Weather Update: কয়েক ঘন্টার মধ্যে ফের ভারী বৃষ্টির সতর্কতা

দিন-ভর চলছে বৃষ্টি। শনিবার সকালেই বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টিতে সতর্কতা জারি করল আলিপুর আবহাওয়া দফতর৷ আগামী কয়েন ঘণ্টার মধ্যে ঝেপে বৃষ্টি আসছে পূর্ব বর্ধমান জেলায়। তবে এদিন মালদা, উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুরেও বৃষ্টির সতর্কতা জারি হয়েছে৷ উত্তরবঙ্গের একাধিক জেলায় যেমন দার্জিলিং, কালিম্পং, জলপাইগুড়ি, কোচবিহার, আলিপুরদুয়ারে আজ ভারী বৃষ্টির কথা আগেই জানিয়েছিল হাওয়া অফিস৷ এছাড়াও বীরভূম, মুর্শিদাবাদেও ফের বৃষ্টি হতে পারে বলে খবর৷ দিকে, ডিভিসির ছাড়া জলে রাজ্যের একাধিক জায়গা প্লাবিত হয়েছে৷

প্রশাসন সূত্রে খবর, ১ লক্ষ্য ৩৫ হাজার কিউসেক জল ছাড়া হয়েছে। এছাড়াও, মাইথন থেকে ৮০ হাজার কিউসেক ও পাঞ্চেত থেকে ৩৫ হাজার কিউসেক জল ছাড়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। যদিও ডিভিসির সূত্রে জানানো হয়েছে, ঝাড়খণ্ডে ভারী বৃষ্টির কারণেই ছাড়া হয়েছে জল।  বৃষ্টি না হলে জল ছাড়ার পরিমান কমানো হতে পারে।

কলকাতা ও পার্শ্ববর্তী এলাকায় আজ দিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকবে ৩৪.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা থাকবে ২৬.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বাতাসে আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ সর্বাধিক ৯৭ শতাংশ,  ন্যূনতম ৫৭ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় বৃষ্টি হয়নি। 


Train Cancel: লাগাতর বৃষ্টিতে ট্রেন চলাচল ব্যাহত, জানুন কোন ট্রেন কখনা!

নিম্নচাপের জেরে একটানা বৃষ্টি চলছে শহরজুড়ে। রবিবার থেকে শুরু বৃষ্টি। সোমবার দিন-ভর চলেছে বৃষ্টি। রাস্তায় জলমগ্গ পরিস্থিতি।এরমধ্যে যান চলাচলে অনেকটাই সমস্যা হয়. সোমবারের বৃষ্টিতে হাওড়ার কারশেডে জল জমে যায়.যার জেরে ট্রেন চলাচল ব্যাহত হয়. এদিকে ট্রেন বাতিল হয় বেশকয়েকটা.সেইমত আজ ও ভোরে হাওড়া থেকে ছাড়েনি হাওড়া টিটাগড় স্পেশাল, হাওড়া-দিঘা স্পেশাল ট্রেন। হাওড়া-পুরী স্পেশাল এদিন সকাল ৯.২০ মিনিটে হাওড়া থেকে ছাড়ার পরিবর্তে ১০.২০ মিনিটে সাঁতরাগাছি স্টেশন থেকে ছাড়বে।

হাওড়া-যশবন্তপুর স্পেশাল হাওড়া থেকে ১০.৫০-এর পরিবর্তে সাঁতরাগাছি থেকে ১১-৫০ মিনিটে ছাড়বে। হাওড়া-রাঁচি স্পেশাল ১২,৫০ মিনিটে হাওড়ার পরিবর্তে  বেলা ২.৩০-এ খড়গপুর স্টেশন থেকে ছাড়বে।এছাড়া কলকাতা থেকে জম্মু-তাওয়াই স্পেশ্যাল বেলা ১১.৪৫ এ ছাড়ার কথা ছিল, কিন্তু ছাড়বে বেলা ২.৪৫ মিনিটে।

কলকাতা-অমৃতসর স্পেশ্যাল বেলা ১২.১০ এ ছাড়ার কথা ছিল, রওনা দেবে দুপুর ৩.২০ তে। সময় পরিবর্তন হয়েছে হাওড়া মালদা স্পেশ্যালেরও। দুপুর ৩.২৫ এর পরিবর্তে ছাড়বে বিকেল সাড়ে ৪টেয়। হাওড়া সেকেন্দ্রাবাদ এক্সপ্রেস স্পেশ্যাল হাওড়ার পরিবর্তে ছাড়বে শালিমার স্টেশন থেকে সকাল ৯.৩৫ মিনিটে। জল জমতে ট্রেন বাতিলের জের.যাত্রীদের চরম ভোগান্তির মধ্যে পড়তে হচ্ছে।  

