Petrol-Disel: সেঞ্চুরি পার করল পেট্রোল- ডিজেলের দাম

পুজোর মুখে ফের উর্দ্ধমুখী পেট্রোল, ডিজেলের দাম। এদিন মুম্বইতে পেট্রোল লিটার প্রতি ১০৯.৮৩ টাকা এবং ডিজেল লিটার প্রতি ১০০.২৯ টাকা। চেন্নাইতে পেট্রোল লিটার প্রতি ১০১.২৭ টাকা এবং ডিজেল লিটার প্রতি ৯৬.৯৩ টাকা। দিল্লিতে পেট্রোল লিটার প্রতি ১০৩.৮৪ টাকা এবং ডিজেল লিটার প্রতি ৯২.৪৭ টাকা। অন্যদিকে কলকাতায় পেট্রোল লিটার প্রতি ১০৪.২৩ টাকা এবং ডিজেল লিটার প্রতি ৯৫.৫৮ টাকা। চেন্নাইতে পেট্রোল লিটার প্রতি ১০১.২৭ টাকা এবং ডিজেল লিটার প্রতি ৯৬.৯৩ টাকা। করোনা অতিমারীতে প্রতিনিয়ত বাড়ছে পেট্রল- ডিজেলের দাম. যারফলে সাধারণ মানুষ নাস্তানাবুদ হয়ে পড়ছে।

একেই অতিমারী সময়ে অনেকের কাজ হারিয়েছে। আবার অনেকের কমেছে বেতন। যারফলে মানুষ খাবে না তেলের টাকা যোগাবে। এদিকে লাগাতার তেলের দাম বাড়ায় কিন্তু ক্ষুব্ধ হয়ে প্রতিবাদ যাচ্ছে মানুষজন। তবে কেন্দ্রের সরকারের কিন্তু হেলদোল নেই. শুধু পেট্রল- ডিজেলের দাম বাড়ছে তা তো নয়, তার পাশাপাশি বাড়ছে রান্নার গ্যাসের দাম ।

যারফলে অনেখানি সমস্যায় আমজনতা। তেলের দাম বাড়ায় তার প্রভাব পড়ছে কিন্তু জিনিসপত্রের ওপর. নিত্যদিনের সবজি বাজারে এর প্রভাব সবচেয়ে বেশি। তবে এইভাবে যদি সেঞ্চুরি পার হতে থাকে সেক্ষেত্রে ভুগতে হতে পারে আমজনতার। 

Petrol-Disel Price: ফের কলকাতায় জ্বালানির জ্বালা

উৎসবের মরসুমে ভোগাচ্ছে তেলের দাম। আন্তর্জাতিক বাজারে অপরিশোধিত তেলের দাম রেকর্ড বৃদ্ধি পাওয়ায়, তার সরাসরি প্রভাব পড়েছে ভারতের পেট্রল পাম্পগুলোতেও। রাজধানী নয়াদিল্লিতে শুক্রবারের চেয়ে শনিবার পেট্রলের দাম বেড়েছে লিটারে ২৫ পয়সা। এর ফলে দিল্লিতে পেট্রলের দাম লিটার প্রতি ১০২.১৪ টাকা।

একই ভাবে লিটারে ৩০ পয়সা দাম বেড়ে কলকাতায় পেট্রলের দাম হয়েছে ১০২.৭৭ টাকা। শুক্রবারের চেয়ে ২৪ পয়সা দাম বেড়ে শনিবার মুম্বইয়ে এক লিটার পেট্রল বিক্রি হচ্ছে ১০৮.১৯ টাকায়।গাঁধী জয়ন্তীর দিনেই দেশে সর্বকালীন রেকর্ড গড়ল পেট্রলের দাম। শনিবার নয়াদিল্লিতে এক লিটার পেট্রলের দাম ১০২ টাকা ১৪ পয়সা, সেখানে কলকাতায় এক লিটার পেট্রল বিকোচ্ছে ১০২ টাকা ৭৭ পয়সায়। মুম্বইয়ে দাম ১০৮ টাকা ১৯ পয়সা।

LPG Gas Saving Tips: গ্যাসের দামে কুপোকাত,এই সহজ পদ্ধতিতে ব্যবহার করুন !

