কঙ্গনা নোংরা ভাষায় আক্রমণ করলেন মমতাকে

কাঙ্গানা তাঁর চিরায়ত ভঙ্গিতে ফের অসংলগ্ন বক্তব্য পেশ করলেন টুইটে । এবারে আক্রমণের কেন্দ্রে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় । সম্প্রতি মমতার দিল্লি সফর নিয়ে বিজেপির তাবড় নেতারাও খুব একটা মুখ খোলেন নি কিন্তু তিনি হলেন কঙ্গনা তিনি নাকি মোদিরাজের ঘনিষ্ট ফলে মোদি বিরোধী সকলেই তাঁর শত্রু বলে মনে করেন তিনি । এর আগেও রাহুল গান্ধী থেকে মমতা, শারদ পাওয়ার থেকে শিবসেনা কেউই ছাড় পান নি তাঁর কুবাক্য থেকে । আজ তিনি টুইট করে মমতাকে 'তাড়কা" বললেন অর্থাৎ রাবনরাজার বোন । কিন্তু তাঁর রাগের কারণ কি ? জানা গেলো যে শাবানা আজমী এবং জাভেদ আখতার মমতার সঙ্গে দেখা করার সঙ্গে সঙ্গে তিনি নাকি ক্ষিপ্ত । তিনি জানাচ্ছেন যে , এরপর মাফিয়ারা 'খানদের' ( মুম্বাইয়ের খানরা) ধরে প্রযোজনার সমস্যা করবে ।

মমতাকে আক্রমণ করার সাথে সাথে সোশ্যাল নেটওয়ার্কে তাঁকে আক্রমণ করা হয়েছে । সাংসদ/অভিনেত্রী শতাব্দী রায় সি এন পোর্টালকে এক সাক্ষাৎকারে বললেন যে কঙ্গনা খুব ভালো অভিনেত্রী, অভিনয়ে থাকলে ভালো হতো কিন্তু ও মানসিক অসুস্থ এবং ওর চিকিৎস্যর দরকার । ও আর ওর বোন এই সব নোংরা অশিক্ষিত অযোগ্য টুইট করে থাকে, ওদের যেন আর কাজ নেই । আজকাল কিরকম 'এডিক্ট'বলে মনে হয়ে কঙ্গনাকে জানালেন শতাব্দী ।


দিল্লিতে দিদির অপেক্ষায় শতাব্দী

লোকসভায় পেগাসাস নিয়ে প্রতিবাদ এবং স্লোগানে গলা ভেঙে গিয়েছে গ্লামার দুনিয়ার অভিনেত্রী এবং তিনবারের জিতে আসা তৃণমূল সাংসদ শতাব্দী রায় । লোকসভায় নিয়মিত থাকার ফলে রাজনীতিটি আয়ত্বে নিয়ে এসেছেন । সি এন পোর্টালকে একান্ত সাক্ষৎকারে জানালেন, এখন আর রবিবার বা বিশ্রামের অবকাশ নেই । দিল্লিতেই থাকছি , দিদি আসছেন কাল সুতরাং তাঁর অপেক্ষাতেই বসে আছি । শতাব্দী জানালেন " পেগাসাস নিয়ে যে নোংরামি হচ্ছে তা স্বাধীন ভারতের ইতিহাসে অভূতপূর্ব "। এখন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দিল্লিতে আসছেন ফলে লোকসভায় বা রাজ্যসভায় যোগাযোগের কাজগুলি করছেন শতাব্দী সহ বাকি সাংসদরা ।

আরও পড়ুনঃ ছুটির বাজারেও পেগাসাস

শতাব্দী জানালেন, যে ভাবে নিয়মিত হারে পেট্রোলিয়াম সামগ্রীর দাম বাড়ছে একই সাথে করোনার টিকা নিয়ে রাজনীতি চলছে তা বর্তমান সরকারের অপদার্থতা আজ জনগণের সামনে । তিনি বললেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে ২০২৪ এ পরিবর্তন আসবেই এবং তাই নিয়ে সম্মিলিত আন্দোলনের পথে তৃণমূল । ফিল্ম নিয়ে প্রশ্ন করলে হেসে বললেন, দেশের অর্থনীতি ভেঙে পড়েছে আগে তার পরিবর্তন হোক তারপর বাকি সব ।