে, বর্তমানে দেশে করোনায় চিকিৎসাধীন রোগীর সংখ্যা ২ লক্ষ ৬ হাজার ৫৮৬ জন। তাছাড়া দেশে ৩ কোটি ৩৩ লক্ষ ৬২ হাজার ৭০৯ জন করোনামুক্ত হয়েছেন। যার মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনামুক্ত হয়েছেন ১৯ হাজার ৮০৮ জন।

দেশে মোট ৯৬ কোটি ৮২ লক্ষ ২০ হাজার ৯৯৭ জন করোনার টিকা পেয়েছেন। গত ২৪ ঘন্টায় করোনার টিকা পেয়েছেন ৩৫ লক্ষ ৬৬ হাজার ৩৪৭ জন। 

রাজ্যে সবচেয়ে বেশি চিন্তা বাড়াচ্ছে কলকাতা এবং উত্তর ২৪ পরগনা। কলকাতায় গত ২৪ ঘণ্টায় ২০৩ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। আর উত্তর ২৪ পরগনায় এই সংখ্যা ১২৮ জন। কলকাতা করোনায় প্রাণ গিয়েছে ৩ জনের। উত্তর ২৪ পরগনায় মৃত্যু হয়েছে ৪ জনের। 

Weather Update: নিম্নচাপ সরে গেল!

পুজোর মধ্যেই যে বৃষ্টি হওয়ার সম্ভবনা তা আগেই জানিয়েছিলেন, আলিপুর হাওয়া অফিস। তবে যেটা যান গেছিল সপ্তমী পর্যন্ত আকাশ পরিষ্কার থাকবে। এদিকে  অষ্টমী থেকে দশমী পর্যন্ত চলবে বৃষ্টি। কিন্তু শেষমেষ শোনা যাচ্ছে নিম্নচাপ আর আসছেনা। তবে হালাক বৃষ্টি হতে পারে। পুজোতে নিশ্চিন্তে ঘোরা যাবে। যদিও বুধবার অর্থাৎ অষ্টমী থেকে দক্ষিণবঙ্গের উপকূলের জেলাতে বৃষ্টি শুরু হবে। কলকাতা, হাওড়া, হুগলি, নদিয়া, পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলায় বজ্রবিদ্যুৎ সহ দু-এক পশলা বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

বাকি জেলাগুলিতে বৃষ্টির সম্ভাবনা কম। হাওয়া অফিস সূত্রে খবর, নবমীতে দক্ষিণবঙ্গের উপকূল ও সংলগ্ন জেলাতে বৃষ্টি সামান্য বাড়বে। কলকাতা, হাওড়া, হুগলি, পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলায় বজ্রবিদ্যুৎ সহ কয়েক পশলা বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে। বাকি জেলাগুলিতে আবহাওয়া মনোরমই থাকবে।

আজ কলকাতা ও পার্শ্ববর্তী এলাকায় দিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকবে ৩৫.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে ৩ ডিগ্রি বেশি। দিনের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা থাকবে ২৬.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস , যা স্বাভাবিকের থেকে ২ ডিগ্রি বেশি। বাতাসে আপেক্ষিক আর্দ্রতার হার সর্বাধিক ৯৫ শতাংশ, ন্যূনতম ৫৬ শতাংশ।

Weather Update: ষষ্ঠীতে আকাশের মুখ ভার, আজ থেকেই কি আনন্দ মাটি!

আজ মহাষষ্ঠী। সকাল থেকেই মানুষজন বেরিয়ে পড়েছে পুজো দেখতে। তবে পুজোয় বৃষ্টি নিয়ে চিন্তায় আমজনতা। এদিকে অষ্টমী থেকে  দশমী রাজ্যে বৃষ্টি হতে পারে বলে আগেই পূর্বাভাস দিয়েছিল আবহাওয়া দফতর। সেই পূর্বাভাস অনুযায়ী ষষ্ঠী ও সপ্তমী আকাশ পরিষ্কার থাকার কথা। তবে এর আগে শনিবার চতুর্থীর দিন থেকেই বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি দেখা গিয়েছে দক্ষিণবঙ্গে। এদিকে আন্দামান সাগরের উপর তৈরি হওয়া ঘূর্ণাবর্ত আজই নিম্নচাপে পরিণত হয়ে ক্রমশ ওড়িশা ও অন্ধ্র উপকূলের কাছাকাছি আসবে।

