রাজ্যজুড়ে বৃষ্টির পুর্বাভাস

শীতের বিদায় নিশ্চিত, কিন্তু এরই মাঝে বৃষ্টির ভ্রুকুটি দেখা দিল। আলিপুর হাওয়া অফিস জানাচ্ছে, শীত বিদায় নিচ্ছে বঙ্গ থেকে ফলে স্বাভাবিক নিয়মেই তাপমাত্রার পারদ চড়ছে। এই পরিস্থিতিতে বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে রাজ্যজুড়েই। হাওয়া অফিসের পুর্বাভাস, সোমবার থেকেই আকাশ মেঘলা হতে শুরু করবে। এবং উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। আগামী তিনদিন উত্তরবঙ্গের পার্বত্য অঞ্চলে বৃষ্টি হবে। বৃষ্টি হতে পারে পশ্চিমাঞ্চলের পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, দুই মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম এবং হাওড়া জেলাতেও। তবে কলকাতা এবং দুই ২৪ পরগনায় আপাতত বৃষ্টির পুর্বাভাস নেই। ফলে গরমে হাঁসফাঁস করতে হবে কলকাতা এবং শহরতলির বাসিন্দাদের। সোমবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২০.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস, সর্বোচ্চ ২৯.২ ডিগ্রি।

আসন্ন শীতের বিদায়, এক ধাক্কায় পারদ বাড়ল অনেকটা

এই বছরের মতো বিদায় নিতে চলেছে শীত। আবহবিদদের পূর্বাভাস মেনেই চলতি সপ্তাহের মধ্যভাগেই রাজ্যে তাপমাত্রা বাড়ল একধাক্কায় অনেকটাই। আলিপুর হাওয়া অফিস জানাচ্ছে, বৃহস্পতিবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৫.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এক ধাক্কায় যা বাড়ল অন্তত ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ফলে দু-তিনদিন আগেও সকালে প্রাতঃভ্রমণ করার সময় যারা সোয়েটার-মাফলারে সেজেছিলেন, তাঁরাই এদিন হাঁটলেন টি-শার্ট পড়ে। আলিপুর হাওয়া অফিস আরও জানিয়েছে, আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই শহরের তাপমাত্রা পৌঁছে যেতে পারে ২০ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। বৃহস্পতিবার কলকাতার বাতাসে জলীয় বাস্পের পরিমাণ রয়েছে ৯৯ শতাংশ। যদিও উত্তরবঙ্গে আরও কয়েকদিন শীত শীত ভাব থাকবে। তবে চলতি সপ্তাহেই রাজ্য থেকে বিদায় নিতে চলেছে শীতের মরশুম।

২ ডিগ্রি নামল পারদ, শীত আরও কয়েকদিন

আরও ২ ডিগ্রি নামল পারদ। কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা একদিনেই নামল ১৩.২ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। যা স্বাভাবিকের থেকে ৩ ডিগ্রি কম। আগামী দু’ দিনে তাপমাত্রার পারদ আরও কিছুটা নামার সম্ভাবনা রয়েছে, এমনটাই জানিয়েছে হাওয়া অফিস। ফেব্রুয়ারির গোড়া থেকেই শীত বেশ জাঁকিয়ে। সরস্বতী পুজো পর্যন্ত এমনই ঠান্ডা থাকবে বলে পূর্বাভাস। শেষ মাঘে এমন ঠান্ডা উপভোগ করছেন রাজ্যবাসী। সোমবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৫. ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা স্বাভাবিকের  থেকে ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস নীচে।  তার আগের দিন রবিবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বৃহস্পতিবার থেকে তাপমাত্রা বাড়ার সম্ভাবনা। তবে শীত কবে যাবে তার পূর্বাভাস এখনও পাওয়া যায়নি।   

হালকা বৃষ্টিতে ফিরল শীত, কাল থেকেই কনকনে ঠান্ডা

পূর্বাভাসমতোই রবিবার ভোররাত থেকে হালকা বৃষ্টি হল কলকাতা ও রাজ্যের অন্য জেলায়। আকাশের মেঘাচ্ছন্ন। বেলার দিকে রোদ উঠলেও তাতে তেমন জোর নেই। আবহাওয়া দফতর জানাচ্ছে, কারণ, দিনের মাঝামাঝি আবহাওয়ার বদল হবে। আলিপুর হাওয়া অফিস জানাচ্ছে, মধ্যপ্রদেশের দিকে একটি ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হয়েছে। তার ফলেই কলকাতা-সহ রাজ্যের একাধিক জেলা বৃষ্টিতে ভেজে। রবিবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। শনিবার শহরের তা ১৫.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বাতাসে ৯৯ শতাংশ জলীয় বাষ্প ছিল।
এবার বঙ্গে শীত খানিকটা কম হলেও গত ১০ বছরের রেকর্ড ভেঙে ঠান্ডা পড়ল ফেব্রুয়ারিতে। আবারও সোমবার থেকেই রাজ্যে কনকনে ঠান্ডা পড়ার সম্ভাবনা। তাপমাত্রা নামতে পারে ১৩ ডিগ্রিও। বুধবার পর্যন্ত তাপমাত্রা নামলেও বৃহস্পতিবার থেকেই ফের বাড়বে পারদ। তবে তখন থেকেই এবারের মতো শীত বিদায় নেবে কিনা তা এখনও পরিষ্কার নয়।

