তালিবানদের উদ্দেশ্যে কড়া বার্তা মোদির

 তালিবান কবলে এবার আফগানিস্তান । বিশ্বজুড়ে ভয়ের পরিবেশ। ভীত ভারতীয়রাও। এই পরিস্থিতিতে সাধারণ মানুষের মনের ভয় দূর করার চেষ্টা করলেন নরেন্দ্র মোদী। তালিবানদের উদ্দেশ্যে কড়া বার্তা দিলেন প্রধানমন্ত্রী। তাঁর স্পষ্ট বক্তব্য, "ধ্বংসাত্মক শক্তি, যারা ভুল পথে ক্ষমতা কায়েম করে, তারা সাময়িক ভাবে শাসন করতে পারে। তবে তাদের উপস্থিতি স্থায়ী নয়, কারণ তারা কোনও ভাবে মানবতাকে ধ্বংস করতে পারবে না।" 

শুক্রবার গুজরাটের সোমনাথ মন্দিরে একাধিক প্রকল্প উদঘাটন করেন প্রধানমন্ত্রী । সেই অনুষ্ঠানে আফগানিস্তানে তালিবানরাজ কায়েম হওয়া নিয়ে প্রথমবার মুখ খোলেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, "সোমনাথ মন্দিরে  বারবার হামলা হয়েছে। মূর্তি ভাঙা হয়েছে। অস্তিত্ব মুখে দেওয়ার চেষ্টা হয়েছে। কিন্তু বারবারই সোমনাথ মন্দির নিজের স্বমহিমায় ফিরে এসেছে। সেটাই আমাদের উদ্বুদ্ধ করে। কড়া হুঁশিয়ারি দিলেন মোদি।

মোদির জনপ্রিয়তা কমল, প্রধানমন্ত্রীর মুখ হিসেবে চতুর্থ স্থানে মমতা

দেশের প্রধানমন্ত্রীর মুখ হিসেবে তাঁর নামই সকলের আগে। কিন্তু গত এক বছরে দ্রুতগতিতে সমর্থন কমছে তাঁর প্রতি। গত বছরের আগস্টেও যেখানে ৬৬ শতাংশ মানুষ নরেন্দ্র মোদিকেই  প্রধানমন্ত্রী হিসেবে চাইছিলেন, সেখানে এবারের আগস্টে এসে তা নেমে দাঁড়িয়েছে ২৪ শতাংশে। শুধু তাই নয়, নতুন সমীক্ষা থেকে জানা গিয়েছে, প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের  নাম এখন চতুর্থ স্থানে উঠে আসছে।

এবারের সবচেয়ে বড় চমক মুখ্যমন্ত্রীর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের চতুর্থ স্থানে উঠে আসা। গত আগস্টে তাঁকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে চাইছিলেন ২ শতাংশ মানুষ। জানুয়ারিতে তা বেড়ে ৪ শতাংশ হওয়ার পরে এবারের আগস্টে সেটা এসে দাঁড়িয়েছে ৮ শতাংশ। এব্যাপারে তাঁর সঙ্গে একই স্থানে রয়েছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। তাঁকেও প্রধানমন্ত্রী চাইছেন ৮ শতাংশ মানুষ। তবে মোদির জনপ্রিয়তা কমে এসেছে অনেকটাই। এবার জনপ্রিয়তার নিরিখে তবে  কি বাংলার মুখ্যমন্ত্রী।









প্রধানমন্ত্রীর বেফাঁস মন্তব্য

ফের বেফাঁস প্রধানমন্ত্রী! ৭৫তম স্বাধীনতা দিবসে লালকেল্লায় দাঁড়িয়ে জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেওয়ার সময় স্বাধীনতা সংগ্রামী মাতঙ্গিনী হাজরাকে অসমের বলে মন্তব্য করলেন নরেন্দ্র মোদি । স্বাভাবিকভাবেই তাঁর এই মন্তব্যের সমালোচনায় সরব বিরোধীরা। এহেন মন্তব্যের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে ক্ষমা চাইতে হবে, এমন দাবি করেছেন রাজ্য সম্পাদক তথা তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ।