এদিকে আন্দামান সাগরের উপর তৈরি হওয়া নিম্নচাপের সরাসরি প্রভাব আমাদের রাজ্যে না পড়লেও আগামী ১৩ তারিখ থেকে উপকূলীয় জেলাগুলোতে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ বাড়বে। এবং নবমী ও দশমীতে দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

এদিকে দেশের পশ্চিম প্রান্ত থেকে বর্ষা ইতিমধ্যেই বিদায় নিতে শুরু করেছে। এই নিম্নচাপের প্রভাব কেটে গেলেই রাজ্য থেকে বর্ষা বিদায় নেবে বলে জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর।


Durga Puja: কখন মায়ের বোধন ? শুরু কখন মহাষষ্ঠী, দেখে নিন

উৎসবের মরসুম শুরু হয়ে গেছে। ঢাকে কাঠি পড়ে গিয়েছে। সবচেয়ে বড় উৎসবে মেতে উঠেছে আপামোর বাঙালি।  এবার ঘোটকে দেবীর আগমন। দোলায় গমন। শাস্ত্র মতে, দেবী দোলায় এলে ফল হয় ছত্রভঙ্গ। আর দেবীর দোলায় গমন ফল হয় মড়ক বা মহামারি। প্রতি বছর মা দুর্গার আগমন থেকে গমন এবং পুজোর প্রতিটি রীতি পালিত হয় পঞ্জিকা মেনে। ১০ অক্টোবর বাংলার ২৩ আশ্বিন মহাপঞ্চমী।

সকাল ৮ টা বেজে ৫১ মিনিটে শুরু হচ্ছে পঞ্চমী। ১১ অক্টোবর, ২৪ আশ্বিন সকাল ৬টা বেজে ২৩ মিনিট ০৭ সেকেন্ডে শেষ পঞ্চমী তিথি। সোমবার, ১ অক্টোবর, ২৪ আশ্বিন সকাল ৬টা বেজে ২৩ মিনিট ০৮ সেকেন্ডে শুরু মহাষষ্ঠী। পঞ্চমী তিথি শেষের এক সেকেন্ড পর থেকে শুরু মহাষষ্ঠী।

ওই দিনই দেবীর বোধন, আমন্ত্রণ এবং অধিবাস। শাস্ত্র মোতে শুরু হবে পুজোপাঠ। করোনা অতিমারীর জেরে গত দুবছর অনেক বিধিনিষেধ থাকা সত্ত্বেও পুজো করা হচ্ছে। এদিকে মণ্ডপে প্রবেশ নিষেধ। তবে ইতিমধ্যেই কলকাতাবাসী বেরিয়ে পড়েছেন সকলেই। 

Weather Update: পঞ্চমীতে বৃষ্টির আভাস!

আজ  মহাপঞ্চমী। কিন্তু সকাল থেকেই আকাশের মুখ ভার. অতিমারিতে মণ্ডপে ঢোকায় বাদ সেধেছে নিয়ন্ত্রণবিধি। কিন্তু বৃষ্টি কি বাড়ি থেকেও বার হতে দেবে না পুজোয়! পঞ্চমীর সকালে আশঙ্কার সেই মেঘেই যেন আকাশ কালো। কলকাতার বেশ কিছু অংশে তো বটেই দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় রবিবার সকাল থেকেই শুরু হয়ে গিয়েছে বৃষ্টি। আবহাওয়াবিদরা আগেই সতর্ক করে জানিয়েছিলেন, পঞ্চমীর সকালে বৃষ্টি হতে পারে। বিদায়ী বর্ষার উপকূলবর্তী পশ্চিমবঙ্গ থেকে সরার কোনও লক্ষণ নেই। ফলে কলকাতা ছাড়াও দুই ২৪ পরগনা, পূর্ব এবং পশ্চিম মেদিনীপুর, হাওড়া, হুগলি এবং নদিয়ায় হালকা থেকে মাঝারি বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি হতে পারে।

রবিবার সকালে আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন, পঞ্চমীর সারা দিনই দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে আকাশ মেঘলা থাকবে। বৃষ্টি হবে। এমনকি বেশ কিছু এলাকায় বৃষ্টির সঙ্গে ঝোড়ো হাওয়াও বইতে পারে।মূলত বিদায়ী বর্ষার কারণেই বৃষ্টি। মহালয়াতে বর্ষা বিদায়ের প্রক্রিয়া শুরু হলেও তা এখনও শেষ না হওয়ায় পঞ্চমী পেরিয়ে ষষ্ঠী এবং সপ্তমীতেও এমন বৃষ্টি চলতে পারে বলে আশঙ্কা। সে ক্ষেত্রে উৎসবের কয়েকটা দিন ঘরবন্দি হয়ে কাটাতে হতে পারে।

