Afghanistan:পাঞ্জশিরে পাকিস্তান সেনাবাহিনী (SSG) বিপর্যয়ের মুখে!

পাঞ্জশির কি পাক সেনাবাহিনীর কফিনে পরিণত হচ্ছে ক্রমশ। ইঙ্গিত সে দিকেই। তালিবানকে সমর্থন দিতে পাক সেনাবাহিনীর SSG- র স্পেশাল কমান্ডোরা পাঞ্জশিরে প্রবেশ করে। এমনকি পাক বাহিনীর মদতে চলে এয়ার স্ট্রাইক। 

তবে সূত্র অনুসারে ও ভারতের প্রাক্তন সেনা আধিকারিকদের টুইট থেকে পাক বাহিনীর বিপর্যয়ের খবর সামনে আসছে। তথ্য বলছে ৭ জন অফিসার, ১২ জন জুনিয়র কমিশনডসহ ৭৫ জন সেনা আধিকারিক ও কর্মীর মৃত্যু হয়েছে। 

আহমেদ মাসুদ এর নেতৃত্বে ন্যাশনাল রেসিস্টেন্স ফোর্স এর বাধার মুখে পড়ে পাক বাহিনীর ১৬০ জন সেনা জওয়ান গুরুতর আহত হয়েছেন। সূত্র বলছে, পরিস্থিতি সামলাতে মেজর জেনারেল আদিল রাহামনিকে কোয়েটা প্রদেশ এলাকায় যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এদিকে পাঞ্জশিরে প্রবল গুলির লড়াইয়ে শেষ পর্যন্ত আমিরুল্লা সালেহর ভাই এর মৃত্যু হয়েছে। তালিবান বন্দুকবাজদের গুলিতেই মৃত্যু হয় আমিরুল্লা সালেহর ভাইয়ের। 


Exclusive: যুদ্ধ বিদ্ধস্ত আফগানিস্তান, শান্ত হোক তার দেশ- প্রার্থনা পাঞ্জশির ছোট্ট খাইয়া

সত্যজিৎ মুখোপাধ্যায়ঃ যুদ্ধ বিদ্ধস্ত আফগানিস্তান। প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ গৃহহীন হচ্ছেন। শয়ে শয়ে মানুষ রক্তাক্ত হচ্ছেন। বিনা কারণে খুন হয়ে যাচ্ছেন। আফগানিস্তানের চোখ জুড়ানো উপত্যকা জুড়ে যেমন কান পাতলে নদীর বয়ে যাওয়ার শব্দ শোনা যায়, তেমনি অসংখ্য শিশু,অসহায় এর বুক ফাটা আর্তনাদও কানে ভেসে আসে।

এরই মাঝে পাঞ্জশির ছোট্ট খাইয়ান এর প্রার্থনা। ঈশ্বরের কাছে তার প্রার্থনা এই সব কিছু বন্ধ হোক। শান্ত হোক তার দেশ। তার প্রিয় উপত্যকা। পাহাড়ি নদীর স্রোতে আবার ভেসে আসুক সংগীত এর সুর। বিশ্ববাসী ও তাই চায়। সত্যি হোক খাইয়ান এর প্রার্থনা। 

পাঞ্জশির জুড়ে প্রবল যুদ্ধের পর ছড়িয়ে আছে বহু দেহ। পাঞ্জশির জুড়ে চলছে এখনও গুলির লড়াই। তালিবানদের আগ্রাসন রুখতে বদ্ধপরিকর নর্দান অ্যালাইন্স এর যোদ্ধারা। প্রানপনে মাটি কামড়ে নিজেদের স্বল্প সামর্থ্য নিয়ে আধুনিক অস্ত্রশস্ত্র এ সজ্জিত তালিবানদের বিরুদ্ধে চলছে লড়াই। 

এদিকে তালিবানদের দাবি, পাঞ্জশির তাদের দখলে। অন্যদিকে নর্দান অ্যালাইন্স দাবি, পাঞ্জশির এখনও তাদের দখলেই আছে। 


Afghanistan: রণক্ষেত্রে পঞ্জশির! ৬০০ তালিবান-কে মারল নর্দান অ্যালাইন্স

পঞ্জশিরঃ আফগানিস্তানের দখল নিলেও, পঞ্জশির প্রদেশ এখনও হাতছাড়া তালিবানদের। নর্দান অ্যালাইন্সের দাপটে ওই এলাকার দখল নিতে পারছে না জেহাদিরা।  

যদিও তালিবান দাবি করেছে পঞ্জশির তাদের দখলে এসেছে। অপরদিকে নর্দান অ্যালাইন্স ওই উড়িয়ে দিয়ে,জানিয়েছে পঞ্জশির তাদের দখলেই রয়েছে। পাশাপাশি আমরুল্লাহ সালেহর পালানোর খবর সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন বলে দাবি। 

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, শনিবার থেকে পঞ্জশিরে তালিবান এবং নর্দান অ্যালাইন্সের মধ্যে ফের গুলির লড়াই শুরু হয়েছে। নর্দান অ্যালাইন্সের মুখপাত্র ফাহিম দশতি টুইটে জানান, ইতিমধ্যে ৬০০ জনেরও বেশি তালিবান জঙ্গি মারা গিয়েছে। আত্মসমর্পন করেছে প্রায় ১০০০ তালিবান বাহিনী। 

প্রতিরোধ বাহিনীর পরাক্রমের সামনে অস্ত্র প্রত্যাহার করেছে হাজারেরও বেশি জঙ্গি। তারা আত্মসমর্পন করেছে।

মূলত পঞ্জশিরে তালিবানের সঙ্গে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে আফগানিস্তানের প্রাক্তন উপরাষ্ট্রপতি আমিরুল্লাহ সালেহ এবং আহমেদ মাসুদের দলবল। যা নর্দান অ্যালাইন্স নামে পরিচিত।


Afghanistan: পাঞ্জশির কি তালিবানের দখলে?

আফগানিস্তানে প্রতিরোধের আরেক নাম পাঞ্জশির । ‘সিংহের উপত্যকা’ বারবার রক্তাক্ত করেছে তালিবানকে । এবারও পাহারঘেরা প্রদেশটি থেকে জেহাদিদের বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন বিখ্যাত মুজাহিদ কমান্ডার আহমেদ শাহ মাসুদের পুত্র আহমেদ মাসুদ। তাঁর সঙ্গে যোগ দিয়েছেন আফগানিস্তানের প্রাক্তন ভাইস প্রেসিডেন্ট আমরুল্লা সালেহ।

তালিবানের শান্তি আলোচনার পালটা পঞ্জশিরের যোদ্ধারা বার্তা দিয়েছেন, ‘কথা নয়, যুদ্ধ হবে।’ কিন্তু শুক্রবার উদ্বেগ উসকে পঞ্জশির দখল করার দাবি জানিয়েছে তালিবান। এদিকে  আফগানিস্তান ছেড়ে পালিয়ে যাওয়ার খবর ভিত্তিহীন , গুজব বলে জানালেন নর্দান আলাইন্স নেতা আমিরুল্লা সালেহ । তিনি আফগানিস্তানেই আছেন । যুদ্ধের ময়দানে আছেন।দেশ ছেড়ে পালাইনি জানাল আমিরুল্লা সালেহ। উল্লেখ্য, আফগানিস্তান  জয় করেও স্বস্তি নেই তালিবানের।

এখনও তাদের গলার কাঁটা হয়ে রয়েছে কাবুল থেকে মাত্র ১১০ কিলোমিটার দূরের হিন্দুকুশ ঘেরা স্বাধীন পঞ্জশির। বাধ্য হয়ে ‘ওয়ারলর্ড’ আহমেদ মাসুদ ও সালেহর সঙ্গে আলোচনার টেবিলে বসতে চাইছিল তালেবরা। কিন্তু সেই কথায় কান দেননি তাঁরা। বাবার মতোই জেহাদি গোষ্ঠীটির সঙ্গে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন মাসুদ। আর গোড়া থেকেই প্রতিরোধ গড়ে তোলার কথা বলে আসছেন সালেহ। 


Exclusive: এবার পাঞ্জশির আম জনতা হাতে বিধ্বস্ত তালিবান,দেখুন সেই ভিডিও

সত্যজিৎ মুখোপাধ্যায়ঃ আফগানিস্তানে গণতন্ত্রের শেষ ঠিকানা এখন পাঞ্জশির। তবে তালিবান শীর্ষ নেতৃত্বের একেবারেই না পসন্দ পাঞ্জশির এই গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা। আধুনিক চেতনা বোধ। তাই ব্ল্যাক হেলিকপ্টার , ভারী সাঁজোয়া গাড়ি নিয়ে বার বার হামলা চালাচ্ছে তালিবান। হামলা চলছে পার্বান,বালগাম অঞ্চলে।  

কিন্তু নর্দান অ্যালাইন্স এর জোর প্রতিরোধে সুবিধা করতে পারছে না তালিবান বন্দুকবাজরা। পাঞ্জশির নর্দান অ্যানাইন্সের প্রতিরোধ এর মুখে পড়ে পালাতে থাকে তালিবান বন্দুকবাজরা। সেই সময় দল ছুট হয়ে যায় বেশ কয়েকজন তালিবান যোদ্ধা। ধরা পড়ে যায় পাঞ্জশির আম জনতার হাতে। 

তালিবান বন্দুকবাজদের গাড়ি ভর্তি বন্দুক। কিন্তু পরাজিত তালিবদের সারা শরীর ক্ষত-বিক্ষত। রক্তাক্ত তালিবান। বলা যায়,সাধারণ মানুষের হাতে পরে নাজেহাল অবস্থা তালিবানদের। 

নারী স্বাধীনতায় তালিবানরা বিশ্বাস করে না কিন্তু পাঞ্জশির করে। তাই তালিবানদের বিরুদ্ধে গণতন্ত্রকে বাঁচিয়ে রাখার লড়াইতে নর্দান অ্যালাইন্সকে যোগ্য সঙ্গত করছেন সেখানকার মহিলারা। নর্দান অ্যালাইন্স যোদ্ধাদের খাদ্য সরবরাহ থেকে ট্রেঞ্চ তৈরিতেও সমান সহযোগিতা করছে নারী বাহিনী।  

এদিকে বৃহস্পতিবার রাত ভর গুলি যুদ্ধের পর পাঞ্জশির সংলগ্ন পার্বান প্রদেশ এর রাজধানী চারিকার দখলে নিলো নর্দান অ্যালাইন্স। একই সঙ্গে সালাঙ জেলা ও নর্দান অ্যালাইন্স এর দখলে এসেছে বলে খবর। 


পাঞ্জশির তালিবান জঙ্গিরা পালিয়ে যাচ্ছে। দেখুন সেই মুহূর্তের ভিডিও

কাবুলঃ আফগানিস্তানের ৮০ শতাংশ তালিবানরা দখল করতে পারলেও, এখনও পাঞ্জশির প্রদেশ দখল করতে পারেনি তারা। ওই প্রদেশ দখল করতে গিয়ে বার বার প্রতিরোধের মুখে পড়তে হচ্ছে তালিবানদের। 

শনিবার রাতেই স্বাধীন পাঞ্জশির এলাকা দখল করার উদ্দেশ্যে বিশাল সংখ্যক তালিবান বন্দুকবাজ ঢোকার চেষ্টা করলে, শুরু হয় নর্দান আলাইন্স ও তালিবানদের মধ্যে গুলির লড়াই। পাঞ্জশির লড়াই চরমে। 

শেষ পাওয়া খবর অনুসারে, নর্দান আলাইন্স এর গুলিতে মৃত্যু হয়েছে বানু জেলার তালিবানি পুলিশ আধিকারিকের। অন্ধরাব এলাকায় চলেছে গোলাগুলি। সেখানেও কমপক্ষে ৫০ জন তালিব জঙ্গিকে নিকেশ করা হয়েছে বলে খবর। 

এরই মধ্যে প্রকাশ্যে এসেছে একটি ভিডিও। সেখানে দেখা যাচ্ছে, পাঞ্জশির তালিবান জঙ্গিরা পালিয়ে যাচ্ছে। দেখুন সেই ভিঢিও।