৭৫তম স্বাধীনতা দিবসে লালকেল্লায় দাঁড়িয়ে স্বাধীনতাযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী মহিলাদের স্মরণ করছিলেন প্রধানমন্ত্রী। ঝাঁসির রানি লক্ষ্মীবাঈ-সহ একাধিক মহিলা যোদ্ধাকে সম্মান জানান তিনি। বিভিন্ন রাজ্যের বীরাঙ্গনাদের নামের পাশাপাশি উচ্চারিত হয় তমলুকের মাতঙ্গিনী হাজরার নাম। কিন্তু তাঁকে বাংলার স্বাধীনতা যোদ্ধা হিসেবে পরিচয় দেওয়ার বদলে অসমের বীরাঙ্গনা বলে দাবি করেন প্রধানমন্ত্রী। এই নিয়ে শুরু হয় তীব্র বিতর্ক।



দেশের সব সৈনিক স্কুলে ছাত্রীদের শিক্ষার ব্যবস্থার ঘোষণা প্রধানমন্ত্রীর

৭৫ তম স্বাধীনতা দিবসের প্রাক্কালে দেশবাসীকে টুইট বার্তা দিলেন মোদী। লালকেল্লায় পতাকা উত্তোলন করবেন প্রধানমন্ত্রী। তাঁর আগে টুইটে তিনি লিখলেন, 'স্বাধীনতার অমৃত মহোৎসব দেশবাসীকে নতুন শক্তি দিক। মানুষের মধ্যে নতুন চেতনার তৈরি হোক।' স্বাধীনতা দিবসের প্রাক্কালে শনিবার দেশবাসীর উদ্দেশ্যে বার্তা দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। দেশ ভাগের স্মৃতি উস্কে  ১৪ অগাস্ট দিনটি হিসেবে পালনের ঘোষণা করেছেন তিনি। দেশভাগের সময় যাঁদের প্রাণ গিয়েছে, তাঁদের স্মরণও করেছেন নমো। রবিবার লাল কেল্লায় কোভিড বিধি মেনেই পালন করা হবে স্বাধীনতা দিবস। দেশবাসীর উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখবেন প্রধানমন্ত্রী।

স্কুলে খেলাকে মেন স্ট্রিমে আনা হয়েছে। দেশে ফিটনেস, স্পোর্টস নিয়ে নবজাগরণ ঘটেছে। অলিম্পিক থেকে অন্য যে কোনও ক্ষেত্র- ভারতের মেয়েরা অভূতপূর্ব প্রদর্শন করছেন।দেশের প্রতিটি সেনা স্কুলে এবার মেয়েরাও পড়ার সুযোগ পাবেন। বড় ঘোষণা মোদির।

লাদাখ থেকে উত্তর-পূর্ব ভারত, প্রত্যেক প্রান্তই উন্নতির পথে এগিয়ে চলেছে বলে জানাচ্ছেন মোদি। চাষবাস, শিক্ষা, পর্যটক-সব ক্ষেত্রেই উন্নয়ন হচ্ছে।

আগামী ২৫ বছরে ভারতে আসবে ‘অমৃতকাল’। অর্থাৎ স্বাধীনতার শতবর্ষ পূর্তিতে সাফল্যের নয়া শিখর ছুঁয়ে ফেলবে দেশ। যেখানে দেশে কোনও পরিকাঠামোর অভাব থাকবে না। বললেন নরেন্দ্র মোদি। তার জন্য এখন থেকে কাজ করতে শুরু করতে হবে। দেশকে বদলাতে হবে এবং নাগরিক হিসেবে নিজেদেরও বদলে ফেলতে হবে।

৭৫ তম স্বাধীনতা দিবসে লালকেল্লায় জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। জওহরলাল নেহরু থেকে বাবা  সাহেব আম্বেদকর পর্যন্ত- প্রত্যেকের
অবদানের কথা জানালেন তিনি।

হাসপাতালে নয়া অক্সিজেন প্লান্ট। স্বাস্থ্য পরিষেবায় বিশেষ নজর। উত্তর-পূর্বে শিগগির রেল যোগাযোগ তৈরি হবে। আগামী ২৫ বছর অমৃতকাল। ছোট কৃষকদের পাশে নানা সংযোজন। তাদের পাশে থাকবে সরকার। বিজ্ঞানভিত্তিক কৃষিতে জোর দেওয়া হবে। কম সুদে ঋণের ব্যবস্থা করা হয়েছে ইতিমধ্যেই'', এদিন বললেন প্রধানমন্ত্রী।