প্রতিমাসেই বাড়ছে রান্নার গ্যাসের দাম । মধ্যবিত্তের হেঁসেলে জ্বালা। প্রতিনিয়ত ভাবতে হচ্ছে কিভাবে গ্যাস বাঁচিয়ে রান্না করা যাবে। এমনিতেই ভর্তুকি বন্ধ। আর তাতেই মধ্যবিত্তের আরও এক সমস্যা। করোনা অতিমারীর জের অনেকের কাজে পরিস্থিতি সেভাবে ভালো। অর্থনীতিতে একটা বিশাল ধাক্কা। তবে গ্যাসের দাম বাড়তে কপালে চিন্তার ভাঁজ যে কিভাবে প্রতিটা দিনে গ্যাস সাশ্রয় করা যাবে। কিভাবে গ্যাস সাশ্রয় করবেন দেখা যাক: 

বিশেষজ্ঞরা বলছেন রান্না করতে হবে অল্প আঁচে, প্রয়োজনে বেশি সময় নিয়ে, অর্থাৎ গ্যাস ওভেন সিম করে। এতে গ্যাস খরচ যেমন কমবে তেমনই রান্না সুসিদ্ধও হবে।ফ্রিজ থেকে শাকসবজি বের করে কড়াইয়ে দিয়ে দিলে গ্যাস খরচ হয় বেশি। বিশেষজ্ঞরা বলেন ফ্রিজ থেকে বার করার পর যে কোনও জিনিসকেই স্বাভাবিক তাপমাত্রায় আসার সময় দিতে হবে।

এছাড়া রান্নার সময় প্রেসার কুকার ব্যবহার করুন। তাছাড়া স্টিলের বাসন ব্যবহার করতেই পারেন। রান্না করার আগে কাঁচা সবজি, মাছ-মাংস বা প্রয়োজনীয় মশলা সবাই এক জায়গায় করে রাখুন। রান্না চাপানোর পর এক একটি জিনিস খুঁজে আনতে গেলে অযথা সময় নষ্ট হবে, ফলে গ্যাসও খরচ হবে বেশি। গ্যাস বাঁচাতে বিকল্প মাইক্রোওভেন, ওটিজি, ইন্ডাকশন ব্যবহার করতে পারেন। এইসময়ের কথা ভেবে তাই এইভাবে গ্যাস সাশ্রয় করতে পারেন। 


Mustard Oil: জ্বালানির পর সর্ষের তেলের দামে কোপ

জ্বালানি তেলের দাম বেড়ে তো সেঞ্চুরি হয়েই গেছে আগেই। ন’শো পেরিয়ে হাজার টাকার দিকে পা বাড়াচ্ছে রান্নার গ্যাসের সিলিন্ডার। আর এই সবের মধ্যে তুলনায় নিঃশব্দে ডাবল সেঞ্চুরি সেরে ফেলেছে সর্ষের তেল। রসিকতার ছলে অনেক বলছেন, ঝাঁঝে চোখে জল এলে, এত দিন তাকে ভাল আর খাঁটি সর্ষের তেল বলে মেনেছে বাঙালি।

এবার দামেও চোখে জল আসার পালা।শুক্রবার কলকাতায় সর্ষের তেল বিক্রি হয়েছে ১৭৫ থেকে ২০০ টাকা কিলোগ্রাম দরে। এক লিটার প্যাকেটবন্দি ব্র্যান্ডেড তেলের দর আরও বেশি। জেলাতেও সর্ষের তেলের দাম ঘোরাফেরা করছে ২০০ টাকার আশেপাশেই। কেন্দ্রীয় সরকারের খাদ্য ও উপভোক্তা বিষয়ক মন্ত্রকের তথ্য অনুযায়ী, গত দু’এক মাস ধরেই ভোজ্য তেলের দাম ঊর্ধ্বমুখী।শুক্রবার কলকাতা ও সংলগ্ন এলাকায় সর্ষের তেলের গড় দাম ছিল প্রতি কিলোগ্রামে ১৭৭ টাকা।

সাধারণ মধ্যবিত্ত বাঙালির ক্ষেত্রে সমস্যার মধ্যে পড়তে হচ্ছে। বিষয়ে সরকারি কর্তাদের মুখে কুলুপ। বিরোধীরা দুষছেন মোদী সরকারের নীতিকে। কংগ্রেসের অভিযোগ, কেন্দ্র সম্প্রতি অত্যাবশকীয় পণ্য আইনে সংশোধন করে চাল, ডাল, আলু, পেঁয়াজের মতো ভোজ্য তেলকেও অত্যাবশকীয় পণ্যের তালিকা থেকে বাদ দিয়েছে। নতুন আইন অনুযায়ী, পাঁচ বছরের গড় দামের তুলনায় ৫০ শতাংশের বেশি দাম বাড়লে একমাত্র তবেই সরকার হস্তক্ষেপ করবে।

ভারতের বাজারে ড্রাই ফ্রুটসের আকাশছোঁয়া দাম

তালিবানের দখলে এখন আফগানিস্তান। তার জেরে বিঘ্নিত হয়েছে এবার ড্রাই ফ্রুটসের আমদানি। এবার নয়াদিল্লিতে বেড়েছে দাম। এমনটাই জানিয়েছে সংবাদসংস্থা এএনআই। এক ব্যবসায়ী জানিয়েছেন, আফগানিস্তানের আলমন্ডের দাম বেড়ে গিয়েছে। প্রতি কেজিতে দাম বেড়েছে ৫০০ টাকা থেকে ১,০০০ টাকা। যার ফলে কলকাতায় বাজারে এর প্রভাব পরছে। ড্ৰাই ফ্রুটের দাম।

