৭ মার্চ ব্রিগেডে মোদির সভার আগে বাতিল হল অমিত শাহ-র দুদিনের সফর

নবান্নের দখলে কোমর বেঁধে নামতে চলেছে বঙ্গ বিজেপি। ভোট ঘোষণা হয়ে গিয়েছে ইতিমধ্যেই, এবার রাজনৈতিক দলগুলি প্রার্থী তালিকা চুরান্ত করতে ব্যস্ত। এই পরিস্থিতিতে ২ ও ৩ মার্চ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর দুদিনের কলকাতা সফরে আসার কথা ছিল। বিজেপি সূত্রে খবর, শেষ মুহূর্তে তাঁর সফর বাতিল করা হয়েছে। কারণ হিসেবে বলা হচ্ছে কলকাতায় ব্রিগেডে জনসভার দিকেই ফোকাস করছে বঙ্গ বিজেপি। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ওই সভার প্রধান বক্তা। তাই ওই সভা সফল করতে সর্বশক্তি দিয়ে ঝাঁপাতে চাইছে বঙ্গ বিজেপি। অমিত শাহ নিজেই এই নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানা যাচ্ছে। সূত্রের খবর, অমিত শাহ নিজেই সফর বাতিল করেছেন। তবে এটা বাতিল বলতে নারাজ বিজেপি নেতারা। তাঁদের কথায়, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সফর স্থগিত হয়েছে, ব্রিগেডে প্রধানমন্ত্রীর সভার পর তিনি ফের আসবেন রাজ্যে। বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানিয়েছেন, ‘আসন্ন ৭ মার্চ ব্রিগেড সভাকে ঐতিহাসিক করাই আমাদের লক্ষ্য। তাঁর আগে কোনও বড় কর্মসূচি করতে চাইছেন না অমিত জি। তাই এই সপ্তাহে আর তিনি আসবেন না। ৭ মার্চের পরে তিনি আসবেন বলে কথা দিয়েছেন’। উল্লেখ্য, এর আগেও একবার অমিত শাহর কর্মসূচি বাতিল হয়েছিল গত জানুয়ারিতে। সেবার অবশ্য দিল্লির ইজরায়েলি দূতাবাসে বিস্ফোরণের জন্যই সফর বাতিল হয়েছিল।

দিলীপ ঘোষের সঙ্গেই মর্নিং ওয়াক, জল্পনা বাড়ালেন দেবাশিস জানা

নির্বাচনের আগে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি সেরে নিচ্ছেন শাসক ও বিরোধী দলের নেতৃত্ব। এরমধ্যেই জোরকদমে চলছে দলবদলের পালা। এই স্রোতের বেশিরভাগটাই শাসকদল থেকে বিজেপির দিকে। এবার বিধাননগর পুর নিগমের মেয়র পারিষদের নামে নতুন করে জল্পনা তৈরি হল। রবিবারই ওই বিদায়ী মেয়র পারিষদ দেখা করলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের সঙ্গে। যদিও দিলীপ ঘোষ এটাকে নিছক সৌজন্য সাক্ষাৎ বলেই দাবি করেছেন। রবিবার ভোরে নিয়ম মাফিক ইকো পার্কে মর্নিং ওয়াকে যান দিলীপ ঘোষ। সেখানেই ছিলেন বিধাননগর পুর নিগমের বিদায়ী কাউন্সিলর তথা মেয়র পারিষদ দেবাশিস জানা। যিনি বিধাননগরের পুর্বতন মেয়র তথা নিউটাউনের বিধায়ক সব্যসাচী দত্তের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ বলেই পরিচিত। সব্যসাচী দত্ত এখন তৃণমূল ছেড়ে বিজেপি শিবিরে।


সূত্রের খবর, দেবাশিস জানা এদিন দিলীপ ঘোষের কাছে নিজের এবং তৃণমূলের এক বিধায়কের হয়েও দৌত করেছেন। যদিও দিলীপ ঘোষের সঙ্গে এই সাক্ষাৎকার নিয়ে দেবাশিসবাবু নিজে মুখ খোলেননি। কিন্তু বিজেপির রাজ্য সভাপতি দলবদলের প্রসঙ্গ এড়িয়ে গিয়ে জানান, ‘আমি রোজ মর্নিংওয়াকে আসি। অনেকেই আসেন। অনেকের সঙ্গেই দেখা হয়। ওনার (দেবাশিস জানা) সঙ্গে এই প্রথম বার দেখা হল। সৌজন্য বিনিময় হল, এর বেশি কিছু নয়’। উল্লেখ্য, দেবাশিসবাবু যে বিজেপিতে যাচ্ছেন এই নিয়ে জল্পনা দীর্ঘদিনের। প্রথমে খবর পাওয়া যাচ্ছিল শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গেই তিনি বিজেপিতে যোগ দেবেন। এমনকি সেদিনের মঞ্চে দেবাশিস জানার নামও ঘোষণা করা হয়েছিল যোগদানকারী হিসেবে। কিন্তু সেদিন অনুষ্ঠান মঞ্চে জাননি বিধাননগর পুর নিগমের বিদায়ী কাউন্সিলর। এবার ফের নতুন করে জল্পনা বাড়ল দিলীপ ঘোষের সঙ্গে মর্নিং ওয়াক এবং আলাপচারিতা করার পর।

‘পক্ষপাতদুষ্ট’ অফিসারদের সরানো, বেশি দফার ভোট চেয়ে কমিশনে বিজেপি

আর কয়েকদিনের মধ্যেই রাজ্যে ভোট ঘোষণা করতে পারে জাতীয় নির্বাচন কমিশন। আর তার আগের মুহুর্তেই চাপ বাড়াল বিজেপি নেতৃত্ব। নিজেদের কয়েকটি দাবিদাওয়া নিয়ে শুক্রবার দিল্লিতে কমিশনের সদর দফতরে হাজির হলেন বিজেপি নেতারা। এদিন বিজেপির প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে ছিলেন সর্বভারতীয় নেতা ভুপেন্দ্র যাদব এবং ওম পাঠক। সঙ্গে ছিলেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ এবং স্বপন দাশগুপ্ত, অর্জুন সিং, লকেট চট্টোপাধ্যায়।