টোকিও অলিম্পিকে যেসব ক্রীড়াবিদ আমাদের গর্বিত করেছেন তাঁরা আজ আমাদের মাঝে আছেন। আমি জাতির প্রতি আহ্বান জানাই আজ তাদের কৃতিত্বকে সাধুবাদ জানাতে। তারা শুধু আমাদের হৃদয়ই জেতেনি, ভবিষ্যত প্রজন্মকেও অনুপ্রাণিত করেছে: প্রধানমন্ত্রী মোদী।


করোনা  চলাকালীন ডাক্তার, নার্স, প্যারামেডিক্যাল স্টাফ, স্যানিটেশন কর্মী, বিজ্ঞানী যাঁরা ভ্যাকসিন তৈরি করছিলেন সেই সমস্ত করোনা যোদ্ধাদের আমার শ্রদ্ধা। লালকেল্লা থেকে বললেন প্রধানমন্ত্রী।

রাষ্ট্রসংঘের সাধারণ সভায় যোগ দিতে আমেরিকায় মোদি:

আগামী সেপ্টেম্বর মাসে সবকিছু ঠিক থাকলে রাষ্ট্রসংঘের সাধারণ সভায় যোগ দিতে আমেরিকায় যেতেন পারেন নরেন্দ্র মোদি। যদিও গত সোমবার রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে (UNSC) সভাপতিত্ব করেছেন তিনি। স্বাধীনতার পরে এই প্রথমবার ভারতের কোনও প্রধানমন্ত্রী এই দায়িত্ব পালন করেছেন। রাষ্ট্রসংঘের অনুষ্ঠানে যোগদানের মাধ্যমেই আবার মোদির বিদেশ সফর শুরুর সম্ভাবনা রয়েছে।

এই প্রথমবার ভারতের কোনও প্রধানমন্ত্রী এই দায়িত্ব পালন করেছেন। রাষ্ট্রসংঘের অনুষ্ঠানে যোগদানের মাধ্যমেই আবার মোদির বিদেশ সফর শুরুর সম্ভাবনা রয়েছে। বিশ্বের করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে থাকলে আগামী সেপ্টেম্বর মাসের মাঝামাঝি রাষ্ট্র সংঘের (৭৬ তম) সাধারণ সভায় যোগ দিতে মার্কিন (US) সফরে যেতে পারেন। একথা জানিয়েছেন খোদ প্রধানমন্ত্রী। বুধবার, বাদল অধিবেশনের লোকসভায় ‘সাইন এ ডাই’ হয়ে যাওয়ার পরে অধ্যক্ষ ওম বিড়লার দফতরে প্রধানমন্ত্রী-সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সংসদীয় নেতা এবং সাংসদরা হাজির ছিলেন। এদিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি জানান, করোনা পরিস্থিতির কারণে তিনি বিদেশ সফরে যাচ্ছেনা না. কিন্তু সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী সেপ্টেম্বর মাসে তিনি আমেরিকায় যাবনে।

রান্নার গ্যাসের উজ্জ্বলা ২.০ , প্রকল্প সূচনার বার্তা মোদির

মঙ্গলবার উজ্জ্বলা প্রকল্পের দ্বিতীয় সংস্করণের (উজ্জ্বলা ২.০) সূচনা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। যে প্রকল্পের আওতায় আরও এক কোটি উপভোক্তাকে রান্নার গ্যাস প্রদান করা হবে।প্রথম পর্যায়ে যাঁরা (যাঁদের প্রথম দফায় দেওয়া হবে বলা হয়েছিল) গ্যাসের কানেকশন পাননি, তাঁদের জন্য ‘উজ্জ্বলা ২.০’ প্রকল্প চালু করা হয়েছে। দ্বিতীয় পর্যায়ে এক কোটি রান্নার গ্যাসের সংযোগের লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে।

দ্বিতীয় পর্যায়ে বিনামূল্যে রান্নার গ্যাসের সংযোগ মিলবে। প্রথমবার গ্যাস ভরতে কোনও টাকা লাগবে না। উপভোক্তাদের বিনামূল্যে উনুন দেওয়া হবে।নথিভুক্তকরণ প্রক্রিয়ায় আরও সরল হয়েছে। পরিযায়ীদের রেশন কার্ড বা ঠিকানার প্রমাণপত্র জমা দিতে হবে না। যে পরিবার এবং ঠিকানার স্বপক্ষে স্বঘোষিত ঘোষণাপত্র দিতে হবে। সেটাই যথেষ্ট।যদিও আবেদনকারীকে মহিলা হতে হবে. এছাড়া ১৮ বছর বয়স হতে হবে. ২০১৬ সালের ১ মে উজ্জ্বলা প্রকল্পের সূচনা করেছিলেন মোদী। যে প্রকল্পের আওতায় প্রাথমিকভাবে দেশে দরিদ্রসীমার নীচে থাকা পাঁচ কোটি পরিবারে এলপিজি রান্নার গ্যাসের সংযোগ পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছিল।