অন্তত পঞ্চমীর সকাল তেমনই আভাস দিচ্ছে।ষ্টমী থেকে দশমী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। রবিবার থেকেই উত্তর আন্দামান সাগরে নিম্নচাপ তৈরি হওয়ার কথা। তার জেরেই দুর্গাপুজোর শেষ তিন দিন দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টি হতে পারে। অষ্টমী, নবমী ও দশমীতে কলকাতা, দুই পরগনা, দুই মেদিনীপুর, হাওড়া এবং হুগলিতে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি হবে বলে জানিয়েছিলেন আবহবিদরা।

Durga Puja: করোনাকে তোয়াক্কা না করেই, দ্বিতীয়ায় কলকাতার রাজপথে মানুষের ঢল

করোনা এখনও পিছু  ছাড়েনি। এদিকে উৎসবের মরশুম শুরু। তৃতীয়ার দিন থেকেই কলকাতার রাস্তায় মানুষের ঢল নেমেছে। জনস্বাস্থ্য সুরক্ষায় হাই কোর্ট থেকে রাজ্য সরকার বিধিনিষেধের বাধ্যতামূলক করেছে। কিন্তু তাতে কে কতটুকু কর্ণপাত করছে, শুক্রবার, দ্বিতীয়ার সন্ধ্যাতেই রাজপথে মানুষের ঢল সেই বিষয়ে সংশয় জাগিয়ে দিয়েছে। মণ্ডপে ঢুকতে না-পারলেও বাইরে থেকে দর্শন সারতেই ভিড় বেড়েছে কলকাতার রাস্তায় রাস্তায়। আর তাতেই বঙ্গের আকাশে পুজোর মরসুমে সিঁদুরে মেঘ দেখতে শুরু করেছেন সংক্রমণ বিশেষজ্ঞ ও চিকিৎসকেরা। তাঁদের আশঙ্কা, ১৪২৮ বঙ্গাব্দের পুজোই করোনার ‘সুপার স্প্রেডার’ হয়ে উঠবে না তো!কারণ, মণ্ডপে প্রবেশ করতে না-পারলেও রাস্তার বাহারি আলো, থিম-প্যান্ডেলের আকর্ষণে জনতাকে টেনে আনার পথ তো উদ্যোক্তারাই দেখিয়েছেন। যদিও রাস্তায় বেরোনো অনেকেরই যুক্তি, তাঁদের তো করোনা প্রতিষেধকের দ্বিতীয় ডোজ় হয়ে গিয়েছে!পদ এড়াতে স্বাস্থ্য দফতরের পরামর্শ: উৎসবে জমায়েত-শোভাযাত্রা এড়িয়ে এ বারের পুজো পরিবারেই সীমাবদ্ধ রাখা দরকার।

দল বেঁধে সিঁদুরখেলা না-হয় এ বার না-ই হল। ভিড় থেকে বিশেষত শিশু, বৃদ্ধ, অন্তঃসত্ত্বা ও অসুস্থদের দূরে রাখুন। টিকার জোড়া ডোজ়ই রক্ষাকবচ, এক শ্রেণির মানুষের এই ধারণা মারাত্মক ভুল, জানান ডাক্তাররা। কারণ টিকার পরেও করোনার কোপে পড়া মানুষের সংখ্যা কম নয়। শল্যচিকিৎসক দীপ্তেন্দ্র সরকারের বক্তব্য, তৃতীয় ঢেউ কিন্তু চলছে। টিকা নেওয়া জনগণের মধ্যে কোভিডের উপসর্গ এত কম থাকছে যে বোঝা যাচ্ছে না। এক বা দু’দিনের জ্বরে আরটিপিসিআর পরীক্ষাও করাচ্ছেন না কেউ।এদিকে বলা হচ্ছে কেন্দ্রের তরফে আগামী তিনমাস সাধাণতা অবলম্বন করতে।  কে শোনে কার কথা।

