দিল্লি সরকারের দুয়ারে রেশন প্রকল্প বাতিল করল কেন্দ্র

নয়া দিল্লি :এবার দিল্লি সরকারের  দুয়ারে রেশন প্রকল্পের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করল কেন্দ্র। যদিও গত সপ্তাহে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল এই প্রকল্পের কথা ঘোষণা করেছিলেন। এরপর কেন্দ্র এই প্রকল্প বাতিলের কথা জানায়। সূত্রের খবর,এই প্রকল্প চালু করার আগে দিল্লির সরকার কোনও অনুমতি নেয়নি কেন্দ্রের কাছে। এদিকে কেজরিওয়াল সরকার বাংলার মত এই দুয়ারে সরকার প্রকল্প চালু করে.যেখানে বাড়ি বাড়ি পৌঁছে যাবে চাল,আটা  সবকিছু। কেজরিওয়াল এই প্রকল্পের নাম দেন 'মুখ্যমন্ত্রী ঘর ঘর রেশন যোজনা"। এরপর কেন্দ্র এই নিয়ে আপত্তি জানায়. এরপর প্রকল্প বন্ধের জেরে ক্ষোভ প্রকাশ করলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল।

লকডাউন উঠতে কতদিন ?

দিল্লি মুম্বইয়ের মতো ব্যস্ততম শহর স্তব্ধ থাকবে আর কতদিন? প্রশ্ন উঠছে বণিক মহলে। কারণ দিল্লি এবং মুম্বইতে দেশের বেশিরভাগ বড় সংস্থাগুলির হেডকোয়াটার অবস্থিত। ফলে দেশজ ও আন্তর্জাতিক বাণিজ্যে কোটি কোটি টাকার ক্ষতি হচ্ছে লকডাউনের জেরে। কিন্তু সংক্রমণের কারণে সকলেই মুখে কুলুপ এঁটেছে। রবিবার আরও এক সপ্তাহের জন্য লকডাউন ঘোষণা করলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। সম্ভবত ১ জুন থেকে শিথিল হতে পারে দিল্লির অবস্থান। একই চিন্তাভাবনা শুরু করেছেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরেও। কিন্তু উভয় মুখ্যমন্ত্রীর দাবি একটাই টিকাকরণ সম্পূর্ণ করা যাচ্ছে না। সময়মতো টিকার জোগান নেই। এ ক্ষেত্রে কেজরিওয়াল নরম প্রতিবাদ করলেও তীব্র ভাষায় মোদির সমালোচনা করছে শিবসেনা প্রধান। একই সুর পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। এই রাজ্যেও চলছে কার্যত লকডাউন। যা চলবে আগামী ৩০ মে পর্যন্ত। এখন দেখার এই রাজ্যেও লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানো হয় কিনা।                  

মিলছে সুফল, দিল্লিতে আরও এক সপ্তাহ লকডাউন

লাগাতার লকডাউনের সুফল পাচ্ছে দিল্লি। করোনা সংক্রমণের গ্রাফ ক্রমশ নিম্নমুখী কেজরিওয়ালের রাজ্যে। তাই আরও এক সপ্তাহের লকডাউন ঘোষণা করলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী। তিনি জানিয়েছেন, দিল্লির লক্ষ্য পজিটিভিটি রেট ৫ শতাংশের নীচে নামিয়ে আনা। তাই দিল্লিতে আরও এক সপ্তাহ মেয়াদ বাড়ল লকডাউনের। প্রসঙ্গত করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে সবচেয়ে খারাপ অবস্থা ছিল দিল্লির। দৈনিক আক্রান্ত ৩০ হাজারে পৌঁছে গিয়েছিল। ফলে হাসপাতালে বেডের আকাল এবং অক্সিজেন সঙ্কটে হাসফাঁস অবস্থা হয়েছিল দিল্লিতে। অক্সিজেনের অভাবে পরপর রোগী মৃত্যুর ঘটনা ঘটছিল। পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছে গিয়েছিল যে আদালতকে উগ্যোগী হতে হয়েছিল। এরপরই দিল্লিতে লকডাউন ঘোষণা করেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। পরে কয়েকদফা বাড়ানো হয় লকডাউনের মেয়াদ। যার সুফল হাতেনাতে পাচ্ছে দিল্লিবাসী। করোনা সংক্রমণ নেমে এসেছে ৬ হাজারের নিচে। গত ২৪ ঘন্টায় দিল্লিতে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৫ হাজার ৪৯৯ জন। কেজরিওয়াল জানিয়েছেন, দিল্লিতে করোনা পজিটিভিটি রেট ৫ শতাংশের নীচে নামিয়ে আনাই তাঁর লক্ষ্য।

করোনার গ্রাসে অনাথ হওয়া শিশুদের সব দায়িত্ব নিলেন কেজরিয়াল

দিল্লিতে বেড়েছে করোনা সংক্রমণ। অন্যদিকে দেখা যাচ্ছে অক্সিজেনের ঘাটতি। এরই মাঝে সুখবর শোনালেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিয়াল। মারণ ভাইরাসে বাড়ছে মৃতের সংখ্যা।  শিশুরা করোনায়  তাদের মা বাবাকে হারাচ্ছে ।এবার কেজরিয়াল জানান, তাদের  সমস্ত পড়াশুনা ও থাকার  খরচ বহন করবে দিল্লির সরকার। এক ওয়েবকাস্টে কেজরিওয়াল বলেন, ‘‘আমাদের সকলের জন্যই খুব যন্ত্রণায় কেটেছে বিগত দিনগুলি। বহু পরিবারই একের বেশি মৃত্যুর সম্মুখীন হয়েছে। বহু শিশুই বাবা-মা দু’জনকেই হারিয়েছে। আমি তাদের কষ্টটা বুঝি। আমি তাদের পাশে আছি। যে শিশুরা অভিভাবকদের হারাল তাদের পড়াশোনার দায়িত্ব আমাদের। তাদের বেড়ে ওঠার সব খরচ জোগাবে সরকার।এমনই আশ্বাস দিলেন কেজরিয়াল।