বাদাম, পেস্তা থেকে কিসমিস, কেজি প্রতি দাম বেড়েছে ২০০-৩০০ টাকা। দাম আরও বাড়ার আশঙ্কা করছেন ব্যবসায়ীরা।  এদিকে কাবুল দখল নেওয়ার পর ভারতের সঙ্গে সমস্ত রকমের আমদানি-রফতানি বন্ধ করেছে তালিবান। ফেডারেশন অফ এক্সপোর্ট অর্গানাইজেশন (FIEO)-এর ডিরেক্টর জেনারেল ডক্টর অজয় সহায় জানান, পাকিস্তান হয়ে যে পথ ধরে ভারতে পন্য আসে এবং এখান থেকে যায়, সেই পথ বন্ধ করে দিয়েছে তালিবানরা। ডক্টর অজয় সহায় জানান, আফগানিস্তানের অন্যতন বড় বাজার হল ভারত। আফগানিস্তানে চিনি, সার, চা, কফি, মশলা রফতানি করে ভারত।
আফগানিস্তান থেকে মূলত ড্রাই ফ্রুটস, গাম এবং পেঁয়াজ আমদানি করে ভারত। আমদানি-রফতানি ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিদের আশা, হয়ত শীঘ্রই স্বাভাবিক হবে পরিস্থিতি। আফগানিস্তান তালিবানের দখলে আসতেই তার প্রভাব পরল বিভিন্ন খাদ্যদ্রব্যের ওপর. 

পেট্রোলের দাম পেরোল ১০১ টাকা, বাড়ছে ডিজেলের দাম

প্রতিনিয়ত বাড়ছে পেট্রোলের দাম।  একদিকে যখন করোনা অতিমারি চলছে,তখন শহরবাসী জ্বালানির যন্ত্রনায় ভুগছে। অনেকেই কর্মহারা,কেউবা ঠিকমত বেতন পাচ্ছেনা, এর মধ্যে যেভাবে বাড়ছে পেট্রল-ডিজেলের দাম তা বলাবাহুল্য। শনিবার শহরবাসীকে এক লিটার পেট্রলের জন্য খরচ করতে হবে ১০১ টাকা ১ পয়সা। লিটারপিছু ৩৯ পয়সা বাড়ল দাম। বেড়েছে ডিজেলের দামও। লিটারপ্রতি ৩২ পয়সা বেড়ে কলকাতায় ডিজেলের নতুন দাম ৯২ টাকা ৯৭ পয়সা।

তবে এই জ্বালানির দাম বাড়তেই ইতিমধ্যে প্রতিবাদে সরব হচ্ছে বহু মানুষ। এদিকে পেট্রোলের দাম বাড়তেই প্রভাব পড়ছে রোজকার সবজি বাজারের উপর । মানুষ তাহলে খাবে কি, প্রতিনিয়ত বাড়াচ্ছে  চিন্তা।

ফের মহার্ঘ্য জ্বালানির দাম

কলকাতা: ফের বাড়ল জ্বালানির দাম।  যদিও রান্নার গ্যাসের দাম বাড়ার পাশাপাশি বেড়েই চলেছে জ্বালানির দাম। এদিকে শুক্রবার কলকাতায় পেট্রোলের দাম ৪০ পয়সা বেড়ে কলকাতায় পেট্রলের দাম হয়েছে ৯০ টাকা ৪ পয়সা প্রতি লিটার। দেশের অন্যান্য মহানগরগুলির মধ্যে মুম্বইয়ে জ্বালানি সবচেয়ে বেশি দামে বিকোচ্ছে। আজ পেট্রলের দাম লিটারপ্রতি ১০৫ টাকা ২৪ পয়সা। চেন্নাইয়েও প্রথমবার পেট্রলে সেঞ্চুরি পেরিয়েছে দাহ্য তেল। 

দিল্লিতে পেট্রলের দাম লিটারপ্রতি ৯৯ টাকা ১৬ পয়সা দরে। তবে এদিন দেশের চার মহানগরেই অপরিবর্তিত ডিজেলের দাম। কলকাতা, দিল্লি, মুম্বই এবং চেন্নাইয়ে ডিজেল বিকোচ্ছে যথাক্রমে ৯২ টাকা ৩ পয়সা,৮৯ টাকা ১৮ পয়সা, ৯৬টাকা ৭২ পয়সা এবং ৯৩ টাকা ৭২ পয়সা। একদিকে করোনা। অন্যদিকে লকডাউন থাকায় বহু মানুষ কর্মহারা। এদিকে প্রতিনিয়ত বাড়ছে জ্বালানির  দাম। যারফলে সাধারণ মানুষ যথেষ্ট ভোগান্তির মধ্যে পড়ছে বলা যায়।

