আজ জিতলেই AFC চ্যাম্পিয়ন্স লিগে এটিকে-মোহনবাগান

এটিকে-মোহনবাগানের জয় রথ অব্যাহত। শেষ ম্যাচে আবার চির প্রতিদ্বন্দ্বী এসসি ইস্টবেঙ্গলকে ৩-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে রয় কৃষ্ণরা। সোমবার আইএসএলে পরবর্তী ম্যাচে হায়দরাবাদ এফসির বিরুদ্ধে মাঠে নামছে হাবাসের দল। আর এই ম্যাচটি জিতলেই এএফসি চ্যাম্পিয়ন্স লিগে খেলার ছাড়পত্র পেয়ে যাবে এটিকে-মোহনবাগান। এমনিতে আইএসএলের প্লে অফে পৌঁছেই গিয়েছে দল, তাই এখন এটাই একমাত্র লক্ষ্য অ্যান্তোনিয় লোপেজ হাবাসের। এই মুহূর্তে মুম্বই সিটির পয়েন্ট ১৮ ম্যাচে ৩৪। অন্যদিকে, এটিকে-মোহনবাগানের সমসংখ্যক ম্যাচে ৩৯ পয়েন্ট। অর্থাৎ পাঁচ পয়েন্টে এগিয়ে হাবাস বাহিনী। অঙ্কের বিচারে সোমবার হায়দরাবাদকে হারাতে পারলেই কলকাতার ক্লাবটির পয়েন্ট হবে ৪২, আর শেষ দুই ম্যাচে মুম্বই এফসি জিতলেও পয়েন্ট দাঁড়াবে ৪০। ফলে এদিন জিতলেই গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে এএফসি চ্যাম্পিয়ন্স লিগে খেলার ছাড়পত্র এসে যাবে এটিকে-মোহনবাগানের হাতে।

কৃষ্ণের গোলেই কিস্তিমাত, লিগ শীর্ষে এটিকে-মোহনবাগান

ফের ত্রাতার ভূমিকায় রয় কৃষ্ণ। প্রথম পর্যায়ে এই জামশেদপুর এফসির কাছেই আটকে গিয়ে পিছিয়ে পড়েছিল এটিকে-মোহনবাগান। দ্বিতীয় পর্যায়ে তাঁদের হারিয়েই আইএসএল লিগ শীর্ষে উঠে এল হাবাসের দল। রবিবার সন্ধ্যায় হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর শেষ পর্যন্ত কাঙ্ক্ষিত জয় আসে এটিকে-মোহনবাগানের। ম্যাচের ৮৫ মিনিটে ফিজির ভারতীয় বংশোদ্ভূত তারকা স্ট্রাইকার রয় কৃষ্ণ গোল করে লিগ শীর্ষে তুলতে সাহায্য করলেন। যদিও ম্যাচে ৬ মিনিটের মধ্যেই পেনাল্টি পেতে পারত হাবাসের দল। কিন্তু নিশ্চিত পেনাল্টি থেকে বঞ্চিত হয় তাঁরা। এরপর বেশ কয়েকবার বিপক্ষের গোলে আক্রমণ করেও গোল পায়নি এটিকে মোহনবাগান। অবশেষে ম্যাচের ৮৫ মিনিটে রয় কৃষ্ণ বাঁ পায়ের নিখুঁত প্লেসিং গোলের রাস্তা খুঁজে নেয়। স্বস্তি ফেরে এটিকে-মোহনবাগান শিবিরে। ১৭ ম্যাচে রয় কৃষ্ণদের সংগ্রহ ৩৬ পয়েন্ট নিয়ে লিগ শীর্ষে উঠে এল তাঁরা। পিছনে পড়ে গেল মুম্বই সিটি এফসি। অপরদিকে ডার্বির আগে এই জয় বাড়তি অক্সিজেন দিল এটিকে-মোহনবাগানকে। কারণ আইএসএল প্লে অফে আগেই জায়গা করে নিয়েছে অ্যান্টোনিও লোপেজ হাবাসের ছেলেরা।
ছবিঃ টুইটার

রয় কৃষ্ণ ও মনবীরের জোড়া গোলে ওডিশাকে হারাল এটিকে-মোহনবাগান

কেরালার বিরুদ্ধে রুদ্ধশ্বাস জয় হাবাসের দলকে কার্যত অক্সিজেন দিয়েছিল। শনিবার ওডিশার বিরুদ্ধে মনবীর সিং ও রয় কৃষ্ণর জোড়া গোলে বিরাট জয় পেল এটিকে-মোহনবাগান। স্টুয়ার্ট বাক্সটারের দলকে ৪-১ গোলে হারাল হাবাসের দল। জয় পেয়ে শীর্ষে থাকা মুম্বই সিটি এফসির সঙ্গে পয়েন্ট ব্যবধান কমাল এটিকে-মোহনবাগান। একইসঙ্গে অভিষেক ম্যাচেই নজর কাড়লেন লেনি রডরিগেজও।
কোচ বদল হলেও ওডিশা দলের পারফর্ম্যান্সে কোনও পরিবর্তন হল না। প্রথমার্ধ থেকেই দাপট দেখাল রয় কৃষ্ণ থেকে মার্সেলিনহোরা। গোলের দরজা খুলতে তৎপর হয়ে উঠেছিল তাঁরা। ১১ মিনিটের মাথায় মনবীর সিংয়ের দুরন্ত গোলে এগিয়ে যায় হাবাসের দল। মার্সেলিনহোর বাড়ানো বল ওডিশার ডিফেন্ডার প্রতিহত করলেও মনবীরের পায়ে বল জমা পড়ে। বল পেয়ে বাঁ পোস্টের ১০ গজ দূর থেকে নেওয়া শট ডান পোস্টের ওপরে লেগে জালে জড়ায়। তবে প্রথমার্ধের ইনজুরি  টাইমে এটিকে-মোহনবাগানের ডিফেন্সের ভুলে কোলস আলেকজান্ডারের গোলে সমতায় ফেরে ওডিশা এফসি। তবে দ্বিতীয়ার্ধ শুরু হতেই সেই গোল হারিয়ে যায়।