উত্তরপ্রদেশে পঞ্চায়েত ভোটে বিজেপির জয়

লখনউঃ উত্তরপ্রদেশে পঞ্চায়েত ভোটে জয় পেল বিজেপি। রাজ্যের ৭৫টি জেলা পঞ্চায়েতের মধ্যে বিজেপির ঝুলিতে গিয়েছে ৬৭টি। অখিলেশ যাদবের দল সমাজবাদী পার্টি জয়ী হয়েছে মাত্র ৬টি আসনে৷ রাষ্ট্রীয় লোকদল, জনসত্তা দল ও নির্দল প্রার্থী ১ করে আসন জিতেছে।

প্রসঙ্গত, উত্তর প্রদেশের ৭৫টি জেলার মধ্যে ২২টি জেলা পঞ্চায়েত চেয়ারম্যান পদে কোনও প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয়নি৷এর মধ্যে ২১টিতেই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হন বিজেপি প্রার্থীরা৷ একটিতে জয়ী হয় সমাজবাদী পার্টি৷

এরপরই টুইটারে মোদী লেখেন,'উত্তরপ্রদেশ পঞ্চায়েত নির্বাচনে বিরাট জয় বিজেপি। এটা উন্নয়ন, জন পরিষেবা ও সুশাসনের জন্য সাধারণ মানুষের আশীর্বাদ। মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের নীতি ও দলের কর্মীদের নিরলস পরিশ্রমের জন্য এই কৃতিত্ব।'   
পাশাপাশি বিপুল এই জয়ের পর বিজয়ী প্রার্থীদের অভিনন্দন জানিয়েছেন উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ৷ আগামী বছর উত্তরপ্রদেশে বিধানসভা ভোট। তার আগে পঞ্চায়েত ভোটে জয়, স্বস্তি দিল গেরুয়া শিবিরকে।

বিরোধী জোটে 'বেসুরো' মায়াবতী

পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূলের বিশাল জয়ের পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বিরোধী জোটের নেতা করতে তৎপর বিরোধী দলগুলি | এ বিষয়ে নরম মনোভাব নিয়েছেন খোদ কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধিও | শোনা যাচ্ছে কংগ্রেসের অভ্যন্তর থেকে মমতাকে মেনে নেওয়ার চাপ রয়েছে | আপ পার্টি প্রধান অরবিন্দ কেজরিওয়াল বরাবরই মমতার কাছের মানুষ | কিন্তু কেজরিওয়াল কংগ্রেসকে মেনে নিতে পারছেন না | সে বিষয়ে কে দেখার দায়িত্ব নিচ্ছেন শারদ পাওয়ার | অখিলেশ থেকে তেজস্বী, শিবসেনা থেকে হেমন্ত সোরেন, দেবেগৌড়া থেকে স্টালিন ' চন্দ্রবাবু থেকে জগন্মোহন সকলেই উদগ্রীব জোট বাঁধতে | সবচাইতে উদগ্রীব দিল্লির সন্নিকটে আন্দোলনকারী কৃষক সমাবেশ |


কিন্তু ব্যতিক্রম মায়াবতী | তিনি বিগত লোকসভার নির্বাচনে তলায় তলায় বিজেপিকেই সাহায্য করেছেন বলে সংবাদ | ইদানিং রাজ্যসভার ভোটাভুটিতেও বিজেপিকে সহযোগিতা করেছেন বলে দাবি এসপি দলের | গুঞ্জনে জানা যায় মায়াবতীর বহু কোটি টাকার নয় ছয় এবং কেলেঙ্কারির ফাইল নাকি জমা রয়েছে শাসক দলের কাছে এবং এর থেকেই চাপে মায়া | আপাতত তাঁর বহুজন সমাজ পার্টি কে বিজেপির "বি" টীম বলা হচ্ছে | কিন্তু বর্তমানে কেন্দ্র যেরকম চাপে রয়েছে তাতে মায়াবতী তাদের ভোট বৈতরণী পার করতে পারবেন কিনা সন্দেহের | 

