আগে জোট পরে নেতা, বললেন মমতা

শুক্রবার কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গাঁধীর ডাকে বিরোধী দলগুলির বৈঠকে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূলনেত্রী মমতার প্রস্তাব, জোটের কর্মপন্থা ঠিক করার ক্ষেত্রে একটি ‘কোর কমিটি’ তৈরি করা হোক। তা হলে কোন কোন বিষয়ে বিরোধীরা সম্মিলিত ভাবে কী কী পদক্ষেপ করবে, ওই কোর কমিটি তার দিকনির্দেশ করতে পারে। সনিয়া নিজে মমতার এই প্রস্তাবের সঙ্গে সহমত হয়েছেন।

সায় মিলেছে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে, ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সরেন-সহ অন্য অনেক বিরোধী নেতারও।বিরোধীদের কোনও সম্মিলিত কর্মসূচির ক্ষেত্রে কংগ্রেস ‘প্রাধান্য’ পেয়ে যাচ্ছে, এমন একটি ধারণা কিছুদিন ধরে ঘুরছে। বিশেষত তৃণমূল শিবির থেকে এই ধরনের মনোভাব সামনে আসে। রাহুল গাঁধীর উদ্যোগে দিল্লিতে বিরোধীদের একাধিক কর্মসূচিতে তৃণমূল না থাকায় সেই আলোচনা আরও পুষ্ট হয়।এদিকে গতকাল ভার্চুয়ালি বৈঠক হয়ে সোনিয়া ও মমতার। এইমুহূর্তে সবচেয়ে বেশি জোর দিচ্ছেন কর কমিটির ওপর, জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।















সোনিয়ার ডাকা আজ ভার্চুয়ালি বৈঠকে মমতা !

কংগ্রেস ও শরিক দলের মুখ্যমন্ত্রীদের নিয়ে বৈঠক বসছেন কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গাঁধী। সেখানে আমন্ত্রিত বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। আজ, শুক্রবার বিকেল ৪টে নাগাদ ভার্চুয়াল মাধ্যমে ওই বৈঠক হওয়ার কথা। বিরোধী শাসিত রাজ্যগুলিকে বিভিন্ন ভাবে বঞ্চিত করছে মোদী সরকার। এই অভিযোগ তুলে এ বার সরব হতে চান সনিয়া। সেই লক্ষ্যেই শরিক-সহ বিজেপি বিরোধী মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে তাঁর ওই বৈঠক। ব্যতিক্রম শুধু মমতা।

শরিক না হওয়া স্বত্ত্বেও তিনি এই বৈঠকে আমন্ত্রণ পেয়েছেন। কারণ, এখন কংগ্রেসের সঙ্গে সম্পর্ক ভাল তৃণমূলের। গত মাসে দিল্লি সফরে সনিয়ার বাড়িতে হাজির হয়েছিলেন মমতা। তা ছাড়া বিভিন্ন বিষয়ে সংসদের অধিবেশনেও দু'দলকে সরব হতে দেখা গিয়েছে। সেই রসায়ন থেকেই বাংলার মুখ্যমন্ত্রী আমন্ত্রিত। তৃণমূল সূত্রে খবর, ওই বৈঠকে উপস্থিত থাকবেন দলনেত্রী। ফলে নজর থাকবে আজ এই খবরে।

মমতাকে আমন্ত্রণ সোনিয়ার

আগামী ২০ অগাস্ট সোনিয়া গান্ধী, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে  আমন্ত্রণ জানালেন । অবশ্য শুধু মমতা নন আমন্ত্রিত মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে, ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেন, তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী স্ট্যালিন এছাড়া আমন্ত্রিত প্রবীণ নেতা শারদ পাওয়ার সহ দেশের বিরোধী দলের প্রধান নেতাদের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন সোনিয়া । বিষয় অবশ্যই সাদামাঠা খাওয়াদাওয়া নয়, আলোচনা হবে বর্তমান কেন্দ্রীয় সরকার তথা মোদিরাজের বিরুদ্ধে । দিনটি অত্যন্ত শ্রদ্ধার কংগ্রেসের কাছে কারণ রাজীব গান্ধীর জন্মদিন । রাজীবের প্রতি মমতার গভীর শ্রদ্ধা আজও আছে ।একই সাথে পাওয়ার, রাজীবের মন্ত্রিসভার অন্যতম সদস্য ছিলেন । সুতরাং আশা করা যেতেই পারে আমন্ত্রিতরা যাবেনই ।

পাশাপাশি আজ বিরোধীরা পার্লামেন্ট থেকে বিজয়চক অবধি প্রতিবাদ মিছিল করে । বিজয়চকে বক্তব্য রাখেন রাহুল গান্ধী, শিবসেনার সঞ্জয় রাহুথ সহ বিভিন্ন নেতারা । তাঁরা জানান, পরিকল্পনা করেই সরকার এবারের বাদল অধিবেশন চালিয়েছেন । পেগাসাস, কৃষি আন্দোলন সহ দেশের বিভিন্ন বিষয়কে আমল না দিয়ে নিজেদের মতো সংসদ চালানোর প্রয়াস নিয়েছিল । সম্পূর্ণ ফ্যাসিবাদ চলেছে বলে দাবি বিরোধীদের ।


আজ মমতা সোনিয়া বৈঠক

বুধবার সারাদিনই ব্যস্ত থাকবেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় । দুপুর ১ টাই দলীয় সাংসদের সাথে বৈঠক করবেন রাজ্যসভার সদস্য সুখেন্দুশেখর রায়ের বাড়িতে তারপর সর্বভারতীয় মিডিয়ার সাংবাদিকদের সাথে বসবেন । এরই মাঝে কেউ কেউ হেভিওয়েট নেতারা বিভিন্ন দল থেকে তাঁর সাথে দেখা করতে আসতে পারেন বলে সংবাদ । বিকেলে মমতা দেখা করবেন কংগ্রেসের সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীর সাথে সেখানে প্রিয়াঙ্কা গান্ধীরও থাকার কথা ।

যোগাযোগের কথা আছে বরিষ্ঠ নেতা শারদ পাওয়ারের সাথেও । এরই মধ্যে সূত্রের খবর এসপি নেতা অখিলেশ যাদব, মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে পারেন । সন্ধ্যার পর তাঁর সাথে দেখা করতে আসবেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল । মতের উপর সারাদিনই যোগাযোগে ব্যস্ত মমতা