সেজন্য ২০২০ সালের মার্চের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারিত হয়েছিল। পরে ২০১৮ সালের অগস্টে আরও সাতটি শ্রেণির মহিলাদেরও সেই প্রকল্পের আওতায় আনা হয়েছিল। তাঁরা হলেন - তফসিলি জাতি ও উপজাতি শ্রেণিভুক্ত, প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার আওতাভুক্ত, অন্তোদ্যয় অন্ন যোজনা, বনে বসবাসকারী, সবথেকে পিছিয়ে পড়া শ্রেণি, চা-বাগান এবং দ্বীপে বসবাসকারী মহিলারা। সেইসঙ্গে রান্নার গ্যাস দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা বাড়িয়ে আট কোটি করা হয়েছিল।কেন্দ্রের দাবি, ২০১৯ সালের অগস্টের মধ্যে সেই লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হয়ে গিয়েছে। এবার আর ও এক প্রকল্প আনলেন।

মোদী সমর্থনে মায়া

মায়াবতী পরিষ্কার বার্তা দিলেন যে এবারে সরাসরি সমর্থন করবেন বিজেপি এবং মোদী সরকারকে । একটিই দাবি রয়েছে তাঁর, মোদী সরকার জাতভিত্তিক সুমারিকে সমর্থন করুক । রাজনৈতিক মহলের কাছে এটি নতুন বার্তা নয়, বিগত বেশ কিছু নির্বাচনে বিশেষ করে উত্তরপ্রদেশ রাজ্যসভা নির্বাচনে পরোক্ষ ভাবে বিজেপিকে সহযোগিতা করেছিল মায়ার বিএসপি । এখানেই শেষ নয় বিহার নির্বাচনে যেখানেই সেখানকার সরকারের বিরুদ্ধে যেখানেই একের বিরুদ্ধে এক লড়াই হয়েছে সেখানেই মায়ার প্রার্থী দাঁড় করানো হয়েছে ভোট কাটার জন্য । এবারে পেগাসাস ইস্যুতে মায়ার দল কোনও ভাবেই বিরোধী জোটের সঙ্গে ছিল না ।
গুঞ্জনে মায়া ক্ষমতায় থাকার সময় তাঁর বিরুদ্ধে বিশাল সরকারি খরচের দায় এসেছিলো । উত্তরপ্রদেশে বিস্তর খরচ হয়েছিল নানান মূর্তি লাগানোর ক্ষেত্রে । এই দুর্নীতির বিরুদ্ধে শোনা যায় যে কেন্দ্রীয় প্রশাসনিক এজেন্সির তদন্ত ছিল এবং সেই কারণেই মায়াবতী বিজেপির সাথে একটা আপোষে আসছে । অবশ্য বর্তমানে উত্তরপ্রদেশের বিজেপির যোগী সরকার নিজেদের জনপ্রিয়তা হারিয়েছে সে কারণে নতুন বন্ধু মায়াবতীর জোটে যোগ দেওয়াকে 'বিপদের বন্ধুত্ব' হিসাবেই দেখছে রাজনৈতিক মহল । অবশ্য এটাও ঠিক যে মায়া/যোগী জোট হলে সমাজবাদী পার্টির পক্ষে সুবিধার কারণ সে ক্ষেত্রে ভোট কাটাকাটির সুযোগ নেই ।

এবার কোপ প্রয়াত রাজীবের উপর

রাজীব গান্ধী ক্রীড়া প্রেমী ছিলেন, তা দেশের মানুষ জানে । প্রধানত তাঁর উদ্যোগে ১৯৮২ তে ভারতে 'এশিয়ান গেমসের' আয়োজন করা হয় । সে সময়ে ইন্দিরা গান্ধী দেশের প্রধানমন্ত্রী, কথা আগে হয়ে ছিল কিন্তু রাজীব নিজে উদ্যোগ নিয়ে সার্থক ভাবে এশিয়ান গেমস শুরু এবং সমাপ্ত করেন । ১৯৮৩ তে ভারত ক্রিকেটে বিশ্বকাপ জয় করে এবং তাঁদের সম্বর্ধনার আয়োজন করেন রাজীবই । এছাড়াও তাঁর আমলে সারা ভারতে খেলার উন্নতির দিকে বিশেষ নজর দেওয়া হয় । তাঁর মৃত্যুর পরে তাঁর নামাঙ্কিত 'রাজীব খেলরত্ন' পুরস্কারের আয়োজন করা হয় ।
আজ সেই নাম সরিয়ে দেওয়া হলো । নরেন্দ্র মোদী টুইট করে দেশবাসীকে জানালেন এবার থেকে রাজীবের নামের জায়গায় প্রয়াত হকি খেলোয়াড় ধ্যানচাঁদের নাম থাকবে । প্রশ্ন উঠেছে দেশের অভ্যন্তরে বন্ধ হয়ে থাকা হকি টূর্ণামেন্টগুলির চালু হলো না কেন ? তৃণমূল কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক কুনাল ঘোষ সি এন পোর্টালকে জানালেন, অত্যন্ত নিন্দনীয় বিষয় । মোদীজি দীর্ঘদিন বাদে হকিতে ব্রোঞ্জ পাওয়ার সুযোগটি নিতে চাইছেন কি? অনায়াসেই বন্ধ হয়ে থাকা একসময় ভারত বিখ্যাত হকি টুর্মামেন্টগুলি ধ্যানচাঁদের নাম শুরু করা যায় কিন্তু সেসব না করে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীকে অসম্মান করার যৌক্তিকতা কি? এটি সম্পূর্ণ রাজনীতি হচ্ছে । প্রতিবাদ উঠেছে কংগ্রেসের তরফ থেকেও । তাদের বক্তব্য যে ভাবেই হোক মোদীজি গান্ধী পরিবারকে জনমানসের মধ্যে থেকে সরিয়ে নেবার অপচেষ্টা চলছে ।

স্বাধীনতা দিবসে চানু-সিন্ধুকে সংবর্ধনা প্রধামন্ত্রীর

এবছর স্বাধীনতা দিবসে বিশেষ সম্মান পেতে চলেছেন পিভি সিন্ধু, মীরাবাই চানু, লভলিনা বড়গোহাঁইরা। ১৫ অগস্ট তাঁদের লালকেল্লায় সংবর্ধনা দেবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তবে শুধু পদকজয়ীরা নন, চলতি টোকিয়ো অলিম্পিক্সে অংশ নেওয়া ভারতীয় দলের প্রত্যেক সদস্যকে বিশেষ সম্মান জানানো হবে। প্রধানমন্ত্রীর দফতরের তরফে জানা গেছে।

মঙ্গলবার বেলজিয়ামের কাছে ৫-২ গোলে হেরে সোনা জয়ের স্বপ্ন জলে গেলেও মনপ্রীত সিংহের ভারতীয় দলের প্রশংসা করেছেন প্রধানমন্ত্রী।তিনি টুইটারে লিখেছিলেন, 'হার-জিত খেলার অঙ্গ। আমাদের পুরুষ হকি দল টোকিয়ো অলিম্পিক্সে সেরা পারফরম্যান্স করেছে। আর এটাই শেষ কথা। পরবর্তী ম্যাচ ও ভবিষ্যতের জন্য আমাদের দলকে শুভেচ্ছা। দেশ এমন খেলোয়াড়দের জন্য গর্বিত। লালকেল্লায় দেওয়া হবে এই সংবর্ধনা।


মেডিকেল ও ডেন্টাল কোর্সের সংরক্ষণ ঘোষণা কেন্দ্রের

বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়, সর্বভারতীয় কোটা কর্মসূচির আওতায় স্নাতক এবং স্নাতকোত্তরে সমস্ত মেডিকেল এবং ডেন্টাল কোর্সে এমবিবিএ,সমডিএম,এসডিপ্লোমাবিডি,এসএমডিএস অন্যান্য অনগ্রসর শ্রেণির (ওবিসি) জন্য ২৭ শতাংশ আসন সংরক্ষিত থাকবে। আর্থিকভাবে দুর্বল প্রার্থীদের জন্য আসন সংরক্ষণ করা হবে ১০ শতাংশ। যে নিয়ম ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষ থেকেই কার্যকর হবে। সেইসঙ্গে কেন্দ্রের দাবি, ‘সেই সিদ্ধান্তের ফলে প্রায় ৫,৫০০ পড়ুয়া এমবিবিএসে ১,৫০০ জন এবং স্নাতকোত্তরে ২,৫০০ জন ওবিসি পড়ুয়া, এমবিবিএসে ৫৫০ জন এবং স্নাতকোত্তরে ১,০০০ জন আর্থিকভাবে দুর্বল পড়ুয়া উপকৃত হবেন।

এদিকে পিছিয়ে পড়া শ্রেণির পড়ুয়া এবং আর্থিকভাবে দুর্বল প্রার্থীদের পর্যাপ্ত সংরক্ষণ দিতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ সরকার।’ঘোষণার পর টুইটারে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, ‘সর্বভারতীয় কোটা কর্মসূচির আওতায় বর্তমান শিক্ষাবর্ষ থেকে স্নাতক এবং স্নাতকোত্তরে সমস্ত মেডিকেল এবং ডেন্টাল কোর্সে ওবিসিদের ২৭ শতাংশ এবং আর্থিকভাবে দুর্বল প্রার্থীদের জন্য ১০ শতাংশ সংরক্ষণের যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে আমাদের সরকার, তা মাইলফলক হয়ে থাকবে। সেই সংরক্ষণের ফলে প্রত্যেক বছর আমাদের দেশের হাজার-হাজার ছেলেমেয়েরা অত্যন্ত উপকৃত হবেন। যা আমাদের সামাজিক ন্যায়ের ক্ষেত্রে নয়া দৃষ্টান্ত স্থাপন করবে।’

আজ মোদি-মমতার বৈঠক

মঙ্গলবার  একাধিক কর্মসূচিতে ব্যস্ত থাকবেন তৃণমূল সুপ্রিমো। দুপুর থেকে সন্ধে – কার্যত ম্যারাথন কর্মসূচি রয়েছে তাঁর। তার মধ্যে অবশ্যই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে তাঁর গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক। সেদিকেই আপাতত নজর সব মহলের। বিকেল ৪টে নাগাদ দু’জনের আলোচনায় বসার কথা। কেন্দ্র-রাজ্য সংঘাতের আবহে এই বৈঠক খুবই তাৎপর্যপূর্ণ।

যদিও দিল্লিতে প্রতিবার গেলে তিনি রাজনৈতিক নেতাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। এবারেও তার খামতি থাকবেনা।তবে তাঁর আগেও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সাথে তিনি সাক্ষাৎ সারবেন। এছাড়া জরুরি বৈঠক করবেন তিনি। চারদিনের সফরে কেন্দ্রবিরোধী জোট আরও শক্তপোক্ত করার লক্ষ্য তাঁর। এই লক্ষ্যে এগোতে একাধিক ইস্যুকে হাতিয়ার করে বিরোধী ঐক্যে শান দেবেন তৃণমূল সুপ্রিমো। সোমবার বিকেলে রাজধানীতে পা রেখেই সেই কাজ শুরু করেছেন তৃণমূল নেত্রী। মঙ্গলবার দুপুরের পর থেকে একটানা একাধিক বৈঠক রয়েছে মমতার। আর সেইদিকে নজর রাজনৈতিক মহলের।



মোদীকে দাদা ও দাদা, খোঁচা কংগ্রেসের দিগ্বিজয়ের

 এ মাসের ২৬ বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দিল্লি সফরের কথা । তার ঠিক প্রাক লগ্নে কংগ্রেস সাংসদ তথা দলের সাধারণ সম্পাদক দিগ্বিজয় সিং এক অভিনব টুইট করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে খোঁচা দিলেন । তাঁর বক্তব্য বাংলার দিদি আসছেন সুতরাং সতর্ক থাকুন দাদা । দাদা অর্থে মোদী ।
বাংলার নির্বাচনের আগে নিয়মিত মঞ্চে মঞ্চে মোদী বলতেন, দিদি ও দিদি খেলা হবে ? ওই ভাষণকে ব্যঙ্গ করে দিগ্বিজয় টুইট করেছেন, দাদা ও দাদা খেলা হবে !  ব্যঙ্গচিত্রে দেখা যাচ্ছে একটি পেট্রল পাম্পের সামনে দাপটে দাঁড়িয়ে মমতা এবং তেল দেওয়ার যন্ত্রের পিছনে লুকিয়ে আছেন মোদী । টুইটটি ভাইরাল হয়ে গিয়েছে ।

'পদ্ম সন্মান ' কে পাবেন, দেশবাসীকে বেছে নেওয়ার ভার দিলেন প্রধানমন্ত্রী

এবার দেশবাসীর কাছে পদ্ম সম্মা‌নের জন্য প্রার্থী মনোনয়নের আবেদন জানালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ৬৭ বছর আগে দেশে পদ্ম সম্মান দেওয়ার প্রথা চালু হয়েছিল। এই প্রথম দেশবাসীর হাতেই ভার তুলে দেওয়া হল মনোনয়নের। রবিবার সকালে করা এক টুইটে এই আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এদিন নিজের টুইটারে প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, ‘‘ভারতে এমন বহু প্রতিভাবান মানুষ রয়েছেন যাঁরা তৃণমূল স্তর থেকে অসাধারণ কাজ করে চলেছেন।

প্রায়শই আমরা তাঁদের অন‌েককেই দেখতে বা তাঁদের কথা শুনতে পাই না। আপনি কি এমন কাউকে চেনেন? তাহলে আপনি তাঁকে পদ্ম সম্মানের জন্য মনোনীত করতে পারেন। ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত মনোনয়ন জমা দেওয়া যাবে।’’ তাই এবার সাধারণ মানুষের ওপর এই দায়িত্ব ভার তুলে দিল প্রধানমন্ত্রী।




১৫০০ টি অক্সিজেন প্ল্যান্ট তৈরি, ঘোষণা প্রধানমন্ত্রীর

করোনার তৃতীয় ধাক্কার ভয়াবহতা কমাতে দেশজুড়ে তৈরি হচ্ছে দেড় হাজার অক্সিজেন প্লান্ট। শুক্রবার অক্সিজেন সরবরাহ নিয়ে করা রিভিউ মিটিংয়ে এমনটাই দাবি করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এদিন প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন,  এই অক্সিজেন প্ল্যান্টগুলি একত্রিত হয়ে উঠলে দেশজুড়ে একসঙ্গে ৪ লাখ রোগীকে অক্সিজেন সরবরাহ করা সম্ভব হবে. আধিকারিকদের উদ্দেশে মোদির নির্দেশ, এই প্লান্টগুলি যাতে দ্রুত কার্যকর করা সম্ভব হয়, তা নিশ্চিত করতে হবে।

করোনা দ্বিতীয় ঢেউয়ে  দেশজুড়ে অক্সিজেনের সংকট তৈরি হয়েছিল। একাধিক শহরে কমবেশি সমস্যায় পড়তে হয়েছে করোনা রোগীদের। বিশেষ করে দিল্লি এবং মহারাষ্ট্রে এই সমস্যা ছিল সবচেয়ে বেশি। তাই করোনার তৃতীয় ঢেউতে যাতে কোনোরকম সমস্যায় না পড়তে হয় তার আগেই প্রস্তুতি নিচ্ছে কেন্দ্র।






 

ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মের প্রশংসায় মোদি

করোনা অতিমারীতে লড়াই করতে একমাত্র হাতিয়ার টিকাকরণ। দেশজুড়ে ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে টিকাকরণ। দেশের বহু মানুষ ব্যবহার করছে কোউইন অ্যাপ। সোমবার সেই অ্যাপের প্রশংসা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি । পাশাপাশি  আরও ৫০টি দেশ এই প্ল্যাটফর্ম ব্যবহারের আগ্রহ প্রকাশ করেছে তিনি। কোউইন গ্লোবাল কনক্লেভে বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সেখানে তিনি জানান, “করোনা রুখতে টিকাকরণই একমাত্র হাতিয়ার।

মহামারী থেক মানবিকতাকে বাঁচানোর একমাত্র উপায়। আর তাই একদম প্রথম থেকে টিকাকরণের জন্য ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মকে ব্যবহার করছে ভারত। তিনি ও জানান, বিভিন্ন দেশ কো-উইন অ্যাপ ব্যবহারে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। তাই দ্রুত এই অ্যাপকে ‘ওপেন সোর্স’ করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।