যোগীরাজ্যের করোনা মাতার মন্দির ভেঙে দেওয়া হল

উত্তরপ্রদেশঃ যোগীরাজ্যে ভেঙে ফেলা হল করোনা মাতার মন্দির। শুক্রবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের প্রতাপগড়ের একটি গ্রামে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, রাতের অন্ধকারে পুলিশ মন্দিরটি ভেঙে দিয়েছে। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছে পুলিশ। গত ৭ জুন গ্রামবাসীদের থেকে চাঁদা তুলে মন্দিরটি তৈরি করা হয়েছিল। তারপর থেকে চলছিল করোনা মাতার পুজো।

রীতিমত মন্দির বানিয়ে,মূর্তি গড়ে যোগীরাজ্যে পূজিত হচ্ছিল করোনা। গ্রামবাসীদের বিশ্বাস, করোনা মাতার পূজা করলেই এই ভাইরাসের প্রকোপ থেকে মুক্তি মিলবে দেশবাসীর।

জানা গিয়েছে,উত্তরপ্রদেশের প্রতাপগড়ের একটি গ্রামে করোনাকে দেবীরূপে পূজার্চনা শুরু হয়েছিল। একটি নিম গাছের গোড়ায় প্রতিস্থাপিত হয়েছিল করোনা মাতা। সেই মন্দির শুক্রবার রাতে কে বা কারা ভেঙ্গে দিয়েছে।

অন্যদিকে প্রথম থেকেই গ্রামবাসীদের পুজোকে আমল দেয়নি পশ্চিমবঙ্গ বিজ্ঞান মঞ্চ।তাদের যুক্তি এই পুজো করে করোনাকে নির্মূল করা সম্ভব নয়। এতে সময় নষ্ট হচ্ছে এবং কাজের কাজ কিছুই হবে না।

কিছু মানুষ করোনা ভাইরাসের ভয়ে অসহায় হয়ে কুসংস্কারকে ধরে বেঁচে থাকতে চাইছে। কারণ  করোনাভাইরাস মহামারীতে জনজীবন বিপর্যস্ত। চেনা পৃথিবীটা বদলে গিয়েছে। আতঙ্কিত মানুষ করোনার বিপদ নির্মূল হওয়ার প্রার্থনা করছেন। সেই ভাবনার প্রতিফলন ঘটেছে প্রতিমার রূপায়ণে।


করোনাকে দেবীরূপে পুজো, মুক্তি মিলবে দেশবাসীর!

উত্তরপ্রদেশঃ রীতিমত মন্দির বানিয়ে,মূর্তি গড়ে যোগীরাজ্যে এবার পূজিত হচ্ছে করোনা। গ্রামবাসীদের বিশ্বাস, করোনা মাতার পূজা করলেই এই ভাইরাসের প্রকোপ থেকে মুক্তি মিলবে দেশবাসীর।

জানা গিয়েছে,উত্তরপ্রদেশের প্রতাপগড়ের একটি গ্রামে করোনাকে দেবীরূপে পূজার্চনা শুরু হয়েছে। একটি নিম গাছের গোড়ায় প্রতিস্থাপিত হয়েছেন করোনা মাতা। সেখানে পুজো দিলেন গ্রামবাসীরা।

গ্রামবাসীদের পুজোকে আমল দিতে রাজি নয় পশ্চিমবঙ্গ বিজ্ঞান মঞ্চ।তাদের যুক্তি এই পুজো করে করোনাকে নির্মূল করা সম্ভব নয়। এতে সময় নষ্ট হচ্ছে এবং কাজের কাজ কিছুই হবে না। করোনা ভাইরাসের ভয়ে মানুষ অসহায় হয়ে কুসংস্কারকে ধরে বেঁচে থাকতে চাইছে।

আসলে করোনাভাইরাস মহামারীতে জনজীবন বিপর্যস্ত। চেনা পৃথিবীটা বদলে গিয়েছে। আতঙ্কিত মানুষ করোনার বিপদ নির্মূল হওয়ার প্রার্থনা করছেন। সেই ভাবনার প্রতিফলন ঘটেছে প্রতিমার রূপায়ণে।

নড়বড়ে যোগীরাজ্যে টীকাতেও লাস্টবয়

প্রশাসনিক দায়িত্বজ্ঞানহীনতায় এমনিতেই যোগী আদিত্যনাথ অন্য রাজ্য থেকে অনেকটাই পিছিয়ে বলে দাবি কংগ্রেসের | বাস্তবেও যোগীকে নিয়ে যা চর্চা তা পূর্বতন কোনও মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে হয় নি | এবারে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের দায় যোগীকেই দেওয়া হচ্ছে, উত্তরাখণ্ডের সাথে | এখন তাঁর নব্য সমস্যা টিকাকরণ |


জানা গিয়েছে, উত্তর প্রদেশের মতো বৃহত্তম রাজ্য টিকা করণে সবথেকে পিছিয়ে রয়েছে | আগামী বছর সেখানে ভোট, এটিকে অন্যতম ইস্যু করছে বিরোধী দলগুলি | প্রমাদ গুনে যোগীকে শুক্রবার দিল্লিতে ডেকে পাঠানো হয়েছে | পাশাপাশি যোগীর প্রশংসা করতে পথে নেমেছে গেরুয়া আইটি সেল | মোদি ও যোগীর প্রচারের জন্য হাজার হাজার ব্যানারে ভর্তি রাজ্যটি |


অন্যদিকে অবিলম্বে উত্তর প্রদেশের উপমুখ্যমন্ত্রী ঠিক করতে চান মোদি | তাঁর পছন্দ প্রাক্তন আমলা অরবিন্দ কুমার শর্মা | অরবিন্দ ব্রাহ্মণ ফলে উচ্চ বর্ণের ভোট টার্গেট মোদির | কিন্তু অরবিন্দকে একদমই পছন্দ নয় যোগীর | আপাতত তাঁর পছন্দ অপছন্দ বাদ দিয়ে নতুন স্ট্রাটেজি তৈরী হচ্ছে | টিকার বিষয়ে জোর দিতেই হবে যোগীকে | মাত্র ২.৫১ শতাংশ দুটি ডোজ নিতে পেরেছে সে রাজ্যে |