পুজো আসতেই মুখের মাস্ক উধাও। কেউ বা মাস্ক পড়লেও তা ঠিকভাবে পড়ছেনা। এই অসাবধানতায় কিন্তু বিপদ আনতে পারে। এবছরও লেকটাউন শ্রীভূমি নজরকাড়া থিম রেখেছে বুর্জ খলিফা করোনা এখনও পিছু  ছাড়েনি। এসেই দেখতেই অর্ধেক মানুষ ভিড় বাড়াচ্ছে। কিন্তু বিপদ বাড়তে পারে শিশুদের ক্ষেত্রে। তাদের এখনও টিকা হয়নি। সেক্ষত্রে বাবা-মায়েদের বোঝা দরকার।একদলের মত আবার দুটো টিকা নেওয়া হয়েছে নিরাপদ। কিন্তু আদৌ কি তাই. তবে হাইকোর্টের রায়কে কি আদৌ প্রাধান্য দেওয়া হচ্ছে, প্রশ্ন একটাই।

Weather- পুজোয় সুখবর,কলকাতায় বৃষ্টির সম্ভাবনা কম~জানাল আবহাওয়া দফতর

কলকাতাঃ পুজোয় সুখবর দিল আবহাওয়া দফতর। পুজোর মধ্যে শহরে বৃষ্টির সম্ভাবনা কম। কারণ উত্তর আন্দামান সাগরে যে নিম্নচাপ তৈরির সম্ভাবনা,সেটি ওডিশা ও অন্ধ্র উপকূলের দিকে সরে যাবে। 

যদিও এর আগে আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানিয়েছিল, অষ্টমী থেকে দশমী পর্যন্ত টানা বৃষ্টি হতে পারে। তারফলে  মনখারাপ হয়ে গিয়েছিল উৎসবপ্রেমী বাঙালির। 

বিস্তারিত আসছে --


Durga Puja: আমজনতা সুরক্ষা নিশ্চিত করতে তৎপর লালবাজার, নজরদারিতে পুলিশ

এবছরও করোনা আবহে দুর্গাপুজোয় যাতে কোনও প্রকার সমস্যা না হয়, তা নিশ্চিত করতে সব রকম চেষ্টা চালাচ্ছে লালবাজার। এবছর কলকাতার প্রত্যেকটি পুজো মণ্ডপে মোতায়েন থাকছে পুলিশ। আগে মূলত বড় পুজো মণ্ডপগুলির উপর বেশি নজর থাকত পুলিশের। এলাকার বারোয়ারি ছোট মণ্ডপগুলির উপর থানার পক্ষ থেকেই নজর রাখা হত। কিন্তু এই বছর লালবাজারের নির্দেশ, প্রত্যেকটি পুজো মণ্ডপে অন্তত দু’জন করে পুলিশকর্মী ডিউটিতে থাকবেন।কলকাতার ২ হাজার ৭০১টি মণ্ডপে মোতায়েন থাকছেন ২ হাজার ৫৪৫ জন অফিসার ও ১২ হাজার ৯৪৭ জন পুলিশকর্মী।

পুজোর দিনগুলিতে রাস্তায় নামবেন প্রায় ২০ হাজার পুলিশ। পুজোয় কলকাতায় যানজট এড়াতে যাতে যেখানে সেখানে গাড়ি পার্কিং না হয়, সেই ব্যাপারে ট্রাফিক পুলিশ ও প্রত্যেকটি থানাকে কড়া নির্দেশ দিলেন পুলিশ কমিশনার সৌমেন মিত্র। এদিকে আজ তৃতীয়াতে বেশ কিছু সংখ্যক পুলিশ রাতে নামবে। এবছর পুজোয় ৩১টি নতুন সিটি পেট্রোল টহল দেবে, যাতে অস্ত্র নিয়ে থাকছেন পুলিশ আধিকারিক ও পুলিশকর্মীরা।

লালবাজারের নির্দেশ, পুজো মণ্ডপগুলিতে যেন পর্যাপ্ত সংখ্যক পুলিশ রাখা হয়। বিকেল সাড়ে তিনটে থেকে ভোর, রাত বারোটা থেকে সকাল আটটা ও সকাল আটটা থেকে বিকেল চারটে, এই তিন শিফটে মণ্ডপ ও রাস্তায় পুলিশ থাকছে।


Weather Update: তৃতীয়াতে ফের বৃষ্টির ভ্রুকুটি, বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টির সম্ভাবনা