ফের যোগী রাজ্যে ১৮ বছরের মেয়েকে ধর্ষণ

উত্তরপ্রদেশঃ ফের যোগী রাজ্যে ধর্ষণ। বারেলিতে ১৮ বছরের এক দলিত মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগ। এই ঘটনায় থানায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে। তদন্তে নেমেছে পুলিশ ।

সূত্রের খবর, ওই মেয়েটি স্কুটিতে করে স্কুলের বন্ধুদের সঙ্গে একটি গ্রামের পাশ দিয়ে যাচ্ছিল, তখন বেশ কয়েকজন জোর করে  টানতে টানতে খালের ধারে ফাঁকা জায়গায় নিয়ে ধর্ষণ করা হয় বলে অভিযোগ। এমনকি ধষর্ণের কথা কাউকে বললে খুন করা হবে বলেও হুমকি দেওয়া হয়। ভয়ে বাড়ির লোককে কিছু জানায়নি মেয়েটি। তারপর বন্ধুদের পরামর্শে দুদিন পর থানায় গিয়ে এফআইআর দায়ের করে মেয়েটি।

এদিকে ধর্ষের আগে মেয়েটির বন্ধুদের জোর করে আটকে রেখে মারধর করা হয়েছিল। বন্ধুরা জানায়, তাদের ফোন, মানি ব্যাগও কেড়ে নিয়েছিল ওরা। মার খেয়ে জ্ঞান হারানোয় বন্ধুরা ওকে বাঁচাতে যেতে পারেনি। এমনটাই দাবি বন্ধুদের।

যোগীর আইটি সেলের সদস্য বহিস্কৃত

বিজেপির আইটি সেল যথেষ্ট শক্তিশালী এবং বিভিন্ন সময়ে তাদের প্রচার নিয়ে প্রচুর বিতর্ক হয়েছে । উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের নাকি এরকমই একটি সংস্থা আছে যারা সারা বছর যোগীকে নিয়ে প্রচার করে ।সম্প্রতি একটি  অডিও  লোকসমাজের সামনে এসেছে , যেখানে দুই ব্যক্তিকে কথা বলতে দেখা যাচ্ছে । উঠে আসছে একটি আবেদন যে, যোগী আদিত্যনাথকে  নিয়ে টুইট করলেই দু টাকা পাওয়া যাবে ।

এই অডিও  প্রাক্তন আইএএস সূর্য্যপ্রতাপ সিং শেয়ার করেন ।  সাথে সাথেই সোশ্যাল নেটওয়ার্কে শুরু হয় বিতর্ক । সমালোচনার ঝড় বয়ে যায়  কংগ্রেস থেকে সমাজবাদী পার্টি সহ নানান রাজনৈতিক দলের মধ্যে । প্রমাদ গুনে দ্রুত ওই আইটি সেলের প্রধান মনমোহন সিংকে বরখাস্ত করা হয় । কিন্তু তাতেও বিতর্ক শেষ হয় না । এবারে বিজেপি আইটি সেল থেকে জানানো হয় যে এটি একটি বেসরকারি সংস্থার কাজ ।  কিন্তু যোগীর সোশ্যাল নেট যারা দেখেন তারাও তো বেসরকারিই । এবারে কোথায় গিয়ে দাঁড়ায় তাই দেখার ।          