রবিবার হতে পারে বৃষ্টি, সোমবার থেকে ফের নামবে পারদ

কয়েকদিন শীতের চওড়া ব্যাটিংয়ের পর শুক্রবার থেকে কিছুটা বেড়েছিল তাপমাত্রা। শীত পুরোপুরি বিদায় না নিলেও তাপমাত্রার পারদ সামান্য বাড়ায় অনেকেই ভেবেছিলেন এবার বুঝি লেপ-কম্বল তুলে রাখার সময় এল। শনিবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৫.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি কম। এদিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকবে ২৮.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। কিন্তু এখনও টুইস্ট বাকি, আলিপুর হাওয়া অফিস জানাচ্ছে, শনিবার রোদের সঙ্গে কিছুটা তাপমাত্রা বাড়লেও বিকেলের দিকে মেঘে ঢাকবে আকাশ। এমনকী সন্ধে বা রাতের দিকে হালকা বৃষ্টিও হতে পারে। 

আর রবিবার কলকাতা ও শহরতলি এলাকায় বৃষ্টির সম্ভাবনা উজ্জ্বল। বৃষ্টি হতে পারে হুগলি, পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, পূর্ব বর্ধমান, মুর্শিদাবাদ, নদিয়ায়। এমনকী দক্ষিণের কয়েকটি জেলায় শিলাবৃষ্টিও হতে পারে বলে আবহবিদদের দাবি। অপরদিকে উত্তরবঙ্গের কয়েকটি জেলায় থাকবে কুয়াশার দাপট। এই সপ্তাহের শেষে পাহাড়ে বৃষ্টির সম্ভবনা রয়েছে। মেঘ কেটে রোদ উঠলেই আগামী সোমবার থেকে ফের নামবে তাপমাত্রার পারদ, যা চলবে বুধবার পর্যন্ত। ফলে এখনই শীতের পোশাক ও লেপ-কম্বল তুলে রাখার প্রয়োজন নেই। 

রাজ্যে শৈত্যপ্রবাহের সতর্কতা, কলকাতার পারদ নামল ১১ তে

ফেব্রুয়ারি মাস পড়তেই আরও নিম্নমুখী পারদ। মঙ্গলবার শহরের তাপমাত্রা সর্বনিম্ম ১১.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সোমবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১১.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তাপমাত্রার সামান্য হেরফের হলেও উত্তুরে হাওয়ার দাপটে ভালোই শীতের কামড় টের পাচ্ছেন শহরবাসী। আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, আগামী ৪৮ ঘণ্টায় তাপমাত্রা আরও কমতে পারে। পাশাপাশি দক্ষিণবঙ্গের বেশ কিছু জেলায় শৈত্যপ্রবাহের সতর্কবার্তা দিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, বীরভূম, ঝাড়গ্রাম সহ বেশ কিছু জেলায় জাঁকিয়ে পড়বে শীত। পাশাপাশি উত্তরবঙ্গেও দাপট থাকবে শীতের।


আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন, উত্তর-পশ্চিম হাওয়ার জেরেই শীতের আমেজ টের পাচ্ছেন রাজ্যবাসী। তবে দুদিন পর কমতে পারে এই হাওয়ার তীব্রতা। এদিকে আবহাওয়ার এই খামখেয়ালিপনা চিন্তার কারণ হতে পারে। বিশেষ করে বয়স্ক এবং শিশুদের স্বাস্থ্যের জন্য সমস্যা হতে পারে। কিন্তু এটাই সম্ভবত শীতের শেষ ইনিংস। ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহের পরই বিদায় নিতে পারে শীত।   


এদিকে উত্তর-পশ্চিম হাওয়ার দাপটে কাঁপছে উত্তর ভারতের রাজ্যগুলিও। রাজধানী দিল্লির তাপমাত্রা ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এছাড়া উত্তর পশ্চিমের কিছু অঞ্চলে ঠাণ্ডার পাশাপাশি হালকা বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে আগামী ৪৮ ঘণ্টায়।


ফেব্রুয়ারির প্রথম দিনেই শীতের ছক্কা, কলকাতায় ১১.৪

ফেব্রুয়ারি মাসের প্রথম দিনেও শীতে জুবুথুবু রাজ্য। কলকাতা সহ গোটা রাজ্যেই শীতের চওড়া ব্যাটিং জারি রয়েছে। সোমবার দার্জিলিংয়ের তাপমাত্রা ২ ডিগ্রিতে নেমেছে। অপরদিকে জেলায় জেলায় জারি শীতের দাপট। পানাগড়ে ৬.৪, শিলিগুড়িতে ৬.৫, শ্রীনিকেতনে ৭, ব্যারাকপুরে ৭.৬, কোচবিহারে ৭.১, বালুরঘাটে ৭.৬, পুরুলিয়াতে ৮.৫, মালদায় ৮.৯, বর্ধমানে ৮.৬, দিঘায় ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সোমবার সপ্তাহের প্রথম দিনেই কলকাতার তাপমাত্রা নেমেছে ১১.৪ ডিগ্রিতে। যা স্বাভাবিকের থেকে ৫ ডিগ্রি কম। রবিবারের তুলনায় শহরের তাপমাত্রা কমেছে ০.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আলিপুর হাওয়া অফিস জানিয়ে দিয়েছে আগামী বুধবার পর্যন্ত রাজ্যে শীতের দাপট চলবে।


আবহবিদদের দাবি, উত্তরে হাওয়ার প্রভাবেই রাজ্যে শীতের দাপট চলছে। বাতাসে হিমের পরশের পাশাপাশি রয়েছে কুয়াশার চাদর। ফলে রাজ্যের বিভিন্ন এলাকায় দৃশ্যমানতাও কমেছে অনেকটা। বিশেষ করে ভোরের দিকে কুয়াশার জেরে যান চলাচলে বিঘ্ন হচ্ছে। দুর্ঘটনাও ঘটছে। সবমিলিয়ে রাজ্যবাসী আরও কয়েকটা দিন শীতের আমেজ গায়ে মাখতে পারবেন বলেই আশ্বাসবানী শোনাচ্ছেন আবহবিদরা।

উর্ধ্বমুখী পারদ, তবে কি বিদায় নিল শীত?

এক ধাক্কায় উর্ধ্বমুখী পারদ। প্রায় তিন ডিগ্রির কাছাকাছি তাপমাত্রা বাড়ল শনিবার। এদিন কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা থাকবে ১৫.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তবে তাপমাত্রা বাড়লেও বঙ্গে শীতের আমেজ বজায় থাকবে বলেই জানাচ্ছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। আগামীকাল অর্থাৎ রবিবার ফের তাপমাত্রা নিম্নমুখী হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে কুয়াশার দাপট থাকবে। উত্তরবঙ্গে ঘন থেকে অতিঘন কুয়াশার সম্ভাবনার কথা জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। অাবহাওয়াবিদদের মত, আকাশ আংশিক মেঘলা থাকায় উত্তুরে হাওয়া ঢুকতে খানিকটা বাধার মুখে পড়েছে, ফলে কিছুটা বেড়েছে তাপমাত্রা। তবে বাধা কেটে গেলেই আগামী রবিবার থেকে আবারও নামবে পারদ। আপাতত ফেব্রুয়ারি মাসের প্রথম কয়েকদিন অন্তত শীতের দাপট বজায় থাকবে বলেই খবর। 

হাড় কাঁপানো ঠান্ডার মধ্যেই বৃষ্টির পূর্বাভাস

হাড় কাঁপানো ঠান্ডার দোসর এবার বৃষ্টি। আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। শুক্রবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১২.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা স্বাভাবিকের তুলনায় ২ ডিগ্রি কম। তবে উত্তুরে হাওয়ার প্রভাবে কমায় একটু বেশি শীত অনুভব করছেন কলকাতাবাসী। সকালের দিকে হালকা কুয়াশা থাকলেও বেলায় রোদ বাড়তেই পরিষ্কার হয়ে যায় আকাশ।
মৌসম ভবন জানিয়েছে, উত্তর-পশ্চিম হাওয়ার প্রভাব জোরালো হচ্ছে। এর জেরেই নামছে পারদ। তবে আগামীকাল, ৩০ জানুয়ারি তাপমাত্রা কিছুটা বাড়তে পারে। কারণ আকাশ মেঘলা থাকার সম্ভাবনা রয়েছে। ফের ৩১ জানুয়ারি থেকে কমতে শুরু করবে তাপমাত্রা। অাগামী ২ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত আাবহাওয়া এমনই থাকবে বলে খবর। উত্তরবঙ্গে আগামী ২৪ ঘন্টা ঘন থেকে অতিঘন কুয়াশার সতর্কতা জারি রয়েছে। বিশেষত মালদা, জলপাইগুড়ি, উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুর  ও কোচবিহারে কুয়াশার দাপট বেশি থাকার সম্ভাবনা। তবে উত্তরবঙ্গে এই মুহূর্তে বৃষ্টির সম্ভবনা নেই। দক্ষিণবঙ্গের ক্ষেত্রে পশ্চিমের জেলা যেমন বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, ঝাড়গ্রামে হালকা বৃষ্টি হতে পারে। মূলত মেঘলাই থাকবে আকাশ।