পুজোতে যে বৃষ্টিতে ভাসবে তা আর সন্দেহের অবকাশ নেই। নিম্নচাপ তৈরির সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। যার জেরে অষ্টমী থেকে দশমী পর্যন্ত দক্ষিণবঙ্গে ফের বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। প্রাথমিকভাবে যদিও বলা হয়েছে পুজোর শুরুতে বৃষ্টির সম্ভাবনা কম। কিন্তু তৃতীয়াতেও বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি হতে পারে বলে জানান হয়েছে। বাতাসে জলীয় বাষ্প বেশি থাকায় আর্দ্রতা জনিত অস্বস্তি থাকবে। এদিকে সাজ তৃতীয়া। হালাক বৃষ্টি হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে, জানিয়েছেন, আলিপুর হাওয়া অফিস। চতুর্থী থেকে সপ্তমী পরিষ্কার আকাশ থাকবে। বৃষ্টির সম্ভাবনা কমই রয়েছে।

তাপমাত্রা স্বাভাবিকের উপরে আর্দ্রতা জনিত অস্বস্তি কিছুটা থাকবে। বুধবার থেকে শুক্রবার অর্থাৎ অষ্টমী থেকে দশমী পর্যন্ত এমন আবহাওয়া থাকবে। কলকাতা, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা, পূর্ব পশ্চিম মেদিনীপুর, হাওড়া, হুগলি এই সাত জেলায় হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির পূর্বাভাস। বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টিও হতে পারে। দক্ষিণবঙ্গের বাকি জেলাতেও আংশিক মেঘলা আকাশ হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনার কথা জানান হয়েছে।

এদিকে আন্দামান সাগরে আগামী রবিবার ১০ অক্টোবর পঞ্চমীর দিন তৈরি হবে নিম্নচাপ। এটি ক্রমশ পশ্চিম ও উত্তর পশ্চিম দিকে এগিয়ে উত্তর ও দক্ষিণ ওড়িষ্যা উপকূলের দিকে যাবে। বুধ-বৃহস্পতিবার নাগাদ এটি উপকূলের কাছাকাছি চলে আসবে। সেই সময়ে বাংলা উড়িষ্যা ও অন্ধ্র উপকূলে বৃষ্টি বাড়বে।  

Breaking News: ফের তৃণমূলে ফিরছেন সব্যসাচী দত্ত! তুঙ্গে জল্পনা

কলকাতাঃ পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনে আশানরুপ ফল করতে পারেনি বিজেপি। তারপর থেকেই দলে ভাঙন শুরু হয়েছে। ভোটের আগে তৃণমূল ছেড়ে যাওয়া অনেকেই বিজেপি ছেড়ে ফের পুরানো দলে ফিরে এসেছেন। এবার কি প্রাক্তন মেয়র সব্যসাচী দত্তের পালা! শুরু হয়েছে জোড় জল্পনা। 

বিস্তারিত আসছে --


Weather Update: মহালয়ায় ফের বৃষ্টির ভ্রূকুটি!

বেশকয়েকদিন ধরেই টানা বৃষ্টি  চলছে শহরজুড়ে। যদিও আলিপুর হাওয়া অফিস জানিয়েছে বর্ষা বিদায়। কিন্তু আদতে কি তাই ? এখনই বৃষ্টির থেকে রেহাই নেই এমনই আভাস পাওয়া যাচ্ছে। দক্ষিণবঙ্গে আপাতত কয়েকদিন রোদ-ঝলমলে আবহাওয়া থাকলেও মাঝে মাঝে বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। এদিন আকাশ মেঘলাই থাকবে। রয়েছে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির পূর্বাভাসও। মহালয়ের দিনে বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকছেই। দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে বাড়ছে আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তি।


উত্তরবঙ্গের দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, কালিম্পং, আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার, দুই দিনাজপুর, মালদায় বিক্ষিপ্তভাবে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ হালকা বা মাঝারি বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা আছে। কলকাতা-সহ পার্শ্ববর্তী এলাকায় আকাশ আজ আংশিক মেঘলা থাকবে। দিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকবে ৩৩.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে ১ ডিগ্রি বেশি।


দিনের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা থাকবে ২৭.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বাতাসে আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ ৯৫ শতাংশ, ন্যূনতম ৬৭ শতাংশ। আর মাত্র কয়েকটা দিন.তারপরই উৎসবে মেতে উঠবে সকলেই।কিন্তু এর মাঝেই কি বৃষ্টি ভাসতে পারে, প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে।

CN HEADLINS- গুরুত্বপূর্ণ খবর শিরোনামে একনজরে

# কলুটোলা স্ট্রিটে আগুন। 

# হাজিরায় নারাজ ED,CBI 

# কুনালের স্থায়ী জামিন।

# চার কেন্দ্রে বিজেপির অজার্ভার।

# লক্ষিমপুরে ১৪৪ ধারা।