প্রবল বর্ষণে ভাসছে রানওয়ে, ব্যাহত বিমান পরিষেবা

সোমবার থেকে টানা বৃষ্টির  শুরু হয়েছে। এদিকে মঙ্গলবার অর্থাৎ আজ সকাল থেকেই বৃষ্টি বেড়েছে।মূলত গভীর নিম্নচাপের জেরেই এই বৃষ্টি আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে। দফায় দফায় বৃষ্টিতে এলাকার নিচু জায়গাগুলি প্রায় ভাসছে।এদিকে গোটা কলকাতার রাস্তা জলমগ্ন পরিস্থিতি। সকাল থেকে বৃষ্টি হওয়ার জেরে কলকাতা বিমানবন্দরে বিমান চলাচলে ব্যাঘাত ঘটেছে। যদিও কোনও বিমান বাতিল করা হয়নি।তবে একটু দেরি করে চলছে। বিমানবন্দরের ভিতরেও প্রায় জল দাঁড়িয়েছে।

দক্ষিণবঙ্গের কয়েকটি জেলায় আজ ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনার কথা আগেই জানিয়েছিল আলিপুর আবহাওয়া দফতর। বঙ্গোপসাগরে ঘূর্ণাবর্তের জেরে বাংলা ও ওড়িশার উপকূল এলাকায় ভারী বৃষ্টি শুরু হয় মঙ্গলবার সকাল থেকে। কলকাতা-সহ একাধিক জেলায় মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টিপাতের সঙ্গে ঝোড়ো হাওয়ার দাপটও চলে।

কলকাতার প্রতিকূল পরিস্থিতি ও উড়ানে বিলএমবি প্রেক্ষিতে ভিস্তারার এয়ারলাইন্সের তরফে একটি সতর্কবার্তা জারি করা হয়। টুইটে বলা হয়েছে, "কলকাতায় ভারী বৃষ্টির কারণে জলমগ্ন হয়েছে রানওয়ে। বিমানবন্দরে আসতে গিয়ে যাত্রীদের যানজটের মুখেও পড়তে হচ্ছে। এই কয়েকটি বিষয় মাথায় রেখে উড়ানের সময় বেশ কিছুটা পিছিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।"  


Weather Today: দক্ষিণে বাড়বে গরম,উত্তরে ভারী বৃষ্টি

বৃষ্টির থেকে রক্ষা পাচ্ছে না উত্তরবঙ্গ। রবিবারও কোচবিহার, জলপাইগুড়িতে আগামী ১-২ ঘণ্টার মধ্যে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ ঝেঁপে বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে। দক্ষিণ বঙ্গে আজ সারাদিনই আদ্রতাজনিত অস্বস্তি বজায় থাকবে৷ তবে সোম, মঙ্গলবার ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে রাজ্যজুড়েই। সোমবার উত্তর বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ তৈরির সম্ভাবনার কথা জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর৷

এর জেরে দক্ষিণবঙ্গজুড়ে সোম ও মঙ্গলবার বৃষ্টি হতে পারে। মঙ্গলবার থেকে উত্তরবঙ্গেও বাড়বে বৃষ্টি। উপকূলবর্তী এলাকায় এর প্রভাব বেশি থাকবে৷ তাই মৎসজীবীদের সমুদ্রে যেতে নিষেধ করা হয়েছে। হাওয়া অফিস জানিয়েছে, নিম্নচাপের প্রভাবে ভারি বৃষ্টি হবে উপকূলের তিন জেলা উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা, পূর্ব মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, পশ্চিম মেদিনীপুর, হাওড়া, হুগলি এবং নদীয়াতে।

আজ কলকাতা ও পার্শ্ববর্তী এলাকায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকবে ৩৪ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশেপাশে, যা স্বাভাবিকের থেকে ২ ডিগ্রি বেশি এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা থাকবে ২৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশেপাশে।তবে এখনই বৃষ্টি থেকে রেহাই নেই।

Weather Update: লম্বা ইনিংসে চলবে বর্ষা!

বৃহস্পতিবার রাত থেকেই বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি চলছে কলকাতা সহ সংলগ্ন এলাকায়। আলিপুর আবহাওয়া দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, শুক্রবারও শহরে বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকছে। এদিন আংশিক মেঘাচ্ছন্ন থাকবে শহরের আকাশ। পাশাপাশি, বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি হতে পারে কলকাতায়। এদিকে দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলা এদিন ভিজতে পারে, জানিয়েছে আলিপুর। IMD সূত্রে জানা গিয়েছে, দুই ২৪ পরগনা, পূর্ব মেদিনীপুর, হাওড়া, হুগলি, পুরুলিয়া, ঝাড়গ্রাম, পশ্চিম মেদিনীপুর, বাঁকুড়া, পূর্ব ও পশ্চিম বর্ধমান, বীরভূম, মুর্শিদাবাদ এবং নদিয়ায় আজ অর্থাৎ শুক্রবার হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাত হতে পারে।

জানা গিয়েছে, আগামী ৩১ অগাস্ট পর্যন্ত এরকমই থাকবে দক্ষিণবঙ্গের আবহাওয়া। তবে ১ সেপ্টেম্বর থেকে কিছুটা হলেও বদল আসবে দক্ষিণবঙ্গের আবহাওয়ায়। যদিও নিম্নচাপের জের এর আগেই কলকাতা সহ বিভিন্ন জেলায় জেলায় মুশুলধারে বৃষ্টি হতে দেখা গেছে। এদিকে উত্তরবঙ্গে ব্যাপক বৃষ্টিপাত শুরু হয়েছে গতকাল থেকেই।

আলিপুর জানিয়েছে, এই মুহূর্তে পশ্চিমবঙ্গ সংলগ্ন হিমালয়ের পাদদেশে অবস্থান করছে বর্ষা। যার জেরে প্রবল বৃষ্টি শুরু হয়েছে পাহাড়ে। গত ২৪ ঘণ্টায় পুন্ডিবাড়িতে ১৬ সেন্টিমিটার, মাথাভাঙ্গা এবং বারোভিসায় ১৫ সেন্টিমিটার, কুমারগ্রামে ১৪ সেন্টিমিটার, চিপানে ১৩ সেন্টিমিটার, দার্জিলিং এবং আলিপুরদুয়ারে ১১ সেন্টিমিটার, নেওড়ায় ৯ সেন্টিমিটার, শিলিগুড়ি এবং নাগরাকাটায় ৮ সেন্টিমিটার, বাগড়াকোট এবং সোরেঙে এদিন গড়ে ৭ সেন্টিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে। এদিনও উত্তরবঙ্গে সতর্কতা জারি করা হয়েছে। তবে এখনই বৃষ্টি থেকে রেহাই নেই. 

ফের বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টির সতর্কতা

আপাতত বৃষ্টি কমার কোনও লক্ষণ নেই রাজ্যে।  মৌসুমী অক্ষরেখা বালাসোর হয়ে বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে।  এর ফলে বাংলা সংলগ্ন বিহারে ঘূর্ণাবর্ত সৃষ্টি হয়েছে। তাই এ সপ্তাহ বৃষ্টি মাথায় নিয়েই দিন কাটবে রাজ্যবাসীর এমনটাই আলিপুর আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর। মেঘাচ্ছন আকাশ ও বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে জানালো আলিপুর আবহাওয়া দফতর। যদিও আগামী এক-দু'ঘণ্টার মধ্যে কালো মেঘে ঢাকতে চলেছে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের বিস্তীর্ণ উপকূল।

আলিপুর আবহাওয়া দফতরের তরফে বলা হয়েছে পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর, দক্ষিণ ২৪ পরগণা, নদিয়া, পূর্ব বর্ধমান, উত্তর ২৪ পরগণা এবং হুগলিতে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ মাঝারি বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। এদিকে দক্ষিণবঙ্গের পাশাপাশি উত্তরবঙ্গেও ভারী বর্ষণের পূর্বাভাস রয়েছে। ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টি হবে কোচবিহার এবং আলিপুরদুয়ারে। এছাড়াও দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, কালিম্পংয়েও ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। তবে বেশ কয়েকদিন ধরেই ঘূর্নাবাতের জের জেলায় জেলায় বৃষ্টির দাপট ছিল. এদিকে আগামী সপ্তাহ থেকে উত্তরবঙ্গে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা।তবে এখনই বৃষ্টি থেকে রেহাই নেই জানালো হাওয়া অফিস।

ফের ভারী বৃষ্টির পূর্ভাবাস!

আজ ও কলকাতায় আংশিক মেঘলা আকাশ থাকবে জানালো আলিপুর আবহাওয়া দফতর। দু-এক পশলা বজ্রবিদ্যুৎ-সহ হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। বাতাসে জলীয় বাষ্প থাকায় আর্দ্রতা জনিত অস্বস্তিও বজায় থাকবে কলকাতা ও পার্শ্ববর্তি এলাকায়। যদিও বেশকয়েকদিন ধরেই ঘূর্ণাবতার জের একাধিক জেলায় ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টি হয়েছে। এর পাশাপাশি কলকাতায় হালকা-থেকে মাঝারি বৃষ্টি হতে দেখা গেছে।

যদিও মৌসুমী অক্ষরেখা এখনও সক্রিয় রাজ্যে। আলিপুর আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, জামশেদপুর ও দীঘা হয়ে বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। ফলে দক্ষিণা বাতাস শক্তিশালী হওয়ায় প্রচুর জলীয় বাষ্প ঢুকছে রাজ্যে। জেলায় জেলায় তাই বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। গতকাল থেকেই বিক্ষিপ্তভাবে বিভিন্ন জায়গায় বৃষ্টি চলছে। ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে উত্তরের জেলাগুলোতে। বৃহস্পতিবার আলিপুরদুয়ার, কোচবিহারে প্রবল বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে। বৃষ্টি হতে পারে প্রায় ২০০ মিলিমিটার-এর বেশি। ভারী বৃষ্টি হতে পারে দার্জিলিং, কালিম্পং এবং জলপাইগুড়িতে। ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনার কথা জানিয়েছে জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার, কোচবিহারে। এছাড়াও মালদা উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুরে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ মাঝারি বৃষ্টির পূর্বাভাস আছে। বৃষ্টি হলেও তবে কমবেনা অস্বস্তিভাব.

দফায় দফায় আজও ভারী বৃষ্টি

বেশকয়েকদিন লাগাতার বৃষ্টি চলছে। উত্তরবঙ্গে এখনই থামছে না ভারী বৃষ্টি। আগামী সোমবার পর্যন্ত রাজ্যের উত্তরের জেলাগুলিতে ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে। দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে অবশ্য বিক্ষিপ্তভাবে বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে। আলিপুর আবহাওয়া দফতরের তরফে জানানো হয়েছে, আপাতত বিহারের উপর একটি ঘূর্ণাবর্ত অবস্থান করছে। বিহার থেকে উত্তর উপকূলীয় অন্ধ্রপ্রদেশে উপরে বিস্তৃত আছে মৌসুমি অক্ষরেখা।

তার প্রভাবে আগামী কয়েকদিন উত্তর-পূর্ব ভারত এবং হিমালয়ের পাদদেশীয় বাংলায় ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিপাত চলবে। এদিকে বৃহস্পতিবার অর্থাৎ আজও উত্তরবঙ্গের পাঁচ জেলায় (দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, কালিম্পং, কোচবিহার এবং আলিপুরদুয়ার) ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিপাত (৭০-২০০ মিলিমিটার) হতে পারে। বাকি তিন জেলায় ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে। তবে সেখানে বৃষ্টির পরিমাণ কম হবে। কয়েক জায়গায় বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টি হতে পারেষ। আগামিকাল (শুক্রবার) থেকে সোমবার পর্যন্ত দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, কালিম্পং, কোচবিহার, আলিপুরদুয়ার এবং দুই দিনাজপুরে ভারী থেকে অতি ভারী বর্ষণ হতে পারে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে হাওয়া অফিস। যদিও এখনই বৃষ্টির হাত থেকে নিস্তার নেই বলা চলে.

বুধবার থেকে ফের ভারী বর্ষণ

কলকাতায় আজ আকাশ মেঘলা থাকবে। কলকাতায় বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস দিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। তবে আজ শহরে ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা নেই বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর। হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাত হবে আজ বেশ কয়েকদিন ধরেই বিক্ষিপ্তভাবে বৃষ্টি হয়েছে দক্ষিণবঙ্গে।

রবিবার থেকে এই বৃষ্টির কমার কথা জানিয়েছিল আবহাওয়া দফতর। সেই অনুযায়ী আলিপুর আবহাওয়া দফতরের তরফে এদিন জানানো হয় যে আজ দক্ষিণবঙ্গে বিক্ষিপ্তভাবে বৃষ্টি হবে। তবে বুধবার থেকে ফের ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানানো হয়। এদিকে আজ উত্তরবঙ্গে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা। যদিও দক্ষিনবঙ্গে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির সম্ভাবনা। তবে এখনই এই বৃষ্টি থামবেনা জানালো হাওয়া অফিস।