ফের অগ্নিমূল্য পেট্রোল-ডিজেল

কলকাতা: রবিবার ফের অগ্নিমূল্য জ্বালানির দাম । বেশ কয়েকদিন ধরেই শহরে জ্বালানির দাম একেবারে আকাশছোঁয়া। কলকাতায় পেট্রোলের দাম একেবারে সেঞ্চুরি হাকাল। দেশে গতকয়েকদিন ধরে বেড়েই চলেছে পেট্রল-ডিজেলের দাম। সেইমত করে রবিবার বাড়ল পেট্রোল -ডিজেলের দাম । আজ লিটার প্রতি পেট্রোলের দাম ২৮ পয়সা। ডিজেলের দাম ও বেড়েছে ২৮ পয়সা। কলকাতায় আজ পেট্রোলের দাম ৯৭ টাকা ১২ পয়সা। ডিজেলের দাম ৯০ টাকা ৮২ পয়সা।


এদিন দিল্লিতে পেট্রোলের দাম ৯৭ টাকা ২২ পয়সা। মুম্বইতে পেট্রোলের দাম ১০০ এর ঘরে পৌঁছেছে। একেই করোনা পরিস্থিতি, মূল্যবৃদ্ধিতে পরিবহন সংস্থাগুলি পড়েছে চরম বিপর্যয়ে। অন্যদিকে লকডাউন থাকায় এখন যান চলাচল বন্ধ। এরকমধ্যে পেট্রোলের দাম বাড়ায় সমস্যার মধ্যে সাধারণ মানুষ বলা যায়।

সোমবার ফের ঊর্ধ্বমুখী পেট্রোলের দাম

কলকাতা: সপ্তাহের প্রথম দিনেই ফের বাড়ল পেট্রল-ডিজেলের দাম। সোমবার কলকাতাতে পেট্রোলের দাম ঊর্ধ্বমুখী। এদিকে ডিজেলের দাম রেকর্ড ভেঙে ৯০ পেরল। এছাড়া মুম্বই সহ  আরও অন্যান্য জায়গাতেও বাড়ছে পেট্রোলের দাম। মুম্বই , রাজস্থানে পেট্রোলের দাম ১০০ ছুঁইছুঁই। দেশে পেট্রলের দাম লিটারপ্রতি ২৮ পয়সা এবং ডিজেলের দাম লিটার প্রতি ২৯ পয়সা করে বেড়েছে। ফলে কলকাতায় পেট্রলের দাম হয়েছে লিটারে ৯৬ টাকা ৩৪ পয়সা।

ডিজেলের দাম লিটারে ৯০ টাকা ১২ পয়সা। এই প্রথমবার ৯০ এর ঘরে প্রবেশ করল ডিজেলের দাম। একদিকে করোনা অতিমারি, অন্যদিকে লকডাউন। পেট্রোল- ডিজেলের দাম আকাশছোঁয়া। এদিকে সরকারের  নেই কোনওরকম হুঁশ। নিত্যদিন চরম ভোগান্তিতে পরছে সাধারণ মানুষ বলা যায়।

আকাশছোঁয়া জ্বালানির দাম

কলকাতা : ফের রবিবার শহর কলকাতায় পেট্রোলের দাম আকাশছোঁয়া। বাঙালি বিধানসভা ভোট মিটতেই রোজি নতুন করে দেশে পেট্রোলের দাম ছাড়িয়ে যাচ্ছে। রবিবার কলকাতায় পেট্রোলের দাম লিয়াতে ৯৫ টাকা। এদিকে ডিজেলের দাম ৮৯ টাকা ছুঁইছুঁই। ইতিমধ্যে রাজস্থান সহ আরও ৬ টি রাজ্যে পেট্রোলের দাম ১০০ ছাড়িয়েছে। অন্যদিকে মুম্বইয়ে সেঞ্চুরি পেট্রোলের দাম। পণ্য ও গণ পরিবহণে ডিজেল ব্যবহৃত হওয়ায় জিনিসের দাম বাড়ছে। কেন্দ্র অবশ্য এ জন্য বিশ্ব বাজারে অশোধিত তেলের দর বৃদ্ধি ও রাজ্যগুলির চড়া ভ্যাট-কেই দায়ী করেছে। বিরোধীদের পাল্টা দাবি, মোদী জমানায় যে তেলে বিপুল শুল্ক বৃদ্ধিতে দুর্ভোগ বেড়েছে মানুষের। করোনা অতিমারীতে যে হারে বাড়ছে পেট্রোলের দাম তাতে চরম ভোগান্তির মধ্যে পড়তে হচ্ছে সাধারণ মানুষ।