লকডাউনের ম্যাজিক! কয়েকশো কিমি দূর থেকেই দেখা গেল শ্বেতশুভ্র হিমালয়ের চূড়া

উত্তরপ্রদেশের শাহারানপুর থেকে হিমালয়ের বায়বীয় দূরত্ব (Aerial Distance) কমবেশি ২০০ কিলোমিটারের বেশি। সড়কপথে প্রকৃত দূরত্ব আরও বেশি। কিন্তু ভোরের আকাশে আচমকাই ধরা দিল সারি সারি হিমালয়ে শ্বেতশুভ্র চূড়া। ঝকমকে আকাশের মাথায় যেন রুপোলি মুকুট। ভোর বেলা ঘুম থেকে উঠেই সাহারানপুরবাসী বারে বারে চোখ কচলালেন, নাহ সত্যিই দেখা যাচ্ছে হিমালয়ের একের পর এক বরফে ঢাকা শৃঙ্ঘ। অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি, করোনার প্রথম ধাক্কার মতোই এই দ্বিতীয় ধাক্কায় উত্তরপ্রদেশে বিগত প্রায় একমাস যাবৎ চলছে লকডাউন। ফলে বন্ধ সমস্ত অফিস-কাছারি, দোকানপাট, বাজার হাট, গণপরিবহণ। আর তাতেই কমেছে বায়ু দূষণের মাত্রা (Air Quality Index বা AQI)। কার্যক দূষিত শহর শাহারানপুরে দূষণের মাত্রা কমে এসেছে ৫০-এর নীচে। ফলে কয়েকশো কিলোমিটার দূরের হিমালয়ের বরফে ঢাকা শৃঙ্ঘও পরিস্কার দেখা যাচ্ছে শাহারানপুর থেকে।


এই শহরের বেশ কয়েকজন বাসিন্দা সোশাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন সেই বিরল দৃশ্য। শাহারানপুরে কর্তব্যরত চিকিৎসক বিবেক বন্দ্যোপাধ্যায় কয়েকটি ছবি তুলে তুলে সোশাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন। ইন্ডিয়ান ফরেস্ট সার্ভিসের শীর্ষ কর্তা রমেশ পাণ্ডে ওই ছবিই টুইট করেন। তিনি লেখেন, ‘সত্যিই বিরল দৃশ্য। টানা দু’দিন বৃষ্টির পর মেঘমুক্ত পরিষ্কার আকাশে সাহরণপুরের উত্তর দিক থেকে হিমালয়ের চূড়া দেখা যাচ্ছে। আজ থেকে ৩০-৪০ বছর আগে এ দৃশ্য দেখা যেত। এখন আবার দূষণ কমতে হিমালয়ের চূড়া উজ্জ্বল হয়ে উঠল’। তাঁর টুইটটি রীতিমতো ভাইরাল হয়েছে। আরও অনেকেই অবশ্য হিমালয়ের অপরূপ দৃশ্যের ছবি ও ভিডিও সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার করে নিজেদের উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন। কেউ কেউ লিখেছেন, করোনার জেরে কোথাও ঘুরতে যাওয়ার উপায় নেই। তাই ঘরে বসেই যদি এভাবে হিমালয় দর্শন হয় তবে তো সোনায় সোহাগা। প্রসঙ্গত, করোনার প্রথম পর্বেও এভাবে বহু জায়গা থেকে কয়েকশো কিলোমিটার দূরের হিমালয়ের সুউচ্চ চূড়া দেখা গিয়েছিল।  

ভোট পরবর্তী হিংসায় উত্তপ্ত উত্তরপ্রদেশ

একদিকে যখন ভোট পরবর্তী সন্ত্রাসের অভিযোগে এ রাজ্যে ধরণা দিচ্ছে বিজেপি, তখন হিংসা এবং খুনোখুনিতে উত্তপ্ত যোগী আদিত্যনাথের উত্তরপ্রদেশ। সম্প্রতি ওই রাজ্যের একটি বড় অংশের পঞ্চায়েত ভোট হয়ে গেল। তাতে বিজেপি পর্যদুস্তু হয়ে পরাজয়ের মুখে পড়েছে। অভিযোগ, এরপরই প্রতিহিংসা এবং বিরোধীদের উপর অত্যাচার শুরু হয়েছে। শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী ইতিমধ্যেই ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে এবং আহত বহু। মূলত যোগীর কেন্দ্র গোরক্ষপুর সহ আজমগর, জৈনপুর সহ বহু জায়গায় লাগাতার হিংসার ঘটনা সামনে আসছে। ওই রাজ্যে হিংসা ছড়ানোর অভিযোগে পুলিশ ২০০০ জনের বেশি সরকারি পক্ষের ক্যাডারদের বিরুদ্ধে মামলা করেছে। তা সত্বেও হিংসা থামছে না। গোটা ঘটনায় সরব হয়েছে পশ্চিমবঙ্গের তৃণমূল নেতৃত্ব। মুখে কুলুপ এটেছেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ।