জি-৭ বৈঠকে নজরে ভারত

করোনা অতিমারিকে  সামনে রেখে চলতি বছরেই জি-৭ বৈঠক অনুষ্ঠিত হতে চলেছে। আগামীকাল থেকে লন্ডনে জি-৭ গোষ্ঠীভুক্ত রাষ্ট্রগুলির শীর্ষ বৈঠক। যদিও আগামী ১২ ও ১৩ জুন বৈঠকে আমন্ত্রণ থাকবেন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। যদিও তিনি সশরীরে উপস্থিত থাকবেন না। ভার্চুয়ালি বৈঠকে উপস্থিত থাকবেন। এবছরের বৈঠক গুরুত্বপূর্ণ। এই বৈঠকের দিকে তাকিয়ে গোটা বিশ্ব। ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী এই বছরের সম্মেলনে শুধুমাত্র ভারতকে ডেকেছেন তা  নয়। সঙ্গে তিনি আমন্ত্রণ জানিয়েছেন দক্ষিণ কোরিয়া, অস্ট্রেলিয়া এবং দক্ষিণ আফ্রিকাকেও। বিদেশ মন্ত্রক সূত্রের মত, বিশ্বের বড় গণতন্ত্রগুলিকে সঙ্গে নিয়ে ব্রিটেন একটি জোট তৈরি করতে চায়, যে জোট করোনা পরিস্থিতির মোকাবিলা করে, এমন পরিবেশবান্ধব এক উজ্জ্বল পৃথিবী তৈরি করতে চাইছে। আরেকটা দিক এই অতিমারিতে অর্থনীতির একটা দিকে উঠে আসছে, সব মিলিয়ে  দেখার বিষয় এই বৈঠকে ভারত কতটা সুযোগ-সুবিধা পাচ্ছে।

আগামী সপ্তাহে জি-৭ সম্মেলন, ভার্চুয়ালি যোগ প্রধানমন্ত্রীর

করোনা আবহে চলতি সপ্তাহে বসতে চলেছে জি-৭ সম্মেলন। যদিও ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের ডাক পেয়েই এই শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দেবেন নরেন্দ্র মোদি। তবে এই বৈঠক হবে ভার্চুয়ালি। আগামী ১২ ও ১৩ জুন এই বৈঠক করা হবে উপস্থিত থাকবেন জি-৭ অন্তর্ভুক্ত দেশগুলির রাষ্ট্রনেতারা। বৃহস্পতিবার অর্থাৎ আজ একটি সাংবাদিক সম্মেলন হয়,এরপর জানানো হয়েছে, এই সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি যোগ দেবে।

পৃথিবীর জলবায়ু পরিবর্তন, আবহাওয়ার সংকট দূর হওয়া সম্ভব কিনা। সেইসমস্ত বিষয় নিয়ে আলোচনা সারবেন প্রধানমন্ত্রী। একমাস আগে বিদেশমন্ত্রক জানিয়েছিল, দেশের করোনা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক হওয়ায় ব্রিটেনের সম্মেলনে উপস্থিত থাকবেন না প্রধানমন্ত্রী। তবে এবার তাঁর ভারচুয়ালি উপস্থিত থাকার কথা জানানো হয়েছে।