ইঞ্জিয়ারিং কলেজে ভর্তি কম

২০২০ তে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার ফল বেরোনোর পর বিজ্ঞানের ছাত্রছাত্রীদের ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজে ভর্তি হওয়াতে খামতি ছিল না কিন্তু মোটামুটি সব কলেজ ক্লাস করতে পারেনি । ইঞ্জিনিয়ারিং একটি হাতেকলমে শিক্ষার বিষয় । থিওরি ক্লাস হয়তো ভার্চুয়ালি করা সম্ভব কিন্তু প্র্যাকটিক্যাল ক্লাস করবে কি করে ফলে একটি বছর প্রায় নষ্ট হয়ে গিয়েছে । এই বছর কোনও পরীক্ষাই হয় নি । পুরাতন নম্বর দেখেই পাশের মান ঠিক করা হচ্ছে । সেটি মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক বা সমতুল্য পরীক্ষা না হওয়া কিন্তু বাস্তবে ক্ষতি করেছে ছাত্রছাত্রীর ভবিষ্যৎ । ভবিষ্যতে চাকরি পাওয়ার ক্ষেত্রে বিশেষ করে কর্পোরেট দুনিয়াতে পরীক্ষাহীন ছাত্র ছাত্রীদের চাকরির বিষয়ে কতটা নরম মনোভাব নেবে তা নিয়ে সংশয় থাকছেই ।

এবছর প্রচুর ছাত্রছাত্রী প্রথম বিভাগে পাশ করেছে । বিজ্ঞানেও তাই । কিন্তু কারিগরি শিক্ষায় যাওয়ার আগ্রহ এদের মধ্যে খুব কম । বিশেষ করে বেসরকারি কলেজগুলিতে । এদেরই এক কর্তা জানাচ্ছেন, ভর্তি অন্য বছরের তুলনায় এতটাই কম যে কলেজে চালানোই দুস্কর হয়ে যাচ্ছে । এক ছাত্রের অবিভাবক জানাচ্ছেন, কি হবে এতো লক্ষ টাকা দিয়ে ভর্তি করে । আমার জমানো টাকাটাই নষ্ট হবে, চাকরি পাবে কি আদৌ ? 

একাদশ থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর ভর্তি প্রক্রিয়া ১৫ জুলাইয়ের মধ্যে শেষ করতে হবে,জানাল সংস

 করোনা আবহে বাতিল হয়েছে মমাধ্যমিক-উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা। গতকাল নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সেই কথা জানান। এরইমধ্যে বাতিল হয়েছে একাদশ শ্রেণীর পরীক্ষাও। এই অবস্থায় একাদশ থেকে দ্বাদশ শ্রেণিতে পড়ুয়াদের ভর্তির প্রক্রিয়া ১৫ জুলাইয়ের মধ্যে শেষ করার জন্য সব স্কুলগুলিকে নির্দেশ দিল উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ।এদিকে মঙ্গলবার উচ্চশিক্ষা সংসদের তরফে জানানো হয়েছে, গত বছরের মোট এই বছরেও স্কুলগুলিকে ১৫ জুলাইয়ের মধ্যে একাদশ থেকে দ্বাদশ শ্রেণিতে পড়ুয়াদের ভর্তি প্রক্রিয়া শেষ করতে হবে । সব রকমের করোনা বিধি মেনে সব কাজ করা হবে। ছাত্র-ছাত্রীদের কথা ভেবেই  উচ্চশিক্ষা সংসদের এই সিদ্ধান্ত।